• টইপত্তর  পর্যালোচনা (রিভিউ)  বই

  • গুরুচন্ডালি র  সবচেয়ে খারাপ লেখা গুলি 

    বোধিসত্ত্ব দাশগুপ্ত
    পর্যালোচনা (রিভিউ) | বই | ১০ অক্টোবর ২০২০ | ২৮২০ বার পঠিত
  • পছন্দ
    জমিয়ে রাখুন পুনঃপ্রচার
  • ভালো বা মাঝারি শুধু না, একটা বোগাস খারাপ লেখার ব্যাপারেও, মানুষের মতে সচরাচর মিল হয় না। কোন লেখক ই খারাপ নন, তবে স্পেসিফিক কোন লেখা খুব খারাপ হতেই পারে।


    সোশাল মেডিয়াতে সততার , অথেন্টিসিটির খুব দাম। যদিও গোটাটাই ঢপ। সবাই নিজেকে বাকি সবার থেকে বেশি সৎ বলে মনে করে, কিন্তু ছোটো সার্কেলে , দাদা আপনার এই লেখাটা জঘন্য হয়েছে, সরাঅসরি বলাটা পোলাইট সোসাইটির রীতিতে পড়ে না। এই টই টিতে মানুষ নিজের পড়া , খারাপ লেখা গুলির কথ বুঝিয়ে বলবে। 

আরও পড়ুন
দাবা - Ruy Lopez
আরও পড়ুন
ইউরো ২০২০  - b
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • বোধিসত্ত্ব দাশগুপ্ত | 202.142.90.127 | ১০ অক্টোবর ২০২০ ১৯:০৩732903
  • না বুঝিয়েও বলা যেতে পারে :-)))))) কারণ এগুলি তো ক্লেইম মাত্র।

  • সায়ন্তন চৌধুরী | ১০ অক্টোবর ২০২০ ১৯:৪৩732904
  • লেখার সপ্তাহখানেক পরে নিজের সব লেখাই জঘন্য লাগে। তবে বাজে লেখাটা মানুষের মৌলিক অধিকার। :)

  • একক | ১০ অক্টোবর ২০২০ ১৯:৫৭732905
  • খনুবাবু আগে সাব্জেক্টিভিটির ধুস্তুরি মায়া থেকে বেরোন তাপ্পর লেখাকে খিস্তোব।   কনভিকশন যেখানে সব সেখানে কী বা খারাপ কী মন্দ :)) :))

  • বোধিসত্ত্ব দাশগুপ্ত | 202.142.90.127 | ১০ অক্টোবর ২০২০ ২০:১৯732906
  • একক এবং সায়ন্ত্বন হতাশ করলেন, এত প্রতিভা থাকা সত্ত্বেও দমহীন গ।:--())

  • একক | ১০ অক্টোবর ২০২০ ২০:২২732907
  • থার্ড  হ্যান্ড আসুক  :) এরকম ওয়ান ক্লাব কলে জমে নাকি!! 

  • বোধিসত্ত্ব দাশগুপ্ত | 202.142.90.127 | ১০ অক্টোবর ২০২০ ২০:২৪732908
  • এটার মানে বুঝতে ই পারলাম না।আমি তাস এর টার্ম বোঝা র মত তাস জানিনা।

  • একক | ১০ অক্টোবর ২০২০ ২০:৩৭732909
  • ওহঃ  স্যরি :) মানে , পার্টনার কিছু সিগন্যাল দিক হাতে কী আছে :))


    জোকস এপার্ট। গুরুর ওয়েব ভার্সনে আমরা যারা লিখি বরং আমরা না বলে, আমি বলাই সেফ, সেগুলো মূলত হাত মকশো। গুরু থেকে ছেপে বেরোনো প্রচুর টাইটেল ছড়িয়ে সেগুলো নিয়ে গালমন্দ হলে ভালো হত। গুরুতেই এতো পাঠক অথচ সবাই তাকিয়ে কবে কোন নিউজপেপারে দুলাইন আলোচনা বেরোবে সেদিকে এটা কাজের কথা না। 

