এই সাইটটি বার পঠিত
ভাটিয়ালি | টইপত্তর | বুলবুলভাজা | হরিদাস পাল | খেরোর খাতা | বই
  • টইপত্তর  খ্যাঁটন   অবাক জলপান

  • চা আর কফি

    Arindam Basu লেখকের গ্রাহক হোন
    খ্যাঁটন | অবাক জলপান | ১০ এপ্রিল ২০২৪ | ৯৯১ বার পঠিত
  • দিন দুয়েক আগে এখানকার একটি জাপানী দোকানে দেখলাম কাগজের পাউচে দুপাশে শক্ত কাগজের ডানার মতন কফির স্যাচেট বিক্রি করছে, পাঁচটা বা দশটার একেকটা প্যাক। এগুলো ইনস্ট্যান্ট কফি নয় (নেসকাফে বা ব্রু ধরণের কফি) নয়, আপনাকে পাউচ খুলে তার ওপরের কাগজের একটা দিক ছিঁড়ে তার মধ্যে ফুটন্ত (~৯০ ডিগ্রি সেন্টিগ্রেড) জল খুব ধীরে ঢালতে হবে (ধরুণ আন্দাজ ২-৩ মিনিট ধরে) | এক কাপ সুমিয়াকি কফি করতে কিছুটা তরিবত করতে হয় বটে তবে সে কফির স্বাদ অসাধারণ।
     
     
    পুরোটাই ডিসপোজেবল, একবার ব্যবহার করে ফেলে দিলেই হল।
    Pour Over কফি v60 তে করে খেতে আমার খারাপ লাগে না, তবে বড্ড কাগজের ফিল্টারের অপচয় হয়, যে কারণে কফি মেকারের পোড়া তিতকুটে কফি না পসন্দ। 
     
    আর একটা জিনিস দেখলাম, আজ তিরিশ বছর ধরে জাপানে সিরামিকের "pour over" কফি ফিল্টার চলছে Kyuemon কোম্পানীর, ব্যাপারটা দেখে মনে হল বেশ ভাল আর কফি করার ঝামেলাও বিশেষ নেই | বেসিকালি একটা সিরামিকের ভাঁড়, যাতে (চা) বা কফি গুঁড়ো দিয়ে গরম জল দিলেই দিব্যি কফি তৈরী।
     
    এতদিন আমি চটজলদি কফি করতে গেলে ফ্রেঞ্চ প্রেস ব্যবহার করতাম, না হলে এসপ্রেসো মেশিন, সকালবেলা ঘুম থেকে উঠে তাতে কফি করতে যাওয়া  হাঙ্গামা, কফির বিন গুঁড়ো কর রে, ট্যাম্প কর রে, যন্ত্রের সামনে হাঁ করে দাঁড়িয়ে থাক, তবে খাসা এসপ্রেসো হয় অবশ্য | কিউরিগ টাইপের কফি করার যন্তর আমার একেবারে পোষায় না। 
     
