Saikat Bandyopadhyay RSS feed

Saikat Bandyopadhyayএর খেরোর খাতা।

আরও পড়ুন...
সাম্প্রতিক লেখালিখি RSS feed
  • বদল
    ছাত্র হয়ে অ্যামেরিকায় পড়তে যারা আসে - আমি মূলতঃ ছেলেদের কথাই বলছি - তাদের জীবনের মোটামুটি একটা নিশ্চিত গতিপথ আছে। মানে ছিল। আজ থেকে কুড়ি-বাইশ বছর বা তার আগে। যেমন ধরুন, পড়তে এল তো - এসে প্রথম প্রথম একেবারে দিশেহারা অবস্থা হত। হবে না-ই বা কেন? এতদিন অব্দি ...
  • নাদির
    "ইনসাইড আস দেয়ার ইজ সামথিং দ্যাট হ্যাজ নো নেম,দ্যাট সামথিং ইজ হোয়াট উই আর।"― হোসে সারামাগো, ব্লাইন্ডনেস***হেলেন-...
  • জিয়াগঞ্জের ঘটনাঃ সাম্প্রদায়িক রাজনীতি ও ধর্মনিরপেক্ষতা
    আসামে এনার্সি কেসে লাথ খেয়েছে। একমাত্র দালাল ছাড়া গরিষ্ঠ বাঙালী এনার্সি চাই না। এসব বুঝে, জিয়াগঞ্জ নিয়ে উঠেপড়ে লেগেছিল। যাই হোক করে ঘটনাটি থেকে রাজনৈতিক ফায়দা তুলতেই হবে। মেরুকরনের রাজনীতিই এদের ভোট কৌশল। ঐক্যবদ্ধ বাঙালী জাতিকে হিন্দু মুসলমানে ভাগ করা ...
  • অরফ্যানগঞ্জ
    পায়ের নিচে মাটি তোলপাড় হচ্ছিল প্রফুল্লর— ভূমিকম্পর মত। পৃথিবীর অভ্যন্তরে যেন কেউ আছাড়ি পিছাড়ি খাচ্ছে— সেই প্রচণ্ড কাঁপুনিতে ফাটল ধরছে পথঘাট, দোকানবাজার, বহুতলে। পাতাল থেকে গোঙানির আওয়াজ আসছিল। ঝোড়ো বাতাস বইছিল রেলব্রিজের দিক থেকে। প্রফুল্ল দোকান থেকে ...
  • থিম পুজো
    অনেকদিন পরে পুরনো পাড়ায় গেছিলাম। মাঝে মাঝে যাই। পুরনো বন্ধুদের সঙ্গে দেখা হয়, আড্ডা হয়। বন্ধুদের মা-বাবা-পরিবারের সঙ্গে কথা হয়। ভাল লাগে। বেশ রিজুভিনেটিং। এবার অনেকদিন পরে গেলাম। এবার গিয়ে শুনলাম তপেস নাকি ব্যবসা করে ফুলে ফেঁপে উঠেছে। একটু পরে তপেসও এল ...
  • কাঁসাইয়ের সুতি খেলা
    সেকালে কাঁসাই নদীতে 'সুতি' নামের একটা খেলা প্রচলিত ছিল। মাছ ধরার অভিনব এক পদ্ধতি, বহু কাল ধরে যা চলে আসছে। আমাদের পাড়ার একাধিক লোক সুতি খেলাতে অংশ নিত। এই মৎস্যশিকার সার্বজনীন, হিন্দু ও মুসলিম উভয় সম্প্রদায়ে জনপ্রিয়। মনে আছে ক্লাস সেভেনে পড়ার সময় একদিন ...
  • শুভ বিজয়া
    আমার যে ঠাকুর-দেবতায় খুব একটা বিশ্বাস আছে, এমন নয়। শাশ্বত অবিনশ্বর আত্মাতেও নয়। এদিকে, আমার এই জীবন, এই বেঁচে থাকা, সবকিছু নিছকই জৈবরাসায়নিক ক্রিয়া, এমনটা সবসময় বিশ্বাস করতে ইচ্ছে করে না - জীবনের লক্ষ্য-উদ্দেশ্য-পরিণ...
  • আবরার ফাহাদ হত্যার বিচার চাই...
    দেশের সবচেয়ে মেধাবীরা বুয়েটে পড়ার সুযোগ পায়। দেশের সবচেয়ে ভাল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নিঃসন্দেহে বুয়েট। সেই প্রতিষ্ঠানের একজন ছাত্রকে শিবির সন্দেহে পিটিয়ে মেরে ফেলল কিছু বরাহ নন্দন! কাওকে পিটিয়ে মেরে ফেলা কি খুব সহজ কাজ? কতটুকু জোরে মারতে হয়? একজন মানুষ পারে ...
  • ইন্দুবালা ভাতের হোটেল-৭
    চন্দ্রপুলিধনঞ্জয় বাজার থেকে এনেছে গোটা দশেক নারকেল। কিলোটাক খোয়া ক্ষীর। চিনি। ছোট এলাচ আনতে ভুলে গেছে। যত বয়েস বাড়ছে ধনঞ্জয়ের ভুল হচ্ছে ততো। এই নিয়ে সকালে ইন্দুবালার সাথে কথা কাটাকাটি হয়েছে। ছোট খাটো ঝগড়াও। পুজো এলেই ইন্দুবালার মন ভালো থাকে না। কেমন যেন ...
  • গুমনামিজোচ্চরফেরেব্বাজ
    #গুমনামিজোচ্চরফেরেব্...


