আপনার মতামত         



অর্ণব সাহা




ক্ষয়

আমার বেদনা তুমি টের পাও অন্তর্যামিনী?
নীচু হয়ে বসে রয়েছ- টিলার ওধারে
ঝাউবন, আদিগন্ত বালি ...
আমি সেই ধূ ধূ তটে ঝিনুক কুড়োব বলে
        ঝুঁকে পড়ি... দেখি:
খেলনা এরোপ্লেনগুলো ভেসে যাচ্ছে, ঠিক যেন সিগাল
সন্ধের আকাশে উড়ছে হাজার হাজার প্রজাপতি
এক জীবনের মিথ্যে, অন্য জীবনের ক্ষয়ক্ষতি ...

চিহ্ন

বিস্ময়চিহ্নের মত তোমার সার্থকতা
সটান আকাশ ফাটিয়ে উঁচু, আরো উঁচু ...
নড়েবড়ে সংকেতটুকু যদি কোনোদিন ভেঙে পড়ে
ভাষার চাদরে ঢাকা রাষ্টীয় অথিতি হয়ে
        কবরে ঘুমোবো!


একটা পৃথিবী, আমি নিজে হাতে বানাতে চেয়েছিলাম
আড়ষ্ট লাইন আমি অনেক লিখেছি ... আজ
সেইসব পাতাজোড়া নিয়নসাইন আর হাতমকশো
        বিজ্ঞাপন ফেলে
দুচার মুহূর্ত শুধু তোমার সামনে বসে থাকা...

ভাষা

সাতসকালে জানলা দিয়ে মুখ বাড়াচ্ছে জীবনদেবতা!
লাউডগা সাপের মত উঁকি দিচ্ছে শরতের আলো ...

এসময়ে ভালোবাসার কথা মন্দ লাগে না ...
&হয়ষঢ়;প্রেম'-এই শব্দটাও একঘেয়ে অভ্যাস
আমরা তবু ভাষাকেই সন্তানের মত করে দেখি...

ভাষার দাম্পত্য নেই, চিহ্নতত্ত্ব আছে ...