• হরিদাস পাল
  • খুলে ফেলুন আপনার খেরোর খাতা, লিখতে থাকুন, বানান নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে... (হরিদাস পাল কী?)
  • কাশ্মীর এবং সশক্ত-ভারত

    Saikat Bandyopadhyay
    বিভাগ : ব্লগ | ০৫ আগস্ট ২০১৯ | ১৭৭ বার পঠিত
  • মোদীজির সাফল্যের কাছে এভারেস্টও বেঁটে মতো, মারিয়ানা খাতও নেহাৎই ডোবা। মঙ্গলে উপগ্রহ পাঠানোও মাছি-মারার মতই সহজ, হালের চন্দ্রযান তো এমনকি গণেশের প্লাস্টিক সার্জারির চেয়েও সোজা। নিত্যনতুন কর্মকান্ডে তিনি আমাদের আশ্চর্য করেই চলেছেন। এর আগে এইভাবেই মোদীজি নতুন নোটে জিপিএস চিপ লাগিয়ে সন্ত্রাসবাদের সাড়ে-সব্বোনাশ করে দিয়েছিলেন। সে এতই কার্যকরী হয়েছিল, যে, সন্ত্রাসবাদীরা জিপিএস ট্র্যাকিং এর জ্বালায় অতিষ্ঠ হয়ে আক্রমণ বাড়িয়ে দিয়েছিল। তাতে প্রচুর সৈনিক, অনেক অসামরিক মানুষ, কয়েকটি প্লেন, ইত্যাদি নানা জৈব ও অজৈব পদার্থ মারা গেছে ঠিকই, কিন্তু জবাবে মোদীজির নেতৃত্বে পাকিস্তানের মাটিতে অনেক পাইনগাছে এবং একটি কাক মারা হয়েছে, এ কথাও মনে রাখা জরুরি। একেই আপনারা মোদীজির নৈতিক জয় বলতে পারেন।

    মোদীজির কোনো ক্লান্তি নেই, তাই এই বিরাট সাফল্যের পরের ধাপ ৩৭০ বিলোপও কয়েক মাসের মধ্যেই এসে গেছে। হোয়াটস্যাপ ইউনিভার্সিটির ফরোয়ার্ড দেখলেই আপনারা সেসব সম্পর্কে বিশদে জানতে পারবেন। চাদ্দিকে নানা বার্তা দৌড়চ্ছে, যার মূল কথা হল, এতদিন কাশ্মীর পাকিস্তানে ছিল, মোদীজি তাকে ধরে-বেঁধে ভারতবর্ষে এনে ফেলেছেন। এখন থেকে কাশ্মীরে ভারতের পতাকা উড়বে (নিশ্চয়ই আগে উড়তনা)। এখন সুপ্রিম কোর্টের আওতায় চলে এল কাশ্মীর (আগে গিলানির ফাঁসির আদেশ দিতে ঘেমে-নেয়ে একশা হয়েছে, আফজল কে কোনোমতে দিতে পেরেছিল)। জিহাদিদের শাসন থেকে আজ চিরমুক্তি, আজ কাশ্মীর দিবস। যেভাবে নোটে চিপ লাগিয়ে সন্ত্রাসমুক্তি হয়েছে, সেভাবেই ৩৭০ তুলে দিয়ে কাশ্মীরের ভারতভুক্তি হল। মেসেজের নিচে জ্বলজ্বলে হ্যাশট্যাগ দিয়ে আবার লেখা থাকছে #সশক্তভারত। এ কোনো বাংলা শব্দ নয় (আইটি সেলের করবার, সবাই কপিপেস্ট মারছে), তবু পড়লেই বুঝতে পারবেন, যে, এতদিন, এমনকি মোদীবাবুর ৫ বছরেও ভারত অশক্ত ছিল, এবার "সশক্ত" হয়ে গেছে।

    সশক্ত হয়ে আপনি এবার কী করবেন? সাধারণ জ্ঞান না থাকলে চারদিকে অন্তত কান পাতুন। শুনবেন নাগাড়ে ৩৭০ আর ৩৫এর চাষ হচ্ছে। পাড়ার বড়দা-বড়দিরা, অবিরত জ্ঞান ঝাড়ছেন, আপনার কটি হাত, কটি নতুন পা, আর কটি ব্র্যান্ড-নিউ ন্যাজ গজালো সেই নিয়ে। মোদ্দা কথা হল, এবার আপনার জীবনে অপার সুখ-শান্তি নেমে এল, তার জন্য আর স্বপনে কিংবা শ্মশানে যেতে হবেনা। এবার থেকে বাঙালি ছোঁড়ারা যতখুশি কাশ্মীরি কন্যা বিয়ে করতে পারবে (যেন এতদিন কাশ্মীরি কন্যারা বাঙালি বিয়ে করতে না পেরে মূহ্যমান হয়ে পড়েছিল)। বাঙালি মেয়েদেরও কোনো ভয় নেই, শালওয়ালা পেলেই টপ করে পাকড়ে নিতে পারবেন, বিয়ে-থা হলে আপনাকে আর কাশ্মীরি হয়ে যেতে হবেনা। আরও গুরুত্বপূর্ণ যেটা, সেটা হল, বাঙালি মধ্যবিত্তরা স্রেফ ৩৭০ এর অভাবে এতদিন শ্রীনগর উপত্যকায় রিটায়ারমেন্ট হোম বানাতে পারছিলেননা, এখন সেই সমস্যা মিটল। এবার ডাল লেকের পাড়ে-পাড়ে দেখবেন, ঘোষ-বোস-মিত্তিরদের বাগানবাড়ি। রাস্তা দিয়ে হাঁটলেই আলুপোস্তর সুবাস আসবে নাকে। মোড়ে-মোড়ে হবে রসগোল্লার দোকান (সে অবশ্য হলদিরাম দেবে)। চালাও পানসি বেলঘরিয়ার বদলে এখন নতুন প্রবাদ হবে, ঘোরাও হাউসবোট ডাল লেকে। এইসব অধিকার থেকে বঞ্চিত হয়ে বাঙালি মরে যাচ্ছিল, আজ এল তার আকাশে ওড়ার দিন। এখন স্রেফ এক দেশ, এক আইন।

    এই শুনে আবার মিনমিন করে সিকুলার লিবারালদের মতো প্রশ্ন করতে যাবেননা কিন্তু, যে, উত্তর-পূর্বের রাজ্যে-টাজ্যে তো নানারকম বিধিনিষেধ এখনও আছে, বা, আসামে একটি বিদঘুটে পদ্ধতিতে নাগরিকত্ব যাচাই হচ্ছে, যা ভারতের আর কোথাও হয়না, তাহলে এক-দেশ, এক-আইন টা হল কীকরে? তাহলেই দেশপ্রমিকরা আপনাকে ধুইয়ে দেবেন। "হোয়াট্যাবাউটারি করবেন না তো"। এ অবশ্য আপনারই শিক্ষা। আপনি লিবারাল হয়ে জন্মেছেন, প্রশ্ন উঠলেই নাক-কুঁচকে চতুর্দিকে এইসব লব্জ ঝেড়েছেন নির্বিচারে, এখন সেসব ফেরত পাবেন না বললে হবে? আজ কাশ্মীর দিবস, পে-ব্যাক ডে। কাশ্মীর ভারত ফেরত পেয়েছে, আপনিও তাই ফ্রিতে ফেরত পাচ্ছেন আপনার লব্জ। এ হল মুক্তির দিন। জয় ভারত, সশক্ত ভারত।
  • বিভাগ : ব্লগ | ০৫ আগস্ট ২০১৯ | ১৭৭ বার পঠিত
  • আমার গুরুবন্ধুদের জানানকরোনা ভাইরাস

