এই সাইটটি বার পঠিত
ভাটিয়ালি | টইপত্তর | বুলবুলভাজা | হরিদাস পাল | খেরোর খাতা | বই
  • খেরোর খাতা

  • চীনা সংসারের একটুকরো রোজনামচা

    Pradhanna Mitra লেখকের গ্রাহক হোন
    ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ | ২৩৯ বার পঠিত | রেটিং ৪ (১ জন)


  • লিউ ঝেনউয়ুন চীনদেশের হেনান প্রদেশের মানুষ। ২০১১ সালে পেয়েছেন ‘মাও দুন’ সাহিত্য পুরস্কার, যা চীনা সাহিত্যে নোবেল পুরস্কারের সমতুল্য ধরা হয়। আচ্ছা, আমাদের দেশের কোন পুরস্কারটা ভারতীয় সাহিত্যে নোবেল পুরষ্কার হিসাবে ধরা হয়? সাহিত্য অকাদেমী? জ্ঞানপীঠ? জানি না। তো যাই হোক, বাঙলা ভাষায় এই প্রথম তার বই অনুবাদ করা হয়েছে। করেছেন আশিস দেব। চমৎকার অনুবাদ। কিছু কিছু শব্দ, এমনকি বাক্যবন্ধকেও বাংলা তর্জমা করেছেন, এমনকি কাঁচা খিস্তিও। অহোঃ! চমৎকার সাহসী অনুবাদ।

    শিয়াও লিন্‌, স্বামী, রোজ সকালে উঠে পনীর কেনার লাইনে দাঁড়ায়। বাড়ি ফেরে। ঘরে আয়া, খানিক ফাঁকিবাজ, খানিক বা কাজের। শিয়াও লিন্‌ তাকে বকাবকি করে। শিয়াও লি, স্ত্রী, ঘরের আয়াকে বকাবকি করে কাজে ফাঁকি দেওয়ার জন্য। তারপর স্বামীকে বকাবকি করে। অতঃপর দুজনে ঝগড়া করে। এই পর্যায়ে ব্যক্তিগত আক্রমণ খানিকটা হয়ে যায়। তারপর দুজনেই অফিসে চলে যায়। ঘরে রয়ে যায় আয়া এবং তাদের ছোট্ট বাচ্চা। তারা রোজ অফিসে যায়। প্রতিবেশী ভারতীয় পরিবারটি দুই চক্ষের বিষ, যদিও, দুজনেরই দুজনকে প্রয়োজন। তারা জলের চুরি করে। ধরা পড়ে। লজ্জা পায়। আবার চুরি করে। তারা চাকরির উন্নতির, মেয়েকে নার্সারিতে ভর্তির জন্য তদ্বির করে। ঘুষ দেয়। লজ্জা পায়। আবার তদ্বির করে। ভাগ্য কখনও সুপ্রসন্ন, কখনও অপ্রসন্ন। স্বামী বন্ধুর দোকানে পার্ট টাইম কাজ করে। লজ্জা পায়। তবুও কিছু অর্থলাভের জন্য কাজটা করে। অতিথি এলে রুষ্ট হয়, স্বামী, স্ত্রী দুজনেই। লজ্জা পায়। কিন্তু অতিথি সেবাও করে। এইভাবে দিন ফুরিয়ে রাত আসে। রাতে দুজনেই ঝগড়া করে কিম্বা ভালবাসাবাসি করে। আনন্দ পায়। নাক ডাকিয়ে ঘুমায়। রাত ফুরিয়ে দিন আসে। স্বামী আবার পনীর কেনার লাইনে দাঁড়িয়ে পড়ে। ফুলকপির মরশুমে গাড়ি ভর্তি করে বাড়ীতে ফুলকপি নিয়ে আসে।

    এই উপন্যাসটি প্রথম চীনে প্রকাশিত হয় ১৯৮৯ সালের জানুয়ারি মাসে। কোন আধুনিক লেখা নয়, প্রায় পঁচিশ বছর আগেকার একটা নভেলাকে আশিসবাবু বেছে নিয়েছেন অনুবাদের জন্য। এবং বিস্ময়করভাবে, চরিত্রগুলোর মানসিকতা বর্তমান যুগে দাঁড়িয়েও প্রাসঙ্গিক। তাহলে কি বঙ্গ মানসিকতা চীন মানসিকতার দিক থেকে কমপক্ষে পঁচিশ বছর পিছিয়ে আছে? এখনও কি আমরা নিউক্লিয়ার ফ্যামিলিতেই বিশ্বাস করছি না? এখনও শহুরে ঠাঁটবাটে অভ্যস্ত আমরা ‘দেশের বাড়ী’র আত্মীয় এমনকি নিজের বাপ-মা এলে বিরক্ত বোধ করি না? এখনও কি আমরা ছেলে-মেয়েদের ভালো স্কুলে ভর্তি করানোর জন্য তদ্বির করি না? এখনও কি আমরা প্রতিবেশীদের প্রতি হিংসেয় জর্জরিত হই না? কাজের লোক নিয়ে নিত্য খিটিমিটি কি লেগেই থাকে না? রোজ সকালে বাজারে কিম্বা সপ্তাহে একবার ভোরবেলায় রেশনের দোকানে লাইন দিতে হয় না? হয় বৈ কি। কোথাও হয়তো, এ সমস্যা একটা সমাজের পরিপ্রেক্ষিতে, চিরকালের। চীনের সমাজের সাথে অনেকাংশে, এশীয় এবং প্রতিবেশী হওয়ার সুবাদে, অনেক মিল আছে বৈ কি। ওয়াং কার ওয়াই-এর সিনেমাতেও এই মিল আমি লক্ষ্য করেছি।

