বইমেলা হোক বা নাহোক চটপট নামিয়ে নিন রঙচঙে হাতে গরম গুরুর গাইড ।

শীর্ষ আদালতের রায়ে বিজেপির আড়াই খানা অ্যাজেন্ডা পূর্ণ হল

শুভাশিস মৈত্র

রামজনমভূমি-বাবরি মসজিদ নিয়ে শীর্ষ আদালতের ৫ সদস্যের বেঞ্চের রায়ে যা বলা হয়েছে, এই কথাটাই তো ৩০ বছর আগে বলেছিলেন এল কে আদবানি। তখনও মসজিদ ভাঙা হয়নি, ১৯৮৯ সালে তাঁর সমাধানসূত্র ছিল মসজিদকে তুলে নিয়ে গিয়ে (রিলোকেট) নতুন জায়গায় বসিয়ে দেওয়া হোক, আর সেই জায়গায় মন্দির তৈরি হোক। মসজিদ ভেঙে দেওয়ার পর, আদবানি একদিকে বলেছিলেন, সেদিনটা (৬ ডিসেম্বর, ১৯৯২) নাকি ছিল (মাই কান্ট্রি মাই লাইফ) তাঁর জীবনের সব থেকে দুঃখের দিন। আর বলেছিলেন, ভারতে এমন কোনও রাজনৈতিক দল নেই যে দল প্রকাশ্যে ঘোষণা করতে পারে যে তারা ক্ষমতায় এলে নতুন করে ওই খানেই বাবরি মসজিদ তৈরি করে দেবে। শনিবার, ৯ নভেম্বর, শীর্ষ আদালতের রায় শোনার পর এই কথাগুলোই মনে পড়ে গেল।

১৯৯২ সালের ৫ ডিসেম্বর রাত আটটা নাগাদ আমরা দু’তিন জন সাংবাদিক হেঁটে হেঁটে ফৈজাবাদ থেকে বড় রাস্তা ধরে অযোধ্যার দিকে যাচ্ছিলাম। বড় রাস্তার ধারেই পড়ে বাবরি মসজিদ অ্যাকশন কমিটির এক উকিলের বাড়ি। এখন আর নাম নেই। কাজ করতে গিয়েই ভদ্রলোকের সঙ্গে বেশ ভালো সম্পর্ক হয়ে গিয়েছিল। তাঁর দোতলা বাড়ির একতলার দরজার কড়া নেড়েই চলেছি। সাড়া-শব্দ নেই। মিনিট পাঁচেক পরে দোতলার জানলা খুলল। এক বৃদ্ধার মুখ। পরিচয় দিলাম চিৎকার করে, যাতে উপর থেকে শুনতে পান। তার পর তাঁর ছেলে, সেই উকিল নেমে এলেন। একটু কথার পর দেখি পেছনে সেই বৃদ্ধা দাঁড়িয়ে। আমাদের বললেন, ‘দয়া করে আপনাদের ঈশ্বরের কাছে আমাদের জন্য একটু প্রার্থনা করবেন’। আমরা অভয় দিয়ে বললাম, না না দেখবেন কিছুই হবে না। পরের দিন ৬ ডিসেম্বর চোখের সামনে ধ্বংস হল এক ঐতিহাসিক স্থাপত্য। তা দেখে দিল্লির এক মহিলা সাংবাদিক কেঁদে ফেলেছিলেন। তাতে তিনি মুসলিম, এই ভেবে তাঁর উপর ঝাঁপিয়ে পড়েছিল কয়েক জন। অনেক সাংবাদিক আক্রান্ত হলেন। অনেকের ক্যামেরা ভেঙে দেওয়া হল। গাড়ি খুঁজে না পেয়ে রাতে যখন হেঁটে প্রায় ৮ কিলোমিটার পথ, ফৈজাবাদ ফিরছি, দেখলাম রাস্তার মোড়ে মোড়ে জল, মিষ্টি বিতরণ চলছে। তার পরের দিন ৭ তারিখে আমরা অনেকেই ওই এলাকায় ঢুকতে পারিনি। ৮ তারিখে সকালে যখন ফের অযোধ্যা যাচ্ছি তখন চোখে পড়ল এখানে ওখানে বাড়ি জ্বলছে। কোথাও কোনও লোক-জন নেই। নেই ফায়ার ব্রিগেডও। জ্বলছে সেই উকিলের বাড়িও। ১৯৮৪-র মাত্র দু’টি আসন থেকে ১৯৯৬ সালে একক সংখ্যাগরিষ্ঠ দল হয়ে উঠতে বিজেপি সব থেকে বেশি নির্ভর করেছে এই রাম মন্দির আন্দোলনের উপর। বহু রক্তপাত, বহু মৃত্যু হয়েছে এই আন্দোলনকে কেন্দ্র করে, এবং প্রায় সব ক্ষেত্রেই নিহত হয়েছে সংখ্যালঘু মানুষেরা। গুজরাট দাঙ্গার সঙ্গেও এই আন্দোলের যোগ ছিল। শনিবারের শীর্ষ আদালতের রায় কি আমাদের এই অভিশাপ থেকে মুক্তি দেবে? যদি দেয় ভাল!

