বইমেলা হোক বা নাহোক চটপট নামিয়ে নিন রঙচঙে হাতে গরম গুরুর গাইড ।

এই সুতোর পাতাগুলি [1] [2] [3] [4] [5] [6] [7] [8] [9] [10] [11] [12] [13] [14] [15] [16] [17] [18] [19] [20] [21] [22] [23] [24] [25] [26] [27] [28] [29] [30] [31] [32] [33] [34] [35] [36] [37] [38] [39] [40] [41] [42] [43] [44] [45] [46] [47] [48] [49] [50] [51] [52] [53] [54] [55] [56]     এই পাতায় আছে1171--1200


           বিষয় : পর্বে পর্বে কবিতা - তৃতীয় পর্ব
          বিভাগ : অন্যান্য
          বিষয়টি শুরু করেছেন : pi
          IP Address : 128.231.22.133          Date:17 Dec 2011 -- 07:10 AM




Name:  san          

IP Address : 11.39.33.233 (*)          Date:13 Jun 2015 -- 01:44 PM

টিমের কবিতা খুবই ভাল লাগল।



Name:   ফরিদা           

IP Address : 127.194.48.245 (*)          Date:15 Jun 2015 -- 02:02 PM

উত্তর আনন্দকালে

চুপ থাকি, প্রস্তুত থাকি প্রচন্ড বর্ষায় প্রায় গলে গলে
মেঘেরা পড়েছে ঝরে একচালা বুকের অনন্ত গভীরে
তবু, সাবলীল স্বাভাবিক অভ্যাসে, দিয়ে গেছি ফাঁকি।

তুমিও নক্ষত্র যোগে, শব্দের সুপ্রয়োগে ডেকেছিলে
আমাদের- কোনো এক বৃষ্টির বিকেলে ভেজা ভেজা
পাখির বাসার থেকে খড় ভেসে গেলে গানের আভোগে

তীক্ষ্ণ রাস্তা ধরে সুতীব্র চিৎকারে ছুটেছিল পরিচিত বাস
গতকাল বিকেলের আগে পর্যন্ত সেই উৎসব অধিবাস
স্তবের মতোই যেন এখনও উচ্চারণে হয়ে আসে ক্ষীণ
প্রত্যন্ত গলি থেকে প্রতিদিন ওরা এইভাবে ছুটিয়েই মারে।

তবু মোহময় যেন ভাসানের সময় ফের ডাকে তড়িঘড়ি
ছোট বড় সাদাকালো গাড়ি বুঝি আড়াল করেছে, ফলে
বৃষ্টির জলে ধুয়েছে কান্না যত, চুপ থাকি সেই কথামতো
তুমি, অনেক দূরের থেকে অকারণ ভালোবাসা জেনো।








Name:   Somnath Roy           

IP Address : 24.139.194.12 (*)          Date:15 Jun 2015 -- 03:34 PM

শালপাতা সিন্দুরে মুড়ে স্বহস্তে ছিন্ন এই শির
তোমার সেবায় নিয়ে আসি আজ তোমার মন্দিরে
দেউলে দরজা খোলা, মূর্তির প্রাণে যদি আসো
যেরকম বজ্র আসে অরণ্যের শ্যামলিমা চিরে-

এই দ্যাখো যূপকাষ্ঠে ছিন্ন হওয়া বুদ্ধি ও মনঃ
এখনও বনের দেবী রক্ততৃষা জাগবে না তোর?
সাম্রাজ্যে এসেছি আমি, অবাঞ্ছিত বিদেশী, তাও
বিষাক্ত তীরের ফলা বিদ্ধ করে দেবে না সত্বর?

