আপনার মতামত         


নারীটি পাশ ফিরেছে
কবীর

লস্করে হিংসে পাকাক
কী বা যায় আসে তাতে-
ওরে মন বক-রূপকে
মৌজ রাখো গঞ্জীকাতে।

মজে থাক কুন্ডলিনী
জেগে ওঠো টনটনে জ্ঞান-
টনকে লাগুক হাওয়া
ট্যাঁকে থাক লক্ষীযোগান।

লক্ষীর পায়ের ছাপে
ভাঁজে আঁকো ট্যাটুর ঝলক;
দেখিনি, চোখ মেলিনি
গোপনে যৌন-মড়ক।

মড়কে প্রেম জ্বলে যায়
ধ্বজাতে উদোম হাওয়া-
হাওয়াতে উড়তে চেয়েই
স্বপ্নে মুখোশ পাওয়া।

মুখোশেই নিই ফেসিয়াল
চকাচক ইমেজ গড়ি-
আঁতেলের বংশে আগুন
স্বয়ং আমি গৌরহরি।

কানাদের সাঁই ছুঁড়ে দাও
লুফে নিই আমিও সপাট-
কলসীটি বক্ষে ধরো
খোলো বস হৃদয়-কপাট।

খোলা ঐ পথটি পেয়ে
কেঁচোটিও ফোঁস জেগেছে
উহাকে শীতল করো
এ বিধান শাস্ত্রে আছে।

শাস্ত্রও কোক চিনেছে
মগজও ব্রেক নিয়েছে
নারীটি পাশ ফিরেছে
এ কবি ফের জেগেছে।