• টইপত্তর  অন্যান্য

  • সর্ষেবাটা মোচাকাটা চিতলের মুইঠ্যা ইত্যাদি ইত্যাদি (২)

    Ishan
    অন্যান্য | ০৬ নভেম্বর ২০০৬ | ৮৯৯৭ বার পঠিত
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • Tim | 71.62.2.93 | ০১ আগস্ট ২০০৯ ০১:০৯694962
  • ডিডিদা,
    মামীর সেই হেলাফেলা চিকেন? দই আর রসুন দিয়ে অল্প আঁচে কত্তে হয়। অক্ষ'রটাও ঐরকমই অনেকটা।

    আজ্জোদা, কলিদি, অনেক থ্যাংকু।
    তেলাপিয়া ভালো করে ভাজতে গেলেই ভেঙ্গে যায় কেন? রুইমাছ তো ভালোই ভাজা যায়, কিছু একটা টেকনিকাল অসুবিধে হচ্ছে কিনা কেজানে। আমি আসলে ঐখানেই আটকে যাচ্ছি। একটা বেসনের কোটিং করে এক্সপেরিমেন্ট করবো নাকি? :)
  • kali | 160.36.241.208 | ০১ আগস্ট ২০০৯ ০১:১৬694963
  • হ্যাঁ, এইবার বলি তেলাপিয়ার রান্নাটা।

    একটা শুকনো ফ্রাইপ্যান আগুনে বসাও। এর মধ্যে গোটা ধনে, গোটা জিরে, গোটা গোলমরিচ আর পোস্ত দিয়ে টোস্ট করে নাও। চারটে তেলাপিয়া ফিলের জন্য আধ মুঠো করে জিরে ধরে, গোটা দশেক গোলমরিচ আর এক মুঠো পোস্ত লাগবে। বাদামী রং ধরলে নামিয়ে দিব্যি করে গুঁড়ো করে ফেলো। এবারে এটার মধ্যে নুন আর লেবুর রস দিয়ে একটা পেস্ট বানাও। তেলাপিয়ার ফিলেতে মাখিয়ে রাখো ৪৫ মিনিট থেকে এক ঘন্টা।
    হয়েছে? এবারে মাছগুলোর দু পিঠে সামান্য তেল বুলিয়ে খুব বেশি আঁচে ঐ ফ্রাইপ্যানেই সেঁকে নাও। বা গ্রীল প্যান থাকলে তাতেও করতে পারো। একেক পিঠ ২-৩ মিনিট করলেই হবে।
    এবারে গ্রেভী বানাতে হবে। ৩-৪টে সেলেরী স্টক পাতা সমেত টুকরো করো। মিক্সিতে দিয়ে এক চামচ জল দিয়ে বেশ পিউরে করে নাও। এবার উনুনে স্যসপ্যান চাপিয়ে খুব সামান্য তেল দাও, ১ চা-চামচই যথেষ্ট। আমি সরষের তেল ইউজ করিনা, অলিভ বা সানফ্লাওয়ার তেল। তেল গরম হলে পেঁয়াজকুচি দিয়ে ভালো, হাল্কা বাদামী রং ধরলে ঐ সেলেরীর পিউরেটা দাও, খানিক নেড়ে চেড়ে সামান্য নুন দাও। মাছে নুন মাখানো আছে কাজেই নুনটা আন্দাজ করে দিও, বেশি না হয়ে যায়। আগে যে মশলার পেস্ট বানিয়েছিলে সেই খানিক বাকি থাকলে দিয়ে দাও। এবার খানিকটা,এই পৌনে এক কাপ মতো গরম জল দাও। জল ফুটতে শুরু হলে সেঁকে রাখা মাছ গুলো দিয়ে দাও, ঢাকা দিয়ে মাঝারী আঁচে রাখো মিনিট দশেক। নামিয়ে ভাত দিয়ে খাও।

