• টইপত্তর  অন্যান্য

  • আমেরিকান গান কালচার

    bip
    অন্যান্য | ০৫ অক্টোবর ২০১৭ | ৭১৮ বার পঠিত | জমিয়ে রাখুন
আমার গুরুবন্ধুদের জানানকরোনা
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • বিপ | 81.244.150.90 | ০৫ অক্টোবর ২০১৭ ০৮:৫৬368593
  • মানুষের বিশ্বাস বড়ই কঠিন ঠাঁই। ইসলামিক বিশ্বাস, হিন্দু বিশ্বাস, ক্রিষ্ঠান বিশ্বাস, কমিনিউস্ট বিশ্বাসের সাথে আরেকটা সংযোজন -আমেরিকানদের বন্দুক বিশ্বাস। হ্যা, সেই ১৭৯১ সালে যখন সেকন্ড এমেন্ডমেন্ট লেখা হল, তখন থেকেই আমেরিকানরা বিশ্বাস করে বন্দুকের নলই স্বাধীনতার উৎস। মানে কি না, জনসাধরনের কাছে অস্ত্র থাকাটা আমাদের আমেরিকাতে ফান্ডামেন্টাল রাইট। এর কারন আছে। আমেরিকার ফাউন্ডিং ফাদাররা ছিলেন রাজনৈতিক দিকপাল। ইতিহাস ঘেঁটে উনারা দেখেছিলেন, নির্বাচিত সরকারের মধ্যেই টেন্ডেন্সি থাকে স্বৈরাচারী হয়ে ওঠায়। এর ফলে জনগণ গণতান্ত্রিক অধিকার হারায়। ফলে সেই ১৭৯১ সালে আমেরিকার ফাউন্ডিং ফাদাররা ভাবলেন জনগণের কাছে বন্দুক থাকাটাই একমাত্র রোধ করতে পারে স্বৈরাচারের উত্থান। বা বিদেশী শক্তির আক্রমন। ফলে অস্ত্র রাখা আমেরিকাতে মৌলিক অধিকার।

    একটা জিনিস মনে রাখতে হবে, সেই অষ্টাদশ শতাব্দিতে পলাশি থেকে বক্সারের প্রান্তরে যখন ভারতীয় নবাব এবং সেনারা ক্ষুদ্রতর বৃটিশ সৈন্যদের কাছে আত্মসমপর্ন করেছে বা হেরেছে, আমেরিকার স্বাধীনতা যোদ্ধারা বৃটিশ সেনাদের মেরে তাড়িয়েছে। এর পেছনে আমেরিকানদের গান কালচারের ভূমিকা আছে। অস্ত্র সম্ভারে আমেরিকান পেট্রিয়টরা বৃটিশদের থেকে এগিয়েই ছিলেন। ফলে আমেরিকার স্বাধীনতার পরবর্তী সময়ে একটা বিশ্বাস তৈরী হয়-- জনগণের বন্দুকই স্বাধীনতার উৎস । এই পরিবেশেই পাশ হয়, সেকন্ড এমেন্ডমেন্ট যেখানে বন্দুক রাখা আমেরিকাতে মৌলিক অধিকার। সেই ইতিহাসটা ভুলে গেলে কিন্ত চলবে না। যে দেশটার জন্মই হয়েছে বন্দুকের জোরে এবং সেই বন্দুক ছিল জনগণের হাতে।

    কিন্ত ২০১৭ সাল ত আর ১৭৯১ না। এখন গাদা বন্দুক চলে না- চলে মেশিনগান। স্টিফেন প্যাডক এখন একাই ১০ টা মেশিনগান চালিয়ে ৫৯জনকে খুন এবং ৫৫০জনকে আহত করার ক্ষমতা রাখে। এত আর ১৭৯১ সালের গাদা বন্দুক না। এই নিয়ে আমেরিকাতে বহুবার সুপ্রীম কোর্টে সওয়াল হয়েছে-অন্তত মেশিন গান, অটোমেটিক ওয়েপন রাখা নিশিদ্ধ হৌক। কিন্ত সুপ্রীম কোর্ট মানে নি। কারন সেকন্ড এমেন্ডমেন্টের নোশনই হচ্ছে জনগনের আর্মি যেন সরকারের আর্মির সমতুল্য অস্ত্র রাখতে পারে। নইলে জনগণ স্বৈরাচারী সরকারকে রুখবে কি করে??

