• টইপত্তর  অন্যান্য

  • সর্ষেবাটা, মোচা কাটা, চিতলের মুইঠ্যা বানানো ইত্যাদি ইত্যাদি

    r
    অন্যান্য | ১৪ জুলাই ২০০৬ | ১৯২৩ বার পঠিত
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • J | 160.62.4.10 | ২১ জুলাই ২০০৬ ১৪:৫৮634087
  • ঘটিরাই মাছের অম্বল খায়। গরম নয়, ঠান্ডা করে। স্বয়ং ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর খেতেন। ইনি কিন্তু একসেপশানাল লোক। ভীষঅঅঅঞ হ্যান্ডু!
  • sup | 82.36.89.196 | ২১ জুলাই ২০০৬ ১৪:৫৯634088
  • parolin,আমি পিওর ঘটী বাড়ির মেয়ে(যদিও ঘটী /বাঙ্গাল এসব আমার কাছে কোনো পার্থক্য বয়ে আনেনা)বিয়ের আগে কোনো দিন কোনো মাছের টক খাইনি শুধু মৌরলা মাছের টক ছাড়া।আম্‌চুর/কাঁচা আমের টক ও হয়।এটা পোনা ও ইলিশে র বেলায়।টক ওড়িশা ও মেদিনী পুরে বহুল প্রচলিত।ওখান থেকে ই শিখেছি।
  • J | 160.62.4.10 | ২১ জুলাই ২০০৬ ১৫:০১634089
  • অম্বল নানারকম:
    চালতার অম্বল
    আমড়ার অম্বল
    কাঁচা আমের অম্বল
    জলপাইয়ের অম্বল
    করমচর অম্বল
    তেঁতুলের অম্বল
    তাছড়া
    মৌরল্লা মাছের অম্বল, ইত্যাদি।
  • J | 160.62.4.10 | ২১ জুলাই ২০০৬ ১৫:১২634090
  • অম্বলে সর্ষে ফোড়ন দিতে হয়। গোটা সর্ষে। মাস্টার্ড হচ্ছে মাস্ট।
    এবার গোটা সর্ষে দিয়ে বেগুনের রেসিপি টুকে নাও।

    ছোটো ছোটো পিস করে বেগুন কাটো, চচ্চড়ির স্টাইলে।
    কড়ায় তেল দাও। সর্ষের তেল হলে খুব ভালো। গরম তেলে ছেড়ে দাও দু তিন চিমটে গোটা কালো সর্ষে, তার ওপর নুন হলুদ মাখিয়ে বেগুন, সঙ্গে একটা গোটা শুকনো লঙ্কা। চ্যাংক ছোঁক করে নাড়ো কিছুক্ষণ। তেল শুষে নিচ্ছে বেগুন। দরকার হলে একটু জলের ছিটে। ঢকনা বন্ধ করে আঁচ নামিয়ে দাও। খেয়াল রেখো পুড়ে না যায়। একটু পরে খুলে দ্যাখো বেগুন ঘেমে উঠেছে আর আস্তে আস্তে তেল ছাড়ছে। মানে, রান্না হয়ে এলো। আগুন পুরো নিভিয়ে যদি চাও দু চাট্টে কারীপাতা ঢাকনা বন্ধ করে রেখে দাও।
    তারপর গরম ভাতে একটু ঘি দিয়ে ঐ সর্ষে বেগুন জমবে।

    এই রান্নই মূলত: করা চলে নিমপাতা দিয়ে। তাকে বলে নিমবেগুন।
    তাতে কারি পাতার প্রবেশ নিষেধ। কচি কচি লালতে সবুজ নিমপাতা প্রথমেই কড়মড়ে করে ভেজে নিতে হয় সর্ষে দিতে দিতে, তার ওপরে দেইও বেগুন, বাকীটা ওপরে যা বল্লাম তেমন শুধু কারিপাতা বাদ।
  • J | 160.62.4.10 | ২১ জুলাই ২০০৬ ১৫:২২634091
  • কাঁচকলার কোফ্‌তা।

