Ritwik Gangopadhyay RSS feed

Ritwik Gangopadhyayএর খেরোর খাতা।

আরও পড়ুন...
সাম্প্রতিক লেখালিখি RSS feed
  • বার্সিলোনা - পর্ব ১
    ঠিক করেছিলাম আট-নয়দিন স্পেন বেড়াতে গেলে, বার্সিলোনাতেই থাকব। বেড়ানোর সময়টুকুর মধ্যে খুব দৌড় ঝাঁপ, এক দিনে একটা শহর দেখে বা একটা গন্তব্যের দেখার জায়গা ফর্দ মিলিয়ে শেষ করে আবার মাল পত্তর নিয়ে পরবর্তী গন্তব্যের দিকে ভোর রাতে রওনা হওয়া, আর এই করে ১০ দিনে ৮ ...
  • লাল ঝুঁটি কাকাতুয়া
    -'একটা ছিল লাল ঝুঁটি কাকাতুয়া।আর ছিল একটা নীল ঝুঁটি মামাতুয়া।'-'এরা কারা?' মেয়েটা সঙ্গে সঙ্গে চোখ বড়ো করে অদ্ভুত লোকটাকে জিজ্ঞেস করে।-'আসলে কাকাতুয়া আর মামাতুয়া এক জনই। ওর আসল নাম তুয়া। কাকা-ও তুয়া বলে ডাকে, মামা-ও ডাকে তুয়া।'শুনেই মেয়েটা ফিক করে হেসে ...
  • স্টার্ট-আপ সম্বন্ধে দুচার কথা যা আমি জানি
    স্টার্ট-আপ সম্বন্ধে দুচার কথা যা আমি জানি। আমি স্টার্ট-আপ কোম্পানিতে কাজ করছি ১৯৯৮ সাল থেকে। সিলিকন ভ্যালিতে। সময়ের একটা আন্দাজ দিতে বলি - গুগুল তখনও শুধু সিলিকন ভ্যালির আনাচে-কানাচে, ফেসবুকের নামগন্ধ নেই, ইয়াহুর বয়েস বছর চারেক, অ্যামাজনেরও বেশি দিন হয়নি। ...
  • মৃণাল সেন : এক উপেক্ষিত চলচ্চিত্রকার
    [আজ বের্টোল্ট ব্রেশট-এর মৃত্যুদিন। ভারতীয় চলচ্চিত্রে যিনি সার্থকভাবে প্রয়োগ করেছিলেন ব্রেশটিয় আঙ্গিক, সেই মৃণাল সেনকে নিয়ে একটি সামান্য লেখা।]ভারতীয় চলচ্চিত্রের ইতিহাসে কীভাবে যেন পরিচালক ত্রয়ী সত্যজিৎ-ঋত্বিক-মৃণাল এক বিন্দুতে এসে মিলিত হন। ১৯৫৫-তে মুক্তি ...
  • দময়ন্তীর সিজনস অব বিট্রেয়াল পড়ে
    পড়লাম সিজনস অব বিট্রেয়াল গুরুচন্ডা৯'র বই দময়ন্তীর সিজনস অব বিট্রেয়াল। বইটার সঙ্গে যেন তীব্র সমানুভবে জড়িয়ে গেলাম। প্রাককথনে প্রথম বাক্যেই লেখক বলেছেন বাঙাল বাড়ির দ্বিতীয় প্রজন্মের মেয়ে হিসেবে পার্টিশন শব্দটির সঙ্গে পরিচিতি জন্মাবধি। দেশভাগ কেতাবি ...
  • দুটি পাড়া, একটি বাড়ি
    পাশাপাশি দুই পাড়া - ভ-পাড়া আর প-পাড়া। জন্মলগ্ন থেকেই তাদের মধ্যে তুমুল টক্কর। দুই পাড়ার সীমানায় একখানি সাতমহলা বাহারী বাড়ি। তাতে ক-পরিবারের বাস। এরা সম্ভ্রান্ত, উচ্চশিক্ষিত। দুই পাড়ার সাথেই এদের মুখ মিষ্টি, কিন্তু নিজেদের এরা কোনো পাড়ারই অংশ মনে করে না। ...
  • পরিচিতির রাজনীতি: সন্তোষ রাণার কাছে যা শিখেছি
    দিলীপ ঘোষযখন স্কুলের গণ্ডি ছাড়াচ্ছি, সন্তোষ রাণা তখন বেশ শিহরণ জাগানাে নাম। গত ষাটের দশকের শেষার্ধ। সংবাদপত্র, সাময়িক পত্রিকা, রেডিও জুড়ে নকশালবাড়ির আন্দোলনের নানা নাম ছড়িয়ে পড়ছে আমাদের মধ্যে। বুঝি না বুঝি, পকেটে রেড বুক নিয়ে ঘােরাঘুরি ফ্যাশন হয়ে ...
  • দক্ষিণের কড়চা
    (টিপ্পনি : দক্ষিণের কথ্যভাষার অনেক শব্দ রয়েছে। না বুঝতে পারলে বলে দেব।)দক্ষিণের কড়চা▶️এখানে মেঘ ও ভূমি সঙ্গমরত ক্রীড়াময়। এখন ভূমি অনাবৃত মহিষের মতো সহস্রবাসনা, জলধারাস্নানে। সামাদভেড়ির এই ভাগে চিরহরিৎ বৃক্ষরাজি নুনের দিকে চুপিসারে এগিয়ে এসেছে যেন ...
  • জোড়াসাঁকো জংশন ও জেনএক্স রকেটপ্যাড-১৪
    তোমার সুরের ধারা ঝরে যেথায়...আসলে যে কোনও শিল্প উপভোগ করতে পারার একটা বিজ্ঞান আছে। কারণ যাবতীয় পারফর্মিং আর্টের প্রাসাদ পদার্থবিদ্যার সশক্ত স্তম্ভের উপর দাঁড়িয়ে থাকে। পদার্থবিদ্যার শর্তগুলি পূরণ হলেই তবে মনন ও অনুভূতির পর্যায় শুরু হয়। যেমন কণ্ঠ বা যন্ত্র ...
  • উপনিবেশের পাঁচালি
    সাহেবের কাঁধে আছে পৃথিবীর দায়ভিন্নগ্রহ থেকে তাই আসেন ধরায়ঐশী শক্তি, অবতার, আয়ুধাদি সহসকলে দখলে নেয় দুরাচারী গ্রহমর্ত্যলোকে মানুষ যে স্বভাবে পীড়িতমূঢ়মতি, ধীরগতি, জীবিত না মৃতঠাহরই হবে না, তার কীসে উপশমসাহেবের দুইগালে দয়ার পশমঘোষণা দিলেন ওই অবোধের ...


