বইমেলা হোক বা নাহোক চটপট নামিয়ে নিন রঙচঙে হাতে গরম গুরুর গাইড ।

এই সুতোর পাতাগুলি [1] [2]     এই পাতায় আছে13--43


           বিষয় : টিকাকরণ কি আগেই এদেশে ছিল?
          বিভাগ : অন্যান্য
          শুরু করেছেন :pi
          IP Address : 2345.110.125612.122 (*)          Date:28 Oct 2018 -- 05:30 PM




Name:  pipi          

IP Address : 3423.241.342312.17 (*)          Date:28 Oct 2018 -- 10:50 PM

"আচ্ছা এই প্রাক-ব্রিটিশ যুগে বাংলার হ্যান-ত্যান ছিল র স্বপক্ষে প্রমাণ হাজির করছে সেই ব্রিটিশদের লেখারই দ্বারস্থ কেন হতে হয় বেশিরভাগ সময় আপনাদের বলুন তো? শিক্ষাব্যবস্থা থেকে স্বাস্থ্যব্যবস্থা সবই এত ভাল অথচ সবেরই ব্রিটিশদেরই লেখালিখির বাইরে আর চিহ্ন পাওয়া যায় না কেন?" উত্তর টা বোধ্হয় আমাদের ড্কুমেন্টেশন এর অভাব। মানে সেটকে আমরা গুরুত্ব দিয়ে বিচার করি নি কখনো। আর মুস্লিম ঐতিহাসিক রা এ ব্যাপরে অলোক্পাত কোরেছিলেন কি কখনো?


Name:  PT          

IP Address : 340123.110.234523.15 (*)          Date:28 Oct 2018 -- 11:23 PM

মাদ্রী মৃত পান্ডুর সঙ্গে চিতায় উঠেছিলেন।


Name:   সিকি           

IP Address : 670112.215.1245.234 (*)          Date:28 Oct 2018 -- 11:39 PM

মাদ্রী পাণ্ডুর সাথে সহমরণ গেছিলেন।


Name:  দেবব্রত          

IP Address : 7845.15.345623.190 (*)          Date:28 Oct 2018 -- 11:47 PM

এই টিকাকরন নিয়ে খুজতে গিয়ে পেলাম, উত্তর ভারত এবং পুর্ব ভারতে ব্যাপক প্রচলন থাকা স্বত্তেও দক্ষিনভারতে এই টিকাকরন ছিলোনা। বৃটিশ রা ১৭৯৫-১৮০২ পর্যন্ত প্রথমে নিজেদের মিলিটারী ব্যারাকে, পরে চেন্নাইয়ে সাধারন জনতার মধ্যে চালু করে। ১৮০২ সালে জেনারের ভ্যাকসিন ভারতে এলে এই দেশিয় পদ্ধতি তুলে নেওয়া হয়। সুতরাং এফেক্টিভ না হলে নিশ্চয় ৭ বছর ধরে মোটামুটিভাবে মিডিয়াম স্কেলে চালু রাখতোনা। আরো দেখতে পেলাম হলওয়েলের আগে এক ফরাসি পাদ্রি, হুগলী তে এই বিষয় নিয়ে স্টাডি করে বই লিখে প্যারিসে পাঠ করেন। সেই বই কোনদিনই ইংরেজি তে অনুদিত হয়নি।


Name:  দেবব্রত          

IP Address : 7845.15.345623.190 (*)          Date:28 Oct 2018 -- 11:47 PM

এই টিকাকরন নিয়ে খুজতে গিয়ে পেলাম, উত্তর ভারত এবং পুর্ব ভারতে ব্যাপক প্রচলন থাকা স্বত্তেও দক্ষিনভারতে এই টিকাকরন ছিলোনা। বৃটিশ রা ১৭৯৫-১৮০২ পর্যন্ত প্রথমে নিজেদের মিলিটারী ব্যারাকে, পরে চেন্নাইয়ে সাধারন জনতার মধ্যে চালু করে। ১৮০২ সালে জেনারের ভ্যাকসিন ভারতে এলে এই দেশিয় পদ্ধতি তুলে নেওয়া হয়। সুতরাং এফেক্টিভ না হলে নিশ্চয় ৭ বছর ধরে মোটামুটিভাবে মিডিয়াম স্কেলে চালু রাখতোনা। আরো দেখতে পেলাম হলওয়েলের আগে এক ফরাসি পাদ্রি, হুগলী তে এই বিষয় নিয়ে স্টাডি করে বই লিখে প্যারিসে পাঠ করেন। সেই বই কোনদিনই ইংরেজি তে অনুদিত হয়নি।


