তাপস দাশ RSS feed

Tapas Dasএর খেরোর খাতা।

আরও পড়ুন...
সাম্প্রতিক লেখালিখি RSS feed
  • বিনম্র শ্রদ্ধা অজয় রায়
    একুশে পদকপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপক, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষক অজয় রায় (৮৪) আর নেই। সোমবার ( ৯ ডিসেম্বর) দুপুরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ঢাকার একটি হাসপাতালে শেষনিশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। অধ্যাপক অজয় দীর্ঘদিন বার্ধক্যজনিত নানা অসুখে ভুগছিলেন।২০১৫ ...
  • আমাদের চমৎকার বড়দা প্রসঙ্গে
    ইয়ে, স-অ-অ-অ-ব দেখছে। বড়দা সব দেখছে। বড়দা স্রেফ দেখেনি ওইখানে এক দিন রাম জন্মালেন, তার পর কারা বিদেশ থেকে এসে যেন ভেঙেটেঙে মসজিদ স্থাপন করল, কেন না বড়দা তখন ঘুমোচ্ছিলেন। ঘুম ভাঙল যখন, চোখ কচলেটচলে দেখলেন মস্ত ব্যাপার এ, বড়দা বললেন, ভেঙে ফেলো মসজিদ, জমি ...
  • ধর্ষকের মৃত্যুদন্ড দিলেই সব সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে ?
    যেকোন নারকীয় ধর্ষণের ঘটনা সংবাদ মাধ্যমে প্রতিফলিত হয়ে সামনে আসার পর নাগরিক হিসাবে আমাদের একটা ঈমানি দায়িত্ব থাকে। দায়িত্বটা হল অভিযুক্ত ধর্ষকের কঠোরতম শাস্তির দাবি করা। কঠোরতম শাস্তি বলতে কারোর কাছে মৃত্যুদন্ড। কেউ একটু এগিয়ে ধর্ষকের পুরুষাঙ্গ কেটে নেওয়ার ...
  • তোমার পূজার ছলে
    বাঙালি মধ্যবিত্তের মার্জিত ও পরিশীলিত হাবভাব দেখতে বেশ লাগে। অপসংস্কৃতি নিয়ে বাঙালি চিরকাল ওয়াকিবহাল ছিল। আজও আছে। বেশ লাগে। কিন্তু, বুকে হাত দিয়ে বলুন, আপনার প্রবল ক্ষোভ ও অপমানে আপনার কি খুব পরিশীলিত, গঙ্গাজলে ধোওয়া আদ্যন্ত সাত্ত্বিক শব্দ মনে পড়ে? না ...
  • The Irishman