বইমেলা হোক বা নাহোক চটপট নামিয়ে নিন রঙচঙে হাতে গরম গুরুর গাইড ।

এনআরসি, নাগরিকত্ব, বাঙালি -- সোজাসাপ্টা

Saikat Bandyopadhyay

সব খুচরো জটিলতা এড়িয়ে একদম সরল করে বললে সোজাসাপ্টা জিনিসটা এইরকম।

এনআর সিঃ হিন্দু মুসলমান নির্বিশেষে 'অবৈধ' বাঙালিদের তালিকা বানানো হবে। এবং নাগরিকত্ব থেকে বঞ্চিত করা হবে। তালিকার বাঙালিদের ডিটেনশান ক্যাম্পে রাখা হবে, না লাথি মেরে বাংলাদেশে তাড়ানো হবে জানা যায়নি।
ঝামেলায় পড়বেন কারাঃ কেবলমাত্র বাঙালিরা। এখনও পর্যন্ত, শোনা যাচ্ছে, অবৈধ তালিকায় আছেন হিন্দু ও মুসলমান ৪০ লক্ষ বাঙালি।
পক্ষে-বিপক্ষেঃ এর পক্ষে আছেন ভারতের মূলধারার সমস্ত দল। অগপ, বিজেপি জোরালো সমর্থক। কংগ্রেস, বাম, তৃণমূল ইত্যাদি বাকিরা কিছু পদ্ধতিগত ব্যাপারে সমালোচনা করলেও নীতিগতভাবে দ্বিমত পোষণ করেননি।

নাগরিকত্ব বিলঃ মোদ্দা কথা হল প্রতিবেশী দেশ থেকে উদ্বাস্তু হিসেবে চলে আসা অমুসলমানরা 'শরণার্থী'র মর্যাদা পাবেন। মুসলমানরা পাবেন 'অনুপ্রবেশকারী'র তকমা।
ঝামেলায় পড়বেন কারাঃ ১। অবশ্যই মুসলমানরা। ধর্মীয় পরিচয়ের কারণে তাঁদের মধ্যে থেকেই 'অনুপ্রবেশকারী' খুঁজে বার করা হবে। ২। বাঙালিরা। মুসলমান বাঙালিরা তো বাংলাদেশী তকমা পেতে পারেন বটেই, হিন্দু বাঙালিদেরও বৈধ নাগরিকত্বের বদলে শরণার্থী তকমা দেওয়া হতে পারে।
পক্ষে-বিপক্ষেঃ পক্ষে শুধুই বিজেপি। বিরোধী দলগুলির বেশিরভাগই ধর্মীয় পরিচয়ে শরণার্থী/অনুপ্রবেশকারী তকমা দেবার বিরোধী। আসামের দল অগপ বিরোধী অন্য কারণে। তারা হিন্দু-মুসলমান নির্বিশেষে বাঙালিকে 'অনুপ্রবেশকারী' তকমা দেবার পক্ষে। কেবল মুসলমানকে অনুপ্রবেশকারী বললে 'অনুপ্রবেশকারী'র সংখ্যা অনেক কমে যাবে।