    উপন্যাসের মধ্যে কোনরকম তলস্তয় মার্কা কোন ‘দর্শন’ নেই। আছে চিত্তরঞ্জন মাইতি টাইপ বেডরুম ড্রামা। যেখানে হাস্যরস এবং ব্যঙ্গরসের আবহে বেইজিং শহরের এক তথাকথিত দরিদ্র পরিবারের সুখ-দুঃখের কাহিনী লেখা আছে। “নাগরিক জীবনের সাধারণ মানুষ, তার অসঙ্গতি, কৌশলকে তিনি (লেখক) বলেন মৃদু কৌতুকে।” কথা সত্য। চড়া মাপের কষাঘাত করাটা তার পক্ষে সম্ভব নয় বলেই কি এমন মৃদু প্রতিবাদ? চীনা পাঠকরাই বলতে পারবেন। কিন্তু, এই মৃদু কতকগুলো ঠোনা’র মধ্যে যেটুকু উঠে আসে, তাতে করে আমাদের সমাজ ব্যবস্থার সাথে ওদেশের সমাজ ব্যবস্থার খুব একটা যেমন পার্থক্য দেখা যায় না, তেমনই, স্বামী-স্ত্রীর দাম্পত্য কলহের মধ্যবর্তী টানাপোড়েনে যে সংলাপগুলো পাওয়া যায়, তা আমাদের আশেপাশে, এমনকি চার দেওয়ালের মধ্যে কান পাতলেই শুনতে পাওয়া যায়, এমনকি গ্রামে-মফস্বলেও। চরিত্র বদলে যায়, ভাব বদলায় না।

    তো, সবমিলিয়ে এই নভেলা চট্‌ করে, ট্রেনে কিম্বা বাসে, বর্ষায় কিম্বা শীতে, সকালে কিম্বা রাত্রে দু-এক ঘন্টা অবহেলে সময় কাটানোর জন্য বেশ ভালো অপশন।
    প্রশ্ন একটাই, নামকরণের সার্থকতাটা কি?

    ===========================

    মাটিতে ছড়ানো মুরগীর পালক
    লিন ঝেনইয়ুন
    অনুবাদকঃ আশীস দেব
    ব্রেইন ফিভার পাবলিকেশান
    মুদ্রিত মূল্যঃ ১৫০ টাকা 
    ছবি কৃতজ্ঞতাঃ সমর্পিতা
    পুনঃপ্রকাশ সম্পর্কিত নীতিঃ এই লেখাটি ছাপা, ডিজিটাল, দৃশ্য, শ্রাব্য, বা অন্য যেকোনো মাধ্যমে আংশিক বা সম্পূর্ণ ভাবে প্রতিলিপিকরণ বা অন্যত্র প্রকাশের জন্য গুরুচণ্ডা৯র অনুমতি বাধ্যতামূলক। লেখক চাইলে অন্যত্র প্রকাশ করতে পারেন, সেক্ষেত্রে গুরুচণ্ডা৯র উল্লেখ প্রত্যাশিত।
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • guru | 2409:4060:2193:b902:1fc5:a1cb:8b83:d92a | ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ০৬:৪৪528652
  • লেখিকাকে ধন্যবাদ l আচ্ছা এই বইটি মূল  মান্দারিন থেকে বাংলা অনুবাদ নাকি ইংরাজী থেকে ? 
  • প্যালারাম | ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ০৯:০৯528659
  • বাঃ! রিভিউয়ের যা কাজ—শিল্পকর্মটির প্রতি উৎসাহ বাড়িয়ে তোলা—দিব্যি হয়েছে। 
    খুব খানিক খিটিরমিটির ঝগড়ার গল্প শুনলাম মনে হল—মুরগি লড়াই কি? যার পরে মাটিতে ছড়িয়ে থাকে শুধু কিছু মুরগির পালক?
  • Jahar Kanungo | ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ১৭:০৪528673
  • ভালো লাগলো।
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]


মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত
পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। খারাপ-ভাল প্রতিক্রিয়া দিন