Sakyajit Bhattacharya RSS feed

Sakyajit Bhattacharyaএর খেরোর খাতা।

আরও পড়ুন...
সাম্প্রতিক লেখালিখি RSS feed
  • সাম্মানিক
    বেশ কিছুদিন এই :লেখালিখি'র কচকচানিতে নিজেকে ঝালিয়ে নেওয়া হয়নি। নেওয়া হয়নি বলতে ইচ্ছে ছিল ষোল'র জায়গায় আঠারো আনা, এমনকি, যখন আমাদের জুমলাবাবু 'কচি' হতে হতে তেল-পয়সা সবাইকেই ডুগডুগি বাজিয়ে বুলেট ট্রেনে ওঠাচ্ছেন তখনও আমি 'ঝালিয়ে নেওয়া'র সুযোগকে কাঁচকলা ...
  • তোত্তো-চান - তেৎসুকো কুররোয়ানাগি
    তোত্তো-চানের নামের অর্থ ছোট্ট খুকু। তোত্তো-চানের অত্যাচারে তাকে স্কুল থেকে বের করে দিয়েছে। যদিও সেই সম্পর্কে তোত্তো-চানের বিন্দু মাত্র ধারনা নেই। মায়ের সঙ্গে নতুন স্কুলে ভর্তি হওয়ার জন্য সে চলছে। নানা বিষয়ে নানা প্রশ্ন, নানান আগ্রহ তার। স্টেশনের টিকেট ...
  • চলো এগিয়ে চলি
    #চলো এগিয়ে চলি#সুমন গাঙ্গুলী ভট্টাচার্য প্রথম ভাগের উৎসব শেষ। এরপরে দীপাবলি। আলোর উৎসব।তার সাথে শব্দবাজি। আমরা যারা লিভিং উইথ অটিজমতাদের ক্ষেত্রে সব সময় এই উৎসব সুখের নাও হতে পারে। অটিস্টিক মানুষের ক্ষেত্রে অনেক সময় আওয়াজ,চিৎকার, কর্কশ শব্দশারীরিক ...
  • সিনেমা দেখার টাটকা অভিজ্ঞতা - মনোজদের অদ্ভুত বাড়ি
    চট করে আজকাল সিনেমা দেখতে যাই না। বাংলা সিনেমা তো নয়ই। যদিও, টেলিভিশনের কল্যাণে আপটুডেট থাকা হয়ে যায়।এইভাবেই জানা যায়, এক ধাঁচের সমান্তরাল বাংলা ছবির হয়ে ওঠার গল্প। মধ্যমেধার এই রমরমার বাজারে, সিনেমার দুনিয়া আলাদা হবে, এমন দুরাশার কারণ দেখিনা। কিন্তু, এই ...
  • কিংবদন্তীর প্রস্থান স্মরণে...
    প্রথমে ফিতার ক্যাসেট দিয়ে শুরু তারপর সম্ভবত টিভিতে দুই একটা গান শোনা তারপর আস্তে আস্তে সিডিতে, মেমরি কার্ডে সমস্ত গান নিয়ে চলা। এলআরবি বা আইয়ুব বাচ্চু দিনের পর দিন মুগ্ধ করে গেছে আমাদের।তখনকার সময় মুরুব্বিদের খুব অপছন্দ ছিল বাচ্চুকে। কী গান গায় এগুলা বলে ...
  • অনন্ত দশমী
    "After the torchlight red on sweaty facesAfter the frosty silence in the gardens..After the agony in stony placesThe shouting and the crying...Prison and palace and reverberationOf thunder of spring over distant mountains...He who was living is now deadWe ...
  • ঘরে ফেরা
    [এ গল্পটি কয়েক বছর আগে ‘কলকাতা আকাশবাণী’-র ‘অন্বেষা’ অনুষ্ঠানে দুই পর্বে সম্প্রচারিত হয়েছিল, পরে ছাপাও হয় ‘নেহাই’ পত্রিকাতে । তবে, আমার অন্তর্জাল-বন্ধুরা সম্ভবত এটির কথা জানেন না ।] …………আঃ, বড্ড খাটুনি গেছে আজ । বাড়ি ফিরে বিছানায় ঝাঁপ দেবার আগে একমুঠো ...
  • নবদুর্গা
    গতকাল ফেসবুকে এই লেখাটা লিখেছিলাম বেশ বিরক্ত হয়েই। এখানে অবিকৃত ভাবেই দিলাম। শুধু ফেসবুকেই একজন একটা জিনিস শুধরে দিয়েছিলেন, দশ মহাবিদ্যার অষ্টম জনের নাম আমি বগলামুখী লিখেছিলাম, ওখানেই একজন লিখলেন সেইটা সম্ভবত বগলা হবে। ------------- ধর্মবিশ্বাসী মানুষে ...
  • চলো এগিয়ে চলি
    #চলো এগিয়ে চলি #সুমন গাঙ্গুলী ভট্টাচার্যমন ভালো রাখতে কবিতা পড়ুন,গান শুনুন,নিজে বাগান করুন আমরা সবাই শুনে থাকি তাই না।কিন্তু আমরা যারা স্পেশাল মা তাঁদেরবোধহয় না থাকে মনখারাপ ভাবার সময় না তার থেকে মুক্তি। আমরা, স্পেশাল বাচ্চার মা তাঁদের জীবন টা একটু ...
  • দক্ষিণের কড়চা
    দক্ষিণের কড়চা▶️অন্তরীক্ষে এই ঊষাকালে অতসী পুষ্পদলের রঙ ফুটি ফুটি করিতেছে। অংশুসকল ঘুমঘোরে স্থিত মেঘমালায় মাখামাখি হইয়া প্রভাতের জন্মমুহূর্তে বিহ্বল শিশুর ন্যায় আধোমুখর। নদীতীরবর্তী কাশপুষ্পগুচ্ছে লবণপৃক্ত বাতাস রহিয়া রহিয়া জড়াইতে চাহে যেন, বালবিধবার ...