বইমেলা হোক বা নাহোক চটপট নামিয়ে নিন রঙচঙে হাতে গরম গুরুর গাইড ।

আনকথা যানকথা

Ritwik Gangopadhyay

*****আনকথা যানকথা*****

মোটরবাইক ঃ ইহা একটি দ্বিচক্রী স্থলযান। পেট্রল ডিজেল জাতীয় জীবাশ্ম জ্বালানির সাহায্যে চলে। বিভিন্ন আকারের ও বিভিন্ন ক্ষমতাসম্পন্ন মোটরবাইক আমরা দেখিতে পাই। কোন কোন বাইকের পাশে ক্যারিয়ার থাকে। শোলে বাইক আজকাল সেরকম দেখিতে পাওয়া যায়না। যানজট জনিত সমস্যায় বাইক অকুতোভয়, অত্যল্প জায়গার ভেতর দিয়েও ইহা নিষ্ক্রান্ত হইতে পারে। বাইকে চড়িবার পর হেলমেট পরিবার প্রয়োজন। অন্যথা ফেজ টুপি চলিতে পারে। রাস্তার মোড়ে পুলিশ দেখিতে পেলে শীর্ন গলিপথ ধরিয়া অন্তর্হিত হওয়াই শ্রেয় কারন বাইক বড়ই জরিমানাপ্রবণ। পুলিশের বাইকের অবশ্য সে ভয় নাই।বাইক আমাদের সময় বাঁচায়। যদিও বাইক চড়িয়াছে কিন্ত হাত পা মাজা ভাঙে নাই এমন লোক পাওয়া দুষ্কর।

বিধিবদ্ধ সতর্কীকরন ঃ রাত্রিকালে উচ্চগতিসম্পন্ন কিছু বাইক শহরের রাস্তায় দাপাইয়া বেড়ায়। উহারা ধরা ছোঁয়ার বাইরে থাকা নূতন যৌবনের দূত। উহাদের দেখা পাইলে রাস্তা ছাড়িয়া দেওয়াই ভালো। অন্যথা বিস্তর হেনস্থা হইতে পারে। এই বাইকগুলির একটি অদ্ভুত ক্ষমতা হইলো যে পুলিশ ইহাদের দেখিতে পায়না। এই প্রযুক্তি অভাবনীয়।

মনে রাখিবেন বাইকের কোন ধর্ম নাই।

ট্রাক ঃ ন্যূনতম চার চাকা বিশিষ্ট স্থলযান। ইহা ছাড়া আট, ষোল, বত্রিশ চাকারও হইতে পারে। পরিবহণ শিল্পে ইহারা ব্যবহৃত হয়। পেট্রোল বা ডিজেলে চলে। মূলত শহরাঞ্চলের বাইরেই এদের আনাগোনা যদিও কোন মন্ত্রবলে ইহারা ব্যস্ত প্রহরে শহরের কেন্দ্রস্থলে ঢুকিয়া পড়ে সে এক রহস্য। ইহা উচ্চগতিসম্পন্ন যান নহে কিন্ত দূরত্ব বজায় রাখাই কাম্য কারন ইহাদের ভরবেগ ও স্বাভিমান অত্যন্ত বেশী। ট্রাকে চড়িয়া যাওয়া বড়োই আনন্দদায়ক তাহা আলিয়া ভাট মাত্রেই জানেন।