বিজেপির তিনটে প্রধান দাবি ছিল। বা বলা ভালো অ্যাজেন্ডা ছিল। তার আড়াই খানা পূর্ণ হল। ৩৭০ হয়ে গিয়েছে। তাৎক্ষণিক তিন তালাকের মধ্যে দিয়ে ইউনিফর্ম সিভিল কোডের অর্ধেকটা হয়ে রয়েছে। ‘মন্দির ওহি বানায়েঙ্গে’ স্লোগানও শীর্ষ আদালতের সিলমোহর পেয়ে গেল ৯ নভেম্বর, শনিবারের রায়ে। 

যে তিনটি বিষয় বিজেপির বিরুদ্ধে গেল, তা নিয়ে বিজেপির আপাতত কোনও মাথা ব্যথা না থাকলেও, ইতিহাসে থেকে যাবে সেই তথ্যও। সেগুলি হল-
আদালত বলেছে, মন্দির ভেঙে যে মসজিদ তৈরি করা হয়েছিল, তার প্রমাণ মেলেনি। 
১৯৪৯ সালে ফৈজাবাদের জেলাশাসক কে ডি নায়ার মসজিদে রামের মূর্তি ঢুকিয়ে দিয়েছিলেন। ১৯৫২ সালের নির্বাচনে তিনি উত্তরপ্রদেশ থেকে জনসঙ্ঘের প্রার্থী হন। সেই কাজ বেআইনি হয়েছিল, শীর্ষ আদালত বলেছে।
১৯৯২ সালে বাবরি মসজিদ যারা ভেঙেছিল, তারা বেআইনি কাজ করেছিল, অপরাধমূলক কাজ ছিল সেটা। প্রসঙ্গত আদবানি, মুরলিমনোহর যোশী, উমাভারতী সহ এক দল বিজেপি নেতা নেত্রীর বিরুদ্ধে সেই মামলা এখনও চলছে। 
এই তিনটে বিষয় বাদ দিলে, এই মামলার রায়ে বিজেপি জয়ই দেখবে। কিন্তু প্রশ্ন একটা থেকেই যায়, শেষের তিনটে কাজ যদি বেআইনি হয়, তাহলে সেখানে ফের মন্দির কেন? তথ্য-প্রমাণের থেকেও কি এই ক্ষত্রে ‘হিন্দুও কা ভাওনা’ বেশি গুরুত্ব পেল?
এখনও পর্যন্ত যা ছবি, তাতে এই রায় নিয়ে তেমন উন্মাদনা চোখে পড়ছে না। সামনেই ঝাড়খণ্ড বিধানসভার ভোট। একদা রাম মন্দির নামের এই গরুটি দুইয়ে যত সোনা উদ্ধার হয়েছে, এখনও তাই হবে কি না, এই ভোটের ফল বেরোলে তার আন্দাজ পাওয়া যাবে। কারণ ৩৭০-র প্রভাব মহারাষ্ট্র-হরিয়ানা ভোটে কোনও প্রভাব না ফেলায় হিন্দুত্ববাদী নেতারা বেশ চিন্তায়ই রয়েছেন।
 



