গুরুচণ্ডা৯র খবরাখবর নিয়মিত ই-মেলে চান? লগিন করুন গুগল অথবা ফেসবুক আইডি দিয়ে।

সোনি সোরিঃ যে লড়াই এখনও চলছে

প্রতিভা সরকার

পঁচিশে নভেম্বরের সন্ধ্যা, প্রেসিডেন্সি ইউনিভার্সিটি। হাঁ করে তাকিয়ে ছিলাম এক হিম্মতওয়ালীর দিকে। তাঁর পাশে বেবী হালদার। আলপনা মন্ডলের পূর্বজা। ২০০২ সালেই ওরই "আলো আঁধারি" গিলেছিলাম গোগ্রাসে। সত্যিকারের সাবল্টার্ণ সাহিত্য। সম্মানজনক দূরত্বে দাঁড়িয়ে পিঠ চাপড়ানো নয়। সেই বইয়ের অনুবাদ হয়েছে পৃথিবীর বিভিন্ন ভাষায়। আরো দুটি বই লিখেছেন বেবি। সেগুলোও সমান আদৃত।

নিজের জীবন সংগ্রামের কথা নিজের অনুভূতি জড়িয়ে পেশ করার মতো আর কিছু হয় না। কিন্তু সেরকম সংগ্রাম অনেক মানুষের থাকে, জীবনের গাঁদ চিনিয়ে দেওয়ার কাজ করে তাদের লেখা আর সেই সুবাদে তাদের মানসিক উত্তরণ। কিন্তু রাষ্ট্রের দাঁত আর নখের সামনে নিজের সাহস বজায় রেখে লড়া, চূড়ান্ত শারীরিক অত্যাচার আর ধর্ষণের ট্রমা কাটিয়ে সমাজ বদলানোর লড়াই লড়া, সে একেবারে অন্য স্তরীয় ব্যাপার। আমি তো জানি এক শ্রদ্ধেয় ইলা মিত্রকে আর এই হিম্মতওয়ালী ছত্তিসগড়ের সোনি সোরিকে।

কলকাতায় এসেছিলেন সোনি এনজিও আপনে আপ ওয়ার্ল্ড ওয়াইডের সেমিনারে যোগ দিতে। প্রফেসর ক্যাথরিন ম্যাককিনন, মালিনী ভট্টাচার্য, শমিতা সেন, বাংলাদেশের এডভোকেট সালমা আলি, এক্টিভিস্ট মালেকা বেগম রুচিরা গুপ্তারাও ছিলেন। শেষের জন উদ্যোক্তা। বিষয় ছিল শিশু শ্রম, নারী পাচার আর "দ্য লাস্ট গার্ল।" এই লাস্ট গার্ল বা সবশেষের মেয়েটি কে? সে হচ্ছে সেই হতভাগ্য টিন এজ মেয়ে যে হতদরিদ্র ঘরের সন্তান, নীচকুলোদ্ভব আর তার ফলে ট্রাফিকারদের কাঙ্ক্ষিত শিকার।

দ্বিতীয় দিনের দ্বিতীয়ার্ধে দেখি প্রথম সারিতে রুচিরা গুপ্তার পাশে এসে বসল এক রোগা, কালো, পোড়খাওয়া মাঝবয়েসী মেয়ে। অত্যন্ত সাধারণ চেহারা, কোথাও কোন অসাধারণত্ব নেই।

মাঝে এতো লেখা হত বস্তারে রাষ্ট্রের নিপীড়ন নিয়ে, বার বার উচ্চারিত হত সোনি সোরির নাম, কিভাবে পুলিশ লক আপে তার ওপর জঘন্য নির্যাতন চলেছে, যৌনাঙ্গে ভরে দেওয়া হয়েছে ছোট বড় পাথরের টুকরো, বাঁচার কথাই ছিল না, সেই অসহ্য যন্ত্রণার সমুদ্র পার করে তাকে বাঁচিয়েছিল কলকাতার চিকিৎসকেরা --সবই জানতাম, কিন্তু সোনির ছবি আমি দেখিনি কখনো। তাই নাম ঘোষণার পর আমি নড়েচড়ে বসি, এইই তা হলে সোনি সোরি! তারপরেরটুকু এক অভিজ্ঞতা! মাইকে উগড়ে দিতে থাকা বস্তারে ক্রমাগত লাগু থাকা কালা কানুনের বিরুদ্ধে ক্ষোভ, জল জঙ্গল জমিনের লড়াই আর ব্যক্তিগত লাঞ্ছনার কাহিনী। কোন রাজনৈতিক দল তেমন ভাবে পাশে দাঁড়ায়নি সোনির, কারণ ঐ মাওবাদী তকমা।

