শুভদীপ গঙ্গোপাধ্যায় RSS feed

শুভদীপ-এর খেরোর খাতা।

আরও পড়ুন...
সাম্প্রতিক লেখালিখি RSS feed
  • ট্রেড ওয়ার ও ট্রাম্প শুল্ক নিয়ে কিছু সাধারণ আলোচনা
    বর্তমানে আলোচনায় আসা সব খবরের মধ্যে অন্যতম হচ্ছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প চীনের বিলিয়ন ডলার মূল্যের উপর কঠিন শুল্ক বসিয়ে দিয়েছে, যাদের মধ্যে ডিশ ওয়াশার থেকে শুরু করে এয়ারক্রাফট টায়ার সবই আছে। চায়না অনেক দিন ধরেই এই হুমকির মুখে ...
  • নারীবাদ নিয়ে ইমরান খানের বক্তব্য ও নারীবাদে মাতৃত্ব নিয়ে বিতর্ক
    সম্প্রতি একটা খবর পড়লাম। পাকিস্তান তেহরিক ই ইনসাফ এর নেতা ও পাকিস্তান দলের সাবেক ক্রিকেটার ইমরান খান বলেছেন, তিনি পশ্চিমাদের থেকে আমদানি করা নারীবাদ সমর্থন করেন না। তার নারীবাদকে সমর্থন না করবার কারণও তিনি জানান, তার মতে নারীবাদ মাতৃত্বের মর্যাদাকে ছোট ...
  • রেনবো জেলি: যেমন লাগলো দেখে.....
    ইপ্সিতা বলল, রিভিউ লেখ। আমি বললাম, আমি কি সিনেমা বুঝি নাকি? ইপ্সিতা বলল, যা দেখে ভাল লাগল তাই লেখ। আমি বললাম, তবে তাই হোক।সিনেমা র নাম, রেনবো জেলি। ইউটিউবে ট্রেলার দেখেই বড্ড ভাল লাগল। তাই রিলিজ করার পরের দিনই আমার চারবছুরের কন্যে সহ আমি হলমুখী।টাইটেল ...
  • বর্ষা ও খিচুড়ি
    বর্ষাকাল। তিনদিন ধরে ঝমঝম করে বৃষ্টি হয়েই চলেছে। আমাদেরও ইস্কুল টিস্কুল বন্ধ। রাস্তায় এক হাঁটু জল। মায়েরও আজ অফিস যাওয়ার উপায় নেই। কি মজা। যদিও পুরোনো বাড়ির ছাদ চুঁইয়ে জল পড়ছে, ঘরের মেঝেতে ড্যাম্প, জামাকাপড় না শুকিয়ে স্যাঁতস্যাঁত করছে, কিন্তু তাতে আমাদের ...
  • বিজ্ঞাপনের কল
    তত্কালে লোকে বিজ্ঞাপন বলিতে বুঝাইতো সংবাদপত্রের ভেতরের পাতায় শ্রেণীবদ্ধ সংক্ষিপ্ত বিজ্ঞাপন, এক কলাম এক ইঞ্চি, সাদা-কালো খোপে ৫০ শব্দে লিখিত-- পাত্র-পাত্রী, বাড়িভাড়া, ক্রয়-বিক্রয়, নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি, চলিতেছে (ঢাকাই ছবি), আসিতেছে (ঢাকাই ছবি), থিয়েটার (মঞ্চ ...
  • বিশ্বাস, পরিবর্তন ও আয়ার্ল্যান্ড
    সম্প্রতি আয়ার্ল্যান্ডে আইনসিদ্ধ হল গর্ভপাত । যদিও এ সিদ্ধান্তকে এখনও অপেক্ষা করতে হবে রাষ্ট্রপতির আনুষ্ঠানিক অনুমোদনের জন্য, তবু সকলেই নিশ্চিত যে, সে কেবল সময়ের অপেক্ষা । এ সিদ্ধান্ত সমর্থিত হয়েছে ৬৬.৪ শতাংশ ভোটে । গত ২৫ মে (২০১৮) এ ব্যাপারে আইরিশ সংসদের ...
  • মব জাস্টিস-মব লিঞ্চিং এর সংস্কৃতি ও কিছু সমাজ-মনোবৈজ্ঞানিক ব্যাখ্যা
    (আজকে এখানে "জুনেদ-এর চিঠিঃ ঈদের নতুন পোশাকে" আর্টিকেলটি পড়তে গিয়ে একটা নতুন টার্মের সাথে পরিচিত হলাম - "মব লিঞ্চিং এর সংস্কৃতি"। এটা কেবল একটা নতুন টার্মই নয়, একটি নতুন কনসার্নও, তাই এটা নিয়ে লেখা...)মব লিঞ্চিং এর ব্যাপারটা এখন আমরা প্রায়ই শুনি। ...
  • বিশ্ব যখন নিদ্রামগন
    প্রত্যেকটি মানুষের জীবন বদলে দেওয়া কিছু দিন থাকে, থাকে রাত, যার পর আর কিছুতেই নিজের পূর্বসত্বার কাছে ফিরতে পারা যায় না, ওটাই বোধহয় নিজঅস্ত্বিত্বের 'রেস্টোর পয়েন্ট' হয়ে দাঁড়ায় সর্বশক্তিমান প্রোগ্রামারের মর্জিমাফিক।25শে সেপ্টেম্বর, 1992 রাত আনুমানিক পৌনে ...
  • শিক্ষায় সমস্যা এবং মানবসম্পদ উন্নয়ন
    (সম্প্রতি গুরুচণ্ডালির ফেইসবুক গ্রুপে Gour Adhikary বাবুর শিক্ষা ব্যবস্থা নিয়ে একটি অসাধারণ লেখা পড়লাম। বেশ কিছু প্রশ্নের জবাব চেয়েছেন তিনি সেখানে। এরমধ্যে কয়েকটি প্রশ্নকে সাজিয়ে লিখলে এরকম হয়, "যারা ফেইল করে, তারা কেন সামান্য পাশ মার্ক জোগাড় করতে পারে ...
  • পরবাসে পরিযায়ী
    আজকে ভারতে চাঁদরাত। অনেকটা দূরে বসে আমি ভাবছি কি হচ্ছে আমার বাড়িতে, আমার পাড়াতে। প্রতিবারের মতো এবারেও নিশ্চয়ই সুন্দর করে সাজিয়েছে পুরো শহরটা। আমাদের বাড়ির সামনের ক্লাবে সার সার দিয়ে বসে আলুকাবলি, আচার, ফুচকা, আইসক্রীম এবং আরো কতকি খাবারের স্টল! আমি ...