    এই হচ্ছে সে জিনিস,
     
    এর সমগোত্রীয় ভিয়েতনামের ফিন ধরণের পাত্র, স্টেনলেস স্টীলের কাপ, তার তলায় ফুটো করা, কাপের ওপর বসিয়ে কফি ঢেলে করা যায়, তবে তাকে পরিষ্কার করার বেজায় হ্যাপা। তবে কফি হয় উমদা। ভিয়েতনামের কফি রোবাস্টা বিনের, অন্য রকমের স্বাদ। 
    চা/কফি নিয়ে কার কার কি কি ভাল লাগে?
    কাগজের ঢালা জাপানী কফি আর কে কে ব্যবহার করেছেন, কি অভিজ্ঞতা আপনার?
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • পাতা :
  • kk | 172.56.3.116 | ১২ এপ্রিল ২০২৪ ০০:৩৯742783
  • এই টইয়ের আলোচনা আমারো খুব ভালো লাগছে। কাহলুয়ার ফ্লেভার বেশ ভালোই লাগে আমার। কিন্তু বড্ড মিষ্টি। আমি তিরামিসু বা চকোলেট মুস টুস বানালে তাতে কাহলুয়া দিই, কিম্বা বেইলীজ কফি লিক্যিওর। শীতের বিকেলে গরম কফির মধ্যে কখনো এক চামচ স্পাইসড বা গোল্ড রাম দিই।
    চায়ের কথা বলা হলোনা। চা আমিও ঐ ফিনফিনে কাপে স্বচ্ছ লিকার পছন্দ করি। দুধ চিনি টিনি কিচ্ছু থাকলে চলবেনা।দার্জিলিং প্রথম, আর্ল গ্রে দ্বিতীয়, উলং তিন নম্বরে। ডিসি শুনলে ভুরু কোঁচকাবেন কিনা জানিনা, আমার আবার বার্গামটের ফ্লেভার এত ভালো লাগে যে বিশেষ করে ডাবল বার্গামট দেওয়া আর্ল গ্রে চা কিনি :-)। আর্বাল টী ও ভালোবাসি। রোয়বোস খুব পছন্দ। রাতের দিকে। আর ক্যামোমাইল। এছাড়াও হাইবিসকাস আর লেমন জিঞ্জার একসাথে ব্রু করে খাই। এতে দেখেছি ব্লাড-প্রেশার কন্ট্রোলে থাকে। আরেকটা চা আমার অন্য কারণে পছন্দ। সে হলো ল্যাপসাউচং জং, উচ্চারণ ঠিক হলো কিনা জানিনা। এটা স্মোকড টী। এই চা আমি পান করিনা। কোনো কোনো রান্নায় ইউজ করি। চায়ের কথা বলতে গিয়ে মনে পড়লো, একবার ফিলাডেলফিয়ার এক চীনে রেস্তোরাঁয় অপূর্ব জেসমিন টী খেয়েছিলাম। অমন আর কোথাও পেলামনা।
    আইসড চা বা কফি আমার খারাপ লাগেনা। তবে তেমন স্পেশ্যালও বা কিছু লাগেনা। এগুলো আমি খুব গরমের দিন হলে কখনো সখনো খাই। একবার লিচু জেলে দেওয়া হোয়াইট টী খেলাম, একবার বোবা দেওয়া, কোকোনাট মিল্ক দেওয়া থাই টী হেলাম। ঐ আর কি। টেনেসিতে থাকতে পীচ টী খেতাম, সেটাও ভালো লাগতো।
    অরিনদা, আপনি কনডেন্সড মিল্ক বা ঘন দুধ দেওয়া কফির কথা বলছিলেন। আপনি কি নন-ডেয়ারী কিছু দিয়ে সাবস্টিট্যুট করেন? কোকোনাট কনডেন্সড মিল্ক বা ওট মিল্ক?
  • &/ | 151.141.85.8 | ১২ এপ্রিল ২০২৪ ০০:৪৯742784
  • হার্বাল টী, মশলা দেওয়া চায়ে টী, দার্জিলিং টী ক্বচিৎ কখনো ক্যামোমিল এইসব চেনাপরিচিতের মধ্যেই ঘুরি। সবই গরম জলে টীব্যাগ ফেলার সহজিয়া সাধন, দুধ চিনির কোনো ব্যাপার নেই। এমনি এমনি খাই।
    কিন্তু রান্নায় চা দেওয়া যায়? কোনটা দেবো? কী রান্নায় দেবো?
  • kk | 172.56.3.116 | ১২ এপ্রিল ২০২৪ ০১:০৩742786
  • অ্যান্ডর,
    আমি ঐ যে বললাম ল্যাপসাউচং চা টা রান্নায় দিই কারণ ওটা স্মোকড চা পাতা। মানে যেসব রান্নায় স্মোকি ফ্লেভার লাগে, বা এমনিতে বেকন ইউজ হয় সেইসব রান্নায় আর কি। যেমন ব্ল্যাকবীন স্যুপ। কখনো কখনো তোফু ম্যারিনেড করি ঐ দিয়ে, তারপর গ্রিল করি। স্মোকড স্ক্যালপের মত বানাতে চাইলে কিং অয়েস্টার মাশরুম ঐ চায়ের লিকারে ম্যারিনেড করেও করি। এমনিতেও দেখে থাকবে ভারতীয় রান্নার মধ্যে কাবলি ছোলা রান্নায় সুন্দর রং আনার জন্য চায়ের লিকার দেন অনেকে।
  • s | 100.36.114.105 | ১২ এপ্রিল ২০২৪ ০১:০৯742787
  • আমি চানা মানে কাবলি  ছোলা সেদ্ধ করার সময় দু একটা টি ব্যাগ ফেলে দি। ভাল রং হয়. তবে রিসেন্টলি একটা নিউজ দেখলাম যে টি ব্যাগে অনেক ফরএভার কেমিকাল থাকে। তাই টি ব্যাগের ব্যাবহার কমাতে চেষ্টা করছি। 
    আর বোবা টি দু একটা ফ্লেভার খেয়ে দেখেছি। খুব কিছূ ভাল লাগেনি।
    আর আমারও বার্গামট বা যে কোনো সিট্রাস ফ্লেভার ভীষণ ভাল লাগে. আর গরমে আমার নিজের বাগান থেকে তোলা মিন্ট আর লেবু দিয়ে বানানো চা -দারুণ। একবার রোজমেরি দিয়ে বানিয়েছিলাম। সেটাও খুব ভাল লেগেছিল। 
  • kk | 172.56.3.116 | ১২ এপ্রিল ২০২৪ ০১:১২742788
  • আর আমি বারবার বানান ভুল লিখছি। ল্যাপস্যাং সাউচং হবে।
  • &/ | 151.141.85.8 | ১২ এপ্রিল ২০২৪ ০১:২২742789
  • অনুস্বারবিসর্গচন্দ্রবিন্দু চা। তার মানে রান্নায় এইটা দেয়। ঃ-)
  • r2h | 192.139.20.199 | ১২ এপ্রিল ২০২৪ ০২:০৩742790
  • আইঋশ ক্রিম কফি লিকিওর আমার খুব প্রিয়।
    কখনো ফ্রিজ থেকে বিয়ার বের করতে গিয়ে ভুঁড়ি ও বাঙালের ফিরিঙ্গিপনার দিকে কটাক্ষ বর্ষিত হলে মনের দুঃখে এক চামচ আইসক্রিমে এক বাটি ঐ ঢেলে খেয়ে চিত্তিরক্ষা করি।
  • Arindam Basu | ১২ এপ্রিল ২০২৪ ০৩:০৪742791
  • kk বললেন, "চায়ের কথা বলা হলোনা।"
     
