এই সাইটটি বার পঠিত
ভাটিয়ালি | টইপত্তর | বুলবুলভাজা | হরিদাস পাল | খেরোর খাতা | বই
  • খেরোর খাতা

  • বিশ্ব জুড়ে তরুণরা কেন এতটা ফিলিস্তিনপন্থী?

    Sumit Roy লেখকের গ্রাহক হোন
    ১৭ নভেম্বর ২০২৩ | ৬৭৪ বার পঠিত
  • গত ৭ অক্টোবর হামাসের হামলার পর থেকে পশ্চিমা শহর ও বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে ফিলিস্তিনপন্থী বিক্ষোভের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে। এই বিক্ষোভগুলির ক্ষেত্রে কেবল এগুলোর বিস্তৃতিই উল্লেখযোগ্য নয়, সেই সাথে বিক্ষোভকারীদের তারুণ্য বা তরুণ বয়সের ব্যাপারটাও একটি উল্লেখযোগ্য ব্যাপার। এই প্রবণতাটি জরিপের তথ্য দ্বারা সমর্থিত, যা দেখায় যে আজকের তরুণদের মধ্যে ইসরায়েলের চেয়ে ফিলিস্তিনকে সমর্থন করার সম্ভাবনা উল্লেখযোগ্যভাবে বেশি, যা পুরানো প্রজন্মের সাথে একটি পার্থক্যকে চিহ্নিত করে। এই লেখাটিতে অনুসন্ধান করা হবে যে, ইজরায়েল সম্পর্কে তরুণ প্রজন্মের দৃষ্টিভঙ্গি আজকের পুরানো প্রজন্ম এবং অতীতের তরুণদের থেকে কীভাবে আলাদা, সেই সাথে এদের দৃষ্টিভঙ্গির এই পরিবর্তনের পেছনের কারণগুলিও পরীক্ষা করা হবে।

    জরিপের তথ্যগুলোর দিকে তাকালে দেখা যায়, ইসরায়েলের চেয়ে ফিলিস্তিনের প্রতি তরুণদের অগ্রাধিকার পুরোপুরি নতুন নয়। গ্যালাপ জরিপে দেখা গেছে, ২০০১ সাল থেকে, যখন তারা প্রজন্মভেদে আবেগ পরিমাপ করতে শুরু করে, তরুণ আমেরিকানরা ধারাবাহিকভাবে পুরানো প্রজন্মের তুলনায় ফিলিস্তিনের প্রতি বেশি সহানুভূতি দেখিয়েছে। উদাহরণস্বরূপ, ২০০২ সালে, ইসরায়েলের প্রতি নিট সিম্প্যাথি (অর্থাৎ, ফিলিস্তিনের তুলনায় ইসরায়েলের পক্ষে থাকার হার) জেনারেশন এক্স (২৩ থেকে ৩৭ বছর বয়সী) এর জন্য ৩৬%, বেবি বুমারদের (৩৮ থেকে ৫৬ বছর বয়সী) জন্য ৪৩% এবং সাইলেন্ট জেনারেশনের (৫৬ বছরের বেশি বয়সীদের) জন্য ৪৮%। এই তথ্য থেকে জানা যায় যে, ২০০২ সালে সমস্ত প্রজন্ম থেকেই মানুষ ইসরায়েলপন্থী দৃষ্টিভঙ্গির দিকে ঝুঁকলেও পুরানো প্রজন্মগুলি তরুণ প্রজন্মগুলির তুলনায় ইসরায়েলের দিকে বেশি ঝুঁকেছিল। ইসরায়েলের চেয়ে ফিলিস্তিনের প্রতি তরুণ প্রজন্মের দৃষ্টিভঙ্গির পরিবর্তন আন্তর্জাতিক রাজনৈতিক সহানুভূতিতে একটি উল্লেখযোগ্য পরিবর্তন। ইসরায়েল-ফিলিস্তিন সংঘাত নিয়ে বৈশ্বিক মতামতের এই বিবর্তিত গতিশীলতা উপলব্ধি করার জন্য এই পরিবর্তনের পেছনের কারণগুলি বোঝা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