Name:  sswarnendu          

IP Address : 2367.202.128912.199 (*)          Date:29 Oct 2018 -- 12:07 AM

মহাভারতে সহমরণের উল্লেখের কথা পিটি আর সিকি লিখেই দিয়েছেন, আর বাংলায় ছিল কিনা এ প্রশ্নের উত্তরে তাতিনকে বলার যে আমি জানি না, এ নিয়ে প্রচুর তর্ক-বিতর্ক রেফারেন্স পালটা রেফারেন্স চালচালি ফেসবুকে হয়, সেগুলো দেখে কোনদিকেই নিশ্চিত ভাবে বলার মত কনভিন্সিং ও ক্লিঞ্চিং রেফারেন্স কিছু দেখিনি, তুমি জানলে দিও।

আর যদি নাও থেকে থাকে, তাতে কিসস্যু যাচ্ছে আসছে না আমার বক্তব্যের। দেবব্রতবাবুও এবং আরও অনেকেই স্বীকার ও করলেন যে অন্তত ডকুমেন্টেশনকে ( বা তার ব্যাপক অ্যাক্সেস ) কে গুরুত্ব দিয়ে ভাবা হত না। অর্থাৎ জ্ঞানচর্চা যদি থেকেও থাকে কিছু, সেটাকে যে একটা ভীষণ ছোট্ট অংশের মধ্যে কুক্ষিগত করে রাখার ব্যবস্থা ছিলই তা অনস্বীকার্য।


@পিপি,

হ্যাঁ একদমই সেইটাই বলতে চাইছিলাম। এই অনীহা ইঙ্গিতও করে অনেক কিছুর দিকে। আমার জ্ঞান আমি আমার ছাত্রকে ( আগে যাই থাক, পঞ্চদশ শতকে অন্তত সম্ভবত উচ্চতর বিদ্যাচর্চায় ছাত্রী 'লাই' হয়ে গেছিল, সম্ভবত আরও অনেকটা আগে থেকেই ) দিয়ে যাব এইটাই ভাবনা ছিল, যার আগ্রহ থাকবে সেই যাতে পড়তে পারে, এমন কিছু মাথাতেই আসেনি তাঁদের। অর্থাৎ 'গুরুমুখী বিদ্যার' প্রেমিসটার বাইরের কিছুটা না ভাবনায় ছিল, না রীতিতে। তুলনায় যে ইউরোপীয় জ্ঞানচর্চাকে এই 'নেটিভিস্ট' রা ও বিজেপি ( এই মিলটা ভারী ইন্টারেস্টিং না? :) ) দুদলই গুছিয়ে গালাগাল দেয়, সেটা তুলনায় অনেক বেশী সর্বসাধারণের জন্য। ( তুলনায়টা খেয়াল করবেন, জ্ঞান সর্বসাধারণের জন্যে আজকের ইন্টারনেট-গুগল যুগেও হয়ে যাইনি, কিন্তু দেশীয় ব্যবস্থার তুলনায় তা অনেকটাই বেশী )।




Name:  amit          

IP Address : 340123.0.34.2 (*)          Date:29 Oct 2018 -- 01:56 AM

স্বর্ণেন্দু র এই লাইনটা খুব ভালো লাগলো -"Absence of evidence is not evidence of absence."। খুব দরকারি কথা। "সব বেদে আছে"-র দল এই ধুসর জায়গাতে খেলতে ভালোবাসেন।

