বিপ্লব রহমান RSS feed

বিপ্লব রহমানের ভাবনার জগৎ

আরও পড়ুন...
সাম্প্রতিক লেখালিখি RSS feed
  • এবং আফস্পা...
    (লেখাটি আঁকিবুকি পত্রিকায় প্রকাশিত হয়েছে।)২১শে ফেব্রুয়ারী,১৯৯১। কাশ্মীরের কুপওয়াড়া জেলার কুনান পোসপোরা গ্রামে ইন্ডিয়ান আর্মি সন্দেহভাজন উগ্রপন্থীদের খোঁজে ঢোকে।পুরুষ ও নারীদের আলাদা করা হয়।পুরুষদের অত্যাচার করা হয় তদন্তের নামে। আর সেই রাতে ১৩ থেকে ৮০ ...
  • মন্টু অমিতাভ সরকার
    পর্ব-৩স্নেহের বরেণ, মানিকচকের বাজারসরকার মারফৎ সংবাদ পেলাম তোমার একটি পুত্র সন্তান হয়েছে। বংশের পিদিম জ্বালাবার লোকের যে অভাব ছিল তা বুঝি এবার ঘুঁচলো। সঙ্গে একটি দুঃসংবাদে হতবাক হলাম।সন্তান প্রসবকালে তোমার স্ত্রী রানীর অকাল মৃত্যু। তুমি আর কি করবে বাবা? ...
  • পুঁটিকাহিনী ৮ - বাড়ি কোথায়!!
    একটা দুষ্টু পরিবারের বাড়িতে পুঁটিরা ভাড়া থাকত। নেহাত স্কুল কাছে হবে বলে বাড়িটা বাছা হয়েছিল, নইলে খুবই সাদামাটা ছিল বাড়িটা। ২৭৫ টাকা ভাড়ায় কেজি টুতে ঐ বাড়িতে চলে আসে পুঁটিরা। ও বাড়ির লোকেরা কথায় কথায় নিজেদের মধ্যে বড্ড ঝগড়া করত, যার মধ্যে নাকি খারাপ খারাপ ...
  • WannaCry : কি এবং কেন
    "স্টিভেন সবে সকালের কফি টা হাতে করে নিয়ে বসেছে তার ডেস্ক এ. রাতের শিফট থাকলে সব সময়েই হসপিটাল এ তার মেজাজ খারাপ হয়ে থাকে। উপরন্তু রেবেকার সাথে বাড়ি থেকে বেরোনোর সময় ঝগড়া টাও তার মাথায় ঘুরে বেড়াচ্ছিল। বাড়ি ফিরেই আজ তার জন্যে কিছু একটা ভালো কিছু ...
  • কাফিরনামা...(পর্ব ২)
    আমার মতন অকিঞ্চিৎকর লোকের সিরিজ লিখতে বসা মানে আদতে সহনশীল পাঠকের সহ্যশক্তিকে অনবরত পরীক্ষা করা ।কোশ্চেনটা হল যে আপনি কাফিরনামা ক্যানো পড়বেন? আপনার এই দুনিয়াতে গুচ্ছের কাজ এবং অকাজ আছে। সব ছেড়ে কাফিরনামা পড়ার মতন বাজে সময় খুদাতলা আপনাকে দিয়েছেন কি? ...
  • #পুঁটিকাহিনী ৭ - ছেলেধরা
    আজ পুঁটির মস্ত গর্বের দিন। শেষপর্যন্ত সে বড় হল তাহলে। সবার মুখে সব বিষয়ে "এখনও ছোট আছ, আগে বড় হও" শুনে শুনে কান পচে যাবার জোগাড়! আজ পুঁটি দেখিয়ে দেবে সেও পারে, সেও কারো থেকে কম যায় না। হুঁ হুঁ বাওয়া, ক্লাস ফোরে কি আর সে হাওয়া খেয়ে উঠেছে!! রোজ মা মামনদিদি ...
  • আকাটের পত্র
    ভাই মর্কট, এমন সঙ্কটের সময়ে তোমায় ছাড়া আর কাকেই বা চিঠি লিখি বলো ! আমার এখন ক্ষুব্বিপদ ! মহামারি অবস্থা যাকে বলে । যেদিন টিভিতে বলেছে মাধমিকের রেজাল্ট বেরোবে এই সপ্তাহের শেষের দিকে, সেদিন থেকেই ঘরের পরিবেশ কেমনধারা হাউমাউ হয়ে উঠেছে। সবার আচার-আচরণ খুব ...
  • আকাটের পত্র
    ভাই মর্কট, এমন সঙ্কটের সময়ে তোমায় ছাড়া আর কাকেই বা চিঠি লিখি বলো ! আমার এখন ক্ষুব্বিপদ ! মহামারি অবস্থা যাকে বলে । যেদিন টিভিতে বলেছে মাধমিকের রেজাল্ট বেরোবে এই সপ্তাহের শেষের দিকে, সেদিন থেকেই ঘরের পরিবেশ কেমনধারা হাউমাউ হয়ে উঠেছে। সবার আচার-আচরণ খুব ...
  • মন্টু অমিতাভ সরকার
    পর্ব-২ঝাঁ-চকচকে শহরের সবচেয়ে বিলাসবহুল বহুতলের ওপরে, সৌর বিদ্যুতের অসংখ্য চাকতি লাগানো এ্যান্টেনার নীচে, একটা গুপ্ত ঘর আছে। সেটাকে ঠিক গুপ্ত বলা যায় কিনা সে বিষয়ে সন্দেহ থাকতে পারে। যাহা চোখের সামনে বিরাজমান, তাহা গুপ্ত হয় কেমনে? ভাষা-বিদ্যার লোকজনেরা চোখ ...
  • পুঁটিকাহিনী ৬ - পারুলদি পর্ব
    পুঁটির বিয়ের আগে শাশুড়িমা বললেন যে, ওবাড়ি গিয়ে পুঁটিকে কাজকম্মো বিশেষ করতে হবে না। ওমা! তাও আবার হয় নাকি! গিয়ে কিন্তু দেখা গেল, সত্যিই তাই। পুঁটি সপ্তাভর আপিস করে আর সপ্তাহান্তে মাসতুতো-মামাতো দেওর-ননদ জুটিয়ে দিনভর আড্ডা- অন্তাক্ষরী-তাস খেলা এ সব করে। ...

