ভাটিয়ালি | টইপত্তর | বুলবুলভাজা | হরিদাস পাল | খেরোর খাতা | বই
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • মৌমিতা | 122.171.195.253 | ২৩ জানুয়ারি ২০২২ ২১:১৯503033
  • যুক্তি তর্ক সমালোচনা সবই চলছে চলবে, কিন্তু সুভাষচন্দ্র বসু এবং তার চিন্তাধারার দিকে সরাসরি আঙ্গুল তুললে তিনটি আঙ্গুল নিজেদের দিকেই চিহ্নিত করবে, সেই সত্যিটা যেনো মনে থাকে আমাদের।  
     
    অসম্ভব বলিষ্ঠ লেখা প্রতিবারের মতোই আর তথ্যসমৃদ্ধ, অনেক প্রশ্নের উত্তর পেলাম, নেতাজী কে শাসক হিসেবে না পাওয়ার আফসোস যাবার নয়।। অন্য ভারত জন্ম নিতো তাঁর হাত ধরে, সেটা আর হলো না! 
     
     
  • মোহাম্মদ আল্লারাখা | 2405:201:8007:315a:8cdd:ef98:c012:109a | ২৩ জানুয়ারি ২০২২ ২১:৪৪503034
  • যথার্থ লিখেছেন। নির্মোহ দৃষ্টিতে ঘটনার মূল্যায়ন করেছেন। 
  • Ranjan Roy | ২৩ জানুয়ারি ২০২২ ২২:৪২503038
  • নির্মোহ মূল্যাংকন পার্থবাবু; অনেকটাই একমত।
  • Ranjan Roy | ২৩ জানুয়ারি ২০২২ ২২:৪৯503039
  • কিন্তু শ্যামাপ্রসাদ ও সাভারকরকে 'পিটিয়ে তাড়ানো'র নির্দেশ নেতাজি দিয়েছিলেন এর তথ্যসূত্র পেলে ভালো হয়।
  • Partha Banerjee | ২৩ জানুয়ারি ২০২২ ২৩:০৪503043
  • Ranjan Roy 
    বলরাজ মাধোক (জনসঙ্ঘের বিখ্যাত নেতা) এবং আরো কয়েকজন এ কথা বলে গেছেন। মাধোকের ডাইরিতে আছে। 
  • ইতিহাস | 2a0b:f4c1:2::251 | ২৩ জানুয়ারি ২০২২ ২৩:৪৬503044
  • “বিনায়ক সাভারকর তাঁর জীবনের সায়াহ্নেও যে খাঁটি 'বিদ্রোহী' ছিলেন তার পরিচয় এখানে দেব। আমরা জানি, নেতাজি এই বৃদ্ধ বিদ্রোহীর অক্লান্ত তারুণ্য সম্পর্কে নিঃসন্দেহ ছিলেন। তাই তাঁর মতামত জানতে গিয়েছিলেন তিনি দেশ থেকে পালাবার পূর্বে । সাভারকর মন দিয়ে শুনেছিলেন সুভাষচন্দ্রের প্রস্তাব। দেশ থেকে পালিয়ে গিয়ে দ্বিতীয়-মহাযুদ্ধের সুযােগ নেবার যে-সংকল্প তিনি করেছিলেন, তা সাভারকরের সাগ্রহ সমর্থন লাভ করেছিল। সাভারকর অনুমােদন না করলেও নেতাজি সে-সুযােগ নিতেন। সেটা বড় কথা নয়। বড় কথা হল যে, অতি প্রাচীন সাভারকর এবং অতি তরুণ সুভাষচন্দ্রের চিন্তাধারা একই গতিবেগে তখনাে প্রবাহিত ছিল। ১৯০৬ সালের সাভারকর ১৯৪০ সালেও ইস্পাতের মত তীক্ষ্ণ’ ঝকঝকে বিদ্রোহী-মনের অধিকারী ছিলেন বলেই তরুণ বিপ্লবী সুভাষ, আগামী কালের বিপ্লবী-মহানায়ক 'নেতাজি' সংগােপনে পরামর্শ চাইতে গেলেন তারই কাছে ভারতের অপর কোন নেতার কাছে নয়।…”
    ―ভারতীয় উপমহাদেশের ব্রিটিশ বিরোধী স্বাধীনতা আন্দোলনের একজন অন্যতম ব্যক্তিত্ব এবং অগ্নিযুগের বিপ্লবী শ্রী ভুপেন্দ্রকিশোর রক্ষিত-রায় (ভারতে সশস্ত্র বিপ্লব)
    লেখক সম্পর্কে বিখ্যাত ঐতিহাসিক শ্রী রমেশচন্দ্র মজুমদার লিখেছেন:-
    “লেখক নিজে একজন প্রসিদ্ধ বিপ্লবী, বিপ্লবীদের সাহচর্যেই তাঁর জীবন কেটেছে। তাই সযত্নে ও আয়াস সহকারে পরিচিত অনেক বিপ্লবী বন্ধুর নিকট শােনা বিবরণ ও তাদের গ্রন্থ ও প্রবন্ধের সাহায্যে, এবং নিজস্ব অভিজ্ঞতা থেকে তিনি এই বিরাট গ্রন্থখানি প্রণয়ন করে বাংলা সাহিত্যের এবং বর্তমান যুগের ভারত-ইতিহাসের একটি বড় অভাব দূর করেছেন।”
  • Partha Banerjee | 68.160.248.73 | ২৪ জানুয়ারি ২০২২ ০০:৪৪503045
  • হীরেন সিংহরায় | ২৪ জানুয়ারি ২০২২ ০১:৩৩503047
  • যতদূর শুনেছি আজাদ হিন্দ বাহিনীতে হিন্দু শিখ মুসলিমদের আলাদা হেঁসেল ছিলো না। 
     