১৭৯৫- ১৮০২ : ৭ বছর সময় একটা টীকার এফেক্টিভনেস বোঝার জন্য আদৌ এনাফ কি ? আর এটা কি প্রমান করা গেছে সেই দেশজ টিকা জেনার এর টিকার থেকে বেশি কার্যকরী ছিল ? সুন্দরবনের প্রত্যন্ত গ্রামে এখনো সাপে কামড়ালে লোকে ওঝার কাছে ছোটে, কিছুটা অন্ধ বিশ্বাসে, কিছুটা ডাক্তার হাতের কাছে না পেয়ে। তাদের মধ্যে কয়েকজন হয়তো বেঁচেও যায় , কিন্তু সেটা প্রমান করেনা ওঝার ঝাড়ফুঁক আন্টি ভেনম এর থেকে বেশি কার্যকরী। দেশজ যে চিকিৎসা ব্যবস্থা, তার মধ্যে ভালো অনেক কিছু নিশ্চয় আছে, কিন্তু সেগুলো প্রপার ল্যাব টেস্টিং এর মুখোমুখি হতে আপত্তি কেন ? লার্জ স্কেল এ একটা স্ট্যান্ডার্ডাইজেশন হলে প্রবলেম কোথায় ?

টইটাকে বেপথে নেওয়ার ইচ্ছে নেই, সতীদাহ কবে শুরু হয়েছিল সেটা জানা নেই, কিন্তু ব্রিটিশ রা না থাকলে সেটা যে আরো অনেক বছর চলতো সেটা নিয়ে সন্দেহ আছে নাকি ? কিছু মেয়ের প্রাণ তো বেঁচেছে।



Name:  dc          

IP Address : 232312.164.90034.108 (*)          Date:29 Oct 2018 -- 07:58 AM

"সায়েন্টিফিক মেথড" যাকে বলা হয় সেটা আমাদের দেশে ছিল না কারন সেটা ওয়েস্টার্ন ফিলজফির থেকে এসেছে। ডকুমেন্টেশান এর অভাবও সেই কারনে। কাজেই আমাদের দেশে টিকা ছিল কি না সেই তর্কটা লাস্ট অবধি "বিশ্বাসে মিলায় বস্তু" টাইপের তর্ক হয়ে থেকে যাবে।


Name:  অভি          

IP Address : 7845.11.9004523.88 (*)          Date:29 Oct 2018 -- 08:04 AM

রবি ঠাকুরের একটি প্রবন্ধ আছে, 'প্রাচীন ভারতে গ্যালভানিক ব্যাটারি ছিল কি না এবং অক্সিজেন বাষ্পের কী নাম ছিল'। তাতে তৎকালীন এতদবিষয়ক তর্কবিতর্কের কিছু নমুনা আছে।


Name:  PT          

IP Address : 340123.110.234523.4 (*)          Date:29 Oct 2018 -- 08:24 AM

সময় পেলে চরক ও শুশ্রুত সংহিতা ঘেঁটে দেখবেন। ইংরিজি অনুবাদ পাওয়া যায়। সেখানে বর্ণিত মেথড ল্যাবে রিপিট করার চেষ্টা করে দেখবেন। নিজেকে মজন্তালী সরকার মনে হবে!!

টীকার মত জটিল ব্যাপার নিয়ে চর্চা বাদ দিয়ে শুধু হলুদের মেডিসিনাল গুণাগুণ নিয়ে চর্চা করে দেখুন। শুধুই ধোঁয়াশা। রান্নায় হলুদ দিয়ে তার সঙ্গে আরো তিন রকমের মশলা মিশিয়ে, তেলে সাঁতলে, আধাঘন্টা জলে ফোটালে কুর্কুমিনের (হলুদের প্রধানতম কেমিকাল) কি আণবিক পরিবর্তন হয় আর তাতে কোন উপকারিতা আদৌ থাকে কিনা তা নিয়ে গভীর ব্যাদ-বিশ্বাসী কোন বৈজ্ঞানিকও বিন্দুমাত্র কোন পরীক্ষা করার প্রয়োজন বোধ করেনি!!