    দুটো সমত্ত সাইজের কাঁচকলা ভালো করে ধুয়ে দুই বা তিন টুকরো করে, প্রেসার কুকারে সেদ্ধ করে নাও। তাবড় তাবড় পাজি কাঁচকলাও এতে নরম হতে বাধ্য। এবার খোসাগুলো হালহয়ে ছেড়ে বেরিয়ে আসবে। ছড়ানো পিসগুলোকে খোলাবাটিতে করে ফ্রিজে রেখে দাও বেশ কয়েক ঘন্টা।
    এর পরে গোটা চারেক কাঁচালঙ্কা লম্বা করে চিরে বিচি গুলো বের করে ধুয়ে নাও। আর নাও একগোছা ধনেপাতা। লঙ্কা ধনেপাতা মিক্সিতে বেটে নাও। অল্প নুন দাও স্বাদমতো, চাইলে এক চিমটি চিনি ( না দিলেও চলে), এবার মিক্সিতে কাঁচকলা থেঁতলে মেখেনাও, সঙ্গে মিশিয়ে দাও ঐ লঙ্কা ধনেপাতার পেস্ট। এবার এদের একটা বাটিতে সরিয়ে হাতে করে গোল্লা গোল্লা বানাও। কোনো ময়দা বেসন কিচ্ছু লাগবে না। ফ্রীজে বহুক্ষণ রাখায়, কাঁচকলা পুরো শুকনো জিনিস।
    ননস্টিক প্যানে তেন গরম করে, ডুবো তেলে ভাজো ঐ কোফ্‌তা।
    ভাজা হয়ে গেলে, সোনামুগ ডাল দিয়ে ভাত মেখে সঙ্গে ঐ কোফ্‌তা দিয়ে দিয়ে খাও।
  • J | 160.62.4.10 | ২১ জুলাই ২০০৬ ১৫:৩৪634092
  • এছাড়া হয়
    খেজুরের চাটনী,
    আমসত্তের চাটনি,
    আঙুরের চাটনি
    পেঁপের প্লাস্টিক চাটনি,
    টমেটোর চাটনি।

  • vikram | 134.226.1.136 | ২১ জুলাই ২০০৬ ১৫:৪৪634093
  • পাগল নাঅকি? বাংগাল আর ঘটি আবার এক হলো কবে থেকে!

    বিক্রম
  • Parolin | 213.94.228.210 | ২১ জুলাই ২০০৬ ১৫:৫২634094
  • অ সুপ , পাত্থক্ক নাই ??

    আমাদের ট্যালট্যালে ঝোল আর উয়াদের --জ্বালানো মাখো মাখো তরকারি ???

    আমাদের চিংড়ি আর উয়াদের শুঁটকি ?(প্রাণভয়ে ইলিশের কতা আনলুম না , ওটাও কিন্তু উয়াদের ই )

    আমাদের মোহনবাগান আর উয়াদের ইস্ট বেঙ্গল ??
    (আমার অতি-ঘটি কত্ত অবশ্য মোবা এর সাব জুনিয়রের গোলি ছিল বহু বছর)

    আমাদের শুক্তুনি আর উয়াদের কসুর লতি ??

    আরো কত্ত আছে ............সব লিখতে গেলে ঈশেনের সার্ভার ঝুলে যাবে।
  • vikram | 134.226.1.136 | ২১ জুলাই ২০০৬ ১৬:২৮634095
  • অতি বাঙ্গাল হবে।

    বিক্রম
  • Parolin | 213.94.228.210 | ২১ জুলাই ২০০৬ ১৬:৪৬633905
  • আরে তাই তো রে। অতি বড় ভুল।
  • s | 141.80.168.31 | ২১ জুলাই ২০০৬ ১৭:০০633906
  • টক অম্বল যাই খেতে চাও মেদিনীপুরে (এস্পেশ্যালি ওড়িশা-মেদিনীপুরের বর্ডার) চলে যাও। উহ, কতরকমের যে টক.... এমনকি টক ঢ্যাঁড়স, টক পালং (সত্যি সত্যি, কাঁচা খেলেও টক টক লাগে, আমি চেখে দেখেছি), আমরুল পাতা, সর্ষে/তেঁতুল দিয়ে/ছাড়া কত আর বলব। আর একরকম লেবু হয় তার নাম গোঁড়া লেবু, সেই দিয়ে গরমের দুপুরে বড় একবাটি ঝোল সদৃশ টক....ভাইরে কোথা যাই, কোথা লাগে অমৃত। এসবের কাছে ঘটি বাঙালের টকের যুদ্ধু, ছো:।
    যে কেউ টক খেতে চাও (মাছ, সব্জী যা বলবে) আমার বাড়িতে চলে এস। বড়মার হাতের টক খাওয়াবো। আঙুল ছেড়ে শেষকালে থালা বাটি চাটবে গ্যারান্টি:-))
  • J | 160.62.4.10 | ২১ জুলাই ২০০৬ ১৭:০৫633907
  • টকের ডাল

