এই সাইটটি বার পঠিত
ভাটিয়ালি | টইপত্তর | বুলবুলভাজা | হরিদাস পাল | খেরোর খাতা | বই
  • টইপত্তর  অন্যান্য

  • ধর্ষণের শাস্তি কি মৃত্যুদন্ড?

    s
    অন্যান্য | ১৮ ডিসেম্বর ২০১২ | ৪৬৩৯৪ বার পঠিত
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • Atoz | 161.141.84.175 | ২০ মার্চ ২০১৫ ০২:৫০581359
  • কিন্তু একটা কথা মনে হচ্ছে। এটা অর্গানাইজড ক্রাইম হিসেবে ব্যবহার হতে থাকলে শুধু সামাজিক শিক্ষা ও মানুষ হওয়া না হওয়া দিয়ে বোঝা যাবে না মনে হয়।
    সাম্প্রতিক ঘটনাগুলোতে মাঝে মাঝে সন্দেহ হচ্ছে এগুলোতে খুন জখম ডাকাতি গুন্ডামি ইত্যাদির মতন সংগঠিত অপরাধের প্যাটার্ণ।
    মাস্টারমাইন্ড হয়তো একদলকে পাঠাচ্ছে এইভাবে কাজ করতে। এখানে হতে পারে এই অপরাধীরাও অনেকেই ইউজড হচ্ছে। ডাকাতদলে যেমন লো র‌্যাংকের ডাকাতেরা অনেকেই ইউজড হয়।
  • cm | 116.208.112.125 | ২০ মার্চ ২০১৫ ০৪:২৪581360
  • ধর্ষণ মানে হচ্ছে যার জোর আছে সে দুর্বলকে বলছে আমার যা ইচ্ছে তাই করব তা তোমার ইচ্ছের বিরোধী হলেও করা হবে। যদি ধর্ষণ মানবসমাজ থেকে আটকাতে হয় এই অর্থে যা যা হয় সব কটাকেই আটকাতে হবে। বক্তব্যটাই আটকাতে হবে একটা মোড অফ এক্ষ্প্রেশন নয়।
  • Ishan | 183.17.193.253 | ২০ মার্চ ২০১৫ ০৭:৫৮581361
  • বাপ-মাকে বলে আর কী হবে। নির্ভয়া কান্ডে নাবালক যে অপরাধী, তার বাপ-মা তাকে শেখাবেন কি, খেতেই দিতে পারতেন না। খাবার জোগাড়ে অল্প বয়সে দিল্লি চলে যায়। এখনও তো বয়স অল্পই। এই ঘটনাগুলোর অপরাধীদের সামাইক অবস্থান নিয়ে কোনো কাজ হয়েছে বলে দেখিনি বা মনে করতে পারছিনা, কিন্তু ওভার-অল মনে হয় বেশিরভাগ অপরাধীই ত্যন্ত দরিদ্র প্রেক্ষাপট থেকে আসে। একটা অংশ আসে উড়নচন্ডী উচ্চবিত্ত থেকে। আলোকপ্রাপ্ত মধ্যবিত্তদের মধ্যে থেকে খুব কমই আসে।

