বইমেলা হোক বা নাহোক চটপট নামিয়ে নিন রঙচঙে হাতে গরম গুরুর গাইড ।

[40520]  [40519]  [40518]  [40517]  [40516]  [40515]  [40514]  [40513]  [40512]  [40511]  [40510]  [40509]  [40508]  [40507]  [40506]  [40505]  [40504]  [40503]  [40502]  [40501]  [40500]  [40499]  [40498]  [40497]  [40496]  [40495]  [40494]  [40493]  [40492]  [40491]  [40490] 

name:  অর্জুন অভিষেক               mail:                 country:                

IP Address : 671212.72.013412.99 (*)          Date:07 Feb 2019 -- 02:16 AM


কাদম্বিনী- দ্বারকানাথের এক মেয়ে জ্যোতির্ময়ী গঙ্গোপাধ্যায়ও বেশ উল্লেখযোগ্য ব্যক্তিত্ব। শিক্ষাবিদ তো বটেই , প্লাস রাজনীতিতে সক্রিয়।

সুভাষ বসুকে একবার একটা মিছিলে পুলিসের গুলী থেকে বাঁচান। ১৯৪৫ এ আজাদ হিন্দ ফৌজের শোভা যাত্রায় পুলিশ যখন হামলা চালায় ও এক ছাত্র মারা যায়, উনি পরের দিন সেই ছাত্রের মরদেহ নিয়ে একটি শোভাযাত্রা আয়োজন করেন । ঠিক সেই সময়ে একটি মিলিটারি ট্রাক এসে তাঁকে ধাক্কা মারে আর সঙ্গে সঙ্গেই তার মৃত্যু।

জ্যোতির্ময়ীও প্রচুর লেখালেখি করেছে, যেসব নিয়ে দেজ থেকে সংকলন বেরিয়েছে।


name:  Atoz               mail:                 country:                

IP Address : 125612.141.5689.8 (*)          Date:07 Feb 2019 -- 02:09 AM

অর্জুন, এই চাবাগানে কুলি সেজে কাজ করে কুলিদের অবস্থার তথ্য সংগ্রহ --এটা নিয়ে আর একটু খোঁজ করুন তো! এরকম একটা ব্যাপার প্রফুল্লচন্দ্র সম্পর্কেও শুনেছিলাম।


name:  অর্জুন অভিষেক               mail:                 country:                

IP Address : 671212.72.013412.99 (*)          Date:07 Feb 2019 -- 02:02 AM


দ্বারকানাথের প্রথম পক্ষের কন্যা হলেন বিধুমুখী। তার সঙ্গেই উপেন্দ্রকিশোর রায়চৌধুরীর বিবাহ হয়।

মেয়েদের নিয়ে কাজ করা ছাড়াও চা বাগানের কুলীদের নিয়ে দ্বারকানাথের কাজটি বেশী ইন্টারেস্টিং লেগেছে আমার কাছে। কিন্তু ঐ The Bengalee পত্রিকাগুলো কি আর পাওয়া যাবে!!


name:  Atoz               mail:                 country:                

IP Address : 125612.141.5689.8 (*)          Date:07 Feb 2019 -- 02:01 AM

কাদম্বিনীর ভাইরাও খুব ঘনিষ্ঠ ছিলেন রায় পরিবারের। ওঁদেরও দাদামশায় বলে ডাকতেন সুকুমাররা।
কাদম্বিনীর ডাক্তারি পড়ার ক্ষেত্রে কিন্তু ডক্টর মহেন্দ্রলাল সরকারেরও ভালো প্রভাব ছিল। উনি খুব উৎসাহ দিয়ে সমর্থন দিয়ে কাদম্বিনীকে ডাক্তারি পড়ানোর ক্ষেত্রে এগিয়ে দিয়েছিলেন। অবলাকেও চেষ্টা করেছিলেন, কিন্তু অবলা নিজেই আর পড়লেন না, জগদীশকে বিয়ে করে অবলা বসু হয়ে গেলেন। বঙ্কিমচন্দ্র সেইসব ভবিষ্যদৃষ্টিতে দেখে আগেই লিখে ফেলেছিলেন, "অবলা কেন মা এত বলে?" ঃ-)


name:  অর্জুন অভিষেক               mail:                 country:                

IP Address : 671212.72.013412.99 (*)          Date:07 Feb 2019 -- 01:58 AM


লীলা মজুমদারের তথ্যটি ভুল। কাদম্বিনী বালবিধবা ছিলেন না। দ্বারকানাথই তার একমাত্র স্বামী। কাদম্বিনী প্রবাসিনী কন্যা, বোধহয় ভাগলপুরের।