রাগিব হাসানের আলোর ইস্কুল

Biplob Rahman

সহ-ব্লগার রাগিব হাসান সর্ম্পকে নতুন করে তেমন কিছু বলার নেই। বাংলাদেশের গৌরব ড. রাগিব হাসান পেশায় একজন কম্পিউটার বিজ্ঞানী। তিনি ইউনিভার্সিটি অব আলাবামা অ্যাট বার্মিংহামের কম্পিউটার বিজ্ঞান বিভাগে সহকারী অধ্যাপক পদে কর্মরত। তাঁর গবেষণার বিষয় কম্পিউটার নিরাপত্তা ও ক্লাউড কম্পিউটিং। ২০০৬ সাল থেকে তিনি বাংলা উইকিপিডিয়াতে কাজ করছেন।

বছর দুয়েক আগে তারই উদ্যোগে আন্তর্জালে ছড়িয়ে পড়েছে বাংলা ভাষায় জ্ঞান-বিজ্ঞানের আলো। বিজ্ঞানের শিক্ষার্থী মাত্রই জানেন, উচ্চতর জ্ঞান-বিজ্ঞানের নানা শাখায় বাংলা ভাষায় বইপত্রের বেশ অভাব, কিছু ক্ষেত্রে প্রায়ই তা ইংরেজি বইয়ের হুবহু অনুবাদ। খটমটে অনুবাদের এসব বই শিক্ষার্থীর জ্ঞানতৃষ্ণা মেটানোর বদলে অনেক সময়ই বিজ্ঞানকে করে তোলো আরো ভীতিকর। আবার আন্তর্জালে প্রকাশিত বিজ্ঞানের নানা তথ্য ও জার্নাল অধিকাংশই বিদেশি ভাষায়। বিভিন্ন কঠিন অভিধা এবং জটিল তথ্য-উপাত্তে সেসব প্রায়শই শিক্ষার্থী-গবেষকদের কাছে দুর্বোধ্য ঠেকে। অনেক ক্ষেত্রে নথিপত্র, তথ্য-উপাত্ত আন্তর্জাল থেকে সংগ্রহ করতে আগ্রহীদের ক্রেডিট কার্ডে গুনতে হয় মোটা অঙ্কের অর্থ।