দুইটি বিকল্প, যা শোনা যাচ্ছে।

১। বিজেপি। তারা এনআরসির বদলে নাগরিকত্ব বিল নিয়ে এগোতে আগ্রহী। কিন্তু তাতে অগপ তথা অসমীয়া উগ্রজাতীয়তাবাদ চটে যেতে পারে। তাই তাদের প্রস্তাব হল নাগরিকত্ব বিল + আসাম চুক্তির ৬ নং ধারা। কী সেই ছয় নম্বর ধারা? সেখানে বলা আছে, আসামে ভূমিপুত্রদের (পড়ুন অসমীয়াদের) জন্য প্রশাসনিক, সাংবিধানিক এবং আইনসভাগত সুরক্ষা (সেফগার্ড)। ১৯৮৪ সাল থেকেই এটি আছে। 'উগ্র জাতিয়তাবাদ' বা তথাকথিত 'প্রাদেশিকতা'র বিরোধী শক্তিরা এতে আপত্তি করার কিছু দেখেননি। কিন্তু বিষয়টি তেমন জোরদার ভাবে প্রয়োগ করা হয়নি। বিজেপি নতুন একটি কমিটি তৈরি করছে, বস্তুটিকে এগিয়ে নিয়ে যাবার জন্য।
এতে ক্ষতিগ্রস্ত কারা? ১। মুসলমানরা। তারা সরাসরি অনুপ্রবেশকারীর তকমা পেতে পারে। ২। হিন্দুরা। তারা হঠাৎ করেই শরণার্থী বনে যেতে পারে। ৩। বাঙালিরা। আসামের অসমীয়াদের আসামের বাঙালিদের বিশেষ মর্যাদা দেওয়া হতে পারে, যা বাঙালিদের এক কথায় দ্বিতীয় শ্রেণীর নাগরিকত্বে পাঠিয়ে দিতে সক্ষম।

২। অন্যান্যরা। তারা নাগরিকত্ব বিলের বিরোধী। কিন্তু এনআরসির নীতিগত ভাবে বিরোধী কোনো বড় দল ভারতবর্ষে এই মুহূর্তে নেই। আসাম চুক্তিরও বিরোধিতা কেউ করছেনা। অতএব অন্য বিকল্পটি হল এনআরসি + আসাম চুক্তির ৬ নং ধারা। এইটি হলে বিপন্ন কারা হবে? স্রেফ বাঙালিরা। হিন্দু-মুসলমান নির্বিশেষে তারা 'অবৈধ' তকমা পেতে পারে। অসমীয়াদের জন্য বিশেষ সুরক্ষা চালু হলে 'বৈধ'রাও দ্বিতীয় শ্রেণীর নাগরিকে পরিণত হতে পারে।

কয়েকটি ব্যাপারে জাতীয় ঐক্যমত্য লক্ষণীয়ঃ
১। নেপাল বা তামিলনাড়ু থেকে আগত মানুষরা ভারতবর্ষের জনসংখ্যা বাড়ায়না। সমস্যা তৈরি করেনা। কিন্তু বাংলাদেশ থেকে আগত মানুষরা করে।
২। দেশভাগের কারণ ভারত ও পাকিস্তানের কেন্দ্রীয় সরকারি নীতি হলে, বাঙালির ক্ষেত্রে তার ন্যূনতম দায় ও দায়িত্ব কখনও কেন্দ্রীয় সরকার গ্রহণ করেনি। তার কোনো প্রয়োজনও নেই। এ ব্যাপারে ভারতীয় কেন্দ্রীয় সরকারের একমাত্র কাজ হল উদ্বাস্তু বাঙালিদের মধ্যে 'বিদেশী' চিহ্নিতকরণ।
৩। উগ্র অসমীয় জাতিয়তাবাদ, বঙাল খেদা ইত্যাদি হল মূলত তোয়াজ করার জিনিস। বাঙালি জাতীয়তা হল 'প্রাদেশিকতা'।

