• টইপত্তর  অন্যান্য

  • সর্ষেবাটা মোচাকাটা চিতলের মুইঠ্যা ইত্যাদি ইত্যাদি (২)

    Ishan
    অন্যান্য | ০৬ নভেম্বর ২০০৬ | ৯০০৫ বার পঠিত
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • tkn | 122.162.42.61 | ০৮ ডিসেম্বর ২০০৯ ২২:৪৬695196
  • আমি আজ অক্ষর চাঁপ রাঁধলাম। সে যে কি ভালো কি ভালো ও হয়েছে কি বলব। মানে জাস্ট টু গুড, মানে যার পর নাই ভালো আরকি
  • Abhyu | 107.89.18.209 | ১০ ফেব্রুয়ারি ২০১৩ ০৮:১৫695197
  • তুললাম
  • Abhyu | 107.89.18.209 | ১০ ফেব্রুয়ারি ২০১৩ ০৮:১৫695198
  • তুললাম
  • একক | ১৩ অক্টোবর ২০১৩ ১১:৪৮695199
  • অক্ষর চাঁপের রেসিপি কোন পাতায় ?
  • Bhagidaar | 218.107.71.70 | ১৩ অক্টোবর ২০১৩ ১৩:৫৩695200
  • Name: a x Mail: Country:

    IP Address : 76.254.114.136 Date:22 Dec 2008 -- 02:18 AM

    খুব সোজা মাংসের চাঁপ।

    দোকানে গিয়ে মাংসওয়ালাকে বলতে হবে পসিন্দা কাবাবের মাংস দিতে। আর অভাগা হলে চিকেন-এর ব্রেস্ট টেন্ডার বা থাই দিয়ে কাজ চালানো যেতে পারে। মাংসর টুকরোগুলোকে নোড়া বা দিস্তা বা ভারী কিছু দিয়ে অল্প থেতো করে ফ্ল্যাট করে নিতে হবে।
    অনেকটা পেঁয়াজ বেটে/গ্রাইন্ড করে নিন, বাটার সময় সঙ্গে দারচিনি ও এলাচ দেবেন।
    এবার মাংসের মধ্যে এই জিনিসগুলো যোগ করতে হবে -
    ঐ দারচিনি, এলাচ সহ পেঁয়াজবাটা
    রসুনবাটা
    দৈ
    নুন
    লংকাগুঁড়ো
    অনেকটা সর্ষের তেল
    পিঞ্চ হলুদ
    সব কিছু ভালো করে হাত দিয়ে মাখুন এবার (হাতে না মাখলে কখনই সেই টেস্ট আসেনা)। সারাদিন বাইরে রেখে দিন। ঠিক রাঁধার আগে অল্প একটু গরম মশলা গুঁড়ো দিয়ে আবার মাখুন। এবার একটা তলা ভারী, ফ্ল্যাট বটম প্যান নিন। সর্ষের তেল ঢালুন। তেল গরম হলে ম্যারিনেড থেকে তুলে মাংসের টুকরো গুলো সিঙ্গল লেয়ারে সাজিয়ে দিন (এই সিঙ্গল লেয়ারটা ইম্পর্ট্যান্ট), এপিঠ ওপিঠ একটু হাল্কা বাদামী করে ভাজা হয়ে গেলে ওপর থেকে ঐ মশলা মাখা ম্যারিনেডটা দিয়ে দিন। ঢাকা দিয়ে, আঁচ কমিয়ে রাখুন। চিকেন হলে ১০ মিনিটের মধ্যেই প্রায় সেদ্ধ হয়ে যায়। মাটন হলে অবশ্যই একটু সময় লাগবে। তবে জল দেবার দরকার হয়না। একটু মাখা মাখা, তেলওয়ালা হবে। রুটি, নান দিয়ে খাবার পক্ষে আদর্শ। সঙ্গে গোল চাকা পেঁয়াজ। প্লিজ নো ধনেপাতা এই রান্নায়।