শিক্ষার এই বিপত্তি এড়াতে সম্প্রতি রাগিব হাসানের নেতৃত্বে সম্পূর্ণ স্বেচ্ছাশ্রমে এগিয়ে এসেছেন একঝাঁক পেশাদার শিক্ষক ও গবেষক। তাঁরা শিক্ষক ডটকম নামে একটি ওয়েবসাইটের মাধ্যমে আন্তর্জালে চালু করেছেন জ্ঞান-বিজ্ঞানের বিভিন্ন শাখায় নানা প্রয়োজনীয় প্রশিক্ষণ। আলোর এই ইস্কুলে এসব প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছে পুরোপুরি বিনা মূল্যে এবং বাংলা ভাষায়। এতে জ্ঞানের আলো ছড়িয়ে পড়ছে বিশ্বের নানা প্রান্তে ছড়িয়ে থাকা বাংলা ভাষাভাষীদের মধ্যে।
একই সঙ্গে বাড়ছে অমর একুশের গৌরবময় মাতৃভাষা বাংলা ভাষার প্রসারও।

শিক্ষক ডটকম বাংলা ভাষায় মুক্ত জ্ঞানের প্রকাশ ও বিকাশের জন্য এমনই একটি অভিনব আন্তর্জালভিত্তিক মুক্তমঞ্চ। এ ধরনের উদ্যোগ বাংলা ভাষায় এটিই প্রথম। ২০১২ সালের আগস্টেই ওয়েবসাইটটি চালু হওয়ার পর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক, টুইটার ও বিভিন্ন ব্লগ সাইটে এ নিয়ে বেশ সাড়া লক্ষ্য করা যায়। গণমাধ্যমে এ নিয়ে প্রকাশিত হয়েছে বিশেষ প্রতিবেদন।

শিক্ষক ডটকম ঘুরে দেখা যাবে, বিজ্ঞানের প্রতিটি বিষয়ে দেওয়া কোর্সের লেকচারের নিচেই আগ্রহীদের প্রশ্ন ও মন্তব্য করার সুয়োগ রয়েছে। এ ছাড়া সংশ্লিষ্ট বিষয়ের অভিজ্ঞ গবেষক ও শিক্ষকরা ভিডিও ক্লিপিংয়ের মাধ্যমে সহজবোধ্যভাবে বাংলায় দিচ্ছেন ক্লাস লেকচার। স্বয়ংক্রিয়ভাবে ই-মেইলেও লেকচার পাওয়ার সুযোগ রয়েছে। সে জন্য আগ্রহীদের সংশ্লিষ্ট লেকচার নোট পেতে সাইটটিতে গিয়ে নিবন্ধিত হতে হবে। জ্ঞানের আলো ছড়িয়ে দেওয়ার ব্রত নিয়ে বিভিন্ন বিষয়ে ডজনখানেক শিক্ষক ও গবেষক স্বেচ্ছাশ্রমে এই মহান উদ্যোগের সঙ্গে সার্বক্ষণিকভাবে যুক্ত হয়েছেন।

তারা বাংলাদেশ, যুক্তরাষ্ট্র, নেদারল্যান্ডস, জার্মানি ও কানাডায় সংশ্লিষ্ট বিষয়ে খ্যাতনামা বিশ্ববিদ্যালয় বা গবেষণা সংস্থায় নিজ নিজ মেধার স্বাক্ষর রেখে চলেছেন। সাইটটিতে প্রতিটি কোর্সের সঙ্গে রয়েছে কোর্সটির শিক্ষক পরিচিতি, তাঁর নিজস্ব ওয়েবসাইট বা ব্লগ ঠিকানা। একেকটি কোর্স থেকে শিক্ষার্থীরা যাতে আন্তর্জাতিক মানের প্রশিক্ষণ পান, প্রতিটি কোর্সেই যাতে জ্ঞান-বিজ্ঞানের হালনাগাদ তথ্য থাকে এবং কোর্স শেষে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা যাতে প্রত্যেকেই হয়ে ওঠেন সমৃদ্ধ, এ জন্য প্রশিক্ষকরা সচেষ্ট।

এক সংক্ষিপ্ত জরীপে দেখা যায়, গত ১৪ মাসে [৪ অক্টোবর, ২০১৪] পর্যন্ত শিক্ষক ডটকম এ প্রচার করেছে ২০ লাখেরও বেশি আন্তর্জালিক বক্তৃতা। আর বিশ্বের ১৪৮টি দেশে ছড়িয়ে আছেন এর শিক্ষার্থীরা।

