• খেরোর খাতা

  • মাধবীকবিতাগুচ্ছ 

    Avi Samaddar লেখকের গ্রাহক হোন
    ১৪ অক্টোবর ২০২০ | ২২৬ বার পঠিত | রেটিং ১ (১ জন)


  • একটা সময় আমি ঘনবিন্যাসে উৎসুক হয়ে পড়তাম
    এই যেমন কিছুটা সময়
    কিছু কেন বেশ কিছু গুনগুন করে গাইতে পারতাম
    সন্ধ্যার দিকে সুফি তারানা
    সন্ধ্যার দিকে বেশ একটা মন মৌজী সন্ত হাওয়া
    বস্তুবিন্যাস থেকে দূরে নিয়ে যেতে চায়
    মনে হয় এই শারীরিক আলোছায়া থেকে দূরে
    কোথাও মাধবীর নীভু মনোভঙ্গির মতো করে কোথাও
    একটা নি ধ্বনির স্তব ফুলে ফুলে রয়ে গেছে
    তারই গন্ধবহ অচিন উসকে এক সহজ বাক্যের দিকে
    ফুলের গতি ফলে প্রাপ্য হয়ে ওঠে



    মজঝিম নুড়ির বেদনায় তোমাকে দেখেছি আমি
    প্রাণপ্রিয় দেখেছি বেদানার বহু লাল দানাগুলি
    দাঁতের চাপে তাদের রস নিকেশ কৌতুক একসময়
    অভিন্নহৃদয়
    লিরিকে তাদের ঝরে পড়াগুলি ছিল অরৈখিক
    এক সন্ধ্যের সমবেদনায় তোমাকেই বলেছি মাধবী
    ধূর্ততা একটি আবশ্যক বৃন্ত যেখানে
    অংশ বিশেষ আঁকড়ে থাকায় কিছু
    কিছু মূল আরো নীরব শর্করায় নেমে যায়



    মাধবীর বাগানে আছে আমাদের নির্ভার যাতায়াত
    প্রবেশতোরণ পেরিয়ে
    আছে মোরাম ইহুদিতা
    যা কাঙ্খাগুলির কিছু কিছু ধূসরে অক্ষে তোমাকেও
    শান্ত ইরেজারে মুছে ফেলে
    মহুল থেকে মুছে ফেলে পিছল ইতিহাস
    এসব মাধবী জানে যত্নে কীভাবে আলগা করতে হয়
    তলমাটি যখন বায়ু ও শর্করা চলাচলের সূত্রে তার
    মিশুকে বিড়াল
    এই কাজে খুব সুচারু নখের ব্যবহারে পারদর্শী ছিল



    মনের এক অবোধ থাকে সেই এক দূরের অধিকন্তু
    মাধবীর মৌল নির্ভরতা থেকে এই সখ্য শূন্যের
    দূরসমাধির দিকে ভেসে থাকায়
    মানুষের বহু সহ-অসহ একটা খোপে
    এঁটে উঠতে চায়
    চায় দু'দিকেই কিছু সমতা থাকুক
    আলোর উপবৃত্তে
    তোমার বাড়ির পথে যাওয়া
    এবং যাওয়া থেকে ফিরে আসার
    পথে আমি চেয়েছি আমার সমতা থাকুক
    নীচু ও দাঁতে চাপা অস্পষ্ট কথার পায়রাগুলিতে
    যারা উঠোনে ছড়ানো মন ও সন্তাপে সতর্ক
    হেঁটে বেড়ায় ও তুলে নেয় স্বচ্ছতোয়া



    বড়ো স্বাদু ও ললিত জীবন তোমার মাধবী হে
    প্রবন্ধ লেখার উপযুক্ত করে যুক্তিতে সকাম জীবন
    মাধবী হে
    এখন পথ ও পথশিশু বিষয়ক পাতায় স্বাক্ষর
    সংগ্রহের জীবন
    এখন আরো স্পষ্ট করে গোধূলি
    উপভোগের জীবন সরলরেখায়
    চলার শান্ততা থাকার বৃন্তে বৃন্তে
    মাধবী আমাদের দিন যায় প্রতিটি জোনাকিগোলকে
    অর্থহীনতার জয়ধ্বনি গাইতে গাইতে বড়ো করুণায়
    স্বীয় ও মেধার মুসকানে দিন যায় হে মাধবী



    প্রত্যয়ই মাধবীর চকিত মাধবী
    দিনমানে এই উভয় গড়িয়ে
    জল ও জলের বেদনা গড়িয়ে
    লেখা তার খেলার কাছে নিয়ে যায়
    অথচ লিখিনা কিছু বসে থাকি সফেদবিকাশে
    জলের কিনারে মেঘের কিনারে
    ব্যক্ত পুরুষের আধারে স্থিত মাধবীরা এ জীবনে
    কিছু কিছু ভুল শব্দের মোহ ও অর্জন দিয়ে যায়
    যা থেকে তুমি কুড়িয়ে নাও সহনগ্রাম দূরে
    যা থেকে কবিতা কুড়িয়ে নেয় দূরে রেটিনাফোঁড় নুড়িগুলি
    আর মধ্যমসুরে অব্যক্ত যুক্তি ভেঙে যায়



    মৌল রূপে ভাঙতে হলে কণা রূপে এসো মাধবী
    এ জীবনে অনু-লেখ্য বড়ো বেদনচেতা পরতে পরতে জড়িয়ে সুলেখা নীলের বিবরণে যে ইতিহাস বাহিত হয় তার কল্প ও কালশিটে অক্ষরের পাল্লায় পড়ে কতো যে সুধন্য ফুরিয়ে যায় তার হিসেবই বা কে রাখে !
    শুধু জলের শিকড়ে লেগে থাকে চাঁদের সুরত-এ - হাল
    মনের নীরবে লেগে থাকে স্মৃতিটুপ মৌন পাকদণ্ডী
    আরও পড়ুন
    আলো - Avi Samaddar
    আরও পড়ুন
    বাণী - Mousumi Banerjee

  • বিভাগ : অন্যান্য | ১৪ অক্টোবর ২০২০ | ২২৬ বার পঠিত | রেটিং ১ (১ জন)
  • কোনোরকম কর্পোরেট ফান্ডিং ছাড়া সম্পূর্ণরূপে জনতার শ্রম ও অর্থে পরিচালিত এই নন-প্রফিট এবং স্বাধীন উদ্যোগটিকে বাঁচিয়ে রাখতে
    গুরুচণ্ডা৯-র গ্রাহক হোন
    গুরুচণ্ডা৯তে প্রকাশিত লেখাগুলি হোয়াটসঅ্যাপে পেতে চাইলে এখানে ক্লিক করে আমাদের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে যুক্ত হোন। টেলিগ্রাম অ্যাপে পেতে চাইলে এখানে ক্লিক করে আমাদের টেলিগ্রাম চ্যানেলটির গ্রাহক হোন।
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার খেরোর খাতা, লিখতে থাকুন, বানান নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]
মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত


পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। দ্বিধা না করে মতামত দিন