ভাটিয়ালি | টইপত্তর | বুলবুলভাজা | হরিদাস পাল | খেরোর খাতা | বই
  • টইপত্তর  আলোচনা   বই

  • আপনার প্রিয় কল্পবিজ্ঞান/ ফেবারিট সায়েন্স ফিকশন 

    জয়
    আলোচনা | বই | ২২ ডিসেম্বর ২০২১ | ৩০৪৬ বার পঠিত | রেটিং ৫ (১ জন)
  • বই উপন্যাস নভেল
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • &/ | 151.141.85.8 | ২৬ জানুয়ারি ২০২২ ০৮:৪৬735464
  • জয়, আপনি লিউ চিশিনের লেখা 'দ্য থ্রী বডি প্রবলেম' উপন্যাসটা পড়েছেন কি? এটার সিকোয়েলও আছে দু'টো। সব মিলে ট্রিলজি। দ্য থ্রী বডি প্রবলেম, দ্য ডার্ক ফরেস্ট, ডেথ'স এন্ড।
    সবচেয়ে আলোচিত প্রথমটাই। এটা যদিও সায়েন্স ফিকশন, কিন্তু এটার মধ্যে চীনের সত্যিকার ইতিহাসের অনুষঙ্গও আছে অনেক।
  • জয় | 82.1.126.236 | ২৬ জানুয়ারি ২০২২ ১৬:২৯735467
  • না অ্যান্ডর। থ্যাঙ্ক ইউ। পড়ব পড়ব করে পড়া হয়নি। কোন অন্য একটা টই (জিলিপি/ অমৃতি নিয়ে...) তে উল্লেখ দেখে প্রথম দুটো বই কিন্ডলে ডাউনলোড করেছিলাম গত মাসে বোধহয়। তখনই দেখছিলাম খুব রেকোমেন্ডেশন চারপাশে। তারপর যা হয়- পড়া না হলে চাপা পড়ে যায়। বলার জন্য ধন্যবাদ। শিগ্রী শুরু করছি।
  • জয় | 82.1.126.236 | ২৬ জানুয়ারি ২০২২ ১৬:৪৫735468
  • এখন পড়ছি গ্রেগ ইগান। জিৎ পোষ্ট করেছিল। "অ্যাক্সিওম্যাটিক"বইটা হস্তগত হয়েছে। "ক্লোজার" বলে একটা ছোট গল্প।
  • জয় | 82.1.126.236 | ২৭ জানুয়ারি ২০২২ ০৪:৩১735470
  • "অ্যারাইভাল (২০১৬)" দেখলাম। অ-সা-ধা-র-ণ। কেমন একটা ডেজড হয়ে আছি। মুভি দেখার পর এত শিগ্রী লিখলে অবজেক্টিভিটি হয়ত থাকে না, আবেগটাই উথলে ওঠে। কিন্তু সেটাও তো খাঁটি ইমোশন। তাই বলি  হাতের সব কাজ ফেলে দেখুন। 
     
    টেড চিয়াংএর "দি স্টোরিজ অব ইয়োর লাইফ" অবলম্বনে। ভদ্রলোকের এই গল্প লেখার পর আর কোন কিছু লেখার দরকার নেই। সাই ফাই হল অফ ফেমে ওঁর জায়গা পাকা।উফ্!
     