    সত্যি, চা য়ের কথা বলতে গেলে একটা অন্য রকমের জগতের কথা পাড়তে হয়! 
    অনেকটা ওয়াইনের মতন, এবং একটি ব্যাপারে চা ও ওয়াইনের মধ্যে "মিল" রয়েছে। ওয়াইন যেমন ক্যাথলিক যাজকদের হাত ধরে নানান রকম দীর্ঘ পরীক্ষার মধ্যে দিয়ে গড়ে উঠেছে, চাও সেইরকম প্রাচ্যে বা এশিয়ায় বৌদ্ধ সংঘে গড়ে উঠেছে | পরে কোন সময় ওয়াইন নিয়ে আলোচনা করা যাবে না হয়, আপাতত চা কফিতে সীমাবদ্ধ থাকা যাক, :-),
     
    এক কাজ করা যাক, চাজিউললুন নামে চা আর ওয়াইনের একটি পারস্পরিক আলাপ আলোচনা বা বলা যাক, বিতর্ক পড়াই আপনাদের, :-)
    বিতর্কটি অবশ্যই কিছুটা ধর্মীয়, সে বুঝে নিতে হবে, তবে সে কথা থাক। লেখাটি দ্বাদশ শতাব্দীতে চীনের দুনহুয়াং প্রদেশে একটি গুহায় নাকি পাওয়া যায়। ভারি মনোজ্ঞ সে আলোচনা, এখানে তার লিঙ্ক:
     
     
    kk,, "কি নন-ডেয়ারী কিছু দিয়ে সাবস্টিট্যুট করেন? কোকোনাট কনডেন্সড মিল্ক বা ওট মিল্ক?"
     
