Muhammad Sadequzzaman Sharif RSS feed

Muhammad Sadequzzaman Sharifএর খেরোর খাতা।

আরও পড়ুন...
সাম্প্রতিক লেখালিখি RSS feed
  • অরফ্যানগঞ্জ
    পায়ের নিচে মাটি তোলপাড় হচ্ছিল প্রফুল্লর— ভূমিকম্পর মত। পৃথিবীর অভ্যন্তরে যেন কেউ আছাড়ি পিছাড়ি খাচ্ছে— সেই প্রচণ্ড কাঁপুনিতে ফাটল ধরছে পথঘাট, দোকানবাজার, বহুতলে। পাতাল থেকে গোঙানির আওয়াজ আসছিল। ঝোড়ো বাতাস বইছিল রেলব্রিজের দিক থেকে। প্রফুল্ল দোকান থেকে ...
  • থিম পুজো
    অনেকদিন পরে পুরনো পাড়ায় গেছিলাম। মাঝে মাঝে যাই। পুরনো বন্ধুদের সঙ্গে দেখা হয়, আড্ডা হয়। বন্ধুদের মা-বাবা-পরিবারের সঙ্গে কথা হয়। ভাল লাগে। বেশ রিজুভিনেটিং। এবার অনেকদিন পরে গেলাম। এবার গিয়ে শুনলাম তপেস নাকি ব্যবসা করে ফুলে ফেঁপে উঠেছে। একটু পরে তপেসও এল ...
  • কাঁসাইয়ের সুতি খেলা
    সেকালে কাঁসাই নদীতে 'সুতি' নামের একটা খেলা প্রচলিত ছিল। মাছ ধরার অভিনব এক পদ্ধতি, বহু কাল ধরে যা চলে আসছে। আমাদের পাড়ার একাধিক লোক সুতি খেলাতে অংশ নিত। এই মৎস্যশিকার সার্বজনীন, হিন্দু ও মুসলিম উভয় সম্প্রদায়ে জনপ্রিয়। মনে আছে ক্লাস সেভেনে পড়ার সময় একদিন ...
  • শুভ বিজয়া
    আমার যে ঠাকুর-দেবতায় খুব একটা বিশ্বাস আছে, এমন নয়। শাশ্বত অবিনশ্বর আত্মাতেও নয়। এদিকে, আমার এই জীবন, এই বেঁচে থাকা, সবকিছু নিছকই জৈবরাসায়নিক ক্রিয়া, এমনটা সবসময় বিশ্বাস করতে ইচ্ছে করে না - জীবনের লক্ষ্য-উদ্দেশ্য-পরিণ...
  • আবরার ফাহাদ হত্যার বিচার চাই...
    দেশের সবচেয়ে মেধাবীরা বুয়েটে পড়ার সুযোগ পায়। দেশের সবচেয়ে ভাল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নিঃসন্দেহে বুয়েট। সেই প্রতিষ্ঠানের একজন ছাত্রকে শিবির সন্দেহে পিটিয়ে মেরে ফেলল কিছু বরাহ নন্দন! কাওকে পিটিয়ে মেরে ফেলা কি খুব সহজ কাজ? কতটুকু জোরে মারতে হয়? একজন মানুষ পারে ...
  • ইন্দুবালা ভাতের হোটেল-৭
    চন্দ্রপুলিধনঞ্জয় বাজার থেকে এনেছে গোটা দশেক নারকেল। কিলোটাক খোয়া ক্ষীর। চিনি। ছোট এলাচ আনতে ভুলে গেছে। যত বয়েস বাড়ছে ধনঞ্জয়ের ভুল হচ্ছে ততো। এই নিয়ে সকালে ইন্দুবালার সাথে কথা কাটাকাটি হয়েছে। ছোট খাটো ঝগড়াও। পুজো এলেই ইন্দুবালার মন ভালো থাকে না। কেমন যেন ...
  • গুমনামিজোচ্চরফেরেব্বাজ
    #গুমনামিজোচ্চরফেরেব্...
  • হাসিমারার হাটে
    অনেকদিন আগে একবার দিন সাতেকের জন্যে ভূটান বেড়াতে যাব ঠিক করেছিলাম। কলেজ থেকে বেরিয়ে তদ্দিনে বছরখানেক চাকরি করা হয়ে গেছে। পুজোর সপ্তমীর দিন আমি, অভিজিৎ আর শুভায়ু দার্জিলিং মেল ধরলাম। শিলিগুড়ি অব্দি ট্রেন, সেখান থেকে বাসে ফুন্টসলিং। ফুন্টসলিঙে এক রাত্তির ...
  • দ্বিষো জহি
    বোধন হয়ে গেছে গতকাল। আজ ষষ্ঠ্যাদি কল্পারম্ভ, সন্ধ্যাবেলায় আমন্ত্রণ ও অধিবাস। তবে আমবাঙালির মতো, আমারও এসব স্পেশিয়ালাইজড শিডিউল নিয়ে মাথা ব্যাথা নেই তেমন - ছেলেবেলা থেকে আমি বুঝি দুগ্গা এসে গেছে, খুব আনন্দ হবে - এটুকুই।তা এখানে সেই আকাশ আজ। গভীর নীল - ...
  • গান্ধিজির স্বরাজ
    আমার চোখে আধুনিক ভারতের যত সমস্যা তার সবকটির মূলেই দায়ী আছে ব্রিটিশ শাসন। উদাহরণ, হাতে গরম এন আর সি নিন, প্রাক ব্রিটিশ ভারতে এরকম কোনও ইস্যুই ভাবা যেতো না। কিম্বা হিন্দু-মুসলমান, জাতিভেদ, আর্থিক বৈষম্য, জনস্ফীতি, গণস্বাস্থ্য ব্যবস্থার অভাব, শিক্ষার অভাব ...


