এই সাইটটি বার পঠিত
ভাটিয়ালি | টইপত্তর | বুলবুলভাজা | হরিদাস পাল | খেরোর খাতা | বই
  • খেরোর খাতা

  • সিঙ্গুরের ঢপ (১)

    upal mukhopadhyay লেখকের গ্রাহক হোন
    ১৮ মে ২০২৪ | ৪৭৮ বার পঠিত
  • *প্রচুর ভালো চাকরির ঢপ

    শোনা গিয়েছিল মূল ন্যানো কারখানায় ৭২৯ টা চাকরি হচ্ছে। তেরোটা ভেন্ডার ছিল ন্যানো গাড়ির। তারা টায়ার ওয়ান আর তাদের তলায় আরো তিনটে করে স্তর। শেষের স্তরে আমার বাড়ির পাশের একটা ছোট কারখানা ছিল টায়ার ফোর ভেন্ডার। তাদের ছেলেগুলো এখন সাত আট হাজার মজুরি পায়। সতেরো বছর আগে পেত তিন চার হাজার। এই হল শিল্পায়নের ছক। বড় কারখানা মানে লাখ লাখ বেশি মাইনের চাকরি নয়। এ নিয়ে কল্যাণ সান্যালের বই আছে: রিথিংকিং ক্যাপিটালিস্ট ডেভেলপমেন্ট। সিপিএম ঢপ মেরে চালিয়েছিল। এখনও চালাচ্ছে। তাদের সঙ্গে বিজেপিও জুটেছে। তৃণমূলের লোকজন কেন আন্দোলন করেছিল তাই জানে না। তারা মাল কামাচ্ছে। ঝামেলায় পড়লে পরে বিজেপিতে চলে যাব। সত্যি বলতে তৃণমূল সিঙ্গুরে মারধোরও খায়নি। মার খেল প্রকৃত চাষি আর দলের মধ্যে, লিবারেশন এসইউসি বা অন্য নকশালরা, ক্ষীর খেল দিদি।

    *চুক্তির ঢপ

    সরকারের চুপমারা দেখে মনে হয় সিঙ্গুরে টাটার সঙ্গে আসলে কোন চুক্তিই হয়নি। কেউ কারখানা চালানোর জন্য সরকারের সঙ্গে চুক্তিই বা করবে কেন যদি না তাতে সরকার অংশীদার হয় ? সরকার টাটার সঙ্গে জমিটা লং টার্ম লিজে দেওয়া ও নেওয়া নিয়ে চুক্তি করেছিল। প্রশ্ন হল তাতে কি জমিটা শিল্প উপযোগী করার কথা ছিল? কেউ জানে না। চাষিদের তাড়িয়ে, এক্টিভিস্টদের মাথা ফাটিয়ে, বামফ্রন্ট সরকার জামাই আদরে ডব্লুবি আইআইডিসিকে দিয়ে পরিকাঠামো বানিয়েছিল তার চুক্তি হলে তৃণমূল সরকার বার করল না কেন? পরে মামলায় যার জন্য সরকারকে ক্ষতিপূরণ দেওয়ার রায় হয় তা লং টার্ম লিজের চুক্তি ভাঙার জন্য, টাটাকে জমির দখল থেকে উচ্ছেদের জন্য। কিন্তু টাটা কোম্পানির কী আদৌ কোন ক্ষতি হয় সিঙ্গুরের জন্য? হলে কত? মেশিন না ঢোকাতে পারার জন্য তারা মেরিন ইনসিওরেন্সের পয়সা পেয়েছে কারণ কনসাইনমেন্ট ডেলিভারি না হলে তৎজনিত লসের ক্লেম হয়। আর টাটার হয়ে সাপুরজি পালানজিরা কারখানাঘর বানাচ্ছিল। তারা প্রচুর মাল সিপিএম ও তৃণমূলের সিন্ডিকেটগুলোর থেকে ধারে নেয়। কারখানা না হতে, তার পয়সা তারা কতটা মেরেছে আর কতটা দিয়েছে সেসব একমাত্র লোকাল সিন্ডিকেটগুলোকে জিজ্ঞেস করলেই জানা যাবে। কারণ টাটার প্রকৃত ক্ষতির হিসেবের ব্যাপারে সরকার চুপ মেরে গেছে।
    পুনঃপ্রকাশ সম্পর্কিত নীতিঃ এই লেখাটি ছাপা, ডিজিটাল, দৃশ্য, শ্রাব্য, বা অন্য যেকোনো মাধ্যমে আংশিক বা সম্পূর্ণ ভাবে প্রতিলিপিকরণ বা অন্যত্র প্রকাশের জন্য গুরুচণ্ডা৯র অনুমতি বাধ্যতামূলক। লেখক চাইলে অন্যত্র প্রকাশ করতে পারেন, সেক্ষেত্রে গুরুচণ্ডা৯র উল্লেখ প্রত্যাশিত।
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • প্রশ্ন  | 165.225.8.117 | ১৮ মে ২০২৪ ২৩:০৩531924
  • তবে কি পশ্চিমবঙ্গে শিল্পায়ন জনস্বার্থের পক্ষে অলাভজনক? 
     