    আমি চা বা কফিতে একেবারেই "দুধ" জাতীয় কিছু দিই না, তার অবশ্য একটা কারণ আমি  "পশুজাত দুধ" মানুষের পান করা ব্যাপারটারই বিরোধী । তবে কখনো সখনো খুব ইচ্ছে করলে ব্যারিস্টা গ্রেড ওট মিল্ক দিই, বা কোকোনাট মিল্ক (যদিও আমাদের সাবেক নারকেলের দুধের সঙ্গে এর কোন সম্বন্ধ নেই, :-)) | আমার এমনিতেও xanthan মেশানো কোন ড্রিংক না-পসন্দ।
     
    s একটা খুব দামী কথা লিখলেন, "টি ব্যাগে অনেক ফরএভার কেমিকাল থাকে। তাই টি ব্যাগের ব্যাবহার কমাতে চেষ্টা করছি। "
     
    টি ব্যাগ যাচ্ছেতাই জিনিস, ও যত কম ব্যবহার করা যায় ততই মঙ্গল। বেসিকালি এক চা চামচে চা দেবে, তাতে রাজ্যের দড়িসুতো, কাগজ কেমিকাল লাগিয়ে বিতিকিচ্ছিরি ব্যাপার স্যাপার, :-), তার ওপর ভযানক ক্ষতিকারক ( Plastic Teabags Release Billions of Microparticles and Nanoparticles into Tea, https://pubs.acs.org/doi/10.1021/acs.est.9b02540 ), তা সে এক রকম (আপনি বলত পারেন সব টি ব্যাগ একরকম ক্ষতিকারক নয়, সেও ঠিক, তবে সব টি ব্যাগ একই রকম অখাদ্য)
    সে তো একটা দিক।
    টি ব্যাগ বলুন বা স্ট্রেনারের একটা অন্য সমস্যা আছে। আপনি যদি লুজ চা পাতা কাপে বা টিপটে (যে ধরণের টিপটে মেশ স্ট্রেনার একেবারেই নেই বা টিপটের ভেতর বরাবর চারপাশে বা তলায় বিছোন আছে), চা পাতা ফেলে তার ওপর গরম জল ঢেলে (সরাসরি চা পাতার ওপর নয়, টিপটের "দেওয়াল বরাবর জল ঢালতে হবে) চা খান, সে এক রকম। কিন্তু স্ট্রেনার বা স্টীপার জাতীয় কিছুতে চা পাতা রেখে ভিজিয়ে চা করার সমস্যা হচ্ছে, শুকনো চায়ের পাতা জল পেয়ে ফুলে ওঠার পর বাড়বার জায়গা পায় না। যার জন্য তার স্বাদ অন্য রকমের হয়, ব্যাপারটা বিশেষ করে জাপানী সেনচা বা গ্রীণ টিতে দেখা যায়, বহু লোককে জানি গ্রীণ টির নাম শুনলে নাক সিঁটকোন, তার একটা কারণ হতে পারে এরা "টি ব্যাগে" গ্রীণ টি খেয়ে অভ্যস্ত, সে গ্রীণ টি অতি অখাদ্য বস্তু! অথচ সেনচা, বুজিচা, বা gyukuro জাপানী চা'র তুল্য স্বর্গীয় স্বাদের চা খুব কম আছে।  বা "মাচা" (matcha) পাউডার | একটু তরিবৎ করে করতে হয় বটে, তবে অপূর্ব তার স্বাদ! মা'চা পাউডার অবশ্য রান্নাতেও ব্যবহার করা যায়। 
     
    অনেকে ছাঁকনিতে শুকনো চা পাতা রেখে জল ঢেলে চা করেন, সে এক রকম, তাতে ছাঁকনির সাইজ অনুযায়ী চা পাতা গুলো কিছুটা বাড়বার জায়গা পায়। সেটা বরং ভাল।
     