    কেউ আলোকপাত করবেন? 
  • | 2402:3a80:d3a:e408:7090:c90:fc44:4c08 | ২৪ জানুয়ারি ২০২২ ১১:১৯503055
  • আচ্ছা , এই লেখাটার নিচে আপনি যে ডক্টর সেটা লিখলেন না কেন ? আর আপনার ঠিকানাটাও দিলেন না | দুক্কু পেলুম |
  • Ranjan Roy | ২৪ জানুয়ারি ২০২২ ১৯:০৯503066
  • হীরেনবাবু,
       আমার বাবা ব্রিটিশ ইন্ডিয়ান আর্মিতে ছিলেন। রেঙ্গুন ইন্দোনেশিয়ায় বিশ্বযুদ্ধের সময় ছিলেন। পরে আই এন এ বন্দীদের বিচারের সময় ফোর্ট উইলিয়মে থাকাকালীন সাথীদের মধ্যে চাঁদা তুলেছিলেন--মামলায় সাহায্যের জন্য।
     ওনার মুখে শোনা অ্যানেকডোটঃ 
      একবার নেতাজি দেখলেন খাবার সময় সৈনিকেরা মুখোমুখি দুটো আলাদা লাইনে বসে। কারণ জিজ্ঞাসা করায় উত্তর পেলেন--একটায় হালালের মাংস পরিবেশন করা হচ্ছে, অন্যটায় ঝটকা। 
    উনি দুটো বালতি থেকে আদ্দেক আদ্দেক তুলে অন্য একটা বালতিতে মিশিয়ে দিতে বললেন। তারপর নিজের রেগুলেশন সোর্ড খুলে সেটাকে ঘেঁটে দিয়ে বললেন--এর থেকে যেকোন টুকরো তুলে ভাল করে দেখে বল কোনটা ঝটকার মাংস আর কোনটা হালালের?
    তারপর দুটো লাইন একটা হয়ে গেল।
    এটা বাবার যুদ্ধবন্দীদের মুখে শোনা কথা --  অ্যানেকডোটাল ভ্যালু। কোন ডকু কোট করতে পারছি না।
  • b | 117.194.75.128 | ২৪ জানুয়ারি ২০২২ ২০:৪২503067
  • আই এন এ-র কোনো যুদ্ধবন্দীকে কি কখনো পরে ইন্ডিয়ান আর্মিতে নেওয়া হয়েছিলো ?
  • Ranjan Roy | ২৪ জানুয়ারি ২০২২ ২১:০৯503068
  • বি,'
     না। স্বাধীন ভারতের কংগ্রেস সরকার আই এন  এ এবং ৪৬ সালের নৌবিদ্রোহের যোদ্ধাদের আর্মি ও নেভিতে ফেরৎ নেয়নি। এটাই কটু সত্য। অথচ ব্রিটিশ ইন্ডিয়ান আর্মির সৈনিক (আমার পিতৃদেব সমেত)  এবং জেনারেলদের (ধরুন জে  এম কারিয়াপ্পা) নেওয়া হয়েছিল। ভুল বললাম, ক্ষমতা হস্তান্তরের পর 'ব্রিটিশ ইন্ডিয়ান আর্মি' স্বতঃ ইন্ডিয়ান আর্মি হয়ে গেল।
  • b | 117.194.75.128 | ২৪ জানুয়ারি ২০২২ ২১:১৮503069
  • ঐ জন্যেই আমি ইন্ডিয়ান আর্মি-র উল্লেখ করেছিলাম । আপনার কথা সত্যি হলে, আমার নিজের ধারণা শুধু কংগ্রেস সরকার নয়, স্বাধীন ভারতের আর্মি বা নেভি এস্টাব্লিশমেন্টও একেবারেই বিরুদ্ধে ছিলো । 
  • | 2406:7400:63:ddea::103 | ২৪ জানুয়ারি ২০২২ ২১:৪৫503070
  • আচ্ছা ওই তরোয়াল টা কি নেতাজি এর পর ধুয়ে খাপে ঢোকালেন না কি জাস্ট চেটে পরিষ্কার করে নিলেন ?? 
     