    এই রান্নাটা স্বাস্থ্য-সচেতন লোকদের পছন্দ হবার কথা। কেননা মাছ ভাজতে গুচ্ছের তেল লাগেনা, আর গ্রেভী বানানোর জন্যেও পেঁয়াজবাটা, বা দই বা ক্রীম ইত্যাদি দুষ্পাচ্য জিনিষ লাগেনা। একে তুমি গ্রীল্‌ড তিলাপিয়া উইথ সেলেরী স্যস জাতীয় কোন গ্ল্যামারাস নামে ডাকতে পারো, তবে স্বাদটি খুবই ভারতীয় হয়।
  • kali | 160.36.241.208 | ০১ আগস্ট ২০০৯ ০১:২০694964
  • ও, তেলাপিয়া ভাজার আগে না একটা পেপার টাওয়েল দিয়ে একটু মুছে নেবে। গায়ে জল লেগে থাকলে মাছ ভাজা হবার আগেই খানিকটা স্টীমড্‌ হয়ে যায়, তাই ভেঙে যায়। তেলটা বেশ ভালো মত গরম করবে। আর যখন দেখবে কিনারা গুলো বাদামী হয়েছে তখনই ওল্টাবে, তার আগে নয়। তাহলে ভাঙবে না। একটা চ্যাপ্টা হাতা মাছের তলায় ঢুকিয়ে না অন্য পিঠটা একটা আঙুল দিয়ে চেপে টপ করে ওল্টাতে হয়। করে দেখো, ভাঙবে না।
  • Tim | 71.62.2.93 | ০১ আগস্ট ২০০৯ ০১:২৬694965
  • জলটাই ট্রিক। আমি কখনও পেপার টাওয়েল দিয়ে মুছে নিই না, তাই ভেঙ্গে যায় মনে হয়। আবারো থ্যাংকু। :)
  • dd | 122.167.35.108 | ০১ আগস্ট ২০০৯ ১০:০৮694966
  • পাঁটার আরো সিম্বল কারি

    দেখুন ,পেস্ট তো করতেই হবে। তো, ওটা সেরে নিন। একটাই পেস্ট।

    টমাটমের পিউরী,আদা,রসুন,ধনে(কম)জিরে(বেশী),

    পোস্তো,সর্ষে,নার্কোল বাটা,কাঠবাদাম মানে অ্যামন্ড,পিস্তা,লবংগ, দাচ্চিনি, বড় এলাচ,ছোটো এলাচ,

    হলুদ,লাল লংকা,গোল মরিচ।

    আমি আবার এই পোস্তো থেকে গরম মশলা গুলি তাওয়াতে এট্টু সেঁকে নি। তাপ্পর সব গুলিকে একসাথে অল্প ভিনিগার দিয়ে বেটে একাক্কার করে দি। এক মহা পেস্ট।

    এবার ঘী/তেলে মাংসটা ভেজে নিন।
    সরিয়ে নিন।
    প্যাঁজ ভাজুন। তারপর পেস্টটা দিন। জল ছিটিয়ে ভাজুন। মাংস দিন। জল দিন (আমি অবশ্য বাজারের বীফ স্টক দি)। ভালো করে সেদ্দ করুন।

    সখ চাগলে নামানোর পরে নেবু চিপে দিতে পারেন। আমি কক্ষুনো দি না।

    খান।
  • shyamal | 24.117.233.39 | ০৩ আগস্ট ২০০৯ ০০:০৭694967
  • মাইক্রো ওয়েভ , স্টোভ টপ(ইলেকট্রিক) বা আভেনে বেগুন পোড়ানোর উপায় কি? মাইক্রো ওয়েভে করে দেখলাম সেদ্ধ মত হল। কি করলে সেই কয়লার উনুনে পোড়ানোর মত ছালটা আলগা হয়ে যাবে?
    এনি পয়েন্টার্স?
  • Arpan | 122.252.231.12 | ০৩ আগস্ট ২০০৯ ০০:১৮694968
  • ইলেকট্রিক স্টোভ টপে করা তো সোজা। ধরে বসিয়ে দিন। একদিকটা হয়ে এলে ঘুরিয়ে দিন।
  • a x | 75.53.196.106 | ০৩ আগস্ট ২০০৯ ০৩:২৮694969
  • ফয়েলে মুড়ে বেগুন ওভেনে বেক করলে ছাল আলগা হবে। আমি ভর্তা ঐ ভাবেই বানাই। কিন্তু বেগুন পোড়ার স্বাদ অবশ্যই হবেনা।
  • Tim | 71.62.2.93 | ০৩ আগস্ট ২০০৯ ০৫:০৮694970
  • আজ কাঁচামুগের ডাল কল্লাম আর তেলাপিয়া সর্ষে দিয়ে।
    সাইটেশান:
    ১। অক্ষ (ডালের ফোড়ন)
    ২। কলিদি (তেলাপিয়া ভাজার টেকনিক)
    ৩। আজ্জোদা (সর্ষে রেসিপি)।

    দুটোই গোলা হয়েছে। থ্যাংকু :)
  • Abhyu | 12.50.88.2 | ০৩ আগস্ট ২০০৯ ০৯:৪৪694973
  • চাইনীজ এগপ্লান্ট কিনুন
    তেল মাখিয়ে ইলেকট্রিক ওভেনে শুইয়ে দিন। মাঝে মাঝে ঘুরিয়ে ঘুরিয়ে পুড়িয়ে নিন।

    আমি পেঁয়াজ আদা রসুন টম্যাটো ধনেপাতা দিয়ে ভর্তা বানাই। ভালো হয় খেতে।
  • M | 59.93.176.233 | ০৩ আগস্ট ২০০৯ ১২:৫৫694974
  • আমার মতো ল্যাদাড়ুসদের জন্যি, কলির ঐ এনিথিং অ্যাট হোম স্যুপের জন্য , টোষ্ট করতে ইচ্ছা না করলে, বৃটানিয়া টোষ্ট বিস্কুট (বিষ্কিট হলে হবে নিকো)দিয়ে খাওয়া যেতে পারে।

    আমার এই দুর্দান্ত আবিস্কারের জন্য আমায় সবাই বাহ! বলবে কিন্তু।।
  • M | 59.93.174.127 | ০৫ আগস্ট ২০০৯ ১০:৫৮694975
  • একটা চটপটা :
    ভুট্টা কিনে আনুন, কাঁচা, পোড়ানো নয়।
    সেটাকে গামলা না ডেচকি কি যেন বলে তাতে জল ঢেলে উনুনে চাপিয়ে সিদ্ধ করে ন্যান।
    ঠান্ডা করে দানা ছাড়িয়ে রাখুন।
    এবার পেঁয়াজ(হাতের কাছে নাক আর চোখ মোছার রুমাল রাখুন), টম্যাটো, কাঁচা লঙ্কা, ধনেপাতা কুঁচো করুন আর লেবু কেটে রাখুন।
    একটা বোলে সব ঢেলে, লেবু চিপে নুন মাখিয়ে, যতজন আছেন ততগুলো চামচ(অন্যের চামচ খুব পচা জিনিস তাই)নিয়ে আড্ডা সহযোগে খান।
    শেষ।।
  • a x | 143.111.22.23 | ০৫ আগস্ট ২০০৯ ২০:০৯694976
  • চামচে মার্কার দিয়ে নিজের নাম লিখে নিতে ভুলবেন না যেন। কিম্বা আপনার ভেতরের শিল্পীর ডাকে সাড়া দিয়ে প্রতিটি চামচের পেছনে একটি করে রঙ্গীন সুতো। আরও চাইলে সুতোটি বিনুনী পাকানো, শেষে একটি ঝুমকো কিম্বা আপনি শান্তিনিকেতন ফেরৎ হলে ঝুমকোর বদলে একটি কড়িও দিতে পারেন।
  • M | 59.93.161.116 | ০৫ আগস্ট ২০০৯ ২১:২১694977
  • :P
  • shyamal | 24.117.233.39 | ১৮ আগস্ট ২০০৯ ০৭:১৪694978
  • অক্ষকে ধন্যবাদ বেগুন পোড়ানোর রেসিপির জন্য। আমাদের ফার্মার্স মার্কেটে চাষীরা এত বেগুন আনছে যে জলের দাম। কাজেই বেগুনের রেসিপি ভাবতে হচ্ছে।

    পুরোনো আর নতুন রেসিপি দিচ্ছি।

    বেগুন ভর্তা (বাবাঘানুশও প্রায় একই রকম) : বেগুন পুড়িয়ে নিন। আমার মত হাল হলে অ্যালুমিনামের ফয়েলে র‌্যাপ করে ওভেনে ঢুকিয়ে দিন ৪৫০ ডিগ্রি ফারেনহাইটে। র‌্যাপ করার আগে বেগুনের তিন চার জায়গায় চিরে দেবেন। ঘন্টা খানেক কি আরেকটু বেশী পরে দেখবেন বেগুন প্রায় পারফেক্ট পুড়েছে। ছাল আলগা হয়েছে।
    বেগুনের ছাল ছাড়িয়ে ফোর্ক বা হাতা দিয়ে ম্যাশ করুন যাতে ডেলা ডেলা না থাকে।
    যখন বেগুন পুড়ছে তখন প্যানে ছোট ছোট করে কাটা পেঁয়াজকুচি ভাজুন যতক্ষন না সামান্য লালচে হয়। এবারে কাঁচালংকা কুচি, টমেটোর টুকরো দিয়ে আরেকটু ভাজুন। তারপর একটু হলুদ, নুন, লংকাগুঁড়ো দিয়ে আরেকটু সাঁতলান। এবারে ম্যাশড বেগুনটা এর মধ্যে দিয়ে দিন। তিনচার মিনিট নাড়াচাড়া করে অল্প এলাচ, দারচিনির গুঁড়ো দিয়ে নামিয়ে নিন।

    ডিম-বেগুন : বেগুন ভর্তাটা হয়ে গেলে তার মধ্যে একটা বা দুটো ডিম (বেগুনের পরিমাণ অনুযায়ী) দিয়ে নাড়াচাড়া করুন। ডিম মিশে যাবে। এবারে বেশ অনেকটা এলাচ, দারচিনির গুঁড়ো দিয়ে নেড়ে চেড়ে নামিয়ে নিন।

    নিরামিশাষীরা ডিমের বদলে ছানা দিতে পারেন।
  • debu | 72.130.151.116 | ১৮ আগস্ট ২০০৯ ০৮:০০694979
  • ওভেনে নান বানানোর জন্য ট্রাই মারলাম কিন্তু না কোথায় যেনো ভুল হোচ্ছে?
    গুরু গান প্লিস হেলপ করুন
    ৫০ ডলারের বাজি হেরে যাবো মনে হোচ্ছে
    ময়্‌দা+ ইস্ট + দৈ +অল্পো তেল দিয়ে মেখে ৫-৬ ঘন্টা ,রেখে ওভেনে ফএয়্‌ল। দিয়ে ৪০০ ডিগ্রী।

    বেশ শক্তো হচ্ছে
    কি কোরে নরম নান বানাবো?
  • a x | 76.247.245.178 | ১৮ আগস্ট ২০০৯ ১০:২২694980
  • অ দেবু, ঐ অত্‌গুলান জিনিসের সাথে জল দ্যান নাই আর?
  • a x | 76.247.245.178 | ১৮ আগস্ট ২০০৯ ১০:৩১694981
  • শ্যামলবাবুর দুই নম্বর বেগুনের ঘন্ট আমি এইভাবে করি - ঐ ওভেনে বেক করে, ম্যাশ করে রাখো বেগুন। কড়াইতে তেল দাও, তেল গরম হলে গরম মশলা - এলাচ আর দারচিনি দাও। অনেক কুচো পেঁয়াজ দাও। প্রায় হাল্কা বাদামী হলে এর মধ্যে ঐ ম্যাশ্‌ড বেগুন দাও।
    এটাতে কিমা, ভাঙ্গা-মাছ, ডিম সব দেওয়া যায়। কিমা বা মাছ দিলে বেগুন দেবার আগে ঐ পেঁয়াজের সাথে কিমা/মাছ ভাজুন, তারপর বেগুন দিয়ে নাড়তে থাকুন যতক্ষণ না জল টেনে প্রায় ভাজা হয়ে যায়। ডিম দিলে এই স্টেজে বেগুন একটু ঠেলে ধারে নিয়ে, মাঝে ডিম ফেটিয়ে দিয়ে, নেড়ে বেগুনের সাথে মিশিয়ে দিন। এরপর আরো খানিক দারচিনি গুঁড়ো দিয়ে নামিয়ে নিন। রুটি দিয়ে খেতে খুবই ভালো।
  • a x | 76.247.245.178 | ১৮ আগস্ট ২০০৯ ১০:৩২694982
  • ও পেঁয়াজ ভাজার সময় স্লাইট চিনি দিই।
  • Tirthang | 128.103.186.202 | ২৫ আগস্ট ২০০৯ ০৯:৩৫694984
  • ডিডিদার দেওয়া রেসিপি অনুসরণ করে পাঁটার ২ নং সিম্প্‌ল কারি বানালাম। বাড়ীতে নারকেল ছিলনা বলে ওটা বাদ পড়ে গেছে; দময়ন্তীর পদাঙ্ক অনুসরণ করে নারকেলের (পড়ুন ক্যাপসিকাম) যায়গায় ফ্রোজেন কচুর লতি বা কাঁচকলা (পড়ুন কুমড়ো) সাহস করে দিয়ে উঠতে পারিনি :-(। কিন্তু নারকেল ছাড়াই এই কারির সোয়াদ জাস্ট অভুতপূর্ব, অনির্বচনীয়, খুনখারাপি, মারকাটারি, কাঁপাকাঁপি, কেলেঙ্কারিয়াস রকমের ভালো। অক্ষর দেওয়া চাঁপের রেসিপি ইতিমধ্যেই নোবেল, অস্কার আর পদ্মবিভূষণের জন্য নমিনেটেড; তাই ডিডিদার এই রেসিপিকে ম্যাগসেসায়, দাদাসাহেব ফালকে, অর্জুন, ভারতরত্ন, গ্র্যামী, মোহনবাগানরত্ন এবং ফিল্মফেয়ার লাইফটাইম অ্যাচিভমেন্ট পুরস্কারে ভূষিত করার আবেদন জানাচ্ছি।
  • Arpan | 65.194.243.232 | ২৫ আগস্ট ২০০৯ ১০:১৪694985
  • তাই? তাই? বানিয়ে ফেলতে হবে। ভেবেছিলাম অক্ষদার চাঁপ আরেকদিন বানাবো। সেইটা নাহয় এক হপ্তা পরেই হবে।
  • Arijit | 61.95.144.123 | ২৫ আগস্ট ২০০৯ ১০:১৭694986
  • ধুৎ - আমার রান্না নিয়ে এক্সপেরিমেন্টের সুযোগ আর নাই:-(
  • d | 117.195.32.148 | ২৮ আগস্ট ২০০৯ ২২:৩৭694987
  • সাহস করে বলেই ফেলি আমি তীত্থর জায়গায় থাকলে অল্প করে একটু নারকোল তেল দিয়ে দিতাম।

  • dd | 122.167.46.254 | ২৮ আগস্ট ২০০৯ ২২:৫৪694988
  • নীরদ সি চৌধুরী। অসম্ভব পন্ডিত। মানে আমাদের ঈশেন,রমগম, অগোর থেকেও বেশী ল্যাখাপড়া। ভাবুন। ত্যানার বউ অমিয়া চৌধুরী। তাঁয়ের ল্যাখা বই traditional indian cooking
    সেডার থেকে কোট করি? কি? করি?
    Mutton do peezaa.... this dish is a kind of korma in which almost as much onion as meat is used
    এর পরেও তক্কো? অর্বাচীন।
    রিসিপিটা ল্যাখেন। আমি অনেক বার করেছি। জম্পেশ হয়।

    . প্যাঁজ কুচোন। য্যামন কইলাম। এক কে জি মাংস তো এক কেজি প্যাঁজ।
    . মাটনেরে ম্যারিনেড করেন দই আর আদ কেজি প্যাঁজ দিয়ে।
    . ঘি। তাতে দিন বাকী আদ কেজি প্যাঁজ। ভাজুন। কম আঁচে।
    . ওতে আরেট্টু ঘি দিন। দিন না। তাতে দ্যান ছোটো এলাচ আর লবং। আর দেখুন আমি হলে তো গোল মরিচ দিবোই। তো আপ্নেও দ্যান।
    . হ্যাঁ, এবারে ঢালুন ম্যারিনেটেড মটন। যতো কম আঁচে বেশীক্ষন কসাবেন ততোই মজা।
    . হোলো? এবারে দিন আদা, লংকা,লুন আর চিনি।