  • পাতা : 1 | 2
  • শেখর | 237812.68.454512.192 (*) | ০৫ আগস্ট ২০১৯ ০৬:৩২49224
  • লা জবাব, সৈকত।
  • পিসিচলোযাই | 236712.158.566712.165 (*) | ০৫ আগস্ট ২০১৯ ১০:৫৫49225
  • দুপুর থেকে হোয়াটসঅ্যাপে কত কী মিম আসছে। মোদীর পক্ষে ও সেকুলারদের বিপক্ষে। একটা গ্রুপে একজন এসে বলে গেলেন আজ সেকেন্ড ইন্ডিপেন্ডেন্স ডে। ইন্ডিপেন্ডেন্স এর বানান ভুল ছিল সে অবিশ্যি অন্য কথা। আরেকজন তো বললেন, আপনি আগে ভারতীয় হন, তারপর শিক্ষিত হবেন। ভক্তদের সঙ্গে কাঁহাতক আর তর্ক করা যায়।
  • pp | 237812.68.7845.143 (*) | ০৬ আগস্ট ২০১৯ ০১:০৪49226
  • আফনের দুঃসাহ্স তো কম না ভক্তদের সঙ্গে তর্ক করতে গেছেন।
  • পারমিতা | 237812.69.453412.98 (*) | ০৬ আগস্ট ২০১৯ ০১:১১49241
  • সপাটে.
  • ব্রতীন | 236712.158.566712.233 (*) | ০৬ আগস্ট ২০১৯ ০১:১৫49227
  • ঈশেন কাঁপিয়ে দিয়েছো তো
  • Ekak | 124512.101.89900.159 (*) | ০৬ আগস্ট ২০১৯ ০২:১১49242
  • কোন্গ্গ্রেস কোন মুখে বিরোধিতা কোর্বে ? এইজে গভর্নর্কে দলে টেনে স্টেট ল্য চেন্জ করা এসব দুগ্গিবাজি কোঙ্গুরাও করেছে। বিজেপি একই রাস্তায় উইথ ফুল ডেস্পারেশন খেল্ছে ।
  • dc | 237812.69.453412.188 (*) | ০৬ আগস্ট ২০১৯ ০২:২৪49228
  • "সশক্ত হয়ে আপনি এবার কী করবেন?"

    এসব প্রশ্ন না করাই ভালো।
  • | 124512.101.89900.159 (*) | ০৬ আগস্ট ২০১৯ ০২:৫৪49229
  • পরের টার্গেট নিশ্চয় মেঘালয়। নিশ্চয় মৌসিনরামে কেন জমি কেনা যাবে না সেই নিয়ে হোয়া মেসেজ তৈরী হচ্ছে। ইতিমধ্যে কাশ্মীরে সব অ্যাকসেস বন্ধ করে প্রচুর ল্লোক নিরুদ্দেশ করে চাট্টি জমি আম্বানি আদানিরা দখল করুক। ব্যবসাপাতির হাল তো খুবই খারাপ।
  • PM | 237812.68.454512.192 (*) | ০৬ আগস্ট ২০১৯ ০৩:৩০49243
  • Kআশ্মিরের সাথে তুলনা হয় না , কিন্তু অনেক ছোটো স্কেলে হয়েছে

    যাস্ট উদাহরনের জন্য রিসেন্ট দুটো ঘটনা--

    ১। বাংলাদেশের সাথে বহুদিন ধরে বিতর্কিত ছিটমহল বিনিময়
    ২। ঐ বাংলাদেশের সাথেই বহুদিনের বিতর্কিত জলসীমা সংক্রান্ত সমস্যার শান্তিপুর্ন সমাধান যেখানে ভারত ICJ র মধ্যস্ততায় বঙ্গপোসাগরের প্রায় ২০০০০ বর্গ কিমি এলাকার ওপোর দাবী প্রত্যাহার করে।

    কাল ঐ এলাকায় তেল বা অন্য কিছু পাওয়া যাবে না তার গ্যারান্টি নেই। ওর কাছাকাছি জায়্গায় ওরা গ্যাস পেয়েচে বলে শুনেছি।

    https://www.thedailystar.net/bangladesh-gets-19-467sq-km-area-in-bay-32400

    আমার কাছে আরো একটা জিনিষ ক্লিয়ার নয়। ভারতের ভাগের কাশ্মীরের জিও স্ট্র্যাটেজিক গুরুত্ব কি? পাকিস্তানের ভাগের গিল্গিট- বাল্টিস্থান এর গুরুত্ব অনেক অনেক বেশী। ওটা ভারতে থাকলে , আফগানিস্থান এর সাথে সরাসরি বর্ডার থাকত (ছোট্টো হলেও) । মধ্য এশিয়া আর টার্কির সাথে পাকিস্থান কে বাই পাস করে স্থলপথে যোগাযোগ হতো। অন্য দিকে পাক চীনের মাঝে কোনো বর্ডার থাকত না। সেক্ষেত্রে কয়েকদশক আগে তৈরী চিন পাক কারাকোরাম হাইওয়ে আর এখনকার সিপেক কোনোটাই হতো না। পাক চীন প্রতিবেশীও হত না। গিলগিট বাল্টিস্থানের স্ত্র্যাটেজিক গুরুত্ব অনেক বেশী।

    ভারতের কাছে যতটুকু কাশ্মীর আছে তার ইমোসনল গুরুত্ব আছে , কিন্তু স্ট্রটেজিক গুরুত্ব কি ?
  • PM | 237812.69.563412.195 (*) | ০৬ আগস্ট ২০১৯ ০৩:৩১49230
  • পাকিস্তানি রা কি ভাবছেন সেটা শুনে দেখতে পারেন। একটা টক শো র লিন্ক দিলাম। এমনিরে খুব ই সেন্সিবল টক শো, ভারতে বিরল । তবে কাশ্মির নিয়ে কোনো দেশের ই পুরো বায়াস ফ্রি হওয়া মুসকিল। তবু শুনে দেখুন

  • PM | 236712.158.566712.173 (*) | ০৬ আগস্ট ২০১৯ ০৩:৫২49231
  • এরা বলছে , এই অ্যানেক্সেসনের পর ১৯৪৯-২০১৯ এর কোনো সমঝোতাই ভ্যালিড নয় , সিমলা চুক্তি সমেত।

