এই সাইটটি বার পঠিত
ভাটিয়ালি | টইপত্তর | বুলবুলভাজা | হরিদাস পাল | খেরোর খাতা | বই
  • খেরোর খাতা

  • সারমাদ

    upal mukhopadhyay লেখকের গ্রাহক হোন
    ১১ জুন ২০২৪ | ১৯১ বার পঠিত | রেটিং ৫ (১ জন)
  • Depiction of Sarmad Kashani, courtesy of the Walters Art Museum.
    দারা শুকোহর সঙ্গে সারমাদ কাশানি 
     
    দারার ঘনিষ্ঠরা একে একে সবাই সালতানাতের তাকতের কাছে মাথা নুইয়েছিলেন। শুধু নগ্ন সুফি সাধক কবি, সমকামী সারমাদ কাশানি আলামগীর বাদশাহের প্রতাপে ডরান না। তিনি সোচ্চারে দারার পক্ষে ছিলেন। এখনও তেমনি বেপরোয়া, বলেন, ‘ইহ জগতে ঔরঙ্গজেব বাদশাহ হতে পারেন কিন্তু ওপারে দারাই রাজা।’ সেটা নাকি আবার বাদশাহের মুখের ওপর বলেছিলেন। ঔরঙ্গজেব প্রশ্ন করলেন, কেন সারমাদের নগ্নতা শরিয়ত বিরোধিতা নয়? সারমাদ উত্তর দিচ্ছেন, ''আপনার সালতানাত যিনি রক্ষা করেন, তিনিই যত ভোগা দেন আমায়। যাদের আছে দোষের বিকার, তিনি তাদের দেন পোশাক আর যাদের নেই তাদের নগ্নতা।''

    আর্মেনিয়ায় জন্মসূত্রে ইহুদি সারমাদপারস্যে পড়াশোনা করে মুসলিম হন, ষোলোশো বত্তিরিশে প্রথমে থাট্টায় এসেছিলেন জলপথে, সেখানে হিন্দু ব্যবসায়ী পরিবারের অভয়চাঁদের সঙ্গে সম্পর্কে লিপ্ত হয়েছেন। তারপর দুজনে ঘরের মায়া ছেড়ে ঘুরতে ঘুরতে ষোলোশো পঞ্চাশের প্রথমে শাজাহানাবাদে আসেন। শহরের প্রচুর গরিবগুরবো মানুষ থেকে দারার মতো শাহী পরিবারের লোকজন, সবাই সারমাদের মুরিদ বনে যায়, তাঁর কথা আর কাব্বি শোনে। তাই যতই দারাপন্থী হন না কেন সারমাদের কোন ক্ষতি করে ক্যাঁচাল বাঁধাতে চাইছিলেন না ঔরঙ্গজেব। উলেমাদের লাগালেন সারমাদের খুঁত বার করতে। লক্ষণীয়, সেসময় সমকামিতা প্রশ্নের মুখে পড়ছে না। তিমুরিদ ঐতিহ্যেও সমকামিতার উদাহরণ হলেন বাবর। তিনি বাবারনামাতে বাবরি নামের এক সুন্দর পুরুষের প্রতি তাঁর কামনাঘন আকর্ষণের কথা বলেছেন। তাই আলমগীরকে সারমাদের সমকামিতা মানতে হচ্ছে। উলেমারাও এ নিয়ে বলছেন না।