অথচ নিজের একটি স্কুল আর হোস্টেল গড়ে তোলা এই শিক্ষকের একমাত্র অপরাধ ছিল মাওবাদী ফতোয়া মান্য করে জন- আদালতে যাওয়া, সেখানে স্কোয়াডের লোকেদের বোঝানো কেন তার স্কুল টিঁকিয়ে রাখাটা বস্তারের বাচ্চাদের জন্যই জরুরী। মাওবাদী হুমকি ছিল জন- আদালতে না এলে স্কুলঘর পুড়িয়ে দেবার। ডাঙ্গায় বাঘ আর জলে কুমির, ভয়াবহ সরকারি প্রতিশোধের ভয়ে আর কোন শিক্ষক না গেলেও একা অকুতোভয় সোনি মাওবাদীদের সঙ্গে তর্কবিতর্কে নিজের স্কুলটি বাঁচাতে সক্ষম হয়েছিলেন, কিন্তু নিজেকে নয়। মাওবাদী যোগসাজশের অভিযোগে পরদিনই তাকে তুলে নিয়ে যায় পুলিশ, দুবছর বিনাবিচারে জেলে অকথ্য নির্যাতনের পর, মোটে পাঁঁচবছর হয়েছে তার নানা আদালতে চক্কর কাটা।

সেই সোনি সোরি তুলে ধরছেন নতুন নতুন অত্যাচারের লাগামহীন ছবি, একবারও গলা ধরে আসছে না নিজের স্বামী, সন্তান, আত্মীয়দের ওপর নির্যাতনের বিবরণ দিতে গিয়েও কেবলই বলে চলেছেন, ও সব তো হ্যায়ই, মগর বস্তারকো বচাইয়ে।

গত জুলাই মাসে আদিবাসী মেয়েদের হোস্টেলে রক্ষাবন্ধনের দিন ঢুকে পড়ে উপোসী জওয়ানরা, সঙ্গে মাসতুতো ভাই রাজ্য পুলিশ। টয়লেট থেকে বেরোনো ছোট ছোট মেয়েদেরও দেহ সার্চে বড় উৎসাহ তাদের, একসময় অপেক্ষাকৃত বড়দের পেছন পেছন টয়লেটে ঢুকে পড়ে তারা, অসহায় কিশোরীদের আর্ত চিৎকারে মহা সমারোহে পালিত হয় ভ্রাতৃত্বের উৎসব। বস্তারের যেখানে অত্যাচার, সেখানেই অদম্য সোনি সোরি। স্কুল কর্তৃপক্ষ চূড়ান্ত অসহযোগিতা করলেও নির্যাতিতা মেয়েদের হয়ে মামলা রুজু করেছেন সোনি। পরিষ্কার বললেন, তার গুপ্তাঙ্গে পাথর ঢোকানো পুলিশ অফিসারটি এবার রাষ্ট্রপতি পুরষ্কার পেয়েছে, ওর সদম্ভ চলাফেরা দেখলে বুকের ভেতরটা জ্বলেপুড়ে যায়, মগর ক্যা করু, দেশ কা সংবিধানমে বহোত বিশোয়াস রখতি হুঁ।

না, বন্দুক হাতে তুলে নেবার কথা একবারও ভাবেননি সোনি। বরং একবারই গলা ধরে এলো বাবাসাহেবের এই সত্যিকারের সন্তানের, যখন বললেন তার ভেঙে দেওয়া স্কুলহোস্টেলে পঞ্চাশটি অনাথ বাচ্চা থাকতো যাদের বাবা মায়েরা খুন হয়েছে রাষ্ট্রের পোষা আতঙ্কবাদী সালোয়া জুড়ুমের সদস্যদের হাতে। তাদের কি হল তিনি জেলে যাবার পর জানা নেই, শুধু এই সেদিন গহন বনের ছায়ায় এক গ্রামে ধর্ষণের ঘটনা শুনে সোনি যখন ছুটে যাচ্ছিলেন দুটি মাওবাদী তার পথ আটকায়। যাবার হুকুম নেই। কথা কাটাকাটি শুরু হতেই বন্দুক হাতে ছুটে আসে আর এক তরুণ, প্রাক্তন শিক্ষিকার পা ছুঁয়ে মাফি মাঙে। এ সেই অনাথদের একজন।