বইমেলা হোক বা নাহোক চটপট নামিয়ে নিন রঙচঙে হাতে গরম গুরুর গাইড ।

আপনি কি আদর্শ তৃণমূলী বুদ্ধিজীবি হতে চান?

Sakyajit Bhattacharya



মনে রাখবেন, বুদ্ধিজীবি মানে কিন্তু সিরিয়াস বুদ্ধিজীবি। কথাটার ওজন রয়েছে। এই বাংলাতে দেব অথবা দেবশ্রী রায়কে যতজন চেনেন, তার দুশো ভাগের এক ভাগও দীপেশ চক্রবর্তীর নাম শোনেননি। কিন্তু দীপেশ বুদ্ধিজীবি। কবির সুমন বুদ্ধিজীবি। তো, বুদ্ধিজীবি হতে গেলে নিচের কয়েকটা শর্ত আবশ্যিকভাবে পূরণ করতেই হবে।

১। আপনার একটা বাম অতীত থাকা আবশ্যিক। সে নক্সাল হোক, অথবা সিপিআই(এম) বা তৃতীয় ধারা। মনে রাখবেন, তৃণমূল অথবা বিজেপি চিন্তার রাজ্যে এতই মেরুদণ্ডহীন যে এরা আনঅ্যাপোলজেটিক ভাবে কোনওই দক্ষিণপন্থী বুদ্ধিজীবির জন্ম দিতে পারে নি। আপনাকে আগে বাম হতে হবে, এবং সেই বামপন্থা ভাঙিয়ে আপনাকে পরের স্টেপগুলো এক এক করে পূরণ করতে হবে।

২। হাতে এক মাস সময় নিন। এর মধ্যে প্রাণপণে উইকিপিডিয়া ও গুগল সার্চ এঞ্জিন ব্যবহার করে কয়েকটা জিনিস জেনে নিন। কাকে বলে সাবঅলটার্ণ। কাকে বলে শ্রেণি। কাকে বলে জাতি। নিম্নবর্গের কী কী ধর্ম এই বাংলায় ছিল তার একটা লিস্ট জেনে নিন। ভুলেও যেন সাবঅলটার্ণ তত্ব নিয়ে খুঁটিয়ে জানতে যাবেন না ! তাহলে কিন্তু আপনি তৃণমূল থাকবেন না, শিক্ষিত হয়ে যাবেন ! কাজেই ওই ঝুঁকি নেবেন না একদম। বদলে কয়েকটা জার্গন মুখস্থ করে নিন। 'ভদ্রলোক', 'গ্রাম সমাজ', 'প্রান্ত' (ভাল হয় ইংরেজি হিসেবে 'মার্জিন' বললে, বেশি ওজন পাবে), 'কাল্ট', 'বর্ণহিন্দু', 'রণজিৎ গুহ' ইত্যাদি। আসল বইগুলো যেহেতু আপনি পড়ে বুঝবেন না, তাই কলিম খানের মেড ইজি গুলো পড়ে ফেলুন। মনে রাখবেন, তৃণমূলী ব্যাকরণের জগতে উনিই বামনদেব চক্রবর্তী।