শবখানি পড়ে থাক রাজসভা অভিমুখে, পথে
মৃতের শরীর থেকে কেটে নেবে শীতল হৃদয়
স্বয়ং অধীশ্বরী সেই ট্রফি জাদুঘরে রেখে
বলে দেবে, উন্মার্গের শাস্তি যেন এইরূপ হয়

বিনা যুদ্ধে হেরে যাবো, তবু কিছু অধিক সেবায়
তোমার মন্দিরে তুমি প্রাণ হও মৃত্যুর সুরে
এমন যোদ্ধৃবেশ, ছিন্ন শিরে নিষ্পলক দেখি
কবন্ধ হৃদয় কেটে, শালপাতা সিন্দুরে মুড়ে


Name:   ফরিদা           

IP Address : 127.194.37.68 (*)          Date:16 Jun 2015 -- 09:44 AM

অজুহাত

বহুদুর রাস্তা হেঁটেছি
পেরিয়েছি স্থানু পরবাস
কিছুদূরে তোমার, থেমেছি
লিখতেই সেই ইতিহাস।

পৌছলে ইতিহাস কালে
যাকে তুমি ভূগোল বলতে
বয়সের গলা ডোবা জলে
ক্রমে নামি আমিও খেলতে

সে খেলার বয়স বাড়লে
নিজ ঘরে ফেরা জ্যোৎস্নায়
ভেজা বালি পকেট হাতড়ালে
কী শব্দ ফেরৎ পাঠায়?

তাই ফিরি মাঝে মাঝে যেন
কিছুদুরে থামিয়েছি খেলা
চালশের অজুহাত জেনো
রাত্তিরে ভুতে মারে ঢেলা ।



Name:  0          

IP Address : 132.163.90.182 (*)          Date:16 Jun 2015 -- 07:00 PM

অ্যাড্রেসি প্রায়ই 'তুমি'। অবশ্যই মানে আলাদা। তবুও - এই 'তুমি'রা কি, কে, এসব ভাবনা হুট্‌ করে আসে যায়।
টিম - "...তুমি ঘুমোও দূরে..."
ফরিদা - "...তুমি, অনেক দূরের থেকে..."
সোমনাথ - "...তোমার মন্দিরে তুমি প্রাণ হও..."
শিবাংশু - "...তুমি কি অমিয় মেঘ..."


Name:   ফরিদা           

IP Address : 127.194.39.241 (*)          Date:17 Jun 2015 -- 09:26 AM

প্রচ্ছন্ন পায়রাগুলি


আমাদের প্রচ্ছন্ন পায়রাগুলি ঢাকা থাকে টুপির তলায় দিনমানে
পৃথিবীর চলা ফেরা সামাজিক গানে তারা মাঝে মাঝে সাড়া দেয়
বিনিময়ে দানাপানি, তবু ওরা জানে কোনখানে একলা দাঁড়ালে
মাঝে মাঝে আশাতীত বসবাস ফিরে আসে- অত্যন্ত গভীর আকাশে
আর আড়াআড়ি ওড়ে – জানলার কার্ণিশে কার্ণিশে আঠা আঠা ঘাম,
টুপির পালকগুলি, তার মাপ, দাম, রঙ, ছায়া, ধ্বনি অনুরণনের হাত
ধরে হেঁটে যায় দূরতর নীলে, আপাতঃ স্তব্ধতায় গিয়ে মিলিয়ে দেখতে
চায় তার স্বর, ব্যথাতুর কিছু আখ্যান, ফলে গাঢ়তর নীলে ডুবে যায়।

এটুকু বিচ্যুতি ব্যাতীত পায়রাগুলি অনুগত, টুপির ভিতরে ভিতরে
এমনিতে সারাদিন হাবাগোবা, হুকুম চাইতে থাকে সারাদিন দুই চোখে
মস্তিস্কের কোষে কোষে প্রত্যেকের কাছে গিয়ে কৌটো ঝাঁকিয়ে আসে
এই তার খেলা, সারা দিনমানে দানাপানি যোগানের নামে মেতে ওঠে –
যতটুকু জোটে। ক্রমশঃ একলা পেলে জালে, শিকড় নামিয়ে দেয় মাথার
ভিতরে এরা। মানুষ প্রচ্ছন্ন হয় টুপির পায়রাগুলি নিজস্ব ডানা ঝাপটালে।