    সুতরাং কংগ্রেস এবং সেনেট সংবিধানের সেকেন্ড এমেন্ডমেন্টের পরিবর্ধন না করলে, এই গেরো থেকে আমাদের মুক্তি নেই।

    আর সেকেন্ড এমেন্ডেমেন্টের বিরুদ্ধে বলার মতন একজন রাজনীতিবিদ ও আমেরিকাতে নেই। যারা বলছেন, তারা বলছেন সেকেন্ড আমেন্ডমেন্ট ঠিক, কিন্ত গান কন্ট্রোল দরকার। অনেকটাই সেই পুরাতন লেবু কচলানো- হিন্দু, ইসলাম ধর্মে সমস্যা নেই- ভক্তবৃন্ধের সমস্যা। আর এদিকে গুচ্ছ গুচ্ছ আমেরিকান আছে যাদের বাড়িতে এক গুচ্ছের বন্দুক। আমার এক প্রতিবেশীর বাড়িতেই আছে চারটে বন্দুক। এগুলো এদের অবশেসন । এদিকে আমাদের পাড়াতে ডাকাত ত দূরের কথা, চুরির কথাও কেউ কোন দিন শোনে নি। অর্থাৎ গান কালচার শ্রেফ একধরনের ধর্ম বিশ্বাস।

    এই সব ভাবের ঘরে চুরি কদ্দিন চলে দেখা যাক। মধ্যেখান থেকেই ধরেই নিয়েছি বন্দুকের গুলিতে পরকাল প্রাপ্তির সম্ভাবনা ( নেক্সট ত্রিশ বছরে ) - ১ ইন মিলিয়ান। ক্যান্সারে মৃত্যুর সম্ভাবনা সেখানে ১ ইন ১০০। সেই ভেবেই শান্তনা নিই। যে বন্দুকের গুলিতে মরার আগে, রোগে মরব।

    কি আর করা যাবে। এই একবিংশ শতাব্দিতেও হরেক রকমের বিশ্বাসের জিম্মি হয়েই কাটাতে হবে।
  • S | 184.45.155.75 | ০৫ অক্টোবর ২০১৭ ১০:০৫368675
  • বিপদা, এই বিষয়টা নিয়ে গুছিয়ে লিখুন তো। আরো অনেক অনেক তথ্য দিন।
  • SD | 213.99.198.240 | ০৫ অক্টোবর ২০১৭ ১৫:১২368686
  • বলি ক্লাস ৩ ওয়েপন আর বেসিক ওয়েপন এর মধ্যে তফাৎ টা বোঝেন বিপ বাবু ?

    অটোম্যাটিক ওয়েপন আগেও নিষিদ্ধ ছিল এখ্নও তাই, যদি কেউ সেমি অটোম্যাটিক ওয়েপন কে অটোম্যাটিক কে কনভার্ট করে সেটা ইল্লিগ্যাল, যেটা হয়েছে এখেত্রে ।

    আর হ্যাঁ ব্ন্দুক একটা অবসেশান তো বটেই, লোকের ঘড়ির অবসেশান থাকতে পারে, পারফিউম এর অবসেশান থাকতে পারে, গাড়ির অবসেশান থাকতে পারে, আর বন্দুকের পারে না ?

    বলি কখ্নও হল্যান্ড অ্যান্ড হল্যান্ড কোম্পানির বা জেমস পার্ডি, বা ওয়েস্টলি রিচার্ড কোম্পানির বানানো ডাবল রাইফেল হাতে নিয়ে বা সচক্ষে দেখেছেন ? দেখলে বুঝতে পারবেন মানুষ কেন অবসেসড হয়। যারা বন্দুক কালেক্ট করে তারা বন্দুকের জন্যই কালেক্ট করে , সেগুলো দিয়ে মানুষ মারার ক্থা ভেবে নয়। অন্তত ৯৯.৯% আমেরিকান সেই ভাবেই ভাবে, ব্যাতিক্রম আছে থাকবে , সাইকোপ্যাথ রা বন্দুক না পেলে ট্রাক চালিয়ে পিষে মারবে বা অন্য ফিকির বার করবে । যেমন ইউরোপীয়ান দেশগুলোতে হয়েছে, যেখানে বন্দুক জোটানো কিছুটা শক্ত। আর আমাদের দেশে তো বন্দুক ও লাগবে না, একটু হাল্কা করে গুজব ছড়ালেই গোটা বিশেক লোক মায়া হয়ে যাবে ।
  • Ishan | 180.202.222.1 | ০৫ অক্টোবর ২০১৭ ২৩:০৭368697
  • ১৯৮৬ সালের আগের মেশিনগানও রাখা তো লিগাল।
    আধা স্বয়ংক্রিয় ছেড়েই দিলাম।
  • S | 202.156.215.1 | ০৫ অক্টোবর ২০১৭ ২৩:২৭368708
  • তাছাড়া অনেক লিগাল ওয়ে আছে সেমাই-অটোমেটিক কে অটোমেটিকের মতন বানানোর। মানে ঠিক অটোমেটিক হবেনা, কিন্তু অটোমেটিকের অনেক ফিচার্স চলে আসবে। এরকম প্রচুর অ্যাকসেসরিজ লিগালি বিক্রি হয়।

    ঘড়ির অবসেশান আর বন্দুকের অবসেশানকে ইকুয়েট করাটা কি ইচ্ছাকৃত নাকি ভুল বোঝার ফল সেটাই চিন্তার।

