ভাটিয়ালি | টইপত্তর | বুলবুলভাজা | হরিদাস পাল | খেরোর খাতা | বই
  • টইপত্তর  অন্যান্য

  • সন্ত্রাসবাদীর কোন ধর্ম হয় কী ?

    রুদ্র
    অন্যান্য | ১৭ ডিসেম্বর ২০১৪ | ২৩২৫ বার পঠিত
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • riddhi | 84.141.223.56 | ২৭ ডিসেম্বর ২০১৪ ০২:০৩655640
  • লসাগু দা স্তালিনের কোটা টা (রাইটিস্ট্দের প্রিয়) মিস করে গেলেন। ১৯৩৬ ওনওয়ার্ড্স। প্রচুর লোক সিম্পলি হাওয়া হয়ে গেছিল। মাঝে ১৯৪০ এ কাটিন ম্যাসাকার আছে।
  • lcm | 118.91.116.131 | ২৭ ডিসেম্বর ২০১৪ ০২:২২655641
  • হ্যাঁ, ইউক্রেন হলডোমর স্তালিনের আমলে, আর চীনে মাও লিস্টে নেই, আর ভিয়েতনাম যুদ্ধও নাই -

    ১৯৬৫-১৯৭৪ ভিয়েতনাম যুদ্ধ - ১৩ লাখ

    স্তালিন এর সময়ে সব মিলিয়ে (গুলাগ, পার্জ, ইউক্রেন...) ৭০ লাখ হাই এস্টিমেট।

    মাও এর লিপ ফরোয়ার্ড-র চীনে প্রায় ১ কোটি

    স্তালিন/মাও-এর সংখ্যা নিয়ে ঐতিহাসিকদের মধ্যে দ্বিমত আছে।
  • SC | 34.3.17.255 | ২৭ ডিসেম্বর ২০১৪ ০৩:৫৬655642
  • বাংলাদেশ তার মানে হলোকাস্টের পরে সর্ববৃহত genocide । এই স্ট্যাট টা আগেও শুনেছি, আরেকবার এখানে কন্ফির্ম হলো।
    ইহুদিরা কিন্তু প্রানপন চেষ্টা করে গেছে যাতে ওদের প্রতি এই অত্যাচার কে পৃথিবী কোনদিন ভুলে না যায়।
    ইহুদিদের পাড়ায় কিছুকাল থেকে, এবং মিশে দেখেছি, একদম ইয়ং জেনারেশনও কতখানি সেনসিটিভ বিষয়টা নিয়ে।
    আমরা বাঙালিরা প্রায় ভুলেই গেছি এই genocide । এত প্রতিবাদ, এত বুদ্ধিজীবী, অথচ এত বড় genocide নিয়ে প্রায় কেউই শব্দ করে না।
    লজ্জার বিষয়।
  • aranya | 83.197.98.233 | ২৮ ডিসেম্বর ২০১৪ ০৫:৫৪655643
  • বাংলাদেশের বর্তমান প্রজন্ম - কমবয়েসীরা কিন্তু ভোলে নি। তাই শাহবাগ মুভমেন্ট, এত বছর পর যুদ্ধাপরাধী-দের বিচার। ব্লগার, অ্যাকটিভিস্টরা কেউ কেউ খুন হয়েছে মৌলবাদীদের হাতে।
    গর্ব হয় এই ছেলেমেয়েগুলোর জন্য
  • | ২৮ ডিসেম্বর ২০১৪ ১০:০৩655644
  • ৭১ এর জেনোসাইডের শিকার যারা, তারা ভোলে নি তো। তাদের ভোলানোরনেক চেষ্টাই হয়েছিল, কিন্তু নাঃ ভোলে নি।
    SC সম্ভবতঃ জানেন না। একটু ঘেঁটে দেখুন, নেটেই প্রচুর জিনিষপত্র পাবেন।
  • kc | 47.38.128.229 | ২৮ ডিসেম্বর ২০১৪ ১০:২৭655645
  • ৭১ এর জেনসাইড বাংলাদেশের কেউ ভোলেনি। এমনকি যারা ভুলিয়ে দেবার চেষ্টা করে, তারাও ভোলেনি বলেই আজও সেই চেষ্টায় রত আছে। ত্রিপুরাতেও কেউ ভোলেনি। এপার বাংলাতেও যারা অ্যাফেক্টেড হয়েছিলেন তাদের পরবর্তীপ্রজন্ম ভোলেন নি। ভুলেছে শুধু কিছু কলকাতাবেসড আবাপ নির্ভর কিছু ঘটি বাঙালি। তো তারা কবেই বা কোনও ঘটনা মনে রেখেছে?
  • শ্রী সদা | 212.142.122.243 | ২৮ ডিসেম্বর ২০১৪ ১১:১৯655646
  • "'ইহা সহি ইসলাম' নয় এটা যদি অস্পষ্টবাদন হয় তাহলে স্পষ্টবাদনটা কি?"
    স্পষ্টবাদন হল - "ইহা সহি ইসলাম হোক বা না হোক ইহা সভ্য মানুষের জীবনে অপ্রাসঙ্গিক এবং ক্ষতিকর, অতএব ইহা করিবেন না।"। কিন্তু এই জিনিস বলা (মানে বেসিক্যালি কোরানকে ডোন্ট কেয়ার কন্ডিশন বলে দেওয়া)র দম সম্ভবতঃ কোনো ইসলামী পুরুতের ইসেতে নেই। কিন্তু এটা বাদ দিয়ে এই প্রসঙ্গে যে কোন অবস্থান মূলত ঃ পলিটিক্যালি কারেক্ট গোল গোল ঘোরা।
    দেব কে বললাম।
  • দেব | 111.221.134.97 | ২৯ ডিসেম্বর ২০১৪ ২২:২৩655647
  • সদা কে ক। বইএ কি লেখা আছে তাতে কিছু যায় আসে না, আমার নিজের বোধশক্তি দিয়ে আমি বিচার করব - এটা আমি এখনো কারোর মুখে শুনিনি। পুরুত তো ছেড়ে দিলাম, লিবারালদের মুখেও নয়।
  • dd | 132.172.87.112 | ৩০ ডিসেম্বর ২০১৪ ০৯:৩৫655648
  • সদা শ্রী খুব গুছিয়ে তিনলাইনে সব কয়ে দিয়েছে। ব্রাভো।
  • r2h | 172.136.192.1 | ০৬ জানুয়ারি ২০১৫ ২২:০৭655650
  • অক্ষদা, ধর্মের নামে অনেক মানুষের একজোট হওয়াটা নিয়েই সমস্যা - এতে তো ভালো কিছু হতে দেখছিনা।

