বইমেলা হোক বা নাহোক চটপট নামিয়ে নিন রঙচঙে হাতে গরম গুরুর গাইড ।

ক্ষমা করো (অনুবাদ কবিতা)

নন্দিনী সেনগুপ্ত

আমিই তোমার পরশমণি,
প্রবহমান শিরায় শিরায়-
মিশে গেছি রক্তে তোমার।
পরশমণির শরীর থেকে-
ঠিকরে পড়ে অলীক আলো।
বিশ্বভুবন দিচ্ছে ঢেলে
অমৃতময় ওজস্বিতা-
সেই মণিটির প্রতি কোষে।

এই হৃদয়ের অসীম নীলে-
তোমায় আমি ঘিরেই থাকি।
লাজহীন এই গর্ব আমার-
তুচ্ছ করি পথের শতেক-
ঢল নামা ঐ বিদ্রুপবাণ!
একথা আর নতুন তো নয়,
ঈর্ষাকাতর ব্যঙ্গ ঢাকে-
চিরকালীন প্রশংসাকে।

এই হৃদয়ের অন্তরে আজ-
ধিকিধিকি আগুন আছে।
আগুন নেভায় তুষারস্ফটিক-
শীতলতা, সেও তো আছে!
তুমিই জোয়ার, উত্তাল ঢেউ,
তুমিই তাকে শান্ত করো।
স্তব্ধতার ঐ শান্তি দিয়ে-
তুমিই তাকে পোষ মানাবে।

অন্তরে আজ উঠুক বেজে-
প্রেমের সুরের অনুরণন।
খুন কোরোনা এ গান আমার-
নৈঃশব্দের ঘাতক এনে!
আমার উজল স্বপ্ন যেন-
আর কখনো মিথ্যে না হয়!
হতাশার ঐ বিষাদ চোখের-
কলুষ যেন না ছোঁয় তাদের!

ক্ষমা করো, দিও হে ক্ষমা।
জানি তুমিই ফসল ফলাও,
বন্য তৃণের উপত্যকায়।
পথের ধারের প্রান্তভূমি-
যাত্রা শেষে মিলায় যেমন,
তেমনি চকিত দেখার শেষে-
আমিও দ্রুত হারিয়ে যাবো।
তোমার রঙিন দিনলিপির-
শাশ্বত সব পৃষ্ঠা থেকে-
আমায় নাহয় মুছেই দিও।
হারিয়ে যাবো দূর আকাশে
ঈগলপাখির প্রান্তডানার
রঙিন ক্ষীণ রেখার মতো।
তবুও মনে বাজুক সুরে-
যাত্রাপথের আনন্দগান।
মিলিয়ে যাবো, হারিয়ে যাবো-
পথের শেষে, তবুও ক্ষণিক-
খুশির আবেশ মেখে নিলাম-
সূর্য খোঁজা উড়ানপথের
শেষ পাখীটির অমোঘ ডানায়।


[গের্ট্রুড কোলমার রচিত ‘ফেরগিব’ কবিতা অবলম্বনে লেখা]
কবি পরিচিতিঃ কোলমারের জন্ম মধ্যবিত্ত ইহুদী পরিবারে ১৮৯৪ সালে বার্লিনে। ১৯১৭ সালে প্রকাশিত হয় প্রথম কবিতার বই। ১৯২০ সালের পর থেকে বিভিন্ন পত্রপত্রিকায় প্রকাশিত হতে থাকে তার কবিতা। সমালোচকরা বলেছিলেন যে গের্ট্রুড সম্ভবত ইহুদীদের মধ্যে শ্রেষ্ঠ জার্মান ভাষার লেখিকা। ত্রিশের দশকের শেষ দিক থেকে যখন নাৎসিবাহিনীর অত্যাচার জোরদার হতে থাকে ইহুদীদের উপর, গের্ট্রুডের বহু কবিতার বই নষ্ট করে ফেলা হয়। নিজের বাসস্থান ছেড়ে বারবার স্থানান্তরিত হতে হয় নাৎসিবাহিনীর হাত থেকে বাঁচবার জন্য। ১৯৪৩ সালের মার্চ মাসের পরে তার আর কোন খোঁজ পাওয়া যায় না। কার্যকারণ, সূত্র সবই বলছে সম্ভবত, ঐ সময় তিনি আউসভিৎসে খুন হয়ে যান ।



92 বার পঠিত (সেপ্টেম্বর ২০১৮ থেকে)

কোন বিভাগের লেখাঃ কাব্যি  বুলবুলভাজা 
শেয়ার করুন


Avatar: দ

Re: ক্ষমা করো (অনুবাদ কবিতা)

তোমার অনুবাদগুলো ভারী চমৎকার একেবারে যেন আসলে বাংলাতেই লেখা এরকম মনে হয়। এটাও সেরকমই। এঁর নামও শুনিনি। জানলাম।
জানিও আরো।


আপনার মতামত দেবার জন্য নিচের যেকোনো একটি লিংকে ক্লিক করুন