Name:  Ishan          

IP Address : 183.17.193.253 (*)          Date:17 Jun 2015 -- 09:31 AM

এইটা ভয়াবহ হয়েছে।


Name:   ফরিদা           

IP Address : 127.194.38.223 (*)          Date:18 Jun 2015 -- 06:52 PM

এখন কিন্তু ঘরের মধ্যে আলো জ্বালতেই ভয় করছে
সত্যি যদি যাও মিলিয়ে – পোড়ামাটির আকাশ থেকে
আলো যেমন, শব্দ তোমার, গন্ধ তোমার- ভরসন্ধ্যায় ছুঁয়ে যাচ্ছে
গাছের বুকে বৃষ্টির রং, কুন্ঠা বহুল পেয়ালা পিরিচ
ওই অশ্বত্থে ঘরে ফেরা পাখিগুলোর বকবকানি ঘাই মারছে –

কত কী যে মনে পড়ছে – ভন্যিদুপুর, মাঝরাস্তায়
যখন তুমি ঘিরে থাকছ – আড়াল করে মেঘের মতো-

চোখ খুলতেই ভয় করছে।




Name:   ফরিদা           

IP Address : 127.194.38.223 (*)          Date:18 Jun 2015 -- 10:55 PM

শব্দেরা স্বপ্নে ছুঁয়েছে –
তুমি অকারণ পাশ ফিরে কেন তাকে টেনে নিলে বুকে
জান না কি? বৃষ্টিরা কী প্রচণ্ড সুখে মাটির গভীর খুঁজে নেমে আসে –
সবাই দেখেছে তাকে জল দিতে ফল দিতে ফসলের দিকে ধানক্ষেতে
নাকি তুমিই ডেকেছ শুধু নামতে মাটির বুকে স্বপ্নে ভেজাতে?

জান না কি?
কিছু আলো পৃথিবীর থেকে মরে যেতে যেতে তোমার চুলের পাশে
থেমে যায়। জোনাকি দেখেছ তুমি? ঘুরঘুর ঘুরঘুর একলা হেঁটেছ
যেই রাত্রি আড়ালে- আলোটি ছুঁয়েছে শুধু তুমি তাকিয়েছ বলে?

জেনো তুমি –
ঘুমের অনন্ত রাতে শব্দরা ফিরে ফিরে দেখেছে তোমাকে
যেভাবে নিবিড়ে তুমি একলাটি জোছনা পাহারা রেখে
নদীতে নেমেছ আর ডানাদুটো পাড়ে বসে বসে জিরিয়েছে ।
তোমাকে একলা দেখে শব্দরা অকারণ কথা হয়ে তোমাকে পেয়েছে।

এই চিঠি
আজ কেউ কেউ লিখেছিল যখন ঘুমের ভিতরে তুমি ঘুরে বেড়িয়েছ
সমুদ্র সৈকতে একা একা – বেলাভূমি জুড়ে ঢেউ বয়ে ফিরে আসা
ঝিনুকের খোলে – তোমায় একলা নিয়ে ভাসিয়েছে-
শুধু, তুমি চেয়েছিলে বলে।



Name:  Tim          

IP Address : 24.99.229.169 (*)          Date:19 Jun 2015 -- 10:53 AM

ফরিদার প্রচ্ছন্ন পায়রাগুলি খুব ভালো লাগলো


Name:  san          

IP Address : 11.39.33.123 (*)          Date:19 Jun 2015 -- 11:49 AM

প্রচ্ছন্ন পায়রাগুলি পড়ে আবার বিনয় মজুমদার পড়তে ইচ্ছে করে। ফরিদাদা , চমৎকার !