    ০.১% যথেষ্ট চিন্তার ব্যাপার। মাস শুটিঙ্গে আম্রিগাতে কত লোগ মারা গেছে বিগত কয়েক বছরে, আর ইয়োরোপে ট্রাক চালিয়ে কত লোক মারা গেছে যানতে পারলে ভালো হয়। ট্রাক চালানোর জন্যও লাইসেন্স লাগে, তারও রেস্ট্রিকশনস আছে। বন্দুক কেনার থেকে বেশিই আছে বোধয়।
  • Du | 182.56.6.181 | ০৫ অক্টোবর ২০১৭ ২৩:৫৩368719
  • আমেরিকান সরকারের হাতে নিউক্লিয়ার জিনিষপত্র আছে।
  • Hukomukho | 132.164.115.65 | ০৬ অক্টোবর ২০১৭ ০০:৩৫368730
  • "১৯৮৬ সালের আগের মেশিনগানও রাখা তো লিগাল।
    আধা স্বয়ংক্রিয় ছেড়েই দিলাম। "

    তাই নাকি !!!! তাহলে তো এই লজিকে ঘরে ঘরে AK-47 রাখা যেত । একটু ভালো করে খোঁজ নিয়ে দেখুন তো।

    "তাছাড়া অনেক লিগাল ওয়ে আছে সেমাই-অটোমেটিক কে অটোমেটিকের মতন বানানোর। মানে ঠিক অটোমেটিক হবেনা, কিন্তু অটোমেটিকের অনেক ফিচার্স চলে আসবে। এরকম প্রচুর অ্যাকসেসরিজ লিগালি বিক্রি হয়।"

    একটু বোঝাবেন ? Technically ? ঠিক কিভাবে সেটা করা সম্ভব আর তাও লিগ্যালি ? আর অটোম্যাটিকের অনেক ফিচারটাই বা ঠিক কিরকম ?

    "ঘড়ির অবসেশান আর বন্দুকের অবসেশানকে ইকুয়েট করাটা কি ইচ্ছাকৃত নাকি ভুল বোঝার ফল সেটাই চিন্তার।"

    বন্দুক কে ওয়ার্ক অফ আর্ট হিসাবে ভাবলে ইকুয়েশান মিলবে, অসংখ্য লোক আছে যারা সেই কারণেই বন্দুক সংগ্রহ করে।

    আর আমি বন্দুক রাখছি মানেই ভবিষ্যতে আমি মাস শুটিং করে ফেলব এই লজিকে চললে তো শুধু বন্দুক কেন ? সবকিছুই ব্যান করে দিতে হয়।

    "০।১% যথেষ্ট চিন্তার ব্যাপার। " স্বাভাবিক , কারণ এটা স্ট্যাস্টিকাল ভেরিফায়েড ডাটা নয়, খুব রেয়ার বা নগণ্য বোঝাতে ব্যবহার করে্ছি।

    "ট্রাক চালানোর জন্যও লাইসেন্স লাগে, তারও রেস্ট্রিকশনস আছে। বন্দুক কেনার থেকে বেশিই আছে বোধয়।"

    হাসালেন দাদা, যারা ট্রাক চালিয়ে মানুষ মারতে যাবে , তার লাইসেন্স অ্যাপ্লাই করে তারপরে ট্রাফিক সিগন্যাল মেনে ট্রাক চালিয়ে মানুষ মারবে বলে আপনার মনে হয় ? ঃ)

    ভারতবর্ষ একটি অত্যন্ত বন্দুক রেস্ট্রিকটেড দেশ, আমরা ব্রিটিশ দের নেটিভদের জন্য বানানো অস্ত্র আইন ই ফলো করি , তাই লিগ্যালি ওনড , লাইসেন্স্ড ওয়েপনের সংখ্যা জনসংখ্যার হিসাবে অনুবীক্ষণ য্ন্ত্র দিয়ে খুঁজতে হবে , সেই দেশেও একটা মাস শুটিং হয়েছিল ২০০৮ সালে , মুম্বই তে , হত হয়েছিল ১৬৬ জন মতন, আহত ৩০০ এর উপরে।
    এবারে বলবেন না ওটা টেররিস্ট অ্যাটাক ছিল , আরে ইউস তো হয়েছিল বন্দুক ই, আর হয়েছিল তো মাস শুটিং ই । এ্ছাড়া , অক্ষরধাম, পাঠানকোট, ইন্ডিয়ান পার্লামেন্ট অ্যাটাক এগুলো তো বাদ দিলাম।

    বন্দুক নিজে বাছবিচার করে না দাদা, সে নিজে নিজে চলেও না, সেটা কার হাতে আছে সেটা ডিসাইড করে মানুষ বাঁচবে না মরবে ? আর মুশকিল হচ্ছে আপনি শুধু আইন বানিয়ে সেটা আটকাতে পারবেন না । যে মানুষ মারতে চায় সে আইনের তোয়াক্কা করে না, সে ঠিকই উপায় জুটিয়ে ফেলে, আর মরে সাধারণ নিরস্ত্র মানুষ।
  • S | 202.156.215.1 | ০৬ অক্টোবর ২০১৭ ০১:৪৪368741
  • "১৯৮৬ সালের আগের মেশিনগানও রাখা তো লিগাল।
    আধা স্বয়ংক্রিয় ছেড়েই দিলাম। "