    দা আইরিশম্যান। সিনেমা প্রেমীদের জন্য মার্টিন স্করসিসের নতুন বিস্ময়। ট্যাক্সি ড্রাইভার, গুডফেলাস, ক্যাসিনো, গ্যাংস অব নিউইয়র্ক, দা অ্যাভিয়েটর, দ্য ডিপার্টেড, শাটার আইল্যান্ড, দ্য উল্ফ অব ওয়াল স্ট্রিট, সাইলেন্টের পরের জায়গা দা আইরিশম্যান। বর্তমান সময়ের ...
  • তোকে আমরা কী দিইনি?
    পূর্ণেন্দু পত্রী মশাই মার্জনা করবেন -********তোকে আমরা কী দিইনি নরেন?আগুন জ্বালিয়ে হোলি খেলবি বলে আমরা তোকে দিয়েছি এক ট্রেন ভর্তি করসেবক। দেদার মুসলমান মারবি বলে তুলে দিয়েছি পুরো গুজরাট। তোর রাজধর্ম পালন করতে ইচ্ছে করে বলে পাঠিয়ে দিয়েছি স্বয়ং আদবানীজীকে, ...
  • ইশকুল ও আর্কাদি গাইদার
    "জাহাজ আসে, বলে, ধন্যি খোকা !বিমান আসে, বলে, ধন্যি খোকা !এঞ্জিনও যায়, ধন্যি তোরে খোকা !আসে তরুণ পাইওনিয়র,সেলাম তোরে খোকা !"আরজামাস বলে একটা শহর ছিল। ছোট্ট শহর, অনেক দূরের, অন্য মহাদেশে। অনেক ছোটবেলায় চিনে ফেলেছিলাম। ভৌগোলিক দূরত্ব টের পাইনি।টের পেতে দেননি ...
  • ছন্দহীন কবিতা
    একদিন দুঃসাহসের পাখায় ভর করে,ছুঁতে চেয়েছিলাম কবিতার শরীর ।দ্বিখন্ডিত বাংলার মত কবিতা হয়ে উঠলোছন্দহীন ।অর্থহীন যাত্রার “কা কা” চিৎকারে,ছুটে এলোপ্রতিবাদী পাঠক।ছন্দভঙ্গের নায়কডানা ভেঙ্গে পড়িপুঁথি পুস্তকের এক দোকানে।আলোক প্রাপ্তির প্রত্যাশায়,যোগ ধ্যানে কেটে ...
  • হ্যালোউইনের ভূত
    হ্যালোউইন চলে গেল। আমাদের বাড়িতে হ্যালোউইনের রীতি হল মেয়েরা বন্ধুদের সঙ্গে ট্রিক-অর-ট্রিট করতে বেরোয় দল বেঁধে। পেছনে পেছনে চলে মায়েদের দল। আর আমি বাড়িতে থাকি ক্যান্ডি বিতরণ করব বলে। মুহূর্মুহূ কলিং বেল বাজে, আমি হাসি-হাসি মুখে ক্যান্ডির গামলা নিয়ে দরজা ...
  • হয়নি
    তুমি ভালবাসতে চেয়েছিলে।আমিও ।হয়নি।তুমিঅনেক দূর অব্দি চলে এসেছিলে।আমিও ।হয়নি আর পথ চলা।তুমি ফিরে গেলে,জানালে,ভালবাসতে চেয়েছিলেহয়নি। আমি জানলামচেয়ে পাইনি।হয়নি।জলভেজা চোখে ভেসে গেলআমাদের অতীত।স্মিত হেসে সামনে এসে দাঁড়ালোপথদুজনার দু টি পথ।সেপ্টেম্বর ২২, ...


বইমেলা হোক বা নাহোক চটপট নামিয়ে নিন রঙচঙে হাতে গরম গুরুর গাইড ।

সুজেত ওরফে সুজানঃ দ্য সারভাইভর

তাপস দাশ

সুজেত নামটা আমরা পরে জেনেছিলাম, প্রথম থেকে আমরা চিনতাম সুজান নামে। সেই নামেই ডাকা হত, টেলিফোন করা হত, রেফার করা হত। সুজান ওরফে সুজেতকে খুব বেশি চেনা হয়নি ব্যক্তিগত ভাবে, টুকরো টাকরা কথা ছাড়া। সুজানকে চিনেছি স্ক্রিনের মধ্যে দিয়ে। মোট ৪ থেকে ৫ বার সুজানের ইন্টার্ভিউ এডিট করেছিলাম। দীর্ঘ দীর্ঘ কথন, যার অধিকাংশই সম্প্রচারিত হয়নি, স্পেসের অভাবে, অপ্রয়োজনীয়তায়, বা প্রচারযোগ্য নয় বলে। সুজান আমার কাছে ঘটনা – কারণ তিনি আমার দেখা, মানে, কাছ থেকে দেখা সারভাইভর। ভিকটিম নন। কোন অর্থেই নন। ঘটনার অব্যবহিত পরের কথা জানি না, কিন্তু যে সময় থেকে মিডিয়ায় ‘পার্ক স্ট্রিট কাণ্ড’ সামনে এসেছে, তার পর থেকে, শেষ যোগাযোগ পর্যন্ত তিনি একজন জ্যান্ত প্রতিবাদ, চিৎকৃত তত নন, যতটা এফেকটিভ। সুজেত ওরফে সুজান, সেই ইন্টার্ভিউগুলোতে ঠিক কী বলেছিলেন, সেগুলো প্রকাশ করার কোন ইচ্ছে বা কারণ আজও নেই। কিন্তু যেটা আজ জানানোর, সেগুলো রুঢ়। কিন্তু আজ বলা হোক।
সুজানের ইন্টার্ভিউ বা সুজান সম্পরকে ইনফো মিডিয়ায় যখন হট, সেই সময়ের দুটো ঘটনা। একজন সাংবাদিক, ঘটনা জানাজানির পরদিন আমায় এসে বললেন, “ওই যে মেয়েটা, ও তো প্রত্যেকদিন রাতে দাঁড়াত, আর প্লাস অফিসের সামনে, আর প্লাসের সবাই জানে”। আমি ঠিক বুঝে উঠতে পারিনি, আমার সহকর্মীনি ঠিক কী বলতে চাইছেন? তাঁর দিকে প্রশ্নাতুর তাকাতে তিনি স্পেসিফিক করে বললেন, “---দিকে জিজ্ঞাসা করো না” ! --- বললেন, “আরে ও কল্গারল ছিল রে তাপসদা”।
সুজেত ওরফে সুজান জেনে গিয়েছিলেন ওই খদ্দেরের সঙ্গে বচসার অভিব্যক্তি তাঁর চারপাশে ঘুরে বেড়াচ্ছে – অবিরত।
এই চারপাশ বহন করে চলা অবস্থায়, সুজেত ওরফে সুজানকে ঠিক কী ধরনের অফ দ্য রেকর্ড প্রশ্নের মুখোমুখি হতে হয়েছে, সহজেই অনুমেয় । কিন্তু, তার কোন প্রভাব সুজানের কোন বাক্যালাপে থাকত না। অন্তত আমার দেখা প্রায় মোট ৮ ঘণ্টার ইন্টারভিউয়ে, বা সামান্য সৌজন্য-আলাপে।
সুজানকে বাড়ি বদলাতে হত। প্রকাশ্য হওয়ার সামাজিক সাজা। সুজানকে ফোনে থ্রেট করা হত। প্রকাশ্যে আনার, প্রকাশ্যে আসার মাশুল। এরকমই একবার ফোনে হুমকি পেয়ে, সুজান থানায় নালিশ করেন। সে খবর পুলিস সূত্র থেকে বাইরে আসার পরপরই কোন থানায় নালিশ রুজু করা হয়েছে, তা-ও প্রকাশ্যে এনে দেওয়া হয়। সেই সূত্র থেকেই, সুজানের ঠিকানা আরও একবার প্রকাশ্যে আসে। আবার বাড়ি ছাড়তে হয়, মুসাফিরের মতন, সন্তানদের হাত ধরে।
সুজান ওরফে সুজেত তারপরেও ছিলেন। নিজের মত করে একটা লড়াইয়ে। সুজান ওরফে সুজেত জর্ডান, আমি আপনার মধ্যে সারভাইভর খুঁজে পেয়েছিলাম – এইটুকুই বলার ছিল। স্ক্রিনের আড়াল ছিল অনেকটাই, কিন্তু থাক, তাতে কিছু এসে যায়নি।
-----------------------------------------------------------------------------------

“সাংবাদিকরা যখন খবরের পক্ষে আরও আরও বেশি প্রভাবশালী দৃশ্য নির্বাচন করছিল, আমি খুঁজে বেড়াচ্ছিলাম আজুকেনার ওই কাদার গর্তটার ছবি। টেলিভিশন পর্দা দুর্ঘটনাটাকে একটা সিধে সমতলে পরিণত করছিল,…” (আর আমরা মৃন্ময়- মৃন্ময়ী – ইসাবেল আইয়েন্দে)


485 বার পঠিত (সেপ্টেম্বর ২০১৮ থেকে)

শেয়ার করুন


Avatar: pi

Re: সুজেত ওরফে সুজানঃ দ্য সারভাইভর

হ্যাঁ, এই রূঢ় কথাগুলো বলার দরকার আছে, আমাদের শোনার। ভীষণ।
Avatar: নিশান চট্টোপাধ্যায়

Re: সুজেত ওরফে সুজানঃ দ্য সারভাইভর

কথাগুলো বারবার বলে হাতুড়ি মেরে মাথায় ঢুকিয়ে দেওয়া দরকার!
Avatar: শ্রী সদা

Re: সুজেত ওরফে সুজানঃ দ্য সারভাইভর

খুব খিস্তি পায় .... আর কিছুই তো করতে পারি না। বালের সভ্যতা ....
Avatar: de

Re: সুজেত ওরফে সুজানঃ দ্য সারভাইভর

আজকের মুম্বই মিরর-
কি অবস্থার মধ্যে দিয়ে গেছেন ভদ্রমহিলা!!!
http://epaperbeta.timesofindia.com/Article.aspx?eid=31821&articlex
ml=By-Invitation-Indians-raped-her-India-killed-her-14032015014044

Indians raped her. India killed her. You killed her

HARISH IYER

EQUAL RIGHTS ACTIVIST


I met Suzette around a year back at a conference panel, ironically, about rape. I was there as a child sexual abuse survivor; she was a rape survivor.

I had only read that she had broken her silence and told the world: “I am not the Park Street rape victim. I am Suzette Jordan.“ I was excited to meet her, but I didn't want to tell her that; I knew how it feels to be treated like a trophy.

She looked petrified. She had spoken on TV, but had never faced such a large, high-profile audience. I went up to her to comfort her. I told her I am gay, so she can hug me. She laughed and said she was scared. I replied, “Kaiko darti hai baba, tu bhi rape victim mein bhi rape victim, audience mein bhi rape victims hai.“ She was shocked, but gave in to laughter. We became the best of friends.Pain united us.

Suzette was really upset that she was treated like an accused in the rape case.West Bengal Chief Minister Mamata Banerjee called her an enemy of the state. Suzette told me that the woman judge behaved very rudely with her and showed no empathy. In the unending court appearances, she was asked to narrate her ordeal again and again. She was determined to fight it out.She was a fighter. But she didn't want to be brave all the time. She wanted to be an average person, though she had to face the worst humiliations. She shared with me an incident that affected her badly ­ when the undergarments that she was wearing when she was raped were displayed. The defence lawyer held them with a stick and asked her if they were hers and if she was them the day she was “allegedly“ raped.

Suzette told me that she broke down in court and pleaded to the judge to intervene; the judge, a woman, did not. “I was gang-raped again and again and again in court,“ Suzette told me. I would get her to laugh at her tragedy every time we spoke.

When she was very upset with the defence lawyer, I asked her, “Was the lawyer hot?“ She started abusing me in jest. Our tragedies became our identities: “Hello, can I speak to the rape vic tim“ is how we would begin our conversations, and laugh before we cried.

She was raped by Indians. She was raped by India's judicial process. She was raped by every one of you who doubted her story. She was denied entry into a restaurant called Ginger in Kolkata because she was a rape victim.

For us, rape is something that happens to the person on TV, or someone you read about in the newspaper. We live in denial that rape doesn't happen in our homes. Suzette died of meningitis at 3 am. When you are low, you become prone to diseases. I used to tell her, it is okay to be weak sometimes. It is okay to give up fighting. In the end, she listened to me.
Avatar: de

Re: সুজেত ওরফে সুজানঃ দ্য সারভাইভর

দুটো বাচ্চা, বৃদ্ধা মা - তাদের কি হবে এরপরে?
Avatar: Abhyu

Re: সুজেত ওরফে সুজানঃ দ্য সারভাইভর

দে দি, খবরে দেখলাম ওনার প্রাক্তন স্বামী এসেছিলেন শেষকৃত্যে। উনি নিশ্চয়ই মেয়েদের দায়িত্ব নেবেন কিছুটা বা পুরোটাই।

Avatar: Abhyu

Re: সুজেত ওরফে সুজানঃ দ্য সারভাইভর

Avatar: Abhyu

Re: সুজেত ওরফে সুজানঃ দ্য সারভাইভর

দে দি, এই খবরটা দেখুন

http://epratidin.in/epaperimages/1632015/1632015-md-hr-2/34914541.JPG
Avatar: সিকি

Re: সুজেত ওরফে সুজানঃ দ্য সারভাইভর

ঘটনার বেশ কয়েক মাস পর, ফেসবুকেই এক কলেজছাত্রের সঙ্গে আমার এমনিই একটা পোস্টে কথা চালাচালি হয়েছিল। ছেলেটি সুজেটের পাড়ার। তারও বক্তব্য ছিল এই রকমই, ওর তো আরও আগেই চু* যাওয়া উচিত ছিল, একে তো হাফ অস্ট্রেলিয়ান, তার ওপরে শালি কলগার্ল, বেশ হয়েছে যা হয়েছে।
Avatar: Du

Re: সুজেত ওরফে সুজানঃ দ্য সারভাইভর

আমার ভালো লাগলো না পড়ে। জঘন্য লোকেরা যে সব কথা বলেছে সেইসব কথা কোনদিন যদি বলা না হত তাহলেই তো ভালো ছিল। আমি সে সব শুনতে চাই না, 'জানতে' চাই না, চিরকালের জন্য কোন পাতায় সেই সব অসম্ভব ভুল কথাগুলোকে স্থায়িত্বও দিতে চাই না।
Avatar: ধুরন্ধর ঝাঁট

Re: সুজেত ওরফে সুজানঃ দ্য সারভাইভর

চাবুক লেখা

Avatar: de

Re: সুজেত ওরফে সুজানঃ দ্য সারভাইভর

অভ্যু,

ধন্যবাদ খবরটার জন্য! আমি খুব ব্যস্ত থাকায় আগে দেখতে পারিনি আগে।
Avatar: pi

Re: সুজেত ওরফে সুজানঃ দ্য সারভাইভর

সিকি, গতকালও লোকজন সেই মর্মে কথা বলে গেছেন।
Avatar: সিকি

Re: সুজেত ওরফে সুজানঃ দ্য সারভাইভর

হুঁ। অচেনা লোকজন আর কী বলব, কিছু চেনা লোকের মুখেও এই প্রতিক্রিয়াই পাই।

আর কবে পাল্টাব আমরা, কে জানে।
Avatar: নীলাঞ্জন সৈয়দ

Re: সুজেত ওরফে সুজানঃ দ্য সারভাইভর

আপনার লেখার কয়েক টি আঁচড়ে সুজেটের মূল শক্তিটা চিহ্নিত করতে পেরেছেন।'তিনি আমার দেখা, মানে, কাছ থেকে দেখা সারভাইভর। ভিকটিম নন। কোন অর্থেই নন।'অথচ সাংবাদিক রা দিনের পর দিন পাতার পর পাতা খরচ করে তাঁকে চিনতে পারেনি।তাকে অন্য নামে চিহ্নিত করতে চেয়েছে।আপনি তাদের মানসিকতাও লেখায় ফুটিয়েছেন।আমি মনে করি সুজেট একটি আদর্শের নাম,তিনি পথ দেখিয়েছেন লড়াই করার। মেয়েদের শক্তি লজ্জাতে মুখ লুকিয়ে থাকায় নয়,তিনি সামনে থেকে লড়াই করেছিলেন।আপনার লেখাটা খুব ভাল হয়েছে
Avatar: প্রতিভা

Re: সুজেত ওরফে সুজানঃ দ্য সারভাইভর

লেখাটা বার বার পড়তে হয়। প্রত্যেকবারই সামনে এসে দাঁড়ান সেই মেয়ে যিনি সারভাইভর, ভিক্টিম নন।


আপনার মতামত দেবার জন্য নিচের যেকোনো একটি লিংকে ক্লিক করুন