বইমেলা হোক বা নাহোক চটপট নামিয়ে নিন রঙচঙে হাতে গরম গুরুর গাইড ।

হাল্কা নারীবাদ, সমানাধিকার, বিয়ে, বিতর্ক ইত্যাদি

শুভদীপ গঙ্গোপাধ্যায়

কদিন আগে একটা ব্যাপার মাথায় এল, শহুরে শিক্ষিত মধ্যবিত্ত মেয়েদের মধ্যে একটা নরমসরম নারীবাদী ভাবনা বেশ কমন। অনেকটা ঐ সুচিত্রা ভট্টাচার্যর লেখার প্লটের মত। একটা মেয়ে সংসারের জন্য আত্মত্যাগ করে চাকরী ছেড়ে দেয়, রান্না করে, বাসন মাজে হতভাগা পুরুষগুলো এসব বোঝে না, এসব কাজ করতে তাদের পৌরুষে লাগে, সংসার নামক প্রতিষ্ঠানটিতে সমানাধিকারের নামগন্ধ নেই। একদিকে মেয়েদের আত্মত্যাগ আর অন্যদিকে ছেলেদের অসহিষ্ণুতা। পাবলিকের সহানুভুতি স্বাভাবিকভাবেই মেয়েদের দিকে। এবার আমার হঠাৎ মনে হল এইসব গল্প উপন্যাসের যারা ভিলেন অর্থাৎ পুরুষেরা, আরও স্পেসিফিক করে বললে স্বামীরা, তাদের পারসপেক্টিভ ব্যাপারটা একবার দেখলে কিরকম হয়।
এই মুহূর্তে নিজের পছন্দের পেশায় খুব কম মানুষ আছেন, যার লেখক হওয়ার কথা ছিল আমলা হয়ে গেছেন, ফটোগ্রাফার হয়েছেন ইঞ্জিনিয়ার উদাহরন ভুরি ভুরি। তার ওপর রয়েছে গতিসর্বস্ব আধুনিক জীবনের চাপ। মোদ্দা কথা হল তিরিশোর্ধ মানুষ নিজের কাজ এবং কাজের পরিবেশ নিয়ে খুব খুশী, নিজের পেশা চুটিয়ে এনজয় করছেন, এমন উদাহরন বেশ কম। তাহলেও কাজ করে যেতে তারা বাধ্য, কারণটা সবার জানা, কাজ না করলে খাবে কি? ইনফ্যাক্ট আজও দুজনে চাকরী করলেও "খাওয়ানোর" দায়িত্ব মুলত পুরুষের, ব্যাতিক্রম নিশ্চয় আছে, তবে ব্যাতিক্রম উদাহরন হতে পারে না।
অর্থাৎ গল্পটা যা দাঁড়াল, কাজের জায়গায় গিয়ে পুরুষেরা হেব্বি মজা করছেন আর মেয়েরা বাড়ি বসে বঞ্চিত হচ্ছেন ব্যাপারটা ঠিক এরকম নয়, আবার এমন মেয়ের সংখ্যাও প্রচুর স্ট্রেসের জন্য কর্পোরেট জবে আগ্রহী নন, জাস্ট সময় কাটানোর জন্য একটা কাজ করেন। স্বাভাবিকভাবেই সেই কাজের ফলে অর্জিত অর্থের পরিমাণও বেশ কম হয়। কিন্ত এমনটা কোন মেয়ে করলে তার ওপর কোন সামাজিক চাপ আসে না, উল্টে সংসারের জন্য আত্মত্যাগ ইত্যাদি বিশেষণে ব্যাপারটা বেশ মহিমান্বিত হয়ে যায়।
এবার বিয়েটা একটা চুক্তি এবং সেটা সমদায়িত্ব আর সমানাধিকারের ভিত্তিতেই হওয়া উচিত। পুরুষটি যদি বলেন তাকে নানা সমঝোতা করে, প্রচুর স্ট্রেস নিতে হচ্ছে একটা ভদ্রস্থ টাকা রোজগারের জন্য, যেটা মেয়েটিকে নিতে হচ্ছে না। এবার তারপরেও তাকে সমানাধিকারের দায় নিয়ে যদি রান্না করতে এবং বাসন মাজতে হয়, তবে অর্থনৈতিক সমদায়িত্বের প্রশ্নটা অবহেলিত হবে কেন?
এটা ফেবু গুরুর পুরনো থ্রেড। মনে আছে প্রচুর তক্কাতক্কি হয়েছিল, এবার এমন বিতর্কিত ব্যাপার সাইটেও থাক এমনটাই জনতার দাবী, ফলত......