    রাখা যায় তো। অনেক দাম যদিও।

    "একটু বোঝাবেন ?" Technically ?
    আমি তো এক্সপার্ট নই। এখানে পড়লাম। কিছু ভিডিওতেও আছে। মনে করুন ট্রিগার বার বার পুল না করে, আপনি একটা গ্যাট ক্রান্ক লাগালেন যেটা ঘোরালেই ট্রিগার পুল হয়ে যাবে বার বার। ফলে টেকনিকালি সেমাই-অটোমেটিক রইলো, কিন্তু কাজের বেলায় অটোমেটিক হয়ে গেলো। আর সেমাই-অটোমেটিক দিয়েও তো প্রচুর মাস শুটিঙ্গ হয়েছে।

    http://www.slate.com/blogs/the_slatest/2017/10/02/las_vegas_shooting_are_machine_guns_and_fully_automatic_rifles_legal.html

    Gun owners who want weapons capable of fully automatic fire can’t legally modify the internal components of their semi-automatic rifles to accomplish this. But they can buy legal accessories like the Slide Fire or the GatCrank that help shooters mimic automatic fire without altering a semi-automatic gun’s internal mechanisms.

    "সবকিছুই ব্যান করে দিতে হয়।"
    বন্দুকের তো আরো অনেক ব্যবহার আছে। সেইজন্যই চিন্তার। ঘড়ি দিয়ে লোক মারা হয়েছে, সেরকম তো কোথাও শুনেছি বলে মনে পড়ছে না।

    "খুব রেয়ার বা নগণ্য বোঝাতে ব্যবহার করে্ছি।"
    খুব রেয়ার বা নগণ্য তো আর নেই। সেইজন্যই তো এতো কথা।
    https://www.massshootingtracker.org/data/2016

    টেররিস্ট অ্যাটাক আর মাস শুটিঙ্গ যে আলাদা, সেইটাও বোঝাতে হবে ভাবিনি। টেররিস্ট অ্যাটাক দিয়ে কি তাহলে মাস শুটিঙ্গকে বৈধতা দেওয়া হচ্ছে?

    আর লোকের হাতে পড়ে বলেই তো বন্দুকের উপরে রেস্ট্রিকশন চাই। কারণ আর্মস ম্যানুফ্যাকচাররা বন্দুক তৈরীই করে বিক্কিরির জন্য। সেখানেই তো রেস্ট্রিকশন চাই। কে কিনছে, কে কিনছে না। কি ধরনের বন্দুক বিক্রি করা হচ্ছে। কি ধরনের কার্তুজ বিক্রি হচ্ছে।
  • S | 202.156.215.1 | ০৬ অক্টোবর ২০১৭ ০১:৪৬368752
  • *টেররিস্ট অ্যাটাক একধরনের মাস শুটিঙ্গ। তাই সব ধরনের মাস শুটিঙ্গ কি করে বন্ধ করা যায়, সেটা দেখতে হবে। আর তার জন্যই গান কন্ট্রোল চাই।
  • পাই | 57.29.238.229 | ০৬ অক্টোবর ২০১৭ ০৬:৪৩368594
  • ভারাতের মত দেশে গান কন্ট্রোল না থাকলে আরো কত কী হত ভাবতে শিউড়ে উঠতে হয়। ভাগ্যিস আছে!

    বোলিঙ্গ ফর কলম্বাইন নিয়ে এস ডি, হুকোদার কী মত? কানাডা নিয়ে? প্রতিবেশী দেশেই এরকম মাস শুটিঙ্গ না হওয়া নিয়ে?
  • sswarnendu | 41.164.232.149 | ০৮ অক্টোবর ২০১৭ ০৪:৫০368605
  • এই প্রসঙ্গে আমার একটা জিনিস জিগ্যেস করার আছে।

    সুইটজারল্যান্ডে গান ল সম্ভবত আদৌ খুব লিবার‍্যাল কিছু নয় (আমি ঠিক জানি না যদিও), মানে দোকানে গিয়ে কিনলেই কিনতে পারবেন এইরকম নয়। অথচ সুইসদের, অন্তত ছেলেদের ( মেয়েদেরও হয় কিনা নিশ্চিত নই) বাধ্যতামূলকভাবে আর্মিতে কিছু সময় দিতে হয় ( মেডিক্যাল কারণ দেখিয়ে এড়ানো যায়, কিন্তু খুব সহজ নয় সেটা), আর সেই সময়পর্ব শেষ হলে নিজেদের রাইফেলটা বাড়ী নিয়ে আসতে পারে ও সারাজীবনের জন্যে নিজের কাছে রাখতে পারে।