এইভাবেই অস্ত্র তুলে নিতে বাধ্য করছে রাষ্ট্র, শুশ্রূষার বদলে রক্তের স্বাদ দিচ্ছে ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে।

নারী তো দলিতেরও দলিত। ফলে বস্তারের আদিবাসী রমণী ভোগ্যা ছাড়া আর কি! অবিবাহিতারাও মঙগলসূত্র পরে লাঞ্ছনা এড়াবার জন্য। তখন জওয়ানরা কাপড় সরিয়ে তার বুক দেখে। শুকনো বুক হলে স্বামী লা-মরদ কিনা জিজ্ঞাসা করে, তাদের সেবা নিতে পীড়াপীড়ি করে ভীতসন্ত্রস্ত মেয়েগুলিকে।

তবু বস্তারের 'লা-মরদ' আদিবাসী তার মানবিকতা ভোলে না, ধর্ষণের সন্তানরা বৈধ সন্তানের মতো একই আদরে মানুষ হচ্ছে বস্তারের অনেক ঘরে, জানালেন সোনি।

বেশির ভাগ সময় নিজের আইনি লড়াই লড়তে চলে যায়, তবু একাই একশ সোনি বস্তারের সর্বত্র। বাইরেও যেখানেই ডাক পান ছুটে যান এইসব সকলকে জানাবার জন্য। জল জঙ্গল জমিনের এই লড়াই, খনির ওপর পুঁজির কায়েমি দখলের বিরুদ্ধে ভূমিকন্যার এই লড়াই, জনজাতির মর্যাদাপূর্ণ জীবনের জন্য এই লড়াইয়ের স্ফুলিঙ্গ ছড়িয়ে যাবে সর্বত্র এই আশা জাগালেন সোনি সোরি, সাধারণ নির্যাতিত এক মেয়ে, কিন্ত এক অসাধারণ মানুষ, সাহসী আর প্রত্যয়ে দৃঢ়।






কোন বিভাগের লেখাঃ বুলবুলভাজা 
শেয়ার করুন


মন্তব্যের পাতাগুলিঃ [1] [2]   এই পাতায় আছে 4 -- 23
Avatar: kiki

Re: সোনি সোরিঃ যে লড়াই এখনও চলছে

ঃ(
Avatar: শিবাংশু

Re: সোনি সোরিঃ যে লড়াই এখনও চলছে

নাহ, কিছুই লেখার নেই....
Avatar: prabir das

Re: সোনি সোরিঃ যে লড়াই এখনও চলছে

ভালো লাগ লো
Avatar: Ambuj mudi

Re: সোনি সোরিঃ যে লড়াই এখনও চলছে

আদিবাসীদের উপর জুলুম চিরকাল করে আসছে উচ্চ বর্ণের লোকজন ।আর সরকার এই সব দেখেও কোনোভাবেই আইনানুগ পদক্ষেপ গ্রহণ করেন না ।
Avatar: রুখসানা কাজল

Re: সোনি সোরিঃ যে লড়াই এখনও চলছে

আমার শ্রদ্ধা। নিউজ হয়ে এসেছিলেন সোনি সোরি। সেভাবেই জেনেছি কিছু। আজ আবার জেনে নিলাম আপনার লেখার ভাঁজে । কত যে লড়াই ! মাঝে মাঝে মনে হয় আমি, আমরা কি মানুষ!
Avatar: বিপ্লব রহমান

Re: সোনি সোরিঃ যে লড়াই এখনও চলছে

লাল সেলাম। লড়াই চলবে।।
Avatar: aranya

Re: সোনি সোরিঃ যে লড়াই এখনও চলছে

'আমি তো জানি এক শ্রদ্ধেয় ইলা মিত্রকে আর এই হিম্মতওয়ালী ছত্তিসগড়ের সোনি সোরিকে'

- অর্চনা গুহ-র নাম মনে আসছে। আরও অনেক অজানা বা অল্প-চেনা মানুষ, নকশাল আন্দোলনের সময়কার - সোনি-র পূর্বসুরী।

'বেশির ভাগ সময় নিজের আইনি লড়াই লড়তে চলে যায়' - একগুচ্ছ ভুয়ো মামলায় জড়িয়েছে নিশ্চয়ই, আমাদের মহান রাষ্ট্র। বিরোধীকে মামলায় জেরবার করার এই পুরনো ঘৃণ্য প্রথাটা চলতেই থাকে।

সোনি কি এই মামলাগুলোর জন্য সহায়তা পাচ্ছেন কোন সংস্থার কাছ থেকে?

Avatar: aranya

Re: সোনি সোরিঃ যে লড়াই এখনও চলছে

আর এই সিস্টেমটা - আর্মি, পুলিশ -কে ধর্ষণ, খুন, বিবিধ অত্যাচারের কাজে ব্যবহার করা, সালোয়া জুড়ুম-এর মত মিলিশিয়া বানানো - সবই রাষ্ট্রের মদতে, অথচ সরকার চাইলে এসব বন্ধ করতে পারে।

শুনেছি ৭১-এ ইন্দিরা গান্ধীর কড়া নির্দেশ ছিল, বাংলাদেশের একটি মানুষের ওপরেও যেন জয়ী ভারতীয় সৈন্য কোনরকম অত্যাচার না করে, এবং সেই নির্দেশ পালিত হয়েছিল।
Avatar: বিপ্লব রহমান

Re: সোনি সোরিঃ যে লড়াই এখনও চলছে

আমার মনে হয়, সরকার স্বয়ং "আর্মি, পুলিশকে ধর্ষণ, খুন, বিবিধ অত্যাচারের কাজে ব্যবহার করা"র সিস্টেমের একটি অংশ, তাই সে চাইলেই এইসব অরাজকতা বন্ধ করতে পারে না, যতক্ষণ না সিস্টেমটাই বদল না হয়!

এপারেও সন্ত্রাস নিধনের নামে আদিবাসীদের ওপর অত্যাচার নির্যাতনে নিরাপত্তাবাহিনীকে লেলিয়ে দেওয়া হয়, বলা ভাল, সরকার পক্ষই লেলিয়ে দেয়, তারপর বিচারের নামে তারা করে প্রহসন!

তাই রুখে দাঁড়ানো ছাড়া উপায় কি!
Avatar: aranya

Re: সোনি সোরিঃ যে লড়াই এখনও চলছে

অন্যায়ের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে, এ নিয়ে কোন দ্বিমত নেই।

কিন্তু বর্তমান সিস্টেম বদলে নতুন কী সিস্টেম আনা হবে?

সৈন্য নেই, পুলিশ নেই এমন কোন দেশও তো নেই। সো কলড কম্যুনিস্ট সিস্টেমেও সৈন্য বা পুলিশ খুব মানবদরদী , এমন কোন উদাহরণ নেই।
Avatar: subrata

Re: সোনি সোরিঃ যে লড়াই এখনও চলছে

ওনার নাম , ওনাকে নিয়ে লেখা পড়লে সাহস বাড়ে । এই লেখার অংশ বা পুরোটাই আমাদের একটা ছোট গ্রামীন কাগজে রি-প্রিন্ট করা যায় কি ?
Avatar: প্রতিভা

Re: সোনি সোরিঃ যে লড়াই এখনও চলছে

সুব্রত, আপনি এই রিপ্রিন্টের ব্যাপারটা গুরুর এডমিনদের একটু জিজ্ঞাসা করে নিলে ভালো হয়। আমার কোন আপত্তি নেই।
Avatar: pi

Re: সোনি সোরিঃ যে লড়াই এখনও চলছে

হ্যাঁ, অবশ্যই পারেন। এই কথাগুলো যত ছড়ায়, ততই তো ভাল। গুরুতে পূর্বপ্রকাশিত , এটা লিখে দিলে ভাল হয়, এটুকুই।
Avatar: বিপ্লব রহমান

Re: সোনি সোরিঃ যে লড়াই এখনও চলছে

নতুন সিস্টেমে স্থানীয় প্রশাসন, অর্থনীতি, আইন-শৃংখলা, উন্নয়ন ইত্যাদি সব কিছুতে আদিবাসী কর্তৃত্ব থাকবে, হবে স্বায়ত্তশাসন, মূল ধারায় আত্মমর্যাদা নিয়ে নাগরিক অধিকারে যোগ দেবেন আদিবাসী মানুষ। আর তখনই ঘুচতে শুরু করবে শত সহস্র বছরের আদিবাসী শোষণ, নিপীড়ন।

এপারে আদিবাসীরা এই নতুন সিস্টেম, অর্থাৎ স্বায়ত্তশাসনের জন্য এখনো লড়ে যাচ্ছেন। বিশ্বের দেশে দেশে আদিবাসীর একই সংগ্রাম চলছে।
Avatar: বিপ্লব রহমান

Re: সোনি সোরিঃ যে লড়াই এখনও চলছে

নতুন সিস্টেমে স্থানীয় প্রশাসন, অর্থনীতি, আইন-শৃংখলা, উন্নয়ন ইত্যাদি সব কিছুতে আদিবাসী কর্তৃত্ব থাকবে, হবে স্বায়ত্তশাসন, মূল ধারায় আত্মমর্যাদা নিয়ে নাগরিক অধিকারে যোগ দেবেন আদিবাসী মানুষ। আর তখনই ঘুচতে শুরু করবে শত সহস্র বছরের আদিবাসী শোষণ, নিপীড়ন।

এপারে আদিবাসীরা এই নতুন সিস্টেম, অর্থাৎ স্বায়ত্তশাসনের জন্য এখনো লড়ে যাচ্ছেন। বিশ্বের দেশে দেশে আদিবাসীর একই সংগ্রাম চলছে।
Avatar: aranya

Re: সোনি সোরিঃ যে লড়াই এখনও চলছে

আদিবাসীরা স্বায়ত্তশাসন পেলে নিঃসন্দেহে ভাল হবে, এবং সংবিধানে মনে হয় স্বায়ত্তশাসনের প্রভিশন আছে, ভারত বাংলাদেশ দুই দেশেই, অতএব এই দাবিটা আদায় করা সম্ভব।
লড়াই সফল হোক।
Avatar: pi

Re: সোনি সোরিঃ যে লড়াই এখনও চলছে

দেশে কিন্তু ষষ্ঠ তফসিল মেনে ট্রাইবাল অটোনোমাস ডিস্ট্রিক্ট কাউন্সিল আছে। ত্রিপুরা, আসামের কথা জানি।
Avatar: বিপ্লব রহমান

Re: সোনি সোরিঃ যে লড়াই এখনও চলছে

এপারে শান্তিচুক্তিতে পার্বত্য আঞ্চলিক পরিষদ ও জেলা পরিষদ নামক স্থানীয় শাসন ব্যবস্থায় স্বায়ত্বশাসনের কথা বলা হয়েছে, পার্বত্য চট্টগ্রাম মন্ত্রণালয়ও হয়েছে। কিন্তু যথাযথ আইনের অভাবে পরিষদগুলো কাজ করতে পারছে না, ভূমি কমিশন অকার্যকর, মন্ত্রণালয় যেন নিধিরাম সর্দার!

অর্থাৎ শান্তিচুক্তির যথাযথ বাস্তবায়ন নেই। এখন চুক্তি বাস্তবায়নে প্রচণ্ড আন্দোলন চাই, চাই ব্রেক থ্রু!

#

সমতলের আদিবাসী পরিস্থিতি আবার ভিন্ন। সেখানে স্বায়ত্তশাসনের প্রাথমিক শর্ত হিসেবে পৃথক মন্ত্রণালয় ও ভুমি কমিশনের দাবি উঠেছে।

Avatar: pi

Re: সোনি সোরিঃ যে লড়াই এখনও চলছে

সমতলের আদিবাসী পরিস্থিতি কেমন ?
Avatar: শেসে

Re: সোনি সোরিঃ যে লড়াই এখনও চলছে

আদিবাসী অঞ্চলের স্বায়ত্তশাসনের মধ্য দিয়ে শাসকের হাত বদল হয়, কিন্তু আদিবাসী জনগোষ্ঠীর প্রান্তিক অংশের অবস্থার কি কিছু পরিবর্তন হয় ? আদিবাসীদের প্রান্তিক অংশের মানুজন শাসিত ও শোষিত হতে আরম্ভ করে একই জনগোষ্ঠীর আর্থিক দিক থেকে অপেক্ষাকৃত স্বচ্ছল অংশের লোকেদের হাতে | তাদের রাজা বদলায়, দিন বদলায় না |যেটুকু বদলায় তা সেই চুঁইয়ে পড়ার নীতি অনুযায়ী | এর বিকল্প কি?

মন্তব্যের পাতাগুলিঃ [1] [2]   এই পাতায় আছে 4 -- 23


আপনার মতামত দেবার জন্য নিচের যেকোনো একটি লিংকে ক্লিক করুন