Binary RSS feed

Binary এর খেরোর খাতা।

আরও পড়ুন...
সাম্প্রতিক লেখালিখি RSS feed
  • অরফ্যানগঞ্জ
    পায়ের নিচে মাটি তোলপাড় হচ্ছিল প্রফুল্লর— ভূমিকম্পর মত। পৃথিবীর অভ্যন্তরে যেন কেউ আছাড়ি পিছাড়ি খাচ্ছে— সেই প্রচণ্ড কাঁপুনিতে ফাটল ধরছে পথঘাট, দোকানবাজার, বহুতলে। পাতাল থেকে গোঙানির আওয়াজ আসছিল। ঝোড়ো বাতাস বইছিল রেলব্রিজের দিক থেকে। প্রফুল্ল দোকান থেকে ...
  • থিম পুজো
    অনেকদিন পরে পুরনো পাড়ায় গেছিলাম। মাঝে মাঝে যাই। পুরনো বন্ধুদের সঙ্গে দেখা হয়, আড্ডা হয়। বন্ধুদের মা-বাবা-পরিবারের সঙ্গে কথা হয়। ভাল লাগে। বেশ রিজুভিনেটিং। এবার অনেকদিন পরে গেলাম। এবার গিয়ে শুনলাম তপেস নাকি ব্যবসা করে ফুলে ফেঁপে উঠেছে। একটু পরে তপেসও এল ...
  • কাঁসাইয়ের সুতি খেলা
    সেকালে কাঁসাই নদীতে 'সুতি' নামের একটা খেলা প্রচলিত ছিল। মাছ ধরার অভিনব এক পদ্ধতি, বহু কাল ধরে যা চলে আসছে। আমাদের পাড়ার একাধিক লোক সুতি খেলাতে অংশ নিত। এই মৎস্যশিকার সার্বজনীন, হিন্দু ও মুসলিম উভয় সম্প্রদায়ে জনপ্রিয়। মনে আছে ক্লাস সেভেনে পড়ার সময় একদিন ...
  • শুভ বিজয়া
    আমার যে ঠাকুর-দেবতায় খুব একটা বিশ্বাস আছে, এমন নয়। শাশ্বত অবিনশ্বর আত্মাতেও নয়। এদিকে, আমার এই জীবন, এই বেঁচে থাকা, সবকিছু নিছকই জৈবরাসায়নিক ক্রিয়া, এমনটা সবসময় বিশ্বাস করতে ইচ্ছে করে না - জীবনের লক্ষ্য-উদ্দেশ্য-পরিণ...
  • আবরার ফাহাদ হত্যার বিচার চাই...
    দেশের সবচেয়ে মেধাবীরা বুয়েটে পড়ার সুযোগ পায়। দেশের সবচেয়ে ভাল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নিঃসন্দেহে বুয়েট। সেই প্রতিষ্ঠানের একজন ছাত্রকে শিবির সন্দেহে পিটিয়ে মেরে ফেলল কিছু বরাহ নন্দন! কাওকে পিটিয়ে মেরে ফেলা কি খুব সহজ কাজ? কতটুকু জোরে মারতে হয়? একজন মানুষ পারে ...
  • ইন্দুবালা ভাতের হোটেল-৭
    চন্দ্রপুলিধনঞ্জয় বাজার থেকে এনেছে গোটা দশেক নারকেল। কিলোটাক খোয়া ক্ষীর। চিনি। ছোট এলাচ আনতে ভুলে গেছে। যত বয়েস বাড়ছে ধনঞ্জয়ের ভুল হচ্ছে ততো। এই নিয়ে সকালে ইন্দুবালার সাথে কথা কাটাকাটি হয়েছে। ছোট খাটো ঝগড়াও। পুজো এলেই ইন্দুবালার মন ভালো থাকে না। কেমন যেন ...
  • গুমনামিজোচ্চরফেরেব্বাজ
    #গুমনামিজোচ্চরফেরেব্...
  • হাসিমারার হাটে
    অনেকদিন আগে একবার দিন সাতেকের জন্যে ভূটান বেড়াতে যাব ঠিক করেছিলাম। কলেজ থেকে বেরিয়ে তদ্দিনে বছরখানেক চাকরি করা হয়ে গেছে। পুজোর সপ্তমীর দিন আমি, অভিজিৎ আর শুভায়ু দার্জিলিং মেল ধরলাম। শিলিগুড়ি অব্দি ট্রেন, সেখান থেকে বাসে ফুন্টসলিং। ফুন্টসলিঙে এক রাত্তির ...
  • দ্বিষো জহি
    বোধন হয়ে গেছে গতকাল। আজ ষষ্ঠ্যাদি কল্পারম্ভ, সন্ধ্যাবেলায় আমন্ত্রণ ও অধিবাস। তবে আমবাঙালির মতো, আমারও এসব স্পেশিয়ালাইজড শিডিউল নিয়ে মাথা ব্যাথা নেই তেমন - ছেলেবেলা থেকে আমি বুঝি দুগ্গা এসে গেছে, খুব আনন্দ হবে - এটুকুই।তা এখানে সেই আকাশ আজ। গভীর নীল - ...
  • গান্ধিজির স্বরাজ
    আমার চোখে আধুনিক ভারতের যত সমস্যা তার সবকটির মূলেই দায়ী আছে ব্রিটিশ শাসন। উদাহরণ, হাতে গরম এন আর সি নিন, প্রাক ব্রিটিশ ভারতে এরকম কোনও ইস্যুই ভাবা যেতো না। কিম্বা হিন্দু-মুসলমান, জাতিভেদ, আর্থিক বৈষম্য, জনস্ফীতি, গণস্বাস্থ্য ব্যবস্থার অভাব, শিক্ষার অভাব ...