৩। এরপর আসবে প্রয়োগের পালা। এই কাজটা অপেক্ষাকৃত সহজ। আপনাকে চোখ বুজে যে কোনও অসভ্যতাকে তাত্বিক ভিত্তি দিতে হবে। সেটা করতে গেলে প্রথমেই দুখানা বাক্য মুখস্থ করে নিন। "গত চৌঁতিরিশ বছরে ভদ্রলোকের দাপট ছিল। সেই উচ্চবর্ণের হিন্দুদের দাপট গুঁড়িয়ে দিয়ে আপাতত অন্ত্যজদের উত্থান ঘটছে"। ব্যাস, এবার এটাকেই ঘুরিয়ে ফিরিয়ে সর্বত্র প্রয়োগ করুন। ভোটের সময়ে বুথ দখল হচ্ছে? বেশ হচ্ছে। দখল করা হচ্ছে গ্রামীণ সাবঅলটার্ণদের স্বার্থে, কারণ এতদিন পঞ্চায়েতে ছিল ভদ্রলোক শ্রেণির প্রাধান্য। বিরোধী প্রার্থীকে ধর্ষণ করে খুন করা হচ্ছে? নিম্নবর্গের জমে থাকা ক্ষোভ যদি এভাবে বার্স্ট করে, আমরা ভদ্রলোকেরা জাজ করবার কে? তিন মাসের শিশুকে তৃণমূলের গুণ্ডাবাহিনী আছড়ে মারল? এই শিশুটি বড় হয়ে উচ্চবর্ণের তল্পিবাহক হত। তাই তাকে খুন করে গ্রামীণ নিম্নবর্গের মাথা উঁচু করে দাঁড়াবার রাস্তা পরিষ্কার করে দিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

৪। এই প্রয়োগের আবশ্যিক অঙ্গ হিসেবে অতি অবশ্যই শিক্ষা, সভ্যতা, রুচি ইত্যাদি জিনিসগুলিকে আত্বিক আক্রমণ করতেই হবে। মানে, ধরুন শহরের শিক্ষিত মানুষ যদি তৃণমূলী জমানাতে উষ্মা প্রকাশ করেন, তাঁকে অতি অবশ্যই উচ্চবর্ণের আলোকপ্রাপ্ত বাবু শ্রেণি হিসেবে দাগিয়ে দিতে হবে। এটাও প্রমাণ করতে হবে যে তাঁরা ছোটলোকদের ঘৃণা করেন। সভ্যতাকে চিহ্নিত করতে হবে পুঁজিবাদের অভিশাপ হিসেবে। রুচি-কে চিহ্নিত করতে হবে বর্ণহিন্দু মানসিকতা হিসেবে। এবং পাড়ায় পাড়ায় তৃণমূলী জলসা, কলেজ অনুষ্ঠানে মেয়েদের নাচিয়ে পয়সা ছোঁড়া, 'টুনির মা' ইত্যাদিকে সাধারণ গরীব মানুষের প্রকৃত সংস্কৃতি হিসেবে প্রতিষ্ঠা করতে হবে। দরকার পড়লে ফোক কালচার, সাংস্কৃতিক আধিপত্য বা এমন কি গ্রামশি ইত্যাদি নেমড্রপ করা যেতে পারে। কিন্তু খবরদার, ভুলেও এসব রেটরিককে খুঁটিয়ে পড়তে যাবেন না। তাহলে কিন্তু আপনি তৃণমূল থাকবেন না, শিক্ষিত হয়ে যাবেন !