Name:  kumu          

IP Address : 132.161.17.180 (*)          Date:19 Jun 2015 -- 01:36 PM

প্রচ্ছন্ন পায়রাগুলি,শহর ছেড়ে শহর -অসাধারণ লাগলো বলে কিছুই বলতে পারলাম না।


Name:  Tim          

IP Address : 24.99.205.63 (*)          Date:22 Jun 2015 -- 12:43 AM

ঘুম আসে ঘুম ভাঙে শিশিরের মত চুপ
উপত্যকার রঙ মেঘের গায়ের সাথে
অস্থির ঘোড়া এক উঁচু ঘাসে ঘেরা জমি
পিছল কাচের দানা ভেঙে চৌচির সেই
বৃষ্টিতে ভিজে চলে গলায় ছোলার থলি
বাঁকে বাঁকে উঠে গেছে গাড়িচলা সরুপথ
জানলায় মেঘ করে বাষ্পেরা সাবানের
রোজ ওরা স্কুল থেকে ফিরেই জিগেশ করে
আদরের কথা নয় আশঙ্কা গুটিপোকা
চাদরের নিচে শোয়া ঠোঁট ফাঁক কষে কোন
অতীতের অর্ধেক বলে ফেলা বেঁচে নেওয়া
আবার কাচের দানা জমাট কফিন খুব
ঘুম আসে ঘুম ভেঙে শিশিরের মত চুপ


Name:   ফরিদা           

IP Address : 11.39.34.135 (*)          Date:23 Jun 2015 -- 11:33 PM

যেন তুমি লেখার মতো কিছু সহসাই ঘুরে দাঁড়িয়েছ পাতার উপরে
দেখ, কত অসহায় আমি - লিখে যেতে যেতে প্রায়শই থামি তোমার চাহনি ধরে
পৃথিবীর যত অক্ষর যত নগরপত্তন হয়েছিল এতদিন ধরে ক্রমে দেখি
খান খান হয়ে যায়
প্রতিদিন খুন হয় একলা মানুষ আজো
মাঝেসাজে কেউ দেখি হেঁটে যায় মেঘের ভিতরে একা।
চুপচাপ স্তব্ধতা বসে বসে দেখে এইসব
কখন এগোবে ফের-
এই সব কত্থা কিছু আসে
যখনি থেমেছ তুমি লেখার মতোই একা মাঝরাত্তিরে।


Name:  Tim          

IP Address : 24.96.103.168 (*)          Date:24 Jun 2015 -- 01:14 AM

শিয়রে বসার দিন হাওয়া উঠেছিলো-
এমনিই ঝোড়ো হাওয়া একমুঠো খইয়ের মতন
শিয়রে ঘুমোনো রাত জেগেছিলো অনেক প্রহর
এমনিই জমা ঘুম গাবগাছে পাতার আঠায়
শিয়রে ইঁদুরছুট ব্যস্ততা কাগজে কলমে
এমনিই ব্যস্ততা যেমন দিনের শেষে পাখী
শিয়রে স্বপ্ন নিয়ে কাঠকুটো জড়ো করে ফের
এমনিই কাঠকুটো ছানাদের হাঁয়ের আদল
শিয়রে বাড়ির কথা একটেরে বাসার বিলাস
এমনিই বিলাসিতা সফেদ চাদরে ঢাকা দেহ
শিয়রে মুক্তি ছিলো কষে শ্লেষ চোখ ছলছল
এমনিই রেখা টানে দেবদ্বিজ ভক্তির ভার
শিয়রেই ঝড় ছিলো স্নেহবঞ্চিত ঐ দেহ
এমনিই পুড়েছিলো চুল্লীর স্বাভাবিকতায়


Name:   ফরিদা           

IP Address : 192.68.230.124 (*)          Date:25 Jun 2015 -- 09:27 PM

মনে রেখো, পৃথিবীতে বৃষ্টি নেমেছে আজ
স্নানের দুপুরে তুমি যতখানি মেলে দিতে ছাতে
বহুদিন যেসব পাতাকে, তাদের অনেক কাজ
লেখা ছেড়ে পুরনো হয়েছে যেন অক্ষরে অক্ষরে।
স্মিত বৃষ্টির দিন অন্তঃসলিলা বয়ে যায় ধীরে ধীরে
অন্ধকার খাদের গভীরে, তার পিছু পিছু, দু একটা
শব্দের হাত ধরে বিড়বিড় করে করে তুমি পালাতে
চাইছ বলে বৃষ্টি আটকে দিল যেন একান্ত নিবিড়ে।