  • &/ | 151.141.85.8 | ২৭ জানুয়ারি ২০২২ ০৮:২১735472
  • জয়, আপনার কাছে একটা অনুরোধ ছিল। আমার এক বন্ধু একটি সাইফাইয়ের প্ল্যান করছে, ভাইরাসদের স্ট্যান্ডপয়েন্ট থেকে হিউম্যানদের জীবন কীরকম, সেইটে দেখানো। তাদের কত প্রজন্ম ইকুইভ্যালেন্ট টু মানুষের কতটা সময়-এইসব। আপনি তো জীন সিকোয়েন্সগুলো করেন, আরও অনেক বিস্তারিত জানেন এইসব ব্যাপারগুলো নিয়ে। তথ্য ও বর্ণনা দিয়ে সাহায্য করতে পারেন কি? তার পক্ষ থেকে ধন্যবাদ রইল। যদি ইমেলে পাঠাতে চান, তাহলে বলবেন, ইমেল আইডি দেবো। আর যদি সম্মত না হন, তাহলেও সচ্ছন্দে জানান, কোনো অসুবিধা নেই। :-)
  • জয় | 82.1.126.236 | ২৭ জানুয়ারি ২০২২ ১১:১৩735473
  • অ্যান্ডর 
    আমি তো ভাইরোলজি লোক নই। ক্যানসারের। তাও ক্লিনিক্যাল (ডায়াগনোস্টিক/ মিনিম্যাল অ্যাকস্স সার্জারি)। বেসিক সায়েন্স, ল্যাবে জিন সিকোয়েন্সিং খানিকটা পাঁচন গেলার মত করে বছর তিনেক করেছি। ভাইরাস নিয়ে পড়া এই প্যান্ডেমিকের বাজারে। জানিনা কতটা সাহায্য করতে পারব। দারুন প্রোযেক্ট। চেষ্টা করতে পারি। না পারলে ভয় হয় সময় নষ্ট না করি।
  • জয় | 82.1.126.236 | ২৭ জানুয়ারি ২০২২ ১১:১৫735474
  • *ভাইরোলজির
    *অ্যাক্সেস
  • dc | 122.178.146.154 | ২৭ জানুয়ারি ২০২২ ১১:৪৯735475
  • জয় যেগুলো লিখতে বলেছেন, লিখবো। আর অ্যারাইভাল সিনেমাটা আমারও খুব ভাল্লেগেছিল, বিশেষত সার্কুলার ল্যাংগুয়েজের কনসেপ্টটা। ওরকম একটা ভাষা শিখতে পারলে তো দুর্দান্ত হবে! শুধু একটাই ব্যপার, এমি অ্যাডামস এর অ্যাক্টিং এই সিনেমাটায় অতোটা ভাল্লাগেনি, উনি লাস্ট কয়েকটা সিনেমায় একই রকম অ্যাক্টিং করে গেছেন (যেমন অ্যামেরিকান হাসল)।  
  • জয় | 82.1.126.236 | ২৭ জানুয়ারি ২০২২ ১৫:২৯735476
  • ও থ্যাঙ্ক ইউ ডিসি
    ক'দিন এ পাড়ায় না দেখে টেনশনে পড়ে গেছিলাম। বেশী উত্তক্ত করে ফেলেছিলাম ভেবে ভয় হচ্ছিল।
     
    নন লিনিয়ার স্ক্রিপ্টের আইডিয়া। একটা বাক্য দু পাশ থেকে শুরু করা একই সাথে। প্যালিন্ড্রোমিক নাও হতে পারে। শুধু যে দুটো চিন্তা এক সময়ে ভাবা এবং এক্সিকিউট করাই নয়, অ্যাওয়ারনেস থাকতে হবে বাক্যের শুরু এবং শেষ মাঝখানে এসে মিলবে সিমলেসলি। তাছাড়া ভাষার ৩ডি কনসেপ্ট। স্ক্রিপ্টের স্পেশিয়াল অ্যারান্জমেন্ট- এমনকি মাঝের ফাঁকা জায়গাও কমিউনেকশন করছে। অনেকটা সাইন লাঙ্গুয়েজ/ বডি ল্যাঙ্গুয়েজ/ নন ভার্বাল কিউ? 
     