বিধিবদ্ধ সতর্কীকরন ঃ একশ্রেণীর দুষ্ট ট্রাক মাঝে মাঝে নিরীহ জনতার উপরে ঝাঁপাইয়া পড়িয়া উহাদের পিষিয়া দ্যায়৷ এই ঘটনা বিদেশের সুদৃশ্য জনগনের উপরেই ঘটিয়া থাকে কারন উহাদের প্রাণের মূল্য বেশী।

মনে রাখিবেন ট্রাকের কোন ধর্ম নাই।

উড়োজাহাজ ঃ দ্বিপক্ষ বিশিষ্ট ভূযান। ইহা ছাড়া ল্যাজের কাছেও ক্ষুদ্রাকায় পাখা থাকে ভারসাম্যের জন্য। শীতাতপনিয়ন্ত্রিত এবং আরামপ্রদ এই খোঁদলের মধ্যে বসিয়া নব্য বিত্তশালীরা শ্লাঘাবোধ করিতে করিতে দ্রুত বিভিন্ন জায়গায় গমন করেন। উড়োজাহাজে উঠিতে গেলে নিরাপত্তামূলক ব্যবস্থার ভেতর দিয়ে যাইতেই হইবে। ফেজটুপিধারীদের এই জায়গায় খুবই হেনস্থার সম্মুখীন হইতে হয়। সুহাসিনী সেবিকা দ্বারা পরিচালিত এই অর্ণবপোত উচ্চজাতের পেট্রল দ্বারা চলাচল করে। উড়োজাহাজ ভাঙিয়া পড়িলে দ্রুত পরলোকগত হওয়া যায়। যুদ্ধের কাজে এদের ভূমিকা অনস্বীকার্য।পড়শী দেশের কাক ইহাদের খুবই ভয় পায়। ইহাদের ক্রয় বিক্রয় সংক্রান্ত কিছু ধোঁয়াশা আপাতত গেরুয়া ঝড়ে ভাসিয়া গিয়াছে।

বিধিবদ্ধ সতর্কীকরন ঃ উঁচু বাড়ির সাথে আলিঙ্গনবদ্ধ হওয়ার প্রবণতা আছে। অতএব ইহাদের খুব নীচে নামিতে দেখিলে মোবাইল তাক করিতে ভুলিবেন না। শব্দের চেয়েও জোরে ছুটিতে ছুটিতে শ্রীরাধিকা ও বাসুদেবের সেই প্রেমডোরে মিশে যাওয়া দেখিতে পাওয়া এক অভূতপূর্ব দৃশ্য।

মনে রাখিবেন উড়োজাহাজের কোন ধর্ম হয়না।

296 বার পঠিত (সেপ্টেম্বর ২০১৮ থেকে)

শেয়ার করুন


Avatar: ষষ্ঠ পাণ্ডব

Re: আনকথা যানকথা

"উড়োজাহাজ ঃ দ্বিপক্ষ বিশিষ্ট ভূযান" - এটাকে শুধু 'ভূযান' বললে কি ঠিক হয়, নাকি 'ভূ-ব্যোমযান' বললে ঠিক হয়? কখনো কখনো এটা অবশ্য 'ভূপাতিতযান'ও হয়।
Avatar: কল্লোল

Re: আনকথা যানকথা

একখানা যান ছিলো বেশ কিছুকাল আগে। আজকাল বড় চোখে পড়ে না।
একটি বা দুটি ছোট তক্তা জোড়া দিয়া চওড়ায় একফুট লম্বায় দেড় ফুট। পিছনে দুটি চাকা - আদতে দুটি বল বেয়ারিং। সামনে একটি কাঠের ফালি আড়াই ফুট লম্বা তক্তার তলা দিয়ে লাগানো তার সাথে একটি বল বেয়ারিং। এটি দিয়ে দিক পরিবর্তন করা যায়।
একজন বসে থাকে - সে কনট্রোলার, অন্যজন ঠেলে ও জোরে ঠেলে চড়ে বসে - সে ড্রাইভার। উভয়েই সওয়ারও বটে।

Avatar: dd

Re: আনকথা যানকথা

ভালো লাগলো
Avatar: Du

Re: আনকথা যানকথা

লরেন পার্টি সাধ্বীপন্থী।


আপনার মতামত দেবার জন্য নিচের যেকোনো একটি লিংকে ক্লিক করুন