    পুরো পরিস্থিতি ১৯৪৮ এর অবস্থায় ফিরে গেছে। সেক্ষেত্রে যুদ্ধ পরিস্থিতিতে জেনিভা কনভেন্সন অ্যাপ্লিকেবল । আর যেহেতু সিমলা চুক্তি ভ্যালিদ নয়--- তাই কাশ্মীর আর দিপক্ষিক বিষয় নয়, তো ইন্টার্নেশনাল ইন্ভলভ্মেন্ট এ এখন আর কোনো বাধা নেই
  • Amit | 236712.158.23.215 (*) | ০৬ আগস্ট ২০১৯ ০৩:৫৭49232
  • কাশ্মীর জিওগ্রাফিকালি এতো টাই সেনসিটিভ যে ভারত কেন, কোনো দেশ ই ও রকম একটা স্ট্রাটেজিক জায়গা কে কোনো দাবি দাওয়া ছাড়া জাস্ট ছেড়ে দিতে পারবে না। অন্য যেকোনো একটা দেশের উদা দেখানো হোক, যারা এর অর্ধেক সেনসিটিভ জায়গা গণভোট নিয়ে সোনামুখ করে ছেড়ে দিয়েছে। আর পাকিস্তান বা চীন ও কম কাদা ঘাটে নি ওদের দখলে কাশ্মীর র অংশ নিয়ে।

    মোদী একটা বিরাট গ্যাম্বল খেলেছে, বোঝাই যাচ্ছে ২০২৪ এর গুটি সাজাচ্ছে। ওর রিস্ক টেকিং ক্যাপাবিলিটি সাংঘাতিক, সেটা বারবার দেখা গেছে। বাকিরা যেটা বহু ভেবেচিন্তে পিছিয়ে যেত, ও সোজা ঝাঁপিয়ে পড়ে। পাকিস্তান এখন নিজের আর্থিক সমস্যায় গলা অব্দি ডুবে আছে, এর দাপটে যদি পাকিস্তান ল্যাজ গুটিয়ে নেয় , তাহলে আর মোদী কে পায় কে। যদি অবশ্য উল্টো ভেবে পাকিস্তান একটা মরণ কামড় দিতে চায়, তাহলে যুদ্ধ যুদ্ধ লেগে গেলে বাকি সব ইসু টেবিল এর তলায় এমনিই চলে যাবে।

    আর শুধু সরকারকে অন্তর্জালে গাল দিয়ে কি হবে-? বিরোধী রা সব কোথায় ? প্রধান বিরোধী দল তো নেতা ছাড়া দু মাস ধরে খাবি খাচ্ছে, গান্ধী স্ট্যাম্প না থাকলে তেনাদের আবার নেতা তৈরী হয়না। বাকিরা ছন্নছাড়া বললেও কম বলা হয়। বিরোধী ঐক্য কালকেই রাজ্যসভায় দেখা গেছে। :)

    মাঝের থেকে অবশ্য সাধারণ কাশ্মীরি দের দের আম ছালা দুটোই যাচ্ছে। সে আর দুনিয়াতে কোথায় সব কিছু ঠিক ঠাক চলছে? এভাবেই চলবে। উলুখাগড়া রা মরবে।
  • debu | 237812.68.7845.161 (*) | ০৬ আগস্ট ২০১৯ ০৪:০৬49244
  • সৈকত কি নক্শাল ন ছিপিএম না কঙ্গ্রেস্সি না পাকি ?
  • মোহিত রণদীপ | 236712.158.786712.53 (*) | ০৬ আগস্ট ২০১৯ ০৪:১৩49233
  • 'কাশ্মীর এবং সশক্ত ভারত' পড়লাম। এই দুঃসময়ে এমন লেখা বড় জরুরি মনে হয়। কিন্তু, এই স্যাটায়ার বোঝার বোধও বোধহয় হারিয়ে ফেলেছেন বাংলার বহু মানুষ! সংবেদনহীন মানুষের সংখ্যাই ক্রমশ যেন বাড়ছে চারপাশে!
    একটা ছোট্ট সংশোধন করতে পারলে বোধহয় ভালো হয় লেখাটিতে। এক জায়গায় লেখা আছে,
    'বাঙালি মধ্যবিত্তরা স্রেফ ৩৭০ এর অভাবে এতদিন শ্রীনগর উপত্যকায় রিটায়ারমেন্ট হোম বানাতে পারছিলেননা, এখন সেই সমস্যা মিটল।'
    এখানে 'অভাবে' শব্দটি নিয়ে একটু ভাবতে অনুরোধ করবো লেখককে।
  • ব্রতীন | 237812.69.453412.38 (*) | ০৬ আগস্ট ২০১৯ ০৪:৩৪49245
  • দেবু বাবু, জানি কিন্তু বলবো না
  • dc | 236712.158.676712.114 (*) | ০৬ আগস্ট ২০১৯ ০৫:১৭49234
  • অমিতের সাথে সম্পূর্ণ সহমত। ইন ফ্যাক্ট আজকের অবস্থার জন্য আরেসেস যদি সরাসরি দায়ী হয় তো কংগ্রেস পরোক্ষে দায়ী। একটা ন্যাশনাল পার্টি এইভাবে উবে গেল, দেশে বেসিকালি এখন আর কোন বিরোধী পার্টি নেই। ফলে সরকার পক্ষ যা খুশী করতে পারছে।
  • | 237812.69.563412.93 (*) | ০৬ আগস্ট ২০১৯ ০৫:২৩49235
  • ওমিত কি বলতে চাইলেন লেখাটা মোটেই ঠিক হয় নি? ``
  • Amit | 236712.158.23.203 (*) | ০৬ আগস্ট ২০১৯ ০৫:৩৭49236
  • দ-কে,
    না তো । সেটা কখন বললুম আবার ? লেখাটা র মধ্যে যে সুক্ষ ব্যঙ্গ আছে, সেটা নিশ্চয় পাঠক হিসেবে ১০০-% উপভোগ করেছি। তার কৃতিত্ব দিতে কোনো আপত্তি নেই।

    কিন্তু প্রশ্ন এটাই তুলেছি বাস্তব দুনিয়াতে গণতন্ত্র আর মিলিটারি তন্ত্র কোন দেশে প্রাক্টিক্যালি হাত ধরা ধরি করে চলে- ? সেটা কোনো দেশেই হয়না বোধহয়, হলে কি আর UK ৭০০০ মাইল দূরে সমুদ্রে একটা পুচকে ফকল্যান্ড আইল্যান্ড এর জন্য লড়াই করতে যায় ? তখন UK -র ইন্টারনাল আর্থিক অবস্থা র সাথে এখনকার ইন্ডিয়ার অনেক মিল পাবেন, থ্যাচার ও একটা এক্সটার্নাল ডিভর্সন চাইছিলেন ডেসপারেটলি আর আর্জেন্টিনা ওনাকে একেবারে কলার কাদি সাজিয়ে দিয়েছিলো।

    আরো হাজার উদাহরণ বেরিয়ে আসবে যেখানে এসব নিয়ে গুচ্ছের লড়াই হয়েছে, বেশি লিখে লাভ নেই , সবাই জানেন ওসব। বরং কেও অন্য দিকের উদা জানা থাকলে (যেখানে নির্ঝঞ্জাটে এরকম স্ট্রাটেজিক অঞ্চল হাতবদল হয়েছে ) বলুন না এখানে , জানলে ভালোই লাগবে।
  • A | 237812.69.2323.121 (*) | ০৬ আগস্ট ২০১৯ ০৫:৪১49237
  • Saikat-er lekha ta ekpeshe laglo; banglider tene ene ki laabh holo - borong kashmiri der ki holo na holo focus korle bhalo hoto ...

