• মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • | ১৯ জুন ২০২১ ১৪:৫৬495081
  • ইলিশের স্বাদ নির্ভর করে ইলিশ কতটা সাঁতার কেটেছে তার উপর। মোহনা থেকে যত উপরে ধরা যায় তার স্বাদ তত ভাল হয়। এদিকে বাজারে নানা জায়গার ইলিশ ঢুকেছে সেগুলোকে জালি ইলিশ বললেও ভুল হয় না। 


    কলকাতার ইলিশের স্বাদ তেমন হয়ই না।  আপনি  নিউ জলপাইগুড়ি দিয়ে কোথাও গেলে একবার মালবাজারে বাপীদার দোকানের ইলিশ খেয়ে দেখবেন। উনি চ্যাংরাবান্ধা সীমান্ত দিয়ে বাংলাদেশ থেকে সরাসরি আনেন টাটকা ইলিশ। সে অসম্ভব সুস্বাদু। ইলিশ ছাড়াও অন্য অনেক দুর্লভ মাছও ওঁর দোকানে মাঝেমাঝে পাওয়া যায়। ন্যাদোষ, টাটকিনি এইসব মাছ কলকাতা বা আশেপাশে পাওয়া যায় না আর। 

  • Avi Biswas | ১৯ জুন ২০২১ ১৭:২৬495091
  • অবশ্যই । আপনাকে অনেক ধন্যবাদ এই মূল্যবান তথ্যের জন্য ।

    ধন্যবাদ ।

  • Rajeswari | 122.163.86.210 | ১৯ জুন ২০২১ ১৮:২৮495095
  • Khub Bhalo lekha hoyeche

  • Abhyu | 47.39.151.164 | ১৯ জুন ২০২১ ১৯:৫২495097
  • ওদিকে আমি আবার শুনেছিলাম আমেরিকায় শ্যাড মাছ হল ইলিশের বিকল্প। খেয়ে মনে হল স্যাড মাছটি সার্থকনামা। দাড়ি থাকলেই রবীন্দ্রনাথ আর কাঁটা থাকলেই ইলিশ?

  • Avi Biswas | ১৯ জুন ২০২১ ২৩:৩৬495101
  • শ্যাড মাছ সম্পর্কে শুনিনি । তবে ওদেশে থাকতে স্যালমন কে অনেকে ইলিশের সাথে তুলনা করত । আমি স্যালমন খেয়েছি, আমার মতে ওটা অভার-হাইপড । ভাল,... কিন্তু ইলিশ নয় ! 

  • তিলোত্তমা | 115.187.51.63 | ১৯ জুন ২০২১ ২৩:৫৮495104
  • আরে বাহ্। দারুণ লিখেছিস তো।


    আমি তো ভাবি আমরা অলমোস্ট দি বেস্ট ইলিশ খাই। আমাদের টেক্কা দিল নিউ ইয়র্ক। কি কান্ড।


    যাই হোক, লেখাটা জবরদস্ত। 

  • Moin Uddinashraf | ২০ জুন ২০২১ ০০:৩৪495105
  • কখনো জ্যান্ত ইলিশ দেখেছেন কি? না দেখবারই কথা। আমার বাড়ী ঢাকায় হলেও আমাদের গ্রামের বাড়ী কুমিল্লায়, আপনাদের জানানোর জন্য বলে রাখি এস ডি বর্মনের বাড়ীও কিন্তু সেখানেই ছিলো। আবার খুলনা শহরে আমাদের বাড়ী আছে আর আমার শৈশব-কৈশর সেখানেই কেটেছে এখনও প্রায় প্রতি মাসেই সেখানে যাওয়া হয়। ঢাকা থেকে আরিচা, পাটুরিয়া বা মাওয়া, যে ঘাট হয়েই যাই না কেন, পার হতে হয় বিশাল পদ্মা। মাওয়া ঘাট হয়ে গেলে তো পদ্মা নদী পার হতে চার ঘন্টারও বেশী লেগে যায়। আমি বহুবার জেলেদের জাল টেনে পদ্মা থেকে জ্যান্ত ইলিশ তুলতে দেখেছি। মাওয়া ঘাটে খুব সাধারন দোকানের এই টাটকা ইলিশ মাছের স্বাদও অসাধারন-অবর্ণনীয়। এখানকার আরেকটা ভালো ব্যাপার হলো এদের কিচেনগুলো ওপেন। আপনি যে মাছটি খেতে চাইবেন তা দেখিয়ে দেবেন-রেস্তোঁরার বাবুর্চিরা সে মাছটিই আপনার সামনেই কেটে আপনার পছন্দানুযায়ী রেঁধে দেবে। আবার লেজটা আলাদা ভেজে সর্ষের তেল দিয়ে ভর্তা করে দেবে-সাথে ধোঁয়া ওঠা গরম ভাত-ওহ সে আর কি বলবো। বর্ষাকালে এখানে ইলিশের দাম কমে যায়। সেসময় এখানে দেড় কেজি ওজনের ইলিশ আট'শ থেকে এক হাজার টাকাতেও পাওয়া যায়। এখানকার ইলিশগুলোর স্বাদ অসাধারন হবার একটা বড় কারন হলো রান্নার সময়ও ইলিশগুলো খুব টাটকা থাকে। পদ্মায় ইলিশ ধরার দু-তিন ঘন্টার ভেতরেই ইলিশগুলো রান্না হয়। এই টাটকা ইলিশের স্বাদের সাথে বরফ দেয়া ইলিশের স্বাদের পার্থক্য অনে---ক। বাংলাদেশ নদীর দেশ, পানির দেশ আর অসংখ্য প্রজাতির অগনিত মাছের দেশ। এদেশে যত ধরনের মাছ পাওয়া যায় তার বেশীর ভাগই পশ্চিমবঙ্গের লোকেরা চেনেনা। ব্যাপারটা আমি বেশ জানি কারন আমার মায়ের বাড়ী কিন্তু পশ্চিমবঙ্গেই, হুগলীর বড় তাজপুরের বিখ্যাত মল্লিক পরিবারে। আমার মা ছিলেন ব্যারিস্টার এস ওয়াজেদ আলীর নাতনী মানে ব্যারিস্টার সাহেব ছিলেন আমার নানীর আপন বড়চাচা। ভদ্রলোক ১৯১২ সালে বিলেত থেকে ফেরবার সময় বার এট ল ডিগ্রী তো আনলেনই, সাথে করে আবার ইংল্যান্ডের বিখ্যাত স্যাক্সবাই পরিবারের মেয়ে নেলি স্যাক্সবাইকে (মুসলিম হবার পর যাঁর নাম হয়েছিলো সুলতানা) বিয়ে করে বউ বানিয়ে নিয়ে এলেন। এই সুলতানা বা পূর্বতন নেলি স্যাক্সবাইও জীবনের একটা বড় সময় ঢাকায় কাটিয়েছেন, বাংলাদেশের ইলিশ তিনি কতটুকু খেয়েছিলেন তা জানিনা, তবে না খাবার কথা নয়। আমার নানীর কাছে প্রায়ই শুনতাম প্রথম যখন দেশ বিভাগের পর উনারা পূর্ব বঙ্গে আসলেন সেই ১৯৪৭ সালে, আর পরে যখন স্থায়ীভাবে আসলেন ১৯৬৩ সালে তখনও ঢাকার বাজারে যেসব মাছ পাওয়া যেত, তার কয়েকটি বাদে ৮০% বা তার বেশী অংশের নামই তাঁরা জানতেন না। নানীভাইকে জিজ্ঞেস করেছিলাম কেন জানতেন না? তাঁর উত্তর ছিলো 'আমাদের ওখানে কি এত মাছ পাওয়া যায়! ওখানে আমাদের ফুড এরিস্টোক্রেসিটা ছিলো গরুর গোশকে ঘিরে। এদেশে যত ধরনের মাছ দেখি এর ১০ ভাগের একভাগ মাছও কলকাতার বাজারে দেখিনি। এদেশ নদীর দেশ, মাছের দেশ, এদেশেই মাছের এত আধিক্য, যা ওখানে ছিলোনা'।