অথচ হলুদের সর্বোরোগহারী প্রতিভা নিয়ে পাড়ার নাপিত ব্যাটাও আধাঘন্টার লেকচার দিয়ে দেবে।


Name:  amit          

IP Address : 340123.0.34.2 (*)          Date:29 Oct 2018 -- 08:33 AM

আপনাদের নিয়ে আর পারি না। যত অবিশ্বাসী রাষ্ট্রদ্রোহীর দল। বেদে প্লাষ্টিক সার্জেরী পর্যন্ত আছে, স্বয়ং লরেনবাবু বলেছেন গণশার মাথা নিয়ে বেঙ্গালুরু সাইন্স কংগ্রেস এ। আর আপনারা সমানে প্রশ্ন করে চলেছেন।


Name:  তাতিন          

IP Address : 340123.110.234523.24 (*)          Date:29 Oct 2018 -- 11:33 AM

আমার সাইড প্রশ্নটা ছিল ব্রিটিশরা আসার আগে কি সতীদাহ বাংলায় ছিল? শচীমাতা থেকে রানি ভবানি অবধি বহু বিখ্যাত বিধবার নাম ইতিহাস দেয় আর কাব্য ইত্যাদিতে আরও অনেকের কথা আসে কিন্তু একটাও সতীদাহ-র উদাহরণ কি পাওয়া যায়?
নাকি ব্রিটিশরা এল বলেই সেই অরাজকাতার সুযোগে বিভিন্ন ক্রাইমের মতন সতীদাহও শুরু হল? সেক্ষেত্রে ব্রিটিশদের জন্যেই কিছু মেয়ের প্রাণ বেঁচেছিল এই দাবি টেকে না।

আর, ডকুমেন্টেশন প্রসঙ্গে আলাদা একটা টই খোলা যায়। ডকুমেন্টেশনের দরকার কেন হয় সেটাও ভাবার দরকার। ডকুমেন্টেশন নেই বলেই জিনিসটা ইনভ্যালিড হলে তো আদ্ধেকের বেশি সফটওয়ার ফেলে দিতে হয়। প্রাচীন ও মধ্যযুগের ভারতে ডকুমেন্টেশন ছিল কী না, কীসের ডকুমেন্টেশন হত আর কীসের হত না (আইনি আকবরি মাদলাপঞ্জী ইত্যাদি একটু নেড়ে দেখা) আর কেন ডকুমেন্টেশন লাগে বা কোন ক্ষেত্রে লাগত না এসব পর্যালোচনা করার আবশ্যিকতা আছে। ধরা যাক, আমার বাবা বাজারে গেলে তাকে মা ফর্দ করে দিতেন, কিন্তু মা নিজে গেলে ফর্দ লাগত না- এটাও তো একটা ব্যাপার বটে। তার ওপর আসে ডকুমেন্ট খুলে দেখা হয় কী না, না দেখলে কেন হয় না এইসব প্রসঙ্গও।
আর সবার ওপরে আমার কাছে গুরুত্বপূর্ণ হয় ১৭০০-১৮০০ সালের মধ্যে দুর্ভিক্ষে প্রদেশের জনসংখ্যা ১/৪ ক্ষয়ে যাওয়ার সামাজিক বিপর্যয়- পুরো উৎপাদনসম্পর্ক উলটে যাওয়ার পরে কী সারভাইভ করেছিল সেটাও কম ভাবায় না।


Name:  তাতিন          

IP Address : 340123.110.234523.24 (*)          Date:29 Oct 2018 -- 11:38 AM

স্বর্নেন্দু, "জ্ঞানচর্চা যদি থেকেও থাকে কিছু, সেটাকে যে একটা ভীষণ ছোট্ট অংশের মধ্যে কুক্ষিগত করে রাখার ব্যবস্থা ছিলই তা অনস্বীকার্য।"
উল্টোটাও হতে পারে। কিছু ক্ষেত্রে শ্রুতি এবং পরম্পরা এত ব্যাপ্ত হতে পারে যে খাতায় কলমে লিখে রাখার দরকার হয় না। অভ্যেসের মাধ্যমেই জ্ঞান বাহিত হয়। ধরা যাক, চাষবাস- এ নিয়ে তো দ্বিমত নেই পাঁচ-দশ হাজার বছর ধরে মানুষ চাষের বিশাল উন্নতি করেছে। এই বিশাল জ্ঞানভান্ডার খুবই লৌকিক ও ব্যাপ্ত থেকেছে। একাডেমির আওতায় ঢোকে নি বলেই তা নিয়ে কোনও দেশেই সেভাবে লেখালেখি করে রাখতে হয় নি।