    আমার তো ধারণা ছিল সিপিএমের জন্যে সিঙ্গুর একটি প্রতীকি ব্যাপার, শিল্পনীতি বিষয়ে একটি সিগনাল হবার কথা ছিল - যে কারণে সিগনাল বন্ধ করার জন্যে তৃণমূল মরিয়া হয়! 
  • অসিতবরণ বিশ্বাস | 2401:4900:744c:1c93:862f:dee8:8767:f11b | ১৮ মে ২০২৪ ২৩:২৪531926
  • কে জানে কোনটা সত্যি। নকশালরা কি জানে না যে ক্ষীর খেয়েছে দিদি? এসইউসিআই কি জানে না? 
    নাকি বুজতে চায় না? 
    কী জানি বাপু, সত্যি-মিথ্যে ঘুলিয়ে দিয়েছে।
  • aranya | 2601:84:4600:5410:2169:43b8:44ce:11f0 | ১৯ মে ২০২৪ ০১:২৮531934
  • সিঙ্গুর থেকে গুজরাতের সানন্দে ন্যানো কারখানা সরিয়ে নিয়ে যান টাটারা। ন্যানো চলে নি, কিন্তু সানন্দ এখন ভারতে অন্যতম অটোমোবাইল হাব, চেন্নাই এর সাথে পাল্লা দেয়। নেট সার্চ করে দেখলাম - ৪৮০ টা কম্পানি রয়েছে আজকের সানন্দে - গাড়ী তৈরী, অনুসারী শিল্প সব মিলিয়ে, ৩ বিলিয়ন ইউএস ডলার লগ্নি, 8 লাখের ওপর ​​​​​​​গাড়ী রপ্তানি ​​​​​​​করেছে ​​​​​​​২০২০-২১ ​​​​​​​আর্থিক বছরে।
    এ ​​​​​​​সবই বাংলায়, ​​​​​​​সিঙ্গুরে ​​​​​​​হতে ​​​​​​​পারত। ​​​​​​​সিপিআইএম-এর ​​​​​​​জোর ​​​​​​​করে ​​​​​​​বহু ​​​​​​​ফসলী ​​​​​​​জমি ​​​​​​​নেওয়ার ​​​​​​​বিরোধী ​​​​​​​ছিলাম। ​​​​​​​কিন্তু ​​​​​​​৮০-৯০ % কারখানা ​​​​​​​তৈরী ​​​​​​​হয়ে ​​​​​​​যাওয়ার ​​​​​​​পরও ​​​​​​​সেই ​​​​​​​বিরোধিতা ​​​​​​​চালিয়ে ​​​​​​​যাওয়া, ​​​​​​​যখন পরিস্কার বোঝা ​​​​​​​যাচ্ছে ​​​​​​​যে ​​​​​​কারখানা ​​​​​​​ভেঙে ​​​​​​​ফেললেও ​​​​​​​ঐ ​​​​​​​জমিতে ​​​​​​​আবার ​​​​​​​চাষ করা ​​​​​​​অসম্ভব- এর ​​​​​​​কোন ​​​​​​​মানে ​​​​​​​বুঝি ​​​​​​​নি, তৃণমূল-কে ​​​​​​​ক্ষমতায় ​​​​​​​আনার ​​​​​​​পথ ​​​​​​​করে ​​​​​​​দেওয়া ​​​​​​​ছাড়া।
    'Gujarat’s automobile industry success stories include Ford Motors’ INR 5,000 Crore investment in their Sanand plant in 2011, generating 3,000 jobs, and Suzuki Motors’ INR 14,784 crore mega unit in 2014, creating 9,100 jobs. In 2022, Tata Motors acquired the Ford plant in