    আমি এর আগে এই গুরুতেই বন্দুকের টইতে হুঁকোবাবুর লেখায় একটা পয়েন্ট খুব মনে ধরেছিল, যে আগ্নেয়াস্ত্র-র লাইসেন্স পাওয়া কঠিন করার অর্থ ( যেমন ভারতে) যে পাড়ার মস্তানও একটা লেদ এ একটা যাচ্ছেতাই মানের ওয়ান শটার বানিয়েও মস্তানি করে যেতে পারে, কারণ জনগণ বাধ্যতামূলকভাবে নিরস্ত্র ( আগ্নেয়াস্ত্র প্রসঙ্গে)। আবার কোথাও এইটাও মনে হয় যে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে এত এত মাস শুটিং-এর অবশ্যই সামাজিক কারণ আছে, কিন্তু লিব্যারাল গান ল অন্ততপক্ষে একটা বিষয় তো বটেই যেটা এর জন্যে দায়ী, সেই দায়টা শুধুই সামাজিক কারণগুলো দেখিয়ে এড়ানো যায় না ( আমার ব্যক্তিগত মত, আমি বন্দুকের কিসস্যু বুঝি না, বেলুন ফাটানোর এয়ারগান বাদে কোন বন্দুকই কখনো হাতে নিইনি, আগ্নেয়াস্ত্র অনেক দুরের ব্যাপার )।

    তো সুইসদের এইরকম নিয়ম-এ আনরেস্ট্রিক্টেড গান ল-এর বিপদও হয়ত এড়ানো যায়, আবার জনগণ নিরস্ত্র ও থাকে না। সুইটজারল্যান্ডে মাস শুটিং-এর খবরও খুব শোনা যায়না। এইরকম কিছুতে তো বোধহয় দুটো দিকই থাকে, নয়? মানে এটা নেহাতি আমার খুব নেইভলি মনে হওয়া। যারা ওয়াকিবহাল তারা মতামত দিলে বিষয়টা নিয়ে একটু জানা-বোঝা তৈরি করার সুযোগ পাই।
  • Hmm | 41.185.104.21 | ০৮ অক্টোবর ২০১৭ ০৯:৫৩368616
  • Army-issued arms and ammunition collection

    The Swiss army has long been a militia trained and structured to rapidly respond against foreign aggression. Swiss males grow up expecting to undergo basic military training, usually at age 20 in the recruit school, the basic-training camp, after which Swiss men remain part of the "militia" in reserve capacity until age 30 (age 34 for officers).

    Prior to 2007 members of the Swiss Militia were supplied with 50-rounds of ammunition for their military weapon in a sealed ammo box that was regularly audited by the government. This was so that, in the case of an emergency, the militia could respond quickly.
    A "shooting society" somewhere in Switzerland; people come to such ranges to complete mandatory training with service arms, or to shoot for sport and competition.

    In December 2007, the Swiss Federal Council decided that the distribution of ammunition to soldiers would stop and that previously issued ammo would be returned. By March 2011, more than 99% of the ammo has been received. Only 2,000 specialist militia members (who protect airports and other sites of particular sensitivity) are permitted to keep their military-issued ammunition at home. The rest of the militia get their ammunition from their military armory in the event of an emergency.

    When their period of service has ended, militia men have the choice of keeping their personal weapon and other selected items of their equipment. However, keeping the weapon after end of service requires a weapon acquisition permit (art. 11-15 VPAA/OEPM).

    The government sponsors training with rifles and shooting in competitions for interested adolescents, both male and female. The sale of ammunition – including Gw Pat.90 rounds for army-issue assault rifles – is subsidized by the Swiss government and made available at the many Federal Council licensed shooting ranges. That ammunition sold at ranges must be immediately used there under supervision (art. 16 WG/LArm).
  • anirban | 96.20.145.210 | ০৮ অক্টোবর ২০১৭ ১৩:০৮368627
  • স্বর্নেন্দুর পোস্ট-টা পড়ে খুঁজতে গিয়ে এইটা পেলাম।

    Myth No4: Switzerland and Israel seem to do OK without gun control

    swiss flag
    Switzerland is known for widespread gun ownership but not for gun deaths. Photograph: Fabrice Coffrini/AFP/Getty Images
    Proponents of unfettered gun ownership often point to the example of Switzerland, which has a tradition of more widespread firearms ownership than most other European countries but is not known for its gun-ravaged inner cities.

    One problem is the trend is not that different: more guns still lead to more shooting, just less so than in America. Switzerland is actually second among wealthy countries in terms of annual gun deaths (0.77 per 100,000 of population in one recent survey, versus 2.97 in the US and just 0.07 in England and Wales) but has barely half as many guns per 100 people (45.7 versus 88.8 in the US).

    But even this comparison gets weaker if you look at the way the Swiss keep their guns, which stems from a tradition of military service that has been considerably tightened over the years. One US study by the National Institutes of Health points out that both Switzerland and Israel (another alleged exception to the rule touted as proof that guns don’t kill) actually limit firearm ownership considerably and require permit renewal one to four times annually.

    Those are just the kind of gun control measures, in fact, that second-amendment fans in the US claim wouldn’t make any difference to gun violence.

