Sumon Ganguly Bhattacharyya RSS feed

Sumon Ganguly Bhattacharyyaএর খেরোর খাতা।

আরও পড়ুন...
সাম্প্রতিক লেখালিখি RSS feed
  • নবদুর্গা
    গতকাল ফেসবুকে এই লেখাটা লিখেছিলাম বেশ বিরক্ত হয়েই। এখানে অবিকৃত ভাবেই দিলাম। শুধু ফেসবুকেই একজন একটা জিনিস শুধরে দিয়েছিলেন, দশ মহাবিদ্যার অষ্টম জনের নাম আমি বগলামুখী লিখেছিলাম, ওখানেই একজন লিখলেন সেইটা সম্ভবত বগলা হবে। ------------- ধর্মবিশ্বাসী মানুষে ...
  • চলো এগিয়ে চলি
    #চলো এগিয়ে চলি #সুমন গাঙ্গুলী ভট্টাচার্যমন ভালো রাখতে কবিতা পড়ুন,গান শুনুন,নিজে বাগান করুন আমরা সবাই শুনে থাকি তাই না।কিন্তু আমরা যারা স্পেশাল মা তাঁদেরবোধহয় না থাকে মনখারাপ ভাবার সময় না তার থেকে মুক্তি। আমরা, স্পেশাল বাচ্চার মা তাঁদের জীবন টা একটু ...
  • দক্ষিণের কড়চা
    দক্ষিণের কড়চা▶️অন্তরীক্ষে এই ঊষাকালে অতসী পুষ্পদলের রঙ ফুটি ফুটি করিতেছে। অংশুসকল ঘুমঘোরে স্থিত মেঘমালায় মাখামাখি হইয়া প্রভাতের জন্মমুহূর্তে বিহ্বল শিশুর ন্যায় আধোমুখর। নদীতীরবর্তী কাশপুষ্পগুচ্ছে লবণপৃক্ত বাতাস রহিয়া রহিয়া জড়াইতে চাহে যেন, বালবিধবার ...
  • #চলো এগিয়ে চলি
    #চলো এগিয়ে চলি(35)#সুমন গাঙ্গুলী ভট্টাচার্যআমরা যারা অটিস্টিক সন্তানের বাবা-মা আমাদের যুদ্ধ টা নিজের সাথে এবং বাইরে সমাজের সাথে প্রতিনিয়ত। অনেকে বলেন ঈশ্বর নাকি বেছে বেছে যারা কষ্ট সহ্য করতে পারেন তাঁদের এই ধরণের বাচ্চা "উপহার" দেন। ঈশ্বর বলে যদি কেউ ...
  • পটাকা : নতুন ছবি
    মেয়েটা বড় হয়ে গিয়ে বেশ সুবিধে হয়েছে। "চল মাম্মা, আজ সিনেমা" বলে দুজনেই দুজনকে বুঝিয়ে টুক করে ঘরের পাশের থিয়েটারে চলে যাওয়া যাচ্ছে।আজও গেলাম। বিশাল ভরদ্বাজের "পটাকা"। এবার আমি এই ভদ্রলোকের সিনেমাটিক ব্যাপারটার বেশ বড়সড় ফ্যান। এমনকি " মটরু কে বিজলী কা ...
  • বিজ্ঞানের কষ্টসাধ্য সূক্ষ্মতা প্রসঙ্গে
    [মূল গল্প - Del rigor en la ciencia (স্প্যানিশ), ইংরিজি অনুবাদে কখনও ‘On Exactitude in Science’, কখনও বা ‘On Rigour in Science’ । লেখক Jorge Luis Borges (বাংলা বানানে ‘হোর্হে লুই বোর্হেস’) । প্রথম প্রকাশ – ১৯৪৬ । গল্পটি লেখা হয়েছে প্রাচীন কোনও গ্রন্থ ...
  • একটি ঠেকের মৃত্যুরহস্য
    এখন যেখানে সল্ট লেক সিটি সেন্টারের আইল্যান্ড - মানে যাকে গোলচক্করও বলা হয়, সাহেবরা বলে ট্র্যাফিক টার্ন-আউট, এবং এখন যার এক কোণে 'বল্লে বল্লে ধাবা', অন্য কোণে পি-এন্ড-টি কোয়ার্টার, তৃতীয় কোণে কল্যাণ জুয়েলার্স আর চতুর্থ কোণে গোল্ড'স জিম - সেই গোলচক্কর আশির ...
  • অলৌকিক ইস্টিমার~
    ফরাসী নৌ - স্থপতি ইভ মার একাই ছোট্ট একটি জাহাজ চালিয়ে এ দেশে এসেছিলেন প্রায় আড়াই দশক আগে। এর পর এ দেশের মানুষকে ভালোবেসে থেকে গেছেন এখানেই স্থায়ীভাবে। তার স্ত্রী রুনা খান মার টাঙ্গাইলের মেয়ে, অশোকা ফেলো। আশ্চর্য এই জুটি গত বছর পনের ধরে উত্তরের চরে চালিয়ে ...
  • চলো এগিয়ে চলি 3
    #চলো এগিয়ে চলি #সুমন গাঙ্গুলী ভট্টাচার্যআমরা যখন ছোট তখন থেকেই দেখবেন মা -বাবা রা আমাদের সম্ভাব্য বিপদ সম্পর্কে শেখান।সাঁতার না জানলে পুকুরের ধারে যাবেনা,খোলা ইলেকট্রিক তার এ হাত দিতে নেই,ভিজে হাতে সুইচ বোর্ড ধরতে নেই, ইত্যাদি। আমাদের সন্তান রা যেহেতু ...
  • কেয়া শরম কি বাত!! ব্যভিচারও লীগ্যাল হলো শেষে
    কেয়া শরম কি বাত!! ব্যভিচারও লীগাল হলো শেষে!!বিষাণ বসুরায় বেরোনোর পর থেকেই, বেজায় খিল্লি।বস, আর চাপ নেই। সুপ্রীম কোর্ট ব্যভিচারকে আইনী করে দিয়েছে।আরেক মহল, জ্যেঠামশাইয়েরা, বলছেন, দেশের কী হাল। একশো তিরিশ কোটি মানুষের সমাজকে অন্ধকারের দিকে ঠেলে দিলো কয়েকটা ...


