ভাটিয়ালি | টইপত্তর | বুলবুলভাজা | হরিদাস পাল | খেরোর খাতা | বই
  • খেরোর খাতা

  • সংরক্ষণ সম্পর্কে কিছু কথা (দ্বিতীয় অংশ) 

    Swapan Kumar Mandal লেখকের গ্রাহক হোন
    ১৫ নভেম্বর ২০২১ | ১৯৩ বার পঠিত
  • আমরা যদি একটু সময়ের গতিপথের উল্টো দিকে যাত্রা করি তাহলে দেখা যাবে যে শূদ্রদের ওপর অন্যান্য উচ্চ বর্ণের অত্যাচার অনেক অনেক আগে থেকেই প্রচলিত। আর্যরা ১৫০০ থেকে ১৪০০ খ্রিস্ট পূর্বাব্দে এই দেশের আদি অধিবাসীদের অস্ত্রের জোরে পরাজিত করে। তাদের মধ্যে বিজিত জাতির প্রতি বিজয়ী জাতির নৃশংসতার প্রকাশ দেখতে পাওয়া যায়। সুকুমারী ভট্টাচার্যের লেখায় সেকালের একটি ছবি পাওয়া যায়। যেখানে তিনি বলছেন যে,

    "শূদ্র উচ্চতর তিনটি বর্ণের ভৃত্য, অস্হাবর সম্পত্তি, এমনকি মাঝে মাঝেই ক্রীতদাস রূপে বর্ণিত হয়েছে। …. . … … … .. (তৈত্তিরীয় ১:২:৬:৫০) ……… এই বিবৃতির শেষে শূদ্রের উৎপত্তি স্পষ্ট ভাবে প্রদত্ত হয়েছে: 'শূদ্র অসুর উৎসজাত'। অর্থাৎ পরাজিত আদিম অধিবাসীদের মধ্য থেকেই শূদ্রের উৎপত্তি। কৌষীতকি ব্রাম্মন (৬:৪:৪:৯), বারাঙ্গনা অপেক্ষাও হীন ও অস্পৃশ্য বলে শূদ্র নারীকে বর্ণনা করা হয়েছে।"
     
    অর্থাৎ, শূদ্রদের প্রতি এই অপরিসীম ঘৃণার মনোভাব আদিম কাল থেকেই প্রচলিত ছিল। মহাভারতের কাহিনী অনুসারে পাণ্ডবরা বারণাবতে, নৃশংসভাবে পাঁচ নিরপরাধ নিষাদকে তাদের মা সহ হত্যা করে আত্মগোপন করে। সমগ্র মহাভারত নামক মহাকাব্যে তা নিয়ে কোথাও অনুশোচনা নেই!! মহাভারতের যুদ্ধ খৃষ্টপূর্ব নবম শতকে, খুব সম্ভবত সংগঠিত হয়েছিল। কিন্তু, সেই যুদ্ধের উপাখ্যান লিখিত হয় খ্রিস্টিয় পঞ্চম শতাব্দীতে। গীতা মহাভারতে প্রক্ষিপ্ত বলে অনেকে মনে করেন। এই গীতার মধ্য দিয়ে জাতিভেদ প্রথার যথার্থতা তুলে ধরা হয়েছে দর্শনের ছদ্মবেশে। এই গীতাকে স্বয়ং ঈশ্বরের মুখনি:সৃত বাণীরূপে এবং এই গ্রন্থকে অতি সুকৌশলে সমস্ত হিন্দুদের অবশ্য মান্য হিসাবে প্রতিষ্ঠিত করা হয়েছে। গীতা উৎকৃষ্ট একটি কাব্যগ্রন্থ। সে ব্যাপারে কোন সন্দেহ নেই। কিন্তু, গীতায় কুৎসিত বর্ণভেদ/জাতিভেদ ব্যবস্থাকেই, অবশ্য পালনীয় কর্তব্য হিসেবে, উচ্চ বর্ণের দ্বারা নিম্নবর্গের মানুষের ওপর নিপীড়নকে চিরস্থায়ী রূপ দেওয়া হয়েছে। শ্রীকৃষ্ণের মুখনি:সৃত বাণীতে বলা হয়েছে যে তিনিই এই চতুর্বণের সৃষ্টি করেছেন তিনটি গুণ ও কর্মের ভিত্তিতে। প্রতিটি বর্ণের মানুষের স্বধর্ম পালন করতেই হবে। শূদ্রের স্বভাবজ কর্ম হল পরিচর্যা মূলক। আর, সেটা পালন করতে সে বাধ্য। আর, এই কারণে তথাকথিত হিন্দু সমাজের ঘৃণ্য জাতিভেদ প্রথার অত্যাচারের ট্রাডিশন আজও গোবলয়ে চলছে।

    রাম কর্তৃক অত্যন্ত নৃশংসভাবে শম্বুক হত্যা সে যুগের সমাজে উচ্চবর্ণের মানুষের নিম্নবর্ণের মানুষের ওপর ঘৃণা ও বিদ্বেষ সূচিত করে।

    এসব থেকে যুগে যুগে, অন্ত্যজদের সম্পর্কে উচ্চবর্ণের কি দৃষ্টিভঙ্গি ছিল, তা আমরা বুঝতে পারি। এখনো যে সেই দৃষ্টিভঙ্গি সমাজ থেকে সম্পূর্ণরূপে দূরীভূত হয় নি, সে কথা বলাই বাহুল্য।
    আমাদের দেশে শিক্ষা ও চাকরির ক্ষেত্রে সংরক্ষণের ব্যবস্থা সর্বপ্রথম চালু হয় ইংরেজ আমলে। মহারাষ্ট্রের কোলাপুরের ছত্রপতি রাজর্ষি শাহু মহারাজ (১৮৭৪-১৯২২) এই ব্যবস্থা চালু করেন, উচ্চবর্ণের কিছু মানুষের দ্বারা অপমানিত হয়ে। সে আর এক কাহিনী। জানতে হলে আর একটু ধৈর্য ধরতে হবে।

    (ক্রমশ)
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]


মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত
পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। আদরবাসামূলক মতামত দিন