    হ্ত্ত্প্সঃ//্ব।থেগুঅর্দিঅন।োম/উস-নে্স/২০১৫/জুন/২০/চর্লেস্তোন-সৌথ-রোলিন-শূতিঙ্গ-গুন-োন্ত্রোল-রেফোর্ম-ম্য়্থ্স
  • sswarnendu | 41.164.232.149 | ০৮ অক্টোবর ২০১৭ ১৪:৫১368649
  • Hmm এর পোস্টের কন্টেন্ট জানতাম, পারমিট রিনিউ করাতে হয়টা নিছকই লিখতে ভুলে গিয়েছিলাম। কিন্তু সেই রিনিউ করানো কিন্তু একদমই সমস্যার কিছু না, খুবই রুটিন রিনিউয়াল।

    অনির্বাণের সুইটজারল্যান্ডের গান রিলেটেড ডেথ-এর পরিসংখ্যানটা খুব ইন্টারেস্টিং, এইটা সত্যিই জানতাম না, দেশটায় সাধারণভাবে এই সংক্রান্ত সমস্যা নিয়ে লোকে খুব চিন্তিত এরকম আবহ একদমই নেই আসলে।

    আর রেস্ট্রিকশন যে আছেই সে তো লিখলামই, এমনিতে দোকানে গিয়ে বন্দুক কিনে ফেললাম এমন করা যায় না মোটেই। তবে সুইসদের মধ্যে অনেকেই বাড়ীতে আগ্নেয়াস্ত্র রাখে, মানে ওই নিজের রাইফেলটা বাড়ী নিয়ে এসে তারপর সারা জীবন রেখে দেয়, এইটা দেখেছি।

    তাই সেটা মাত্র প্রতি ১০০ জনে ৪৫.৭ টা বন্দুকে একটু অবাক হলাম, অবশ্য তারপরই ভাবতে গিয়ে মনে হল সুইটজারল্যান্ডের ৮০ লক্ষ জনসংখ্যার ৩০ লক্ষই সুইস নয়, ৫০ লক্ষ। তাই সুইসদের বেশিরভাগই বাড়ীতে বন্দুক রাখে এই দেখাটার সাথে ওই তথ্যটার কোন বিরোধ নাই থাকতে পারে।
  • দ্রি | 195.38.14.215 | ১০ অক্টোবর ২০১৭ ১১:০০368660
  • একথা ঠিক, যেখানে গান কন্ট্রোল কম, সেখানে বন্দুকের সাহায্যে হমিসাইডের হার বেশী।

    কিন্তু সুইজারল্যান্ড আর ইউকের তুলনায় একটা ব্যাপার গার্ডিয়ান বাদ দিয়ে গেছে। সেটা হল, গান কন্ট্রোল বেশী করায় ইউকের মোট হমিসাইডের হার কিন্তু কমেনি।

    ২০১১র হিসেব।

    ইউকের মোট হমিসাইড লাখে এক জন, সুইজারল্যান্ডের লাখে ০.৬ জন।

    কিন্তু ইউকেতে (ইংল্যান্ড এবং ওয়েলসে) বন্দুক দিয়ে খুনের প্রোপোর্শান ৭%, ধারালো অস্ত্র দিয়ে ৩৯%, অন্যান্যভাবে ৫৪%। সেখানে সুইজারল্যান্ডে বন্দুক দিয়ে ৪৮%, ধারালো অস্ত্র দিয়ে ২৮%, অন্যান্যভাবে ২৪%।

    তাই ২০১১তে , শুধু বন্দুক দিয়ে খুন দেখলে দেখা যাবে , ইউকেতে লাখে ০.০৭ জন, আর সুইজারল্যান্ডে ০.২৯ জন।

    এর থেকে এটাই কনক্লুড করা যেতে পারে, বন্দুক কমে গেলেই খুন কমে যাবে এটা বলা যায় না। বন্দুক না পেলে লোকে অন্য ভাবে খুন করবে।

    তবে একথা ঠিক, বন্দুক পেলে খুনীরা ওটাই প্রেফার করে।
  • দ্রি | 173.172.217.50 | ১০ অক্টোবর ২০১৭ ১১:১৬368671
  • ইওরোপিয়ান দেশগুলোতে মোট খুনের হার লাখে একের আশেপাশে ঘোরাফেরা করে। আমেরিকায় সেটা লাখে পাঁচের আশেপাশে। বেশ অনেকটাই বেশী।

    গুয়াটেমালা, হন্ডুরাস, বেলিজে এই সংখ্যাটা ৪০এর ওপর। ভেনেজুয়েলায়ও তাই। ব্রাজিলে ২৫, কলাম্বিয়ায় ৩০।