বইমেলা হোক বা নাহোক চটপট নামিয়ে নিন রঙচঙে হাতে গরম গুরুর গাইড ।

#চলো এগিয়ে চলি

Sumon Ganguly Bhattacharyya

#চলো এগিয়ে চলি(35)
#সুমন গাঙ্গুলী ভট্টাচার্য
আমরা যারা অটিস্টিক সন্তানের বাবা-মা আমাদের যুদ্ধ টা নিজের সাথে এবং বাইরে সমাজের সাথে প্রতিনিয়ত। অনেকে বলেন ঈশ্বর নাকি বেছে বেছে যারা কষ্ট সহ্য করতে পারেন তাঁদের এই ধরণের বাচ্চা "উপহার" দেন। ঈশ্বর বলে যদি কেউ থাকেন তার এ হেন
রসিকতা আমার পোষায় নি।আমি সাধারণ পিঁপড়ে কামড়ে কেঁদে ভাসিয়ে বরফ ঘষে বসে থাকি ,তাই আমি কষ্ট সহিষ্ণু নই ঈশ্বরের এটা জানা উচিৎ তবু আমার অটিস্টিক সন্তান।
আমি যেচে স্পেশাল বাচ্চার মা যেমন হই নি
তেমন ই বাচ্চা যখন অন্য রকম তাকে সামলাবার দায়িত্ব আমার। সমস্ত আঘাত থেকে বাঁচিয়ে তাকে একটা সুন্দর ভবিষ্যৎ দিয়ে যাবো এই আমার অঙ্গীকার।
আমি নিজের ছেলের অটিজম আছে বলে কিছু স্পেশাল বাবা মা এবং অটিস্টিক মানুষের সাথে মেলামেশা করি।পরিষ্কার কয়েকটি দল দেখতে পাই।একদল অটিজম আছে বাচ্চার এইটা মানতে চান না "ওই একটু বর্ডার লাইন, তাই Disable কার্ড করাই নি," আর একদল "হ্যাঁ
আমরা লড়াই করি, কিন্তু ও এমন ব্যবহার করে মাঝে মাঝেই খুব লজ্জায় পরি লোক সমাজে". আর এক দল খুবই দুঃখের কথা তারা প্রকাশই করেন না বাচ্চা র অসুবিধে, আর এক দল যারা বুক চিতিয়ে লড়াই করেন। আমি বার বার বলছি আমি স্পেশালিস্ট নই, কে কোন অবস্থায়এই ব্যবহার করেন আমি জানিনা।কিন্তু সবার উপরে একটা কথা এভাবে কোন সমস্যার সমাধান হয়না।যে বাচ্চা যে লেবেলে থাক মানুন এবং জানুন তার একটা অসুবিধে আছে থাকবে জীবনভোর। আর লজ্জা পাবেন না,বাচ্চার আচরণ অন্য রকম বেশ ঠিক আছে আপনি যথেষ্ট চেষ্টা করেন ,একটা বয়েসে সঠিক ট্রেনিং এ নিশ্চই কিছুটা উন্নতিহবে , লড়াই করার মানসিকতাই ঠিক রাস্তা আমার মনে হয়।, পৃথিবীটা ওই বাচ্চাটার ও ।নিজের অপগন্ড সম্মানের দায় বাচ্চার ঘাড়ে চাপাবেন না ।কখনো নয়।
বাচ্চাদের জন্য ইনক্লুসিভ শিক্ষা র আগে ইনক্লুসিভ সমাজ, ইনক্লুসিভ পরিবার,পরিবেশ এইটে ভাবুন।
