এই সাইটটি বার পঠিত
ভাটিয়ালি | টইপত্তর | বুলবুলভাজা | হরিদাস পাল | খেরোর খাতা | বই
  • টইপত্তর  অন্যান্য

  • তৃণমুলী পরিবর্তনকামী বুদ্ধিজীবিদের ভূমিকা

    mousumi mukherjee
    অন্যান্য | ০৬ অক্টোবর ২০০৯ | ১১২৬৩১ বার পঠিত | রেটিং ৪ (১ জন)
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • pinaki | 131.151.102.250 | ০৬ নভেম্বর ২০০৯ ০৯:৫০421144
  • উফ্‌ফ। ফুল ঘেঁটে গেছি।
  • dipu | 207.179.11.216 | ০৬ নভেম্বর ২০০৯ ০৯:৫৪421145
  • আলোচনায় ক, খ এর পরিবর্তে A, B এর ব্যবহার লক্ষ্যণীয়।
  • rimi | 24.42.203.194 | ০৬ নভেম্বর ২০০৯ ১০:০২421146
  • পাই!!!!!!

    B থেকে A কে নিয়ে আসা মানে কি আবার? এইবার আমিও ঘেঁটে গেলাম।

    A একটা সেট, B আরেকটা, এদের আলাদা করে ডিফাইন করা হয়েছে, কাউকে কারুর থেকে derive করা হয় নি!!

    A সত্য হইলে B সত্য হইবে - আমি শুধু এটাই বলেছি। একেবারে বেসিক সেট থিয়োরী, এর মধ্যে অতীত ভবিষ্যতের কোনো গল্প নেই। সেটদুটো এমন ভাবে ডিফাইন করা হয়েছে যে এদের মধ্যে সম্পর্ক টা এরকম - B সত্য হলেও A সত্য নাও হতে পারে। ইন্তু A সত্য হলে B সত্য হবেই। সেট থিয়োরীতে এরকম সম্পর্ক্কওয়ালা দুটো সেটের একটাকে অপরের সাবসেট বলা হয়।

    কোনটা সত্যি হোক বলে আমি ভবিষ্যৎবাণী করলাম, আর কোনটা তুমি চাইলে সেসবের উপরে A আর B এর সম্পর্ক নির্ভর করে না।
  • Arpan | 204.138.240.254 | ০৬ নভেম্বর ২০০৯ ১০:০৬421147
  • PT-এর পোস্ট পুরো মাথার উপর দিয়ে গেল। চায়না ও ইন্দোনেশিয়া ব্রিটেনের কলোনি ছিল না। তারা দ্রুত ও দক্ষতার সাথে ইংরেজি ভাষাটিকে রপ্ত করেছে?
  • rimi | 24.42.203.194 | ০৬ নভেম্বর ২০০৯ ১০:১২421148
  • পিটির পোস্ট আমারও বেশ ট্যান গেল। ইংরিজি এবং বাংলা মেশানো জগাখিচুড়ি ভাষা শুধু উচ্চশিক্ষিত বাঙালীর সন্তান নয়, উচ্চশিক্ষিত বাঙালী নিজেরাও বলে। পিটির নিজের পোস্টগুলো ই উদাহরণ হিসেবে দ্রষ্টব্য।
  • aka | 24.42.203.194 | ০৬ নভেম্বর ২০০৯ ১০:১৩421149
  • ঈশান,

    ১। ৮০% লোকের বিদ্যুত না থাকলে বাকি ২০ শতাংশেরও বিদ্যুতের তার কেটে দেব? না বাকি ৮০% লোককেও বিদ্যুত দেবার বন্দোবস্ত করব? এই যুক্তিটা একেবারেই বুঝতে পারলাম না। (এখানে অ্যাকচুয়াল নাম্বার ইরেলেভেন্ট) এখানে কত শতাংশ লোক ইংরিজিতে শিক্ষিত বা কত শতাংশ নয় সেটা প্রশ্নই নয়। ইংরিজি ভাষা জ্ঞান না থাকলে তার এফেক্ট কি কি সেটা নিয়ে। আমার মতে হ্যাঁ ঐ ৮০ শতাংশ লোককেও ইংরিজি শেখানো উচিত। খচ্চা নিয়ে কথা হল তো। হাজার হাজার বই হাজার হাজার ভাষায় অনুবাদ করা সম্ভব নয়। আর করবই বা কেন? পেছনে হাঁটব শুধু এই ইমোশনের জন্য যে ইংরেজরা কোন এক সময়ে ভারতে রাজত্ব করেছিল? এই যুক্তিটা খ্যাও ম্যাও কিছুই নয় পাতি ক্যাও।