    বাংলাদেশে ৩, ভারত, শ্রীলংকায় ৪, পাকিস্তানে ৮।
  • দ্রি | 173.172.217.50 | ১০ অক্টোবর ২০১৭ ১১:২২368673
  • তবে লাস ভেগাসের শুটিংএ এই মাত্র একজন, এক ষাটোর্দ্ধ বুড়ো মিনিট দশেক গুলি চালিয়ে ৮০০ ফিট দূরে ৫০০র বেশী লোককে হতাহত করল, এইটা হজম করা একটু টাফ।
  • S | 184.45.155.75 | ১০ অক্টোবর ২০১৭ ১১:৩৬368676
  • মেশিন গানে মিনিটে কয়েকশ গুলি করা যায়। সেইটাই করেছে। আর ৮০০ ফিট তো কিছুই না। যেখানে কোনো স্পেসিফিক টার্গেট নেই। তবে আরো অন্য লোক ছিলো কিনা, সেতো ইনভেস্টিগেশনে পাওয়া যাবে।
  • দ্রি | 47.220.35.202 | ১০ অক্টোবর ২০১৭ ১১:৫৪368677
  • প্রোভাইডেড, ইনভেস্টিগেশানে ফ্যাক্ট চেপে দেওয়ার চেষ্টা হয়।

    প্রথমে বলা হয়েছিল, প্যাডক ২৮ তারিখ চেকইন করেছিল। এখন বলা হচ্ছে ২৫ তারিখ।

    বায় দা ওয়ে, ঐ দিন বেলাজিওতে শুটিং হয়েছিল এই কথা কোন কোন আই উইটনেস বলেছে।
  • দ্রি | 47.220.35.202 | ১০ অক্টোবর ২০১৭ ১১:৫৭368678
  • * চেষ্টা **না** হয় ...
  • S | 184.45.155.75 | ১০ অক্টোবর ২০১৭ ১২:১১368679
  • হ্যাঁ স্পষ্টই বোঝা যাচ্ছে কারা এইসব ভুয়ো খবর ছড়াচ্ছে। পাগড়ী আর দাড়ি ছাড়া মাশ শুটার আছে এইটা জানতে অনেকেরই খুব অস্বস্তি হয়। বেলাজিওর লবিতে শুটিঙ্গ হলে অন্তত কয়েকশো লোক জানতে পারতো।
  • S | 184.45.155.75 | ১০ অক্টোবর ২০১৭ ১২:১৫368680
  • আর আপনি এখনো অ্যালেক্স জোন্স ফলো করছেন। এর থেকে বিশ্ব বন্ধু গুপ্তকে ফলো করতে পারেন।
  • দ্রি | 97.118.116.12 | ১০ অক্টোবর ২০১৭ ১২:২৩368681
  • বেলাজিওর লবিতে শুটিং হয়েছিল, এর সোর্স অ্যালেক্স জোন্স নন, কারন তিনি তখন বেলাজিওয় ছিলেন না। বেলাজিওয় ছিলেন এমন লোকই বলেছেন সেকথা।



    কয়েকশো লোক জানে কি জানে না সেটা আমরা জানতে পারি না যদি মিডিয়া আমাদের সেকথা না বলে।
  • S | 184.45.155.75 | ১০ অক্টোবর ২০১৭ ১২:৩২368682
  • দ্রিবাবু, প্লিজ অন্তত নিজের সন্মান রক্ষার্থে আর হাসাবেন না।

    আপনি যে দুটো খবর বলেছেন সেদুটই ইন্ফোয়ার (অ্যালেক্স জোন্সের চ্যানেল) থেকে নিয়েছেনঃ
    https://www.infowars.com/breaking-vegas-sheriff-publicly-alters-shooter-timeline-after-questions-from-citizen-journalists/

    https://www.infowars.com/experts-confident-there-were-multiple-shooters-at-vegas-massacre/

    আর ভিডিওটা আমার দেখা। ভিডিওতে কিস্যু নেই। বলেছে যে পুলিশ ডাকা হয়েছিলো, অথচ ভিডিওতে কোনো পুলিশ দেখা যাচ্ছে না। বলছে যে কাঁচ ভেঙ্গেচে, অথ্চ পুরো লবিতে কোনো ভাঙ্গা কাঁচ নেই।

    আর ভিডিওটা আপলোড করেছে পিপলস ভয়েস - আরেকটা রাশিয়া স্পনসর্ড দক্ষীন পন্থীদের দল।
  • দ্রি | 181.25.193.78 | ১০ অক্টোবর ২০১৭ ১২:৫০368683
  • এই ভিডিওটাও কি দেখা?



    যেখানে পুলিশ নিজে বেলাজিওয় শুটিংএর কথা বলেছে নিজেদের কমিউনিকেশান অডিওতে?
  • S | 184.45.155.75 | ১০ অক্টোবর ২০১৭ ১৩:২৬368684
  • এইযে আসল আনেডিটেড ভিডিও/অডিওঃ


    সেখানে স্পষ্ট শোনা যাচ্ছে যে বেলাজিওতে কিছু হয়নি। ৪৪ মিনিট ৫২ সেকেন্ডে বলে দিচ্ছে "ইউনিট্স রেফারেন্স অ্যাট বেলাজিও ইজ গোয়িঙ্গ টু বি নেগেটিভ ফর ফোর ফিফটিন এ"।