  • হীরেন সিংহরায় | ২৪ জানুয়ারি ২০২২ ২৩:৫৫503073
  • শ্রী রায় 
    অশেষ ধন্যবাদ । তাহলে কি আলাদা হেঁসেল ছিলো ? 
  • | 49.207.219.35 | ২৫ জানুয়ারি ২০২২ ০০:১১503075
  • এবং সেই সব হেঁসেল এ কি হাতা খুন্তির জায়গায় তরোয়াল ব্যবহার হতো ?
  • Ranjan Roy | ২৫ জানুয়ারি ২০২২ ০০:১৫503076
  • বাবার কাছে যা শুনেছি (অ্যানেকডোট) শেষমেষ একটাই হেঁসেল ছিল। 
  • | 2402:3a80:d3a:27a9:e800:3778:2d8b:a693 | ২৫ জানুয়ারি ২০২২ ১১:৫৭503084
  • আজাদ হিন্দ এর হেঁসেল থেকে বেরিয়ে আসছে বালতি বালতি মাংস | নেতাজি কিচেন এর বাইরে একটা টুল এ তরোয়াল নিয়ে বসে আছেন আর তরোয়াল দিয়ে মাংসের বালতি গুলোতে হালাল-নন হালাল মিশিয়ে দিচ্ছেন | পিছুনে ব্যান্ড বাজছে | আর এসবের মধ্যে এক্জন এইসব নোট করে রাখছেন | 
    হে আসল বীর , লহ প্রণাম |
  • পলিটিশিয়ান | 76.174.114.1 | ২৫ জানুয়ারি ২০২২ ১৯:৩৩503097
  • লেফট যুদ্ধে হিটলারের বিরুদ্ধে ব্রিটিশকে সমর্থন করল বলে দুর্ভিক্ষ হল। এই কানেকশন লজিক্যালি করতে পারছি না।
     
    যতদূর জানি বাংলায় দুর্ভিক্ষ ত্রাণে লেফট একটা উল্লেখযোগ্য ভূমিকা নিয়েছিল।
  • Ranjan Roy | ২৬ জানুয়ারি ২০২২ ২১:৪৬503142
  • পলিটিশিয়ানের  সংগে একমত।  
    বামেরা  তখন খুব ছোট শক্তি।  ব্রিটিশের যুদ্ধের নীতি কী করে তাদের দ্বারা প্রভাবিত হতে পারে? কংগ্রেস সবচেয়ে বড় দল, তারপরে মুসলিম লিগ। কংগ্রেস বিরোধিতা করেছিল, তাতে কিছু আটকায় নি।
    হিন্দু মহাসভা তখন মুসলিম লীগের সংগে মন্ত্রীসভায় সহযোগী। 
      কমিউনিস্ট পার্টি আজকের রেড ভলান্টিয়ারদের মত দুর্ভিক্ষে রিলিফ ক্যাম্প লঙ্গর ইত্যাদি সক্রিয় ভাবে করেছিল।
  • Ranjan Roy | ২৭ জানুয়ারি ২০২২ ১৪:২৬503154
  • হীরেনবাবু
       গতকাল, মানে ২৬ জানুয়ারি, ২০২২, The Wire  ডিজিটালে নেতাজিকে নিয়ে একটি দীর্ঘ প্রবন্ধ বেরিয়েছে। তাতে নেতাজির ঘনিষ্ঠ সঙ্গী আবিদ হাসানকে উধৃত করে বলা হয়েছে যে আজাদ হিন্দ ফৌজের খাওয়াদাওয়ায় ঝটকা/হালাল সমস্যা amicably settled করা হয়েছিল। হিন্দু মুসলমান এক টেবিলে পাশাপাশি বসে খেত। এবং নেতাজি নিজে মাঝে মাঝে সেখানে যোগ দিতেন।
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]


মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত
পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। দ্বিধা না করে মতামত দিন