    এ অবশ্য আমার আন্দাজ।
  • dc | 132.164.186.242 | ২০ মার্চ ২০১৫ ০৮:৫৩581362
  • তাহলে নাবালকটি দরিদ্র পরিবার থেকে এসেছিল বলে ওরকম অপরাধ করলো? নাকি এমনিতেই অপরাধপ্রবন ছিল?
  • pi | 24.139.221.129 | ২০ মার্চ ২০১৫ ০৯:৩২581363
  • নাবালক ছেলেটি বোধহয় বহুদিন ধরেই ঘরছাড়া। যদ্দুর মনে পড়ছে, অন্য কারুর সাথেও গোলাতে পারি।
  • cm | 127.247.113.108 | ২০ মার্চ ২০১৫ ১৭:০২581364
  • নাবালক ছেলেটি আমি ধর্ষণ বলতে যা বুঝি সে অর্থে হয়ত আশৈশব ধর্ষিত। স্লামডগ বিলিয়নেয়ারের যে দুনিয়া তার সদস্যদের মনের কথা শোনা গেলে বোঝা যেত।
  • se | 204.230.159.148 | ২০ মার্চ ২০১৫ ১৭:৩৭581365
  • এর মানে কি যে সব ছেলেরা চাইল্ড অ্যাবিউজের শিকার তারাই ধর্ষকামী? তাহলেতো মধ্যবিত্ত ঘরের ছেলেরাও প্রচুর চাইল্ড অ্যাবিউজের শিকার আছে। প্রায় অনেকেই স্কুলে টিচারের হাতে মার খেয়েছে। সেগুলো তো চাইল্ড অ্যাবিউজ। এদের মধ্যেও তাহলে ধর্ষণের টেন্ডেন্সি থাকবে নাকি?
  • a x | 60.171.26.111 | ২০ মার্চ ২০১৫ ১৭:৩৮581366
  • ১১ বছর রাস্তায় থেকেছে।
  • se | 204.230.159.148 | ২০ মার্চ ২০১৫ ১৭:৪০581367
  • ১১ বছর রাস্তায় থেকেছে মানে বাপ মা শিক্ষা দিতেই পারে নি।
  • se | 204.230.159.148 | ২০ মার্চ ২০১৫ ১৭:৪৪581369
  • মধ্যবিত্তদের মধ্যেও ধর্ষণের ইচ্ছা থাকে। এভাবে খুব গরীব ও খুব বড়োলোকদের (উচ্ছৃংখল) দের দিকে এই টে ঠেলে দেয়া যায় কি? তাহলেই কি তথকথিত মধ্যবিত্ত হিসেবে আমাদের অবস্থান নিরাপদ হয়ে যায়?
  • - | 109.133.152.163 | ২০ মার্চ ২০১৫ ১৯:১৫581370
  • দেবার মত শিক্ষা বাপ-মায়েরও ছিল না। ওরাও ঐ রকম রাস্তায় বেড়ে উঠেছে। বাপটিও হয়ত ঐ কম্মই করে, ধরা পড়ে না। তো, এই বাপমাকেও শিক্ষা দিতেই পারে নি তাদের বাপমা।
    আসলে, তাদের বাপমাও শিক্ষার সুযোগ পান্নি। কারণ তারাও বেড়ে উঠেছে আগাছার মত ইত্যাদি প্রভৃতি।
    এই বাপ বাপ করতে করতে ইন্ডিয়াজ ডটার যে বাপের দেশে বানানো সেই বাপকে ধরব নাকি আরও ইতিহাস হেঁটে যাবো?
  • b | 24.139.196.6 | ২০ মার্চ ২০১৫ ২১:০৩581371
  • এক্সপ্ল্যানেশন আর জাস্টিফিকেশনের মধ্যে একটা তফাৎ আছে তো। এগারো বছর রাস্তায় কাটিয়ে তার মনের সুকুমার প্রবৃত্তি হারিয়ে যেতেই পারে, কিন্তু যে পার্টিকুলার অপরাধটি করেছে, তার জন্যে দেশের বর্তমান আইন মোতাবেক শাস্তি তার প্রাপ্য।

    এখানে কমলাকান্তের বিড়াল থাকলে অবশ্য অন্য কথা বলত, কিন্তু সেই ধর্মের কচকচির মধ্যে ঢুকতে চাই না।
  • se | 188.83.87.102 | ২২ মার্চ ২০১৫ ১২:৩৮581373
  • এই চার অভিযুক্তের কেউই তো রাস্তায় বসবাস করেছে, হতদরিদ্র, বা খুব বড়োলোক বলে মনে হোলো না। লিখেছে মধ্যবিত্ত। একজনের দাদু আবার বলেছেন যে সে বখে গিয়েছিলো। বাবার মায়ের দেওয়া শিক্ষা এখানেও মূল কারণ নয় আশাকরি।
  • sch | 233.223.131.253 | ২২ মার্চ ২০১৫ ১৫:০৩581374
  • ধুস আপনারা এখনো কমক্লুশানে পৌঁছতে পারেন নি - কোনো কম্মের না