Sanand. Additionally, Gujarat’s collaboration with JETRO has resulted in India’s first plug-and-play park, the Japanese Industrial Park. In 2017, MG Motors acquired GM India’s Halol Plant with an initial investment of ₹2000 crores and a production capacity of 80,000 units per annum. It is important to note here that this is MG’s only manufacturing facility in India.'
  • aranya | 2601:84:4600:5410:981:5227:1884:7d93 | ১৯ মে ২০২৪ ০১:৪০531935
  • 'বড় কারখানা মানে লাখ লাখ বেশি মাইনের চাকরি নয়' - সিঙ্গুর পর্বে  'লাখ লাখ বেশি মাইনের চাকরি'-র কথা বুদ্ধ বাবু বা আর কোন সিপিআইএম নেতা বলেছিলেন বলে শুনি নি। 
    তবে লাখ লাখ না হলেও, ৪৮০ টা কম্পানি মিলিয়ে , আজকের সানন্দে বেশ কিছু লোকের চাকরি হয়েছে বলেই মনে হয় 
  • aranya | 2601:84:4600:5410:981:5227:1884:7d93 | ১৯ মে ২০২৪ ০১:৪২531936
  • '8 লাখের ওপর গাড়ী রপ্তানি ​​​​​​​করেছে ​​​​​​​২০২০-২১ ​​​​​​​আর্থিক বছরে' - ৪ লাখ নয়, ৮ লাখের ওপর গাড়ী এক্সপোর্ট হয়েছে ২০২০-২১ ​​​​​​​আর্থিক বছরে
  • upal mukhopadhyay | ১৯ মে ২০২৪ ০১:৫০531937
  • সিঙ্গুরের প্রকৃত চাষিরা বিরোধিতা চালিয়ে যাবার পক্ষে ছিল। এমনি এমনি হয়নি প্রতিরোধ। শুধু নেট ঘেঁটে ডেটা দিল কিছু প্রমাণ হয় না। রাজনৈতিক পরিস্থিতি অনুকূলে না থাকলে কী হবে?কুড়ি হাজার পুলিশ কারখানা বানাবে, না চালাবে? কোনোদিন সরকারি ডেটা বেরোলে দেখা যাবে হয়ত অন্য কোন অনুকূল পরিবেশে টাটার কারখানা করার প্রাথমিক প্রস্তাব ছিল। এর বেশি বলতে পারব না।
    তাহলে কি পুরো দায়টা সিঙ্গুরের রবীন্দ্রনাথ ভট্টাচার্যের তথা তৃণমূলের ঘাড়ে ফেলার জন্য গাদাগাদা অনথিভুক্ত বর্গাদার আছে যেখানে সেই সিঙ্গুরের ধানী জমিতেই প্রজেক্ট সরানোর সিদ্ধান্ত হয়? তৃণমূলকে মমতাকে তাহলে ফাঁসানোর কৌশলই কি বুমেরাং হয়েছে?
  • upal mukhopadhyay | ১৯ মে ২০২৪ ০১:৫৪531938
  • অন্য জায়গা থেকে প্রজেক্ট সরিয়ে সিঙ্গুরে এনে, তৃণমূলকে তথা মমতাকে ফাঁসানোর কৌশলই কি বুমেরাং হয়েছে?
