চটি বই সিরিজ



আপনার মতামত         



ঘ্যামা ঘ্যামা বইয়ের বড় বড় ব্যাপার। যেমন গড়ন, তেমনই দাম। ওদিকে নজর না দিয়ে আমরা বানিয়েছি সস্তা কাগজের চটি বই, যা সুলভ ও পুষ্টিকর। পাওয়া যাবে ২০১০ বইমেলাতেই। নজর রাখুন ১৭৯ নং টেবিলে।
ঐতিহ্যমন্ডিত বাংলা চটি জিন্দাবাদ।

আমার সত্তর -- দীপ্তেন

...না,দোষ দেই না কাউকেই। আমি নিজেই তো বালিতে মুখ গুঁজে। তবে সংস্কৃতির জগতে যারা খুব মন দিয়ে ঐ ইমেজ গুলো ছড়াচ্ছিল্লেন তারাও ব্যবসায়ী। তাদের কবিতা,গান,নাটক এই সবের সাথে নোংরা পাজামা,কানে গোঁজা বিড়ি,অবিন্যস্ত চুল, সোনাগাছিতে উন্মত্ততা, মাদ্যিক কাল্ট - এরাও পণ্য। এমারজেন্সীর এক গুঁতো এদের সবাইকে ল্যাংটো করে দিয়েছিলো । মুখ গোঁজার জন্য অত বড় মরুভুমি আর ছিলো না...

ডান থেকে বাম, টিভি বিতর্ক থেকে দেয়াল লিখন, সকলেরই আছে নিজস্ব সত্তর। এই সত্তরটি লেখকের নিজস্ব।

হাম্বা -- সৈকত বন্দ্যোপাধ্যায়

আমরা পন্ডিতদের সম্মান করি, আঁতেলদের ভয় পাই, পুলিশকে স্যার বলি, ঝাঁকড়াচুলো ব্যান্ডবাদক আর ক্যাটখুকিদের ফাটবাজি দেখে কুঁকড়ে যাই। আমরা লেখালিখি বলতে মাস্টারের নোটবই বুঝি, আইন বলতে পুলিশের ধাতানি। আমরা উড়ালপুলকে উন্নয়ন বলি, মার্কসবাদকে প্রগতি। আঁতলামি বলতে গোদার বুঝি আর (সুইট ইংলিশে) হাউ-আর-ইউ-ডুয়িং বলাকে স্মার্টনেস। আমাদের যাপন মানে চর্বিত চর্বন। জীবন মানে মেগা-সিরিয়াল। পরিশীলন মানে গরু রচনা।

এই পরিশীলন নামক গরু রচনার বিরুদ্ধে গরুদের এক নিজস্ব বিদ্রোহের বুলি হল হাম্বা। হাম্বা একই সঙ্গে নিপীড়িতজনের দীর্ঘশ্বাস এবং হৃদয়হীন জগতের হৃদয়। একই সঙ্গে অভব্যতা ও আকাটপনা। হাম্বা বিদ্রোহের এক গোপন কোড। আত্মাহীন অবস্থার আত্মা, জনতার আফিম। গরু রচনা আমাদের ভবিতব্য হলেও হাম্বাই আমাদের ভিত্তি। হাম্বা সর্বশক্তিমান, কারণ ইহা হাম্বা।

পূর্ব প্রকাশিতের পর -- সুমেরু মুখোপাধ্যায়

যা কিছু আগে পড়েছেন, দেখেছেন, শুনেছেন সেলো নির্মা, ওয়াশিং পাউডার নির্মা। কেস গ্যামাক্সিন, সাহিত্য ক্লোরিন গন্ধে চমৎকারা। ফোটনেরা দ্রুতগামী, টিউবলাইট জুড়ে স্টারফিশ নকশায় নাচছে বিজলী রানী। কিছুতেই ভালো লাগছে না। হাওয়া দিলে এইভাবে উল্টে যাবে বইয়ের পাতা, আমি দেখব গড়ে উঠছে নতুন নতুন হুগলী সেতু। না। ভালো লাগছে না। হিজিবিজি লেখা পাতালো চুবিয়ে নেওয়া হল চুনগোলা টবে। ক্রমশ লেখালিখি ইতুর সরার উপরে জটাজুট ছোলাগাছলি, যেন তারকেশ্বরের রাস্তা জুড়ে মুন্ডনের চুল। আর গলির মুখ আটকে দাঁড়িয়ে এক ষাঁড়, কেউ যদি দাঁড়িয়ে পড়েন ষাঁড়ের সম্মুখে, আহা। এখানে ধোয়া তুলসিপাতার কোনো গল্প নেই। ফলিত যৌবনের কথকতায় কার্নিক মেরে গেছে অনেককিছুই। প্রেম করতে গেলে যেটুকু না লিখলেই নয়।

আলোচাল -- সুমন মান্না

কাঁচের গেলাস শব্দ করেনা -- ভেঙে দিলে আওয়াজ হয় -- টুংটাং বাজালে হয় ধ্বনি। সেই গেলাসকে উল্টোনো চশমায় দেখে বা না দেখে অনুভব করলে তবে না শব্দ হবে। শব্দই কথা বলে সে শুনি বা না শুনি -- বাকি সবকিছু পারিনা এড়াতে -- শুনে যেতে হয় বা হবে।

জিভ তো একটাই সবার -- সেই লকলক করে ওঠে, আর কখনো বা হাঁফাতে থাকে স্বেদগ্রন্থি আলগা করে।

তোমাকে বলা কথাগুলো ওর, না বলাগুলো আমার -- সেগুলো বলতে গিয়ে জিভ বেরিয়ে যায় -- মাক্কালী!!