    যদি ধর্ষণকারী খুব দরিদ্র পরিবার থেকে আসে (ওই মুকেশ সিং জাতীয়) - যদি সে স্বাভাবিক পরিবারের মধ্যে বড়ো না হয়ে থাকে - তাহলে তার অপরাধের জন্য সমাজ দায়ী - তার কিছুই করার নেই। সমাজকে ঠিক করুন - সাম্য আনুন - তাহলেই এই ধরণের ধর্ষণ কমে যাবে।

    যদি ধর্ষণকারী মধ্যবিত্ত পরিবারের হয় (এই আজকের ছেলেগুলোর মতো - অনীক না কি যেন নাম), তাহলে এটা প্রপার আপবিঙ্গিং এর অভাব, মা বাবা সময়ের অভাবে শিক্ষা দিতে পারে নি - কাজেই তাদের কিছু করার নেই - বাবা মাদের ওই দুধের ডাক্তারের কাছে পাঠিয়ে দিন - তাহলেই এই ধরণের ধর্ষণ কমে যাবে

    যদি ধর্ষণকারী উচ্চবিত্ত ফ্যামিলির হয় (মানে মনু শর্মা ক্লাসের) তাহলে তো কথাই নেই - অর্থের প্রাচুর্য ধর্ষককে নারীর মর্যাদা করতে শেখায়নি।সাম্য এলেই ধর্ষণ কমে যাবে,

    অতএব ধর্ষকের কোনো অবস্থাতেই কোনো দোষ নেই - এটা সামাজিক ব্যাধি মাত্র। সমাজের চিকিৎসা করলেই সেরে যাবে। না সারা অব্দি বরং আর ক'টা ধর্ষণ করা যাক
  • pi | 192.66.15.163 | ২২ মার্চ ২০১৫ ২৩:৫৭581375
  • এটা থাকলো।
  • Ishan | 183.17.193.253 | ২৩ মার্চ ২০১৫ ০০:১৮581376
  • পড়লাম তো। একজনের দাদু বলেছেন সে বখে গিয়েছিল। অন্য জনের মা বলেছেন, তিনি গভীর রাতে মেয়েগুলির কাছ থেকে গুড নাইট শুনে এসেছেন।