    ইসরায়েল-ফিলিস্তিন সংঘাত, বিশেষ করে বিভিন্ন প্রজন্মের মধ্যে মার্কিন দৃষ্টিভঙ্গির সাম্প্রতিক পরিবর্তনগুলি উল্লেখযোগ্য। ২০০২ সালে, বিভিন্ন বয়সের মধ্যে ইসরায়েলের প্রতি সহানুভূতির পার্থক্য ন্যূনতম ছিল। কিন্তু, হামাসের হামলার কয়েক মাস আগে পরিচালিত সাম্প্রতিক গ্যালাপ জরিপগুলি একটি সম্পূর্ণ বিপরীত অবস্থা প্রকাশ করে, যেখানে দেখা যায়, মিলেনিয়াল এবং জেন এক্সের মধ্যে ইসরায়েলের প্রতি নিট সিম্প্যাথিতে এখন ব্যবধান ৩০ পয়েন্টেরও বেশি, আর মিলেনিয়াল এবং বেবি বুমারদের মধ্যে ব্যবধান প্রায় ৫০ পয়েন্টের। উপরন্তু, আমেরিকার ইতিহাসে এবারে প্রথমবারের মতো, তরুণ প্রজন্মে ইসরায়েলের চেয়ে ফিলিস্তিনকে সমর্থন করার সম্ভাবনা বেশি। গ্যালাপ জরিপ ইঙ্গিত দেয় যে মিলেনিয়ালদের ইসরায়েলের প্রতি মোট সহানুভূতি মাইনাস দুই, যা এই গোষ্ঠীর মধ্যে ফিলিস্তিনের প্রতি বৃহত্তর সহানুভূতির ইঙ্গিত দেয়। এটা অনুমান করা যুক্তিসঙ্গত যে জেনারেল জেড, তাদের পছন্দসই সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মগুলিতে ফিলিস্তিনপন্থী কন্টেন্টের প্রসার এবং সাম্প্রতিক হার্ভার্ড ক্যাপস-হ্যারিস জরিপের ফলাফল দ্বারা প্রভাবিত হয়ে ফিলিস্তিনিদের প্রতি আরও বেশি ঝুঁকছেন, বিশেষত ২৫ থেকে ৩৪ বছর বয়সীদের মধ্যে এই প্রবণতা বেশি।

    এই জরিপের তথ্য দেখায় যে ১৮ থেকে ২৪ বছর বয়সীদের মধ্যে ৫২% বিশ্বাস করে না যে হামাসের বিরুদ্ধে ইসরায়েলের পদক্ষেপ ন্যায়সঙ্গত। কিন্তু সমগ্র আমেরিকা জুড়ে এই বিশ্বাস মাত্র ২১%। মানে তরুণদের বিশ্বাস আমেরিকার ওভারঅল বিশ্বাস থেকে সম্পূর্ণ বিপরীত। উপরন্তু, এই বয়সের ৬৪% মনে করেন, উভয় পক্ষের অবস্থানই সমানভাবে ন্যায়সঙ্গত, বৃহত্তর জনসংখ্যার মধ্যে মাত্র ৩৯% এর তুলনায়। এটি উল্লেখযোগ্য যে, যদিও ১৮ থেকে ২৪ বছর বয়সীদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য ২৯% হামাসকে সমর্থন করে (যা অন্য যে কোনও বয়সের গ্রুপের চেয়ে বেশি), তরুণ আমেরিকানরা নন-ভায়োলেন্সের পক্ষে অগ্রাধিকার প্রদর্শন করে ও ১৮ থেকে ৩৪ বছর বয়সীদের বেশিরভাগই নিরপেক্ষ অবস্থানের পক্ষে রয়েছে। এই প্রবণতা শুধু যুক্তরাষ্ট্রেই সীমাবদ্ধ নয়। দ্য ইকোনমিস্টের জরিপে দেখা গেছে, ইউরোপ জুড়ে তরুণরাও পুরনো প্রজন্মের তুলনায় ইসরায়েলপন্থী মনোভাব কম দেখায় এবং ফিলিস্তিনপন্থী দৃষ্টিভঙ্গির দিকে বেশি ঝুঁকে পড়ে। যুক্তরাজ্যে, সাম্প্রতিক জরিপে দেখা গেছে যে ১৮ থেকে ২৪ বছর বয়সীদের ইসরায়েলপন্থীদের তুলনায় ফিলিস্তিনপন্থী হওয়ার সম্ভাবনা চারগুণ বেশি, যা যুক্তরাজ্যের ঐতিহাসিকভাবে ইসরায়েলপন্থী অবস্থান এবং দেশটিতে সামগ্রিকভাবে ইসরায়েলপন্থী মনোভাবের কারণে বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য।