বইমেলা হোক বা নাহোক চটপট নামিয়ে নিন রঙচঙে হাতে গরম গুরুর গাইড ।

স্যামসন

Binary

ইস্টবেঙ্গল , ব্রাজিল আর যখন ক্রিকেট-এ উৎসাহ ছিল , তখনকার ভারতের জাতীয় ক্রিকেট দল ছাড়া , কোনো খেলোয়াড়ি যুদ্ধে , আমি সব সময় দুর্বল দলের পক্ষে। ইস্টবেঙ্গল ছাড়া আমি সব সময় মহমেডান স্পোর্টিং কে সাপোর্ট করে এসেছি , কলকাতার ফুটবল-এ। অথবা টালিগঞ্জ অগ্রগামী , বা খিদিরপুর স্পোর্টিং। কোনো এক ফিফা বিশ্বকাপে , ক্যামেরুন কে খুব সাপোর্ট দিয়েছিলাম। নাদাল বা ফেডেরার কোনো অনামী দুর্বল , ৱ্যাঙ্কিন-এ যোজন দুরে-র কোনো প্রতিপক্ষের বিপক্ষে কোর্টে নামলে , মনে প্রাণে চাই দুর্বল অনামী খেলুড়ে-ই জিতুক। এই ব্যাপারটা সুধু খেলাধুলোয় নয় , পাড়ারদাদাগিরিতে বা আন্তর্জাতিক যুদ্ধবাজিতে কিংবা অর্থনৈতিক মাসলপুলিং এও সমানভাবে উপস্থিত। আমি দুর্বলের দলে।

তো , মহিষাসুর-কে দুর্বল বলা অবশ্য আমার ধম্মে সইবে না। আশৈশব জেনে এসেছি , অসুরকুল অত্যাচারের পার্সনিফিকেশন। অনাচার-এর আতুরঘর । কিন্তু সত্যি বলতে কি , সেই অত্যাচারের সম্যক বিবরণ কিছুই তখন জানা ছিল না , আজও নেই , কেবল দেবতাদের স্বর্গপুরী আক্রমন করা ছাড়া। স্বর্গপুরী থেকে দেবতাদের বিতারন ছাড়া। কিন্তু তাতেই বা কি গেল বা এলো ? স্বর্গপুরী যে দেবতাদের মনোপলি , স্বর্গ সুখের নাগরিক অধিকার যে খালি দেবতাদের , এরকম যুক্তি আমার অপরিণত মনে বেশ ধোঁযাটে লাগত। তো মহিষাসুর-কে দুর্বল না বললেও , এই অধিকার - অনাধিকার , প্রিভিলেজেড , মার্জিনাল ক্লাসচেতনা এটা আমার দূর্গাপুজোয় এক্সট্রাপোলেট করতে সুবিধাই হয় এখন।