৫। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, অনুব্রত মণ্ডল এবং আরাবুল ইসলামকে সহজ সরল গ্রাম সমাজের প্রতিনিধি হিসেবে প্রতিষ্ঠা করতে হবে। এটা করবার সেরা উপায় হল বামফ্রন্ট রাজত্বে ভদ্রলোকদের যেভাবে আধিপত্য বেড়েছিল এবং তারা যেভাবে মুসলিম ও নমঃশূদ্র বিরোধী ছিল, সেটাকে প্রচার করা। সকালবেলা উঠেই খালি পেটে বীজমন্ত্রের মত পাঁচবার আওড়াবেন 'মরিচঝাঁপি'। এতে কাজ দিতে পারে। আর সেই সঙ্গে, 'অশিক্ষিত' , 'অমার্জিত', 'অভদ্র', 'রুচিহীন' এসব শব্দবন্ধ শুনলেই আপনার আবেগ যেন ভেতর থেকে উথলে ওঠে। সেই সব মূঢ় ম্লান মূক মুখে ভাষা পৌঁছে দেবার জন্য আপনার শহুরে শিক্ষিত মনন হয়ে উঠুক এ যুগের হোয়াইট সেভিয়ার। মনে রাখবেন, এই তৃণব্যবস্থায় যে যত বেশি পড়াশোনা করে সে তত বেশি বর্ণহিন্দু ভদ্রলোক হয়।

৬। এত কঠিন টাস্ক দেখে ঘাবড়াবেন না। বাজারে আপনার কাজ সহজ করে দিতে এসে গেছে আরেক জন। তার নাম বিজেপি। মমতাকে প্রতিষ্ঠা করবার জন্য আপনি বিজেপি-র জুজু দেখিয়ে যান। যেখানে পারবেন দেখান। বিরোধী বাম পার্টির কর্মীদের পুড়িয়ে মারা হয়েছে? তৃণমূলকে সমর্থন করুন নাহলে এক্ষুনি বিজেপি এসে যাবে। পঞ্চায়েতের টাকা, একশো দিনের কাজ, চিটফাণ্ড সমস্ত কিছুর কোটি কোটি টাকা লুটে পুটে খেয়ে অনুব্রত আরাবুল নামক নব্য কুলাক শ্রেণির জন্ম হয়েছে? তৃণমূলকে সমর্থন করুন নাহলে এক্ষুনি বিজেপি এসে যাবে। তৃণমূল কংগ্রেস নিজের ভোটব্যাংক সুরক্ষিত করতে রামনবমীর মিছিল বার করে দাংগা বাধিয়েছে? তৃণমূলকে সমর্থন করুন নাহলে এক্ষুনি বিজেপি এসে যাবে। তৃণমূল কংগ্রেস ক্ষমতায় আসবার পর তাদের প্রত্যক্ষ সহায়তায় গ্রামে গঞ্জে আরএসএসের শাখা, স্কুল, হিন্দু সংহতির অফিস হুহু করে বেড়ে গিয়েছে? পার্লামেন্টে বিজেপি-র বিরুদ্ধে আনা নো-কনফিডেন্স মোশন ভেস্তে গিয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস ওয়াক আউট করবার ফলে? তৃণমূলকে সমর্থন করুন নাহলে এক্ষুনি বিজেপি এসে যাবে। পঞ্চায়েত ভোটে নির্মমভাবে খুনোখুনি বোমাবাজি আর হত্যা ধর্ষণের মাধ্যমে রাজ্যে গণতন্ত্র নামক ধারণাটিই এই মুহূর্তে কোমাতে চলে গেছে? তৃণমূলকে সমর্থন করেও আর লাভ নেই, কারণ তাদের হাত ধরে বিজেপি অলরেডি এসেই গিয়েছে।