    স্ট্রেনার বা টি ব্যাগে সে ব্যাপারটা একেবারেই সম্ভব নয়, যার জন্য চায়ের আসল স্বাদ পাওয়া যায় না। 
  • অরিন | 119.224.61.73 | ১২ এপ্রিল ২০২৪ ০৭:৫৮742794
  • স্বাগতম অমিতাভ।
    পদ্যটা খাসা হয়েছে।
  • ?? | 2405:8100:8000:5ca1::7a:2846 | ১২ এপ্রিল ২০২৪ ১০:০৫742795
  • জ্যাকবস মোনার্ক কেমন ?
  • Arindam Basu | ১২ এপ্রিল ২০২৪ ১১:৪২742796
  • "জ্যাকবস মোনার্ক কেমন ?"
    আমরা নিউজিল্যাণ্ডে জেকবস মনার্ক সরাসরি পাই না বা ঐ নামে পাই না, আমি অন্তত কোথাও দেখিনি | তবে এখানে L'OR বা Moccona ব্র্যাণ্ডের কফি পাওয়া যায় JDE Peet এর সুবাদে, ওয়েবসাইট পড়ে মনে হল একই জিনিস | 
    Moccona যদি হয়, ইনস্ট্যান্ট কফি হিসেবে প্রিমিয়াম, খেতে মোটামুটি, অনেকটা নেসকাফে গোল্ডের সঙ্গে তুলনা করা যেতে পারে, আমি কালেভদ্রে হাতের কাছে আর কিছু না পেলে হয়ত খাব, নেহাৎ অগতির গতি, এমনিতে আমি insant coffee পছন্দ করি না | নিউজিল্যাণ্ডে এর থেকে ভাল ইনস্ট্যান্ট কফি পাওয়া যায়।
     
    ইনস্ট্যান্ট কফি বাদ দিলে এখানে L'OR এর শুধু ক্যাপসুল পাওয়া যায়। আমি ক্যাপসুল ব্যবহার করি না (নেসপ্রেসো বা কিউরিগ টাইপের ক্যাপসুল কফি মেকার আমি ব্যবহার করি না, পরিবশের ক্ষতি করে বলে), তাছাড়া আমার মতে ক্যাপসুল কফি মেকারে কফি করে আনন্দ নেই (আমার আমেরিকার হোটেলের ঘরে ক্যাপসুল কফি মেকার ব্যবহারের অভিজ্ঞতা থেকে লিখছি) কারণ নিজের ইচ্ছেমত কফি  নিয়ন্ত্রণ করা যায় না। 
     ল'অর কফি হিসেবে ভালই হবে নিশ্চয়ই | 
  • অরিন | 119.224.61.73 | ১৩ এপ্রিল ২০২৪ ০৫:০০742804
  • @??, আপনার jacobs monarch এর কি অভিজ্ঞতা, লিখলেন না তো?
  • @অরিন | 2405:8100:8000:5ca1::1f:30bc | ১৪ এপ্রিল ২০২৪ ০৯:০৭742811
  • আমি কয়েকটা ইনস্টান্ট কফি যেমন। জেকব্‌স মোনার্ক, ডেভিডফ রিচ এরোমা, ব্রু,(bru) নেসকাফে গোল্ড ২,৩,৪ টে একসাথে বা সাথে একটু ক্যাডবেরি কোকো পাউডার মিশিয়ে উইথ-উইদাউট ক্রিম এক্সপেরিমেন্ট করছি :)
     
     ব্রুটা এমনিতে বাজে, মিশিয়ে খেলে ভালো, নেসকাফে গোল্ড কিছুদিন পরে এরোমা হারায়, টেস্টও। মোনার্কের এরোমা-টেস্ট ধরে থাকে। ডেভিডফ বেশ বিটার টেস্টিং, তবে কোকোর সাথে একটা বেশ মেলো ব্যাপার আসে।
     
    আমি আবার ব্ল্যাক-বিটার টেস্ট নিতে পারিনা।  ব্রাউন টোস্টি ফ্লেভারফুল না হলে রোচেনা।  বিন টিন বেঁটে কফি বানানোর ধৈর্য বা ইকুইপমেন্ট নেই। ওসব দোকানে গেলে খাই।
  • Arindam Basu | ১৪ এপ্রিল ২০২৪ ০৯:৪১742812
  • "আমি কয়েকটা ইনস্টান্ট কফি যেমন। জেকব্‌স মোনার্ক, ডেভিডফ রিচ এরোমা, ব্রু,(bru) নেসকাফে গোল্ড ২,৩,৪ টে একসাথে বা সাথে একটু ক্যাডবেরি কোকো পাউডার মিশিয়ে উইথ-উইদাউট ক্রিম এক্সপেরিমেন্ট করছি :)"
     
    এতে চমতকার mochaর স্বাদ পাওয়া যায়। খাসা জিনিস!
     