  • বোধিসত্ত্ব দাশগুপ্ত | 202.142.90.127 | ১০ অক্টোবর ২০২০ ২০:৫১732910
  • গালমন্দ খুব গণতান্ত্রিক, যে কোনো জায়গায় বেরোনো বেরোনো যেকোন লেখা সম্পর্কে হলে আমার কোন আপত্তি নেই ‌ তবে ধর এবারের নোবেল জয়ী কিস্যু লিখতে জানেন না বলে লাভ কি , বাংলা স্ট্রেট টক যদি আসে ভালো লাগবে।


    যেমন ধরুন বিবেক সেন এর কৃষি নীতি সংক্রান্ত লেখাটি কিসুই হয়নি। একেবারেই বাজে। ওদিকে আমি খুবই আগ্রহী হয়ে পড়লাম পড়ে পুরো ধুর বনে গেলাম।

  • একক | ১০ অক্টোবর ২০২০ ২০:৫২732911
  • এডিটেড সেকশনকেও ইনক্লুড করা যায়।  হাত মকশো বলতে ননএডিটেড সেকশনের লেখা বোঝাতে চেয়েচি। 

  • বোধিসত্ত্ব দাশগুপ্ত | 202.142.90.127 | ১০ অক্টোবর ২০২০ ২০:৫৬732912
  • তারপরে সৌভিক ঘোষাল এর হরি বাসুদেবন সম্পর্কিত লেখাটি, খুব খারাপ না হলেও , পাঠকের প্রতি ডিসরেসপেক্টফুল খুব ই মাঝারি মানের একটি লেখা , যেটা ওনার অন্যান্য টুইট রিয়াকশন গোছের লেখাগুলো র থেকে বাজে।

  • বোধিসত্ত্ব দাশগুপ্ত | 202.142.90.127 | ১০ অক্টোবর ২০২০ ২০:৫৭732913
  • কুইক রিয়াকশন

  • একক | ১০ অক্টোবর ২০২০ ২১:০৮732914
  • ভালো না লাগলে "কিছু জানেনা " বলার কোনো মানে নেই। লেখার ভালো -মন্দের পরেও রুচির পার্থক্য থাকে সেখান থেকে প্রীতি বা অপ্রীতি আসে। এবার প্রীতি -অপ্রীতি নিজের খাবারের পছন্দ -বেডশিটের রং এর মতো ব্যাপার অন্যের সঙ্গে শেয়ার করা অর্থহীন। নোবেল জয়ী কবি লিখতে জানেন না এমন আদৌ ভাবিনা কিন্তু ওরকম বুঝিয়ে বুঝিয়ে , দর্শন থেকে প্রকৃতি সবকিছুকেই হুইলার স্টল লিঙ্গো তে প্রকাশ করা লেখা রুচিবিরুদ্ধ , আকাঙ্খিত সটলটি পাইনা তাই আগ্রহ বোধ করিনা।  ব্যাস। 

  • বোধিসত্ত্ব দাশগুপ্ত | 202.142.90.127 | ১০ অক্টোবর ২০২০ ২১:২০732915
  • নোবেলজয়ী কবি 'লিখতে' জানেননা, বলা হয়েছে, তাও আবার ক্লেমের উদা হিসেবে, এবং স্ট্রেট টকিং এর খারাপ উদা হিসেবে।

  • একক | ১০ অক্টোবর ২০২০ ২১:২৪732916
  • বুঝেছি ওই ক্লেম সম্বন্ধেই বল্লুম আপনার মতের বিপক্ষে না। 

  • র২হ | 73.106.235.66 | ১০ অক্টোবর ২০২০ ২১:৩০732917
  • ভালো লেখা ভালো বই নিয়ে এমন উদ্যম দেখলে ফুর্তি হত।


    কিছু না, এ আমার নিতান্ত পক্ষপাত। তবে খুবই আজব।

  • বোধিসত্ত্ব দাশগুপ্ত | 202.142.90.127 | ১০ অক্টোবর ২০২০ ২১:৫৪732918
  • যার যা ইচ্ছে লিখে ফেললেই হয়। এই টইটি পোলাইটনেস নামক সর্বগ্রাসী উদ্যম প্যাঁক দেবার জন্য খোলা।

  • বোধিসত্ত্ব দাশগুপ্ত | 202.142.90.127 | ১০ অক্টোবর ২০২০ ২১:৫৬732919
  • ***উদ্যম কে

  • বোধিসত্ত্ব দাশগুপ্ত | 202.142.90.127 | ১০ অক্টোবর ২০২০ ২২:০২732920
  • আশা করি এই আলোচনায় , হঠাৎ হঠাৎ সলজ্জ নিকের আড়াল থেকে নির্লজ্জ প্যাঁকের যে ঘোড়ারোগ আমাদের পেয়ে বসে মাঝে মাঝে তার থেকেও আমরা নিজেরাই নিজেদের মুক্ত করতে পারব,  সমালোচনা বা ক্লেইম নিজনামে করলে আমার তো মনে হয় যাকে সমালোচনা করা হচ্ছে সে কম মাইন্ড করবে।

  • নিক | 103.76.82.232 | ১০ অক্টোবর ২০২০ ২৩:৩৪732921
  • যাকে সমালোচনা করা হচ্ছে,সে সমালোচনা নেওয়ার মত হলে নিকের চেনা অচেনা বিচার করতে বসবে না। সমালোচনাটুকুকে তার বক্তব্যের মেরিটের রেসপেক্টে যথোচিত গুরুত্ব দেবে। 


    অন্যদিকে তার মানসিকতাই সমালোচনা নেওয়ার মতো না হলে, নিকের পিছনের মুখ খুঁজতে এবং সে মুখের প্রতি ভবিষ্যৎ ও বর্তমান দ্বেষনির্মোচনেই ব্যস্ত থাকবে। চেনামুখ হলে ইম্মেডিয়েট রিঅ্যাকশনে সেই অসহিষ্ণুতা দেখাতে লজ্জা পেলেও চেপে রাখা কুপিত পিত্ত পরবর্তী কোনো সময়ে সে ঝাল ঠিক বের করে দেবে। অনলাইনে বা অফলাইনে অন্য কারো কাছে অন্য কোনো সময়ে। 


    অর্থাৎ মাইন্ড না করার মত লোক হলে কখনই মাইন্ড করবে না। আর মাইন্ড করার মত হলে সর্বদাই করবে, মুখ চেনা হলে তক্ষুনি হয়তো বুঝতে দেবে না বিনয়ের অভিনয়ে, কিন্তু পরে কখনো পিছন থেকে ছুরি মেরে দেবে ঠিক।


    তো, এতসব ভেবে লাভ নাই, যা বলার বলে ফেলার আগে অ্যানোনিমিটিকে যথেষ্ট গুরুত্ব দেওয়া সবসময়েই সেফ। 'গোদী'র লেখা "কর্মযোগী" বইটিকে আপনি স্বনামে সমালোচনা করে অপেক্ষা করতে পারেন, কবে সিডশনের চার্জে থানায় ধরে নিয়ে যায়, বা 'ক্ষমতা'র বই নিয়ে ব্যঙ্গ করে অপেক্ষা করতে পারেন মাওবাদী যোগাযোগের চার্জে কবে তুলে নিয়ে যায়, কিংবা উভয়ক্ষেত্রে কবে লোকাল কিছু ছেলেপিলে বাড়ি লক্ষ করে ঢিল ছোঁড়ে বা বাজারে গেলে ঘিরে ধরে ক্যালায়।


    এবার বিশাল হাউজিং কমপ্লেক্সের সিকিউরিটি সুরক্ষা প্রাচীরের ভিতরের বহুতলে থেকে বা বাড়ি থেকে বেরনো সর্বদাই কাঁচতোলা গাড়ি সম্বলে হলে যে সেন্স অফ সিকিউরিটি কাজ করে, নিজ বা পরিবারের কর্মক্ষেত্রে বা পরিজনের বাড়ি পাড়া বা লোকালয় থেকে আক্রমণের সম্ভাবনা কোনোদিন দেখা গেলে নিকের লজ্জাবিচারের থেকে নিজেদের মুক্ত করাও সম্ভব হবে হয়তো।


    গুরুচন্ডালির ক্ষেত্রে শুধু নয়, যে কোনো লেখার সমালোচনার ক্ষেত্রেই আগের দুটি উদাহরণস্বরূপ লেখার এক্সটেনশনই ভেবে নিচ্ছি এক্সট্রিমিটির নিরিখে।