    ২। যেটাকে তুমি বলছ প্রভু ভৃত্যের সম্পর্ক যার প্রতিবাদ করতে বিদ্যাসাগর জুতো তুলেছিলেন তার থেকে পৃথিবী অনেক এগিয়ে গেছে। অমর্ত্য সেনের ডিভোর্স হয়েছে, বুদ্ধবাবুর বেস্ট ফ্রেন্ড হল রতন টাটা, মমতার মঞ্চে ধর্ণায় বসে আতিবামেরা। সময় বদলায়, সম্পর্ক বদলায়, বদলে যাওয়ার সাথে মানিয়ে নিতে হয়। কবে ইংরেজরা আমাদের দেশে ছিল সেই ইমোশনে আমি ইংরিজি বলব না, বুঝব না, লিখব না ইত্যাদি স্রেফ আবেগ। কারণ সেই প্রভু ভৃত্যের সম্পর্ক নেই।

    Linguistics professor David Crystal calculates that non-native speakers now outnumber native speakers by a ratio of 3 to 1

    ইন ফ্যাক্ট যতদিন যাচ্ছে ততদিনে ইংরিজির বিভিন্ন শেডগুলোও মর্যাদা পাচ্ছে। আর অন্যান্য কারণ আরও আছে। কিন্তু বিশদে আলোচনার বোধহয় দরকার নেই। শুধু কোন ভাষায় কথা বলব তাই দিয়ে প্রভু ভৃত্যের সম্পর্ক তৈরি হয় না।

    তাই আবেগ সর্বস্ব কথা নয় কেন ইংরিজি শ্রেষ্ঠ নয় সেই কথা বল, আমি উল্টোটা অনেকবার বলেছি।

    অক্ষ,

    উইকির যে লিংকটা দিয়েছিলে সেখানেই আছে

    Approximately 375 million people speak English as their first language.[28] English today is probably the third largest language by number of native speakers, after Mandarin Chinese and Spanish.[29][30] However, when combining native and non-native speakers it is probably the most commonly spoken language in the world, though possibly second to a combination of the Chinese languages (depending on whether or not distinctions in the latter are classified as "languages" or "dialects").[6][31]


    পিটি,

    আপনি বারবার এই ইওরোপিয়ান ইউনিয়নের উদাহরণ দিচ্ছেন। একটু বিশদে বলুন তো ওখানকার কারিকুলামটা কেমন? আর কে বলল এই দেশগুলো ভারতীয়দের থেকে ইংরিজিতে বেটার? ওরা পড়ে বলেই বেটার এমন ধরে নিচ্ছেন কেন?
  • Ishan | 173.26.17.106 | ০৬ নভেম্বর ২০০৯ ১০:২২421150
  • আম্মো বলে নিই। :)

    রাজশেখর বসুর লেখাকে অল্টারনেটিভ মডেল ধরে নিয়ে কেউ সমালোচনা করেনি (মানে আমার রেফারেন্সের কেউ করেননি)। বিদ্যাসাগরের ঠ্যাং তোলাকেও অল্টারনেটিভ মডেল ধরা হয়নি। এই গপ্পোগুলো আসলে উপকথায় পরিণত হয়েছে। সেই উপকথাগুলিকে বিভিন্ন জায়গায় নানাভাবে রিপ্রেজেন্ট করা হয়। সেই উপস্থাপনের একটা প্যাটার্ন আছে। উদাহরণস্বরূপ, বাংলায় উচ্চশিক্ষার প্রসঙ্গ এলেই উচ্চশিক্ষিত বাঙালি খিল্লির উপকরণ হিসেবে রাজশেখর বসুর এই গপ্পোটিকে ব্যবহার করেন। অ্যাজ ইফ এটা একটা অল্টারনেটিভ মডেল। এব, খিল্লিযোগ্য। এই উপস্থাপনার ধরণটি নিয়েই আলোচনা করা হয়েছে।

