এই সাইটটি বার পঠিত
ভাটিয়ালি | টইপত্তর | বুলবুলভাজা | হরিদাস পাল | খেরোর খাতা | বই
  • খেরোর খাতা

  • সরকারি কর্মচারী

    রজত দাস লেখকের গ্রাহক হোন
    ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২ | ১৬৬ বার পঠিত
  • শত জন্মের পাপ করলে তবে মানুষকে বঙ্গের সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে যেতে হয়।

    উৎসবের গভীর রাত। নামজাদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের এমারজেন্সিতে উপচে পড়া ভিড়। প্রতিটি উৎসবেই এমন চিত্র সব হাসপাতালের জরুরি বিভাগে আগেও দেখেছি। কিছু অতি উৎসাহী নিরাপত্তা রক্ষীদের বাধার কারণে রোগীদের পরিজনরা ভিতরে ঢুকতে পারছেন না। রোগীর সাথে একজনের প্রবেশাধিকার। ভাবলাম, অতি উত্তম ব্যবস্থা। জরুরী বিভাগের ভিড় এড়াতে এমন ব্যবস্থাই হওয়া উচিত।

    সামনের ভিড় ঠেলে এগোলাম। ভিতরে গিয়ে চোখে পড়ল বেশ কিছু নার্স ও হাসপাতাল কর্মীদের ভিডিও চ্যাট চলছে। উৎসবের রাত বলে কথা। সরকারি কর্মচারী বলে কি, বন্ধুবান্ধব আত্মীয়স্বজন থাকতে নেই! এমনটা যাঁরা ভাবেন, তাঁদের মুখে পড়ুক ছাই।

    ভিতরে, মাত্র একজনই ডাক্তারবাবু উপস্থিত। তিনি হিমশিম খাচ্ছেন। দু তিনজন কর্মীও নিজেদের কাজ নিয়ে ভীষণ ব্যস্ত। কিন্তু কতিপয় কর্মীর সে সবে ভ্রুক্ষেপের লেশ মাত্র নেই। স্মার্ট ফোন উর্ধ্বে উঠিয়ে ভিডিও চ্যাটে মগ্ন। কেউ দেখবার নেই। কেউ বলবারও নেই। তাই যা ইচ্ছে কর... এদিকে দুর্ঘটনায় আক্রান্ত রোগী প্রবল যন্ত্রণায় কাতরাচ্ছেন। তাতে কি আসে যায়! হাসপাতাল মানেই রোগী। রোগী মানে হাসপাতাল। এতে বাড়াবাড়ি করার মত কিছু নেই। তাই গল্পগুজব আড্ডা যেমনি চলছে চলুক।

    চিকিৎসা নিতে আসা দু একজন রোগীর পরিজন কিছু জানতে কাছে গেলে, ভিডিও চ্যাটরত সৌভাগ্যবতী নার্সগণের মুখে ভয়ঙ্কর বিরক্তিসুচক অভিব্যক্তি.... সরকারি চাকরি বোধহয় একই বলে! জনগণের টাকায় এদের বেতন প্রাপ্তি। অথচ সেই জনগণকেই এই জাতীয় কিছু সরকারি আবাল কর্মী, চিরটা কাল লাথি মেরে চলেছে। সে সরকারি হাসপাতালের ডাক্তার, নার্স, কেরানি কিংবা পুলিশ... যেই পদই হোক না কেন।

    ঠিক এই কারণে, বৃহত্তর জনতার যে কোনো সরকারি প্রতিষ্ঠানের বেসরকারিকরণের জন্য এতটুকু দুঃখ হয়না। বরং কিঞ্চিৎ মানসিক প্রশান্তি অনুভব করে। কারণ উক্ত প্রতিষ্ঠানে কোনো না কোনো কারণে তাকে কোনো না কোনো পরিষেবা নিতে গিয়ে অবহেলা সইতে হয়েছিল। লাঞ্ছিত হতে হয়েছিল। ধিক্কার জানাই ওইশ্রেণীর সরকারি কর্মচারীদের। যাদের ওই চাকরিটি চলে গেলে মুটে হওয়ার যোগ্যতাটুকুও নেই। যাদের পরিবারের সমস্ত লপচপানি জনগণের করের টাকায় কেনা। ঈশ্বরের কাছে প্রার্থনা করি, ওই শ্রেণীর কর্মচারীবৃন্দকেও একদিন অবহেলিত হওয়ার সুযোগ দাও।
    _______

    ©রজত দাস
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]


মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত
পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। আদরবাসামূলক মতামত দিন