Name:  dc          

IP Address : 232312.164.90034.108 (*)          Date:29 Oct 2018 -- 12:40 PM

সফটওয়ার ডকুমেন্টেশান আর এভিডেন্স ডকুমেন্টেশানে কিছু তফাত আছে।

প্রাচীন ও মধ্যযুগের ভারতে ডকুমেন্টেশন ছিল কি না, এটা আমার ঠিক জানা নেই। আবছা ধারনা আছে যে সেরকম ছিল না, তবে এ নিয়ে আমার একেবারেই কিছু বলা ঠিক হবে না। তবে প্রাচীন ও মধ্যযুগের ভারতে "সায়েন্টিফিক মেথড" বা এম্পিরিকাল, এভিডেন্স বেসড মেথড ছিলনা বলেই মনে হয়, কারন এই ব্যাপারটা ওয়েস্টার্ন ফিলোজফিতে বেশী গুরুত্ব দিয়ে দেখা হয়েছে।

এবার কথা হলো, ভ্যাকসিনেশান বা মেডিসিন বা অন্যান্য জ্ঞানচর্চার জন্য ডকুমেন্টেশান জরুরি কিনা, বা উল্টো করে ভাবলে, ডকুমেন্টেশান না করে শুধু লোকমুখে জ্ঞানচর্চা করা যায় কিনা। ডকুমেন্টেশানের কিন্তু দুটো সুফল আছে - প্রথম হলো এভিডেন্স, অর্থাত একটা জিনিস লেখা হয়ে থাকলে সেটা লোকমুখে পাল্টে যাওয়ার সম্ভাবনা কম। আরেকটা হলো, লেখার মাধ্যমে জ্ঞানচর্চার কমপ্লেক্সিটি বাড়া, বা একজনের লেখা পড়ে আরো অনেকে ভেবে সেটা কন্ট্রিবিউট করা। সেটা মুখে মুখে চর্চা করে সম্ভব না। এই লেখালিখি শুরু হওয়ার জন্যই বোধায় রেনেসাঁ পরবর্তী য়ুরোপে একেকটা বিষয়ের জ্ঞানচর্চা ক্রমশ আরো গভীরে যেতে পেরেছে, একজন যা লিখেছেন সেটা আরেকজন আরও বাড়াতে পেরেছেন, যা আমাদের দেশে হয়নি।


Name:  দেবব্রত           

IP Address : 7845.15.565623.27 (*)          Date:29 Oct 2018 -- 04:31 PM

সন্দেহ নেই টিকাকরন ছিল,উত্তর এবং পুর্ব ভারতে ব্যাপক মাত্রায় ছিল, অনেক রকম পদ্ধতি ছিল যার কিছু কিছু হলওয়েল বিস্তারে লিখেছেন। খুব বেশি বড় বই না ৮০-৯০ পাতা হবে, আর্কাইভে পাওয়া যায়। ইন ফ্যাক্ট যে ফেসবুক পোস্টে বিতর্ক চলছিল একজন সেখানে লিনক দিয়েছেন।কেবল ইংরেজরা নয়। ফরাসি,ডাচেরা ডাটা কালেক্ট করে তাদের দেশে লিখেছেন হলওয়েলের আগে। হ্যা তবে আমাদের দেশে বিস্তারিত রেকর্ড নেই,ট্রেড সিক্রেট টাইপ হতে পারে। হল ওয়েল লিখেছেন প্রতি ৭ বছর গ্যাপে এই মহামারী দেখা দিত আর বদ্যিরা ঠিক সময়ে ছোট ছোট দলে ভাগ হয়ে বিভিন্ন এলাকায় পৌছে যেত। সিধা এবং ফিস মিলত যার যেমন ক্ষমতা সেই অনুসার। ১৮০২ সালে জেনারের ভ্যাকসিন কলকাতায় পৌছানোর পড়ে বদ্যির দল বিদ্রোহ করে, ইংরেজ রা রীতিমত তাদের সামনে ডেমো দেয় এবংং ভ্যাকসিন দেওয়ার টিমে সামিল করে অশান্তি সামাল দেয়। এই বিদ্যা কোথায় কোথায় প্রচলিত ছিল তা বুঝবার উপায় কোথায় কোথায় শীতলা মাতার মন্দির ছিল/ আছে। আমি যতদুর জানি বাংলা ছাড়াও উত্তর ভারতে,পাঞ্জাবে মহারাস্ট্রে শীতলা দেবী আছেন কিন্তু দক্ষিণে নেই।