সঙ্গের চিত্রটি এক নজরে পুরোটা বুঝে ফেলার জন্যঃ

https://i.postimg.cc/cHjJGgcy/nrc-citizenship.png

861 বার পঠিত (সেপ্টেম্বর ২০১৮ থেকে)

শেয়ার করুন


Avatar: দ

Re: এনআরসি, নাগরিকত্ব, বাঙালি -- সোজাসাপ্টা

"নেপাল বা তামিলনাড়ু থেকে আগত মানুষরা ভারতবর্ষের জনসংখ্যা বাড়ায়না। সমস্যা তৈরি করেনা। কিন্তু বাংলাদেশ থেকে আগত মানুষরা করে।" !!! তামিলনাড়ু থেকে ভারতে আসে কী করে?? উত্তর ভারতে?
Avatar: সিকি

Re: এনআরসি, নাগরিকত্ব, বাঙালি -- সোজাসাপ্টা

তামিলনাড়ুটা পড়ে আমিও ঘেবড়ে গেলাম। মামু কি শ্রীলঙ্কা বলতে চাইছিল?

আর ছবির ঠিক ওপরেই তিন্নং পয়েন্টে দুটো সেটই কি একই লোক? মানে যে আসামের জাতীয়তাবাদকে তোয়াজ করছে, সে-ই কি বাঙালির জাতীয়তাকে 'প্রাদেশিকতা' বলছে?
Avatar: Ishan

Re: এনআরসি, নাগরিকত্ব, বাঙালি -- সোজাসাপ্টা

শ্রীলঙ্কা হবে। তামিল লিখতে গিয়ে মনে হয় তামিলনাড়ু হয়ে গেছে।
Avatar: বিপ্লব রহমান

Re: এনআরসি, নাগরিকত্ব, বাঙালি -- সোজাসাপ্টা

সংখ্যালঘুতে বিভাজন মোদী সরকারের পুরোনো চাল, সাধু সাবধান!
Avatar: Du

Re: এনআরসি, নাগরিকত্ব, বাঙালি -- সোজাসাপ্টা

তুমুল অশান্তি শুরু হয়েছে। ভিডিও দেখলাম এই বিল পাস হলে বাঙ্গালীদের পব আর গুজরাটে পাঠাবে।
Avatar: র২হ

Re: এনআরসি, নাগরিকত্ব, বাঙালি -- সোজাসাপ্টা

আজ তো তালিকা বেরোল।
Avatar:  নাগরিকপঞ্জি বিরোধী যুক্তমঞ্চ

Re: এনআরসি, নাগরিকত্ব, বাঙালি -- সোজাসাপ্টা

নাগরিকপঞ্জি প্রক্রিয়াটাই অযৌক্তিক, অবিলম্বে বাতিল করা উচিৎ

অসমে আজকে প্রকাশিত নাগরিকপঞ্জির চূড়ান্ত তালিকায় ১৯ লক্ষের বেশি মানুষের নাম বাদ পড়ায় গোটা প্রক্রিয়ার অযৌক্তিক এবং জনবিরোধী চরিত্রটাই উন্মোচিত হয়েছে। এই নাগরিকপঞ্জি প্রক্রিয়া নাগরিকত্ব প্রমাণের বোঝাটি অসমের সমগ্র জনসংখ্যার উপরে চাপিয়ে দিয়ে গত চার বছর ধরে জনগণকে অশেষ দুর্ভোগ দিয়েছে। অসমের মতন একটি গরীব এবং বন্যাপ্রবণ রাজ্যে যে লক্ষ লক্ষ মানুষ ২৪ মার্চ ১৯৭১-এর আগের থেকে তাদের বা তাদের পূর্বপুরুষদের ওই রাজ্যে বসবাসের প্রমাণ জোগাড় করতে পারবেন না, এটা জানাই ছিল। এই ভ্রান্ত প্রক্রিয়ার ভিত্তিতে তাদের নাগরিকত্ব কেড়ে নিয়ে রাষ্ট্রহীন করে দেওয়া হবে সংবিধান প্রদত্ত মৌলিক অধিকারগুলির চূড়ান্ত অবমাননা।