    এইবারেই মুশকিল।
    মানে খুব কম আঁচে, শুকিয়ে নিতে হবে। মানে একেবারে খটমটে পোড়া পোড়া শুকনো নয়। এট্টু বুঝিনা বুঝিনা টাইপের ভেজা ভেজা শুখানো। এরপর গরম জল দিয়ে সেদ্দ করুন। হয়ে গ্যালো মটন দো পিঁয়াজা।

    উত্তাল হয়।
  • Jay | 90.208.202.122 | ২৯ আগস্ট ২০০৯ ০৫:২৪694989
  • কেউ ফান্ডা দিন- কি ভাবে দই বড়ার মাঝে ফুটো করব। দিন না। ছিদ্রান্বেষী।
  • Tim | 71.62.121.158 | ২৯ আগস্ট ২০০৯ ১২:৩০694991
  • অবশেষে ডিডিদা একটা পেস্টহীন রেসিপি দিয়েছেন। :)
  • Jay | 90.208.202.122 | ২৯ আগস্ট ২০০৯ ১৩:১০694992
  • হাই (হায়) পাই! আপনে আসল ফান্ডাটা ডিসক্লোস কল্লেন্না! আপনের ঐ যন্ত(না) দিয়ে ফুটো করতেই যদি হয় তবে আরো এট্টু ফান্ডা দ্যান- কেমং কোয়ে অমন ওয়েফার থিন দইবড়া বানাব? নাকি আমি ঠিকমতো বোঝাতে পারিনি। ম্যায়নে দহিবড়া বানায়া থা গিট্‌সসে, মন্দ হয় নাই। কিন্তু ঐ ডিটেল্‌স- এক ব্যাগল মার্কা পাই ডায়াগ্রাম হয় না- ঠিক তেমন দহিবড়া দিল মাংতা। আপনের পাঞ্চ ঠিক কাম করে, আমি নিশ্চিত, আপনের বড়ায়। পেটেন্টের ঝামেলা আছে কি?
  • Amreeta | 99.183.185.250 | ২৯ আগস্ট ২০০৯ ২০:২১694993
  • কিন্তু কথাটা হল গিয়ে দই বড়া তে তো মাঝখানে ফুটো থাকার কথা নয়। না, বড়া পাও তেও থাকেনা। হ্যাঁ, মেডু বড়া'র (medu vada) মাঝে দিব্যি ডোনাটের মতন ফুটো থাকে।
  • kali | 76.114.64.110 | ২৯ আগস্ট ২০০৯ ২৩:৫১694995
  • ঐরকম শেপের বড়া করতে হলে ডো টা একটু বেশি আঁট করে বানান। তারপর হাত দিয়ে রোল করে একটু লম্বা মত করে নিয়ে সেটা ঘুরিয়ে দুমাথা জুড়ে রিং বানান। ভাজলেই ওমনি বেগেল বা ডোনাটের মত দেখতে হয়ে যাবে। তবে ঐ জল আর মিক্সের রেশিওটা ঠিক করা একটু ঝামেলার ব্যাপার।
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:

কুমুদি পুরস্কার   গুরুভারআমার গুরুবন্ধুদের জানান


  • কোনোরকম কর্পোরেট ফান্ডিং ছাড়া সম্পূর্ণরূপে জনতার শ্রম ও অর্থে পরিচালিত এই নন-প্রফিট এবং স্বাধীন উদ্যোগটিকে বাঁচিয়ে রাখতে
    গুরুচণ্ডা৯-র গ্রাহক হোন
    গুরুচণ্ডা৯তে প্রকাশিত লেখাগুলি হোয়াটসঅ্যাপে পেতে চাইলে এখানে ক্লিক করে আমাদের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে যুক্ত হোন। টেলিগ্রাম অ্যাপে পেতে চাইলে এখানে ক্লিক করে আমাদের টেলিগ্রাম চ্যানেলটির গ্রাহক হোন।
    • কি, কেন, ইত্যাদি
    • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
    • আমাদের কথা
    • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
    • বুলবুলভাজা
    • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
    • হরিদাস পালেরা
    • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার খেরোর খাতা, লিখতে থাকুন, বানান নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
    • টইপত্তর
    • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
    • ভাটিয়া৯
    • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
    গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]
    মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত


    পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। ঠিক অথবা ভুল প্রতিক্রিয়া দিন