    বাংলা ভাষায় শিক্ষা নিয়ে এরকম কিছু খিল্লি আমাদের পরিচিত। যেমন, পরিভাষার জটিলতা। বাংলার পদার্থবিদ্যা পড়ার প্রশ্ন এলেই জনতা বলে থাকেন, "বাংলায় ফিজিক্স? হাইড্রোস্ট্যাটিক্সকে বাংলায় কি যেন বলে? উদস্থৈতিক কূট না কি? খ্যা খ্যা খ্যা...' ... যেন উদস্থিতিবিদ্যার চেয়ে হাইড্রোস্ট্যাটিক্স বাঙালির জিভের পক্ষে একটি কম কঠিন শব্দ।

    লক্ষ্যণীয়, যাঁরা এই খিল্লিগুলি করে থাক্কেন, তাঁরা রাজশেখর বসু নন। উদস্থিতিবিদ্যা শব্দটির জনকও নন। কিন্তু এগুলি ব্যবহৃত হয় উপকথা বা আপ্তবাক্যের ধরণে। শিক্ষিত সমাজ জুড়ে। যাঁরা করেন, তাঁরা একটি কলোনিজনিত অন্ধবিশ্বাসের স্বীকার। কেন বাংলায় শিক্ষা সম্ভব নয়, তা নিয়ে তাঁরা কোনো যুক্তি দেননা। বা দেবার চেষ্টা করেন না। তাঁরা একটি উপকথায় বিশ্বাস করেন। তাঁরা একটি সংস্কারে বিশ্বাস করেন। তাঁরা কলোনিপ্রভু নামক একটি ঈশ্বরে বিশ্বাস করেন।

    রাজশেখর বসুর নয়, সমালোচনাটি বা সমালোচগুলি এই ঈশ্বরবিশ্বাসের। যাকে ইঙি্‌জরিতে খ্যাও বলে। :)

  • Arijit | 61.95.144.122 | ০৬ নভেম্বর ২০০৯ ১০:৩২421151
  • উলটপুরাণ "পরশুরাম'-এর লেখা। রাজশেখর বসু-র নয়। যেটা যার লেখা সেভাবে বলতে হবে;-)

    ক্লুলেস ফেলে তক্কো কচ্চে - বুউউউউকা।
  • Ishan | 173.26.17.106 | ০৬ নভেম্বর ২০০৯ ১০:৩৮421152
  • আজ্জো।

    ১। খচ্চা নিয়ে কথা হল তো। অনুবাদ করতে অনেক কম খরচা। আর শেখাতে অনেক অনেক অনেক অনেক বেশি। সেটা কোত্থেকে আসবে বোঝা গেলনা। হাজার হাজার বই অনুবাদ করা সম্ভব নয় কেন, সেটাও বোঝা গেলনা। এইগুলো আগে বোঝা দরকার।

    ২। ইংরেজরা আমাদের দেশে ছিল এটা কোনো ইমোশনই নয়। আমার অন্তত: কোনো ইমোশন নেই। আমি আমার ভাষায় কথা বলব, কাজ করব, পড়াশুনো করব, এর সঙ্গে অন্য কোনো ইমোশনের কোনো সম্পর্কই নেই। এটা এমনিই একটা স্বয়ংসম্পূর্ণ দাবী। আমার নিজের ভাষায় উচ্চশিক্ষা হবেনা বললে কেন হবেনা সেটা প্রমাণ করার দায় বক্তার, আমার নয়।
  • Ishan | 173.26.17.106 | ০৬ নভেম্বর ২০০৯ ১০:৩৯421154
  • এবং রিমি সময় নষ্ট করে আবার তক্কো করছে। ছি। :)
  • Arpan | 216.52.215.232 | ০৬ নভেম্বর ২০০৯ ১০:৪৪421155
  • ইসে, উদস্থৈতিক কূট সত্যি ভজঘট।
  • dipu | 207.179.11.216 | ০৬ নভেম্বর ২০০৯ ১০:৪৮421156
  • অমূল্যভূষণের জীবন বিজ্ঞান বই থেকে কিছু অংশ টুকে দেওয়ার জন্য আমার হাত নিশপিশ করছে :-)
  • b | 203.199.255.110 | ০৬ নভেম্বর ২০০৯ ১০:৪৯421157
  • উদস্থৈতিক কূট= hydrostatics paradox
  • Ishan | 173.26.17.106 | ০৬ নভেম্বর ২০০৯ ১০:৫৮421158
  • ভজকট তো বটেই। কিন্তু যে এই দুটোর কোনোটাই জানেনা তাকে জিজ্ঞাসা করুন হাইড্রোস্ট্যাটিক প্যারডক্স আর উদস্থৈতিক কূট কোনটা বেশি ভজকট, সে দুটোকেই কাছাকাছি নম্বর দেবে (আমি ছেলেবেলায় এই এক্ষপেরিমেন্টটি করেছি)। আমাদের যে ইংরিজিটা শুনে কম ভজকট লাগে তার কারণ অভ্যাস। আর কিচ্ছু না। অভ্যাস না থাকলে মুখ্যমন্ত্রী রাজ্যপাল জনগণতান্ত্রিক বিপ্লব, সবই এরকম ভজকটই লাগত।