    আপনি যে ভিডিওটা দিয়েছেন, সেটা তার আগেই ক্রপ করে দিয়েছে - ইচ্ছকৃত। আর আপনি যার ভিডিওটা রেফার করেছেন তার টুইটার ও ইউটিউব পেজে গেলেই বোঝা যাচ্ছে যে তিনি কেমন লোক, আর তার চিন্তাভাবনা কেমন। ইনিও একজন পিজাগেট পাবলিক।

    ৫৮ জন লোক মারা গেছেন। অন্তত তাদের কথা ভেবে আপনি প্লিজ আপনার এই নোংরা প্রোপাগান্ডা বন্ধ করুন। ছি ছি।

    আর আপনি বলেন মেইনস্ট্রিম মিডিয়া ফেক। আপনি কাদের সঙ্গে হাত মিলিয়েছেন, সেটা ভাবলেও ভয় লাগে।
  • দ্রি | 198.116.11.181 | ১১ অক্টোবর ২০১৭ ১০:৩৬368685
  • দেখুন, ইউনিটস রেফারেন্স অ্যাট বেলাজিও ইজ নেগটিভ ফর 415A মানেই বেলাজিওতে কিছু হয়নি এটা বলা যায় না। বেলাজিওতে বন্দুকের আওয়াজ পেয়ে বেলাজিওর কেউ ৯১১ কল করেছিল। তার রেসপন্সে পুলিস বেলাজিওতে গিয়েছিল। এর আগে নিউ-ইয়র্ক নিউ-ইয়র্কে 415A র রিপোর্ট পাওয়া গিয়েছিল। ৪৪ঃ৫২তে পুলিস রিপোর্ট করছে বেলাজিওতে তারা 415Aর আওয়াজ শুনতে পাচ্ছে না। শুটার কন্টিনিউয়াসলি ফায়ার না করতে পারে, মুভ করতে পারে। সবাই প্যাডকের মত ঘরে বসে শুট করবে এটা ধরে নেব কেন?

    আমার খুব সিম্পল প্রশ্ন আছে। এই টেপের একদম শুরু দিকে (মিনিট দশ পনেরোর মধ্যে) আমরা শুনতে পাচ্ছি ম্যান্ডেলা বেতে থার্টি সেকেন্ড ফ্লোরে প্যাডক হ্যাজ বীন টেকন ডাউন। কিন্তু তারপর, অ্যাবাউট ৪৩ মিনিটের মাথায়, পুলিস যখন বেলাজিও শুটিংএর কথা রিলে করছে তখন ব্যাকগ্রাউন্ডে পরিস্কার অটোম্যাটিক ফায়ারিং শোনা গেছে, দুটো বার্স্ট। এটা কিভাবে সম্ভব, যদি প্যাডক একমাত্র শুটার হয়?

    বহু জায়গা থেকে শুটিংএর রিপোর্ট করা হয়েছে সেই রাতে, এটা পুলিসের টেপ থেকে ক্লিয়ার। ট্রপিকানা থেকে, বেলাজিও থেকে, নিউ-ইয়র্ক নিউ-ইয়র্ক থেকে, এক্সক্যালিবার থেকে, প্যারিস থেকে।

    এক হতে পারে এদের সবাই মিথ্যে কথা বলেছে। সেটা হলেও মোর দ্যান ওয়ান অ্যাকমপ্লিসের একটা সম্ভাবনা থাকে। কেউ বা কারা পুলিসকে বিভ্রান্ত করে ভুল যায়গায় নিয়ে এসে সময় নষ্ট করাচ্ছিল, যাতে আসল জায়গা থেকে কালপ্রিট গা ঢাকা দিতে পারে।

    আর এদের অন্তত কেউ কেউও যদি সত্যি বলে থাকে তাহলে ক্লিয়ারলি আরো ইনভেস্টিগেশানের প্রয়োজন।

    এই যখন কেস, শুটিংএর কয়েক ঘন্টার মধ্যেই মেইনস্ট্রীম মিডিয়া বলতে শুরু করে প্যাডক হল লোন শুটার। এত তাড়াতাড়ি বিশেষ কোন ইনভেস্টিগেশান করে কিকরে তারা শিওর হয়ে গেল?
  • lcm | 109.0.80.158 | ১১ অক্টোবর ২০১৭ ১২:১০368687
  • এখানে লোকাল টিভি চ্যানেলে দু-একজনের ইন্টারভিউ দেখাল যারা ঐ রাতে ওখানে ছিলেন। তো, ওরা যা বলল - প্রথমে বুঝতেই পারে নি কোথা থেকে আওয়াজ আসছে, প্রচন্ড জোর ভল্যুমে মিউজিক আর তার সঙ্গে আওয়াজ। কোন দিক থেকে গুলি আসছে বুঝতে না পারার জন্য অনেকে ঠিক করতে পারছিল না কোন দিকে দৌড় লাগাবে।
আমার গুরুবন্ধুদের জানানকরোনা
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার খেরোর খাতা, লিখতে থাকুন, বানান নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]
মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত