• টইপত্তর  অন্যান্য

  • সর্ষেবাটা মোচাকাটা চিতলের মুইঠ্যা ইত্যাদি ইত্যাদি (২)

    Ishan
    অন্যান্য | ০৬ নভেম্বর ২০০৬ | ৯০০২ বার পঠিত
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • Arijit | 61.95.144.122 | ২৩ নভেম্বর ২০০৯ ১২:৫৩695129
  • ঋক দুপুরে খেতে সময় নেয় দেড় ঘন্টা। তো তারও একটা উপকারিতা আছে। পাছে ঘুমিয়ে পড়ে তাই মা ওইসময় টিভি দেখে - তখন কোনো একটা চ্যানেলে একটা রান্নার প্রোগ্রাম হয়। সেখানে কিছুদিন আগে কমলাভোগের রেসিপি দিয়েছিলো - সেই দেখে ঋকের খুব ইচ্ছে হয় ওটা বানানোর/খাওয়ার। কাল ঋক, ঋকের ঠাকুমা, ঋকের বাবা আর ঋকের মা মিলে বানানো হল।

    ৫০০ গ্রাম ছানা (ফুল ক্রীম দুধ থেকে - কলকাতায় "কাউ মিল্ক' বলে একটি বস্তু পাওয়া যায় - মাদার ডেয়ারী বা আমূলের - সেটা ব্যাভার করা যেতে পারে)
    ১ টেবিল চামচ ময়দা
    ১ কিলো চিনি
    ৫০০ মিলি জল (নর্মাল)
    ৫০০ মিলি ঠাণ্ডা জল
    হাফ কাপ দুধ
    কমলালেবুর এসেন্স
    কমলালেবুর রঙ (এডিবল)

    ছানা (জল ঝরানো) আর ময়দা ভাআআআআআলো করে মাখো যাতে কোথাও একটুও শক্ত গুল্লি না থাকে। তার মধ্যে অল্প রঙ আর এসেন্স দাও। এবার আটানার ডায়ামিটারের গুল্লি বানাও - কোথাও যেন ফাটা না থাকে।

    জল ফোটাও বড় কড়াইয়ে। চিনি নাও। নাড়তে থাকো যাতে চিনি লেগে না যায়। চিনি পুরো গুলে জল ফুটে উঠলে দুধটা ঢেলে দাও। দুধ ফোটার সাথে চিনির সমস্ত ময়লা উঠে আসবে - সেটা ছেঁকে তুলে নাও - কৃস্ট্যাল ক্লিয়ার রস পাবে।

    তার মধ্যে এক এক করে গোল্লাগুলো ছেড়ে দাও। সাড়ে সাত মিনিট ফুটতে দাও - গোল্লাগুলো সাইজে বাড়বে। এর পর ঠিক সাড়ে সাত মিনিট ধরে অল্প অল্প করে ঠাণ্ডা জলটা ঢালতে থাকো। ঢালা শেষ হয়ে গেলে গ্যাস বন্ধ করে দাও। কমলাভোগ তৈয়ার। এবং কোথায় লাগে মিষ্টির দোকান। সিরিয়াসলি।
  • shrabani | 124.30.233.102 | ২৩ নভেম্বর ২০০৯ ১৬:১২695130
  • আমি কোনোদিন এই রসে ফুটিয়ে ছানার মিষ্টি জাতীয় মিষ্টি বানাই নি। তাই দুটো প্রশ্ন আছে।

    ১) আমরা রসে ফেলার জন্য যে রস বানাই তাতে জল আর চিনি একসাথে ঠান্ডা অবস্থাতে গুলে নিয়ে জ্বাল দিয়ে রসের আঠা আনি। ফুটন্ত জলে চিনি দিলে ব্যাপারটা কি রকম হয়?
    ২) পাঁচশ ছানার জন্য কতটা দুধ, আন্দাজ?
  • Arijit | 61.95.144.122 | ২৩ নভেম্বর ২০০৯ ১৬:১৫695131
  • (১) একসাথেও করতে পারো - কিন্তু কনস্ট্যান্ট নাড়তে হবে, নইলে চিনি লেগে যাবে পাত্রের গায়ে।
    (২) এইটে ঠিক সিওর নই। দু লিটার তো লাগবেই।
  • shrabani | 124.30.233.102 | ২৩ নভেম্বর ২০০৯ ১৬:২৯695132
  • আমাদের যে গ্রাম যাকে লোকে বলে দেশের বাড়ী সেখানের কমলাভোগ বহুত বিখ্যাত ছিল। একাধিক ময়রা ফাটাফাটি কমলাভোগ নামাত। বিয়েবাড়ীর মেনুতে মাস্ট ছিল। বাড়ীতে ভিয়েন বসে বানাতে দেখেছি ছোটোবেলায় অনেক। তখন রেসিপী শেখার বয়স ছিলনা, জানতেও চাইনি। তবে মনে হচ্ছে কমলালেবুর খোসা শুকিয়ে বেটে দেওয়া হত, সেটা রঙের জন্য না গন্ধের জন্য কোনো আইডিয়া আছে কারোর?
  • Arijit | 61.95.144.122 | ২৩ নভেম্বর ২০০৯ ১৬:৪৬695133
  • গন্ধের জন্যেই হবে।
  • d | 117.195.41.69 | ২৩ নভেম্বর ২০০৯ ২১:২১695134
  • আচ্ছা এই ফ্রোজেন সসেজগুলোকে খাদ্যযোগ্য করে কেমন করে? ডিপফ্রাই করতে গেলে দেখি বাইরেটা কেমন পোড়ামত হয়ে যায় আর ভেতরটা কাঁচামত থাকে। মাইক্রো বা গ্রীল করলেও কেমন যেন ঠিকঠাক হয় না।
  • d | 117.195.41.69 | ২৩ নভেম্বর ২০০৯ ২১:২৪695135
  • আমান্নেই সেটা জানি। কিন্তু সেটুকু তো তুমিও জানো।

    যাগ্গে মেল চেকিও। একজনের আছে। তাকে বলে দিচ্ছি।
  • d | 117.195.41.69 | ২৩ নভেম্বর ২০০৯ ২১:২৫695136
  • অ্যাল্‌!
  • a x | 143.111.22.23 | ২৩ নভেম্বর ২০০৯ ২১:২৯695137
  • গ্রীল করলে তো ঠিকঠাক হওয়ার কথা। ফ্রাই করলে, কেটে নিতে হবে। আমি অনেকসময় ঐ বাইরের কেসিংটা ছাড়িয়ে নিয়ে (থ' করে নিলে ছাড়ানো সহজ), কিমার মত করেও রান্না করি। আর পাস্তা ইত্যাদিতে দিলে চাকা চাকা করে কেটে। এমনি এমনি খেলে আধখানা ফালি করে।
  • d | 117.195.41.69 | ২৩ নভেম্বর ২০০৯ ২১:৩১695139
  • হুঁ ঐ কেসিংটাই গড়বড় করে। দাঁড়াও দেখবো তো। আসলে প্যাকেটের গায়ে থ' করতে বারণ করা থাকে।
  • a x | 143.111.22.23 | ২৩ নভেম্বর ২০০৯ ২১:৩৫695140
  • থ' করে স্টোর করতে বারণ করে বোধহয়।
  • nyara | 209.131.62.113 | ২৪ নভেম্বর ২০০৯ ০৪:৩৯695141
  • ফ্রাইং প্যানে এক চামচে মতন জল দিয়ে সসেজ দিন, হাই হিটে চাপা দিন। এক্টু বাদেজল শুইয়ে এলে আবার অল্প জল দিয়ে একই প্রসেস রিপিট করুন। প্রচুর কালচে তেল বেরোবে। নিরুৎসাহ হবেন না।
  • nyara | 209.131.62.113 | ২৪ নভেম্বর ২০০৯ ০৪:৪১695142
  • যদি ফুললি কুকড (মানে প্রিকুকড) না হয়, তবে সসেজ নরম হয়ে এলে ভাল করে ভাজুন। সসেজ মাস্ট বি থরোলি কুকড।
  • SS | 128.248.169.43 | ২৪ নভেম্বর ২০০৯ ০৮:৫৩695143
  • খাবারের আলোচনা যখন, এখানে উত্তর দিই...