আজকাল বৃষ্টিরা সাবধানী, আঁচল বাঁচিয়ে চলে
অফিসের গ্লানি তারা লুকিয়েছে মেঘের কোটরে
আমি তার কিছু কিছু জানি, ওরাই বলেছে তুমি
সারাদিনরাত শুধু পাতাই উল্টে গেছ কিছুই লেখনি।
আধবেলা ধার নিয়ে জানলাটি যখনি খুলেছে তুমি
তখনি বৃষ্টি নেমেছে – কেঁদেছিলে, কেউ তা দেখেনি।


Name:   অনিকেত পথিক           

IP Address : 24.139.222.45 (*)          Date:26 Jun 2015 -- 02:51 PM

অপেক্ষায়। জলের সবুজ ঘিরে
লতাগুল্ম ঝোপঝাড় হয়ে
একঠায়। স্থবির শরীর থেকে পাতা
ঝরে, প্রজাপতি উড়ে বসে শুকনো
শাখায়। জলফড়িংটি স্থির,
জলের স্থিরতা ভেঙে ঘাই মেরে
যায় আমার শরীরে, বড় চেনা কেউ
মাকড়সার জালবোনা দেখে চুপচাপ
অপেক্ষায়। কবে ভালবাসা এসে বসে
আমার নিঃঝুম সত্ত্বায়।



Name:   অবন্তিকা           

IP Address : 126.202.219.114 (*)          Date:27 Jun 2015 -- 01:30 AM

এই পদ্যগুলো জাস্টিস এন্থনি কেনেডি-কে উত্সর্গ করলুম l :P

১.
একদিন তোমার গান শুনতে যাবো l
বিলম্বিত সন্ধে পেরিয়ে,
ত্রস্ত ডাউনটাউনের শেষপ্রান্তে কোথাও
সবেমাত্র তুমি যে মধ্যলয় ঘরে এসে পড়েছ,
তার সাবলীল দরজায় কণ্ঠ রেখে
তোমার গান শুনতে যাবো একদিন l

২.
এ আঙুল কোমল ধৈবত ছুঁয়ে শুদ্ধ নিখাদে ভ্রাম্যমান l
অদূরে ক্যামোমিল বিকেলের বাতাসে বাজে স্থির l
হলুদ ফুলের বুকে সাদা ওড়নার মতো
দীর্ঘ দীর্ঘ সব নিরুত্তর
আমার হাসপাতালের বিছানার নিচে শুয়ে -
তারপর প্রজাপতি, ঘোলাটে জলের রাত
রক্তে চারিয়ে যেতে যেতে
কীকরে মালকোষ হয়,
জানো?

৩.
আমি তো তোমাকে ভাবি,
তোমাকেই ভেবে গেছি গুটিকয় সভ্যতা জুড়ে,
নগ্ন ভাস্কর্যের শীতে
জড়িয়েছো আদিগন্ত
জড়িয়েছো মৃদুতা আমায় -
সেসব বুঝিনি ভাবো?
কিছুই বুঝিনি ভালো, দ্রুতলয় আশ্লেষ ছাড়া?
যোনিতে যোনির ক্ষত,
স্তনে স্তন, মিশে গেলে প্রায়
ফ্রিডা কাহলোর মতো, এখনই স্পষ্ট হবে
তোমার নাভির কাছে
তোমার ঠোঁটের মতো দিন


Name:  b          

IP Address : 135.20.82.164 (*)          Date:28 Jun 2015 -- 09:00 AM

গহনে সন্ন্যাসী এক সারাদিন নিরিবিলি কথা বলে যায়।
বলে ওঠে, " জাগো তুমি, কারণ প্রতিটি কথা
শেষ কথা, প্রতিটি দেখাই শেষতম,বোধনের আগমনী
মিশে যায় ভৈরবীর সুরে।
এক আকাশ স্তব্ধতায় দিন শুয়ে থাকে
ইলশে গুঁড়ির মত রোদ ঝরে গাছের পাতার
ফাঁক দিয়ে,
মফঃস্বলী প্রৌঢ় পুকুর
শান্ত চোখে দেখে নেয় আরো এক সূর্য্যগ্রহণ।

বোঝনা? বোঝনা কিছু?