    ডি: আমি উদস্থিতিক কূটকে কোনো স্ট্যান্ডার্ড হিসেবে দাঁড় করাতে চাই না। আমি বাংলা হোক বা ইংরিজি, পরিভাষাকে সহজ করারই পক্ষে। এটা জাস্ট তুলনামূলক আলোচনার জন্য বললাম।
  • PT | 203.110.243.21 | ০৬ নভেম্বর ২০০৯ ১১:০৯421159
  • @ rimi

    দয়া করুন। এই ফোরামে ব্যক্তিগত আক্রমন করে কলুষিত করবেন না। আমি কতটা বাংলা জানি বা জানিনা সেটা আপনি জানেন না।

    @ aka

    quality-র কথা ছেড়ে দিন। quantity-টাই ভাবুন। সেটা ভারতের ঐ ২%-এর সঙ্গে তুলনা করুন। যদি একজন সুইডিশ বাসচালক এক বিদেশির সঙ্গে ইংরিজিতে কথা বলতে পারে তাহলে আমাদের মেনে নিতে হবে যে আমরা যেটা অনেক তক্কাতক্কি করে করতে পারিনি সেটা ওরা করে দেখিয়েছে। ঠিককরে শেখালে ভাষাটি অনেককেই অনেককম সময়েই শিখিয়ে দেয়া যায়।

    অবশ্য আমার বিশ্বাস যে এটার সঙ্গে সমাজ বা দেশটা কতটা egalitarian তার একটা ঘনিষ্ঠ যোগাযোগ আছে। যেমন ধরুন একটা কথা বলার ভাষা শেখাতে গেলে প্রতিটি ছাত্রকে হেডফোন দিতে হবে। সে জায়গাতে পৌঁছতে ভারতবর্ষের কত শতক সময় লাগবে কে জানে।

    সেইজন্যে আমার অভিমত এই যে একসময় যেমন দেবভাষা বলে বেশীরভাগ মানুষকে সংস্কৃত শিখতে দেওয়া হতনা সেই একই কারণে ভারতবর্ষে কোনদিনই ঠিকভাবে ইংরিজি শেখানো হবেনা। স্বাধীনতার ষাট বছর পরে মাত্র ২% ভারতীয়র ঠিকঠিক ইংরিজি লিখতে পারার (৯৮% পারেনা!!) তথ্যটি সেই তত্বটিকেই প্রমান করে।
  • pinaki | 131.151.102.250 | ০৬ নভেম্বর ২০০৯ ১১:১৪421160
  • আমার চাইনিজ ল্যাবমেট (ইউএসএ তে পিএইচডি রত) এখনও, দুবছর এখানে কাটানোর পরেও কোনও ব্যাপারে কন্সেপ্ট ঝালানোর দরকার হলে চাইনিজ ভাষায় লেখা বই থেকে পড়ে নেয়, চাইনিজ ওয়েবসাইট ঘাঁটে। চায়নার আভ্যন্তরীণ গবেষণা পুরোটাই চাইনিজ ভাষায় হয়। পেপার পাবলিকেশন ইত্যাদি সবই। ইউএসএ তে যেকটি ভালো টেকনিক্যাল বই বাজারে চলে (আমাদের ফিল্ডে) প্রায় সবগুলোরই চাইনিজ অনুবাদ বা সমতুল চাইনিজ ভাষায় লেখা বই আছে। মানে মার্কেটে নতুন কিছু কনসেপ্ট ইউএসএ তে নামলে, খুব সামান্য সময়ের মধ্যে চাইনিজ ভাষায় তা নেমে যায় চায়নায়। অধিকাংশ সময়ে যদিও কপিরাইট ভায়োলেট করে, কিন্তু অনুকরণের দ্রুততা দেখলে মাথা খারাপ হয়ে যাবে। আমাদের পক্ষে কল্পনাই করা সম্ভব নয়।