ছোট বেলায় , বেশির ভাগ দূর্গাঠাকুর দেখতে দেখতে , কথাও যেন একটা অসামঞ্জস্য মনে হত। একটা দশহাতি বিশাল দূর্গা প্রতিমা , তার তলায় পুচকে একটা পুতুল সাইজের অসুর , তার এক পা একটা গলাকাটা মোষের ধরের মধ্যে , আর তার বুকে ত্রিশুল। খালি মনে হত , একটা পুচকে অসুর কে খতম করতে দশহাতওয়ালা তিনগুনা সাইজের দূর্গা-র কি দরকার। সেদিক থেকে অবশ্য কলেজস্কয়ার বা উত্তর কলিকাতার কোনো কোনো প্রতিমা আমায় বেশি অনুভূতি যোগাত। মোহনবাশি রুদ্রপাল-এর তৈরী ম্যাচো অসুর। শিরা-উপশিরা সহ খোদাই করা বাইসেপস ট্রিয়াসেপ্স। সরুকটি , ঝাঁকড়াচুল , মোহময় সিক্সপ্যাক। দৈর্ঘে প্রায় দূর্গা প্রতিমার সমান। বীর হো তো আয়সা। আমি তো চিরকাল-ই নন-প্রিভিলেজেড-এর পক্ষে।

সেদিক থেকে বিচার করলে , দূর্গা প্রতিমার মধ্যে , একটা হিন্দি সিনেমা মার্কা ভায়োলেন্স আছে। ভূলুন্ঠিত মাথা রক্তাক্ত একটা মোষ। সিংহের থাবায় আর ত্রিশুলের খোঁচায় ক্ষতবিক্ষত অসুর। তিনচোখওয়ালা , ভীষনসুন্দর দুর্গার মুখে পৈশাচিক ক্রোধ। কথাও প্রেম নেই , ভালবাসা নেই , শরতের কবোষ্ণ ভালোলাগা নেই।

আমার স্বপ্নের দূর্গাঠাকুর অন্যরকম। মননে ঋজু। চেতনায় দৃঢ়। চোখে মায়া , মুখে হাসি। আর চওড়া কাঁধের , গভীর বুকের অসুর পৌরুষের প্রতিচ্ছায়া। তার হাতে মানুষকাটার খড়গ নেই। মুখে বন্যপ্রেমের হাসি আছে।

হতেই পারে , অসুর আর দূর্গা , স্যামসন আর ডালাইলা, যাদের হাতে অস্ত্র নেই , গোলাপ আছে , শরীরে শরীরে গভীর ভালোবাসা আছে ...

***
মাইরি বলছি , লেখাটা দুগ্গাপুজো-র জন্য লেখা নয় , দুগ্গাপুজো-র রেফারেন্সটা নেহাত-ই কোইন্সিডেন্টাল

196 বার পঠিত (সেপ্টেম্বর ২০১৮ থেকে)

শেয়ার করুন


Avatar: 0

Re: স্যামসন

অসুর বেচারি তো প্রপোজও করেছিল। এট্টু পুরুষালি ম্যাচো-মার্কা প্রস্তাব অফার ছিল অবইশ্যি। দুর্গা তো এককথায় রিফ্যুজ করলো। কালো, অনার্য বলে বোধয়।


আপনার মতামত দেবার জন্য নিচের যেকোনো একটি লিংকে ক্লিক করুন