Name:  PT          

IP Address : 340123.110.234523.22 (*)          Date:29 Oct 2018 -- 07:40 PM

Indian J Med Res 139, April 2014, pp 491-511

The evidence indicates that smallpox inoculation was practiced in China in around 1000 AD and in India, Turkey, and probably Africa as well [3,9-12]. The inoculation, ‘the process of injecting an infective agent in a healthy person, which leads to often mild disease and preventing that individual from future serious disease’ was common in India[12].

http://medind.nic.in/iby/t14/i4/ibyt14i4p491.pdf


Name:  sswarnendu          

IP Address : 2367.202.128912.199 (*)          Date:30 Oct 2018 -- 02:04 AM

পিটি,

ওই আপনার লিঙ্কের ডকুমেন্টে ওই রেফারেন্স [3, 9-12] সব বহু পরে লেখা সেকেন্ডারি অ্যাকাউন্ট, সেগুলো দেখিনি, তাই সেখানে প্রাইমারি মেটেরিয়াল কিছু সাইট করা আছে কিনা জানিনা। কিন্তু অন্তত এই পেপারে প্রাইমারি রেফারেন্স বলতে ওই হলওয়েলই শুধু ( এই ডকুমেন্টের রেফারেন্স হিসেবে [13])।

বরং এই লিঙ্কে রেফারেন্স [14] র টাইটেল দেখে সেইটা জোগাড় করার আগ্রহ জাগল, কারোর কাছে থাকলে সন্ধান দেবেন একটু।

Wujastyk D. A pious fraud: the Indian claims for pre-Jennerian smallpox vaccination.
In: Jan Meulenbeld G, Wujastyk D, editors. Studies on Indian medical history. Delhi: Motilal
Banarsidass Publishers; 2001.





Name:  dc          

IP Address : 127812.49.678912.161 (*)          Date:30 Oct 2018 -- 05:23 AM

স্বর্ণেন্দু, এখানে পাবেনঃ

http://www.academia.edu/451964/_A_Pious_Fraud_The_Indian_Claims_for_pr
e-Jennerian_Smallpox_Vaccination



Name:  Atoz          

IP Address : 125612.141.5689.8 (*)          Date:30 Oct 2018 -- 05:37 AM

প্রাচীন সাহিত্যে অর্থাৎ কিনা গল্পে উপন্যাসে এর কোনো উল্লেখ আছে কি? মহামারীর কথা বহু গল্পে উপন্যাসে আছে, নানারকম ভয়াবহ সব ব্যাপারের বর্ণনাও আছে, কিন্তু দেশীয় পদ্ধতিতে শীতলা মন্দিরে গিয়ে টিকা নেবার কথা কোথাও আছে কি?



Name:  sswarnendu          

IP Address : 2367.202.128912.199 (*)          Date:30 Oct 2018 -- 06:17 AM

dc,
হ্যাঁ পেয়েছি। পড়ে শেষ করে এখানে লিখতে এসে দেখলাম আপনিও দিয়েছেন। ধন্যবাদ। খুব ইন্টারেস্টিং গল্প কিন্তু।


Name:  dd          

IP Address : 670112.51.3423.34 (*)          Date:30 Oct 2018 -- 08:30 AM

হ্যাঁ, আরো একটা বহুল প্রচারিত ফ্রড হচ্ছে মহর্ষি ভরদ্বাজ বিরচিত "বিমান শাস্ত্র"। এই রকম কোনো পুঁথি ছিলো না। আদৌ না।পুরোটাই জালিয়াতি। এবং খুবই কাঁচা হাতের কাজ।

এখন আর পুরোনো বই ঘেঁটে রেফারেন্স দিতে পারবো না।

আরো একটা পপুলার ফ্রড, সব সমুদ্র উপকূলের মন্দিরেই আছে (কোণার্ক, মহাবল্লীপুরম) যে চূড়ায় একটা বিশাল ম্যাগনেট লাগানো ছিলো - তাতে করে সেই টানে জাহাজেরা চলে আসতো মন্দিরে। (ফিরতো কী করে?)। একেবারে ছেলেমানুষী রূপকথা।