৭। আর ওপরের সমস্ত তত্বকে সুগারকোট করবার জন্য আপনার হাতের কাছে রয়েছে মার্ক্সবাদ । সিপিআই(এম) মার্ক্সকে হত্যা করেছিল। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের হাত ধরে কমিউনিজমের প্রকৃত প্রয়োগ হচ্ছে। এটাকে আপনি সবথেকে ভাল খাওয়াতে পারেন যদি আপনার নামের পেছনে 'প্রাক্তন নক্সালপন্থী' নামক উপমাটি থাকে। যে কোনও আলোচনার মধ্যে হালকাভাবে গুঁজে দিন 'গোথা প্রোগ্রামের সমালোচনাতে কার্ল মার্ক্স যা যা ইস্যু তুলেছিলেন সেগুলোই যেন নতুন ভাবে অ্যাড্রেসড হচ্ছে কন্যাশ্রী প্রকল্পে"। কিন্তু খবরদার, ভুলেও সেই মার্ক্সের লেখাপত্রের খুঁটিয়ে বিবরণ শোনাতে যাবেন না। ওপর ওপর বলে ছেড়ে দেবেন। না হলেই কিন্তু আপনি তৃণমূল থাকবেন না, শিক্ষিত হয়ে যাবেন !

ওপরের প্রসেসগুলো ফলো করুন। ফলো করুন। আপণই বিশিষ্ট বুদ্ধিজীবি হিসেবে পরিগণিত হবেন। টিভি চ্যানেলে আসবেন, কমিটির মাথা হবেন, শহীদ মিনারে নেত্রীর চেয়ারের জল মুছিয়ে দেবেন, জয় মমতা স্লোগানে গলা মেলাতে পারবেন। কলাটা মুলোটা যে মিলবে সেসব সকলেই জানে। কিন্তু আরেকটা অদ্ভুত ঘটনা আপনি দেখতে পাবেন। আপনার শারীরিক পরিবর্তন ঘটছে। হ্যাঁ, আপনি রথম প্রথম এগুলোতে একটু অবাক হলেও পরে বুঝতে পারবেন এগুলো খুবই ছোট্ট ও স্বাভাবিক ঘটনা। খুব গরমে আপনি হ্যা হ্যা করে হাঁফাবেন। প্রতিটি নিশুতি রাত্রে আপনার সহমর্মী বুদ্ধিজীবিদের সঙ্গে উচ্চগ্রামে গলা তুলে কারণ ছাড়াই চিৎকার করবার রোগ আপনাকে পেয়ে বসবে। আপনার ঘ্রাণশক্তি খুব তীব্র হয়ে উঠবে। গন্ধ শুঁকে বলে দিতে পারবেন কে মাওবাদী, কে মুসলমান বিদ্বেষী আর কে বিজেপি-র দালাল। এরপর, যেদিন দুপুরবেলা রাস্তার ধারের ল্যাম্পপোস্ট দেখে আপনার ডান পা নিজের অজান্তেই কাঁধের কাছে উঠে যাবে, বুঝবেন আপনি আদর্শ তৃণমূলী বুদ্ধিজীবি হয়ে উঠেছেন। সেই অকুণ্ঠ ভাঁড়ামির নিলাজ কার্নিভালে, কী-ই বা এসে যায়, বিজেপি যদি চলেই আসে? ইয়ে বিজেপি আগার মিল ভি যায়ে তো কেয়া হ্যায়?



139 বার পঠিত (সেপ্টেম্বর ২০১৮ থেকে)

শেয়ার করুন


মন্তব্যের পাতাগুলিঃ [1] [2] [3] [4] [5] [6] [7]   এই পাতায় আছে 102 -- 121
Avatar: dc

Re: আপনি কি আদর্শ তৃণমূলী বুদ্ধিজীবি হতে চান?

আমি আবার ভেবেছি তাতিন গর্গ একজনের নাম!

তবে দ্যাখেন, প্রাক পুঁজিবাদ স্বর্ণযুগ, সেটা যদি ভারতে পশ্চিমের থেকে আলাদা হয়েও থাকে, তো সেই ব্যবস্থায় ফিরে যাবার একটিমাত্র বাধা আছে।

ইলেকট্রিসিটি।

আজ থেকে একশো বছর আগে পৃথিবীর কোথাও ইলেকট্রিসিটি ছিলনা, ভারতেও না। আর ইলেকট্রিসিটি ছাড়া সমাজ অচল, ভারতেও, অন্য সব জায়গাতেও। এবার দেখুন কিভাবে সেই স্বর্ণযুগে ফিরে যাবেন - লোকজনকে বিদ্যুত ছাড়া থাকতে বলবেন নাকি ভারতে যতো বিদ্যুত দরকার হয় সেই বিদ্যুত উৎপাদন করবেন।
Avatar: N-methyl-D-aspartate

Re: আপনি কি আদর্শ তৃণমূলী বুদ্ধিজীবি হতে চান?