    কমিউনিকেশনের জন্যে একটা গ্লোবাল ল্যাঙ্গুয়েজ থাকতেই পারে। কিন্তু সেটার ভূমিকা যদি শুধু আন্তর্জাতিক কমিউনিকেশন হয়, সেটুকু যেকোনও বয়েসে শেখা যায়। আমার চাইনিজ ল্যাবমেটটি এখানে পিএইচডি করতে করতে ইংরিজিতে (পেপার) লেখা শিখছে। তাতে একটু মেহনত করতে হচ্ছে হয়তো, কিন্তু তাতে কি যায় আসে? আমেরিকানদের মত ইংরিজি বলতে ও কোনওদিনও পারবে না। কিন্তু কাজ চালানোর মত পারে। তাই দিয়ে এখানে চাকরি পেতেও ওর কোনও অসুবিধে হবে না।
  • aka | 24.42.203.194 | ০৬ নভেম্বর ২০০৯ ১১:২৩421161
  • পিটি % দিয়ে কোয়ান্টিটি মাপলেন?

    ঈশান খরচার কথা যা হল তাতে আমি দেখেছি অনুবাদের খরচ এক তো বেশি দুই বাঁদরের তৈলাক্ত বাঁশের প্রোজেক্ট, কোনদিন শেষ হবার নয়। সেটার বিশদ প্রোজেক্ট প্ল্যান না পেলে বলাই সম্ভব নয় কি করে সেটা আদৌ ফিজিবল বলে ধরা হচ্ছে?

    দুই তুমি ব্যক্তি হিসেবে কি চাও সেটা কথা নয়। তুমি একটা সিস্টেমকে আইডিয়াল বলে দাবী করেছ। সেই সিস্টেম কিভাবে আইডিয়াল সেটা প্রমাণ করার দায় তোমার।
  • PT | 203.110.243.21 | ০৬ নভেম্বর ২০০৯ ১১:৩০421162
  • @ Arpan

    দয়া করে Pinaki-র তথ্যটি দেখুন। ইন্দোনেশিয়ার কথা জানিনা কিন্তু চীনেরা ইংরিজি শেখান না শেখানর জটিলতায় না ঢুকে সহজতম রাস্তাটি বেছে নিয়েছে। শেখার মাধ্যমটির থেকে কোনো বিষয় শেখাটা বেশী জরুরী এটা আমরা এখন বুঝে উঠতে পারিনি।
  • Arpan | 216.52.215.232 | ০৬ নভেম্বর ২০০৯ ১১:৪১421163
  • তা দিয়ে তো গবেষণা হল। আইটি বা আইটি এনাবলড সার্ভিস আউটসোর্সিঙের কাজ কী করে হবে?
  • rimi | 24.42.203.194 | ০৬ নভেম্বর ২০০৯ ১১:৪৫421165
  • আমেরিকায় অধ্যাপনার চাকরী পেতে বেশ অসুবিধে হবে। চাকরী পাওয়া গেলেও পরবর্তীকালে ভালো টিচিং ইভ্যালুয়েশন পেতেও অসুবিধে হবে।

    পিনাকী, জব মার্কেটে যখন তুমি বা তোমার বন্ধু যাবে, তখনকার অভিজ্ঞতার কথা জানিয়ো।
  • Arpan | 204.138.240.254 | ০৬ নভেম্বর ২০০৯ ১১:৪৯421166
  • আর ২%-এর তথ্য কোথা থেকে আসছে জানি না। উইকি তো ১০% বলছে।
  • aka | 24.42.203.194 | ০৬ নভেম্বর ২০০৯ ১১:৫৫421167
  • হ্যাঁ ২% তো নয়। ঠিকই।

    চীনে যতদূর জানি ইংরিজি কারিকুলামে প্রবল ভাবে এসেছে। নেক্সট জেনারেশন চাইনিজরা ইংরিজি শিক্ষিত হবে। এখনি কোন লিংক দিতে পারছি না।

    জাপানে সরকারী ডে কেয়ারে ইভেন তিন বছরের বাচ্ছাকেও A,B,C শেখানো হয়।
  • PT | 203.110.246.230 | ০৬ নভেম্বর ২০০৯ ১২:০৩421168
  • @ Arpan আর aka

    The truth is, only 2% Indians know a smattering of English. Of these an even smaller percent knows how to write English properly. But since India is a populous country even this fractional percentage adds up to lakhs of people, if not millions. But given the size of our population, even these millions are like drops in the ocean.
    http://jaihindimagazine.blogspot.com/2009/04/indians-cant-write-proper
    -english.html


    ১০% না ২% কোনটা সঠিক সেটা অবিশ্যি আমার জানা নেই।
  • aka | 24.42.203.194 | ০৬ নভেম্বর ২০০৯ ১২:০৫421169
  • ব্লগের থেকে উইকি বেশি রিলায়বল। ওটাই বিশ্বাস করুন। আর যে পত্রিকার নাম জয় হিন্দি তার ওপর বিশেষ বিশ্বাস না রাখাই ভালো। আমরা বাঙালীরাও এরকম কথাবার্তা বলে থাকে।
  • lcm | 69.236.169.24 | ০৬ নভেম্বর ২০০৯ ১২:১১421170
  • PT, কাইন্ডলি একটু ৩১নং পাতায় আমার
    05 Nov 2009 -- 11:47 PM পোস্ট-টা দেখবেন।
    এই দুনিয়াই যারা জীবিকার সন্ধানে ঘুরছেন তারা সবাই পিএইচডি নন।
  • Arpan | 204.138.240.254 | ০৬ নভেম্বর ২০০৯ ১৩:০৬421171
  • ঈশান আমার জন্য কিছু বক্তব্য রেখেছিল। সময়ের অভাবে কাল উত্তর দেওয়া হয়নি। এখনো বিশদে দিচ্ছি না। কারণ যা বলব সবই রেটোরিকের মতন শোনাবে। :)

    ১। প্রশাসনিক কাজ ও উচ্চশিক্ষার মাধ্যম এই দুইটি সম্পূর্ণ বিভিন্ন বিষয়। প্রশাসনিক কাজে ফতোয়া দিয়ে ইংরেজির পাশাপাশি বাংলা শুরু হোক না। কে বা কোন স্বার্থান্বেষীরা সেটা আটকে রেখেছে?

    ২। উচ্চশিক্ষায় ইংরেজির পাশাপাশি বাংলাকেও মাধ্যম হিসেবে ভাবা শুরু হোক। অনুবাদ-টনুবাদ যা লাগে দরকার হলে চাইনিজ উপদেষ্টা নিয়োগ করে স্যাটাস্যাট করে ফেলা হোক। কিন্তু লোকের কাছে ইংরেজি আর বাংলা দুটোতেই শিক্ষাগ্রহণের, পেপার লেখাটেখা ইত্যাদির সুযোগ থাকুক। যে যেটা খুশি বেছে নেবে। কিন্তু নো ফতোয়া জারি। আমি আমার জন্য যেটা উচিত মনে হবে সেটা বেছে নেবো।

    ব্যস।
  • Arpan | 204.138.240.254 | ০৬ নভেম্বর ২০০৯ ১৩:০৮421172
  • ** ইংরেজির বদলে বাংলা (পয়েন নং ১)
  • pinaki | 131.151.102.250 | ০৬ নভেম্বর ২০০৯ ১৩:১৪421173
  • আসলে কল সেন্টার, বা আইটি র যেসব কাজে গ্লোবাল কমিউনিকেশন বেশী লাগে সেগুলোর জন্যে একটা কমন ভাষার প্রয়োজন আছে। চায়নায় এখন প্রচুর স্পোকেন ইংলিশের কোর্স চালু হয়েছে। কিন্তু মাথায় রাখতে হতে সেগুলো সবই স্পোকেন ইংলিশের কোর্স। উদ্দেশ্য দুটো। এই কল সেন্টার বা আইটিইএস জাতীয় কাজ পাওয়া। দ্বিতীয় হল, এখন চায়নার যুব সম্প্রদায়ের একটা বড় অংশ বিদেশে, বিশেষত: আমেরিকাতে কেরিয়ার করতে চায়। দেশে থাকতে চায় না। কারণটা মূলত: সেখানকার সরকারের স্বৈরতান্ত্রিক মনোভাব, আভ্যন্তরীণ গণতন্ত্রের বেহাল অবস্থা আর সরকারী মদতে স্বজনপোষণ। আমার চাইনিজ ল্যাবমেটের মতে ওদের দেশে সমস্ত উচ্চপদে সরকারী কর্তাব্যক্তিদের সাথে যোগাযোগ আছে এমন লোকজনই কেবল সুযোগ পায়। ভয়াবহ কোরাপশন। তো এই সব কারণে যারা আমেরিকায় সেট্‌ল করতে চায়, তাদের একটা পরিমাণ ইংরিজি জানতেই হচ্ছে।