লীলা মজুমদারের রিসার্চ ওয়ার্ক খুব খারাপ। উনি বিখ্যাত মরাঠী লেখিকা লীলাবতী ভার্গবকে উত্তরপ্রদেশীয় বলে উল্লেখ করেছেন। ঃ-)


name:  Atoz               mail:                 country:                

IP Address : 125612.141.5689.8 (*)          Date:07 Feb 2019 -- 01:55 AM

এই বিধুমুখীই তো উপেন্দ্রকিশোরের স্ত্রী? সুকুমারের মা। সুকুমাররা সব ভাইবোন মিলে মনে হয় ছয় সাতজন।


name:  অর্জুন অভিষেক               mail:                 country:                

IP Address : 671212.72.013412.99 (*)          Date:07 Feb 2019 -- 01:52 AM


লেখাটার লিঙ্ক এখানে দিলাম।

https://www.facebook.com/groups/1675834865971345/search/?query=%E0%A6%
A8%E0%A6%BE%20%E0%A6%9C%E0%A6%BE%E0%A6%97%E0%A6%BF%E0%A6%B2%E0%A7%87%2
0&epa=SEARCH_BOX


আমার এই লেখাটা পড়ে দ্বারকানাথের পুতি আর তার স্ত্রী যোগাযোগ করেছিল আমার সঙ্গে। ভাবছি ওঁকে নিয়ে একটু বড় করে লিখব। ওদের সঙ্গে যোগাযোগ করব।

আপনি যে পারিবারিক পরিচয়টি জানতে চাইছিলেন, দ্বারকানাথ হলেন সুকুমার রায়ের নিজের দাদামশায়।

আপনাকে আরেকটা খুব ভাল স্মৃতিকথার সন্ধান দিতে পারি। সুকুমার রায়ের মেজবোন পুন্যলতা চক্রবর্তীর 'ছেলেবেলার দিনগুলি'। চমৎকার লেখা। ঐ পরিবারের ফরম্যাটিভ ফেজের কথা অনেক জানতে পারবেন।


name:  Atoz               mail:                 country:                

IP Address : 125612.141.5689.8 (*)          Date:07 Feb 2019 -- 01:51 AM

অর্জুন,
কাদম্বিনীর প্রথম বিবাহ কবে? লীলা মজুমদারের লেখায় পড়েছি উনি বাল্যবিধবা ছিলেন। পরে দ্বারিক গাঙ্গুলির সঙ্গে বিবাহ হয়।


name:  অর্জুন অভিষেক               mail:                 country:                

IP Address : 671212.72.013412.99 (*)          Date:07 Feb 2019 -- 01:47 AM


আমার লেখাটা থেকে কয়েকটা অংশ তুলে দিচ্ছি ।

"কাদম্বিনীর সঙ্গে দ্বারকানাথের বিবাহও একটি অ্যাকসিডেন্ট। ‘বঙ্গ মহিলা বিদ্যালয়’ এ পড়বার সময় থেকেই কাদম্বিনীর অভিভাবকের মত ছিলেন দ্বারকানাথ। জেদি, মেধাবী মেয়েটি যখন ডাক্তারি পড়তে চাইল, তার বাবা, মা আশংকা প্রকাশ করলেন। ব্রাহ্মসমাজও নাক কুঁচকেছিল। এত কিছু থাকতে ডাক্তারি কেন? মেয়ে ডাক্তার কারো কল্পনাতে আসেনা। সকলের মত শখ করে ধাত্রী হবে তুমি? এর পর কি কাদম্বিনীর বিবাহ হবে? দ্বারকানাথ ততদিনে বিপত্নীক। তিনিই প্রস্তাব করলেন কাদম্বিনীকে তিনি বিবাহ করবেন। দুজনের পরস্পরের প্রতি ছিল অসীম শ্রদ্ধা। কুড়ি বছরের ব্যবধান ছিল দুজনের। দ্বারকানাথের প্রথম পক্ষের কন্যা বিধুমুখীর বয়েসই তখন পনেরো। এই বিবাহ অসীম সুখের হয়েছিল। দুজনে ছিলেন এqউঅল পর্ত্নের । শিবনাথ শাস্ত্রী একবার দ্বারকানাথের গৃহে এসে দেখেন ঘরে দরজা বন্ধ করে কাদম্বিনী পড়ায় নিমগ্ন আর দ্বারকানাথ মহানন্দে হাঁটু মুড়ে বসে মাছ কুটছেন আর তার শিশু সন্তানদের দেখভাল করছেন। দ্বারকানাথ- কাদম্বিনীর সাত সন্তান। ছোট ছোট চার সন্তানকে দ্বারকানাথের হেফাজতে রেখে কাদম্বিনী ইংল্যান্ডে বৃহত্তর ডিগ্রির জন্যে গেছিলেন দু বছরের জন্যে।"