1046 বার পঠিত (সেপ্টেম্বর ২০১৮ থেকে)

কোন বিভাগের লেখাঃ বুলবুলভাজা 
শেয়ার করুন


মন্তব্যের পাতাগুলিঃ [1] [2] [3]   এই পাতায় আছে 1 -- 20
Avatar: দোবরু পান্না

Re: শীর্ষ আদালতের রায়ে বিজেপির আড়াই খানা অ্যাজেন্ডা পূর্ণ হল

হ্যাঁ - লিবারালরা এখনো দেখছেন সুপ্রীম কোর্টের রায় নাকি খুবই "ব্যালান্সড"। ক্ষোভের কোন জায়গাই থাকতে পারে না। ভাবছি শবরীমালা কী দোষ করল
Avatar: জন সংখ্যা

Re: শীর্ষ আদালতের রায়ে বিজেপির আড়াই খানা অ্যাজেন্ডা পূর্ণ হল

এই রায় এর জাস্টিফিকেশনের জিস্ট টা কি? কেন ওখানের জমি হিন্দুদের হাতে তুলে দেওয়া হবে আর মসজিদ গড়ার জন্য অন্যত্র জায়গা দেওয়া হবে? এ ব্যপারে কেউ কিছু ঠিকঠাক জানে?
Avatar: মিডিয়ার 'ব্যালান্সড' বিবর্তন

Re: শীর্ষ আদালতের রায়ে বিজেপির আড়াই খানা অ্যাজেন্ডা পূর্ণ হল

Avatar: কিছু চাপা পড়া কথা

Re: শীর্ষ আদালতের রায়ে বিজেপির আড়াই খানা অ্যাজেন্ডা পূর্ণ হল

Avatar: খ

Re: শীর্ষ আদালতের রায়ে বিজেপির আড়াই খানা অ্যাজেন্ডা পূর্ণ হল

কোন ও জাস্টিফিকেশন নেই, কেবলমাত্র ইল্লি।
Avatar: PT

Re: শীর্ষ আদালতের রায়ে বিজেপির আড়াই খানা অ্যাজেন্ডা পূর্ণ হল

মিডিয়া ঠিক কবে "ব্যালানস্ড" ছিল? কাল টিভি চক্রে অতি চেনা বি. শ. নন্দ জানালেন যে বামপন্থী ঐতিহাসিকদের বিকৃতির থেকে ইতিহাস পরিত্রাণ পেয়েছে। ইনি এক দশকের বেশী সময় ধরে টিভিতে নিরপেক্ষ মন্তব্য করে (পড়ুন বামেদের মুন্ডুপাত) পন্ডিতদের প্রিয় ছিলেন-ইদানিন আরো দক্ষিণমার্গী হয়েছেন।

এই ফয়সালা অন্ততঃ সকল পন্ডিতদের (এবং রোলের দোকানী বুজিদের) দুকান মুলে দুই গালে থাপ্পর কষিয়ে একটা শিক্ষা দিয়েছে আশা করছি। নরম সাম্প্রদায়িকতা দিয়ে গরম সাম্প্রদায়িকতাকে ঠেকানো যায় না। নরম সাম্প্রদায়িকদের অনশন মঞ্চে ঘৃণ্য সাম্প্রদায়িকদের উপস্থিতির কালে কে কে চুপ করেছিলেন? হরকিষেণ কেন পাগড়ি বাঁধেন, সুভাষ চক্কোতি কেন তারাপীঠে গেলেন ইত্যাদি অপ্রাসঙ্গিক বিষয় নিয়ে যারা দিনের পর দিন খিল্লি করেছে আয়নার সামনে দাঁড়িয়ে তাদের ১০০ বছর কাঁদার সময় হয়েছে।
Avatar: ?