২০১৫ সালে সুপ্রিম কোর্ট এই অযৌক্তিক প্রক্রিয়া শুরু করার সময়েই কেন্দ্রীয় সরকার ও সংসদের হস্তক্ষেপ করে এটিকে বন্ধ করে দেওয়া উচিৎ ছিল। তা না করে মোদী সরকার দেশজুড়ে "বাংলাদেশী অনুপ্রবেশকারিদের" তাড়িয়ে দেওয়ার সাম্প্রদায়িক প্রচারেই ব্যস্ত হয়ে পড়ে। আজ যখন ১৯ লক্ষেরও বেশি মানুষ নাগরিকপঞ্জি থেকে বাদ পড়েছেন, যাদের মধ্যে একটা বড় অংশই বাঙালি হিন্দু, এবং এনআরসি-ছুটদের মধ্যে বিপুল সংখ্যক বাঙালি মুসলমান, গোর্খা, দলিত, আদিবাসী এমনকি অসমিয়া ভাষীরাও আছেন, তখন অসমে বিজেপি সরকারের নেতা মন্ত্রীরা নাগরিকপঞ্জির বিরুদ্ধে কথা বলতে শুরু করেছে। এই ধরণের রাজনৈতিক ভণ্ডামি সত্যিই নজিরবিহীন।

কেন্দ্রীয় ও অসমের রাজ্য সরকার মিলে ওই রাজ্যে ৪০০ 'বিদেশি ট্রাইব্যুনাল' গঠন করছে যেখানে তারা ১৯ লক্ষের বেশি এনআরসি-ছুট মানুষদের নাগরিকত্ব প্রমাণের জন্য আগামী ১২০ দিনের মধ্যে আবেদন করতে বলছে। ট্রাইব্যুনাল কাউকে বিদেশী ঘোষণা করলে তাদের ডিটেনশন সেন্টারে বন্দী করা হবে। এই ভাবে বিপুল সংখ্যক নিরীহ মানুষকে কারারুদ্ধ করা হলে তা হবে মানবাধিকার লঙ্ঘনের জঘন্যতম নিদর্শন। একটি সাংবিধানিক গণতন্ত্রে এই রাষ্ট্রীয় নৈরাজ্য কিভাবে অনুমোদিত হতে পারে?

নাগরিকপঞ্জি বিরোধী যুক্তমঞ্চ মাননীয় সুপ্রিম কোর্ট, কেন্দ্রীয় এবং অসম রাজ্য সরকার, ভারতীয় সংসদ এবং অসম রাজ্য বিধানসভার কাছে এই নিষ্ঠুর গণ-নির্যাতনের প্রক্রিয়াকে অবিলম্বে বন্ধ করার দাবি জানাচ্ছে এবং ১৯ লক্ষেরও বেশি এনআরসি-ছুট মানুষদের প্রত্যেককে ধর্ম-ভাষা-জাতি-বর্ণ নির্বিশেষে ভারতের নাগরিকত্ব প্রদান করার আবেদন জানাচ্ছে।