    তরুণরা কেন ফিলিস্তিনপন্থী দৃষ্টিভঙ্গির দিকে বেশি ঝুঁকছে, এই প্রশ্নটি জটিল এবং বহুমুখী। তবে নিচে এর তিনটি মূল কারণ উল্লেখ ও বর্ণনা করা হচ্ছে বিষয়টি ব্যাখ্যা করার জন্য -

    ১. ইসরায়েল-ফিলিস্তিন সংঘাতের উপলব্ধি ক্রমবর্ধমানভাবে পলিটিকাল এলাইনমেন্টের বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে, বিশেষ করে তরুণ প্রজন্মের মধ্যে। এই প্রবণতা ভোটের তথ্যে স্পষ্ট, যেখানে ফিলিস্তিনের প্রতি সমর্থন বামপন্থী রাজনৈতিক ঝোঁকের সাথে সম্পর্কিত। তরুণরা, যারা সাধারণত বামপন্থার দিকে বেশি ঝুঁকে থাকে, তারা ফিলিস্তিনকে সমর্থন করার প্রবণতা বেশি দেখায়। এই প্যাটার্নটি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে স্পষ্টভাবে দৃশ্যমান, যেখানে ডেমোক্র্যাটদের ফিলিস্তিনের প্রতি সহানুভূতিশীল হওয়ার সম্ভাবনা বেশি এবং কোন ব্যক্তির লিবারাল হবার সাথে সাথে তার ইসরায়েলের প্রতি সমর্থন হ্রাস পায়। যুক্তরাজ্যেও একই ধরনের প্রবণতা লক্ষ্য করা যাচ্ছে। সাম্প্রতিক ইউগভ জরিপ অনুযায়ী, লেবার পার্টির সমর্থকরা ফিলিস্তিনকে সমর্থন করার দিকে বেশি ঝুঁকছেন এবং তরুণ ভোটারদের লেবার এবং ফিলিস্তিন উভয়কেই সমর্থন করার সম্ভাবনা বেশি। এই পরিবর্তন আংশিকভাবে ইসরায়েলের রাজনৈতিক বিবর্তন থেকে উদ্ভূত। ২০০৯ সালে বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু ক্ষমতায় ফিরে আসার পর থেকে ইসরায়েল ক্রমবর্ধমানভাবে ডানপন্থী রাজনীতির সাথে যুক্ত হয়েছে। হিলারি ক্লিনটনের বিরুদ্ধে প্রচারণা চালানো এবং ২০১৫ সালে প্রেসিডেন্ট ওবামার অনুমোদন ছাড়াই কংগ্রেসে ট্রাম্পপন্থী ভাষণ দেওয়ার মতো নেতানিয়াহুর কর্মকাণ্ডগুলো এই ধারণাকে আরও জোরদার করেছে। ঐতিহাসিকভাবে, ইসরায়েলি রাজনীতিতে বামপন্থীদের আধিপত্য ছিল, তবে ১৯৭৩ সালের ইয়োম কিপুর যুদ্ধের পরে ডানপন্থার দিকে একটি উল্লেখযোগ্য পরিবর্তন ঘটেছিল।