Re: শীর্ষ আদালতের রায়ে বিজেপির আড়াই খানা অ্যাজেন্ডা পূর্ণ হল

সন্ময় নরম না গরম?
Avatar: dc

Re: শীর্ষ আদালতের রায়ে বিজেপির আড়াই খানা অ্যাজেন্ডা পূর্ণ হল

এঃ পিটিদা সক্কাল সক্কাল উঠে ট্রোলিং শুরু করে দিয়েছে।
Avatar: PT

Re: শীর্ষ আদালতের রায়ে বিজেপির আড়াই খানা অ্যাজেন্ডা পূর্ণ হল

এখনো বালখিল্যতা নিয়ে যথেষ্ট লজ্জাবোধ জন্মায়নি মনে হচ্ছে!!
Avatar: :-)

Re: শীর্ষ আদালতের রায়ে বিজেপির আড়াই খানা অ্যাজেন্ডা পূর্ণ হল

এবং সেজন্যই, স্বীকার করতে দ্বিধা নেই, খুব ভালো লাগছে। এদিকে বুলবুল ওদিকে রায়, এমন দম বন্ধ লাগছিল!
গুরু চেনা ছন্দে ফিরে এলো। পিটি এবং ট্রোলিং নিজ নিজ ধন্যবাদ বুঝিয়া লইবেন।
Avatar: PT

Re: শীর্ষ আদালতের রায়ে বিজেপির আড়াই খানা অ্যাজেন্ডা পূর্ণ হল

পিটিকে নিয়ে চিন্তা কইরেন না। এক দশক আগে আজিজুল হককে নিয়ে যারা দিনের পর দিন খিল্লি/ট্রোলিং করেছিল তাদের নাকে খৎ দেওয়ার সময় হয়েছে।
Avatar: }{

Re: শীর্ষ আদালতের রায়ে বিজেপির আড়াই খানা অ্যাজেন্ডা পূর্ণ হল

সিবিয়াই চার্জশিট না দিলে আর সুপ্রিমকোর্টে কনভিক্টেড না হলে পিটি কাউকে দোষী মনে করেন না (কাউকে মানে একটি বামপন্থী দল ও তাদের সঙ্গীসাথীদের, টাটা, টোডি, বাজোরিয়া এট আল) এতো জানা কথাই।
Avatar: PT

Re: শীর্ষ আদালতের রায়ে বিজেপির আড়াই খানা অ্যাজেন্ডা পূর্ণ হল

বালখিল্যতার বাইরে বেরিয়ে আসুন। তারপরে বিনিময় হবে। আজিজুল কোন দলের পক্ষে কিছু বলেননি। আমিও বলছি না।

অবিশ্যি ক্যামেরার সামনে ঘুষ নেওয়া, কাটমানিতে সংপৃক্ত একটি দলের ব্যানারে যদি গরম সাম্প্রদায়িকদের বিরুদ্ধে লড়ার খোয়াব দেখে থাককেন তাহলে কিছুই বলার নেই।
Avatar: সাম্রাজ্যবাদের দাড়ি

Re: শীর্ষ আদালতের রায়ে বিজেপির আড়াই খানা অ্যাজেন্ডা পূর্ণ হল

অতিবাম অতিবদ আজিজুলকে ট্রোল করা হয়েছিল নন্দীগ্রাম ম্যাসাকারের পরে শাখামৃগের মতো শিপিয়েম-টাটা জুটিকে চারহাতপায়ে ডিফেন্ড করার জন্য। অনেক বছরের জেলখাটা আজিজুল জেল থেকে বেরিয়ে, বউয়ের চাকুরি, সরকারী ফ্ল্যাট আরও কী কী সব পেয়েছিলেন। উনি একা না, এই যেমন বুগু আরও অনেককেই করা হয়েছিল সেসময়। প্লাস ওনার কলামগুলো ছিল জ্যান্ত খোরাক।

