Abhishek Mukherjee RSS feed

Abhishek Mukherjeeএর খেরোর খাতা।

আরও পড়ুন...
সাম্প্রতিক লেখালিখি RSS feed
  • দক্ষিণের কড়চা
    গরু বাগদির মর্মরহস্য➡️মাঝে কেবল একটি একক বাঁশের সাঁকো। তার দোসর আরেকটি ধরার বাঁশ লম্বালম্বি। সাঁকোর নিচে অতিদূর জ্বরের মতো পাতলা একটি খাল নিজের গায়ে কচুরিপানার চাদর জড়িয়ে রুগ্ন বহুকাল। খালটি জলনিকাশির। ঘোর বর্ষায় ফুলে ফেঁপে ওঠে পচা লাশের মতো। যেহেতু এই ...
  • বাংলায় এনআরসি ?
    বাংলায় শেষমেস এনআরসি হবে, না হবে না, জানি না। তবে গ্রামের সাধারণ নিরক্ষর মানুষের মনে তীব্র আতঙ্ক ছড়িয়েছে। আজ ব্লক অফিসে গেছিলাম। দেখে তাজ্জব! এত এত মানু্ষের রেশন কার্ডে ভুল! কয়েকজনের সাথে কথা বলে জানলাম প্রায় সবার ভোটারেও ভুল। সব আইকার্ড নির্ভুল আছে এমন ...
  • যান্ত্রিক বিপিন
    (১)বিপিন বাবু সোদপুর থেকে ডি এন ৪৬ ধরবেন। প্রতিদিন’ই ধরেন। গত তিন-চার বছর ধরে এটাই বিপিন’বাবুর অফিস যাওয়ার রুট। হিতাচি এসি কোম্পানীর সিনিয়র টেকনিশিয়ন, বয়েস আটান্ন। এত বেশী বয়েসে বাড়ি বাড়ি ঘুরে এসি সার্ভিসিং করা, ইন্সটল করা একটু চাপ।ভুল বললাম, অনেকটাই চাপ। ...
  • কাইট রানার ও তার বাপের গল্প
    গত তিন বছর ধরে ছেলের খুব ঘুড়ি ওড়ানোর শখ। গত দুবার আমাকে দিয়ে ঘুড়ি লাটাই কিনিয়েছে কিন্তু ওড়াতে পারেনা - কায়দা করার আগেই ঘুড়ি ছিঁড়ে যায়। গত বছর আমাকে নিয়ে ছাদে গেছিল কিন্তু এই ব্যপারে আমিও তথৈবচ - ছোটবেলায় মাথায় ঢুকিয়ে দেওয়া হয়েছিল ঘুড়ি ওড়ানো "বদ ছেলে" দের ...
  • কুচু-মনা উপাখ্যান
    ১৯৮৩ সনের মাঝামাঝি অকস্মাৎ আমাদের বিদ্যালয়ের ষষ্ঠ(ক) শ্রেণী দুই দলে বিভক্ত হইয়া গেল।এতদিন ক্লাসে নিরঙ্কুশ তথা একচ্ছত্র আধিপত্য বিস্তার করিয়া ছিল কুচু। কুচুর ভাল নাম কচ কুমার অধিকারী। সে ক্লাসে স্বীয় মহিমায় প্রভূত জনপ্রিয়তা অর্জন করিয়াছিল। একটি গান অবিকল ...
  • 'আইনি পথে' অর্জিত অধিকার হরণ
    ফ্যাসিস্ট শাসন কায়েম ও কর্পোরেট পুঁজির স্বার্থে, দীর্ঘসংগ্রামে অর্জিত অধিকার সমূহকে মোদী সরকার হরণ করছে— আলোচনা করলেন রতন গায়েন। দেশে নয়া উদারবাদী অর্থনীতি লাগু হওয়ার পর থেকেই দক্ষিণপন্থার সুদিন সূচিত হয়েছে। তথাপি ১৯৯০-২০১৪-র মধ্যবর্তী সময়ে ...
  • সম্পাদকীয়-- অর্থনৈতিক সংকটের স্বরূপ
    মোদীর সিংহগর্জন আর অর্থনৈতিক সংকটের তীব্রতাকে চাপা দিয়ে রাখতে পারছে না। অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন শেষ পর্যন্ত স্বীকার করতে বাধ্য হয়েছেন যে ভারতের অর্থনীতি সংকটের সম্মুখীন হয়েছে। সংকট কতটা গভীর সেটা তার স্বীকারোক্তিতে ধরা পড়েনি। ধরা পড়েনি এই নির্মম ...
  • কাশ্মীরি পন্ডিত বিতাড়নঃ মিথ, ইতিহাস ও রাজনীতি
    কাশ্মীরে ডোগরা রাজত্ব প্রতিষ্ঠিত হবার পর তাদের আত্মীয় পরিজনেরা কাশ্মীর উপত্যকায় বসতি শুরু করে। কাশ্মীরি ব্রাহ্মণ সম্প্রদায়ের মানুষেরাও ছিলেন। এরা শিক্ষিত উচ্চ মধ্যবিত্ত ও মধ্যবিত্ত শ্রেনি। দেশভাগের পরেও এদের ছেলেমেয়েরা স্কুল কলেজে পড়াশোনা করেছে। অন্যদিকে ...
  • নিকানো উঠোনে ঝরে রোদ
    "তেরশত নদী শুধায় আমাকে, কোথা থেকে তুমি এলে ?আমি তো এসেছি চর্যাপদের অক্ষরগুলো থেকে ..."সেই অক্ষরগুলোকে ধরার আরেকটা অক্ষম চেষ্টা, আমার নতুন লেখায় ... এক বন্ধু অনেকদিন আগে বলেছিলো, 'আঙ্গুলের গভীর বন্দর থেকে যে নৌকোগুলো ছাড়ে সেগুলো ঠিক-ই গন্তব্যে পৌঁছে যায়' ...
  • খানাকুল - ২
    [এর আগে - https://www.guruchan...


বইমেলা হোক বা নাহোক চটপট নামিয়ে নিন রঙচঙে হাতে গরম গুরুর গাইড ।

সুচিত্রা সেন

Abhishek Mukherjee

আমার সুচিত্রা সেনের অভিনয় জঘন্য লাগত। বেশ ন্যাকাই লাগত, ইন ফ্যাক্ট। আমি অনেককে অনেকবার বোঝানোর চেষ্টা করেছি যে উনি অভিনয় করতে পারেন না, আর প্রচুর গালাগালের সম্মুখীন হয়েছি। আজ এই পোস্টটা লিখে তো আরোই হব, কারণ সমাজের অলিখিত আইন অনুযায়ী মৃত ব্যক্তি সমালোচনার ঊর্ধ্বে।

কথা বলার টোন তো অসহ্য ছিলই, কিন্তু সবথেকে বিরক্তিকর ছিল তাকানো - বহু, বহু ওপরে কোথাও। "তুমি আমাকে ভালবাসবে না, শহীদ মিনার?" জাতীয় ব্যাপার।

কিন্তু তাহলে কীসের এত মাতামাতি? "ঐধরনের অভিনয়ই তো তখনকার দিনে চলত"টা অত্যন্ত বাজে অজুহাত। বলিউডে নূতন, টালিগঞ্জেও সাবিত্রী যথেষ্ট স্বাভাবিক, সাবলীল অভিনয় করতেন; কোনও বাড়াবাড়ি ছিল না, ন্যাকামির ছিটেফোঁটাও ছিল না, কৃত্রিমতার নামগন্ধও ছিল না। তাহলে সুচিত্রাই কেন?

কারণটা হয়ত অনেকটাই উত্তমকুমার। হিট অভিনেতা তো ("অভিনেত্রী" বললে নারীবাদীরা চাবকে আমার চামড়া তুলে দেবে) বটেই, কিন্তু সুচিত্রা সেনের জনপ্রিয়তার আসল কারণটা হয়ত হিট জুটির অংশ বলেই; ঠিক যেমন রাজ কপূরের হাত ধরে নার্গিসের কেরিয়র উৎরে গেছিল, মানবসভ্যতার ইতিহাসে বৃহত্তম নাকের ফুটো থাকা সত্ত্বেও। মজার ব্যাপার, দুজনেরই সবথেকে বিখ্যাত পারফর্মেন্স অন্য নায়কের সঙ্গে ("সাত পাকে বাঁধা", "মাদার ইন্ডিয়া"), কিন্তু দুজনেরই আসল গ্ল্যামার জুটিতে।

অবশ্যই সুচিত্রা ট্র্যাডিশনল অসম্ভব সুন্দরী ছিলেন, কিন্তু সুন্দরী নায়িকার, না না, অভিনেতার অভাব তো ভারতবর্ষে হয়নি কখনও। মধুবালা থেকে মাধুরী ছেড়েই দিলাম, শর্মিলা-অপর্ণা-মৌসুমীকে সুন্দরী ভাবার মত লোকের তো অভাব নেই বাংলায়।

শোনা যায়, মৌসুমীকে একবার দেখে পাগল হয়ে রাজা (রাজু নন) মুখার্জির ক্রিকেট কেরিয়র শেষ হয়ে যায় (কেরিয়র রেকর্ড অবিশ্যি অন্য কথা বলছে); তিনি নাকি মৌসুমীর রূপে বিভোর হয়ে খেলায় মন দিতে পারতেন না।

তাহলে ব্যাপারটা কী? কেরিয়রের শেষে বেমালুম বেপাত্তা হয়ে যাওয়া? নিজেকে ঘিরে একটা দুর্ভেদ্য রহস্যের খাসমহল সৃষ্টি করা, যা এত বছরে কেউ ভাঙতে পারেনি? এই রহস্যটাই কি তাহলে সুচিত্রা সেনকে ঘিরে এত মাতামাতির কারণ?

একটু ভাবা যাক্‌। অপর্ণাও বেশ জনপ্রিয় অভিনেতা (আবার "অভিনেত্রী" লিখতে যাচ্ছিলাম) এবং পরিচালক, কিন্তু তাঁর ব্যক্তিগত জীবন অনেকটাই হাট করে খোলা সবার কাছে। তিনি কাকে বিয়ে করেছেন, কার কার সঙ্গে সম্পর্ক ছিল - এসব সবাই জানেটানে। তাই অপর্ণার উদাহরণটা বোধহয় ঠিক নয়।

শর্মিলা? মাঝেমধ্যে শর্মিলা কিছু ফ্লপ সিনেমায় অভিনয় করেন ঠিকই, কিন্তু কেরিয়র মোটামুটি শেষ। সেলিব্রিটি অধিনায়কের স্ত্রী ছিলেন, মানছি, কিন্তু তা সত্ত্বেও তিনি অনায়াসে লুকিয়ে থাকতে পারতেন। চাননি। শর্মিলা আসেন, এমনকি বইমেলার খোলা স্টেজে এসে সত্যজিৎ নিয়ে আলোচনা করেন, আবার তাঁর "টাইগার"কে নিয়ে সাবলীল স্মৃতিচারণাও করেন।

এটাই কি তাহলে সুচিত্রার জনপ্রিয়তার কারণ? আমাদের আগের প্রজন্মকে দেখেছি মাতামাতি করতে, বারবার বলতে "উত্তম-সুচিত্রার মত জুটি হল না" বা "সুচিত্রার মত সুন্দরী আর হল না"; দুটোই হয়ত সত্যি, তবে চট্‌ করে কাউকে "সুচিত্রার মত অভিনয় করতে আর কাউকে দেখলাম না"টা বলতে শুনিনি।

এমনকি 'হারানো সুর'এর মত বিদ্‌ঘুটে, বোরিং সিনেমাও হামলে পড়ে দেখতে দেখেছি। কিন্তু তাঁদের উন্মাদনার একটা কারণ ছিল; তাঁরা সুচিত্রার সিনেমা রিলিজ হতে দেখেছেন, তাঁরা টিকিট কেটে একের পর এক ব্লকবাস্টার দিতে সাহায্য করেছেন। তাঁদের আমলে টেলিভিশন ছিল না, অতএব সুচিত্রা সেনের দেখা মিলত একমাত্র স্ক্রিনেই (শুনেছি "উল্টোরথ" জাতীয় কিছু পত্রিকায় গসিপ্‌-টসিপ্‌ বেরোত); পর্দার নায়িকা স্বপ্নের জগতেই থেকে যেতেন।

যেহেতু এই রহস্যের ব্যাপারটা থাকতে থাকতেই মহিলা সীন থেকে হাওয়া হয়ে গেছিলেন, তাই উন্মাদনা কমল না। রক্তমাংসের মানুষ নয়, সুচিত্রা নায়িকা হয়েই রয়ে গেলেন; অত্যন্ত সাধারণ মানের অভিনেত্রী, কিন্তু স্টারডম ব্যাপারটা সবার থেকে বেশি বুঝতেন।

যেমন বুঝেছিলেন দিলীপকুমার, আর তাই কখনও ছোটপর্দায় আসেননি। সোফায় বসে চায়ের কাপ হাতে আড্ডা দিতে দিতে কেউ তাঁকে দেখবে, আর অপছন্দ হলেই চ্যানেল ঘুরিয়ে দেবেন, এই ব্যাপারটাই তাঁর না-পসন্দ্‌। তিনি দিলীপকুমার, একটা সময় গোটা ইন্ডাস্ট্রিতে রাজত্ব করেছেন, এত সহজলভ্য হয়ে যাবেন?

কিন্তু অমিতাভ বচ্চন? তিনি তো আরও বড় স্টার! ছোটপর্দার হাত ধরেই ফিরে এলেন বড়পর্দায়, আর আগের মতই রাজত্ব করে চলেছেন। সময়ের সঙ্গে, বয়সোপযোগী রোলে অভিনয় করলেন; অনায়াসে মেনে নিলেন যে তিনি আর মেগাস্টার নন। কবে গাছের সঙ্গে মাঙ্গলিক পুত্রবধূর বিয়ে দিচ্ছেন, কবে নাতনি হল, সবাই সব জানে, আর টুইটার আসার পর তো সব হাট!

কিন্তু তিনি যে অমিতাভ! মানিয়ে নিতে সময় লেগেছে বরাবর, কিন্তু যে পরিস্থিতিই আসুক, তিনি এত বড় অভিনেতা যে কোনও চ্যালেঞ্জই চ্যালেঞ্জ হয়ে ওঠেনি তাঁর কাছে। নায়ক হওয়ার বয়স চলে গেছে - এটা বুঝতে তাঁর সময় লেগেছে; কিন্তু একবার বুঝে ওঠার পর তিনি আবার দিব্যি নিজের সিংহাসনে বিরাজমান।

সুচিত্রা সেনদের কাছে আসলে রহস্যটাই এক্স-ফ্যাক্টর। তিনি জানতেন, কেরিয়রের শিখরে থাকতে থাকতেই তাঁকে সরে যেতে হবে, একবার বয়সের ছাপ পড়লে ঘুরেও তাকাবে না কেউ। তাঁর অভিনয়ক্ষমতা সীমিত, অতএব গ্ল্যামর আর উত্তমকুমার চলে গেলে তাঁর দশাও দেব আনন্দের মতই হবে।

আর এখানেই সুচিত্রার স্টারডমের রহস্য। তিনি চিরযৌবনা, চিরসুন্দরী হয়ে রয়ে গেলেন, আর সেভাবেই লোকচক্ষুর আড়ালে থেকেই চলে গেলেন। অভিনয় ব্যাপারটা বিশেষ না বুঝলেও সেল্‌স্‌ রীতিমত বুঝতেন।

"মহানায়িকা" কথাটা হয়ত ঠিক, কিন্তু তার আসল চাবিকাঠি হল তুখোড় ব্যবসাবুদ্ধি, যার ছিটেফোঁটাও টালিগঞ্জে কারুর হয়নি।

আর তাই - তাইই হয়ত - তাঁকে কেউ টাচ্‌ করতে পারল না। এখন তো আরোই পারবে না।

আর আই পি।

1325 বার পঠিত (সেপ্টেম্বর ২০১৮ থেকে)

শেয়ার করুন


মন্তব্যের পাতাগুলিঃ [1] [2] [3]   এই পাতায় আছে 36 -- 55
Avatar: sch

Re: সুচিত্রা সেন

আচ্ছা তাহলে যা দাড়ালো সুচিত্রা সেন অভিনয় জানতেন না, দেখতেও সাদা মাটা ছিলেন - কিন্তু তাহলে ওনার জন্যে এত্ত ক্রেজ কেন??? কেনই বা সবাই ওনাকে কাস্টিং করতো সুপ্রিয়া বা মাধবীকে না করে। কারণ আম আদমী চাইতো। তারা চাইতো কেন? তারা সিনেমা বোঝে না, বিপ্লব বোঝে না,মূর্খের দল,। তা বেশ

Avatar: PM

Re: সুচিত্রা সেন

উত্তম বাবুর যে সিনেমাগুলোর রেফারেন্স দিলেন সৌভিক, সব কটাতে তিনি বুড়ো হয়েছেন। কিন্তু সুচিত্রা সেন কোনোদিন পর্দায় বুড়ো হননি,উর্বসী-ই থেকে গেছেন। তাই ঐ রকম চরিত্রে অভিনয় করার চ্যালেন্জ নেবার সুযোগ হয়নি।

তাছড়া আমার কাছে (ভুল হতে পারে) উত্তমবাবুর নায়ক পরবর্ত্তি ছবির অভিনয়ের সাথে আগের ছবি গুলোর অভিনয়ের পার্থক্য ভীষণ ভাবে চোখে পরে।
Avatar: nina

Re: সুচিত্রা সেন

প্রবুদ্ধর লেখা খুব ভাল লাগল।
Avatar: মুনমুন

Re: সুচিত্রা সেন

মা, ওখানে ঠিকমতো চা বানিয়ে দিচ্ছে তো?


Avatar: rama

Re: সুচিত্রা সেন

েখ না আমাকে টাচ করছে
Avatar: Mrs Sen

Re: সুচিত্রা সেন

একটা সাদা দাড়িওলা বুড়োমত লোক আমকে খুব টাছ করছে রে। আবার বলছে তার নাম ভগবান। বলছে-ভয় কি খুকী, আমি তোমার পিতামহ হই। প্রজাপতির নাম শোনোনি? এইসব বলছে। একটা গোমড়ামত নাকে চশমা লোক বইয়ের মধ্যে নাক গুঁজে বসে আছে-সে আবার আমাকে রমা বলে ডেকেছিল, ভ্যাঁ। আমিও তাকে খুব করে বকে দিয়েছি। বলেছি-চোপরাও, আমাকে মিসেস সেন বলে ডাকবেন। বজ্জাতি করলে তালুকদার ডেকে দাঁড় খাওয়াবো।
Avatar: souvik

Re: সুচিত্রা সেন

সুচিত্রা সেন কে তার শেষের দিকের সিনেমা যেমন "দত্তা,আধি,প্রনয়্পাশা কি দেবী চৌধুরানি" এই রকম কতো গুলো তে বেশ বয়স্ক লেগেছে নায়িকা হিসাবে।উনি কখোনো চেস্টাই করেন নি different role করার আর এইখানেই উত্তম তাকে ছাড়িয়ে অনেক আগে এগিয়ে যান।
Avatar: cm

Re: সুচিত্রা সেন

তা ঠিক ক মাইল এগিয়েছিলেন বলা যাবে?
Avatar: souvik

Re: সুচিত্রা সেন

Avatar: khilli

Re: সুচিত্রা সেন

নিছক ব্যবসাবুদ্ধি অন্তরালে থাকার কারণ এটা ঠিক হজম হলো না । আমার ও খুব একটা ভালো লাগে না,ফ্যান নই ।কিন্তু ওনার গ্লামার ছিল ,ব্যক্তিত্ব ও ছিল । limelight থেকে বিখ্যাত রা সবাই তো নিজেকে সরিয়ে নিতে পারে না।
Avatar: S S Ghosh

Re: সুচিত্রা সেন

একদম ঠিক - যদিও সবাই জানে কথা বলার টোন অসহ্য ছিল I কিছু লোক কথাটা কোনদিন মানবে না যে উনি খুব সুন্দরী ছিলেন কিন্তু কোনদিনই ভালো অভিনেত্রী ছিলেন না - লোকে সুন্দরী সুচিত্রা (ড্রিম গার্ল) কে দেখতে যেত I ।ইমেজ কনশাস ছিলেন তাই লোকচক্ষুর আড়ালে থেকে চিরযৌবনা রয়ে গেলেন - তবে ব্যবসা করেছিলেন বলে মনে হয় না। মৃত্যুদিনে অতি গদগদ ভাব না দেখিয়ে সমালোচনা করা ভদ্রতার পরিপন্থী এটা একেবারেই মনে হয় না । বরং উল্টোটাই অনেক বেশি অসৎI অসাধারণ লিখেছেন - "সবথেকে বিরক্তিকর ছিল তাকানো - বহু, বহু ওপরে কোথাও - তুমি আমাকে ভালবাসবে না, শহীদ মিনার? জাতীয় ব্যাপার"।
Avatar: Nilanjana Ghosh