আর বেদেয় লেখা আলোর গতি নিয়ে তো এই সেদিন লেখাটেখা হলো গুচতেই।


Name:  amit          

IP Address : 340123.0.34.2 (*)          Date:30 Oct 2018 -- 10:24 AM

ডিডি দা, আপনাকেই জিগাই ।

এই সব শাস্ত্র বা পুরাণ, এগুলোর একটা আন্দাজ কিন্তু অথেন্টিক টাইম লাইন পাওয়া যায় ? সুশ্রুত সংহিতা এর সময়কাল টাই বা কি ? লরেনবাবুর ভক্তেরা তো প্রায় ৪ -৫ হাজার বছর পেছনে ঠেলে দিচ্ছে আজকাল। কয়েকজনের লেখাতে পড়েছি রামায়ণ বা মহাভারত মোটামুটি ৮০০ -১২০০ শতাব্দীতে লেখা বা পরিমার্জনা করা। কদিন আগে তা বলতে গিয়ে প্রায় মার খাওয়ার জোগাড়।


Name:  অভি          

IP Address : 7845.11.4534.57 (*)          Date:30 Oct 2018 -- 10:29 AM

গেল বছর কোনার্ক গিয়ে দারুণ অভিজ্ঞতা হয়েছিল। এক গাইড শুনিয়ে যাচ্ছেন। আমার পাশ কাটিয়ে যাওয়ার সময় কিছুটা কানে এল। মোদ্দা বক্তব্য, দারুণ এক চুম্বক ছিল। জাহাজ টেনে আনত। দেউলের শিখরে তার অবস্থান। বাদশাহ আকবর এতে রেগে যান। ডিনামাইট ফাটিয়ে তিনি মূল মন্দির ভেঙে চুম্বক চুরি করেন।


Name:  dc          

IP Address : 127812.49.678912.161 (*)          Date:30 Oct 2018 -- 10:29 AM

আমারও এরকমই একটা ধারনা ছিল, যে রামায়ন মহাভারত আজ থেকে মোটামুটি হাজার বছর আগে লেখা হয়ে থাকবে। তবে তখন তো বোধায় লেখা খুব বেশী হতো না, মুখে মুখে আলোচনা চলতো, আর জেনারেশানের পর জেনারেশান বোধায় ওভাবেই গল্পগুলো তৈরি হয়েছিল। ভুল বল্লাম কিনা জানিনা।


Name:  lcm          

IP Address : 900900.0.0189.158 (*)          Date:30 Oct 2018 -- 10:40 AM

গাইডের কথা শুনলেই সেই গপ্পোটা মনে পড়ে, সেই একজন গাইড খুব জোর দিয়ে বলছেন - আজ থেকে ৮০০ বছর আগে...। একটা বাচ্চা ছেলে তাই শুনে বলে উঠল - এ বাবা গাইড ভুল বলছে। গাইড তো রেগে আগুন, বাচ্চাটির বা-মাও বিব্রত। জিগ্গেস করাতে ছেলেটা উত্তর দিল - দু বছর আগে যখন এসেছিলাম তখনও তো বলেছিল ৮০০ বছর আগে, এখন তাহলে ৮০২ হবে।


Name:  b          

IP Address : 562312.20.2389.164 (*)          Date:30 Oct 2018 -- 10:59 AM

রামায়ণে, (মূলে কি?) এক জায়গাতে আছে রাম বৌদ্ধ ও নাস্তিকদের গালাগালি দিচ্ছেন। এখন সেই পার্টটা কিছুতেই বুদ্ধের জন্মের আগে লেখা (বা ডকুমেন্টেড হতে পারে না)।


Name:  PT          

IP Address : 340123.110.234523.25 (*)          Date:30 Oct 2018 -- 12:38 PM

।..........তার পরে সেই বিরাট চুম্বকটা গেল কোথায়?