    নর্মাল সোনামুগের ডাল বানাও, হলুদটা কম দিলেই ভালো। সম্বরা দেবার আগেই এর মধ্যে টুকরো টুকরো করে কাঁচা আমের টুকরো দিয়ে দাও। আট্টু ফুটিয়ে নাও। পাতলা কতে বানাও। ঝাল পাল্লে কম দিও।
    চাট্টি ভাজাবড়ি কুড়মুড় করে চিবোতে চিবোতে টকের ডাল দিয়ে ভাত খাও।
  • J | 160.62.4.10 | ২১ জুলাই ২০০৬ ১৭:১৩633908
  • রসুন দিয়ে পালং শাক

    পালং শাক ভালো করে বার বার ধুয়ে নেবে। ছোটো ছোটো করে কেটে নাও। বেশি কুচিও না। কড়ায়ে তেল দিয়ে শাক ভাজতে থাকো, মাঝে ঢাকনা দিও। জাল ছড়বে, সেটা একটু শুকোক। নুন দাও। আরেকটু শুকোক। বেশ শুকিয়ে শুকিয়ে গেলে নামাবার আগে অনেকটা কুচোনো রসুন দিয়েই আঁচ থেকে নামিয়ে নাও। আলাদা করে একটা বা দুটো শুকনো লঙ্কা পুড়িয়ে নাও।
    মোটা চালের ভাত রাঁধো বা ঢেঁকি ছঁটা চালের ভাত। সেদ্ধ চাল হওয়া চাই। গরম ভাত বেড়ে তাতে দাও অল্প একটু সর্ষের তেল, গুঁড়িয়ে মেখে নাও শুকনো লঙ্কা পোড়া, এবার রসুন পালং দিয়ে ঐ ভাত খেয়ে দ্যাখো একথালা।
  • J | 160.62.4.10 | ২১ জুলাই ২০০৬ ১৭:১৯633909
  • গাজর দিয়ে মেথি শাক।

    মেথি শাক বরাবরই তিটকুটে।
    কয়েক আঁটি মেথিশাক ভালো করে বেছে ধুয়ে কুচিয়ে কাটো। এবার দুটো মাঝারি গাজর ছঢ়িয়ে, লুডোর ছক্কার সাইজের বা একটু বড়ো সাইজ করে কাটো।
    অল্প তেলে ভাজো গাজর আর মেথি শাক, ফোড়ন বলতে একটু মেথি দিও। আর নুন। হলুদ ভুলেও দিও না। ঝালও দেবার দরকার নেই। ভাজতে ভাজতে তেল ছেড়ে এলে নামি নাও।
    এটা হাতে গড়া আটার রুটি বা ফুল্কা দিয়ে খাও। সঙ্গে পাতে রেখো সবুজ কাঁচা লঙ্কা।
  • J | 160.62.4.10 | ২১ জুলাই ২০০৬ ১৭:২৯633910
  • আলুভাতে ভাত

    আলু সেদ্ধ করো বা ভাতের মধ্যেও দিয়ে কেবারে সেদ্ধ করে নিতে পারো। বেশি নরম হয়ে না যায়। খোসা ছাড়িয়ে চটকে মেখে নাও, কিন্তু বেশি মিহি করে মেখো না, অবশ্যই দেবে সর্ষের তেল, নুন, পেঁয়াজকুচি আর লংকা ( পোড়া শুকনো লঙ্কা কিংবা কুচোনো কাঁচা লঙ্কা, যেটা খুশি)।
    এবার গরম ভাতে ঘি থাকলে ঘি দাও, নয়ত অল্প সর্ষের তেলের ছিটে দিয়ে ঐ আলুভাতে দিয়ে মেখে খাও। আলোচালের ভাত হলে ভালো লাগবে। আর সঙ্গে পুড়িয়ে নিও পাঁপড়। ঝাল মশলা দেয়া পাঁপড় পোড়া থাকলে তো কথাই নেই।
  • J | 160.62.4.10 | ২১ জুলাই ২০০৬ ১৭:৪৫633911
  • ফুচ্‌কা