    যাই হোক পরিশেষে আপনাদের পদ্মার ইলিশ খাবার দাওয়াত দিলাম, এদেশে আসলে জানিয়েন। আমার মেইল আইডি হলোঃ [email protected]। অবসর থাকলে মাওয়া ঘাটে নিয়ে যেয়ে পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ স্বাদের মাছ, ইলিশ মাছের স্বাদ গ্রহণ করানোর চেষ্টা করবো।

  • Avi Biswas | ২০ জুন ২০২১ ১১:২৬495112
  • প্রিয় মঈন ভাই, আপনার লেখা পড়ে আমি আপ্লুত ! এত আন্তরিকতা…কি বলব ভেবেই উঠতে পারছি না ! আমি নিজে কখনও বাংলাদেশ যাইনি, শুনেছি আমার বাবা আর জ্যাঠার জন্ম পাবনায়, পিসির জন্ম রংপুরে । আমার ঠাকুমা’রা চার বোন, ছয় ভাই ছিলেন, সারাক্ষণ তাদের কথাবার্তা শুনতাম ।

    টাটকা ইলিশ খাইনি, শুধু গল্পই শুনেছি । আপনার নিমন্ত্রন মনে রাখলাম, কখনো বাংলাদেশ গেলেই আপনাকে মেইল করব !

  • শিখরেন্দ্র দত্ত | 42.110.136.96 | ২০ জুন ২০২১ ১১:৪৫495114
  • দারুন সেখাটা - পড়েই মনটা ইলিশ ইলিশ করছে। আর পদ্মার ইলিশ - সে তো স্বপ্ন 

  • সাগ্নিক | 2405:201:6:20b3:7da3:415d:697f:5c3f | ২০ জুন ২০২১ ১৭:০৬495129
  • খুব ভালো লাগলো লেখাটি পড়ে  I তা আজকের ইলিশ এর রেটিং টি কত ?

  • Moin Uddinashraf | ২০ জুন ২০২১ ১৮:০৮495130
  • ধন্যবাদ ভাই, আসলে অবশ্যই জানিয়েন 

  • tathagata | 121.244.60.106 | ২১ জুন ২০২১ ০১:৪২495145
  • shad holo ilish jatiyo machh er generic naam. onek rokom er shad achhe. ei tothye oto ta akorshon nei. jate achhe ta holo onno onek shad projati r ajkal breeding kora jachchhe. asa kori aj na hok kal amader ilish er o hobe. sunechhi kakdwip er ek gobeshonagare e byapare kinchit safolyo esechhe

  • Avi Biswas | ২১ জুন ২০২১ ২১:০৮495179
  • আরিব্বাস ! দারুণ ব্যাপার .. দেখা যাক ভবিষ্যতে কি হয় ...ধন্যবাদ 

  • Meghna | 69.176.153.247 | ২৮ জুন ২০২১ ২৩:০৫495407
  • পুরো মেছো তো! "সেটা খেয়ে আমি একগাল মাছি" টা টু গুড :) :)

  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:

কুমুদি পুরস্কার   গুরুভারআমার গুরুবন্ধুদের জানান


  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার খেরোর খাতা, লিখতে থাকুন, বানান নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]
মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত


পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। পড়তে পড়তে মতামত দিন