বইমেলা হোক বা নাহোক চটপট নামিয়ে নিন রঙচঙে হাতে গরম গুরুর গাইড ।

লে. জে. হু. মু. এরশাদ

Muhammad Sadequzzaman Sharif

বাংলাদেশের রাজনৈতিক ইতিহাসের একটা অধ্যায় শেষ হল। এমন একটা চরিত্রও যে দেশের রাজনীতিতে এত গুরুত্বপূর্ণ অবস্থানে থাকতে পারে তা না দেখলে বিশ্বাস করা মুশকিল ছিল, এ এক বিরল ঘটনা। মুক্তিযুদ্ধকালীন সময়ে যুদ্ধ না করে কোন সামরিক অফিসার বাড়িতে ঘাপটি মেরে বসে ছিলেন আবার পরবর্তীতে ঘটনার ঘূর্ণিপাকে সেই দেশের প্রধান হয়ে দেশ চালিয়েছেন! এ কী সোজা কথা? দেশ চালিয়েছেন, স্বৈরশাসক হিসেবে পরিচিতি পেয়েছেন, বিশ্ব বেহায়া খেতাব পেয়েছিলেন শিল্পী কামরুল হাসানের কাছ থেকে, জেল খেটেছেন, জেল থেকে বের হয়ে আবার রাজনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ অবস্থানে চলে গেছেন! একজন পুরুষের বা একজন ক্ষমতাবান পুরুষের যতপ্রকার দোষ থাকা সম্ভব তার বেশিরভাগ নিয়ে বসে ছিলেন অথচ দেশের অনেক মানুষ, যারা তার ভক্ত তারা তাকে খাটি মুসলিম, ইসলাম প্রেমিক হিসেবে মানেন! ভণ্ডামির মাত্রা কোন পর্যায় গেলে এমন সম্ভব হয় জানা নেই, এর মনে হয় মাত্রা নেইও, তিনি নিজেই একটা মাত্রা, পাল্লার বাটখারা! কোন মাপের ভণ্ড? অর্ধেক এরশাদ না পুরো এরশাদ?

আজকে আওয়ামীলীগ ক্ষমতায়। ক্ষমতার হিসেবটা অন্য রকম। তাই লালদীঘি ময়দানে জে এরশাদ শেখ হাসিনাকে মেরে ফেলতে সোজা গুলি চালিয়ে দিয়েছিল, জনসভায় আসা ২৪ জন মানুষ গুলিতে মারা যায়, শেখ হাসিনা নিজে নিশ্চিত মৃত্যুর হাত থেকে বেঁচে জান, সেই এরশাদের মৃত্যুতে শোক প্রকাশ হয়েছে প্রধানমন্ত্রীর তরফ থেকে, রাষ্ট্রপতির তরফ থেকে! পিছিয়ে নেই ছাত্রলীগও, শোক প্রকাশ করেছে তারাও, যদিও এরশাদ বিরোধী আন্দোলনে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় যুগ্ম সম্পাদক এবং ঢাবি ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শহীদ রাউফুন বসুনিয়া নিহত হোন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে তাঁর আবক্ষ ভাস্কর্য আছে। ছাত্রলীগ প্রতি বছর তাতে ফুল দেয় । আসলেই রাজনীতিতে সম্ভবত শেষ বলে কিছুই নেই।