    --------------------------------------------------------------------------------
  • hu | 12.133.50.105 | ১৪ অক্টোবর ২০১৩ ১০:৪২695201
  • প্রথমেই বলে রাখা ভালো আমি কোনদিন মুর্গমুসল্লম খাই নি। আমাদের বাড়িতেও কেউ খায় নি। কাজেই যে রান্নাটা করা হল সেটা যে মুর্গমুসল্লমই এমন কথা দিব্যি করে বলতে পারি না। তবে নাম যাই হোক না কেন খেতে মন্দ নয়। আর ইন্টার্নেটে যে সব রেসিপি ঘেঁটে রান্নাটা করা হল সেখানে রান্নাটাকে মুর্গমুসল্লমই বলা হচ্ছিল।

    ভনিতা ছেড়ে আসল কথায় আসি। লাগবে একটি গোটা মুর্গি। জিরে, গোলমরিচ, লবঙ্গ, দারচিনি আর এলাচ ড্রাই রোস্ট করে কফি গ্রাইন্ডারে গুঁড়ো করে নিতে হবে। রেসিপিতে শাজিরা আর বড় এলাচও ছিল, কিন্তু সেগুলো আমার ভাঁড়ারে ছিলনা বলে দিতে পারলাম না। এবার রসুন, আদা আর কাঁচালঙ্কার একটা পেস্ট বানিয়ে নিলাম। বেশ খানিকটা দই নিয়ে তাতে ঐ গরম মশলা আর রসুন-আদা ইত্যাদির পেস্টটা দিয়ে ফেটিয়ে নিলাম। ও হ্যাঁ, নুন-হলুদ-কাশ্মিরী মির্চ ইত্যাদি তো দিয়েইচি। এবার যেটা রেসিপিতে ছিল না কিন্তু একটু পাকামী মেরে করেই ফেল্লাম তা হল - কিছু পেঁয়াজ ভেজে নিয়ে সেই ভাজা পেঁয়াজ আর দই-এর মিশ্রণ একবার মিক্সিতে ঘুরিয়ে নিলাম। অতঃপর ঐ মশলা মুর্গিতে মাখিয়ে ঘন্টা চারেক বিশ্রাম। যেহেতু গোটা মুর্গি নিয়ে কারবার তাই মুর্গির ভেতরে-বাইরে ভালো করে যেন মশলা মাখানো হয় সেটা খেয়াল রাখতে হবে।

    তারপরের কাজটা ঝামেলাবিহীন। একটা বড় দেখে ফ্ল্যাটবটম পাত্রে এক চামচ ঘিতে দু-চামচ সাদা তেল মিশিয়ে গরম করতে হবে। তারপর মশলা মাখানো মুর্গিটা ওর মধ্যে দিয়ে এপিঠ-ওপিঠ করে অনেকক্ষণ রান্না করতে হবে। যে রেসিপিগুলো দেখেছিলাম তাতে জল দিয়ে সেদ্ধ করতে বলেছিল। তা মুর্গি রান্নায় জল দেওয়া ছোট থেকে ব্লাসফেমি বলেই জানি। অতএব পুরোটাই কম আঁচে এপিঠ-ওপিঠ ঘুরিয়ে ফিরিয়ে রান্ন করা। ঘরে কিছু শ্যালট ছিল। দিয়ে দিলাম। ভালোই হল খেতে।