    (অ্যারাইভালঃ ডিরেক্টর - ডেনি ভিলেন্যুভে
    অরিজিন্যাল গল্পঃ দি স্টোরিজ অফ ইউর লাইফ- টেড চিয়াং)
     
     
  • &/ | 151.141.85.8 | ২৮ জানুয়ারি ২০২২ ০২:০৮735477
  • অনেক ধন্যবাদ জয়। আপনি যদি আপনার ভাইরাস নিয়ে পড়াশোনা আর ল্যাবে জিন সিকোয়েন্সিং এর অভিজ্ঞতা( কীরকম প্রিকশন নিতে হয়, কীভাবে স্টেপে স্টেপে করে, কী মেশিন ব্যবহার হয় এইসব) যদি বিস্তারিত লেখেন তাহলেই বিরাট উপকার হয়। লিংকও দিতে পারেন যদি সহজে বোঝার মতন বর্ননা ও তথ্যাদি থাকে, মানে ফিল্ডের বাইরের লোকের পক্ষে সহজে বোঝার মতন।
    এখানে অসুবিধে হতে পারে, ইমেলে দিতে পারেন। ইমেল ঠিকানা [email protected]ইয়াহু ডট কম।
    আগাম ধন্যবাদ।
  • জয় | 82.1.126.236 | ২৮ জানুয়ারি ২০২২ ০৪:২৪735478
  • ছোট গল্পঃ ক্লোজার

    লেখকঃ গ্রেগ ইগান। অস্ট্রেলিয়ান। ভয়ানক রেক্লুসিভ। কোন অ্যাওয়ার্ড সেরেমনি/ বুক সাইনিং-এ যান না। নেটে নাকি তাঁর কোন ছবি নেই! সিরিয়াসলি নার্ড। অঙ্ক নিয়ে পড়াশুনা। সদ্য সুপার-পারমুটেশনের কোন এক সমস্যার সমাধান করে খবরের শিরোনামে উঠে এসে ছিলেন।

    বইঃ অ্যাক্জিওম্যাটিক (১৯৯৫), ১৮টি ছোট গল্পের কালেকশন। সব গল্পই এক একটি থট এক্সপেরিমেন্ট- মানুষের শরীরে নিউরাল নেটকম্পিউটার/ ইম্প্ল্যান্ট বসালে/ মেডিসিন নিলে কি হতে পারে তা নিয়ে। 

    জঁরঃ হার্ড সাই ফাই

    রিভিউঃ 
     
    "Everything is bearable, so long as finite.”