    আমার বলার উদ্দেশ্য হল, চায়নায় এই ইংরেজি শেখার বাড়বাড়ন্তকে এভাবে দেখলে ভুল হবে যে ওরা ঠেকে শিখেছে যে ইংরিজি ছাড়া গতি নেই। বরং ওরা যে সময়টা জুড়ে বুম করেছে, সুপার পাওয়ার হয়েছে, সেসময়টা ইংরিজি ছাড়াই দিব্যি চালিয়েছে। একই কথা জাপানের বেলায় খাটে। কনফারেন্স গুলোয় দেখি জাপানিজ গুলোর ইংরিজি বলা কি প্যাথেটিক। কিন্তু তার জন্যে জাপানের উন্নতি আটকেছে কি?

    তাই গ্লোবাল কমিউনিকেশনের একটা কমন মাধ্যম হিসেবে ইংরিজিকে দেখা যেতেই পারে, কিন্তু সেটাকে একটা দেশের উন্নতির অপরিহার্য অঙ্গ - এরকম ভেবে বসলে সেটা মনে হয় ঠিক নয়।
  • lcm | 69.236.169.24 | ০৬ নভেম্বর ২০০৯ ১৩:২১421174
  • ভারতে ইংরেজি শেখার প্রয়োজনীয়তা আমেরিকা গিয়ে পিএইচডি বা আইটি চাকরি করার জন্য নয়। জাস্ট ভারতেও অন্য একটা প্রভিন্সে গিয়ে কাজ করতে গেলে ইংরেজি জানলে সুবিধে হয়। নিজের রাজ্যেও হয়। ন্যাশনাল লেভেলে রিটেন কম্যুনিকেশন ল্যাঙ্গুয়েজ তো ইংরেজিই।
  • PT | 203.110.246.230 | ০৬ নভেম্বর ২০০৯ ১৩:৩১421176
  • @ lcm

    এই খবরটি থেকে যা জানতে পারছি না তা হল:

    ১। এই ছেলেটি কি উচ্চমাধ্যমিকে ইংরিজি পড়েনি?

    ২। B.A. পড়ার সময় কি কি বিষয় পড়েছিল? কেউ chemistry বা physics Hons. নিয়ে পড়লে তাকে যেমন পাস subject হিসেবে physics/maths বা chemistry/maths নিতে হয় সেভাবে এই ছেলেটি কি ইংরিজি পড়েনি?

    ৩। All the English he learnt in life was in the last five years of school-এই বাক্যটির clarification দরকার। তার মানে সে H.S., B.A. এবং M.A.- প্রথম বছর এই ৬ বছর ইংরিজি পড়েনি?

    ৪। সরকারি সিদ্ধান্তকে সমর্থন করার ইচ্ছা বা কারণ কোনটাই আমার নেই। তবু জানতে ইচ্ছে করছে যে H.S. বা B.A. লেভেলেও সরকার থেকে ইংরিজি পড়ান নিষিদ্ধ করা হয়েছিল কিনা?

    সব শেষে আবার বলি যে শেখানর পদ্ধতি ঠিক থাকলে দুবছরে একটা ভাষা শিখিয়ে দেওয়া যায়। এতে বামপন্থী-ডানপন্থী কিছু নেই। কেননা আমার সময়ে বা তারো আগে যারা ১১ বছর ধরে বাংলা মাধ্যম স্কুলে ইংরিজি শিখেছে তারা বেশীরভাগই স্কুল পাস করে ইংরিজিতে কথা বলতে পারত না।
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]


মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত
পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। লাজুক না হয়ে মতামত দিন