    অর্থনৈতিক স্থিতি, ধর্মের ফ্যাক্টর থাকুকু বা নাই থাকুক যেকোন ভাবেই প্রয়োজন এতে তো কোন দ্বিমতের জায়গাই নেই। ধর্ম গেলে খাদ্য জুটবে না, আবার ধর্ম থেকেও জুটছেনা বরং দাঙ্গা হাঙ্গামা বেড়ে চলেছে।

    অন্য বক্তব্য/প্রশ্ন নিয়ে সত্যিই কিছু বলার নেই, মানে উত্তর বা যুক্তি নেই আরকি আমার কাছে। আবেগের বশে উইশফুল থিঙ্কিং এইসব করে কিছু হবেনা তাও ঠিক। ধর্ম তো আর কাক নয় যে যাক বললেই চলে যাবে।

    অনেক মানুষের নীতি/আদর্শ/দর্শন এইসবের বোধ ধর্মের সঙ্গে জড়িয়ে আছে, ধর্ম না থাকলে সেখানে একটা বড় শূণ্যতা আসবে- সেটাও হয়তো ভালো কিছু হবে না।

    এইসব কারনে দ্বৈপায়ন হ্রদের তলায় আত্মগোপন করে আছি, ছ্যাড়াব্যাড়া পরিস্থিতি।
  • সিকি | ০৬ জানুয়ারি ২০১৫ ২৩:০৪655651
  • গল্পগুলো গল্পের মত থাক না। মানুষ থাক মানুষের মত। সব বয়েসের মানুষই তো গল্প শুনতে ভালোবাসে।
  • যম | 181.207.108.43 | ০৭ জানুয়ারি ২০১৫ ২১:০৬655654
  • সাক্ষী মহারাজের এই কমেন্টের পরিপ্রেক্ষিতে নেট থেকে একটি উপযোগী কমেন্ট

    maze ki baat ye hai ki sirf Brahmchaari log aise byaan dete hai... saalo kabhi khud bhi batting kar liya kro... sirf commentry kroge kya??