    dd, সুহা কি সুহাসিনী? আমি সুহাসিনী নই।

    Musakhan প্যালেস্টিনিয়ান ডিশ। প্রথম বানাতে দেখি এক টিভি চ্যানেলে। লিঙ্কটা দিলাম এখানে http://livewellhd.com/story?id=6868689
    দেখেই এতো ভলো লেগেছিল যে ভেবেছিলাম নিজে বানাবো। sumac এখনো কিনিনি তবে এক দোকানের খোঁজ পেয়েছি যেখানে পাওয়া যায়। একটা ওয়েব সাইটে দেখলাম একজন কমেন্ট করেছেন যে sumac এখন দেশেও পাওয়া যায়।

    কলি, 'জাটার' এর নাম কখনো শুনিনি। পরে খুঁজে দেখবো। আচ্ছা, কেমন হয়েছিল Musakhan?
  • r | 125.18.104.1 | ২৪ নভেম্বর ২০০৯ ১৪:৪৭695144
  • i | 124.168.175.89 | ২৪ নভেম্বর ২০০৯ ১৪:৪৮695145
  • ডির ২৩শে নভম্বরের রাত ৯টা ২১শের পোস্টের প্রেক্ষিতে-

    খিদেয় প্রাণ যায়, এক্ষুণি সসেজ ভেজে খাই - এই অবস্থায় সসেজ ডিপ ফ্রাই করতে গেলে -পুড়বেই-ছ্যাঁক তেলে ঝপাস করে ফ্রোজেন সসেজ -পুড়বে না?
    খিদে পেলে, দু গাল চানাচুর মুখে দিয়ে, তেল গরমে বসিয়ে, একই সঙ্গে সন্তর্পণে সসেজও। একই সঙ্গে মাঝারি আঁচে গরম হবে সসেজ আর তেল... দরকারে আঁচ কমাতে হবে... উল্টে পাল্টে দিতে হবে, একটু কেটে কেটে দিতে পারলে আরো ভালো-মোট কথা সামনে দাঁড়িয়ে থেকে সময় নিয়ে নেড়ে চেড়ে সসেজ ভাজতে হবে। তেলে সসেজ দিয়ে, গুরুতে দুইখান পোস্ট করে এসে খাব ভাবলেই হয়েছে।
  • . | 125.18.104.1 | ২৪ নভেম্বর ২০০৯ ১৪:৫৯695146
  • dd | 122.167.22.170 | ২৪ নভেম্বর ২০০৯ ১৫:১৯695147
  • হ্যাঁ। SS রে সুহাসিনি ভাবছিলাম। ক্যানো ভাবছিলাম, সেটা আর মনে নাই।
  • vikram | 86.42.3.139 | ২৪ নভেম্বর ২০০৯ ১৯:৫৭695148
  • ঐ রকম করে যে সসেজ ভেজে খায় সে সসেজও চেনে না তেলও চেনে না :-(, হুঁ:!
  • d | 117.195.35.252 | ২৪ নভেম্বর ২০০৯ ২০:১৩695150
  • কিরকম করে? ন্যাড়াদার মত? না ইন্দ্রাণীর মত।
  • kk | 76.114.64.110 | ২৪ নভেম্বর ২০০৯ ২০:৩৮695151
  • SS, দিব্যি হয়েছিলো। তবে নীচের ব্রেড বেডটা একটু স্টেল পাঁউরুটি দিয়ে করবেন। আমি তাজা দিয়েছিলাম বলে একটু ক্যাতকেতে টাইপের হয়ে গেছিলো। 'জাটার' এর বানান zaatar, নেটে কিনতে পাবেন।
  • a | 115.117.150.41 | ২৪ নভেম্বর ২০০৯ ২০:৫১695152
  • . | 159.53.78.142 | ২৫ নভেম্বর ২০০৯ ০০:১২695153
  • চিঁহিঁহিঁহিঁ
  • Jhiki | 202.79.203.43 | ২৫ নভেম্বর ২০০৯ ১১:৫৯695154
  • সসেজ এর কেসিং ছারিয়ে চাকা চাকা করে কেটে নিন। প্যান এ অল্প তেল দিয়ে সসেজ এর টুকরো গুলো দিয়ে দিন, নুন অল্পো হলুদ দিয়ে আলু ভাজার মতো ভজে্‌ত থাকুন, সসেজ চাকা গুলোর দু পিথ ই জেন ভাজা হই, এর মধ্যে চাইলে একটু লন্‌কা গু'ণে্‌ড়া ও দিতে পারেন। ভাত আর মুসুর/মুগ দাল এর সাথে খেতে বেশ লাগ্বে।

  • jhiki | 202.79.203.43 | ২৫ নভেম্বর ২০০৯ ১২:০০695155
  • সরি বাংলা টা দেখাঅ যচ্চে না।
  • sb | 92.225.73.134 | ২৫ নভেম্বর ২০০৯ ১৪:১৭695156
  • অ দমদি, ফ্রোজেন সসেজকে ফুটন্ত গরম জল একটু ঠাণ্ডা করে তাতে চুবিয়ে রেখে দিতে হয় মিনিট সাত আটেক। ঢাকা দিয়ে রাখবে। তাপ্পরেতে এমনি খাও কি গা টি মুছে নিয়ে ভাজো কি গ্রীল কর (বেস্ট) অসুবিস্তা হবে না।
  • P | 163.244.63.125 | ২৫ নভেম্বর ২০০৯ ১৪:৫০695157
  • কেরালা (কট্টেয়েম টু বি স্পেসিফিক) ইশ্‌টাইল বীফ ফ্রাই

    এই রান্না এবং যে কোনো মালায়ালী মেস টাইপস মাংসের প্রিপারেশানে অথেন্টিক কেরালা-কেরালা গন্ধ আনতে রান্নয় "ঘরা মশালা"(??) দিয়ে দেকচি এক্কেরে আমার বন্ধু এলিজাবেথের আম্মাচির হাতের রান্নার স্বাদ পাচ্চি এত্ত বছর পর।

    ঘরা মশলা তে লাগবে-

    ২ চামচ মৌরী-১/২ চামচ গোলমরিচ-১/২ চামচ এলাচ- ১/২ চামচ লবঙ্গ-১ ইঞ্চি দারচিনির টুকরো-কটি তেজপাতা এই অনুপাতে মিক্সিতে গুঁড়িয়ে নাও। পুরোটা এ রান্নায় লাগবে না। মোটামুটি এক কিলো মাংসর জন্যে দু-চামচ এই গুঁড়ো মশলা কাফি।

    বাকী মালপত্র যা লাগবে-

    কেজি খানেক বীফ- ছোটো কিউবের মতন টুকরো করা
    কারি পাতা - দু/তিন ডাল
    পেঁয়াজ কুচি
    আদা-রসুন বাটা/কুচি
    নারকেলের ছোটো কুচি(আমি ফ্রোজেন নারকেল কোরা দিইচিলুম)
    কয়েকদানা সর্ষে
    শুকনো লংকা
    কোয়ার্টার পাতি লেবু

    প্রথমেই মাংসতে দেড়-পৌনে দুচামচ ঘরা মশলা-আদ্দেক পেঁয়াজ কুচি-আদা/রসুন কুচির আদ্দেক-নুন দিয়ে ঘন্টা খানেক ম্যারিনেট করে প্রেশার কুকারে সেদ্দ করে নাও।
    কুকার খুলে যদি দেখো জল আছে, তাহোলে আঁচ বাড়িয়ে জল শুকিয়ে নাও ***।

    এরপর কড়াইতে তেল গরম করে সর্ষে-কারিপাতা-শুকনো লংকা-মৌরী ফোড়ন দিয়ে বাকী পেঁয়াজকুচি ভাজতে থাকো। পেঁয়াজ ভাজা ভাজা হলে নারকেল টুকরো দাও আর বাদামী হওয়া পজ্জন্ত ভাজতে থাকো। এরপর সেদ্দ মাংস অ্যাড করে আঁচ কমিয়ে নাড়তে থাকো। মাংস একদম শুকনো-শুকনো হবে আর রং হবে প্রায় গাঢ় বাদামী/কালো। নামাবার আগে লেবুর রস আর খানিক গোলমরিচ গুঁড়ো ছড়িয়ে খাও মোরুকারি আর লাল-চালের ভাত দে।