    এর সঙ্গে নির্ভয়া বা রানাঘাট কান্ডের কিঞ্চিৎ তফাত আছে, এইটুকুই বলব।
  • pi | 116.218.135.198 | ২৩ মার্চ ২০১৫ ০০:৪৫581377
  • ওদিকে আরেকটা ব্যাপার ঘটছে, ভেবে দেখা দরকার মনে হয়। আজ সারাদিন ধরে এই অভিযুক্তদের ফেসবুক প্রোফাইল খুঁজে লোকজন সেগুলো নানা জায়গায় শেয়ার করে চলেছে, তারপর দলে দলে তাদের প্রোফাইলে রেপিস্ট বলে নানাপ্রকার খিস্তিখাস্তা ও ধমকির বন্যা বইয়ে দিচ্ছে। হয়তো এরা সত্যিই দোষী, কিন্তু তবু, তদন্তে প্রমাণিত হবার আগে, বিচারে অভিযুক্ত হবার আগে এভাবে পাবলিক ট্রায়াল করা যায় কি ? পুরো ভার্চুয়াল মব লিঞ্চিং চলছে, আর নাগাল্যান্ডের পর এই ভরসাও করা যায়না যে বাস্তবেও তা হবেনা !
    নেমিং , শেমিং এর পক্ষে বলতে গিয়েও কোথাও যেন এখন সঙ্কুচিত হয়ে যাচ্ছি।
    আর সব মিডিয়াতেই দেখি একই ব্যাপার, অভিযোগকারিণীর নাম জানানো হবেনা ( আইন ই আছে এই না জাননো নিয়ে, কিন্তু , আগেও বলেছি, এটা য্হেতু মেয়েটির পক্ষে 'অসম্মানের' মনে করে করা হয়, তাই এটাকে রিগ্রেসিভই লাগে) , অন্যদিকে অভিযুক্তের হাঁড়ির খবর দিয়ে দেওয়া হবে। অভিযোগ হলেই। এটা নিয়েও ভাবনাচিন্তার দরকার আছে মনে করি।
  • সে | 188.83.87.102 | ২৩ মার্চ ২০১৫ ১১:৫১581378
  • অভিযোগকারিণীর নাম জানালে কি কোনো বিশেষ সুবিধে হবে? যদি অভিযোগকারিণী নিজেই জানাতে ইচ্ছুক হন তবে সে অন্য কথা। সেটা অভিযোগকারিণীর ব্যক্তিগত সিদ্ধান্ত। প্রিভেসীর অধিকার নিয়ে বলতে হলে দুক্ষেত্রেই প্রিভেসী দরকার নেই কি?
  • pi | 24.139.221.129 | ২৩ মার্চ ২০১৫ ১২:০১581380
  • নাম দেওয়া কী প্রসঙ্গে লিখেছি, সেটা আগে বলেছিলাম। আবার পেস্ট করে দি।

    বাবা মা র আপত্তি থাকলে বা কোনো ধর্ষিতা বেঁচে থাকলে, তাঁর আপত্তি থাকলে নাম দেওয়া ঠিক না। কিন্তু এই নাম না দেওয়াটা আমার কাছে বেশ বড় ইস্যু। আগের পোস্টে যা নিয়ে লিখেছিলাম, তারই সূত্র ধরে আসে। আসলেতে একেবারেই এক ইস্যু। এর আগেও বলেছি। সত্যিই এই নাম না দেওয়া কেন, লজ্জা, অপমানের ভয়েই তো। কোন মেয়ে যদি শুধু খুন হয় তখন তার নাম পরিবর্তিত করার কথা নাম না দেওয়ার কথা আসেনা তো। কোন মেয়ে বা তার পরিবার নাম না দিতে চাইলে, সেটাকে আমার ঐ সমষ্টির বিষাক্ত বিশ্বাসের চাপেই মনে হয়। সুজেটের নিজের নাম ব্যবহার করা যেজন্য এত বেশি গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ মনে হয়।
    মেয়েটির ব্যক্তি পরিচয়ের থেকে ফোকাস ঘোরানোর জন্য নাম বদলানো হয় বলে মনে হয়না। মেয়েটি কে কী করতো এই সবই যথেষ্ট আলোচনা হয়েছে, নাম বদলেও। ফোকাস দিতে চাইলে তাকে নিয়ে আলোচনা না করলেই হয়। কখনো রেফার করার জন্য নাম দিলেও ফোকাস এসে পড়েনা বলেই আমার মনে হয়।
  • hu | 188.91.253.190 | ২৩ মার্চ ২০১৫ ১২:১৩581381
  • কিছুদিন আগে আমাদের ক্যাম্পাসে একটি অ্যাক্সিডেন্টে এক ফ্যাকাল্টির চার বছরের ছেলেটি মারা যায়। ফ্যাকাল্টির পরিবারের তরফ থেকে এই ব্যাপারে সম্পূর্ণ প্রাইভেসি চাওয়া হয়। ইউনিভার্সিটি এই ইচ্ছাকে সম্মান দেয়। সেই ফ্যাকাল্টির নাম কোথাও উল্লেখ না করার এবং তাকে নিয়ে পাবলিক প্লেসে কোন আলোচনা না করার অনুরোধ জানিয়ে মেল আসে। এই ক্ষেত্রে নিশ্চয়ই কোন অসম্মানের ব্যাপার ছিল না। কিন্তু তাও বিপর্যস্ত পরিবারটি প্রাইভেসি চেয়েছিল। ধর্ষণের ঘটনার ক্ষেত্রেও শুধুমাত্র অসম্মানের ভয়ে পরিবার প্রাইভেসি চায় এটা মনে করলে হয়ত ভুল হবে।