    শুনেছিলাম মুর্গমুসল্লমে নাকি মুর্গির পেটের ভেতর ডিম দিতে হয়। তা সেটা কিভাবে দিতে হবে বুঝতে না পেরে বাদ দিয়েছি। রেসিপিতেও পাই নি। ডিম দেয় নাকি সত্যি সত্যি?
  • | 24.97.62.44 | ১৪ অক্টোবর ২০১৩ ১১:৫৫695202
  • মুর্গ মুসল্লমে বোধহয় ডিমসেদ্দ, নানারকম বাদাম, ছোট ছোট মাংসের গুল্লি গুল্লি বানিয়ে মুর্গীর পেটের ভেতরে ভরে সেলাই করে দিয়ে তারপর কতক্ষণ ধরে যেন রোস্ট করে।
  • a x | 138.249.1.198 | ১৪ অক্টোবর ২০১৩ ২০:৫৩695203
  • ও হুচে, এখন তো ছবিও দেওয়া যায়। সাথে লটকে দাও। দারুন দেখতে হয়েছিল!
  • | ১৪ অক্টোবর ২০১৩ ২২:২৬695204
  • name: a x mail: country:

    IP Address : 138.249.1.198 (*) Date:14 Oct 2013 -- 10:23 PM

    পাঁঠার কোর্মা বানাও, সহজ।

    সারারাত দৈ, আদা বাটা, নুন আর গরমমশলা গুঁড়ো মাখিয়ে রেখে দাও। পরের দিন পেঁয়াজ কুচি কর। চাইলে কিছু জাফরান দুধে ভেজাও।
    এট্টু ঘি নাও (নো তেল, ওনলি ঘি) কড়াইতে, গরম হলে বেশ খানিক আস্ত গোলমরীচ দাও। একটু চিরবিড় করলে আস্ত গরম মশলা দাও, দু মিনিট মত নেড়ে কুচি পেঁয়াজ গুলো দাও, হাল্কা বাদামী হওয়া অবধি ভাজ। মাখা মাংস ঢেলে দাও, কষতে থাক যতক্ষণ না তেল আলাদা করে দেখতে পাও। এবার দুধ দাও, ঐ জাফরান ভেজানো জল যদি থাকে দাও। হাল্কা করতে চাইলে আধা দুধ আধা জল দাও, কিন্তু কেনই বা হাল্কা করতে চাইবে? এবার সেদ্ধ হওয়া অবধি ঢাকা দাও, জল/দুধ কমে মাখা মাখা হলে নুন পরখ করে নামিয়ে নাও।
  • | ১৪ অক্টোবর ২০১৩ ২২:২৯695206
  • name: a x mail: country:

    IP Address : 138.249.1.202 (*) Date:14 Oct 2013 -- 10:25 PM

    ও দাঁড়াও ভুলে গেছি, পেঁয়াজটা যখন প্রায় হয়ে এসেছে সেই সময় একপাশে ঠেলে ঐ ঘিতে একটু চিনি দাও, চিনিটা ব্রাউন হয়ে গেলে পেঁয়াজগুলো মিশিয়ে দাও আবার। তারপর যেমন লিখেছি।
  • a x | 86.31.217.192 | ৩০ নভেম্বর ২০১৩ ২২:৩৪695207
  • টাইপ করতে ল্যাদ লাগল - ছবি তুলে দিলাম। ইন্দোনেশিয়ান নাসি গোরেং -



  • 4z | 194.148.151.101 | ৩০ নভেম্বর ২০১৩ ২৩:১৫695208
  • অক্ষদি, থেন্ক্যু
  • kk | 81.236.62.176 | ০১ ডিসেম্বর ২০১৩ ০৫:৫১695209
  • অক্ষদা,থ্যাংকিউ। দুটো ভার্শনই বানিয়ে দেখবো।
  • | ০১ ডিসেম্বর ২০১৩ ২২:৩০695210
  • বেগুন-চিড়ে
    --------------------

    বেগুন প্রথমে গোট গোট করে কেটে নিন। এরপরে কড়াইতে তেল গরম করে তাতে কালোজিরে কাঁচালঙ্কা ফোড়ন দিন। আমি কাঁচালঙ্কাদের নির্বীজকরণ করি না। এবারে ফোড়নের গন্ধ বেরোলে বেগুনগুলো দিয়ে আস্তে আস্তে নাড়াচাড়া করে ভাজতে থাকুন। পরিমাণমত নুন আর একচিমটি হলুদ দিন। চাইলে দু চারদানা চিনিও দিতে পারেন, আমি কক্ষণো দিই না। জল লাগার কথা নয়, বেগুন থেকেই জল বেরিয়ে নরম হবে। যখন তেলে বেগুনে মিশে বেশ নরম হয়ে তৈরী হয়ে আসবে, তখন একটা বড় বেগুন হলে, আধমুঠো চিড়ে একটা বাটিতে নিয়ে জল আছড়া করে চিড়েটা নিয়ে কড়াইতে দিয়ে দিন। চিড়ে যেন বেশী ধোবেন না, তাহলে ঘ্যাঁট পাকিয়ে যাবে। জাস্টৈ জল আছড়া। এবারে অক চা চামচ আদাবাটা নিয়ে কড়াইতে দিন। নেড়েচেড়ে গ্যাস অফ করে ঢাকনা দিয়ে ৫ মিনিট রাখুন।
    ব্যাস! বেগুন-চিড়ে তৈরী।

    খুব পাতলা ফিনফিনে চিড়ে হলে ব্যপারটা খুব জুৎ হয় না কারণ কড়াইতে দিলেই চিড়েটা ঘ্যাঁট হওয়ার চেষ্টা করে। কাজেই স্লাইট মোটা চিড়ে নিন।
  • সায়ন | 59.249.109.122 | ০১ ডিসেম্বর ২০১৩ ২২:৩৯695211
  • আরে বাহ্‌ এটা কাল সকালেই বানাচ্ছি, লাঞ্চ নিয়ে যাবো... মোটামুটি পোহার মতই তো। আলুর বদলে বেগুন।
  • | ০১ ডিসেম্বর ২০১৩ ২২:৪৩695212
  • ওরে না, পোহায় চিড়ে বেশী আলু কম। এটা তা না। তেলে নরম হওয়া তুলতুলে বেগুনের গায়ে অল্প দু একটি চিড়ে জড়িয়ে থাকবে। রুটি দিয়ে খাওয়া যায়, কিন্তু এটা নিজে নিজে একটা মিল হয় না।
  • a x | 86.31.217.192 | ০১ ডিসেম্বর ২০১৩ ২২:৪৪695213
  • আম্মো রাঁধব আজকালের মধ্যেই। জিনিসটা কি শুকনো মত হবে না মাখা মাখা, মুড়িঘন্টর মত?
  • | ০১ ডিসেম্বর ২০১৩ ২২:৪৫695214
  • মাখা মাখা।
  • সায়ন | 59.249.109.122 | ০১ ডিসেম্বর ২০১৩ ২২:৪৮695215
  • ওহো আধমুঠি চিঁড়ে লিখেছিলে তো। মাই ব্যাড।
  • sosen | 111.63.169.120 | ০১ ডিসেম্বর ২০১৩ ২২:৫২695217
  • ও। এইটে আমরা করিনা, কিন্তু এই ভাবেই তিল-বেগুন করি।
  • kc | 188.61.96.29 | ০১ ডিসেম্বর ২০১৩ ২৩:৩৭695218
  • আমি অলরেডি এটা রেঁধে ফেলেছি। এখনো খাইনি। রুটি দিয়ে খাব।
  • kc | 188.61.96.29 | ০২ ডিসেম্বর ২০১৩ ০০:৫৪695219
  • রুটি দিয়ে খেলাম। কেমন একটা বুঝিনা টাইপ লাগল। মানে ওই চিঁড়ে টা যে কেন দেওয়া সেটাই বুঝতে পারলাম না। অল্প ঘ্যাঁটও পাকিয়ে গেছিল। আমি আবার পাকামো করে এট্টু ধনিয়াপাত্তা দিয়েছিলাম। খেতে বেশ ভালই। একটু শুধু ওই বুঝিনা ভাব। ....
  • jhiki | 233.255.229.23 | ০২ ডিসেম্বর ২০১৩ ০৭:০২695220
  • একই রান্না চিঁড়ের বদলে মাছের তেল দিয়ে করুন, আর সাদা ভাত দিয়ে মেখে গপ গপ করে খেয়ে নিন।
  • a x | 86.31.217.192 | ২৩ ডিসেম্বর ২০১৩ ১১:২১695221
  • ভাগী, ঐ উপকরণের লিস্টি তো ওপরে আছে। বাকিটা লিখে দিচ্ছি।

    Mix the salt, pepper and garlic to a smooth paste. Rub into the fish, inside and out. Place the fish in a buttered baking dish. Bake in a 375 degree oven for 10 minutes. Meanwhile, combine in a bowl the butter, lemon juice, soy sauce and chilli peppers and mix well. At the end of 10 minutes of baking time, pour one third of the sauce over the fish. Baste and turn the fish several times while baking for an additional 25 minutes. Heat the remaining sauce. Place the fish on a platter and pour the sauce over it. Serve with boiled rice.
  • Bhagidaar | 218.107.71.70 | ২৩ ডিসেম্বর ২০১৩ ১১:৪২695222
  • থেঙ্কু থেঙ্কু!
  • sosen | 24.139.199.11 | ২৩ ডিসেম্বর ২০১৩ ১২:৪৮695223
  • ওই বাজে সোয়া সস টা দিস না, আরেকটা কিনে আনিস।
  • Bhagidaar | 218.107.71.70 | ২৩ ডিসেম্বর ২০১৩ ১২:৫১695224
  • কেন ঐটা দিয়েই তো ভালো ফিস সিক্সটি ফাইভ হয়েছিল!
  • Smritilekha | 125.242.41.54 | ০৯ এপ্রিল ২০১৪ ১৯:৫৭695225
  • কেউ আমায় গুগ্লির ঝাল-এর রেসিপি দাও
  • b | 24.139.196.6 | ১০ এপ্রিল ২০১৪ ২৩:২১695226
  • শোলমূলো যে ভাবে আমাদের বাড়িতে রান্না হয়ঃ
    শোল ছোটো ছোটো টুকরো--যাকে ইংরাজীতে বলে বাইট সাইজ--- করে ভেজে নিন। নুন হলুদ মাখিয়ে।

    জিরেবাটা, আদাবাটা, শুকনো লংকা, আস্ত জিরে দিয়ে মূলো (ছোটো পিস, আবার) রাঁধুন। পেঁয়াজ বাটা অপশনাল। একটু জল বেশি দেবেন। মূলো সেদ্ধ হয়ে গেলে শোলমাছ ছেড়ে দিন। জলটা শুকিয়ে নিন। মূলো একটু গলে যাবে, কিন্তু মাছের ব্যক্তিস্বাতন্ত্র্য বজায় থাকবে পুরো দমে।

    কালোজিরে চালের গরম ভাত।

    (রান্না করবেন পৌষ মাসে, কারণ মাঘ পড়লে মূলা শাল হৈয়া যায় গিয়া। তখন খাওনের মজা নাই)
  • সে | 188.83.87.102 | ১১ এপ্রিল ২০১৪ ২৩:০৭695228
  • গেঁড়ি গুগ্‌লির ঝাল
    -------------------
    গেঁড়ি গুগ্‌লির ঝাল বানানোর আগে, ওগুলো খোল থেকে বের করে পরিষ্কার করে ঠান্ডা জলে ধুয়ে নিতে হবে। অনেকক্ষণ এবং বারবার। অনেক বালি থাকে। গেঁড়ি গুগ্‌লির খোলের ছোটোছোটো কুচিও থেকে যেতে পারে।

    গরম জলে ধোবেন না। গরম জলে ধুলে শক্ত হয়ে যাবে।

    রান্না দুভাবে করা যায়, পেঁয়াজ দিয়ে অথবা পেঁয়াজ ছাড়া।

    পেঁয়াজ দিয়ে করলে পরিমানটা একটু বেশি হবে স্বাদও অন্যরকম।
    ধোবার পরে হাফ কিলো মতন গেঁড়ি গুগ্‌লি থাকলে গোটা দুই পেঁয়াজ যাহোক তাহোক করে কেটে ভালো করে ভেজে নিন। পেঁয়াজ থেকে জল বেরিয়ে গেলে, বেশ শুকনো মতন হয়ে বাদামী রং ধরে গেলে এতে গোটা গোটা গরম মশলা দিয়ে নুন হলুদ দিয়ে গোটা শুকনো লঙ্কা দিয়ে আরো ভাজুন কিছুক্ষণ।
    এবার গোটা শুকনো লঙ্কা গুলো আলাদা করে সরিয়ে রাখুন।
    বাকি ঐ গরম পেঁয়াজ ও মশলা ভাজা সমস্তটুকু মিক্সিতে মিহি করে বেটে নিন। জিনিসটা পেস্ট মতো হয়ে যাবে।
    এবারে ঐ রান্নার পাত্রে অল্প গরম তেলে আদা রসুন বাটা ভাজতে থাকুন ও তাতে ঢেলে দিন ঐ পেস্ট এবং আগে ভেজে তুলে রাখা সেই গোটা গোটা শুকনো লঙ্কাগুলো। জিনিসটা কষতে থাকুন জল দেবার দরকার নেই, খুব বেশি শুকনো হয়ে গেলে অল্প জল দেবেন। এবার ঐ গেঁড়ি গুগ্‌লি গুলো এতে দিন।
    ক্রমাগত নাড়তে হবে মিনিট তিন চার। আঁচ বন্ধ করে দিন ও পাত্রের ঢাকনা বন্ধ করে রেখে দিন আরো মিনিট পাঁচ দশ।

    পেঁয়াজ ছাড়া বানালে, আদা রসুন বাটা ও গরমমশলার গুঁড়ো ভেজে নিন, সঙ্গে শুকনো লঙ্কা ও নুন হলুদ। অল্প জল দেবেন এক চিমটে চিনি।
    জিনিসটা ফুটতে থাকলে ও ঘন হয়ে এলে তাতে দেবেন ধুয়ে রাখা গেঁড়ি গুগ্‌লি।
    ধনে পাতা পছন্দ হলে, ধনে পাতার কুচি দিয়ে আঁচ বন্ধ করে ঢাকনা দিয়ে রেখে দিন মিনিট পাঁচ দশ।

    ভুলেও টম্যাটো দেবেন্না এই রান্নায়।
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:

কুমুদি পুরস্কার   গুরুভারআমার গুরুবন্ধুদের জানান


  • কোনোরকম কর্পোরেট ফান্ডিং ছাড়া সম্পূর্ণরূপে জনতার শ্রম ও অর্থে পরিচালিত এই নন-প্রফিট এবং স্বাধীন উদ্যোগটিকে বাঁচিয়ে রাখতে
    গুরুচণ্ডা৯-র গ্রাহক হোন
    গুরুচণ্ডা৯তে প্রকাশিত লেখাগুলি হোয়াটসঅ্যাপে পেতে চাইলে এখানে ক্লিক করে আমাদের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে যুক্ত হোন। টেলিগ্রাম অ্যাপে পেতে চাইলে এখানে ক্লিক করে আমাদের টেলিগ্রাম চ্যানেলটির গ্রাহক হোন।
    • কি, কেন, ইত্যাদি
    • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
    • আমাদের কথা
    • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
    • বুলবুলভাজা
    • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
    • হরিদাস পালেরা
    • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার খেরোর খাতা, লিখতে থাকুন, বানান নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
    • টইপত্তর
    • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
    • ভাটিয়া৯
    • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
    গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]
    মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত


    পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। মন শক্ত করে প্রতিক্রিয়া দিন