পেছোবার পথ নেই, দাঁড়িয়েছে জ্ঞান, কর্ম --আদিম নিষাদ
বসন্তবয়স শেষে নিহত স্বপ্নের মত অর্জুনবিষাদ


Name:  pi          

IP Address : 192.66.3.163 (*)          Date:28 Jun 2015 -- 09:13 AM

বাঃ ! এইটা ও আগের অনেকগুলো কবিতার জন্য রইলো।


Name:   ফরিদা           

IP Address : 11.39.33.139 (*)          Date:01 Jul 2015 -- 04:17 AM

লিখি তবে ঘুণপোকা কেন আসে যায় মাঝখানে
যেন তার অতি সুসময় বাড়িতে অতিথি এল ঘন কালো মেঘে
সমুদ্র ফেরারী হাওয়া নিয়ে আসে আপাতঃ প্রশান্ত মুখে
কখনো সখনো ঝড়, দুই পায়ে কালো অক্ষর নেমেছে মাটিতে
যেখানে পাতারা আছে, দলিত মথিত ঘাস যেন অবকাশ
আধ খাওয়া কবিতার মতো তোমাকে অনর্থ করেছে

অথচ নদীর কিছু মনে নেই, এতদিন পরে দাবী নেই
রাত্রি জাগরণ শেষে শ্মশান যাত্রী সব ফিরেছিল ঘরে
তাদের পোশাকে ধুলোবালি লেগে থাকে বটে শোকতাপ নেই
সুখের বাগানে যত প্রজাপতি এসেছিল এতকাল ধরে
তাদের কখনো কারো মনে নেই পুরনো ঠিকানা পুরোপুরি।
তুমিও জেনেছ ক্রমে আমাদের যত কিছু স্খলন তর্পন সব
ভাসান গিয়েছে ঝড়ে। বিবৃতি দিয়েছে তার বুনো ঝোপঝাড়
যখন উপড়ে গেছে মহীরুহ নদীতটে একা একধারে


Name:   ফরিদা           

IP Address : 192.68.171.202 (*)          Date:01 Jul 2015 -- 06:39 AM

তোমাকে লিখিনা আমি বহুদিন একা একা কোনো
প্রান্তরে হেঁটে গিয়ে মনে হয় যদি কিছু বলো- কিছু শোনো
পাথরে রয়েছে দাগ, অজুহাত, জন্মের কাছাখোলা দোষ
লুকিয়ে দেখতে থাকে তোমাকে আমাকে - স্বাদু পরিতোষ।
কখনো দেখেছি দূরে একা একা কোনো এক হেমন্ত সকালে
শিশিরে আবিল পাখি আলস্যে বসেছিল, যেই না তাকালে-
উড়ে যায় দ্রুত কোনো অস্পষ্টতায় আমি যার ঠিকানা জানিনা
তোমাকে দেখেছি আমি বহুদিন - কিছুতেই তোমাকে লিখিনা।


Name:   ফরিদা           

IP Address : 192.68.76.50 (*)          Date:01 Jul 2015 -- 08:59 PM

অচেনা ফাঁপড়ে পড়ো অহেতুক পুরনো কথায় তুমি কেন বিশ্বাস করো?
জাননা পৃথিবী খোল তোলপাড় হয়েছিল বলে ওইসব কথাগুলো
বাতিল হয়েছে আর অবাধ্য ডাইনোরা, দোতলা বাসের মতো তেল খেয়ে চুপচুপে কায়ক্লেশে চলে।
ছেঁড়াখোঁড়া সাদামাটা কথাগুলো হলদে হয়েছে কবে
এখন বলতে গেলে ঝুরঝুর করে শুধু ধুলোয় গড়াবে।
ঘরময় নোনা ধরা, উঠোন তো নয় যেন সাবেক জঙ্গল
এইবেলা মায়া ত্যাগ করো - হোক তাতে দেশের মঙ্গল।