  • অরিন | ১১ অক্টোবর ২০২০ ০২:১৯732924
  • ভাল লাগেনি লিখে কেটে পড়লে যাকে উদ্দেশ্য করে লেখা হল, তার ঐ কমেন্ট পড়ে খারাপ লাগতে পারে, তবে তাতে কারো বিশেষ লাভ হয় না। যারা নিয়মিত সোস্যাল মিডিয়াতে লেখেন, তাঁদের কিছু রায় আসে না।। তার চেয়ে বরং "ভাল লাগেনি কারণ ..." বলে কারণগুলো লিস্ট করলে আরেকটু বোঝা যায়। এখানে একটা সমস্যা,  অনেকে শুধু উপলব্ধি করেন যে ভাল লাগেনি, ফস করে লিখে ফেলেন, কেন ভাল লাগেনি সে বিশ্লেষণ করার ক্ষমতা নেই, শিক্ষাগত তালিম ও হয়ত নেই, তাই কমেন্ট টুকু করে কাজ সারেন। আরেক দল আছেন, ব্যক্তি আক্রমণ করতে উৎসাহী। তবে, কোন‌লেখা কেন ভাল লাগেনি কি হলে ভাল লাগত, তাই নিয়ে বিস্তৃত আলোচনার প্রয়োজন আছে। বিশেষ করে আজকাল এই ধরণের মিডিয়াতে এটা সম্ভব। 


    আরেকটা ব্যাপার হচ্ছে খুব ভদ্রভাবে জানানো যে লেখাটা ভাল হয়নি। তা সে ধরণের সমালোচনা লিখতে যে ধরণের মানসিক ঔদার্য লাগে সে সব আজকালকার দিনে লোকের মধ্যে পাবেন না। 

  • Rajkumar Raychaudhuri | ১১ অক্টোবর ২০২০ ০৭:২১732925
  • আমার মতে, গুরু তে একটা প্রাজ্ঞ লেখকের দল হোক যারা নতুন লেখক দের লেখা পড়ে  বুঝিয়ে দেবেন গোড়ায় গলদ কোথায়। এর পর সেই সব জায়গা এডিট করে ছাপানো গেল।     

  • Ranjan Roy | ১১ অক্টোবর ২০২০ ০৭:৪১732926
  • হানুর ধক আছে মাইরি!  এককেরও আছে। আমি জানি আমার সেটা নেই । ভাল লাগলে বলব , খারাপ লাগলে সাধারণতঃ চেপে যাব। খুব খারাপ লাগলে দু'চার কথা বলেও দেব।


    হানু যদি লেখা নিয়ে আমাকে গাল দেয় (টেকোবুড়ো কোন গালি নয়, ঘটনার বর্ণনামাত্র) আমি কিছু মনে করব না । একটু খারাপ লাগবে, তারপর টাক চুলকে নীচু গলায় বলব -- ক্যান খারাপ লাগসে? কুন কুন জায়গাটায় যদি বইল্যা দাও?


    সব লেখারই এডিট হওয়া দরকার, তাতে ভ্যালু অ্যাড হয় । কিন্তু যে লেখাটা মুখ্যতঃ খাজা তাকে এডিট করেও কিছু  করা যায়না।


    অরিনের কথায় সায় দিয়ে আমার প্রস্তাব যে লেখাটার ডিফেক্টগুলো যদি কিছু বুলেট পয়েন্টে বলা যায়, যেমন কন্টেন্টের ঘাটতি, তথ্যের ভুল, যুক্তির ভুল, সাজানোর ত্রুটি, হ্যাজিওগ্রাফি বা অনাবশ্যক ইত্যাদি, তাহলে ভাল হয়।

  • dc | 103.195.203.109 | ১১ অক্টোবর ২০২০ ০৭:৪৭732928
  • এটা খুব ভালো আর দরকারি টই হয়েছে, বোধিদা কে ধন্যবাদ। 