কে বলে ইলেক্ট্রিসিটি ছিলো না? মহাভারতের আমলে ডেটাকার্ড বা হটস্পট চলতো কী করে?
Avatar: dc

Re: আপনি কি আদর্শ তৃণমূলী বুদ্ধিজীবি হতে চান?

তাও তো বটে। সেযুগে তো দিব্যি নিউরোসার্জারিও হতো। তাহলে অবশ্য সেই রামরাজ্যে ফিরে যাওয়া যেতেই পারে।

হাওড়া ব্রিজে শীর্ষাসন করতে খারাপও লাগবে না।
Avatar: S

Re: আপনি কি আদর্শ তৃণমূলী বুদ্ধিজীবি হতে চান?

এখনও এইসব আছে, সেইকালেও ছিলো। কিন্তু সেইকালে ফিরে গেলে মহান মোদিকে পাবোনা তো। তার থেকে এইকালে থাকাই ভালো।
Avatar: দ

Re: আপনি কি আদর্শ তৃণমূলী বুদ্ধিজীবি হতে চান?

সেকালে সঅঅব ছিল শুধু লোকের বাঋতে বাত্তুম ছিল না।
Avatar: N-methyl-D-aspartate

Re: আপনি কি আদর্শ তৃণমূলী বুদ্ধিজীবি হতে চান?

উঁহু, তেনারা বাইরে অ্যাবান্ডান্ট অর্গ্যানিক ফার্টিলাইজারের বন্দোবস্ত করেছিলেন।
Avatar: Sakyajit Bhattacharya

Re: আপনি কি আদর্শ তৃণমূলী বুদ্ধিজীবি হতে চান?

সমাজবিবর্তনের কোনও গ্র্যান্ড থিওরি মার্ক্সবাদ দেয় না। প্রতিটা সমাজ তার নিজস্ব নিয়মে বিকশিত হয়। তাই পুঁজিবাদেরও কোনও গ্র্যান্ড ন্যারেটিভ নেই
Avatar: S

Re: আপনি কি আদর্শ তৃণমূলী বুদ্ধিজীবি হতে চান?

ক্যাপিটালিজমের বোধয় কিছু গ্র্যান্ড থিয়োরি আছে। মানে এগুলো থাকতে হবে। ফ্রি মার্কেট, প্রোটেকশন অব প্রাইভেট প্রপার্টি ইত্যাদি ইত্যাদি। এখন কোনও দেশেই পুরোপুরি ক্যাপিটালিজম অ্যাপ্লাই করা সম্ভব না যদি না সেদেশ মোনাকোর মতন ছোটো আর সবাই বড়লোক দেশ না হয়। তাই সব দেশেই কিছুটা কিছুটা করে ইম্প্লিমেন্ট করা হয়েছে ডিপেন্ডিঙ্গ অন সেখানে কোন দিকের ভার বেশি।

তবে যারা বইধরে ক্যাপিটালিজম ইম্প্লিমেন্ট করতে চায় সেরকম এক আধজনের সঙ্গে কথা হয়েছে। এমন সব অবাস্তব কথাবার্তা বলে যে মনে হয় জীবনে কোনওদিন মানব সমাজ দেখেইনি।
Avatar: dc

Re: আপনি কি আদর্শ তৃণমূলী বুদ্ধিজীবি হতে চান?

এরকম আমিও দুয়েকজন দেখেছি। আসলে আদর্শ ক্যাপিটালিজম বা আদর্শ মার্ক্সিসম কোনটাই যে রিয়েল লাইফে হয়না এটা বোধায় অনেকে বুঝতে পারে না।
Avatar: S

Re: আপনি কি আদর্শ তৃণমূলী বুদ্ধিজীবি হতে চান?

প্রোটেকশন অব প্রাইভেট প্রপার্টি - এর মানেটা একদিন লিখবো।
Avatar: lcm

Re: আপনি কি আদর্শ তৃণমূলী বুদ্ধিজীবি হতে চান?