উচ্চ শিক্ষার গণ্ডি ছাড়িয়ে সাইটটি এখন প্রাথমিক, নিম্ন মাধ্যকিম, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের জন্য ইংরেজী ও গনিত বিষয়ে বক্তৃতা বিলি করছে। এক নজরেই বোঝা সম্ভব, এসব নোট বাজারি নোটবই বা টেস্ট পেপারের চেয়ে অনেক সমৃদ্ধ।

রাগিব হাসান তার প্রতিষ্ঠিত শিক্ষক ডটকম প্রসঙ্গে এই লেখককে বলেন, এটি বাংলা ভাষায় জ্ঞান-বিজ্ঞানের আলো সর্বত্র ছড়িয়ে দেওয়ার একটি অবাণিজ্যিক উদ্যোগ। এই সাইটে বাংলা ভাষায় নানা বিষয়ে অনলাইন কোর্স দেওয়া হচ্ছে, যা সবার জন্য উন্মুক্ত। যে কেউ সম্পূর্ণ বিনা মূল্যে সহজেই এখানে নানা বিষয় জানতে পারবেন। তিনি জানান, সাইটটিতে কেউ কোনো কোর্স পড়াতে চাইলে নির্দিষ্ট তথ্যগুলো [ragibhasan@gmail.com] ঠিকানায় ই-মেইল করতে পারেন।

প্রসঙ্গত, বাংলা ভাষায় জ্ঞানের বিকাশের জন্য রাগিব হাসান কিছুদিন আগে কম্পিউটার বিজ্ঞান শেখানোর জন্য আরেকটি ওয়েবসাইট যন্ত্রগণক ডটকম [http://jontrogonok.com/] প্রতিষ্ঠা করেন। এরই যোগসূত্রে শিক্ষক ডটকম [http://www.shikkhok.com/] এর অভিযাত্রা।

এই সময়ে মুক্তজ্ঞানের এই বিদ্যালয়ে যে সব বিষয়ে কোর্স দেওয়া হচ্ছে, তা হলো: জ্যোতির্বিজ্ঞান ১০১ [খান মুহাম্মদ], কেমিকৌশল পরিচিতি [ফারুক হাসান], ক্লাউড কম্পিউটিং [রাগিব হাসান], তড়িৎকৌশল পরিচিতি [ডেভিড বিশ্বাস], ফাইন্যান্স ১০১ – অর্থবিজ্ঞান পরিচিতি [আলী হায়দার খান], জিওগ্রাফিক ইনফর্মেশন সিস্টেম পরিচিতি [বায়েস আহমেদ], পরিবেশ এবং পরিবেশ ব্যবস্থাপনা পরিচিতি [ইখতেখারুল ইসলাম], বায়োইনফরমেটিক্স পরিচিতি – বায়ো-বায়ো-১ রিসার্চ ফাউন্ডেশন
ক্যালকুলাসের অ-আ-ক-খ [চমক হাসান], সি প্রোগ্রামিং [মারুফ মনিরুজ্জামান], সি++ প্রোগ্রামিং [ইশতিয়াক রউফ], পরিবেশ বিজ্ঞান পরিচিতি [মোস্তফা কামাল পলাশ], নিউরোসায়েন্স পরিচিতি [মামুন রশিদ], আইপি টেলিফোনী [মশিউর রহমান]…

শিক্ষক ডটকম এর এসব উদ্যোগ বিশ্বের নানা প্রান্তে নানা গুনিজনের কাছে কদর পাচ্ছে, এটি বলা খুব বেশী বাহুল্য নয়। ভারতের আসামের বিশিষ্ট গবেষক ও লেখক সুশান্ত করের একটি ফেবু মন্তব্য এ প্রসঙ্গে উদ্ধৃত করা যাক। তিনি বলছেন:

" ভালো মানে, অত্যন্ত ভালো সাইট। আর সবেতেই বাংলাদেশের বন্ধুরা আমাদের থেকে এগিয়ে আছেন। আপাতত দেখছি বিজ্ঞানের চর্চাই বেশি। তাই বা মন্দ কী? বাংলা ভাষাতে বিজ্ঞান চর্চা হয় না বলে যে কুসংস্কার একেই তাঁরা সবার আগে ধাক্কা দিয়েছেন। আমারতো ভবিষ্যত নিয়ে ভরসা বেড়ে গেল। আমরা পূর্বোত্তর ভারতের লোকেরা কবে কী করছি? এখনো তো সাহিত্যই ভালো করে নেটে করে উঠতে পারলাম না। শিখতে আমাদের প্রবল অনীহা!"