Name:  sswarnendu          

IP Address : 341223.55.458912.194 (*)          Date:30 Oct 2018 -- 01:57 PM

হাজার বছর আগে টা সম্ভবত খুবই কম হয়ে গেল। দশম শতাব্দীতে লেখা নয়, মহাভারত গুপ্তযুগেই লিখিত আকারে ছিল। মূল রচনা আগের। বিজেপির দাবী 5000 বছর আগের, যেটা হাস্যকর।


Name:  dd          

IP Address : 90045.207.4556.206 (*)          Date:01 Nov 2018 -- 09:03 AM

মোটামুটি ভাবে সেকুলার ঐতিহাসিকদের দেওয়া টাইমলাইন। (সেকুলার কথাটা নানান অপব্যবহারে অ্যাতো বাজে হয়ে গ্যাছে যে অন্য কোনো টার্ম লিখলে খুসী হতাম, কিন্তু ত্যামন জুৎসই কিছু মনে পড়ছে না)।

কুরুক্ষেত্র যুদ্ধ, যদি সত্যি ঘটে থাকে, তবে সেটি হয়েছিল খ্রীষ্টপুর্ব নবম শতকে(কম বেশী একশো বছর) । এবং মহাভারতের আদি রচনাকাল শুরু হয় খ্রীষ্টপুর্ব চতুর্থ শতক থেকে। প্রথমে ছিলো জয় নামে এক নেহাৎই যুদ্ধ কাহিনী, পরে নানান ধর্ম ও উপনিষদের সংস্পর্শে এসে একটা মহাকাব্যের রূপ নেয় খ্রীষ্টপুর্ব প্রথম শতকের আগেই। এটি দ্বিতীয় পর্যায়, যেখানে যুদ্ধ বিবরণীর সাথে যোগ হয়েছিলো নানান উপকথার। প্রায় এক পুরাণের মতন।

এই শ তিনেক বছর ধরে সংযোজিত দ্বিতীয় পর্বের পরে আসে তৃতীয় পর্ব, যাকে বলা হয় ব্রাহ্মণ্য সংযোজন। গুপ্তযুগের সূচনায় ভৃগুবংশীয় উগ্র ব্রাহ্মণদের হাতে এই "মূল" মহাভারতটি সম্পুর্ণ হয়। সেগুলি নেহাৎই অনুশাসন ভিত্তিক, মূল মহাভারতের সাথে সম্পর্কহীন নীরস ও অপকৃষ্ট রচনা।

শুরুতে যে যুদ্ধ কাহিনী ছিলো আট থেকে নয় হাজার শ্লোকের, দ্বিতীয় দফায় সেটি চব্বিশ হাজার শ্লোকের আয়তন নেয়, আর তৃতীয় সংযোজনে সেটি নব কলেবরে প্রায় পঁচাশি হাজার শ্লোকের এক মহাকাব্য হয়ে ওঠে।

বর্তমানে প্রচলিত মহাভারতের আঠারো পর্বগুলির মধ্যে আদি,সভা,বন ও বিরাট পর্বের অল্প অংশ এবং উদ্যোগ থেকে কুরুক্ষেত্র যুদ্ধের শেষ অর্থাৎ স্ত্রী পর্ব ছিলো "জয়" যুদ্ধ কাহিনী। দ্বিতীয় পর্বে এই গুলির মধ্যেই কিছু কিছু উপকথা প্রবেশ করে এবং শন্তিপর্বের কিছুটা রচিত হয়। বাকীটা প্রায় পুরোটাই তৃতীয় পর্য্যায়ের ব্রাহ্মণ অনুপ্রবেশ ।






Name:  sswarnendu          

IP Address : 2367.202.128912.199 (*)          Date:02 Nov 2018 -- 05:50 AM

dd দা,

খ্রীষ্টপুর্ব নবম শতকে হলে আর হাজার বছর কিকরে হয়? খ্রীষ্টজন্মের হাজার বছর আগে বলতে চেয়েছিলেন বোধহয়।


Name:  sswarnendu          

IP Address : 2367.202.128912.199 (*)          Date:02 Nov 2018 -- 05:51 AM

ওহো ওটা dc লিখেছিলেন।

এই সুতোর পাতাগুলি [1] [2]     এই পাতায় আছে13--43