নাগরিকপঞ্জি বিরোধী যুক্তমঞ্চ পশ্চিমবঙ্গে কোনও ধরনের নাগরিকপঞ্জি প্রক্রিয়া চালু করার বিরুদ্ধে রাজ্য বিধানসভায় প্রস্তাব গ্রহণের দাবি জানাচ্ছে। আমাদের রাজ্যে যেখানে দেশভাগের পর থেকে লক্ষ লক্ষ উদ্বাস্তু এসে আশ্রয় নিয়েছে, সেখানে এই ধরনের নাগরিকপঞ্জি প্রক্রিয়া মারাত্মক প্রণাম ডেকে আনবে। নাগরিকপঞ্জি বিরোধী যুক্তমঞ্চ কেন্দ্রীয় সরকারের আনা নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলেরও তীব্র বিরোধিতা করছে কারণ তাতে মুসলিম উদ্বাস্তুদের ভারতীয় নাগরিকত্ব থেকে বঞ্চিত করার কথা বলা আছে যেটা স্পষ্টতই ভারতের ধর্মনিরপেক্ষ সংবিধান-বিরোধী।

এই দাবিগুলিকে সামনে রেখে নাগরিকপঞ্জি বিরোধী যুক্তমঞ্চ আগামী সোমবার, ২ সেপ্টেম্বর, 2019, দুপুর আড়াইটা থেকে কলকাতার অসম ভবনের সামনে একটি প্রতিবাদ বিক্ষোভের আহ্বান জানাচ্ছে।

Joint Forum against NRC
নাগরিকপঞ্জি বিরোধী যুক্তমঞ্চের
পক্ষ থেকেঃ

প্রসেনজিৎ বসু, ইমতিয়াজ আহমেদ মোল্লা, রতন বসু মজুমদার, সুদীপ ব্যানার্জি, শক্তি মণ্ডল, বিপ্লব ভট্টাচার্য, আব্দুল মালেক মোল্লা, রূপকথা বসু, প্রদ্যোত নাথ, দেবর্ষি চক্রবর্তী

কলকাতা, ৩১.০৮.২০১৯
Avatar: ব্যুমেরাং

Re: এনআরসি, নাগরিকত্ব, বাঙালি -- সোজাসাপ্টা


গুয়াহাটি: শনিবার অসমের জাতীয় নাগরিকপঞ্জীর(NRC) চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশিত হয়েছে। তারপরেই সমালোচনায় সরব হয়েছে রাজ্যের শাসকদল বিজেপি। তাদের বক্তব্য, অনেক প্রকৃত নাগরিকই তালিকার বাইরে রয়েছেন, বিশেষ করে যাঁরা ১৯৭১ এর আগে বাংলাদেশ থেকে এদেশে এসেছেন। একাধিক ট্যুইটে অসমের মন্ত্রী হিমন্ত বিশ্বশর্মা লেখেন, “১৯৭১ এর আগে যাঁরা বাংলাদেশ থেকে শরণার্থী হিসেবে বাংলাদেশ থেকে এসেছিলেন,. সেরকম অনেক নাগরিকেরই নাম বাদ পড়েছে, কারণ, শরণার্থী শংসাপত্র গ্রহণ করেনি কর্তৃপক্ষ”। অসমের বিজেপি নেতাদের মধ্যে, আগে হিমন্ত বিশ্বশর্মা বলেন, NRC এর ওপর তাঁর কোনও বিশ্বাস নেই, এবং তিনি মনে করেন না যে, এর ফলে অবৈধ অনুপ্রবেশকারীদের সরানো যাবে।


শনিবার সকালে প্রকাশিত হয় জাতীয় নাগরিকপঞ্জী তালিকা, তাতে বাদ পড়েছেন ১৯ লক্ষ মানুষ। এবার তাঁদের লড়াই করতে হবে এবং প্রমাণ করতে হবে, বহু দশক ধরেই অসমে বাস করছেন তাঁরা। সরকারের তরফে জানানো হয়েছে, তাঁদের বিদেশী বলে এখনই চিহ্নিত করা হবে না, ফরেনার্স ট্রাইবুনাল এবং আদালতে লড়তে পারবেন তাঁরা।


এনআরসি-র পরে, বিজেপি ইঙ্গিত দিয়েছে, নাগরিকত্ত্ব সংশোধনী বিল আনবে তারা। NDTV এর সঙ্গে কথা বলতে গিয়ে, বিজেপি বিধায়ক শিলাদিত্য দেব অভিযোগ করেন, এনআরসি, “ হিন্দুদের বিতাড়িত করে মুসলিমদের সাহায্য করার অংশ”।