(এক্ষুনি অপর্ণা-শাঁওলি-শুভা, হলদি নদীতে কুমীরের ঝাঁক, শতশত কাটা নিপল, সিবিআই কেন তদন্ত করেনি চলে আসবে। এই গুজবগুলো মানুষ খেয়েছিল, বেশ কিছু মানুষ অবরুব্ধ ক্ষমতাশীল দলের গুন্ডাদের হাতে মরেছিল বলেই। )
Avatar: অযোধ্যা

Re: শীর্ষ আদালতের রায়ে বিজেপির আড়াই খানা অ্যাজেন্ডা পূর্ণ হল

আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা পেল।
Avatar: PT

Re: শীর্ষ আদালতের রায়ে বিজেপির আড়াই খানা অ্যাজেন্ডা পূর্ণ হল

@সাম্রাজ্যবাদের দাড়ি

আজিজুল "শাখামৃগ" হওয়ার ও নন্দীগ্রামকে ডিফেন্ড করার বহুআগে কাকাবাবু "শাখামৃগ" হয়ে কালিঘাটের ডালে ডালে ঝুলতেছিলেন তিনোদের সঙ্গে "সদরে কামান দাগা"-র আনন্দে। সম্ভব্তঃ তেনার ঘরানার শাখামৃগরাই নন্দীগ্রামের অনেককে পেছন থেকে গুলি করে মেরেছিল।

তবে নরম সাম্প্রদায়িকরা এইসব নকল শাখামৃগদের বিদায় করে পোকিত শাখামৃগদের ক্ষমতায় উত্তরণে যেরূপ সাহায্য করেছিল তাতে নিশ্চয় আপনি উল্লসিত? আর এখন তো তাদের আইনি জয়ে রাস্তায় গড়াগড়ি খাচ্ছেন বোধহয়?

কিন্তু নরম সাম্প্রদায়িকদের অনশন মঞ্চে ঘৃণ্য সাম্প্রদায়িকদের উপস্থিতির কালে আপনার অবস্থান কি ছিল?
Avatar: dc

Re: শীর্ষ আদালতের রায়ে বিজেপির আড়াই খানা অ্যাজেন্ডা পূর্ণ হল

পিটিদা এসব প্রশ্ন করার আপনি কে?
Avatar: PT

Re: শীর্ষ আদালতের রায়ে বিজেপির আড়াই খানা অ্যাজেন্ডা পূর্ণ হল

আমাকে প্রশ্ন করার আপনিই বা কে?
Avatar: dc

Re: শীর্ষ আদালতের রায়ে বিজেপির আড়াই খানা অ্যাজেন্ডা পূর্ণ হল

আসলে আপনার মতো নির্লজ্জ, বেহায়া আর ঘ্যানঘেনে টাইপের লোক কমই দেখেছি। সেজন্যই প্রশ্ন করলাম আর কি।
Avatar: PT

Re: শীর্ষ আদালতের রায়ে বিজেপির আড়াই খানা অ্যাজেন্ডা পূর্ণ হল

আমিও আপনার মত রাজনীতির ব্যাপারে বালখিল্য আর নির্বোধ লোক একেবারেই দেখিনি। অবাক হই যে কোন বাস্তব বোধ ছাড়াই আপনি কোন সাহসে রাজনীতির আলোচনাতে অংশগ্রহণ করেন!!

মন্তব্যের পাতাগুলিঃ [1] [2] [3]   এই পাতায় আছে 1 -- 20


আপনার মতামত দেবার জন্য নিচের যেকোনো একটি লিংকে ক্লিক করুন