আমি আমার ছেলেকে নিয়ে লড়াই শুরু করেছি আজ থেকে প্রায় 14 বছর আগে।প্রথম দিকে ডাক্তারের কাছে নিয়ে যেতে আমার খুব বেগ পেতে হয়েছিলো।দাঁতের ডাক্তার বিশেষ করে।কিছুতেই হাঁ করবে না।ইঞ্জেকশন দেখে চিৎকার করবে।আমি একটা ছবির কার্ড দেখাতাম আর ফাঁকা সূঁচ ছাড়া খেলনা সিরিঞ্জ দিয়ে মক ইঞ্জেকশন চালু করেছিলাম রুকুর সাথে।এই লাগছে না একটুও লাগছে না বলতাম।
কাজ দিয়েছিল।রুকু কোন জিনিসের জন্য যতটা কাঁদতো আঘাত লাগলে ততো টা নয়।এটা বোধকরি এই সিনড্রোম এর বৈশিষ্ট্য। তাই
আমিই দিনের শেষে হাত, পা,পিঠ খুঁটিয়ে দেখতাম রক্ত জমে আছে কিনা,আঘাত লেগেছে কিনা। দাঁত মাজা , দাঁত পরিষ্কার রাখা নিয়ে একটা যুদ্ধ চলেছে।কিছুতেই শিখবে না সঠিক পদ্ধতি।তবে 2 বার ব্রাশিং অভ্যেস করে দিয়েছি।এবং সঠিক ভাবে কুলি করে জল আসতে বেসিনে ফেলা যাতে পাশে ছিটকে না যায়।মাউথওয়াশ এর ব্যবহার
এবং ছিপি টাইট করে লাগিয়ে রাখা।দিনের শুরু তেই ব্রাশিং তাই ঐটাই সর্বপ্রথম শিখিয়েছিলাম।
একজন অটিস্টিক মানুষ ও তার মত ভাবেন,
তার মত চলেন-চলবেন ধরণ টা আলাদা।
কত প্রতিকূলতা নিয়ে এরা এই পৃথিবীতে আছে সেটা ভাবতে হবে আমাদের।
আপনি যত বড় কেউ কেটাই হন না কেন দিনের শেষে শিশুটি আপনার।
আমরা মায়েরা ভালো থাকি আসুন শপথ করি।আমাদের এমনিতেই জীবনে অনেক চ্যালেঞ্জ অনেক লড়াই তবু আমরা যেন বাঁচতে ভুলে না যাই।জীবন একটাই।
আমি ব্যক্তিগত ভাবে এই লেখা তে DMT বা ড্যান্স মিউজিক থেরাপির কথা খেলার কথা বলতে চাই। আমরা যেমন হাঁপিয়ে উঠি বাচ্চারাও হাঁপিয়ে উঠতে পারে বই কি।
তখন এই থেরাপি বা খেলাধুলো ওদের কাছে একটা ম্যাজিক।আমি নিজে রুকু কে খুব একটা খেলতে পাঠাতে পারিনা।মাঠে NT বাচ্চাদের সাথে ও মিলে মিশে অনেক সময় খেলতে পারেনা।ওতো জটিল নিয়ম, ধারাবাহিক বিভিন্ন ইনস্ট্রাকশন ও মেনে চলতে
পারেনা।তাই আমরা ওকে একটু মাঠে ঘাটে বেড়াতে নিয়ে যাই।ও ওর 'পল্লব দোস্ত'মানে আমার বাপির সাথে খেলাধুলো করে।এই টুকুই দিতে পেরেছি।
কোন বাচ্চা একটু এগিয়ে, একটু কেউ পিছিয়ে কিন্তু সবাই একটা সুতোর মধ্যে হাঁটছে ব্যালেন্সের এই খেলায় সাথে থাকুন সবাই। আমরা সবাই এক নৌকার যাত্রী ।
এক নীল সমুদ্র ভালোবাসা।
সুমন।