    ব্রু এর ব্যাপারটা আমি যতদূর জানি, আমার পুরনো আমেরিকান ইউনিভারসিটির এক তামিল প্রোফেসর আমাদের পেপার ফিল্টার দিয়ে ফিল্টার কফি করে খেতে শিখিয়েছিলেন, বহুকাল আগের ভোরের কলকাতায় লেক রোড চত্বরে হাঁটার স্মৃতি ফিরে এসেছিল, ও বাড়তি পাওনা ছিল মন মাতান ফিলটার কফির স্বাদ। তখন থেকে ব্রু কিনলে ঐভাবে করতাম। 
    অবশ্য কলকাতায় লেক মার্কেট চত্বরে "রাজার পানের দোকানে" আগে কাগজের প্যাকেটে ফিল্টার কফি পাওয়া যেত, নিয়ে এসে আমরা মোকা পট নাহলে ফ্রেঞ্চ প্রেসে কফি করে খেতাম, খুব ভাল খেতে।
     
    কথায় কথায় আমাদের এখানকার ফ্ল্যাট ওয়াইট কফির কথা মনে হল। এখন অবশ্য ফ্ল্যাট ওয়াইট সর্বত্র পাওয়া যায়, তার আবিষ্কার আওতেয়ারোয়া নিউজিল্যাণ্ড ।
     
  • dc | 2402:e280:2141:1e8:5480:6ba4:4491:a67e | ১৪ এপ্রিল ২০২৪ ১০:৩২742813
  • ডেভিডফের ইনস্ট্যান্ট কফি আমার একেবারে ভাল্লাগেনি, তার চেয়ে নেসকাফে গোল্ড বেটার মনে হয়েছে। অবশ্য এসব ব্যাপারে পসন্দ আপনা আপনা :-)
     