শেয়ার করুন


Avatar: sm

Re: হাল্কা নারীবাদ, সমানাধিকার, বিয়ে, বিতর্ক ইত্যাদি

ছোট পরিসরের মধ্যে সুন্দর লেখা! যারে কয় টু দ্যা পয়েন্ট।
অর্থ উপার্জনের জন্য পুরুষ দের ওপর চাপ অনেক বেশি থাকে।বেকার হলে তো বিয়ে করাই মুশকিল।
মেয়েদের অসুবিধে হলো সমাজ। ছোট থেকেই অনেক বেশি সংগ্রাম করতে হয়।
রাত দশটায় টিউশন সেরে একটা ছেলে ফিরতে পারলে, মেয়েটিকে আট টার মধ্যেই ঢুকতে হয়।
বিয়ের পর, পরের বাড়ীতে কাটাতে হয়। এই জায়গাটা ছেলেরা বুঝতে পারবে না।
সংসারিক দায়িত্বও স্বাভাবিক কারণেই মেয়েদের মধ্যে বেশি।যেমন-- বাচ্চা কাচ্চা মানুষ করা।
একা চাকরি করে লাইফ কাটাবে কোন মেয়ে;এমন সমাজ এখনও ভারতে তৈরি হয় নি।
সুতরাং মেয়েদের দিকে অসুবিধের পাল্লাটা ভারতে একটু বেশী।
Avatar: শুভদীপ গঙ্গোপাধ্যায়

Re: হাল্কা নারীবাদ, সমানাধিকার, বিয়ে, বিতর্ক ইত্যাদি

অসুবিধে যে আছে সেটা তো অস্বীকার করার জায়গা নেই। এবং সে সমস্যার কারন পিতৃতন্ত্র তাতেও সন্দেহ নেই। কিন্তু সমস্যাটা ঠিক কোন জায়গায় আর সমাধানটা কি সে নিয়েই প্রশ্ন। একজন শিক্ষিত আধুনিকা মেয়ের "বিয়ে দেবে" বাবা "সংসার চালাবে" স্বামী এবং এই স্টিরিওটাইপকে ঠিক করে দেওয়া সিস্টেমটাকে সে কোন প্রশ্ন করবে না স্রেফ শুধু রান্নাঘরে হাঁড়ি ঠেলতে হবে কেন এই প্রশ্নেই নিজেকে সীমাবদ্ধ রাখবে।
এ প্রশ্ন তো কোথাও পৌঁছবে না।
Avatar: dc

Re: হাল্কা নারীবাদ, সমানাধিকার, বিয়ে, বিতর্ক ইত্যাদি

দুজন মিলে সংসার চালালেই তো হয়। সব ইনকাম একটা জয়েন্ট অ্যাকাউন্টে রেখে খরচ করা, আর সেভিং যেটা হবে সেটা অন্য অ্যাকাউন্টে সরিয়ে ফেলা। দুটো অ্যাকাউন্টেই দুজনেরই অ্যাক্সেস থাকবে। স্বামী-স্ত্রী কনসেপ্টটা পুরনো হয়ে গেছে। এখন দুজন লাইফ পার্টনার মিলে সংসার চালায়, সব ডিসিশান নিজেদের মধ্যে আলোচনা করে নেয়, যদি একজনের কোন ব্যপারে এক্সপার্টাইস বেশী থাকে তো অন্যজন সেই ব্যাপারে তার কথা শোনে। একদম সিম্পল।


আপনার মতামত দেবার জন্য নিচের যেকোনো একটি লিংকে ক্লিক করুন