    ২. তরুণদের দৃষ্টিভঙ্গিকে প্রভাবিত করার আরেকটি মূল কারণ হ'ল সোশ্যাল মিডিয়ার ভূমিকা। তরুণ ব্যক্তিরা, যারা মূলত সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে সংবাদ গ্রহণ করে এবং প্রায়শই প্রতিষ্ঠিত মিডিয়া আউটলেটগুলির প্রতি সন্দেহ প্রকাশ করে, ও মনে করে, ট্রেডিশনাল মিডিয়া আউটলেটগুলো ইসরায়েলের প্রতি পক্ষপাতিত্ব দেখায়। তরুণ আমেরিকানদের একটি উল্লেখযোগ্য অংশ ৭ অক্টোবরের হামলার মতো গুরুত্বপূর্ণ ঘটনা নিয়ে মিডিয়ার বিবরণের প্রতি সন্দেহ প্রকাশ করে। সোশ্যাল মিডিয়া বিশ্লেষণ অনুসারে গতানুগতিক মিডিয়ার তুলনায় সোশ্যাল মিডিয়াতে ফিলিস্তিনপন্থী মনোভাবের শক্তিশালী উপস্থিতি রয়েছে। উদাহরণস্বরূপ, একটি ইকোনমিস্ট বিশ্লেষণে দেখা গেছে যে, স্পেসিফিক ইন্সিডেন্টগুলো নিয়ে প্রাথমিক প্রতিক্রিয়া ভারসাম্যপূর্ণ হলেও শেষ পর্যন্ত বেশিরভাগ প্ল্যাটফর্মে ফিলিস্তিনপন্থী বিষয়বস্তু প্রাধান্য পেয়েছিল। যুক্তরাজ্যের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের দৃশ্যপট ফিলিস্তিনপন্থী, যেখানে ইসরায়েলপন্থী পোস্টের চেয়ে ছয়গুণ বেশি ফিলিস্তিনপন্থী পোস্ট রয়েছে। অ্যাক্সিওসের সাম্প্রতিক তথ্য এই বৈষম্যকে আরও তুলে ধরেছে, বিশেষত টিকটকে, যার ইউজার বেইজ সবচেয়ে কম বয়সীদের নিয়েই। টিকটকে ফিলিস্তিনপন্থী কনটেন্ট ইসরায়েলপন্থী কনটেন্টকে উল্লেখযোগ্যভাবে ছাড়িয়ে গেছে এবং অনেক বেশি ভিউ পেয়েছে। এই প্রবণতা আন্তর্জাতিক সংঘাত, বিশেষত ইসরায়েল-ফিলিস্তিন ইস্যু সম্পর্কে তরুণদের উপলব্ধি গঠনে সোশ্যাল মিডিয়ার ক্রমবর্ধমান প্রভাবকে তুলে ধরে, যা পলিটিকাল এলাইনমেন্ট এবং মিডিয়া ব্যবহারের ধরণগুলিতে বিস্তৃত পরিবর্তনকে প্রতিফলিত করে।
     
    ৩. তরুণদের মধ্যে ফিলিস্তিনপন্থী মনোভাবের একটি মূল কারণ হ'ল জাতিগত বৈচিত্র্য। তরুণ প্রজন্মের মধ্যে অশ্বেতাঙ্গ ব্যক্তিদের অনুপাত বেশি থাকে, যারা ফিলিস্তিনকে সমর্থন করতে বেশি আগ্রহী। উদাহরণস্বরূপ, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে, বুমার প্রজন্মের (৭২%) তুলনায় জেনারেশন জেড-এ শ্বেতাঙ্গ কম (৪৯%)। এই জনতাত্ত্বিক পরিবর্তনই ইসরায়েলের প্রতি মনোভাবের সাথে সম্পর্কিত। গ্যালাপ জরিপগুলি ইঙ্গিত দেয় যে অশ্বেতাঙ্গ আমেরিকানরা ইসরায়েলের প্রতি কম সহানুভূতিশীল, তাদের মাত্র ২৬% ইজরায়েলের প্রতি সমর্থন দেখিয়েছে, অন্য দিকে শ্বেতাঙ্গ আমেরিকানদের মধ্যে এই সমর্থ ৫৮%। একইভাবে, শ্বেতাঙ্গ আমেরিকানদের মধ্যে ইসরায়েলের প্রতি অনুকূল মতামত ৭১% দাঁড়িয়েছে, তবে অশ্বেতাঙ্গ আমেরিকানদের জন্য তা ৬২%।