    আজ সকালে ট্রাই করলাম মালগুড়ি স্পেশাল ব্লেন্ড, এটা ৭০ঃ৩০ আরবিকা আর রোবুস্তা মিক্স, সাথে ১০% চিকোরি, মিডিয়াম ডার্ক রোস্ট। হারিওতে বানিয়েছি, খুব ভালো লাগলো। 
  • Arindam Basu | ১৪ এপ্রিল ২০২৪ ১১:১২742814
  • বাড়ি গন্ধে ম ম করল? 
    আরবিকা, রোবাসটা, চিকরি, তিনটের কমবিনেশন, আহা! 
  • dc | 2402:e280:2141:1e8:5480:6ba4:4491:a67e | ১৪ এপ্রিল ২০২৪ ১১:৩৪742815
  • হ্যাঁ, অসাধারন আরোমা হয়েছিল। আর তার সাথে ছিল আমাদের পাড়ার বেকারির বাটার বিস্কুট আর রাস্ক বিস্কুট :-)
  • সুদীপ্ত | ১৪ এপ্রিল ২০২৪ ১৫:১২742816
  • কফি ঠিক আছে, তাও পরিমিত, ব্ল্যাক কফি থেকে শত হস্ত দূরে। চা ধরলাম মাসখানেক হল, তবে শুধু গ্রীন টি, অতি অখাদ্য (বা অপেয়?), তবে উপায় নেই, সামনের দু-একটি লক্ষ্যের দিকে তাকিয়ে কৃচ্ছ্রসাধন।
    তা এই গ্রীন টি-র স্বাদ ভালো করার উপায় কি? অথবা রেডিমেড ভালো গ্রীন টি-র খোঁজ দেবেন কেউ? 
  • dc | 2a02:26f7:d6c0:680d:0:6ac7:2ef5:fb10 | ১৪ এপ্রিল ২০২৪ ১৭:১০742817
  • ড্রাই ডেট এর প্যাকেট কিনে আনুন। চা বানানোর আগে দু তিনটে ডেট ফালি ফালি করে কেটে নিন, সেগুলো জলে ধুয়ে নিন। গ্রিন টি বানানো হয়ে গেলে চায়ের মধ্যে ফেলে দিন। একে বলে ডেট টি :-)
  • s | 100.36.114.105 | ১৪ এপ্রিল ২০২৪ ২০:৪০742818
  • সুদীপ্ত 
    গ্রীন টিতে একটু মধু আর লেবুর রস মিশিয়ে দেখতে পারেন। অথবা যে কোনো সিট্রাস এক্সট্রাক্ট। আমার মতে সিট্রাস হল মিরাকিউরাল।
    মিন্ট ও ভাল লাগে। গ্রীন টি বানানোর সময় জলে দু চারটে পুদিনা পাতা দিয়ে দিতে পারেন।  
  • সুদীপ্ত | ১৪ এপ্রিল ২০২৪ ২১:১৬742819
  • অনেক ধন্যবাদ dc, s; সবকটা অপশনই মিলিয়ে মিশিয়ে চেষ্টা করবো তাহলে।
  • অরিন | 119.224.61.73 | ১৫ এপ্রিল ২০২৪ ০১:১২742820
  • @সুদীপ্ত, আপনি কী ধরণের গ্রীণ টি ব্যবহার করেন আর কিভাবে পান করেন লেখেন নি, তাই কিছুটা আন্দাজ করছি যে আপনি হয়ত টি ব্যাগে গ্রীণ টি কাপে রেখে তার ওপর গরম জল ঢেলে খান। সেরকম হলে কারোর কিছু করার নেই, সে গ্রীণ টির স্বাদ অখাদ্য হতে বাধ্য, :-)
    আপনি যদি সেনচা বা গিউকুরো (gyukuro) চায়ের খোলা পাতা বা খুচরো পাতা নিয়ে এসে চা করেন, তাহলে দেখবেন অন্য রকম। বা, আরেকটা হ্যাক হতে পারে যদি টি ব্যাগ ব্যবহার করেন, টি ব্যাগটা কেটে চায়ের পাতাগুলো সরাসরি ব্যবহার করুন।
    আচ্ছা, এবার আরেকটা কথা, গ্রীণ টি খেতে গেলে মেশ বা স্ট্রেনার একদম ব্যবহার করবেন না। তার কারণ, যেহেতু গ্রীণ টির চায়ের পাতাগুলো অন্য রকম ভাবে প্রসেস করা হয় (স্টীম করে প্রসেস করে), দেখবেন চায়ের পাতা গরম জল পেয়ে অনেকটা ফুলে ফেঁপে ওঠে। এখন স্ট্রেনারে, বা ধরুন টি ব্যাগে চায়ের পাতাগুলো যেহেতু বাড়বার জায়গা পায়না, ফলে ঐরকম কনস্ট্রেনড স্পেস থেকে চা পাতার যে অপূর্ব একটা মৃদু ফ্লেভার সেটা আর পাওয়া যায় না। 
    দ্বিতীয়ত, জল ফুটিয়েই না ঢেলে একটু সইয়ে নিন, বা আপনার গরম জল করবার কেটলিতে যদি গ্রীণ টি করার সেটিং থাকে, তাহলে সেই সেটিং অনুযায়ী জল গরম করুন।
    এবার একটা সিরামিক বা কাঁচের কেটলির তলায় চা পাতা রেখে কেটলির ধার বরাবর ধীরে ধীরে জল ঢালুন, কক্ষণো সরাসরি চা পাতার ওপর জল পড়ে যেন scalded না হয়। জাপানীরা কিয়ুসু টোকোনামি স্টাইলের টি পট ব্যবহার করেন, না থাকলে আপনি আমাদের সাবেকি কাঁচের টি পটই ব্যবহার করুন না হয়। দিয়ে ৪৫ সেকেন্ডের বেশী ভেজাবেন না (ব্ল্যাক টি যেমন তিন মিনিট ভেজাতে লাগে এ তা নয়)। তারপর কাপে ঢেলে খান। 
    ভাল লাগবে। 
    আরেকভাবে গ্রীণ টি খাওয়া যায়, মাচা চা, তাতে পাউডার করা চা, তা সে আরেকটু তরিবতের ব্যাপার, পরে লিখছি। ঠিকমত করলে সে চায়ের স্বাদ স্বর্গীয়, না হলে থুথু করে ফেলে দিতে হবে, :-)
     