  • aranya | 2601:84:4600:5410:592a:9e8d:1afa:867d | ১৯ মে ২০২৪ ০১:৫৬531939
  • সানন্দ একটা সাকসেস স্টোরি, নেট ঘেঁটে ডেটা দিলে এটুকু প্রমাণ হয়। আমার গুজরাতি বন্ধু দের সাথে + সানন্দের দু একজন বাসিন্দার সাথে কথা বলেও সেটা মনে হয়েছে 
  • aranya | 2601:84:4600:5410:592a:9e8d:1afa:867d | ১৯ মে ২০২৪ ০১:৫৮531940
  • 'অন্য জায়গা থেকে প্রজেক্ট সরিয়ে সিঙ্গুরে এনে' - এই পয়েন্ট টা আমিও ভেবেছি। খড়গপুরে হওয়ার কথা ছিল একসময়। সেখানে বেশ কিছু কারখানা আছে, অনুর্বর জমি আছে। জামশেদপুরের কাছে। সেখান থেকে সিঙ্গুর কেন ? শুধু কলকাতার কাছে হওয়া কি এতই গুরুত্বপূর্ণ ? 
  • aranya | 2601:84:4600:5410:592a:9e8d:1afa:867d | ১৯ মে ২০২৪ ০২:০৫531941
  • 'সিঙ্গুরের প্রকৃত চাষিরা বিরোধিতা চালিয়ে যাবার পক্ষে ছিল। এমনি এমনি হয়নি প্রতিরোধ'
    - জোর করে জমি নেওয়ার বিরুদ্ধে প্রতিরোধ তো অবশ্যই হওয়া উচিত ছিল। কিন্তু যেহেতু একটা লম্বা সময় ধরে ব্যাপারটা চলেছে, আন্দোলনের বিভিন্ন সময়ে তো চাষী দের, ক্ষেতমজুর-্দের স্বার্থেই, কস্ট-্বেনিফিট রেশিও টা খতিয়ে দেখতে হবে। 
    কারখানা প্রায় তৈরী হয়ে গেছে, এই সময়েও প্রতিরোধ আন্দোলন চালিয়ে গিয়ে, চাষীদের লাভটা কিভাবে হল, একটু বোঝাবেন? জমি ফেরত পেলেও চাষ তো হচ্ছে না, ঐ জমিতে চাষ হওয়া সম্ভবও নয়
  • upal mukhopadhyay | ১৯ মে ২০২৪ ০২:১৪531942
  • সানন্দের ডেটা সবারই জানা। সেখানে হয়েছে। এখানে কেন হল না এটাই কথা। কিন্তু সিঙ্গুরে কেন হল না এটা ব্যাপারে বলছিলাম আরকি। আপনার লাইন অফ আর্গুমেন্টে মূলগত ভাবে আপত্তি নেই। আমার মনে হয় রাজনৈতিক দাদাগিরির জন্য হয়নি। ২৩৫ এর গুমরে হয়নি। সিঙ্গুরের আন্দোলন দেখিয়েছে কোথায় হবে আর কোথায় নয় সেটা না মানায় হয়নি।সিঙ্গুরের আন্তর্জাতিক গুরুত্ব আছে যেমন আছে নন্দীগ্রামের। এই দুই আন্দোলনের ফলে মমতা এসেছে সেটা আমার পছন্দের বা আপনার পছন্দের না হতে পারে কিন্তু জমি অধিগ্রহণ আইন বা সেজ আইনের যেসব বদল হল তা অস্বীকার করি কেমন করে?
  • aranya | 2601:84:4600:5410:592a:9e8d:1afa:867d | ১৯ মে ২০২৪ ০২:১৮531943