    তথ্যসূত্র

    1 - https://news.gallup.com/poll/472070/democrats-sympathies-middle-east-shift-palestinians.aspx
    2 - https://www.axios.com/2023/10/31/tiktok-views-pro-palestine-posts-israel
    3 - https://harvardharrispoll.com/wp-content/uploads/2023/10/HHP_Oct23_KeyResults.pdf
    4 - https://harvardharrispoll.com/wp-content/uploads/2023/10/HHP_Oct23_KeyResults.pdf
    5 - https://www.economist.com/international/2023/11/02/israel-is-more-popular-than-social-media-posts-suggest
    6 - https://news.gallup.com/poll/472070/democrats-sympathies-middle-east-shift-palestinians.aspx
    7 - https://www.eitanhersh.com/uploads/7/9/7/5/7975685/hersh_royden_israel_paper_060921.pdf
    8 - https://d3nkl3psvxxpe9.cloudfront.net/documents/TheTimes_IsraelPalestine_231102_W.pdf
    9 - https://www.vox.com/2015/3/2/8130977/netanyahu-speech-explained
    10 - https://harvardharrispoll.com/wp-content/uploads/2023/10/HHP_Oct23_KeyResults.pdf
    11 - https://harvardharrispoll.com/wp-content/uploads/2023/10/HHP_Oct23_KeyResults.pdf
    12 - https://www.economist.com/international/2023/11/02/israel-is-more-popular-than-social-media-posts-suggest
    13 - https://www.economist.com/international/2023/11/02/israel-is-more-popular-than-social-media-posts-suggest
    14 - https://www.statista.com/statistics/1299771/tiktok-global-user-age-distribution/
    15 - https://www.axios.com/2023/10/31/tiktok-views-pro-palestine-posts-israel
    16 - https://www.marketingcharts.com/charts/us-population-distribution-by-generation-and-race-ethnicity
    17 - হটপস://নিউস।গাল্লুড়.কম/পোল/৪৭টো৭০/ডেমোক্র্যাটস-সিম্পাথিয়েস-মিডল-ইস্ট-শিফট-প্যালেস্টিনিয়ান্স.এসপিক্স 

    পুনঃপ্রকাশ সম্পর্কিত নীতিঃ এই লেখাটি ছাপা, ডিজিটাল, দৃশ্য, শ্রাব্য, বা অন্য যেকোনো মাধ্যমে আংশিক বা সম্পূর্ণ ভাবে প্রতিলিপিকরণ বা অন্যত্র প্রকাশের জন্য গুরুচণ্ডা৯র অনুমতি বাধ্যতামূলক। লেখক চাইলে অন্যত্র প্রকাশ করতে পারেন, সেক্ষেত্রে গুরুচণ্ডা৯র উল্লেখ প্রত্যাশিত।
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • দেবেশ | 74.82.60.196 | ১৭ নভেম্বর ২০২৩ ১৩:০৯526180
  • বিন লাদেনের লেখা চিঠি ভইরাল হল টিকটকে
    A decades-old letter of former Al Qaida chief Osama bin Laden is going viral on TikTok after some users posted it on the video sharing platform and re-shared it on X (formerly Twitter). TikTok has removed the hashtag #lettertoamerica (with over 2 million views) from its search after bin Laden's 2002 'Letter to America' sparked a debate about US support to Israel in its current conflict with Hamas, reported NBC News. Some social media users suggested that the Al Qaeda founder's document gives an alternative perspective about the US' involvement in conflicts in the Middle East - something that has been criticised by the White House.
    The issue gained prominence after users started sharing link to The Guardian's transcript of the letter, which was written a year after the September 11, 2001 attacks in which more than 3,000 people were killed. The Guardianremoved the 21-year-old letter from its website.
    In the letter, bin Laden addressed the American people and sought to answer the following questions: "Why are we fighting and opposing you?" and "What are we calling you to, and what do we want from you?"
    People discussing the letter said it caused them to re-evaluate their beliefs around US wars in Iraq and Afghanistan. They also said they are not praising or defending bin Laden's orchestration of the 9/11 attacks.
  • Sumit Roy | ১৭ নভেম্বর ২০২৩ ১৩:১৭526181
  • @দেবেশ,
    গুরুত্বপূর্ণ তথ্যটি শেয়ার করার জন্য ধন্যবাদ।
  • নবীন | 65.49.68.65 | ১৭ নভেম্বর ২০২৩ ১৩:৪৯526183
  • টাইম ম্যাগাজিনঃ আজগের দিনে আম্রিকি ক্যাম্পাসে ইহুদি হওয়া সহজ না  
    It’s not easy to be a Jew at an American university today. As one student tearfully explained to me, “We’re exhausted and we’re beleaguered and no one seems to understand.” University administrators have indeed mostly failed their Jewish students, staff, and faculty. Fears of imposing censorship and citing of First Amendment rights have allowed to circulate freely on campus Holocaust denial, the invocation of white privilege to dismiss antisemitism, and the rejection of the Jewish people’s inalienable right to self-determination.
    America’s universities have long been envied the world over as exemplars of the highest standards of learning and scholarship. Will they now become better known, and perhaps even emulated, for failing to adequately protect their Jewish communities? Jews know better than most how easily ostracism and intolerance spreads from us to others. And, then to books and ideas as well.
    তথ্যসূত্র
  • guru | 160.238.92.171 | ১৮ নভেম্বর ২০২৩ ১৩:০৪526212
  • @সুমিত 
     