Name:   ফরিদা           

IP Address : 11.39.35.118 (*)          Date:02 Jul 2015 -- 06:00 AM

এই পাড়টা গড়ছে যখন
ওই পাড়টি ভাঙা
রাজত্ব আর রাজ্যশাসন
খেলছে কুমীরডাঙা।

এই দিকে যেই পাকাচ্ছে জট
অন্য সুতোয় খুলছে
নদীর খেলায় বুঝভুম্বুল
সাঁকো আজকাল দুলছে।

নদী সাঁকো কুমীর টুমীর
জট পাকাচ্ছে মাথায়
সবার মতোই আমি তুমি
রাখছি হিসেব খাতায়।


Name:   ফরিদা           

IP Address : 11.39.35.118 (*)          Date:02 Jul 2015 -- 07:13 AM

একটা শালিখ প্রায় প্রত্যেক সকালে আমার সামনে আসে।
উড়ে আসে, খুঁটে যায় ঘাসে ঘাসে কিছুটা লাফিয়ে হেঁটে
ঘাড়টা হেলিয়ে দেখে যেন চারপাশ চেটে পুটে ডিউটি করতে
এখানে একাই আসে সকালে খবরের কাগজের মতো উদাসীন
আমাকে দেখে না সে যেন সরোজমিন তদন্ত প্রয়োজনে ক্লান্তিতে
প্রতিটি দিনের মতো না ভালোবেসে উড়ে আসে খুঁটে খেতে।

কারণ খুঁজেছি এর। সারাদিন মান ধরে জমিয়ে জমিয়ে রাখি
সুকর্মফল আমি অন্য সবার মতো খিদে টিদে মেটানর পর
স্বল্পসঞ্চয় যেন ডাকঘরে। অবরে সবরে যদি দরকার হয়
সেই সব সৌভাগ্য কুঁচি প্রায় প্রত্যেক সকালে ওই শালিখটা
লুঠ করে নিয়ে যায়। শাইলক নাকি, মাংস কাটতে আসে
যেন এক সুদুর ইতিহাসে নিয়েছি কর্জ আমি কোনো দিন
ওই শালিখটা আর সঙ্গিনীর কাছে খুলে দিতে ভাগ্যের দিক
আমাকেই দেখে ফেলে জোড়াটি হারিয়ে ফিরে আসে একলা শালিখ।


Name:   ফরিদা           

IP Address : 192.68.135.114 (*)          Date:02 Jul 2015 -- 08:18 PM

পৃথিবীতে পৃথিবীর মতো জনপদ আছে, ধানক্ষেত, জঙ্গল টঙ্গল
মানুষের মতো মানুষেরা এইখানে বহুদিন চাষবাস শিকার করেছে
তাদের মধ্যে কেউ কেউ শাসকের মতো
কেউ বা শাসিত হয়েছে জানি।
নদীগুলি অবিকল পৃথিবীর নদীর মতোই বয়ে যায়
মেঘ টেঘ কালো করে মহা সোরগোলে বৃষ্টিও আসে ঠিক পৃথিবীর মতো।
অবিকল সব কিছু একই-
শুধু আলাদা কক্ষপথে ঘুরে যায় সমবেগে, দুজনের দেখাও হয়না।

এই আমি একজন একা। অন্যটি তুমিই নও তো?


Name:   ফরিদা           

IP Address : 11.39.34.236 (*)          Date:03 Jul 2015 -- 02:25 PM

প্রতিটি কথায় নাকি কিছু কিছু আয়ুক্ষয় হয়
পাতায় পাতায় দেখি আলো জ্বলে,
গাছের হৃদয় জুড়ে খসে পড়া দাগ –
শরীর বিচ্ছিন্ন হলে মনে থেকে যায়।

তুমি, আমি, সারাদিনে যত যত কথা নিয়ে
জড়ো করে ফিরে আসি সারাদিন শেষে
কতটা বলতে পারি – কতটুকু শোনা যায় তার?
রেখে দিলে একদিনে হয়ে ওঠে বাসী
এসব কথায় নাকি মারণ জীবাণু জন্মায়।