শিলাদিত্য দেব বলেন, “অধিকার সুরক্ষার জন্য, নির্ভুল এনআরসি চেয়েছিল মানুষ, তবে সেটা হয়নি...মনে হচ্ছে এটা হিন্দুদের বিতাড়িত করা এবং মুসলিম অনুপ্রবেশকারীদের বৈধতা দেওয়ার একটা ষড়যন্ত্র”।



অসম NRC-এর চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশিত, ঠাঁই পেলেন ৩.১ কোটি মানুষ: ১০ টি তথ্য

তাঁর প্রশ্ন, “যখন অসম চুক্তি হয়েছিল, সেই সময় মনে করা হয়েছিল, প্রায় ১ কোটি বাংলাদেশী মানুষ রয়েছেন, এখন তাঁরা কোথায় যাবেন”।



তিনি মনে করেন, এনআরসি সফটওয়্যার স্ক্রুটিনি করা প্রয়োজন, কারণ সেটি একটি বেসরকারি সংস্থা করেছে এবং তাতে সরকার যুক্ত ছিল না।

তিনি বলেন, “এখন নাগরিকত্ত্ব বিলের মাধ্যমে হিন্দুদের সুরক্ষিত করবে বিজেপি। আমরা খুব দ্রুতই এটা আনব”।



নাগরিকত্ত্ব প্রতিষ্ঠা করতে, ১৯৭১ মার্চের আগে ফিরে যেতে হয়েছিল অসমের বাসিন্দাদের, সেই সময় পাকিস্তান থেকে ভাগ হওয়ার পর, এদেশে চলে আসেন।

নাগরিক পঞ্জীর বিষয়টি নজরে রয়েছে সুপ্রিম কোর্টের। চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশের জন্য আরও সময় চেয়ে আবেদন করেছিল সরকার, যদিও সেই আবেদন খারিজ করে দেয় শীর্ষ আদালত।






সম্পর্কিত খবর
"শুধু অসম কেন! সংসদেও তবে NRC হোক!” কেন্দ্রকে আক্রমণ অধীর রঞ্জন চৌধুরীর
NRC তালিকায় নাম নেই বিরোধী দলের বিধায়কের
NRC সম্পর্কে জেনে নিন এই পাঁচটি গুরুত্বপূর্ণ তথ্য
‘দিল্লির অবস্থা ভয়াবহ, আমরা NRC লাগু করবো’: বিজেপির মনোজ তিওয়ারি
Assam NRC Website বিকল, সেবা কেন্দ্রগুলিতে তালিকা দেখার দীর্ঘ লাইন

Uncertainty For 19 Lakh Left Out Of Assam Citizens' List NRC: 10 Points
"Conspiracy To Keep Hindus Out": Assam BJP Leaders Unhappy With NRC List


https://www.ndtv.com/bengali/assam-nrc-final-list-assam-bjp-leaders-un
happy-with-nrc-list-saying-conspiracy-to-keep-hindus-out-2093516


Avatar: S

Re: এনআরসি, নাগরিকত্ব, বাঙালি -- সোজাসাপ্টা

যাহ। দেশের সরকার বিজেপির। মোদিজীর নাকি বিশাল ক্ষমতা। দেশের বর্তমান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর পেট প্রজেক্ট ছিলো এনারসি। অসম রাজ্যের সরকারও বিজেপির। বিজেপির কাউকে কোনওদিনও বিরোধিতা করতে শুনিনি। এখন নাকে কাঁদলে হবে?

বিজেপি এনারসির মধ্যে ষড়যন্ত্র খুঁজে পেয়েছে। এইজন্যই লোকে বলে যে ঠিকমতন খুঁজলে বেহালাতেও দুয়েকটা পেঙ্গুইন পাওয়া যাবে।
Avatar: নাহার তৃণা

Re: এনআরসি, নাগরিকত্ব, বাঙালি -- সোজাসাপ্টা

:(



আপনার মতামত দেবার জন্য নিচের যেকোনো একটি লিংকে ক্লিক করুন