    *** গত হপ্তান্তে পরের ব্যাটার সাথে ঝাগড়া কত্তে কত্তে রান্নাটাতে হাল্কা মিসম্যানেজমেন্ট হয়ে গেছিল। গেস্টরা যখন এসে পড়ল তখনো আমার সেদ্দ গরুর টুকরোরা এক প্রেশারকুকার জলে নাপানাপি কচ্চে দেখে আমি পাতি জলটা একটা পাত্রে গড়িয়ে রেখে দিইচিলুম। পরের দিন লাঞ্চের আগে গোটা চার সেদ্দ ডিম নুন-হলুদ দে ভেজে তার মধ্যে ফেলে কেরালা-ইশ্‌টাইল মোট্টাকারি বলে পরিবেশন করে দেখলুম হেব্বি হিট ! মরণকালে বুদ্দি বাড়েটা যে একটা পজিটিভ স্টেটমেন্ট সেটা গত উইকেন্ডেই বুজলুম !

  • d | 117.195.40.31 | ২৫ নভেম্বর ২০০৯ ২০:১২695158
  • কাল ন্যাড়াদার পদ্ধতি প্রয়োগ করলাম। মন্দ হয় নি। তবে খুব একটা জুৎও হয় নি। আজ পিপিরটা করে দেখব। শুক্কুরশনি নাগাদ ঝিকিরটা।

    সব্বাইরে ধইন্যাপাতা।
  • vikram | 86.42.3.139 | ২৬ নভেম্বর ২০০৯ ০৩:৪৬695159
  • ডি: P উক্ত বীফ ফ্রাই খেয়ে মাথায় গণ্ডগোল দেখা দিতে পারে, অদ্ভুত ল্যাদ শরীরে নেমে আসে, মুখের রাশ খুলে যায়, আরো কত কি। যাকে বলে অনর্গল ঘৃতকুমারী।
  • SB | 114.31.249.105 | ২৬ নভেম্বর ২০০৯ ১৫:২১695161
  • বড়লোকরা এত বাজে খাবার খায় জানতাম না, নিজের চোখে দেখুন:

    To begin with, the guests were served ‘Potato and Eggplant Salad, White House Arugula With Onion Seed Vinaigrette´, followed by ‘Red Lentil Soup with Fresh Cheese’.

    Then the guests were treated to ‘Roasted Potato Dumplings With Tomato Chutney Chick Peas and Okra’, ‘Green Curry Prawns Caramelized Salsify with Smoked Collard Greens’ and ‘Coconut Aged Basmati’.

    ‘Pumpkin Pie Tart Pear Tatin Whipped Cream and Caramel Sauce’ was on their desert; and finally they were served ‘Petits Fours and Coffee Cashew Brittle Pecan Pralines Passion Fruit and Vanilla Gelees Chocolate-Dipped Fruit’.


    এর থেকে আমাগো হোস্টেলে অনেক ভাল খাবার দাবার থাকতো : half fried brassica oleracea botrytis leaves,
    three tiered cold lentil soup, with yellowish tinge in the tier zero,
    4 tiered curry with very thinly cut labeo rohita piece (thinly cut is defined as translucency),
    and yellow(ish) rice

  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:

কুমুদি পুরস্কার   গুরুভারআমার গুরুবন্ধুদের জানান


  • কোনোরকম কর্পোরেট ফান্ডিং ছাড়া সম্পূর্ণরূপে জনতার শ্রম ও অর্থে পরিচালিত এই নন-প্রফিট এবং স্বাধীন উদ্যোগটিকে বাঁচিয়ে রাখতে
    গুরুচণ্ডা৯-র গ্রাহক হোন
    গুরুচণ্ডা৯তে প্রকাশিত লেখাগুলি হোয়াটসঅ্যাপে পেতে চাইলে এখানে ক্লিক করে আমাদের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে যুক্ত হোন। টেলিগ্রাম অ্যাপে পেতে চাইলে এখানে ক্লিক করে আমাদের টেলিগ্রাম চ্যানেলটির গ্রাহক হোন।
    • কি, কেন, ইত্যাদি
    • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
    • আমাদের কথা
    • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
    • বুলবুলভাজা
    • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
    • হরিদাস পালেরা
    • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার খেরোর খাতা, লিখতে থাকুন, বানান নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
    • টইপত্তর
    • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
    • ভাটিয়া৯
    • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
    গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]
    মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত


    পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। না ঘাবড়ে প্রতিক্রিয়া দিন