    অল্প আটা, অল্প ময়দা আর সুজি একচিমটে নুন মেখে নাও, ময়াম দিও না। ছোট্টো ছোট্টো লেচি কাটো বেলে নাও গোল করে, ছঁকা তেলে ভেজে তোলো গোল ফুলকো হয়ে উঠলে। তেল চাড়িয়ে নিও সাবধানে, পাল্লে খবরের কাগজের ওপর ছাড়িয়ে রেখে। শুকনো আবহাওয়ায়। নইলে মিইয়ে যাবে। যগুলো ফুলকো হয়নি সেগুলোও ফেলো না, রেখে দিও চুরমুরের জন্যে।
    এবার আলি সেদ্ধ করো ( বেশি সেদ্ধ করবে না, গলে গেলে যাতা বাজে খেতে লাগবে), আলু ছাড়িয়ে মেখে নাও, ধনে গুঁড়ো, ঘন তেঁতুলের রস, নুন, লঙ্কা গুঁড়ো, জলজীরা পাউডার, কুচোনো লঙ্কা, ধনেপাতা কি্‌চ, যদি ছোলা সেদ্ধ থাকে তবে তা দিয়েও।
    এবার জলে গোলো তেঁতুল এটা আগে করে রাখতে হয়, অনেক সময় নেয় তেঁতুল ঠিকমতো গুলতে, আর মেশাও জরজীরা পাউডার, নুন, অল্প লঙ্কার গুঁড়ো, একটু পাতি লেবুর রস।
    জল তৈরী।
    ফুচকা তৈরী।
    আলু মাখাও তৈরী।
    এবার ফুচকায় গত্ত করে অল্প আলু মাখা দিয়ে জলে ডুবিয়ে এনে গপাগপ খাও।
  • sup | 82.36.89.196 | ২১ জুলাই ২০০৬ ১৮:২৬633912
  • উফ্‌ফ কি করে বোঝাই !!
    রান্নার স্টাইল এ আমি বাঙ্গাল বা ঘটীর আমার কাছে পার্থক্য নেই আমি বলতে চাইনি।আমি বলে্‌ত চেয়েছিলাম আমি ঘটী না হয়ে বাঙ্গাল হলে ও আমার কিছু যেত আসত না।আমার যা ভালো লাগে আমি সব ই accept করে নি ই বাঙ্গাল ঘটী না ভেবে।আমাদের রান্নায় সব cuisine এক হয়ে গেছে।
  • J | 160.62.4.10 | ২১ জুলাই ২০০৬ ১৮:৩০633913
  • এরম ঘটি-বাঙ্গাল কল্লে sup এর রেসিপি দোবো। হ্যাঁ।
  • J | 160.62.4.10 | ২১ জুলাই ২০০৬ ১৯:২১633914
  • রোস্টেড চিকেন

    প্রথমে গোটা চিকেনের চাদ্দিকে ভালো করে তন্দুরী মসালা (যেটা প্যাকেটে কিনতে পাওয়া যায়), নুন, অনেকটা লেবুর রস, অলিভ অয়েল, শুকনো লঙ্কার গুঁড়ো মাখিয়ে রেখে দিতে হবে ঘন্টা দুই।
    চিকেনের ছাল ছাড়ানোর দরকার নেই। পিস পিস করে কেটেও করা যেতে পারে।
    এবার একটা কাঁচের পাত্রে, যেগুলো বেক-ওভেনে রান্নার জন্যে কিনতে পাওয়া যায়, সেটার ভেতরে আচ্ছাসে অলিভ অয়েল মাখিয়ে সামান্য জলের ছিটে দিয়ে, দুয়েকটা গোটা গোলমরিচ রেখে তার ওপরে ঐ ম্যারিনেট করা চিকেনগুলো ঢেলে দিতে হবে। সব রস টস সব কিছু চেঁছে পুঁছে ঐ কাচের পাত্রে ডেলে ওভেনের মাঝামাঝি জায়গায় রেখে, ২০০ ডিগ্রীতে ওপর নীচী দুদিকেই হীট দিয়ে ওভেন চালু করে দিতে হবে। এরম দশ মিনিট হলে, ওভেন অফ করে দিয়ে ফের মিনিট তিনেক পরে ওভেন খুলে চিকেনগুলো উল্টে দিয়ে, (যদি শুকিয়ে গিয়ে থাকে, অল্প জলের ছিটে দিতে হবে, কিন্তু অত তাড়াতাড়ি ও শুকোবে না গ্র্যান্টি)ফের আরো মিনিট সাতেক ২০০ ডিগ্রীতে। এরপরে বাইরে থেকে উঁকি মারলেই দেখা যাবে রান্নাটা হয়ে এসেছে। চাই কি আরো দুমিনিট ওভেনের ভেঅরের ফ্যান অন করে রাখা যেতে পারে। তাতে মালটা আরো সেঁকা সেঁকা দ্যাখাবে।
    এরপরে ওভেন অফ রেখে পাঁচমিনিট পরে সাবধানে বের করে নিয়ে, বাসমতি চালের ভাত হোক, বা পরোটা হোক, তাই দিয়ে খাও। আর সঙ্গে রেখো বড়ো বড়ো খোসাসহ শসার টুকরো, আর ঝিরিঝিরি করে কাটা পেঁয়াজ। পাশে একপিস পাতিলেবু। দুপুরের দিকে হলে বীয়ার। সন্ধ্যেয় গলা ভেজাতে ওয়াইন। সাদা কিম্বা গোলাপী।
  • J | 160.62.4.10 | ২১ জুলাই ২০০৬ ১৯:৪৩633916
  • বীফ ঝাল ফ্রেজি