রিয়েল লাইফে ক্যাপিটালিজ্‌ম্‌ আর কম্যুনিজ্‌ম সম্পুর্ণ বিপরীতধর্মী কনসেপ্ট, একটা উদাহারণ দিয়ে বলি - In Capitalism, man exploits man, in communism exactly opposite.
Avatar: dc

Re: আপনি কি আদর্শ তৃণমূলী বুদ্ধিজীবি হতে চান?

কিন্তু এই বৈপরিত্য বোঝা সহজ কাজ নয়, এর জন্য কঠিন থিওরি চাই।
Avatar: S

Re: আপনি কি আদর্শ তৃণমূলী বুদ্ধিজীবি হতে চান?

লসাগুদা আজকাল কিন্তু লোকে বলছে "In socialism, man exploits man. In capitalism, it's exactly the opposite"।
Avatar: lcm

Re: আপনি কি আদর্শ তৃণমূলী বুদ্ধিজীবি হতে চান?

দেখো, এই থ্রেডে কত লোক এসেছেন - - - দীপেশ চক্রবর্তী, কলিম খান, হরিপদ বসাক, কালাচাঁদ দরবেশ, কবীর সুমন, গুরুচাঁদ, মমতা ব্যানার্জি, আরাবুল ইসলাম, কার্ল মার্ক্স, আলিবর্দি, অনুব্রত মন্ডল, রনজিৎ গুহ, কৃত্তিবাস, রবীন্দ্রনাথ, এমনকি রাম-ও (রাজ্য সহ) --- কিন্তু ফ্যাতারু-দের বস্‌ নবারুণ এর উল্লেখ নেই। ভাবতে পারো, সাবঅল্টার্ন শব্দটা আছে কিন্তু নবারুণ নেই - বহুত না ইন্‌সাফি হ্যায়...
Avatar: হে হে

Re: আপনি কি আদর্শ তৃণমূলী বুদ্ধিজীবি হতে চান?

সমাজবিবর্তনের কোনও গ্র্যান্ড থিওরি মার্ক্সবাদ দেয় না। প্রতিটা সমাজ তার নিজস্ব নিয়মে বিকশিত হয়। তাই পুঁজিবাদেরও কোনও গ্র্যান্ড ন্যারেটিভ নেই


গ্র্যান্ড থিউরির বাপ দিয়েছে...
Avatar: cm

Re: আপনি কি আদর্শ তৃণমূলী বুদ্ধিজীবি হতে চান?

অ্যাঁ
Avatar: Atoz

Re: আপনি কি আদর্শ তৃণমূলী বুদ্ধিজীবি হতে চান?

দেখেছ দেখেছ, খালি বলে ম্যান!!!! লাগাও বত্রিশ। ঃ-)
Avatar: pi

Re: আপনি কি আদর্শ তৃণমূলী বুদ্ধিজীবি হতে চান?

স্পেশালি সোমনাথের জন্য রইল।


!http://theconversation.com/the-thinking-error-at-the-root-of-science-denial-96099
Avatar: cm

Re: আপনি কি আদর্শ তৃণমূলী বুদ্ধিজীবি হতে চান?

আহা, আহা আমার মনের কথাটি গোটা গোটা হরফে লেখা। Proof exists in mathematics and logic but not in science । আরো একধাপ এগিয়ে বলা উচিত অঙ্ক আর লজিকের বাইরে প্রমাণের মানে হয়না। যদিও এ পাতায় আমরা সদা সর্বদা নানারকম প্রমাণে মত্ত। একমাত্র পড়ে থাকে ব্যক্তির অবস্থান।
Avatar: S

Re: আপনি কি আদর্শ তৃণমূলী বুদ্ধিজীবি হতে চান?

তাহলে আর কি? গ্লোবাল ওয়ার্মিঙ্গ হচ্ছে, সেটা ডিনাই করা সহজ হয়ে গেলো।

মন্তব্যের পাতাগুলিঃ [1] [2] [3] [4] [5] [6] [7]   এই পাতায় আছে 102 -- 121


আপনার মতামত দেবার জন্য নিচের যেকোনো একটি লিংকে ক্লিক করুন