https://m.facebook.com/story.php?story_fbid=10214785317178272&id=15857
35784


439 বার পঠিত (সেপ্টেম্বর ২০১৮ থেকে)

শেয়ার করুন


Avatar: বিপ্লব রহমান

Re: #চলো এগিয়ে চলি



তাই তো বলি প্রতি লেখায় "এক নীল সমুদ্র ভালবাসা" আসে কোথা থেকে? এর উৎস আসলে নীল পোলো শার্টের ঝকঝকে হাসির রুকু।

ব্রেভো রুকু সোনা!
সেল্যুট সংগ্রামী সুমন! 🌷
Avatar: বিপ্লব রহমান

Re: #চলো এগিয়ে চলি

পুনশ্চ//

দোকানে এক মহিলার সংগে ধাক্কা লাগতেই তিনি চিৎকার শুরু করলেন। রুকু বলে উঠল, "... শান্ত হয়ে যাও। আমার অটিজম আছে। তুমি কী জান এটা কী? এটা থাকলে হাত পা চালানো কথা বলা, মাঝে মধ্যেই বেশ অসুবিধা হয়"...!
~
এই অংশটুকু পড়ে থমকে গেলাম। একটি বাচ্চা এত সুন্দর করে গুছিয়ে বলছে তার সমস্যার কথা! ব্রিলিয়ান্ট। 💕
Avatar: Munia

Re: #চলো এগিয়ে চলি

খুবই মূল্যবান একটি লেখা। সকলের পড়া উচিৎ। অনেক ধন্যবাদ আপনাকে নির্দ্ধিধায় আপনার উপলব্ধি ভাগ করে নিয়েছেন বলে।

ওপরের লাইনে “চলো এগিয়ে চলি” র পাশে ৩৫ লেখা। তারমানে কি এটি ৩৫ তম পর্ব? বাকি পর্ব কেথায় পাব?


আপনার মতামত দেবার জন্য নিচের যেকোনো একটি লিংকে ক্লিক করুন