এই সাইটটি বার পঠিত
ভাটিয়ালি | টইপত্তর | বুলবুলভাজা | হরিদাস পাল | খেরোর খাতা | বই
  • খেরোর খাতা

  • যদুবাবুর টিউশনি - প্রোবাবিলিটি ও প্যারাডক্সের গল্প

    প্যালারাম লেখকের গ্রাহক হোন
    ১৭ জানুয়ারি ২০২৩ | ৭৩০ বার পঠিত | রেটিং ৫ (২ জন)
  • দত্তকের ডাক


    'সবার পড়ার মত' বিজ্ঞান নিয়ে লেখালেখি কেন হওয়া উচিত—এ প্রশ্নের মনে হয় আন্তর্জালোত্তর পৃথিবীতে আর কোনো প্রয়োজন নেই। সব বিষয় নিয়েই বই লেখা হয়, আর 'পড়তে কতটা ভালো লাগছে / সমঝদারেরা কত ভালো বলছে'—এর ওপর ভিত্তি করে তার চাহিদা তৈরি হয়। বিজ্ঞান বাদ যাবে কেন? বিশেষ করে, তার 'রেড রাইট হ্যান্ড' যখন সর্বস্পর্শী?

    বিজ্ঞান যে ভাষায় আমরা চর্চা করি, তা আসলে অঙ্কের ভাষা—এইটে একটা ছোট্ট চৌকাঠ হতে পারে, প্রাচীর কখনোই নয়। নইলে বিমূর্ত ছবি, সিনেমা নিয়ে চর্চা হচ্ছে কী করে? উলটে, বিজ্ঞানের ফলাফল, চর্চা, কর্মপদ্ধতি যখন আমাদের জীবন আর প্রযুক্তিতে মিলেজুলে যায়—সেই সন্ধিক্ষণ নিয়ে আলোচনাই তো সবথেকে বেশি 'রিলেটেবল', তাই না? অথচ দেখুন, এইসব নিয়ে ক'টা বই যে লেখা হয় আর তার কথা বাজারে ছড়ায়—হাতে গুনে বলা যায়। বাংলায়? আরো কম।

    অল্প বয়সে ইয়া পেরেলম্যান, 'কী দিয়ে সমস্তকিছু গড়া', আনন্দমেলা আর দেশের পথিকবাবুর লেখা, পরে বড় হয়ে ইঞ্জিরিতে নানা পপুলার সায়েন্সের বই পড়া (পথিকবাবুকে একটু হলেও 'জাজ' করা) — এইসব না করলে কি আর বিজ্ঞানে উৎসাহ আসত? সন্দেহ হয়।

    বিজ্ঞান নিয়ে এইরকম পপুলার অথচ 'প্রাসঙ্গিক' লেখা—যে বিষয় ছাড়া শুরুই করা সম্ভব নয়, তা হল স্ট্যাটিস্টিক্স—রাশিবিজ্ঞান। রাশি শুনলেই হৃৎকম্প হওয়াটা অস্বাভাবিক নয় (বিশেষ করে 'রসোড়ে মে কৌন থা' এপিসোডের পর), কিন্তু এই ব্যাপারটা যে প্রতিদিন নিজেদের জীবনে আমরা ব্যবহার করে চলেছি—তা তো মিথ্যে নয়! প্রশ্ন হল, ব্যবহার তো করছি, জেনেবুঝে করছি তো?

    বহুদিন ধরে, বহু ব্যয় করে, p-value আর confidence interval-এর জঙ্গলে ঘুরে, হাতে একদিন এল 'How to lie with Statistics' নামের একটা চালবাজ বই। ঘ্যামা বই—যদিও বুমার প্রজন্মের লেখা। মনে হল, বাংলায় কেন এমন কিছু নেই? পরবর্তীকালে অর্ণব চক্রবর্তীর 'বাংলায় বোঝানো ইংরেজি বই' দেখেছি—অতি সুস্বাদু, কিন্তু হাজার হোক, পাঠ্য বই।

    যদুবাবুর টিউশনি নামে একটা ঠিক এই ধরনের ক্লাস এখানে চলে অনেকদিন ধরে। এই আসছে বইমেলায়—সেগুলোর সবক'টাকে চেপেচুপে ধরে, সঙ্গে আরও অপ্রকাশিত লেখা যোগ করে, চুল আঁচড়ে, অল্প পমেটম দিয়ে—একখানা বই বেরোবে, যদুবাবু-র লেখা। ছোকরা অসাধারণ ভালো তো লেখেই, ওদিকে জ্ঞানের বাটখারাও বটে। আবার ফুক্কুড়ি ছাড়া নিদ্রাগমন হয় না তাঁর। সব মিলিয়ে, এই বই পড়তে বসে মনে হবে—হাতে বিড়ি নিয়ে ক্যান্টিনে বসে বাতেল্লা দিচ্ছে বড়দা—একইরকম গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে (যা না জানলে জীবনই বৃথা)—পার্থক্য শুধু, এই ফান্ডার সঙ্গে রেফারেন্স দেওয়া আছে।

    পাতলা বই। ১-২ সিটিংয়ে পড়ে ফেলা যায়—এমন। অনেক যত্নের পরেও, টুকটাক ভুলভাল থেকে যেতে পারে, তবে তাতে অসুবিধে নেই। এক মনিষী যেমন বলেছেন, "তিনটে বানান ভুল গেলে কীইবা হবে?"
    অতএব, ক্ষমাঘেন্না করে দেবেন। আর কিছু না হোক, যদুবাবুর অসম্ভব কিউট কুতুয়াটার মুখ চেয়ে।

    যাঁরা গুরুর এই বইপ্রকাশের পদ্ধতিটা জানেন, তাঁরা এ-ও নিশ্চয়ই জানেন যে, গুরুর বই বেরোয় সমবায় পদ্ধতিতে। যাঁরা কোনো বই পছন্দ করেন, চান যে বইটি প্রকাশিত হোক—তাঁরা বইয়ের আংশিক অথবা সম্পূর্ণ অর্থভার গ্রহণ করেন। আমরা যাকে বলি দত্তক। এই বইটি যদি কেউ দত্তক নিতে চান, আংশিক বা সম্পূর্ণ, জানাবেন [email protected] এ মেল করে।


    পুনঃপ্রকাশ সম্পর্কিত নীতিঃ এই লেখাটি ছাপা, ডিজিটাল, দৃশ্য, শ্রাব্য, বা অন্য যেকোনো মাধ্যমে আংশিক বা সম্পূর্ণ ভাবে প্রতিলিপিকরণ বা অন্যত্র প্রকাশের জন্য গুরুচণ্ডা৯র অনুমতি বাধ্যতামূলক। লেখক চাইলে অন্যত্র প্রকাশ করতে পারেন, সেক্ষেত্রে গুরুচণ্ডা৯র উল্লেখ প্রত্যাশিত।
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]


মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত
পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। পড়তে পড়তে মতামত দিন