জানি, বলে দিলে আয়ুক্ষয় হয়- গাছের গায়ের দাগ
থেকে গেছে অহেতুক – তেমনই পুড়িয়ে দেয় তাকে
ফেনা ওঠা জমে থাকা কথাগুলো – তোমায় আমায়।







Name:   ফরিদা           

IP Address : 11.39.32.25 (*)          Date:04 Jul 2015 -- 05:47 AM

চেয়েচিন্তে যতটুকু মেঘ জোগাড় যন্ত্র হয়
পুরোটাই বৃষ্টি হয়ে যায় দেখি এই অঞ্চলে
তোমাকে লেখার সময় ভাবি কিছু মেপেজুপে রান্না চাপাবো-
যাতে পরের দিনেও চলে যাবে - বাসীটা গরম করে নেব।
হয় নাকি অনটন সংসারে এইসব, বলো?
ওই তো ঘণ্টাভর জল এনেছি এবারে-
কতটুকু মেঘ তাতে হয়, ঢাকবে কী করে সে সমস্ত আকাশ-
আমার প্রতিটি সময়?

তবু ভাবি, এই বুঝি ভালো।
সুগন্ধ মাঝেসাজে এলে বৃষ্টি দুরন্ত হয়
নইলে বন্যা ভাসে, মরে যায় মাঝারি ফসলও।


Name:   ফরিদা           

IP Address : 11.39.40.89 (*)          Date:05 Jul 2015 -- 08:24 AM

কোন এক শেষ রাত্রের মেঘে
বোধ হয় তাকেও ডেকে নেবে
তোমার গানের মধ্যে যেমন
মন্ত্র বৃষ্টি হয়েই ঝরে।

সে এক প্রত্নদিনের চাবি
ছিল অনন্ত মুলতুবি
বৃক্ষছায়ায় থাকা মানুষ
মেঘে চড়তে বুঝি পারে?

তাই অভ্যাস দিনরাত
একটা রুমাল টুকরো ছাত
পাতার বৃষ্টি ফোঁটার প্রসাদ
নিয়ে শ্যাওলা ঢাকা পড়ে।


Name:   ফরিদা           

IP Address : 192.68.159.164 (*)          Date:05 Jul 2015 -- 09:04 PM

আজ পাখিদের সীমাবদ্ধতা দেখেছি চকিতে
এতদিন উড়ন্ত পাখি দেখে হাত পা ছুঁড়েছি
ভেবেছি উড়ান অতি মনোরম স্বর্গীয় দান
পাহাড়ে চড়েছি কত, বিমানের স্বাদু আঘ্রাণ
মেঘের মধ্যে ঘোরে। আজকেই জানা গেল
যতই উড়ুক পাখি চোখ থাকে মাটির গভীরে।

চিত্সাঁতারের পাঠ আজকে আয়ত্ত হলে স্বাভাবিক
ভাবে আমি দেখেছি আকাশে। অজস্র পাখিদের
ওরা দেখি দলবেঁধে উড়ে যায়। প্রথমেই মনে পড়ে
আক্ষেপটিকে, ক্রমশঃ সত্যিটুকু ফিরে আসে
চোখে পড়ে মেঘের দেওয়াল ফুঁড়ে রোদ্দুর
নেমে আসে। চোখাচোখি হলে সে কিশোরী
রৌদ্র ফের মেঘেতে লুকোয়। পাখিরা জানেনা।
জল থেকে দেখি জানি। পাখিরা আকাশ
দেখেনা।

এই সুতোর পাতাগুলি [1] [2] [3] [4] [5] [6] [7] [8] [9] [10] [11] [12] [13] [14] [15] [16] [17] [18] [19] [20] [21] [22] [23] [24] [25] [26] [27] [28] [29] [30] [31] [32] [33] [34] [35] [36] [37] [38] [39] [40] [41] [42] [43] [44] [45] [46] [47] [48] [49] [50] [51] [52] [53] [54] [55] [56]     এই পাতায় আছে1171--1200