  • 'কিন্তু জমি অধিগ্রহণ আইন বা সেজ আইনের যেসব বদল হল' - একমত। আন্দোলনের সুফল এটা।
  • aranya | 2601:84:4600:5410:592a:9e8d:1afa:867d | ১৯ মে ২০২৪ ০২:২৩531944
  • কল্যাণী-তেও একটা শিল্পাঞ্চল আছে। অনেক বন্ধ কারখানা। জানি না টাটা ন্যানো কারখানার জমি খুঁজতে কতটা সদর্থক রিসার্চ হয়েছিল। অনুর্বর জমি, চাষের ওপর বহু মানুষের রুজি-রোজগার নির্ভরশীল নয়, এমন জমি, যা গাড়ী কারখানা এবং অনুসারী শিল্পের জন্যও অনুকুল, এমন জায়গা পশ্চিমবঙ্গে আর পাওয়া গেল না, এটা মেনে নেওয়া মুশকিল।
  • upal mukhopadhyay | ১৯ মে ২০২৪ ০২:৩৩531945
  • কিন্তু যেহেতু একটা লম্বা সময় ধরে ব্যাপারটা চলেছে, আন্দোলনের বিভিন্ন সময়ে তো চাষী দের, ক্ষেতমজুর-্দের স্বার্থেই , কস্ট-্বেনিফিট রেশিও টা খতিয়ে দেখতে হবে। 
    আপনি আপনার জায়গা থেকে বলছেন ।সেটা কৃষক আন্দোলনে গ্রাহ্য হবে কেন ?সিঙ্গুরে  কারখানা হলে তারা ভাতের হোটেল দেবে বা অন্য ভাবে তাদের পুষিয়ে যাবে - এটা বিশ্বাস করেনি তারা  ।ওই বিশ্বাস আনার জন্য জমি অধিগ্রহণ আইনে এনুইটি র বিষয়টা  এল । সেটা তো সিঙ্গুর -নন্দীগ্রাম শেখালো ।কী করে জমির অধিকার  জমি অধিগ্রহণের পরেও থাকে যার মানে এনুইটি ইনকামের ব্যাপারটা পোস্ট সিঙ্গুর-নন্দীগ্রাম ডেভেলপমেন্ট ।এ ব্যাপারে স্মৃতি থেকে রতন টাটাকে কোট করছি ।সিঙ্গুর সম্বন্ধে উনি বলেছিলেন চাষিদের প্রতিক্রিয়া স্বাভাবিক কারণ ল্যান্ড ইজ লাইক ইন্সুরেন্স ।এটা না ভাবলে বুঝবেন না ।
  • upal mukhopadhyay | ১৯ মে ২০২৪ ০২:৪০531946
  • "জানি না টাটা ন্যানো কারখানার জমি খুঁজতে কতটা সদর্থক রিসার্চ হয়েছিল"
    হয়েছিল। সব সিদ্ধান্ত ভেবেচিন্তেই হয়। একটু বেশি কৌশল করতে গিয়েই কেঁচিয়েছে সেতো পরিষ্কার।
  • aranya | 2601:84:4600:5410:b004:e2c2:416b:3515 | ১৯ মে ২০২৪ ০৩:০২531948
  • 'সেটা কৃষক আন্দোলনে গ্রাহ্য হবে কেন'
    - কৃষক আন্দোলন তো কৃষক দের স্বার্থে, রাজনীতিক দের স্বার্থে নয়। জমিতে সিমেন্ট ঢেলে কারখানার মেঝে তৈরী হয়ে গেছে - সে জমিতে আবার চাষ সম্ভব, এটা কৃষক দের ভুল বোঝানো,  রাজনীতিকদের স্বার্থে।
     