"ব্রাহ্মসমাজের আন্দোলন নানাক্ষেত্রে প্রভাব ফেললেও তা অনেকটাই সীমিত ছিল উচ্চবর্গীয় সমাজের মধ্যে। কিন্তু দ্বারকানাথ সমাজের বিভিন্ন স্তরে পৌঁছতে সচেষ্ট হয়েছিলেন। ভারতীয় কুলী আন্দোলনে দ্বারকানাথ গঙ্গোপাধ্যায়ের অগ্রণী ভূমিকা ছিল। রামকুমার বিদ্যারত্ন সাধারণ ব্রাহ্মসমাজের প্রচারক হয়ে অসম প্রদেশে যাত্রা করেন। রামকুমার সেখানে গিয়ে চা বাগানের কুলীদের, বাগান মালিকদের হাতে অমানবিক অত্যাচারের সঙ্গে পরিচিত হন। তিনি সেই নিয়ে পত্রিকায় লেখালেখি শুরু করেন। সেই সব লেখা প্রকাশ পেল তখনকার বহুলপ্রচারিত ‘সঞ্জীবনী’ পত্রিকায়। রামকুমার পরে লেখাটি বই আকারে বেরোলে তিনি সেটি দ্বারকানাথকে উৎসর্গ করেন। রামকুমারের বইটি তাকে এতই নাড়া দেয় যে তিনি নিজেই অসমে চলে গেলেন । চা বাগানে গিয়ে কুলীদের সঙ্গে থেকে, প্রয়োজনে কুলীর ছদ্মবেশে বাগানের বিভিন্ন জায়গায় লুকিয়ে থেকে তিনি গোটা ঘটনার তদন্ত করে সব তথ্য সংগ্রহ করেন। কলকাতায় ফিরেই তিনি সুরেন্দ্রনাথ বন্দ্যোপাধ্যায় সম্পাদিত ‘The Bengalee’ জার্নালে ‘Slave Trade in Assam’ শিরোনাম দিয়ে তেরোটি প্রবন্ধ প্রকাশ করেন। The Bengalee পত্রিকার পাশাপাশি এই সময়ে দ্বারকানাথ 'সঞ্জীবনী' পত্রিকায় 'আসামে লেগ্রির সন্তান' নামে বাংলায় একটি ধারাবাহিক লেখেন।"






name:  অর্জুন অভিষেক               mail:                 country:                

IP Address : 671212.72.013412.99 (*)          Date:07 Feb 2019 -- 01:43 AM


@আতজ, দ্বারিক গাঙ্গুলিকে নিয়ে একটা ফেসবুক ব্লগে লিখেছিলাম ওঁর এ বছর ১৭৫ বছর। তথ্য জোগাড় করতে গিয়ে দেখি দারুণ সব কাজ করেছিলেন তিনি। লেখাটার লিঙ্ক দিলাম।

'না জাগিলে সব ভারত ললনা ,
এ ভারত আর জাগে না জাগে না ।'

'অবলাবান্ধব' যখন প্রথম প্রকাশ করেন ১৮৬৯ তখনও তিনি ব্রাহ্মধর্ম গ্রহণ করেননি। 'অবলাবান্ধব' পড়ে ব্রাহ্মসমাজ তাকে একটি বক্তৃতা দিতে কলকাতায় আমন্ত্রণ করে। দ্বারকানাথ ঢাকার লোক। পো পত্রিকায় ব্রাহ্মণ সম্প্রদায়ের মধ্যে কুলীন ব্রাহ্মণদের মধ্যে বহুবিবাহ প্রথার বিরুদ্ধে তীব্র প্রতিবাদ আনা হয়, সঙ্গে স্ত্রী শিক্ষা। 'অবলাবান্ধব' পুরোটা না ঘেঁটে বলতে পারছিনা।






    পরের পাতা         আগের পাতা
**এই বিভাগের কোনো মন্তব্যের জন্যই এই সাইট দায়ী নয়৷ যে যা মন্তব্য করছেন, তা ব্যবহারকারীদের ব্যক্তিগত মতামত৷ গুরুচন্ডালি সাইটের বক্তব্য নয়৷