              পুরো ব্যাপারটাই আসলে আপনার এই তৃতীয় পয়েন্টে |
     
    "তরুণদের মধ্যে ফিলিস্তিনপন্থী মনোভাবের একটি মূল কারণ হ'ল জাতিগত বৈচিত্র্য। তরুণ প্রজন্মের মধ্যে অশ্বেতাঙ্গ ব্যক্তিদের অনুপাত বেশি থাকে, যারা ফিলিস্তিনকে সমর্থন করতে বেশি আগ্রহী। উদাহরণস্বরূপ, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে, বুমার প্রজন্মের (৭২%) তুলনায় জেনারেশন জেড-এ শ্বেতাঙ্গ কম (৪৯%)। এই জনতাত্ত্বিক পরিবর্তনই ইসরায়েলের প্রতি মনোভাবের সাথে সম্পর্কিত। গ্যালাপ জরিপগুলি ইঙ্গিত দেয় যে অশ্বেতাঙ্গ আমেরিকানরা ইসরায়েলের প্রতি কম সহানুভূতিশীল, তাদের মাত্র ২৬% ইজরায়েলের প্রতি সমর্থন দেখিয়েছে, অন্য দিকে শ্বেতাঙ্গ আমেরিকানদের মধ্যে এই সমর্থ ৫৮%। "
     
    আসলে পুরো ব্যাপারটাই দাঁড়িয়ে গায়ের রঙের উপরে | শ্বেতাঙ্গ আম্রিকিদের পক্ষে শ্বেতাঙ্গ ইহুদীদের সমর্থন করা যতটা সহজ , অসাদা প্যালেস্টিনিয়ানদের সাপোর্ট করাটা ততোটা সহজ নয় | শ্বেতাঙ্গ আম্রিকিদের কাছে স্বয়ং যীশু একজন শ্বেতাঙ্গ পুরুষ মাত্র !!!
     
     
  • ব্যাখ্যা | 2405:8100:8000:5ca1::118:e82d | ১৮ নভেম্বর ২০২৩ ১৭:১৯526215
  • American Enterprise Institute Senior Fellow Samuel Abrams said in an interview with the Deseret News that the younger generations’ lack of support for Israel corresponds with other trends he’s seen.
    “We are living in an enormous historical deficit. We are not having conversations with the past. One thing Judaism believes in and (Latter-day Saints) and others is that, of course, we recognize the past and study the past,” Abrams said. “The older generations in the polls know this and they’ve studied the past. They understand this.”
    “Younger folks don’t know any history and they’re not being taught any history,” he added, explaining how he believes younger generations don’t understand the history of the land of Israel and the Jewish people’s connection to the region.
    ...
     
    One possible explanation for why some members of Gen Z seems much more likely than any other generation to say that they think Hamas didn’t actually brutally kill civilians may be connected to where they get their news.
    TikTok has become the news outlet of choice among younger generations, with some saying that antisemitic content on the app has fomented anti-Israel sentiment.
     