  • kk | 172.56.3.116 | ১৫ এপ্রিল ২০২৪ ০২:১৯742821
  • মাচার ফ্লেভার আমার খুব ভালো লাগে। মাচা দিয়ে আমি মোচি, চীজকেক, ক্রেপ (ভেতরে চেস্টনাট ক্রীম) এসব বানাই। অরিনদা টই খোলার সময়ে শুধু চা আর কফির কথা বলেছেন। বলেননি যে ওগুলোর পানীয় ফর্ম নিয়েই শুধু লেখা যাবে। তাই আমি বারবার এসে এদের খাদ্য রূপ নিয়ে লিখে যাচ্ছি :-)
  • Arindam Basu | ১৫ এপ্রিল ২০২৪ ০২:৩৬742822
  • তাই আমি বারবার এসে এদের খাদ্য রূপ নিয়ে লিখে যাচ্ছি :-)
     
    আহা @kk , চা মানে কি শুধু পানীয়?
    আমরা তো চা খাই, না কি?
    আমি চীনে দোকানে দেখেছি নানান রকমের ফলের, আমরা যাকে মোরব্বা বলি, তাকে "চা" বলে বিক্রি করে, কাপে ঢেলে গরম জল দিয়ে খেলে চা-ই তো হয়, :-), তা এমনি খাওয়াও যেতে পারে। 
     
    সিরিয়াসলি, অনেক দিন আগের একটা কথা মনে পড়ে গেল | দিল্লি থেকে কি একটা ট্রেনে করে কলকাতায় ফিরছিলাম, সে ট্রেনটা যেখানে সেখানে হল্ট দিত, আর আরবিট হকাররা উঠে পড়ত। এরকমই সকালের দিকে বিহার আর বাংলার মাঝখানে একটা স্টেশন পড়েছিল এক চা বিক্রেতা হকার ট্রেনে উঠে চা বিক্রি করছিলেন। এসব ক্ষেত্রে যা হয়ে থাকে লোকটি বারবার বলে চলেছে, "আখরিবার চা পি লিজিয়ে" | এ আবার কি রকম উদ্ভট কথা? এক ভদ্রলোক সরল মনে জিজ্ঞাসা করলেন, বারবার আখরিবার বলছেন কেন? লোকটি অম্লানবদনে বলে, "বঙ্গালমে সব চা খাতে হেঁ" বলে হ্যাহ্যা করে হাসতে লাগল। 
  • Arindam Basu | ১৫ এপ্রিল ২০২৪ ০২:৩৮742823
  • "মাচার ফ্লেভার আমার খুব ভালো লাগে। মাচা দিয়ে আমি মোচি, চীজকেক, ক্রেপ (ভেতরে চেস্টনাট ক্রীম) এসব বানাই। "
    অসাধারণ সব খাবার দাবার। 
    ক্রেপটা বিশেষ করে!
    আপনার হাতের ক্রেপ খেতে হচ্ছে |
  • Arindam Basu | ১৬ এপ্রিল ২০২৪ ১০:৪৯742826
  • চা কফির আলোচনাটা ভালই হচ্ছে।
     
     
    যে কথার সূত্রে শুরু হয়েছিল কফির pour over technique  নিয়ে, তার আরেকটা উদাহরণ এই ওপরের ছবিতে দেখানো ভাঁড়ের মতন দেখতে পাত্রটি | এটি পঞ্চাশ মাইক্রন ছিদ্রযু্ক্ত সিরামিকের একটি পাত্র, এখানে আপনি চা বা কফি রেখে তার ওপর ঘুরিয়ে জল ঢাললে চা বা কফি হবে, খুব ধীরে কফি বা চা পারকোলেট করে নীচের কাপে বা মগে পড়বে। 
    নীচের ভিডিওটা দেখলে বোঝা যাবে কি বলতে চাইছি:
    সিস্টেমটা আমার ভাল লাগল, আপনারা কেউ ব্যবহার করে দেখেছেন?
  • পাতা :
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]


মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত
পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। খারাপ-ভাল মতামত দিন