    টাটারা  চলে যাওয়ার অল্প দিন আগে, রাজভবনে একটা মিটিং হয়। পর দিন কাগজে বেরোয়, সমাধান সূত্র পাওয়া গেছে। বুদ্ধ বাবু রাজি হয়েছেন - ক্ষতিপূরণের টাকা অনেকটা বাড়াতে, অনথিভুক্ত বর্গাদার, ক্ষেতমজুর - এদেরও ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে। মমতাও এই সমাধানে রাজি হয়েছেন, তার আন্দোলনের জন্যই ক্ষতিপূরণের পরিমান বৃদ্ধি পেয়েছে, জমির মালিক বাদে, জমিতে কাজ করা মানুষজন-ও টাকা পাচ্ছেন, উইন-উইন সিচুয়েশন বলা যেতে পারে। 
    এর কদিন পর, কাগজে দেখলাম, মমতা আবার অরাজি, কারখানার কাজ বন্ধ করে জমি ফেরত দিতেই হবে। 
     
    জমি অধিগ্রহণ আইনে বদল হয়েছে, এই আন্দোলনের জন্য, অবশ্যই। 
     
    কিন্তু জমিতে চাষ যখন করা যাচ্ছে না, জমি ফেরত পেয়ে, সিঙ্গুরের চাষীদের লাভটা ঠিক কিভাবে হল?  নাকি সিঙ্গুরের চাষীদের লাভটা এই কৃষক আন্দোলনের উদ্দেশ্য নয়?
  • upal mukhopadhyay | ১৯ মে ২০২৪ ০৮:৫৪531951
  • সিঙ্গুরে  গিয়ে  জিজ্ঞেস  করুন ।
  • অরিত্র | 103.77.139.197 | ১৯ মে ২০২৪ ১৩:৫৫531970
  • "এর কদিন পর, কাগজে দেখলাম, মমতা আবার অরাজি, কারখানার কাজ বন্ধ করে জমি ফেরত দিতেই হবে।"
     
    এইটাই, যেনতেন প্রকারে কারখানা বন্ধ করাই লক্ষ্য ছিল এরকমই মনে হয়েছে। তৃণমূলের জমি সংক্রান্ত অবস্থান সিঙ্গুরের পর তৈরি হয়, সেটাও কতটা মেনে চলে জানি না, তার আগে তৃণমূলের এই সংক্রান্ত বা কোনো কিছু সংক্রান্তই কোনো অবস্থান বা নীতি ছিল বলে মনে নেই।
  • upal mukhopadhyay | ১৯ মে ২০২৪ ১৪:৩৫531974
  • হচ্ছে কৃষক আন্দোলন  নিয়ে  আপনি ঘুরে  সেই তৃণমূল নিয়ে পড়লেন !! অবান্তর !!
  • অরিত্র | 103.77.139.197 | ১৯ মে ২০২৪ ১৫:১২531977
  • উপল, আপনার মূল পোস্টে ও একাধিক মন্তব্যে তো তৃণমূল ভালোভাবেই রয়েছে। আর আমি তো অরণ্য যে মন্তব্য করলেন তার সূত্র ধরে বললাম।
     
    যাকগে না চাইলে মন্তব্য করবো না।
  • upal mukhopadhyay | ১৯ মে ২০২৪ ১৬:৩৬531981
  • আচ্ছা ।বুঝিনি ।নিশ্চয়ই বলবেন ।
  • upal mukhopadhyay | ১৯ মে ২০২৪ ১৬:৪১531982
  • আসলে আমার মমতা বা তৃণমূলে রেফারেন্সিয়াল ইন্টারেস্ট ।একটা গেঁজিয়ে যাওয়া শক্তি ।সিঙ্গুর প্রসঙ্গে এলে আলাদা ।বুঝিনি।
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]


মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত
পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। বুদ্ধি করে প্রতিক্রিয়া দিন