  • তরুণ | 65.49.2.193 | ১৮ নভেম্বর ২০২৩ ১৮:০৬526216
  • ইতিহাস ফিরে ফিরে আসে 
    ADL Records Dramatic Increase in U.S. Antisemitic Incidents Following Oct. 7 Hamas Massacre
    ADL Center on Extremism notes nearly 400-percent increase in preliminary antisemitic incidents reported year over-year
    New York, NY, October 25, 2023 … Since the Hamas massacre of Israeli civilians on Oct. 7, ADL (the Anti-Defamation League) has recorded a significant spike in antisemitic incidents across the United States. Preliminary data from ADL Center on Extremism indicates that reported incidents of harassment, vandalism and assault increased by 388 percent over the same period last year.
    ADL recorded a total of 312 antisemitic incidents between Oct. 7-23, 2023, 190 of which were directly linked to the war in Israel and Gaza. By comparison, during the same period in 2022, ADL received preliminary reports of 64 incidents, including four that were Israel-related. An interactive map plotting where incidents have occurred in October 2023 can be found here.
    ADL also tracked anti-Israel rallies since Oct. 7, at least 109 of which ADL found explicit or strong implicit support for Hamas and/or violence against Jews in Israel. These 109 are included in ADL’s tally of antisemitic incidents.
  • hmm | 2405:8100:8000:5ca1::89:a97d | ১৮ নভেম্বর ২০২৩ ১৯:০৮526217
  • এরপর নাৎসিদের পক্ষেও ব্যাপক জনসমর্থনের সুদিন আসবে।
    Part of the problem may be social media, experts say. The survey shows that about half of millennial and Gen Z respondents have seen Holocaust denial or distortion posts online. Fifty-six percent reported having seen Nazi symbols on social media or in their communities within the past five years.
     
  • Sumit Roy | ১৯ নভেম্বর ২০২৩ ০৭:০৮526238
  • @guru, সেটা সরলীকরণ হবে। টেক্সাসের শ্বেতাঙ্গ আর ক্যালিফোর্নিয়ার শ্বেতাঙ্গ কী এক? 
  • Sumit Roy | ১৯ নভেম্বর ২০২৩ ০৭:১৮526239
  • @ব্যাখ্যা, এক দিক দিয়ে ঠিকই। এখনকার ইয়ং জেনারেশন হলো, "too big, didn't read" টাইপের। যেটাই সাপোর্ট করুক, তেমন পড়াশুনা না করেই করে। টেলিগ্রাম, এক্সের ছোট ছোট লেখা, মিম, ছোট ছোট ভিডিও দিয়ে অনুপ্রাণিত বেশি হয়েছে এবার। 
  • Sumit Roy | ১৯ নভেম্বর ২০২৩ ০৭:২৯526241
  • @তরুণ, প্রেডিক্ট করেছিলাম এরকমটাই হবে। লিংকগুলোর জন্য ধন্যবাদ।
  • পলিটিশিয়ান | 2603:8001:b102:14fa:85:a9ab:11ba:78d3 | ১৯ নভেম্বর ২০২৩ ২০:২০526262
  • হাজার বছর আগে প্যালেস্টাইনের সাথে ইহুদীদের কি যোগাযোগ ছিল বলে যদি আজকে সেখানে ইহুদীদের অধিকার মানতে হয় তো বাবরী মসজিদের ওপর রামমন্দির বানানোও ন্যায্য বলে মানতে হয়। 
  • Sumit Roy | ১৯ নভেম্বর ২০২৩ ২২:০৪526268
  • @পলিটিশিয়ান ,
    আমি কি কোথাও লিখেছি যে,"হাজার বছর আগে প্যালেস্টাইনের সাথে ইহুদীদের কি যোগাযোগ ছিল বলে  জকে সেখানে ইহুদীদের অধিকার মানতে হয়"? এখানে এই কমেন্ট করার কারণ কী?
  • পলিটিশিয়ান | 2603:8001:b102:14fa:85:a9ab:11ba:78d3 | ২০ নভেম্বর ২০২৩ ০১:১৬526276
  • ব্যাখ্যা | 2405:8100:8000:5ca1::118:e82d | ১৮ নভেম্বর ২০২৩ ১৭:১৯
     
  • | 2a0b:f4c2::19 | ২২ নভেম্বর ২০২৩ ১০:৪০526371
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]


মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত
পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। যা খুশি প্রতিক্রিয়া দিন