    * প্রসঙ্গত জানিয়ে রাখি, পুরুষের বহুবিবাহের সমর্থনকারী (একটু ঘুরিয়ে) এবং ফ্যামিলি প্ল্যানিং এর বিরোধিতাকারী (সোজাসুজি তীব্র গলায়) মহাপুরুষ জাকির নায়েকের মাত্র একটা বউ, একটা ছেলে এবং একটা মেয়ে। সব শুয়োরের বাচ্চার একই সুর।
  • যম | 181.207.227.8 | ০৮ জানুয়ারি ২০১৫ ১৭:৪৬655656
  • সন্ত্রাসবাদীর কোনো ধর্ম হয় না বলে আর কতদিন চোখে আঙ্গুল দিয়ে বসে থাকবে জনতা?
  • de | 24.139.119.172 | ০৮ জানুয়ারি ২০১৫ ১৮:১৫655657
  • এটাকে এখনো পুলিশ অ্যারেস্ট করেনি এরকম বলার জন্য?
  • SC | 34.3.17.255 | ০৮ জানুয়ারি ২০১৫ ১৮:৩৪655658
  • সরি, আপনাদের লেখাগুলো মিস করে গেছি। আমি সেইটা বলতে চাইনি যে নেটে কিছু পাব না, কিংবা affected লোকেরা ভোলেনি।
    নিশ্চয় তারা মনে রেখেছে। কিন্তু আপামর জনতা? সেইটাই বলতে চেয়েছিলাম।
    কলকাতা- এপার বাংলার জেলায় গেলে সেই নিয়ে কত শব্দ শুনতে পাবেন?
    আমি কিন্তু মার্কিন দেশে ইউনিভার্সিটি তে পড়তে দেখেছি ইহুদি ছাত্র রা হলোকাস্ট নিয়ে কতরকমের প্রোগ্রাম করার চেষ্টা করত, পপুলার মিডিয়া তে তারা কোনদিন ভুলে যেতে দেয়নি ঘটনাটা। আজকেও কত কত অস্কারজয়ী সিনেমা দেখবেন হলোকাস্ট নিয়ে।
    সে ব্যাপারে জানার জন্য নেট ঘাঁটার দরকার পড়বে না।
    মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে নেট ঘেঁটে আমি বেশ কিছুদুর জানি। কিন্তু সেটা আমার পয়েন্ট ছিল না। পয়েন্ট ছিল যে আজকের পপুলার সন্গস্কৃতি তে, লিবারাল মধ্যবিত্ত বাঙালি সমাজের প্রতিদিনের জীবনের কতখানি জুড়ে আছে ৭১।
    আমাকে নন্দীগ্রাম জানতে নেট ঘাঁটতে হচ্ছে না কিন্তু।
  • ঊমেশ | 118.171.128.168 | ০৮ জানুয়ারি ২০১৫ ১৮:৪৩655659
  • এপার বাংলা'র বেশীর ভাগ লোকের ওপার নিয়ে নাক উচু আর অবজ্ঞা ভাব আছে।
  • | ০৮ জানুয়ারি ২০১৫ ২১:৫৮655661
  • এগজ্যাক্টলি ঐটাই বলা হয়েছে SC। কলকাতা ও তৎসন্নিহিত অঞ্চলের বাঙালি মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে কিছু জানে না বা জানার চেষ্টাও খুব করে না। আর আপনিও 'বাঙালি' বলতে তাদেরকেই মূখ্যতঃ বুঝছেন ও বোঝাচ্ছেন। কিন্তু আন্দোলনটা যাঁরা করেছিলেন সেই বাংলাদেশের বাঙালিরা এই নিয়ে নিয়মিত চর্চা তো করেন বটেই, প্রজন্ম থেকে প্রজন্মে ছড়িয়ে দেবার কাজটাও করেন। আপনি
    আপনাকে অগত্যা নেট ঘেঁটে বা বই ঘেঁটেই জানতে হবে।
  • 4z | 208.231.20.20 | ০৮ জানুয়ারি ২০১৫ ২২:৪৪655662
  • দমদিকে ক। মুক্তিযুদ্ধকে কলকাতা বা পশ্চিমবঙ্গের লোক বাংলাদেশীদের আন্দোলন হিসেবেই দেখে। বাঙালী জাতির আন্দোলন হিসেবে না। ওপার বাংলায় বসে নন্দীগ্রাম নিয়ে কিছু জানতে গেলে কিন্তু আপনাকে নেটই ঘাঁটতে হবে।
  • r2h | 172.136.192.1 | ০৮ জানুয়ারি ২০১৫ ২৩:৩৪655663
  • হুম। কিন্তু হলোকাস্ট নাজি জার্মানী ইহুদি জেনোসাইড... এগুলোর সঙ্গেও আমরা সরাসরি জড়িত নই, কিন্তু তবুও তথ্য অনেক সুলভ। একাত্ম না হলেও, নিজেদের রক্ত না ঝরলেও হলোকাস্ট নিয়ে কলকাতার বাঙালী যা জানে ৭১এর গণহত্যা নিয়ে সেই তুলনায় কম জানে।

    দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের প্রেক্ষিত অনেক বড় ছিল - সমস্ত পৃথিবী জড়িত ছিল- ইওরোপিয়ানদের প্রভাব পৃথিবীতে বেশী, পপুলার কালচারে ক্রমাগত এসেছে - এইসব কারনে হতে পারে হয়তো। শিন্ডলার্স লিস্ট - বয় ইন স্ট্রাইপ্ড পাজামা - ডিফায়েন্স এখনো সিনেমা তৈরী হয়ে চলেছে। অ্যানা ফ্রাঙ্কের ডাইরীর তুলনায় জাহানারা ইমামের একাত্তরের দিনগুলি অনেক বেশী দুর্লভ, আমি নাম শোনার বছর দশেক পরে জোগাড় করতে পেরেছিলাম।

    বিশেষ করে বোধয় সিনেমাগুলি, চোখে আঙুল দিয়ে রাখে। এইখানে একটা বড় শূণ্যতা। বাজেট/দক্ষতা ইত্যাদি। কলকাতার মানুষকে দোষ আমি অন্তত দেবো না, ছোয়াঁর জন্যে, নাড়া দেবার জন্যে ফ্যাকটর গুলো কি সেটা একটা ব্যাপার।
    মুক্তিযুদ্ধকালীন গণহত্যা যে পাকিস্তানের একটা ঘোরতর অপরাধ সেটার অফিশিয়াল স্বীকৃতিই তো হলো না। কেউ কল্পনা করতে পারে, হলোকাস্টকে অস্বীকার বা সমর্থন করে প্রকাশ্যে লম্ফ জম্প করার কথা? একাত্তরের ক্ষেত্রে তো সেটা হয়েছে। মৃত্যুদন্ড সমর্থন না করলেও এই কদিন আগে পর্যন্তও যেমন লুকিয়ে থাকা নাজি ধরা পড়লে মৃত্যুদন্ড হতো, সেইরকম জিরো ট্লারেন্স টাইপ কিছু প্রয়োজন ছিল, যা মোটামুটি সারা পৃথিবী স্বীকার করে। তো আমাদের কব্জির জোর কম, গরীব বেচারা, রাজনীতির ঘোলাজল, হলো না আরকি। হয়তো হবে কখনো। তবে ততদিনে অনেক আল বদর আল শামস রাজাকার উর্দীধারী শান্তির মৃত্যু মরে গেল এই যা।
  • r2h | 172.136.192.1 | ০৯ জানুয়ারি ২০১৫ ০০:১০655664
  • এই দুই উইকেন্ড আগে একটা বিজয় দিবসের অনুষ্ঠানে গেলাম। বিচিত্রানুষ্ঠান বিরিয়ানির দোকান শাড়ি গয়না ইত্যাদির সঙ্গে যে বক্তৃতাগুলি শুনলাম (খুব উঁচুদরের কিছু না, থোড় বড়ি খাড়া টাইপ, আমাদের পনেরৈ আগস্ট ও যেরকম ছোট খাটো অনুষ্ঠানে হয়), সরাসরি পাকিস্তানের নাম কখনো শুনতে পেলাম না। হতে পারে মিস করেছি, হতে পারে এটা ব্যাতিক্রম- তবে এইরকম ব্যাতিক্রম এই প্রথম দেখিনি। দুই দেশ ঝগড়াঝাটি ভুলে বন্ধু হলে তো ভালোই, আমি মন্তব্য করার অধিকারীও নই, কিন্তু কেমন অস্বস্তিও হয়।