    লম্বা ফালি ফালি করে ফিঙ্গার চিপ্‌স্‌ তাইলে কাটা একবাটি গোরুর মাংস। টাটকা হলেই ভালো ফ্রোজেনের থেকে। এতে মাখিয়ে নাও মাইল্ড ঝাল গুঁড়ো লঙ্কা, বা কাশ্মীরি লঙ্কা গুঁড়ো। যেগুলোয় ঝাল কম রং বেশি। আর মাখিয়ে নাও নুন। এবার ফিঙ্গার চিপ্‌স্‌ স্টাইলে কুটে নাও আলু, খোসা ছাড়িয়ে। লম্বা ফালি ফালি করা পেঁয়াজ নাও অনেকটা, সেই সঙ্গে একটা গোটা শুকনো লঙ্কা আর খানিকটা গোটা গোলমরিচ।
    তেল গরম হোক। ভুলেও সর্ষের তেল নয়! এই তেকে একসঙ্গে ছেড়ে দাও সবকটা ইন্‌গ্রিডিয়েন্ট। আঁচ অল্প কমিয়ে নাড়ো, ঢাকনা বন্ধ করো। গোরুর মাংস থেকে জল বেরোবে, সেটাই যথেষ্ট মাংসটাকে রাঁধার জন্যে; তাছাড়া সরু ফালি মাংস ঝটপট হয়ে যাবে। আরেকটু সাঁতলালেই তেল ছেড়ে বেরিয়ে আসবে, চাইলে আট্টু নুন দিও।
    রান্না কমপ্লিট।
    ফ্রেঞ্চ লোফের সঙ্গে খাও বা অল্প বাসী ভাত টাত থাকলে তাই দিয়ে। বোতল টোঅতল থেকে খুঁজে পেতে নাও হুইস্কির তলানী। চলুক গজল মিউজিক সিস্টেমে।
  • Parolin | 213.94.228.210 | ২১ জুলাই ২০০৬ ১৯:৫৫633917
  • উফ্‌ফ যোদি একটার পর একটা ছক্কা হাঁকাচ্ছে। আমি ই বা কেন পিছায়ে রই ?
    এই নাও

    বেগুনের দিল্‌খুশ কালিয়া

    ১। বেগুন ডুমো ডুমো করে কেটে নুন হলুদ মাখিয়ে ভালো করে ভেজে নাও।

    ২। একটা প্লেটে ভাজা বেগুন তুলে রেখে বেশ কয়েক চামচ দই দিয়ে ভিজিয়ে রাখো খানিক্ষণ।

    ৩। কড়াই তে ঘি দাও , বেশ কটা গোটা গরম মশলা ( লং , ছোটো এলাচ , দারচিনি) ফোড়ং দিয়ে , কয়েক চামচ পেঁয়াজ বাটা , একটু রসুন বাটা , অল্প ধনে গুঁড়ো আর নুন ভালো করে ভেজে তাতে দই এ ভেজানো বেগুন ভাজা গুলো দাও।

    ৪। ভালো করে মিশে বেশ থকথকে রসা রসা হলে নামিয়ে দাও।
  • J | 160.62.4.10 | ২১ জুলাই ২০০৬ ১৯:৫৮633918
  • মাটন ঝাল ফ্রেজি