হুমায়ুন আজাদ লিখেছিলেন - “খলতা , ভণ্ডামো, ভাঁড়ামো,নারী লিপ্সা, চরিত্রহীনতা, অভিনয়, দুর্নীতিতে এরশাদ তুলনাহীন, সে গোপাল ভাঁড় ও ক্যাসানোভা ও জল্লাদের এক তিক্ত মিশ্রণ । এমন কোন কোন অপরাধ নেই যা সে করে নি , এমন কোন পদ্ম নেই যা সে দূষিত করে নি, এবং সে আমাদের প্রচুর মজাও দিয়েছে । ধর্ম থেকে কবিতা পর্যন্ত সবকিছু সে নষ্ট করে।” এ সব কোন কিছুই তাকে স্পর্শ করেনি। সদা হাস্যমুখে সকল অপমান দারুণ ভাবে, কোন এক অলৌকিক ক্ষমতায় নিজের পক্ষে নিয়ে গেছেন, কখনো কথার মাধ্যমে, কখনো কাজের মাধ্যমে, মিথ্যে কথার ফুলঝুরিতে তিনি সকল অপমানকে নিজের পক্ষে নিয়ে গেছেন। ক্ষমতায় থাকাকালীন নিজেকে বাঁচানোর জন্য এক অদ্ভুত আইন বানিয়েছিলেন, যে আইনে আকারে-ইঙ্গিতে কেউ তার সামরিক শাসনের সমালোচনা বা বিরোধিতা করলে সাত বছরের সশ্রম কারাদণ্ডের বিধান রাখা হয়।কিন্তু শেষ রক্ষা হয়নি। ছাত্ররাই টেনে নামিয়েছিল ক্ষমতার মসনদ থেকে।

এদেশেই সম্ভব এসব। সব সম্ভবের দেশ বাংলাদেশ। সকালে মারা গেছে এরশাদ, এর মধ্যে যে পরিমাণ শোক প্রকাশ শুরু হয়েছে তা দেখে মনে হচ্ছে কোন রেকর্ড ফেকর্ড করে ফেলেও ফেলতে পারে। শোকবার্তা দিয়ে ভাসিয়ে দেওয়াদের নিয়ে চিন্তা নেই, এরা নুর হোসেন দিবস পালন করে আবার এরশাদের গালেও চুমু খায়! এরা দাবি করে স্বাধীন বাংলাদেশের পক্ষের জনতা আবার গোলাম আজমের জানাজায় ভিড় করে। বুক ফুলিয়ে বলে দেখছ, কত্ত মানুষ হইছে?

তিনি মারা গেলেন এবং মরে বেঁচে গেলেন। মঞ্জুরের পরিবারকে আর মিথ্যা বিশ্বাস নিয়ে বাঁচতে হবে না যে একদিন মঞ্জুর হত্যার বিচার হবে। কিংবা এখন হয়ত আদালতের সময় হবে বিচার শেষ করার। ৩৫ বছর পর তাহেরের পরিবার তাহের হত্যার বিচার পেয়েছিল। মঞ্জুরের পরিবারকে আর কত অপেক্ষা করতে হবে কে জানে? তবে বিচারের বানী উচ্চারিত হওয়া জরুরি। এখন আর কোন হিসেব নিকেশ নেই, এখন আর দাবার চল পরিবর্তন হবে না, এখন অন্তত সত্যটা উচ্চারিত হোক। মঞ্জুরের পরিবার অন্তত জানুক বিচার হয়েছে।
দুঃখিত, এরশাদের জন্য শোক বাণী আমার কাছে নাই।





233 বার পঠিত (সেপ্টেম্বর ২০১৮ থেকে)

শেয়ার করুন


Avatar: aranya

Re: লে. জে. হু. মু. এরশাদ

'দেশের অনেক মানুষ, যারা তার ভক্ত তারা তাকে খাটি মুসলিম, ইসলাম প্রেমিক হিসেবে মানেন'
- খাঁটি মুসলিম, ইসলাম প্রেমিক না খুঁজে দেশে লোক যদি খাঁটি মানুষ, মানবপ্রেমিক নেতা খুঁজতেন, ভাল হত
Avatar: বিপ্লব রহমান

Re: লে. জে. হু. মু. এরশাদ

সব শালা কবি হবে; পিপড়ে গোঁ ধরেছে, উড়বেই; বন থেকে দাঁতাল শুয়োর রাজাসনে বসবেই;" (মোহাম্মদ রফিক/ খোলা কবিতা)...

১৯৯০ এ জেনারেল এরশাদ বিরোধী ছাত্র আন্দোলনের সময়ে লেখা আগুন ঝরানো কবিতা।


আপনার মতামত দেবার জন্য নিচের যেকোনো একটি লিংকে ক্লিক করুন