Re: সুচিত্রা সেন

আমি একজন সাধারণ মানুষ হিসেবে এটুকু বলতে পারি জ সুচিত্রা সেন অভিনয় টা খারাপ যত না করত তার থেকে ক্যামেরা র রেকর্ডিং পদ্ধতি তখনকার খুবই খারাপ হওয়ার জন্য দৃষ্টিকটু লাগত।এখনকার অতি উন্নত ডিজিটাল রেকর্ডিং ও ক্যামেরা র কারিকুরি যদি ওনার সময়েও থাকত তাহলে অনেক ভুল ত্রুটি ও উতরে যেত।র সবচেয়ে বড় কথা উনি লিজেন্ড ছিলেন।ওনার সমালোচনা করার মত সাহস বা icha কোনোটাই আমার নেই বিশেষ করে উনি যখন চিরতরে বিদায় নিয়েছেন ।তাই আজ কারো অবর্তমানে তাকে নিয়ে না হয় নাই বা কাদা chorachuri কোরলাম ।একজন শিল্পী হিসেবে নিজেকে glamour এর জগত থেকে সরিয়ে নেওয়ার সাহসিকতা টা দেখানোর সাহস কতজন ভারতীয় শিল্পী পারেন?তিনি তো নিজেকে সরিয়ে নিয়ে চার দেওয়ালের ভিতর নিজের জগতে ছিলেন তবে কান এত somalochona থাকনা তিনি চির শান্তিতে ।
Avatar: Asit Kumar De

Re: সুচিত্রা সেন

সুচিত্রা সেন সম্বন্ধে অভিজিত-বাবুর লেখাটি পাঠ কোরে খুব মর্মাহত হলাম। অভিনেতার অভিনয়ের সমালোচোনা হোতেই পারে কিন্তু তার ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে প্রকাশ্যে কাটা ছেরা করাটা শুধু ভুল নয় এক প্রকার অন্যায় ও বটে। ওনার অগুন্তি অনুরাগি বর্তমানে শোকহত। এই সময়ে অভিজিত-বাবুর এরুপ মন্তব্ব্য বিরক্তিকর ও অপাঠ্য।
Avatar: রোবু

Re: সুচিত্রা সেন

মন্তব্ব্য বিরক্তিকর ও অপাঠ্য হতেই পারে। কিন্তু 'ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে প্রকাশ্যে কাটা ছেরা' কোথায় হলো বুঝতে পারিনি।
Avatar: Adwitee Roy

Re: সুচিত্রা সেন

খুব ঠিক লেখা। এক্কেবারে একমত!
Avatar: $$

Re: সুচিত্রা সেন

এই সময় এর সুচিত্রার উপরে করা রবিবারোয়ারি টা পড়া যেতে পারে। অভিনয় স্টারডম সিনেমাটিক সেন্স নিয়ে অনেক কথা আছে, সিরিয়াস লোকজনের গোমড়ামুখো লেখা। হিউমারের মজাটা অবশ্য থাকবে না এই পোস্টের মতো।
Avatar: সে

Re: সুচিত্রা সেন

সুচিত্রা সেনকে নিয়ে একটা সত্যিকারের অভিজ্ঞতার গল্প আছে।
Avatar: PM

Re: সুচিত্রা সেন

মোলো যা, কবে বলবেন সে?
Avatar: সে

Re: সুচিত্রা সেন

অন্য টইয়ে দিয়েছি। "পুরোনো চাল ভাতে বাড়ে" তে।
Avatar:   a b

Re: সুচিত্রা সেন

বাপ্রে ! চারিদিকে যা শ্র দ্ধা ,প্র ণাম আর 'ফিরে দেখা'র গুতো ; এট্টু নিশ্বাস নিলাম ! ঃ

মন্তব্যের পাতাগুলিঃ [1] [2] [3]   এই পাতায় আছে 36 -- 55


আপনার মতামত দেবার জন্য নিচের যেকোনো একটি লিংকে ক্লিক করুন