    গুরুতে খারাপ লেখা বলতে প্রথমেই বোধিদার "প্রবন্ধ" গুলোর কথা মনে আসে। এরকম দুর্বোধ্য আর জড়ানো ভাষা আমি আর কোথাও দেখিনি। মোটামুটি প্রথম লাইনটা, বা বড়জোর দু তিনটে লাইন পড়ে আর অগোতে পারিনা। আর লেখার স্টাইলটা ভীষন রকম সেল্ফ কনশাস। মনে হয় যেন পাঠককে চোখে আঙুল দিয়ে খোঁচাতে থাকে, দেখো আমি কতো লেখকের নাম আর কতো বিষয় জানি। 


    মোটামুটি একই রকম অস্বস্তিকর লেখার স্টাইল "নিবেদিতা ক্ষেপী" নামের একটি নিক থেকে কয়েকদিন আগে দেখলাম। প্রচন্ড সেল্ফ কনশাস, লেখার কোন ফ্লো নেই, নিজেকে দেখাতেই ব্যস্ত। 


    আরে লেখা নয়, সবচেয়ে বাজে কমেন্ট যদি হয় তো প্রতিভা সরকারের কথা বলবো। ওনার লেখাগুলো ভালো, অন্তত পড়তে গিয়ে হোঁচট খেতে হয়না। কিন্তু অন্যদের লেখায় একটা করে কমেন্ট লিখে যান, সে একেবারে আঁতলামোর চূড়ান্ত। 


    আর এটা যদিও ভালো লেখার টই না, তাও তিনজনের নাম বলি যাঁদের লেখার স্টাইল অত্যন্ত ঝরঝরে, ফলে লেখাগুলো বারবার পড়া যায়। অরিন, রঞ্জনদা, আর সম্বিতবাবু। এঁরা তিনজনেই অতীব সুখপাঠ্য লেখা লেখেন। 

  • র২হ | 73.106.235.66 | ১১ অক্টোবর ২০২০ ০৮:২২732930
  • এটা খুবই বিরক্তিকর একটা ব্যাপার হচ্ছে। যেন সমবেত হেডমাস্টারমশাইরা প্রোগ্রেস রিপোর্ট পড়ে শোনাচ্ছে। 

  • বোধিসত্ত্ব দাশগুপ্ত | 202.142.75.81 | ১১ অক্টোবর ২০২০ ০৮:৩৮732931
  • ট ই টার স্পিরিট টা কিছু টা বোঝার জন্য ভিসি কে ধন্যবাদ। ডিসিকে অবশ্য অনুরোধ আমার বেলায় লেখকের উপরে মন্তব্য করলেও আমি মাইন্ড করবে না ঠিকই, কিন্তু স্পেসিফিক পূর্ণাঙ্গ লেখার উপরে স্পেসিফিক মন্তব্য করলে বেটার , কারণ টা খুব ই সোজা, কোন লেখক কে বা তার পার্সোনালিটি কে বিচার করার জায়গায় পাঠক না থাকাই ভালো, এই টা ই এর উদ্দেশ্য ও না। লেখাকে বিচার করা যেতেই পারে, এবং এটাতে ই বায়াস কমবে।


    এটা যোগ করা উচিত যে প্রতিদিনের আনন্দবাজার অনেকাংশে এই সময় আজকাল ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস আমার কাছে অসহ্য হলেও আমি সেখানকার ব্যাপারেও লেখা অনুযায়ী মন্তব্য করব। অন্য কোনো পত্রিকা হলেও তাই। ট ই এর হেডিং টা বদলে নিলে ভালো হত। সব পত্রিকা ও ব ই কে ইনক্লুড করা যেত।


    বাংলা ইংরেজি লেখালিখি দিনের পর দিন আমাদের ক্র্যাপ দেবে আর আমরা সেটা হজম করা  শুধু না সেলিব্রেট করব এটা হয়না।

  • dc | 103.195.203.109 | ১১ অক্টোবর ২০২০ ০৮:৪৬732932
  • আমারও একবার মনে হয়েছিল তুমি শুধু গুরুচন্ডালি না, সব জায়গারই লেখা কথা বলতে চেয়েছ। তারপর মনে হলো নাও হতে পারে, শুধু গুরুর কথাই বলতে চেয়েছ। 


    যদি সব জায়গার লেখা ইনক্লুড করা যায় তাহলে আরও ভালো। আপাতত দুয়েকটা বই পড়ছি, সেগুলো পড়া শেষ হলে এখানে লিখব। 

