এই সাইটটি বার পঠিত
ভাটিয়ালি | টইপত্তর | বুলবুলভাজা | হরিদাস পাল | খেরোর খাতা | বই
  • খেরোর খাতা

  • প্রেমের গল্প - মধুমাখা সোহাগ নদীর সাগরে

    pradip kumar dey লেখকের গ্রাহক হোন
    ২৫ এপ্রিল ২০২১ | ১২৩৯ বার পঠিত
  • আজ রবিবার,২৫ শে এপ্রিল, ২০২১ -- একটা আঁটোসাঁটো প্রেমের গল্প হয়ে যাক --
    #গল্পঃ "মধুমাখা সোহাগ নদীর সাগরে "
    ----
    নদী'র কথা আর কি বলব? প্রবাহিত জীবনরেখা যার নিজস্বতায় ভরা তাকে দূর থেকে দেখাই ভালো। সান্নিধ্যের ইচ্ছে আমার মনকে এমনভাবে আক্রান্ত করে দিয়েছে তা আর ব্যাখ্যা করা আমার অনিচ্ছার কারণ। তবুও কোথা দিয়ে কি হয়ে যায় বুঝি না - মেঘ দেখেও ঘর ছাড়ি, কাঁটা থাকলেও গোলাপ ধরি, জোয়ারে সাঁতার দিই।

    বিবাহিত জীবনযাপন করছিলাম অবলীলায়। পাঁচ বছর অতিক্রান্ত, নিজের অধিকারে থাকা গৃহবধূর সঙ্গে বেশ ভালোই ছিলাম। সাত বছরের ছোট, ২৭ বছরের একেবারে গৃহনিপুণা আটপৌরে সুন্দরী, অবশ্যই বোকা আমার এই সঙ্গিনী। অর্থাভাবে ছিলাম ঠিকই কিন্তু শারীরিক অভাব আমদের কখ‌নো হয় নি, উপরন্তু তা এতই তীব্রতর ছিল যার ফলতঃ আমরা দুজনায় কোনদিন আলাদা থাকিনি। আক্ষেপের কারণ অন্য -- ওর শরীরে ছিল এক অক্ষমতা আর তা হল ওর সন্তানধারনের।

    ও আমাকে অনেকবারই হেসে বলেছে -- আরো এক‌টিকে নিয়ে আসো !

    আমি ওকে একেবারে জাপটে ধরে এমন যন্ত্রনা দিয়েছি যাতে ওর খুব ব্যথা হয় আর মুখের হাসি ফিরিয়ে দিয়ে জিজ্ঞাসা করেছি -- তারপর কি করবো ?

    -- অসভ্য! আমি শিখিয়ে দেবো?

    অভাবহীন ভালোবাসা ভেসে গেল। আটবছরের বিবাহিত জীবনে নদী ঘরে ঢুকে পড়লো তার উৎফুল্ল জলরাশির সমারোহে - উজ্জয়িনীর মত একরাশ হাসিতে ভাসিয়ে দিল স্ত্রী মধু আর আমার, মানে সোহাগের জীবনযাপন।

    মধু বলেছিল -- নদী আমার মাস্তুতো বোন হলেও আমার নিজের মায়ের পেটের মেয়ের মতোই।

    আমি বলেছিলাম -- ও কিন্তু অনেক লেখাপড়া জানে। আধুনিকা তবে তোমার মতো মধুমন্তী বা সুন্দরী নয়। অবশ্যই চাটুকে এক লোভাতুরা কামিনী বিহঙ্গী।

    মধু হেসেছিল মজায়। আমিও মজায় ছিলাম। নদী -কে দেখে একটা লোভের শাখা আমার শরীরে তরতরিয়ে বাড়ছিল - - নদী -তে অবগাহনের জন্য।

    নদী বুঝে লোভ দেখালো -আমি কিংকর্তব্যবিমূঢ় হয়ে অথবা সব বুঝেও ওর প্রেমে, না দেহে মজে গেলাম। বাইরে থেকে শুরু হয়ে একেবারে ঘরে, ততোক্ষণে মধু কি বুঝলো জানি না, একদিন বোকা নারীর মতো সব ছেড়ে ওর পিতার আশ্রয়ে বিদায় নিল।

    বাঁধা দেওয়ার ইচ্ছে আমাকে তেমনভাবে পীড়ন করলো না। অনাবশ্যক ভাবে নদী রয়ে গেল নিজেকে গুছাতে - সব গুছিয়ে নিয়ে নিল - যা আমি অনেক পরে বুঝেছি -- তখন একেবারে এক জোয়ান যুবক সাগর তার বিরাট ঢেউ তুলে নদী কে গিলে নিল। নদী যেন তৈরি ছিল। অপেক্ষা তর সইলো না - যতটুকু মধু 'র সঞ্চ‌িত লুকানো সম্পদ নিয়ে বেরিয়ে গেল।

    আমি অবাক হলাম এক‌টি অভাবী সংসারে এক বোকা মেয়ের কষ্টার্জিত লুকানো সম্পদের বহর দেখে আর অন্য এক চতুর কামিনীর আত্মসাতের চাতুরতা দেখে।

    এরপর আর আমি দেরি করিনি আর সময় অপচয়ের চেষ্টা না করে দৌড়ে গেছি আমার বোকা বউটার কাছে। ভগবানের অপার করুণা আমার উপর, তাকে জীবিত অবস্থায় দেখতে পেলাম।

    আমি লজ্জিত চোখে ওর চোখ রেখে বলেছি -- মধু ভুল করে ফেলেছি -- ফিরে চলো -- তুমি কেন আমায় এই অযাচিত সাহস দিলে -- জানো না পুরুষ মানুষের চরিত্রের অক্ষমতা ?

    মধু দৌড়ে এসেছে। আমি ওকে সজোরে জাপটে ধরেছি - ঠিক তেমন ভাবেই যাতে ও ব্যথা পায় -- ঠিক যেমনটা আগে করেছিলাম।

    ও আমার জামা ওর অশ্রু দিয়ে ভিজিয়ে দিচ্ছিল আর অত্যন্ত বোকার মতোনই মুষ্টিবদ্ধ দুই হাত দিয়ে আমার বুকে আঘাত করছিল আর বলছিল -- ---- মধু যে সোহাগেরই।
    ------------------------------
    শুভম সমাপয়েৎ!© প্রদীপ দে ®™…
    পুনঃপ্রকাশ সম্পর্কিত নীতিঃ এই লেখাটি ছাপা, ডিজিটাল, দৃশ্য, শ্রাব্য, বা অন্য যেকোনো মাধ্যমে আংশিক বা সম্পূর্ণ ভাবে প্রতিলিপিকরণ বা অন্যত্র প্রকাশের জন্য গুরুচণ্ডা৯র অনুমতি বাধ্যতামূলক। লেখক চাইলে অন্যত্র প্রকাশ করতে পারেন, সেক্ষেত্রে গুরুচণ্ডা৯র উল্লেখ প্রত্যাশিত।
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]


মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত
পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। আলোচনা করতে মতামত দিন