বইমেলা হোক বা নাহোক চটপট নামিয়ে নিন রঙচঙে হাতে গরম গুরুর গাইড ।

ভোটের কবিতা

বিশ্বজিৎ চট্টোপাধ্যায়, সার্থক রায়চৌধুরী, যশোধরা রায়চৌধুরী

ভোটের জন্য সনেট
বিশ্বজিৎ চট্টোপাধ্যায়
~~~

আকাশে উড়ছে রহস্যময় ঘুড়ি
বাতাস বলছে, তুমি আর কেউ নও
সীমান্ত জুড়ে রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাস
ডান হাতে ছোট সবুজ ডাইনি ঘড়ি।

ছোট ঘড়ি যার আরও ছোট কম্পাস
বেঁটে লোক ঝুঁকে সরোদ বাজায় ভোরে
আলোকিত নীল স্বচ্ছ নদীর তীরে
ডানাভাঙা এক গরুড়ের শবদেহ।

তোমাকে ডাকিনি অমরাবতীর বনে
তোমার বোনকে পেয়ে গেছি রাস্তায়
শর্টকাট চেনো, বলেছিল সেই বোন
আমিও বলেছি বিনিময়ে ভোট চাই।

রহস্যময় আকাশে উড়ছে ঘুড়ি
রাষ্ট্রীয় শোক তবু আজ গণভোট।


সার্থক রায়চৌধুরী
~~~

চৌকো টেবিল,
উল্টো ছায়া,
আধডোবা এক জ্যান্ত লাশ,
মিথ্যেকথা বল শালা তুই সত্যি যদি বাঁচতে চাস...

আপনি কিছুই দেখেন নি আর আপনি কিচ্ছু জানেন না,
সবকটা লোক, সবাই খারাপ,
এ ভোট আপনি মানেন না

কিন্তু আঙ্গুল রঙিন হবে,
যেন এবার ঠিক নোটা-এ,
আঙ্গুল দিয়ে বলেছিলেন বিবেক যেন ফুল ফোটায়,
অনেক বড় ফুলের নীচে কাস্তে ধরে লাভ কি আর,
ছোট্ট বিষের ফুলই যখন ছেয়ে ফেলেছে ঘর দুয়ার!

শোনা বারণ,
বলা বারন,
বারণ দেখা,
বাঁচতে হয়...

উল্টো টেবিল চৌকো ছায়া, মিলিয়ে নেওয়া সহজ নয়।



যশোধরা রায়চৌধুরী
~~~

প্রবল গরমে ভোটের মরশুমে অন্য চিন্তা নাইরে
কেবল কে ভাল কেই বা মন্দ তার ধানাই পানাইরে
এমত সময়ে কেন্দ্র সরকারে চাকুরি রাখা হল ভার রে
করিয়া তরিবৎ খাই ত সরবৎ বাকিরা প্রতিবাদ কর রে
সিভিল সোসাইটি হালটি ধরো দিকি আমরা শুনি বসে গান রে
বরিষ ধরা মাঝে শান্তিবারি বাপু! নহিলে যায় যায় প্রাণ রে!
কোনটে নেবে বেছে সবুজ? গেরুয়া? রঙের জ্বালা হল ভাই রে
যেটিই বাছ জেনো আড়াই প্যাঁচ আছে জিলিপিপ্যাঁচে পড়ে যাই রে



743 বার পঠিত (সেপ্টেম্বর ২০১৮ থেকে)

কোন বিভাগের লেখাঃ কাব্যি  বুলবুলভাজা 
শেয়ার করুন


Avatar: Aniket Pathik

Re: ভোটের কবিতা

ভোটের ছড়া

মনে পড়ে গেল ঠিক দশ বছর আগের কথা। ২০০৬ সালের এপ্রিল-মে মাস, সেবারও ছিল বিধানসভার ভোট। মুখ্য নির্বাচন আধিকারিক ছিলেন 'রাও'। নিয়ম করেছিলেন কোনও দেয়াল লিখন চলবে না, নির্বাচনী প্রচার সভাও হবে খুব নিয়ম মেনে, কোনও মাইক থাকবে না, স্রেফ লাউডস্পীকার নিয়ে। সেই প্রথম নির্বাচন কমিশনের এত ব্যাপক নিয়ন্ত্রণ দেখা। যতটা খুশি হয়েছিল সাধারণ মানুষ, ততটাই রেগে গেছিলেন নেতারা। সেই সময় লেখা একটি ছড়া, প্যারডিও বলা চলে, আজ হাতে পড়ল।

ভোট ২০০৬

রোদে পোড়া বাঁশের মাচা
তার ওপর দাঁড়িয়ে রাজা
কত কথা উল্টো-সোজা
বলছে কি, কেউ শুনছে না।।।

গায়ে আঁটা পার্টির জামা
হাতে ঘোরে ক্যাডারনামা
রাও বলেন 'প্রচার থামা
নইলে অঙ্ক মিলছে না !’

অতএব দেয়াল মোছো
মন্দ-ভালো নিজেই বোঝো
অন্যকিছু ফিকির খোঁজো
নইলে কমিশনের হাত

দেবে ঠিক কানটি মূলে
‘বামে’ থাকো কিম্বা ‘ফুলে’ !
মোট কথা নিয়ম ভুলে
কোরোনা দিনকে রাত !

এইমত নিয়ম দেগে
‘রাও কোথা গেলেন ভেগে
তোরা মর যতই রেগে
কিচ্ছুটি কেউ শুনছে না---

অতএব ‘ফুল’ ও ‘বামে’
একসাথে যুদ্ধে নামে
গালাগালি রাওয়ের নামে
নিজেদের মধ্যে না !

কি জানি কোথায় বসে
রাও শুধু মুচকি হাসে
ভবে এই বোশেখ মাসে
‘লাল’ আর ‘ফুলে’র ভাব

ঠিক যেন কৃষ্ণচূড়ায়
ভালোবাসা আপনি ছড়ায়
আর সব আবোল-তাবোল
এইটুকু সলিড লাভ !
Avatar: বিপ্লব রহমান

Re: ভোটের কবিতা

"কোনটে নেবে বেছে সবুজ? গেরুয়া?
রঙের জ্বালা হল ভাই রে
যেটিই বাছ জেনো আড়াই প্যাঁচ আছে
জিলিপিপ্যাঁচে পড়ে যাই রে"

শাবাশ যশোধরা। অন্যরকম ছড়া 🌷


আপনার মতামত দেবার জন্য নিচের যেকোনো একটি লিংকে ক্লিক করুন