  • বোধিসত্ত্ব দাশগুপ্ত | 202.142.75.81 | ১১ অক্টোবর ২০২০ ০৮:৫৮732933
  • হ্যা না করার কি আছে। এটা তে হুতো রিয়াক্ট করলো কেনো ব রঞ্জনদার ই বা আমার প্রতি মুগ্ধতা বেড়ে গিয়ে আমার সংগে শোয়ার ইচ্ছে বেড়ে গেল কেন বুঝলাম না;-) , এটা ভালো লাগে নি, ওটা বাজে, অমুকে আজকাল জঘন্য লিখছে, ইশ এবারের আনন্দমেলাটা সেবারের আনন্দমেলার থেকেও খারাপ হয়েছে,  মায় বোধিসত্ত্বের লেখা বাজে  কোনটাই তো গুরুচন্ডালি তে নতুন কিসু না। :-)))


    ডিসি, হ্যা বুক রিভিউ মানেই ধরে নেওয়া হয়, হয় বিপননের সহায়তা করার জন্য লেখা হবে , বা রিভিউয়ার মনে করেন , আমি দারুন গোপন জিনিস আবিষ্কার করেছি, সবাইকে জানিয়ে ধন্য করি। তো দুটো র ই তো কোন অর্থ নেই।  ঠিক এই টই বা যে কোনো অপিনিয়ন এর মত। লেখা জিনিসটা ই এই, কনভিকশন থাকলে দুটো কমেন্টে ফাল্তু বদলানোর কোন প্রশ্ন নেই। তেমনি সব মন্তব্য লেখকের পাবলিশার এর পছন্দ হওয়ার জন্য কেন করা হবে তাও বুঝি না। উবের যদি অপিনিয়ন অ্যাগ্রিগেশন করেও বাজে ড্রাইভার , বাজে গাড়ি কেও চালিয়ে দিতে পারে,   তাহলে এখানে কেনো হবে না :-))))

  • Abhyu | 47.39.151.164 | ১১ অক্টোবর ২০২০ ০৯:২১732935
  • ঠিক এই টইয়ের সাথে যায় না, তবে প্রবন্ধের টইতে রান্নার রেসিপি দেওয়া এককালে আমাদের ট্রেডমার্ক ছিল। তো, লেখা ছাড়া লেখক সম্বন্ধে বলা চলবে? এই রঞ্জনদা একটু ধরে বসে লিখতে পারেন না? আজ এইটা ধরলেন, কিছুটা লিখলেন, তারপরে কাল অন্য একটা লেখা অনুবাদ করতে বসলেন। কিছুটা করার পর পরশু আবার অন্য একটা জিনিস নিয়ে পড়লেন। (আর রহস্য গল্প লিখতে বলছি না, ঐ জিনিস একবারই করেছিলেন এবং ঝুল হয়েছিল, কিন্তু অনুবাদ যত্ন করে পড়তাম।)


    আর হানুদা প্রবন্ধের সাথে একটু গল্প (মানে স্মৃতিকথা) লিখুন - সে ভাল্লুকই হোক কি বাড়ির ছাদে বাছুর ওঠাই হোক। 

  • বোধিসত্ত্ব দাশগুপ্ত | 202.142.75.81 | ১১ অক্টোবর ২০২০ ০৯:৫১732937
  • অভ্যু, যাদের মধ্যে ট্রাস্ট রিলেশনশিপ আছে, বিশেষ করে তোমাকে যারা ন্যুনতম চেনে এবং ভালোবাসে ,  তারা তোমার কোন মন্তব্যেই কিসুই মাইন্ড করবে না, কিন্তু লেখকের থেকে বেশি লেখায় কনসেন্ট্রেট করা ছাড়া, পাঠকের বায়াস নিয়ন্ত্রন করার আর কোন উপায় এই ফর্মাটে নেই। 


    আর আমার জাস্টিফিকেশন দেবার কিসু নেই , আমি স্মৃতি কথা লিখতে পসন্দ করি না। আমার স্মৃতিতে এমন কিসু নাই, যেটা এমন কিছু রেকর্ড করার মত। আমার লাইফ এমনিতে খুব ই বোরিং, কিছুই ঘটেনি, কিসু করিও নি, সেকসুয়াল ডালিয়ান্স নেই, মদ খেয়ে কোথাও পড়ে থাকি নি, কোনদিন নিজেকে এক্সপ্রেস করতে কোন কষ্ট করতে হয় নি, মোটামুটি প্রিভিলেজ্ড ব্যাকগ্রাউন্ড, মানে বাপের চাগরি ছিল, প্রচুর বীরভূমের লোকের বা তাদের বাপের চাগরি চিল না নাই ও , শুকনো নেশা খুব ই কম করেছি তিন চার বছরের বেশি না, রাজনীতি যা করেছি, তাতে নতুনত্ত্ব কিছু ছিল না, দু চারবার পুলিশের বা প্রতিপক্ষের মার খেলেও, জেল হয় নি, কোনো দিন কোন ভালো লেখা লিখিনি, অতএব, অত্যন্ত অনাটকীয় এবং না হলেও চলতো গোছের জীবন। অলরেডি টু বোরিং তু ড্র‌্যাগ। এই মুহুর্তে মরে গেলেও আমার নিজেরি মন খারাপ করার মত কিসু নেই :-)))))))))))))))))))))))))))))    


    আর পেশাদারী সাফল্যের যে স্তরে পৌছনোর পরে লোকে আফটার ডিনার স্পিচ দেয়, বা অভ্যেস অনুযায়ী আসুন একটু  সংস্কৃতি চর্চা করি বলে সন্ধেবেলার আড্ডা জমায় তাতে আমার নতুন কিসু দেবার নেই। আমার জীবনে এমন কোন অভিজ্ঞতা নেই, যেটা মোটামুটি অর্ধ থেকে গোটা শিক্ষিত বীরভূমের বাঙালির জীবনে আমার সময়ে ঘটে নি। আর শান্তিনিকেতনের লোক হবার কারণে আর এই সোশাল নেটওয়ার্ক এর বোগাস আমলে বেঁচে থাকার কারণে , আমি আত্মজীবনী আর স্মৃতিকথায় ক্লান্ত। আমার এমনি এটা ওটা লেখা কোন পজিটিভ ভ্যালিডেশন ন পেলেও থামবে না, কারণ কারো অপিনিয়নেই আমার অন্তত কিসুই যায় আসে না। 

  • বোধিসত্ত্ব দাশগুপ্ত | 202.142.75.81 | ১১ অক্টোবর ২০২০ ০৯:৫৭732938
  • আত্মজীবনী না লেখার আরেকটা কারণ হল, কমিউনিস্ট পার্টির বিভাজন এবং বিজেপির উত্থান ছাড়া আমার কোনদিন কোন ব্যাপারে মন খারাপ লম্বা করে হয় নি , হ্যা হ্যা করেই কেটে গেছে লাইফ, বাকি টাও তাই কাটবে, কোন অসুবিধা দেখি না। 

আমার গুরুবন্ধুদের জানানকরোনা
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কোনোরকম কর্পোরেট ফান্ডিং ছাড়া সম্পূর্ণরূপে জনতার শ্রম ও অর্থে পরিচালিত এই নন-প্রফিট এবং স্বাধীন উদ্যোগটিকে বাঁচিয়ে রাখতে
    গুরুচণ্ডা৯-র গ্রাহক হোন
    গুরুচণ্ডা৯তে প্রকাশিত লেখাগুলি হোয়াটসঅ্যাপে পেতে চাইলে এখানে ক্লিক করে আমাদের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে যুক্ত হোন। টেলিগ্রাম অ্যাপে পেতে চাইলে এখানে ক্লিক করে আমাদের টেলিগ্রাম চ্যানেলটির গ্রাহক হোন।
    • কি, কেন, ইত্যাদি
    • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
    • আমাদের কথা
    • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
    • বুলবুলভাজা
    • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
    • হরিদাস পালেরা
    • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার খেরোর খাতা, লিখতে থাকুন, বানান নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
    • টইপত্তর
    • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
    • ভাটিয়া৯
    • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
    যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]
    মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত


    পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। যা খুশি মতামত দিন