বলা ভালো, ধর্মীয় উন্মাদনা সৃষ্টিকারী একটি চলচ্চিত্র প্রদর্শনে বাংলাদেশেও মৌলবাদী সহিংসতা ছড়িয়ে পড়তে পারে, এমন অজুহাতে ২০১২ সালের সেপ্টেম্বরের দিকে এদেশে ইউটিউবসহ গুগলের নানা সার্ভিস ব্লক করা হয়। গুগল বাংলাদেশ সরকারের কাছে নতি স্বীকার না করা পর্যন্ত এসব বন্ধ করে রাখা হবে বলে খবরে প্রকাশ। এতে এদেশের শিক্ষার্থীরা শিক্ষক ডটকম এর ওয়েব সাইট থেকে ভিডিও ক্লিপিং থেকে বেশকিছুদিন লেকচার-নোট নিতে পারেননি। তাদের সে সময় এ নিয়ে ফেবুতে সরাসরি খেদ ঝেড়েছেন; অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন। এ নিয়ে তখন মুক্তজ্ঞান ও বিনোদনের মাধ্যম আন্তর্জালের প্রতিবন্ধকতা যত দ্রুত দূর করার জন্য সমাজের শুভবুদ্ধির মানুষেরা সম্মিলত প্রতিবাদ গড়ে তোলেন। বেশ কয়েক মাস পরে সরকার আবার সকলে উন্মুক্ত করে ইউটিউব। আবরো তর তর করে এগিয়ে চলে রাগীব আহসানের অভিনব উদ্রাগ।

ছোট্ট এই নোটটির মাধ্যমে চলতি লেখক তার সর্বাত্নক সাফল্য কামনা করছে।
শাবাশ রাগিব! বিজয় মালাখানি তোমারই!
___
ওয়েব সাইট:
http://www.shikkhok.com/




Avatar: rivu

Re: রাগিব হাসানের আলোর ইস্কুল

রাগিব হাসানের উদ্যোগ খুবই প্রশংসনীয়। তবে আমার মনে হয় জোর করে বাংলা শব্দ যেমন "তড়িৎকৌশল পরিচিতি" ইত্যাদি ব্যবহার না করাই ভালো।

আর একটি কথা, সুশান্ত করের মন্তব্যটি যথেষ্ট বিরক্তিকর। সব কিছু তে তুলনা না করলেই কি নয়?
Avatar: ছাত্র

Re: রাগিব হাসানের আলোর ইস্কুল

তড়িৎকৌশল কিন্তু অপ্রচলিত বাংলা না। অন্তত বাংলাদেশে বহুল প্রচলিত এই শব্দটি। বাংলাদেশের বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে প্রাতিষ্ঠানিকভাবেই এই বিষয়গুলার এরকম নাম প্রচলিত এবং ব্যবহৃত (তড়িৎকৌশল = ইলেকট্রিকাল ইঞ্জিনিয়ারিং), পুরকৌশল=সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং, যন্ত্রকৌশল = মেকানিকাল ইঞ্জিনিয়ারিং। ভারতে মনে হয় কোথাও এটা ব্যবহার করা হয়না বলে আপনার এরকম "জোর করে" মনে হচ্ছে।
Avatar: সুমন

Re: রাগিব হাসানের আলোর ইস্কুল

রাগিব হাসানের উদ্যোগকে অভিনন্দন জানাই।

http://nptel.ac.in/ -এ ইংরিজিতে আইআইটি অধ্যাপকদের ভিডিও লেকচার পাওয়া যায়। আমাদের যখন নিজের বিষয় ছাড়া অন্য কোন বিষয়ে জানতে ইচ্ছে করে, তখনি এখানে ঢুঁ মারি। বাংলায় এই নতুন লেকচার সিরিজ আশা করি খুব জনপ্রিয় হবে।
Avatar: Biplob Rahman

Re: রাগিব হাসানের আলোর ইস্কুল

পাঠ ও মন্তব্যের জন্য সবাইকে ধন্যবাদ।

সুমন, আপনার মন্তব্য নোটটিকে সমৃদ্ধ করেছে। চলুক।


আপনার মতামত দেবার জন্য নিচের যেকোনো একটি লিংকে ক্লিক করুন