    এতেও সবকিছুই প্রায় বীফ ঝাল ফ্রেজির মতো, শুধু অল্প তফাৎ। ভাজার সময়ে কিছু গোটা ধনে ভেজো, বীফেরটাতেও গোটা ধনে দেয়া যায়, না দিলেও হয়।
    আর এটাতে নামাবার একটু আগে এক চিমটে গরম মশলার গুঁড়ো মিশিয়ে দিও।
    ব্যাস।
  • J | 160.62.4.10 | ২১ জুলাই ২০০৬ ২০:১৮633919
  • ব্রেড পুডিং

    সেই যে কাঁচের পাত্রটায় চিকেন বেক হয়েছিলো, সেটা ভালো করে মেজে ধুয়ে শুকিয়ে তার ভেতরে ভালো করে মাখন মাখিয়ে নাও। এবার একলিটার কি দেড় লিটার দুধ (মানে যতটা ধরবে ঐ কাচের পাত্রটায়, ততটা বা তার চেয়ে বেশি হলেও ক্ষতি নেই) আর গোটা চার পাঁচ ডিম মিশিয়ে নাও মিক্সিতে, একবারে না হলে দু দফায়।
    তার সঙ্গে মেশাও চিনি স্বাদ অনুযায়ী আর দারচিনি গুঁড়ো। এবার তরলটা ঢেলে দাও পাত্রে। এরপরে পাতলা পাতলা পাঁউরুটির পিস ছোটো ছোটো করে ছিঁড়ে দুবিয়ে দিতে থাকো ঐ দুধের মিশ্রণে। পাঁউরুটি দুধ শুষে নেবে, কিন্তু সব দুধ যেন শুষে না নেয়। তাছড়া কিছুটা মিশ্রণ এখনো ঢালা হয় নি। সেটা আপাতত থাকুক।
    এবার ঐ কাচের পাত্রাঅ ঢুকিয়ে দাও বেক-ওভেনে ওপর নীচে হীটিং চালু ১৭৫ ডিগ্রী সেলসিয়াস। চলুক দশ মিনিট। অফ করে দাও। ৫ মিনিট পরে ওভেন খুলে বাকী অল্প যেটুকু বেঁচে ছিলো মিশ্রণ সেটাও ঢেলে দাও। আর দাও বাদাম কিশমিশ একমুঠো ভরে। আবার ওভেন চালু হোক।
    চলুক আরো মিনিট দশেক। বাইরে থেকে উঁকি মেরে দ্যাখো ওপরে বাদামী রং ধরেছে, শুকিয়ে আসছে বস্তুটা। মোটামুটি রং ধরলে ওভেন অফ। কিছুক্ষণ পরে ওভেন খোলো।
    ব্রেডপুডিং তৈরী দারুচিনির গন্ধে ম ম।
    ঠান্ডা হলে ছুরি দিয়ে কেটে কেটে প্লেটে তুলে নাও আর বনলতা সেনের মুখোমুখি বসে খাও।
  • dd | 202.122.18.241 | ২১ জুলাই ২০০৬ ২২:৩২633920
  • ভাপা দই ? চাই ?
    কনডেন্‌স্‌ড মিল্কের (হেথায় আমি মিঠাইমেট ইউজ করি)এগটা টিন - মাইক্রোয়েভ প্রুফ বাটীর মধ্যে উবুর করে দ্যাও। এবার ঐ টিনের মাপের দুধ ঢালো। আবার ঐ টিন ভত্তি দই ঢালো। হলো ? এগ টিন ক: মিল্ক ,এগ টিন দুধ, এগ টিন দই। ভালো করে ঘেঁটে মিনিট চারেক মাইক্র হাই চালিয়ে দ্যাও।

    হা হা হা হা। হয়ে গ্যালো ভাপা দই।

    আঁতলামী কত্তে চাও তো কাজু,কিশমিশ আর চাটি মধু দিতি আরো। জমবে।
  • Paramita | 64.105.168.210 | ২১ জুলাই ২০০৬ ২৩:৪৯633921
  • dd-দার এই দই এপাড়ায় খুব চলে। ওর আরেকটা ভার্শান হচ্ছে বড়ো কাঁচের পাত্রে জল ভর্তি করে ছোটটায় ঐ ddদার কথামতো জিনিস বসিয়ে বড়োর মধ্যে রেখে ৪০০ deg F-এ আভেনে বসানো।