    প্রোটাগনিস্ট মাইকেল হলোভিসনের (হলোগ্রাফিক টেলিভিশন) এডিটর। গার্ল ফ্রেন্ড শন কমিউনিকেশন ইন্জিনিয়ার। মাইকেল একটু ফিলজফিক্যাল।আর শন হল ফান। 
    এখন জন্মাবার সময়ই সবার মস্তিষ্কে “জুয়েল ন’ডোলি” নিউরাল নেট কম্পিউটার বসিয়ে দেওয়া হয়। 
    ১৮ বছর হলেই “সুইচ” করতে হয়, যতই গাঁইগুঁই করুন, মানুষ মস্তিষ্ক ফেলে দিতে হয়- জুয়েল ন’ডোলি পুরোপুরি তার জায়গা নেয়। একে মানুষ না কম্পিউটার বলবেন? মানুষ/ মানুষ-কম্পিউটার এখন একরকম অমর। ক্লোনড শরীরও সহজলভ্য। 
    মাইকেলের সমস্যা একাকীত্ব।মাইকেল বুঝতে চায় অন্যকে, আন্তরিক ভাবে। শনের সঙ্গে মাইকেলে সম্পর্ক অন্তরঙ্গ। তবু মাইকেলের আশঙ্কা সে বোধহয় কোনদিনই শনকে বা অন্যকে একান্ত ভাবে জানতে পারবে না। অবশেষে তারা তাদের শরীর বদল করে। শনের শরীরে মাইকেল, মাইকেলের শরীরে শন। তাতেও কি প্রশ্নের উত্তর মেলে? অবশেষে তারা সাময়িক ভাবে মস্তিষ্ক এবং শরীর দুই-ই বদলে দুটি একই অস্তিত্ব/ মানুষ/ কম্পিউটারে পরিনত হয়।মাইকেল বুঝতে পারে না সে মাইকেল না  শন। তারা একই স্বত্ত্বায় পরিনত হয়। এই পরীক্ষার এক সপ্তাহের মধ্যে তাদের ছাড়াছাডি  হয়ে যায়- তারা এত “এক” হয়ে যায় যে তারা নিজেদের আর সহ্য করতে পারে না। তারা এক বা আবার একাকী হয়ে যায়। 
  • জয় | 82.1.126.236 | ২৮ জানুয়ারি ২০২২ ০৪:৪১735479
  • @&/
    ইমেল করেছি। প্রশ্নগুলো আর একটু স্পেসিফিক হতে পারে কি- তাহলে উত্তর দিতে সুবিধা হবে। দুটো দিন সময় দিন।
  • &/ | 151.141.85.8 | ২৮ জানুয়ারি ২০২২ ০৭:০০735480
  • হ্যাঁ, হ্যাঁ, কোনো তাড়া নেই। আপনি সময় নিন। কোনো স্পেসিফিক কিছু প্রশ্ন না, আপনি গল্প করার মতন করে বলুন। একদম বেসিক থেকে।
  • জয় | 82.1.126.236 | ২৮ জানুয়ারি ২০২২ ১১:১০735481
  • এইটা পড়তে পারেন। ছোট গল্প। "এক্সহেলেশন"। টেড চিয়াংএর। আমায় টেডে পেয়েছে! সব দোষ রঞ্জনদার:)
     
    একটু ডার্ক। 
  • dc | 122.183.150.236 | ২৮ জানুয়ারি ২০২২ ১১:৫৫735482
  • কাল মনে পড়ছিল না। অ্যারাইভাল এ যেটা দেখানো হয়েছে, সেটা Sapir-Whorf hypothesis এর একটা ফর্ম। আমরা যেরকম ভাষা স্ট্রাকচার ব্যবহার করি সেভাবেই ভাবি (উল্টোটা না)। অর্থাত আমাদের ভাষাগুলো লিনিয়ার আর হায়েরার্কিকাল, সেইজন্য আমরা লিনিয়ার আর সিকোয়েন্সিয়ালি ভাবি। সেইজন্য আমরা সময়কেও লিনিয়ারলি দেখি আর আমাদের সায়েন্সও হায়ারার্কিকালি এগোয়। কাজেই, যদি সার্কুলার কোন ভাষা আবিষ্কার করা যায়, আর সবাই সেই ভাষায় ভাবতে শুরু করে, তো আমরা টাইমও সাইক্লিকাল হিসেবে দেখতে শুরু করবো। সিনেমাটা দেখে এই কনসেপ্টটা আমার এতো অসাধারন মনে হয়েছিল যে টেড চিয়াং এর বইটাও পড়ে ফেলেছিলাম, সাপির-হর্ফ নিয়ে একটু পড়েওছিলাম। তো তখন দেখলাম চমস্কি সাহেব এই হাইপোথিসিস নস্যাত করে দিয়েছেন এই বলে যে আমাদের ব্রেন যেভাবে কাজ করে আর যেভাবে আমরা ভাবি, আমাদের ভাষাও সেভাবেই স্ট্রাকচার্ড, উল্টোটা না (এটা আমারও লজিকাল মনে হয়েছিল)। তবে সাপির-হর্ফ নিয়ে কিন্তু এখনও কাজ চলছে। 
  • জয় | 82.1.126.236 | ২৮ জানুয়ারি ২০২২ ১৭:৫৯735484
  • "ক্লোজার" বাই গ্রেগ ইগান। কেউ অন লাইন পড়তে চাইলে---
     
    জিত সাইটটার কথা আগেই পোস্ট করে ছিলেন। @জিত- ধন্যবাদ। বেশ কয়েকটা গল্প অন লাইন পড়তে পারবেন। কিন্তু ডাউনলোড বোধহয় করা যায় না। 
  • &/ | 151.141.85.8 | ২৯ জানুয়ারি ২০২২ ০৪:১৬735485
  • জয়, ডিসি, আপনাদের অনেক ধন্যবাদ। 'স্টোরি  অব ইয়োর লাইফ' পড়ছি এখন। সবে এলিয়েনদের ভাষা শেখার অংশটায় এসেছি। হেপ্টাপড এলিয়েন দু'জন ওপাশ থেকে কানেক্ট করেছে। হিউম্যান বিশেষজ্ঞ দুজন ওদের নাম দিয়েছেন র‌্যাস্পবেরি আর ফ্ল্যাপার। ঃ-)
  • &/ | 151.141.85.8 | ২৯ জানুয়ারি ২০২২ ০৪:২২735486
  • ডিসি, আমাদের ভাষা তো লিনিয়ার। কিন্তু তাও আমাদের মানে কোনো কোনো হিউম্যান গোষ্ঠীতে কালচক্রের ধারণা আছে। সময় চক্রাকার, ঘুরে ঘুরে আসে এক কল্পের পর অন্য কল্প। মানে সৃষ্টি, স্থিতি, প্রলয়, আবার সৃষ্টি- এরকম বৃত্তাকার ধারণা।
  • জয় | 82.1.126.236 | ২৯ জানুয়ারি ২০২২ ০৫:১৮735487
  • "স্টোরি অফ ইয়োর লাইফ": টেড চিয়াং
    প্রোটাগনিস্ট ভাষাবিদ ড: লুইস ব্যাঙ্কসকে তার কোলিগ/ হবু হাজব্যান্ড/ হবু এক্স ফিজিসিস্ট ড: গ্যারি ডোনলি "ফেরমাত'স প্রিন্সিপল অফ লিস্ট টাইম" কি বলল। আমরা জানি যে যখন আলোর রশ্মি বায়ুর মধ্য দিয়ে এক সরলরেখায় এসে জলে পরে, জলের রিফ্র্যাক্টিভ ইন্ডেক্স আলাদা হওয়ার জন্য আলো বেঁকে অন্য সরলরেখায় যাবে। ফেরমাত  (১৬৬২) বলেন আলোর এই পথ সোজা নয়/ সবচাইতে কম দূরত্বের নয়। আলো যদি সোজা যেত তাহলে জলের মধ্যে দিয়ে অনেকটা দূরত্ব যেতে হত- সময় বেশী লাগত। এখন জলের মধ্য দিয়ে যদি সবচেয়ে কম যেতে হয় তাহলে বায়ুর মধ্য দিয়ে অনেকটা বেশী যেতে হবে। আলো সেই পথেই যায় যাতে কিনা সময় সবচাইতে কম লাগে।
    এখন লুইসের প্রশ্ন তাহলে আলো কি যাত্রা শুরুর আগেই জানত তাকে সবচেয়ে কম সময়ের পথে যেতে হবে এবং কোন নির্দেশে যেতে হবে? কারন আলোর কোন কোর্স কারেকসনের সুবিধে নেই।আলো কি ভবিষ্যত জেনে এমন ভাবে যাত্রা করে?
    ফিজিক্যাল পৃথিবীতে বেশীর ভাগ সময়ে একটা "কার্য- কারণ" সম্পর্কের একটা সরলরেখায় চলে। জলে আলো পড়লে আলো বেঁকে যায়- কারন রিফ্র্যাক্টরি ইন্ডেক্স। আমরা যেকোন ঘটনাক্রমের এরকম "কজাল" ব্যাখ্যা করতে পারি। আবার ভিনগ্রহী হেপ্টাপডরা ভবিষ্যত জেনে, ফল (উদা: সবচেয়ে কম সময়) জেনে ঘটনাক্রমের "টেলিওলজিক্যাল) ব্যাখ্যা করতে পারে। আমাদের চিন্তা/ স্ক্রিপ্ট রৈখিক। আর ওদের বৃত্তাকার।
     
     
     
     
  • Amit | 220.240.134.33 | ২৯ জানুয়ারি ২০২২ ০৬:০২735488
  • ঠিক কম সময় কি ? প্রবাবলী উনি বলতে চেয়েছেন পাথ অফ লিস্ট রেসিস্টেন্স। আগে থেকে জানা পথ নয়। 
  • &/ | 151.141.85.8 | ২৯ জানুয়ারি ২০২২ ০৬:১২735489
  • সেই বিখ্যাত ডাবল স্লিট এক্সপেরিমেন্ট। কোয়ান্টাম পার্টিকল দিয়ে। একটা একটা করে ফোটন পাঠালেও একাই দুই যেন ঢেউ হয়ে স্লিটের ভিতর দিয়ে যায়। দিব্যি ইন্টারফেরেন্স প্যাটার্ন দেখা যায় পিছনের স্ক্রীনে। পরিষ্কার ওয়েভ প্রপার্টি। অথচ যেই না দেখতে যাওয়া কোন স্লিটের মধ্য দিয়ে গেছে, স্লিটের কাছে ডিটেকটর রেখে সুইচ অন করে দেওয়া, অমনি ইন্টারফেরেন্স প্যাটার্ণ ভ্যানিশ। সে পার্টিকল এর মতন যায়। একটা স্লিটের মধ্য দিয়ে। ডিটেকটর যদি স্লিট থেকে দূরে, স্ক্রীনের কাছে রেখেও দেখা হয়, তাহলেও। অথচ তার অনেক আগেই দুই স্লিটের মধ্য দিয়ে এসেছে। যেন বুঝতে পারে ভবিষ্যতে ডিটেক্ট করা হবে। পার্টিকল প্রপার্টি দেখায়। অথবা আসছিল ওয়েভ হয়েই, ডিটেকটর অন দেখেই যেন অতীতে ফিরে গিয়ে পার্টিকল হয়ে আসে। অথবা কেজানে হয়তো এসব কিছুই না, আরো গভীর কোনো অন্য রকম মেকানিজম আছে যা আমরা জানিনা এখনও।
  • জয় | 82.1.126.236 | ২৯ জানুয়ারি ২০২২ ০৬:১৭735490
  • @অমিত 
    আমি "ফেরমাত" বিন্দুমাত্র জানতাম না এই বইটা পড়ার আগে। আমার বর্ননার চেষ্টা করেছি যেমন টেড চিয়াং ফেরমাতের ইন্টারপ্রিটেশন করেছেন ওঁর বইতে। সাই ফাই এর স্বাধীনতা বোধহয়। নাকি আমি ভুল বুঝেছি।
    আপনি আরেকটু বিষদে লিখলে আমার মত গাধাদের সুবিধা হয়। আগাম ধন্যবাদ।
  • Amit | 220.240.134.33 | ২৯ জানুয়ারি ২০২২ ০৬:২৩735491
  • হায় হায়। আমার ফিজিক্স এর জ্ঞান শুন্য। আমিও সাই ফাই এর ভক্ত - সেই সুবাদে দুএকটা আলপটকা কমেন্ট করে ফেলি।
      এন্ডর বরং অনেক ভালো বোঝাতে পারবেন। 
  • সায়ন্তন চৌধুরী | ২৯ জানুয়ারি ২০২২ ০৬:৩৫735493
  • ওটা লীস্ট পাথ নয়, লীস্ট টাইমই ঠিক আছে। লীস্ট পাথ হত সরলরেখা; লীস্ট টাইম হয় সাইক্লয়েড। শুধুমাত্র অভিকর্ষের দরুন কোন পথে গেলে একটি কণার সবচেয়ে কম সময় লাগবে, এটা বিখ্যাত ব্র্যাকিস্টোক্রোন সমস্যা। এর পিছনে গল্পটা খুব বিখ্যাত; গণিতজ্ঞ জোসেফ বার্নুলি এটা সমাধান করে ফেলেছিলেন, কিন্তু তিনি পাবলিশ করার বদলে সেইসময়ের বড় বড় গণিতজ্ঞদের চ্যালেঞ্জ করলেন। স্যার আইজ্যাক নিউটন তখন বুড়ো হয়েছেন; চ্যালেঞ্জ পেয়ে নিউটন বেশ বিরক্ত হয়েছিলেন। যাইহোক, একটি রাত জেগে নিউটন বের করে ফেলেন কার্ভটা সাইক্লয়েড হবে। শোনা যায়, জোসেফ বার্নুলি নিউটনের সমাধান সমেত পত্রটি পড়ে বলেছিলেন, আই রেকগনাইজ দ্য লায়ন বাই হিজ প!
     
    একাধিক মাধ্যমের মধ্যে দিয়ে যাবার সময় আলো লীস্ট টাইমের পথ অনুসরণ করে; এটা ফার্মার প্রিন্সিপল (ফেরামত নয়, ফার্মার উপপাদ্য যার)। এটা থেকেই আসে আলোর প্রতিসরণের ক্ষেত্রে স্নেলের সূত্র, যেটার সাথে বোধহয় সকলেই পরিচিত।
  • সে | 2001:1711:fa42:f421:5d05:c4d3:c61a:ec12 | ২৯ জানুয়ারি ২০২২ ০৬:৪১735494
  • আমি গাধার মত প্রশ্ন করছি। 
    আলো যখন তরঙ্গের মত আচরণ করে, সে তো তখনও কণিকা নয়?
  • সে | 2001:1711:fa42:f421:5d05:c4d3:c61a:ec12 | ২৯ জানুয়ারি ২০২২ ০৬:৪৫735495
  • আরেকটা প্রশ্ন। একেবারে প্রাথমিক লেভেলের জ্ঞান থেকে বলছি। আলো তো ট্রান্সভার্স ওয়েভ ( হয়ত ভুল বললাম), তো অন্য যে কোনও এরকম ওয়েভের আচরণ কি আলোর মতই হবে না? মানে আলো নিয়ে ( দৃশ্যমান আলো) এত মাতামাতি কেন?
  • &/ | 151.141.85.8 | ২৯ জানুয়ারি ২০২২ ০৬:৪৭735496
  • আলো যখন তরঙ্গের মতন আচরণ করে তখন ইন্টারফেরেন্স, ডিফ্য্রাকশন এইসব ব্যাপারগুলো দেখা যায়, যা কণারা করতে পারে না। তাই এইসব দেখা গেলে তখন তো কণা বলা যাবে না।
  • সে | 2001:1711:fa42:f421:5d05:c4d3:c61a:ec12 | ২৯ জানুয়ারি ২০২২ ০৬:৪৭735497
  • সাইফাই এ গ্রহান্তর বা অন্য ছায়াপথের প্রাণীদের দৃষ্টিশক্তি কেন শুধুই দৃশ্যমান আলো (বামার সিরিজ) র মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকবে?
  • &/ | 151.141.85.8 | ২৯ জানুয়ারি ২০২২ ০৬:৪৯735498
  • আলো মাধ্যম ছাড়াই যেতে পারে, অন্য ট্রান্সভার্স ওয়েভ তো পারে না। আলো শূন্যের মধ্য দিয়ে যেতে পারে। আলো ইলেকট্রিক ফিল্ড আর ম্যাগ্নেটিক ফিল্ডের ভাইব্রেশন।
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]


মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত
পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। ভ্যাবাচ্যাকা না খেয়ে প্রতিক্রিয়া দিন