    জাফর ইকবালের বিবর্ণ তুষার-এ ছিল, একটি ছেলে আমেরিকায় লাল আলোতে গাড়ি ছুটিয়ে দিতো তার ভাইদের মৃতদেহ ভোলার জন্যে, এইকরে সে যখন মারা গেল, পাকিস্তানী মৌলবী এলেন তার পারলৌকিক কাজ করতে। এই ধর্মগত একাত্মতা জিনিসটাও অস্বস্তি দেয়, এই ক্ষেত্রে অন্তত।

    শাহবাগ, আজকের প্রজন্ম এরা আশা দেয়, কিন্তু এখনো সংখ্যালঘু।

    এসসির পয়েন্টটা বোধয় বুঝতে পারছি। হলোকাস্ট সারা পৃথিবী মনে রেখেছে, আর একাত্তর, আর্ধেক পৃথিবী জানলোই না - কিছু করার নেই তৃতীয় বিশ্বের গরীব লোক তো এমনি মরে, তাদের কথা আর কে জানতে চায়, কিন্তু পাশের দেশের একভাষাভাষী লোকও ভুলে গেল কি করে। আবারও, আমি কলকাতার লোককে দোষ দেবোনা, এই স্মৃতিগুলো খুঁচিয়ে রাখতে হয়, দরজার ওপাশে জীবনের এত আয়োজন, সেসব ছেড়ে শখ করে কে মনে রাখে। করা যায়নি হয়তো, কারন ছিল অনেক, বাংলাদেশ অনেক ঝড় ঝঞ্ঝার মধ্যে দিয়ে গেছে, এখনো যাচ্ছে।

    আরেকটা কারন বোধয়, প্রচুর লোক একাত্তরকে শুধুই ভারত পাকিস্তান যুদ্ধ বলে জানে। পপুলার মিডিয়া এইজায়গায় কিছু করতে পারতো, কিন্তু বাজার, পয়সা এইসব হয়তো বাগড়া দেয়। ভারতবাসী, ভারতবাসী হিসেবেই, বাঙালী হিসেবে নয়, পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ভারতের জয়, এই মর্মে মনে রেখেছে। ত্রিপুরার লোকজন মনে রেখেছিলো, এখনকার কমবয়সীরা কি ভাবে তা আর জানি না। বাংলাদেশের মানুষ তো মনে রাখবেই, না রাখলেই সেটা স্মৃতিভ্রম।
  • ranjan roy | 113.240.96.70 | ০৯ জানুয়ারি ২০১৫ ০৯:৪৫655666
  • বিএসপির ওই লোকটিকে অ্যারেস্ট করা তো দূরস্থান একটা নিন্দাপ্রস্তাবও কেউ করবে না?কোন রাজনৈতিক দল? বামেরা? বনে বসেও প্যারিসের নিন্দা করা যাবে না?
  • ঊমেশ | 118.171.128.168 | ০৯ জানুয়ারি ২০১৫ ১৪:৪০655670
  • আমি তো কলকাতা'র বাঙালীদের এটা বলতেও শুনেছি
    "ব্যাটা বাংলাদেশীদের জন্যে ৭১ এ পাকিস্তানের সঙ্গে যুদ্ধ করে, ওদের স্বাধীনতা এনে দিলাম, এখন ব্যাটারা আমাদের পেছনে লাগে। ৭১ ওদের স্বাধীনতার জন্যে যুদ্ধ করাটাই ভুল হয়েছে।"

    এরা মনে রাখবে!!!!
  • Du | 230.225.0.38 | ০৯ জানুয়ারি ২০১৫ ১৬:১৪655672
  • খুব কম সময়ের মধ্যেই মুজিবহত্যা হয়ে বাংলাদেশ ইসলামিক স্টেট না হয়ে গেলে এরকম হয়তো হত না।
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]


মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত
পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। লাজুক না হয়ে মতামত দিন