    একটা মাইক্রো-ওয়েভ ও আভেনে বাঙালীর সহজ রান্নার থ্রেড খুললে কেমন হয়? সবসময় ঐ তেল-খুন্তি নিয়ে কড়াইতে মাতামাতি করতে ভালো লাগে না।
  • a x | 207.69.137.24 | ২২ জুলাই ২০০৬ ২১:১০633922
  • যারা মাসে একদিন বাজার করেন আমার মত, তাদের জন্য একখান টিপস দিই। ধনেপাতা জেনেরালি দুদিন বাদে পচতে শুরু করে, ফ্রিজে রাখলেও। এর পরের বার যখন কিনবেন, ধনেপাতা প্লাস্টিক প্যাকেটে পুরে ভালো কোরে হা হা করে মুখ দিয়ে নিশ্বাস ছেড়ে ঐ প্যাকেটে পুড়বেন। কোরেই ভালো করে প্যাকেটে একটা গিঁট মারবেন। এবার যতবার ধনেপাতা খাবার ইচ্ছে হয় প্যাকেট খুলে বার করে আবার ঐ হা হা করে বন্ধ করে দেবেন। নিদেন পক্ষে দিন দশেক ঝরঝরে থাকবে, আর আপনার সিগি খাওয়া লাঙ্গসের প্রাণায়ম্‌টাও হবে। তবে সকালে উঠে দাঁত না মেজে হা হা করে প্যাকেটে পুরলে সে বাড়ি আমি খেতে যাবো না।
  • dd | 202.122.18.241 | ২২ জুলাই ২০০৬ ২৩:৫৬633923
  • আলুসেদ্দ কর্বেন ? মাইক্রো ওয়েভে?

    একটা না পেলাস্টিকের প্যাকেটে আলুগুলি নে' শক্ত করে গিঁট দে' মাইক্র হাই করুন চার পাঁচ মিনিট। পেলাস্টিকের প্যাকেট ফুলে ঢোল হয়ে যাব। ফেটে না যায়।

    বার করুন। হাসি হাসি মুখে খোসা ছড়িয়ে যা ইচ্ছে তাই করুন।
  • tan | 131.95.121.251 | ২৩ জুলাই ২০০৬ ০০:০০633924
  • প্যাকেটের বদলে আলুগুলো রূপালী কাগজে ভালো করে মুড়িয়ে সুড়িয়ে মাইক্রোতে দিতে পারেন।
    তোয়ালে মুড়েও দিতে পারেন,তবে তোয়ালেয় যেন কোনো ধাতুসিম্বল ছাপ না থাকে।
  • tan | 131.95.121.251 | ২৩ জুলাই ২০০৬ ০০:০৪633925
  • ডীডী ,আপনার দহিগরম কি ঠান্ডা করে খায় নাকি তক্ষুণি তক্ষুণি খায়?
  • dd | 202.122.18.241 | ২৩ জুলাই ২০০৬ ০০:২৪633927
  • ভাপা দই ? এট্টু পরেই খেও। আরো ভালো যদি ফিরিজে রেখে দিয়ে ঠান্ডা করে খাও।

    কাশির ব্যারাম নেই তো ?
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:

কুমুদি পুরস্কার   গুরুভারআমার গুরুবন্ধুদের জানান


  • কোনোরকম কর্পোরেট ফান্ডিং ছাড়া সম্পূর্ণরূপে জনতার শ্রম ও অর্থে পরিচালিত এই নন-প্রফিট এবং স্বাধীন উদ্যোগটিকে বাঁচিয়ে রাখতে
    গুরুচণ্ডা৯-র গ্রাহক হোন
    গুরুচণ্ডা৯তে প্রকাশিত লেখাগুলি হোয়াটসঅ্যাপে পেতে চাইলে এখানে ক্লিক করে আমাদের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে যুক্ত হোন। টেলিগ্রাম অ্যাপে পেতে চাইলে এখানে ক্লিক করে আমাদের টেলিগ্রাম চ্যানেলটির গ্রাহক হোন।
    • কি, কেন, ইত্যাদি
    • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
    • আমাদের কথা
    • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
    • বুলবুলভাজা
    • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
    • হরিদাস পালেরা
    • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার খেরোর খাতা, লিখতে থাকুন, বানান নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
    • টইপত্তর
    • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
    • ভাটিয়া৯
    • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
    গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]
    মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত


    পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। আলোচনা করতে প্রতিক্রিয়া দিন