    অপরাধ প্রমাণের আগে অপরাধীর প্রাইভেসি রক্ষাও গুরুত্বপূর্ণ। নিউ আলিপুরের ছেলেটির ক্ষেত্রে ফেসবুক লিঞ্চিং চলছে শুনে খারাপ লাগল। এই নামগুলো জেনে পাবলিকের তো কোন লাভ হয়না। পুলিশ তৎপর হয়ে নিরপেক্ষ তদন্ত চালাবে এই ভরসা থাকলে পাবলিকের এ বিষয়ে মাথা গলানোর কোন দরকারই নেই। তবে আজ কাগজে এই সম্পর্কে কোন খবর দেখলাম না। হয়ত চাপা পড়ে যাবে।
  • সে | 188.83.87.102 | ২৩ মার্চ ২০১৫ ১২:২৭581382
  • "বাবা মা র আপত্তি" এখানে আমার ("আমার" ব্যক্তিগতভাবে বোল্ড অ্যান্ড আন্ডারলাইন্ড) মনে হয় কোনো কারণই হওয়া উচিৎ নয়। এর মধ্যে ধর্ষিতার বাবা মা র অনুমতি নেবার ব্যাপার আসবে কেন? ধর্ষিতার স্বামী বা সন্তান(দে)র আপত্তিও ও থাকতে পারে, নয় কি?
    দুটো পরষ্পর বিরোধী বাক্য দেখলাম।
    ১।"বাবা মা র আপত্তি থাকলে বা কোনো ধর্ষিতা বেঁচে থাকলে, তাঁর আপত্তি থাকলে নাম দেওয়া ঠিক না।"
    ২।"কোন মেয়ে বা তার পরিবার নাম না দিতে চাইলে, সেটাকে আমার ঐ সমষ্টির বিষাক্ত বিশ্বাসের চাপেই মনে হয়।"

    এরপরে লিখলেন "মেয়েটির ব্যক্তি পরিচয়ের থেকে ফোকাস ঘোরানোর জন্য নাম বদলানো হয় বলে মনে হয়না।" - কিন্তু কেন এমন মনে হচ্ছে?
    "কখনো রেফার করার জন্য নাম দিলেও ফোকাস এসে পড়েনা বলেই আমার মনে হয়।" - কেন বলুন তো? আপনার ব্যক্তিগতভাবে মনে হওয়া কি?
  • সে | 188.83.87.102 | ২৩ মার্চ ২০১৫ ১৩:০৫581383
  • এইটে নিয়ে আপত্তি?
    https://www.facebook.com/photo.php?fbid=10152762109836009&set=a.10151396980511009.1073741826.516186008&type=1&theater

    You see, in India, rapists don't have a particular look. They don't belong to a particular class, caste, ethnic-linguistic or religious group.

    On Left, we have Nirbhaya's rapist Mukesh Singh. He's a global face now, thanks to the "banned" BBC Documentary "India's Daughter". He is the kind of person most of us English speaking Upper-Caste Middle-Class people would dismiss as a "Typical Rapist" because of his "looks" or to be more precise, his skin tone, his lack of education, his inability to speak in English, his boorish behaviour & uncouth persona. And some would even go to the extent of blaming his caste & class background for being a rapist (Yes, there are many such people).

    Now on Right, we have Aneek Bhattacharya. Unlike Mukesh, Aneek is "One Of Us". He is a 20 year old Upper-Middle-Class Brahmin boy from the posh South Kolkata. A fair-skinned, suave & sophisticated looking and even macho guy, many would mistake him as a model or actor.

    But the same guy is responsible for the very recent New-Alipore gangrape of 2 Minor girls.

    This guy took advantage of his Siddharth Malhotra kind "looks" and pretended as a "Hokkolorob" protestor to first befriend those two girls here on FB, then trick them into meeting him & his friends and finally took them to his flat in "upscale" south Kolkata where he & his friends took turns to rape both minor girls.
  • pi | 24.139.221.129 | ২৩ মার্চ ২০১৫ ১৩:৩২581384
  • ভালো করে পড়লে বুঝবেন, কোন পরস্পরবিরোধিতা নেই। নাম দিতে না চাওয়ার ট্র্যাডিশন ও নিয়ম সম্মানের প্রশ্ন থেকেই আসে মনে করি আর সেটাকেই সমষ্টির চাপ মনে করি। কিন্তু এসবের পরেও বাড়ির লোক বা বেঁচে থাকলে মেয়েটি না চাইলে তাদের ইচ্ছাকেও সম্ম্মান জানানোর প্রয়োজন বোধ করি।
  • সে | 188.83.87.102 | ২৩ মার্চ ২০১৫ ১৩:৪৪581385
  • প্রিভেসীর অধিকার নেই?
    ট্র্যাডিশান, নিয়ম, সমষ্টি, চাপ, -এসবের বাইরেও প্রিভেসী বলে একটা শব্দ আছে। সেটা অভিযুক্ত এবং অভিযোগকারী - দুপক্ষেরই থাকা দরকার। এই লাইনে বললে তবু যুক্তিযুক্ত হতো।
    একবার অভিযুক্ত যখন দোষী প্রমাণিত হয়ে যায়, তখন তার প্রিভেসীর অধিকার থাকে না? সে ব্যাপারে কী মনে হয়? সে যদি সাজাও পায়, তখনো কি তার প্রিভেসী পাবার অধিকার নেই? তখন পাব্লিক লিঞ্চিং জাস্টিফায়েড?
  • common | 24.139.222.45 | ২৩ মার্চ ২০১৫ ১৪:২১581386
  • যাব্বাবাঃ অধিকারের প্রশ্ন এখানে এলো কোথা থেকে ! আর অভিযোগকারীর সেই অধিকারের বিরুদ্ধেই বা বলল কে ? পাব্লিক লিঞ্চিংকেই বা জাস্টিফয়েড ক্থায় বলা হয়েছে ? ধর্ষণের ক্ষেত্রে তো অভিযোগকারিণীর নাম-ধাম গোপনই থাকে, তবে তা যে 'প্রিভেসীর অধিকার' নয়, নেহাতই 'সম্মানের' প্রশ্ন মানে একট সা নি সেটা কি 'সে' জানেন না ? এই সা নি-কে ভাঙতেই নাম প্রকাশের কথা ভাবা। আর অভিযুক্তের প্রিভেসী নিয়ে তো তেজপাল টই তে প্রচুর তক্কাতক্কি হল... তেমন কোনো নতুন কথা নয় কিন্তু।
  • সে | 188.83.87.102 | ২৩ মার্চ ২০১৫ ১৪:৩৫581387
  • ও আচ্ছা। প্রিভেসীর অধিকার নিয়ে কিছু বলা যাবে না? সানি ধাপা করে যেতে হবে? সম্মানের ব্যাপার যখন সানিধাপা, তখন প্রিভেসীটাকি মাগারেসা? সম্মানের প্রশ্ন নেই, তাই দাও সব নাম ধাম লিখে? চমৎকার যুক্তি তো!
    এইসব সম্মান টম্মান তো ভারতীয় সানিধাপা, তা নাম প্রকাশের ব্যাপারটা কোথাকার? পশ্চিমে কিন্তু প্রিভেসীর অধিকারটা মানে কোনো কোনো দেশে। সেগুলো ও এখন বাদ থাকবে নাকি?
    মানে আমাদের পছন্দসই কম্ফর্ট জোনে যেটা সুবিধেজনক?
    এইতো ইদানীং একটা টইয়ের মধ্যে টইয়ে দেখলাম (২০১১র টই, আগে কখনো পড়িনি, সেসময়ে এই সাইটে আসতাম না, এখন টই ভেসে উঠেছে, তাই পড়লাম) অভিযোগকারিণীর নাম লিখলেই গেল গেল রব। তাও সেটা ধর্ষণের মতো কোনো ক্রিমিনাল অফেন্স নয়, কেবল মেয়েদের শ্বশুরবাড়ীর কিছু ঘটনা। হৈহৈরৈরৈ হয়ে যাচ্ছিলো সেখানে। আহা, যাদের কথা বলা হচ্ছে তারা সেল্ফ ডিফেন্সের সুযোগই পাচ্ছে না। কত অবিচার করা হচ্ছে তাদের সে সুযোগ থেকে বঞ্চিত করে। বলা হয় নি কি? সেখানে অভিযোগকারিণীরা স্বনামেই লিখছিলেন।তা সেটা সানিধাপা না মাগারেসা? কোনটে হবে এট্টু ঠিক্করেদিন বাবুমশায়েরা। পিতৃতন্ত্র যে কত ফাঁকে ফোঁকরে ঢুকে রয়েছে, তা এই টই পড়েও বোঝা যায়। যাকে বলে মালুম হয়, যে পিতৃতন্ত্র কিভাবে বয়ে চলেছে। অনেক সময় আবার মুখোশের আড়ালে। সে আরো ভয়ঙ্কর।
  • common | 24.139.222.45 | ২৩ মার্চ ২০১৫ ১৫:০১581388
  • কারুর মতের বিরোধিতা করতে গেলে কি লিখতে চাইছেন তা আগে নিজে পরিস্কার বুঝলে ভালো হয়। না হলে শুধুই সানিধাপামাগারেসা আর পূর্ব-পচিম-উঃ-দঃ, কিন্তু আসলে কিচ্ছু বোঝা যায় না। অভিযোগকারীর নাম-প্রকাশ করা না-করা দুইয়েরই কিছু যুক্তি বিরুদ্ধ যুক্তি আছে, সেইগুলো নিয়ে আলোচনা বা নিজের বিবেচনা অনুযায়ী মতামত জানাতে গেলে সবাইকে এত পূর্ব-পশ্চিম জেনে আসতে হবে কেন ? আর কারুর মতটাকে না বুঝেই শুধু কিছু কথা ছুঁড়ে দেওয়াই বা কেন ? কোথা থেকে কোথায় এলেন, কোথায় প্রিভেসীর বিরুদ্ধে বলা হল আর কোথায় পিতৃতন্ত্রের বয়ে চলা দেখে শিউরে উঠলেন কিছুই বোঝা গেল না।
  • সে | 188.83.87.102 | ২৩ মার্চ ২০১৫ ১৫:১০581389
  • আপনার লেখা প্রথম লাইনটা আপনার লেখাটির ক্ষেত্রে একদম প্রযোজ্য।
    বাকি হচ্ছে, ভালো করে পড়ে দেখুন। নিশ্চয় বুঝবেন। শক্ত শিশি বোতল কিছু লিখিনি।
  • common | 24.139.222.45 | ২৩ মার্চ ২০১৫ ১৫:২২581391
  • শক্ত বা সহজ কোনোটাই নয়, অর্থহীন। আপনাকে সরাসরি অনেক প্রশ্ন করা হয়েছে, প্রশ্ন ছুঁড়ে দিয়ে কাজ না সেরে একটু উত্তর দেবার চেষ্টা করুন।
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]


মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত
পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। যা মনে চায় মতামত দিন