    কলমার পুরো কথাটা হল লা ইলাহা ইল্লালাহ মুহাম্মাদুর রাসুলুল্লাহ - কোন ঈশ্বর নেই আল্লাহ ছাড়া, মুহম্মদ আল্লাহের রাসুল – বার্তাবহ। কিন্তু সারমাদ এখানেও গোল পাকান। তিনি পুরো কলমা পড়েন না। উলেমারা এই বিষয়টা ধরলেন। তাঁরা জিজ্ঞাসা করেন যে সারমাদ কেন লা ইলাহা -কোন ঈশ্বর নেই শুধু বলেন, বাক্যের বাকি অংশ ইল্লালাহ মুহাম্মাদুর রাসুলুল্লাহ - আল্লাহ ছাড়া, মুহম্মদ আল্লাহের রাসুল – বার্তাবহ এই অংশটা উচ্চারণ করেন না কেন? উত্তরে সারমাদ বললেন, '’আমি এখনো প্রথম অংশটার বহু ঈশ্বরের অনস্তিত্ব বিশ্বাসে মজে আছি। বাকিটা এখনো বুঝিনি, তাই পুরোটা বলে মিথ্যাচার করি কী করে।'' একে বেয়াড়া, তায় দারার হয়ে বলে বেড়ায় এ নগ্ন সাধক, তাই উলেমার বিচারে অবিশ্বাসী বলে তাঁর শর কালাম করা হল। আকিল খান রাজি ঔরঙ্গজেবের তখতে বসার তিন বছর বাদে ১৬৬১ সালের কোন সময় সাধক সারমাদের মৃত্যুর বর্ণনা করেছেন। তিনি বলছেন শরিয়তের রক্ষাকর্তারা সারমাদের নগ্ন শরীর থেকে প্রাণের বস্ত্র হরণ করেছিল তখন সারমাদ, দারার সঙ্গে মিলিত হবার আনন্দে তলোয়ারের সামনে মাথা নুইয়ে অকুতোভয়ে উচ্চারণ করেন :

    শরীরের নগ্নতা বন্ধুর সঙ্গে মিলিত হবার পথে ধুলো /
    ওরা তলোয়ারের ধারে ছিন্ন করল তা মাথা থেকে ।
    The body’s nudity is dust on the path to the friend /
    This too they severed from my head with the blade .


    তবে লোকের মুখে মুখে আবার কাটা মাথা নিয়ে গল্প ছড়িয়ে যায়। মাথা যদি বারবার কাটা যায়, তবে গল্পও বারবার হবে, ছড়াবে, এতে আশ্চর্য কি? মাথা কাটার পর, নাকি সারমাদের কাটা মাথা পুরো কলমাটাই পড়েছিল। যে কাটা মাথা কলমা পড়ে, তার দেহ আলাদা হয়ে যাবার পর শহীদের মর্যাদা পেল। শাহাজাহানাবাদ, এখনকারকার পুরোনো দিল্লীর, জামা মসজিদে সারমাদ আর তাঁর প্রেমিক অভয়চাঁদ দুজনেরই কবর আছে। নিজের মতো করে হিন্দুস্তানের তেহজিব খুঁজে বেড়াচ্ছিলেন মৌলানা আবুল কালাম আজাদ। যে কোন খোঁজেরই যাত্রাবিন্দু থাকে, আজাদের যাত্রাবিন্দু ছিল সারমাদের সমাধি। খুবই ছোট বয়েসে তিনি লেখেন সারমাদের জীবনী হায়াৎ এ সারমাদ। সেখানে আজাদের আগ্রহের বিষয় ছিল একটা ছোট ফলক যা হিন্দুস্তানের এ শহীদের সমাধিতে গাড়া আছে। তাঁকে জানানো হয় যা লেখা আছে তা আর কিছুই নয় এক ফারসি বয়ান :

    যখন শাহ সারমাদ ঔরঙ্গজেব আলমগীরের রাজত্বে বাস করতেন, তিনি স্বর্গের পথে যাত্রা করেন।
    লিখছে অধম আকবর এই তারিখে (বলা নেই)।
    এটা হল শহীদ সারমাদের সমাধি।

    আজাদ যে যাত্রা শুরু করেন তা দীর্ঘ পথ পার হবে এতো সূচনার সময়ই বোঝা যাচ্ছে। শহীদ সমাধি থেকে পথ দিগন্তের দিকেই যাবে। আর কোথায়ই বা যেতে পারে সারমাদের যাত্রাপথ অনুসরণ করে।
    পুনঃপ্রকাশ সম্পর্কিত নীতিঃ এই লেখাটি ছাপা, ডিজিটাল, দৃশ্য, শ্রাব্য, বা অন্য যেকোনো মাধ্যমে আংশিক বা সম্পূর্ণ ভাবে প্রতিলিপিকরণ বা অন্যত্র প্রকাশের জন্য গুরুচণ্ডা৯র অনুমতি বাধ্যতামূলক। লেখক চাইলে অন্যত্র প্রকাশ করতে পারেন, সেক্ষেত্রে গুরুচণ্ডা৯র উল্লেখ প্রত্যাশিত।
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]


মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত
পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। কল্পনাতীত প্রতিক্রিয়া দিন