    Amit e-r shonge sohomot - birodhi nei sutarang sorkar target korbei ...

    tobe property kena becha tar bapar ta besh interesting -- ekta whatsapp group e dekhlam sudhu property niyei discussion cholche - jeno 370 r 35 bondho hoye geche bole sobai real estate business korbe
  • Amit | 236712.158.23.203 (*) | ০৬ আগস্ট ২০১৯ ০৬:১৩49238
  • উদা দিতে গিয়ে কেও আবার প্লিজ আলাস্কা টেনে আনবেন না। রাশিয়ান রা এখনো হাত কামড়ায় ওটা নিয়ে :) :) আমার নিজের দুটো বন্ধু আছে। :) :) মাইরি বলছি।

    ওখানে যে তেলের ভান্ডার আছে, সেটা 18th সেঞ্চুরি তে খুঁজে পায়নি ওরা, আর তখন জেওপলিটিক্স এর সাথে এখনকার হাজার মাইল তফাৎ। একটু রিসেন্ট উদা দেবেন প্লিজ।
  • প্রভাস চন্দ্র রায় | 236712.158.786712.67 (*) | ০৬ আগস্ট ২০১৯ ০৬:২০49239
  • demonetization করে হাজার হাজার মানুষের রুজি হারিয়েছে, এক পয়সা কালো টাকা উদ্ধার হয়নি। সার্জিক্যাল স্ট্রাইকের পর সন্ত্রাস কমেনি। শিল্পে মন্দা, লক্ষ লক্ষ মানুষ বেরোজগারের পথে। শেয়ার বাজারে পতন। টাকার দাম আন্তর্জাতিক বাজারে সর্বনিম্ন। প্রতি দিন ব‍্যাঙ্কে গচ্ছিত টাকায় সুদ কমছে।
    আমরা আনন্দিত, সব সমস্যার সমাধান এখন হাতের মুঠোয়।
    কোন সমালোচনা করে দেশদ্রোহী হতে চাইনা। সুতরাং--
  • S | 236712.158.786712.127 (*) | ০৬ আগস্ট ২০১৯ ০৬:৪৮49240
  • ঈশানদার লেখাটা দারুন হলেও আমার ভালো লাগেনি। বিজেপির ক্রমাগত বজ্জাতি, অপদার্থতা, আর কালকের সর্বনেশে সিদ্ধান্তের পরে আমার পক্ষে আর স্যাটায়ার নেওয়া সম্ভব হচ্ছেনা।
  • Amit | 236712.158.23.211 (*) | ০৬ আগস্ট ২০১৯ ১০:৫৯49246
  • PM দা কে,

    হ্যা , আমি কাশ্মীর বলতে POK আর ইন্ডিয়ান কাশ্মীর দুটো একসাথে ধরেছি, পুরোটাই তো বিতর্কিত এলাকা। POK , আকসায় চীন থেকে শুরু করে সবই তো ঘেটে ঘ হয়ে আছে। শুধু ইন্ডিয়ান কাশ্মীর ধরলে ইন্টারন্যাশনাল বর্ডার স্ট্রাটেজিক ইম্পর্টেন্স অনেক কমে যায় ঠিক ই, কিন্তু কাশ্মীর ছেড়ে দিলে জম্মু থেকে পাঠানকোট আর্মি বেস দেড় ঘন্টার রাস্তা। কোন দেশ এতো উদার হবে যে ঘাড়ের ওপর চীন আর পাকিস্তান এর মতো হোস্টাইলে নেবার নিয়ে দরজা খুলে রাখবে ?

    আর দাদা, ছিটমহল এর উদা টা এক্কেবারে দাঁড়ালো না। এটা আপনিও জানেন। জায়গা নিয়ে বিতর্ক বা গুরুত্ব ছেড়েই দ্যান, ওসব তুলনা করাটাই হাস্যকর। শুধু এটাই দ্যাখেন যে চুক্তি হলো কবে ? ২০১৫- এ , যখন শেখ হাসিনা ক্ষমতায় এবং তিনি ভারতের সাথে ভালো সম্পর্ক রাখতে আগ্রহী। ১৯৭১ এর আগে তো ছেড়ে দ্যান, ইভেন জামাত পন্থী খালেদা জিয়া বাংলাদেশ এর PM থাকলে কদ্দুর কি চুক্তি হতো সেটা বলা মুশকিল।

    ব্রিটিশ দের আমলে বা ক্ষমতা ছেড়ে দেওয়ার সময় সব কাজ ঠিক হয়েছে, এটা মাউন্টব্যাটেন এর চরম ভক্ত রাও ও ক্লেম করে না। জাস্ট এটাই আমার বক্তব্য যে তখন যে অবস্থায় ছিল , তখনকার মতো একটা কাজ চালানো সলুশন বের করে হয়েছিল। ব্যাস। এবার তখন যা ভুলভাল হয়েছে , সেটা নিয়ে অনন্তকাল বিতর্ক চালানো যেতে পারে , অথবা অন্য ভাবে কংট্রোলড বা দ্রাষ্টিক স্টেপস নিয়ে অন্য ভাবে সলুশন এর পথে এগোনো যেতে পারে। ইডিয়াল সলুশন বলে কোনো কিছু কোথাও হয়নি আজ অব্দি।

    কাশ্মীর তো একমাত্র নয়, ৫০০ এর ওপর দেশীয় রাজ্য ছিল , তারা কেও কোনো রকম গুষ্টির গণভোট করে নি। নিজাম তো পাকিস্তানে যাওয়ার জন্যে সব রেডি করেই ফেলেছিলেন। চারদিকে ইন্ডিয়ার মধ্যে একটা পাকিস্তানী হয়দেরাবাদ প্রদেশ ও হতেই পারতো। হয়নি যখন, তাহলে সেটাও আবার গণভোট নেওয়া হোক ? ?

    যেভাবে এখানে মাঝে মাঝে দেশভাগের ইতিহাস তুলে সমানে আফসোস করা হয় যে যা হয়েছে সব ভুলভাল, তাহলে তেনাদের কথা ই ধরলে তো বেস্ট অপশন তো মনে হয় আবার সব কিছুকে প্রি- ১৯৪৭ এর পিরিয়ড এ ফেরানো যাক আর এই ২১ শতকের গণতান্ত্রিক কনসেপ্ট নিয়ে একটা বিশাল গণভোট করা হোক। অবশ্য তাতেও বখরা আসবে যে তখনকার বেশির ভাগ লোকজন তো স্বর্গে গেছেন, তাহলে তাদের প্রক্সি ভোট কারা দেবে ?

    :) :) :)

    চীন বরং মধ্য এশিয়া র বহু দেশের সঙ্গে বর্ডার সমস্যা মিটিয়েছে, কিন্তু সত্যিটা হলো সেই দেশগুলোর মধ্যে কারোরই চীন র সাথে সেরকম দরাদরি করার অবস্থা ছিল না। আজকে আমি ব্যাঙ্ক এ লোন নিতে গেলে আর নীরব মোদী লোন নিতে গেলে ব্যাঙ্ক কি এক রকম ট্রিটমেন্ট করে ? এটাও তাই। আর তিব্বত এ কি হচ্ছে, সেটার ওপর কার ক্ষমতা আছে খবদারী করার ?

    গ্লোবাল রাজনীতি সোজা কথায় ঠিক ভুলের তত্বকথার ওপর চলে না, যার গায়ের বা ইকোনমির জোর বেশি , তারা ডিস্প্রোপার্টিনেত বেনিফিট জোর করে আদায় করে, যেমন ইস্রায়েল এক তরফ মেরে যাচ্ছে প্যালেসটিন কে, কে ঠেকাতে পারছে ? যেখানে দু পক্ষের জোর মোটামুটি প্রপোর্শনাল , সেখানে সমস্যা বেশি, ঝামেলা চলতেই থাকে, যেমন ইন্ডিয়া - পাকিস্তান।

    কাশ্মীর এর যে লেভেল এ ডিসপিউট, তার সাথে জাস্ট একটা দুটো ছাড়া বাকি কোনো দুনিয়াতে কিছু তুলনায় আসে না। এক হলো প্যালেসটিন, তার কথা না বলাই ভালো। আর এক হলো দুই কোরিয়া র মাঝে বর্ডার। তাও কোরিয়ান বর্ডার এর মধ্যে DMZ করে অনেক বেটার অবস্থা। আর ওখানে চীন আর আমেরিকার স্টেক অনেক, অনেক বেশি। তাও কবে কিম র মতো পাগলা লোক কি করে ফেলবে কেও জানে না।
  • | 236712.158.786712.53 (*) | ০৭ আগস্ট ২০১৯ ০৩:০৮49248
  • পিএম, ছিটমহল ঠিক কমপারেবেল নয়৷ আমি অমিত বাবুর সাথে একমত।
    কাশ্মীরে সমস্যার গভীরতা অনেক বেশী।সমস্যার মূল ও অনেক গভীরে।
  • | 236712.158.676712.114 (*) | ০৭ আগস্ট ২০১৯ ০৩:১৩49260
  • সুন্দর আলোচনা এগোচ্ছে
  • debu | 237812.69.3434.100 (*) | ০৭ আগস্ট ২০১৯ ০৬:০৬49261
  • দেখুন একটা point এ সবাই কে এক থাকতেই হবে - সেটা national interest । চামচা বাজির একটা লিমিট রাখুন।
    (সকালে ওঠ্হে গনশক্তি / আজকাল পরে দিন সুরু করবেন না)
  • PM | 236712.158.786712.127 (*) | ০৭ আগস্ট ২০১৯ ০৬:৪৫49249
  • সেতো আমিও বল্লাম। কিন্তু ্ছিট মহল আর সমুদ্র সীমা নিয়ে ৭০ বছরের বিতর্ক ছিলই। জেমন ছিলো গঙ্গার জলবন্টন নিয়ে। তিস্তা নিয়ে এখনো অছে। কাশ্মিরের স্কেলের সমস্যা পৃথিবীতে আর গোটা ২-৩ ই আছে। গাজা, তিব্বত ইত্যাদি। কিন্তু ছোটো স্কেলে হলেও সমুদ্রসীমা আর ছিট মহল ও সমশ্যা -- যার সমাধান শান্তিপুর্ন ভাবে হয়েছে। ভারত ২০০০ বর্গ কিমি সমুদ্র সীমার ওপোর অধিকার ছেড়ে দিয়েছে। বাংলাদেশ ও ছেড়েছে কিছুটা।

    কাল যদি বাংলাদেশের ভাগে পড়া অংশে প্রচুর তেল পাওয় যায়, এখানকার বিরোধীরা গাল দেবেই। উল্টোদিকে ভারতের ভাগের সমুদ্রে তেল পেলে হাসোনার চামড়া খুলে নেওয়া হবে। এই সব আর কি
  • dc | 237812.69.453412.98 (*) | ০৭ আগস্ট ২০১৯ ০৬:৫৫49250
  • পিএমদা, ছিটমহল আর কাশ্মীরের একটা বড়ো তফাত হলো, ছিটমহলে দুটো পার্টি ছিলো - ভারত আর বাংলাদেশ। দুটো পার্টি নিজেদের মধ্যে দেওয়া নেওয়া করে মিটিয়ে নিয়েছে। আর কাশ্মীরে অনেকগুলো পার্টি। চীন, ভারত, পাকিস্তান, আফগানিস্তান, অ্যামেরিকা। ওখানের জিওপলিটিকাল সিচুয়েশান একেবারেই আলাদা। কোন দুটো পক্ষ নিজেদের মধ্যে বোঝাপড়া করতে চাইলেও তৃতীয় পক্ষ বাধা দেবে। চীন, ভারত আর পাকিস্তান - তিন পক্ষই চায় ওখানে অশান্তি জিয়িএ রাখতে। গ্লোবাল পাওয়ার ব্যালেন্স একেবারে পুরোপুরি না পাল্টালে ওখানে কোন সমাধান বেরনো খুব মুশকিল। (ইস্ট আর ওয়েস্ট জার্মানি যেমন মিলতে পেরেছিল সোভিয়েত ইউনিয়ন কোল্যাপ্স করে যাওয়ার পর, ঠান্ডা যুদ্ধ শেষ হওয়ার সময়ে)
  • PM | 237812.69.453412.140 (*) | ০৭ আগস্ট ২০১৯ ০৭:১৫49262
  • আচ্ছা ঃ)
  • Amit | 237812.68.6789.111 (*) | ০৭ আগস্ট ২০১৯ ০৭:২২49251
  • At লিস্ট মোদী কে ইটা বলবো যে ও কাশ্মীর এ স্টেটাস কুও থেকে বেরোতে চেষ্টা করেছে, ভালো বা খারাপ যাই হোক , সেটা দেখা যাক। গত ৬০-৭০ বছরে তো এক ই ডেডলকেড সিচুয়েশন এ আটকে আছে। আর এই সমস্যার এমন কোনো সল্যুশন নেই যে সব পার্টি কে খুশি করতে পারে।
  • dc | 237812.68.454512.192 (*) | ০৭ আগস্ট ২০১৯ ০৭:৪৬49252
  • অমিত, মুশকিল হলো এই ডিসিশানটা নেওয়া হয়েছে ধুধুমাত্র দুটো মাত্র অবজেক্টিভ মাথায় রেখেঃ শর্ট টার্ম অবজেক্টিভ হলো বিজেপির ভোটে সুবিধে হবে, আর লং টার্ম অবজেক্টিভ হলো আরেসেসের হিন্দু রাষ্ট্র পোজেক্ট আরেক ধাপ এগলো।

    আর আমাদের সবার প্রিয় প্রধানসেবক ডিসিশানটা নিয়েছেন খুব অপটিমাল সময়ে। দেশের মধ্যে অপোজিশান বলে আর কেউ নেই, ফলে ইন্টারনালি কোন বাধার সম্মুখীন হওয়ার প্রশ্নই নেই। আর ইন্টারন্যাশানালি গ্লোবাল পুলিশ আর কেউ হতে চাইছে না। অ্যামেরিকা অস্তাচলে আর চীন সেই জায়গায় এখনো পৌঁছয়নি। যার জন্য দেখুন অ্যামেরিকা একটা নিস্পৃহ মন্তব্য করে দায় সেরে ফেলেছে আর চীন একটু ফোঁস করেছে বটে, কিন্তু তার বেশী কিছু না।
  • dc | 237812.68.454512.192 (*) | ০৭ আগস্ট ২০১৯ ০৭:৪৭49253
  • শুধুমাত্র
  • S | 236712.158.566712.165 (*) | ০৭ আগস্ট ২০১৯ ০৭:৪৭49254
  • কাশ্মীরের তিনটে মুল পার্টি হলোঃ ভারত, পাক, চীন। এর মধ্যে পাক ও চীন ভারতের প্রতি মারাত্মক হোস্টাইল। এবং এই হোস্টিলিটিই পাক ও চীনের বন্ধুত্বের কারণ। চীনের সঙ্গে সুসম্পর্ক তৈরী করা ভারতের খুবই প্রয়োজন। কারণ চীনকে হ্যান্ডেল করা ভারতের পক্ষে আর কোনওদিনও সম্ভব হবেনা।
  • S | 236712.158.566712.165 (*) | ০৭ আগস্ট ২০১৯ ০৭:৫৮49255
  • কাশ্মীরকে ছেড়ে দেওয়ার কোনও মানেই হয়্না। কাশ্মীর কোনওদিনই স্বাধীন রাষ্ট্র হবেনা। নাম কে ওয়াস্তে হলেও পাকিস্তানের ছায়া হয়েই থেকে যাবে। পাক ও চীনা সেনাদের অবাধ বিচরণ ভুমি হবে।

    কিন্তু কাশ্মীরকে ইন্টিগ্রেট করার এটা সঠিক পদ্ধতি নয়। ডিসিদার দুটো পয়েন্টই ভ্যালিড। ঐ দুটই মুল উদ্দেশ্য। এখানে কাশ্মীরের লোকজনদের কোনও পার্টিশিপেশন ছাড়াই মেইন ল্যান্ডের লোকেরা ঠিক করে ফেললো একটা রাজ্যের ভবিষ্যত। কলোনিয়াল স্টাইলে। স্টেড হুড কেড়ে নিয়ে এবং ৩৭০ বাতিল করে কাশ্মীরকে আরো বেশি অনিশ্চয়তা এবং হিংসার দিকে ঠেলে দিলো। এখন দুটই পথ খোলা থাকলো। এক, ভবিষ্যতে কাশ্মীরকে (জম্মু নয়) ছেড়ে দেওয়া। দুই, জম্মু ও কাশ্মীরকে হিন্দু প্রধান বানিয়ে (৩৫এ) প্লেবিসাইট করা। বোঝাই যাচ্ছে বিজেপি কোনদিকে হাঁটছে।
  • dc | 236712.158.786712.67 (*) | ০৭ আগস্ট ২০১৯ ০৭:৫৯49256
  • কিন্তু চীন কি ভারতের সাথে খুব বেশী সুসম্পর্ক চাইবে? বরং কাশ্মীর নিয়ে ভারত ব্যস্ত থাকলে চীনের লাভ। চীন চাইবে কড়াইটা যেন ফুটতে থাকে কিন্তু জল উপচে না পড়ে।
  • S | 236712.158.566712.165 (*) | ০৭ আগস্ট ২০১৯ ০৮:০৪49257
  • হ্যাঁ পাকিস্তানকে প্রচুর আর্মস বিক্রিবাটা করছে বটে চীন। বিশেষতঃ আম্রিগা বন্ধ করে দেওয়ার পর থেকে। সেক্ষেত্রে চীনের ইন্টারেস্ট আছে ভারত-পাক সমস্যা জিইয়ে রাখার। কিন্তু অন্য সীমান্তগুলোতে চীন চাইবে ভারতের সঙ্গে মিটমাট করে বানিজ্যিক সুসম্পর্ক তৈরী করার। আম্রিগা ট্যারিফ বসানোর পর এবং গ্রোথ কমতে শুরু করতে চীন নতুন মার্কেট খুঁজছে। ভারত একদম পাশেই আছে, গ্রোয়িং ইকনমি, যে কারণে বেল্ট/সিল্ক রোডে ইন্ডিয়াকে ইনভাইট করেছিলো।
  • dc | 236712.158.786712.67 (*) | ০৭ আগস্ট ২০১৯ ০৮:০৮49258
  • হ্যাঁ। আমার তো মনে হয় বেল্ট অ্যান্ড রোডে ইন্ডিয়া গেলে আমাদের লাভই হবে। বেফালতু অ্যামেরিকার চাপে যাচ্ছে না।
  • Amit | 237812.68.345623.76 (*) | ০৭ আগস্ট ২০১৯ ০৮:৩৫49259
  • ডিসি, পলিটিকাল লাভ তো আছেই , নাহলে মোদী কি আর চ্যারিটি করতে নেমেছে ? কিন্তু গত ৬০-৭০ বছরে কংগ এতো জল ঘোলা করেছে কাশ্মীর এ, ওই বা ছাড়বে কেন ? বরং ওদের কোনো হিপ্পোক্রেসি নেই, হিন্দু পলিটিক্স করবে, সোজা বুক চিতিয়ে করছে । কংগ বা তিনুদের মতো লুকিয়ে চুরিয়ে নয় ।

    কাশ্মীর এর লোক দের মন জয় করতে গিয়ে জম্মু বা লাদাখের লোকের মন বিগড়ে যাচ্ছিলো এদিকে, তো এরা টার্গেট অডিয়েন্স চেঞ্জ করে দিলো আর কি। সোজা কথা, কাশ্মীর কে পাকিস্তান এর হাতে ছেড়ে দেওয়া বা স্বাধীন হতে দেওয়া দুটোই ইন্ডিয়ার পক্ষে বিপজ্জনক , পাকিস্তান বা চীন তো আর গান্ধী গিরি করে না। আর আলোচনার যেখানে বেসিস টাই গড়বড়ে, সেখানে অনন্তকাল ধরে আলোচনা করে কার লাভ ?

    একটা মেজর গ্যাম্বলে খেলে দিলো মোদী, এবার দেখা যাক, বাকিরা কি করে। তবে কংগ্রেস র গঙ্গাযাত্রা হয়ে গেছে নিশ্চিত ।
  • Amit | 236712.158.23.203 (*) | ০৭ আগস্ট ২০১৯ ১১:২৪49263
  • বাবা রে । দেবু বাবু তো একেবারে অমিত শাহ এর মতো আঙ্গুল তুলে ধমকালেন।
  • Amit | 236712.158.23.203 (*) | ০৭ আগস্ট ২০১৯ ১২:১৩49247
  • আমার নিজের ধারণা ওপাশে ট্রাম্প আফগান তালিবান দের সাথে কোনো রকম এক্সিট চুক্তি ফাইনাল করার আগেই মোদী চেয়েছিলো কাশ্মীরে নিজের মতো করে ঘর গোছাতে। একবার US আর্মি আফগানিস্তান থেকে বেরিয়ে গেলে পাকিস্তানী তালিবান দের পুরো চাপ যে কাশ্মীরে এসে পড়তো না , তার কোনো গ্যারান্টি নেই। ও রকম ব্যাটল হার্ডেনেড মিলিশিয়া গ্রূপ এর সাথে লড়াই করা, সেখানে অলরেডি লোকাল পপুলেশন হোস্টাইলে হয়ে আছে, খুবই ডিফিকাল্ট।

    কদিন ধরেই ট্রাম্প নেচে যাচ্ছে কাশ্মীরে মধ্যস্থতা করার জন্যে, আসল খবর নিশ্চয় কিছু ইন্ডিয়া পেয়েছে ভেতরে , কে জানে।
  • Ekak | 124512.101.89900.123 (*) | ০৮ আগস্ট ২০১৯ ০১:৩৪49265
  • অমিত জে কর্পোরেট্প্রতিম মডেল টি পেশ করেচেন উটির গোড়ায় এট্টু গোল আচে ঃ)

    বাস্তবে তদ্রুপ খেত্রে এই অপশন ওপেন যেখানে, বেশি মাইনে পাওআ কর্মীকে বলা জায়, যে বাপু তুমি সেম গ্রেডে সেম মাইনে না নিলে , রেজিগনেশন দিয়ে অন্যত্র কাজ খুন্জে নাও। একই কথা বাকী কর্মীদের খেত্রেও প্রজজ্য।

    এই লিবার্টি টাই কর্পোরেট মডেল কে ইউনিকনেস দেয়, স্লেভ হিসেবে কাওকে ধরে রেখে তার্পর পুরো খেলার নিওম লিখলে সেটা আর জাই হোক কর্পোরেট থাকে না ।

    স্টেট অকুপেশন কে যস্টিফাই কত অতো সহজ নয় , ন্যান , আবার চেষ্টা করেন
  • Amit | 236712.158.23.215 (*) | ০৮ আগস্ট ২০১৯ ০১:৪৮49266
  • একক কে,

    হ্যা, ওই মডেল এ একটু গোল তো আছেই। ওতো ডিটেল এ লিখিনি, হাফিয়ে যাই বাপু। জাস্ট অপশন গুলো শর্ট লিস্টি করতে চাইছি এক জায়গায়। আমরা তো আর কাশ্মীর প্রোবলেম এই মায়াপাতায় সল্ভ করবো না, জাস্ট মতামত নেওয়া। টাইম পাস আর কি আমার কাছে।

    বেশি মাইনে পাওয়া এমপ্লয়ী কে বলা যেতেই পারে অন্যত্র কাজ খুঁজে নিতে, তবে গোল টা বাধে সেখানে যদি সেই এমপ্লয়ী বলে বসে সে যেখানে চাকরি করছিলো, সেই বাড়ি শুদ্ধ অন্য কোম্পানিতে চলে যাবে বা ওই বাড়ি তেই নিজের অন্য কোম্পানি খুলবে।

    আরো গোল বাধবে যদি এবার সেই বাড়িতেই অতীতে সেই এমপ্লয়ী অন্য কাজ করছিলেন নতুন কোম্পানি ফর্ম হওয়ার আগেই।

    যেমন ধরেন ইন্ডিয়া পোস্ট এ নিজের বাড়ি পোস্ট অফিস হিসেবে লিজে দেওয়াও যায় আবার একই সাথে সেখানে পোস্ট মাস্টার এর চাকরি ও করাও যায় ইন্ডিয়া পোস্ট এর কাছে মাস মাইতে তে।

    এবার হটাৎ কোনো এক সকালে তিনি চাকরি ছাড়তে চাইলে সেই বাড়ির মালিকানা র হিসেবে কি দাঁড়ায় -?
  • dc | 237812.69.563412.99 (*) | ০৮ আগস্ট ২০১৯ ০২:০২49267
  • "এটা ঠিক যে কাশ্মীর এর লোকেদের সাথে কোনো আলোচনা ছাড়াই ৩৭০ তুলে দেওয়া হয়েছে। উল্টোদিকে এটাও ঠিক যে গত ৭০ বছরে কোনো নির্দিষ্ট প্ল্যান পাওয়া যায়নি। জাস্ট মোদী ভজনা বা মোদী ব্যাশিং এ না গিয়ে একটু টো টি পয়েন্ট আলোচনা এগোলে কেমন হয় ?"

    অমিত যদি কিছু না মনে করেন তো বলি এই আলোচনার প্রেমাইসে ভুল আছে, বা ভুল অ্যাসাম্পসান নিয়ে আলোচনা শুরু করেছেন। ৩৭০ ভুল না ঠিক সেটা কিন্তু গতো কয়েকদিনের ঘটনার বেসিস না। বেসিস হচ্ছে বিজেপির ম্যানিফেস্টোতে ৩৭০ তুলে দেওয়ার কথা ছিল, বিজেপি তুলে দিয়েছে। অন্য পার্টিরা ৩৭০ তোলার কথা বলেনি, তাই তারা তোলার চেষ্টাও করেনি। এটা যদি মেনে নেন তাহলে দেখবেন যে ৩৭০ তোলা হয়েছে আরেসেস/বিজেপির স্বার্থে, অন্যরা এটা চায়নি (কাশ্মীরীরাও না, অন্যরাও না)। এই যে দেবু বাবু বললেন ন্যাশনাল ইন্টারেস্ট, তো এটুকু বলা যায় যে বিজেপির ইন্টারেস্ট আর ন্যাশনাল ইন্টারেস্ট এক না। এই টই না অন্য কোথায় একটা লিখেছিলাম, এই ডিসিশানের ফলে বিজেপির ভোটে লাভ হবে, আর আরেসেসের হিন্দু রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার প্রোজেক্ট আরেক ধাপ এগোবে।

    অন্য একটা ব্যপার হলো, ৩৭০ তুলে দেওয়ার প্রসেসটা। এটা করা হলো কনস্টিটিউশান রিইন্টারপ্রেট করে - বলা হলো কাশ্মীরের কনস্টিটুয়েন্ট অ্যাসেম্বলি আর স্টেট অ্যাসেম্বলি এক। একটা স্টেবল ডেমোক্রেসি কি এভাবে কনস্টিটিউশান রিইন্টারপ্রেট করতে পারে? মানে এই যে প্রেসিডেন্স তৈরি হলো, এর পর তো যে কোন কিছুই নিজের মতো করে ইন্টারপ্রেট করা যাবে! এছাড়া একটা রাজ্যকে ইউনিয়ন টেরিটোরি বানিয়ে দেওয়া হলো, এটাও একটা অসাধারন প্রেসিডেন্স তৈরি করা হলো। ধরুন তামিল নাড়ুতে জল্লিকাট্টু নিয়ে খুব প্রতিবাদ হৈচৈ চলছে, তো সেখানে প্রেসিডেন্টস রুল ডিক্লেয়ার করে বলা হলো তামিল নাড়ুকে দুটো ইউনিয়ন টেরিটোরিতে ভাগ করে দেওয়া হবে। আমার মনে হয় এই প্রশ্নগুলো নিয়ে আলোচনা হওয়া উচিত।
  • Amit | 236712.158.23.211 (*) | ০৮ আগস্ট ২০১৯ ০২:৫৮49268
  • উহু ডিসি, হলো না। আর একবার পড়েন।

    আমি কাশ্মীর কে লেখাতে আদৌ তুলিনি, ওটা আমার প্রশ্নই নয়। সবাই জানে মোদী শাহ এটা একটা মেজর পলিটিকাল চাল চেলেছে। ওদের ইলেকশন এজেন্ডা তে এটা ছিল, সেটা ইমপ্লিমেন্ট করে ব্রাউনি পয়েন্ট স্কোর করেছে। আর এটা এমন সাবজেক্ট , অপসিশন পুরো ছত্রখান হয়ে গেছে।

    আর এটাও স্বীকার করা যাক , পুরো দুনিয়াতে যারাই জোর করে কোনো জায়গা দখল করে , তারা করার কাছে কোনো রকম জাস্টিফিকেশন দেয়না,বা পিছিয়ে আসে না যতক্ষণ একটা বড়ো সড়ো ইন্টারন্যাশনাল চাপের মুখে পড়ছে।

    চীন তিব্বত দখল করে রেখেছে , কাউকে জুস্টটিফিকেশন দিয়েছে বা দিচ্ছে ? পাকিস্তান বেলুচিস্তান দখল করে রেখেছে, কাউকে দিচ্ছে ? রাশিয়া চেচনিয়া দখলে রেখেছে , কাওকে দিচ্ছে ? US জাপানে ওকিনাওয়া আইল্যান্ড এ বসে আছে , কাওকে দিচ্ছে ? UK ফকল্যান্ড এ বসে আছে, কাওকে দিচ্ছে ? স্পেন ক্যাটালোনিয়া কে দখলে রেখেছে , কাওকে দিচ্ছে ? চীনের পুলিশ হংকং প্রোটেস্টটার দের রোজ পেটাচ্ছে , রোজ মিডিয়াতে আসছে, চীনের কিছু কেশাগ্র উৎপাটন হয়েছে তাতে ?

    এই যে ইন্ডিয়া নিজের মিলিটারি ইন্টারেস্ট না থাকলে কি আদৌ ১৯৭১ এ বাংলাদেশ এ নাক গলাত- ? কাশ্মীর আর বাংলাদেশ এর কেস স্টাডি র মধ্যে কতটা ডিফারেন্স বার্ডস eye ভিউ থেকে ?

    US আফগানিস্তান এ বসে আছে , কার বাবার ক্ষমতা ওদের থেকে কৈফিয়ত চাইবে ? কুয়েত এ তেলের বদলে আপেল বা কলা বাগান থাকলে এখনো ইরাক ওখানে দিব্যি আরামসে বসে থাকতো, নেহাত তেলের জন্যে কেস গড়বড় হয়ে গেলো। ওসব জাস্টিফিকেশন টোন নিয়ে আমি আদৌ প্রশ্নই তুলিনি।

    আমি জাস্ট কয়েকটা বেসিক প্রশ্ন তুলেছি, একটা ইডিয়াল ডেমোক্রাটিক মডেল এ রকম ডিভার্সিফায়েড কেস র পাথ ফরওয়ার্ড কি কি ভাবে হওয়া উচিত ?

    বাস্তব দুনিয়াতে কি কি হচ্ছে, সেটা সবাই জানে , সেটা নিয়ে কোনো প্রশ্ন নেই।
  • dc | 236712.158.676712.214 (*) | ০৮ আগস্ট ২০১৯ ০৩:১৬49269
  • কি হওয়া উচিত সে নিয়ে আমারও কোন উত্তর নেই, বা দিতে পারবো না। বেসিকালি কাশ্মীরে তিনটে পার্টি স্টেলমেট নিয়ে বসে আছে। চীন, ভারত, পাকিস্তান কেউই এগোতেও পারবে না, পেছোতেও পারবে না। আইডিয়ালি স্ট্যাটাস কুও বজায় রাখা উচিত ছিলো বলেই মনে হয়, আর ইন্ডিয়া যেটা করতে পারতো সেটা হলো চীনের সাথে লং টার্ম ট্রেড রিলেশান তৈরি করা যাতে সেটা দিয়ে কাশ্মীরে কিছুটা বার্গেন করা যেতো। এখ্ন তো সেই অপশানটাও গেলো।
  • Amit | 236712.158.23.215 (*) | ০৮ আগস্ট ২০১৯ ০৩:২৭49270
  • অরে ডিসি , আপনি দাদা সেই কাশ্মীরেই ফিরে এলেন।

    আপনি তো ভালোই জানেন ইন্টারন্যাশনাল পলিটিক্স বড়ো বিচিত্র জিনিস, কালকে কি হবে নস্ট্রাদামুস এর বাবা ও বলতে পারবে না। চীন ভারত এর রিলেসন কালকে কি দাঁড়াবে, চীন পাকিস্তান এর রিলেসন কি দাঁড়াবে , আমেরিকা রাশিয়া কোথায় কাঠি করবে, কে বলতে পারে ?

    রাজনীতি যেমন চেঞ্জ হতে থাকবে, কাশ্মীর নিয়ে ওদের প্রায়োরিটি ও চেঞ্জ হতে থাকবে সময়ের সাথে সাথে। আপনি যা যা বলছেন, সবই তো প্রেডিকশন , হতেও পারে , নাও পারে। সবই ৫০ % ৫০-% প্রোবাবিলিটি।

    আমার বেসিক প্রশ্নটা সেই রয়েই গেলো । কি করা উচিত এসব কেস এ ?

    :( :(
  • dc | 237812.69.453412.170 (*) | ০৮ আগস্ট ২০১৯ ০৩:৩১49271
  • ওহো, এক্কেবারে আইডিয়ালি কি করা উচিত? এ তো সিম্পুল ব্যপার ঃ-) চীন আর পাকিস্তানের উচিত কাশ্মীরে নাক গলানো বন্ধ করা। আর তারপর তিনটে দেশ মিলে পুরো কাশ্মীরে একসাথে গণভোট করা উচিত। মানে ইন্ডিয়ার পোর্শানে, পাকিস্তানের পোর্শানে, আর চীনের পোর্শানে তিনটে জায়গাতেই একসাথে গণভোট। আর সেই ভোটের রায় যা হবে সেইমতো এগনো উচিত।
  • Amit | 236712.158.23.211 (*) | ০৮ আগস্ট ২০১৯ ০৩:৩৭49272
  • ও হ্যা, লাস্ট এ যে বললেন স্টেটাস কুও রাখাই উচিত ছিল, তাহলে সেটা কত বছরের জন্যে- ?
  • dc | 236712.158.676712.114 (*) | ০৮ আগস্ট ২০১৯ ০৩:৪০49273
  • অন্তত আগামী বছর দশ কুড়ি। যদ্দিন না গ্লোবাল পলিটিক্সে বড়ো রকম কোন পরিবর্তন হয়।
  • Amit | 236712.158.23.211 (*) | ০৮ আগস্ট ২০১৯ ০৩:৪২49274
  • কি কান্ড দ্যাখেন, এতো সোজা , সিম্পুল সলুশন হাতের কাছেই, আর আমরা এদিকে ছড়িয়ে লাট করছি। শেম। :) :)

    আমি কোনোদিন প্রধান মন্ত্রী হলে আপনাকে বিদেশমন্ত্রী করবোই , প্রমিস। :) :) (গুরুদেব বলে গ্যাছেন স্বপ্নে হালুয়া খেলে ঘি বেশি করে দিতে )

    যাক গে, আজকের মতো প্রশ্ন ঢের হয়েছে। আবার সুযোগ পেলে প্রশ্ন তোলা যাবে খন। মায়াপাতা বড় ভালো জিনিস। ভারী ভারী সাবজেক্ট নিয়ে প্রশ্ন করা যায়, উত্তর না পেলেও খেতি নেই। ইন ফ্যাক্ট উত্তর পেলেও বা আমার কি আসবে যাবে আর ?

    :) :)
  • করোনা ভাইরাস

  • পাতা : 1 | 2
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার খেরোর খাতা, লিখতে থাকুন, বানান নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]
মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত