• টইপত্তর  অন্যান্য

  • পুরোনো বাংলার ছড়াগুলি

    Parolin
    অন্যান্য | ২০ জুন ২০০৬ | ৯৬৯৫ বার পঠিত
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • Parolin | 213.94.228.210 | ২০ জুন ২০০৬ ১৮:৪৫602981
  • আগডুম বাগডুম এখানে শুরু হোক।

    আমি সব ভুলে গেছি। ছেলে মেয়ে হোলে শেখাবো কি ? শুধু জ্যাক অ্যান্ড জিল ? ছো:।

    জনতা শুরু করুন।
  • vikram | 134.226.1.136 | ২০ জুন ২০০৬ ১৮:৪৮603092
  • পুরনো নতুন জানি না, তবে ছড়া চলুক।

    যার যেমন মনে আছে।

    ডাড্ডানাকুড় ডাড্ডানাকুড়
    নাচছে দেখো পুরুত ঠাকুর
    নাচছে টিকি নাচের তালে
    কঁপছে মশাল দাড়ির জালে
    ঘুরিয়ে কোমর ধুনচি হাতে
    ঠাকুর নাচেন ঢাকের সাথে...

    বিক্রম
  • Paramita | 213.94.228.210 | ২০ জুন ২০০৬ ১৮:৪৯603203
  • ঠিক চড়া নয় , তবে আমাকে ছোটোবেলায় কেউ শিখিয়েছিল সাথে নাচ ও আছে। দেখা হলে নেচে দেখিয়েও দিতে পারি সক্কলকে।

    মেঘ মেদুর রাতে
    মাদুর পেতে ছাতে
    শুয়ে ছিলেম তাতে
    মা বললে ওঠ রে খুকি
    ভিজবি বৃষ্টিপাতে।
  • tan | 131.95.121.251 | ২০ জুন ২০০৬ ১৮:৫৫603241
  • আগডুম বাগডুম ঘোড়াডুম সাজে
    ঢাক মৃদং ঝাঁঝর বাজে
    বাজাতে বাজাতে চল্লো ঢুলী
    ঢুলী গেল কম্‌লাফুলী
    কম্‌লাফুলীর টিয়েটা
    সুজ্জিমামার বিয়েটা
    আয় সুজ্জি হাটে যাই
    পানসুপারী কিনে খাই
    পানের ভিতর ফোঁপড়া
    মায়ে ঝিয়ে ঝগড়া
    হলুদ বনে কলুদফুল
    তার মধ্যে কদমফুল..
  • vikram | 134.226.1.136 | ২০ জুন ২০০৬ ১৮:৫৭603252
  • ইকিড় মিকিড় চাআম চিকিড়
    চামে কাটা মজুমদার
    ধেয়ে এলো দামোদর
    দামোদরের হাঁড়ি কুড়ি
    দুয়োরে বসে চাল কুড়ি
    চাল কুটতে হলো বেলা
    ভাত খাইসে দুপুরবেলা
    ভাতে পড়লো মাআছি
    কোদাল দিয়ে চাঁছি
    কোদাল হলো ভোঁ ও তা
    খ্যাঁখশেয়ালের মাথা

    বিক্রম
  • dam | 199.244.214.30 | ২০ জুন ২০০৬ ১৯:০২603263
  • ভিকির ওটা 'মশাল' নয় 'মশা'। কাঁপছে মশা দাড়ির জালে।

    আগডুম বাগডুম ঘোড়াডুম সাজে
    ঢাক ঝাঁজর মৃদং বাজে
    বাজতে বাজতে চললো ঢুলী
    ঢুলী গেল সে-ই কমলাফুলি
    কমলাফুলির টিয়েটা
    সুজ্জিমামার বিয়েটা
    আয় সুজ্জি হাটে যাই
    পান সুপারী কিনে খাই
    পানের ভেতর ফোঁপরা
    মায়ে ঝিয়ে ঝগড়া
    হলুদ বনে কলুদফুল
    তার মাঝে কদমফুল..
  • tan | 131.95.121.251 | ২০ জুন ২০০৬ ১৯:০৩603274
  • যমুনাবতী সরস্বতী
    কাল যমুনার বিয়ে
    যমুনা যাবে শ্বশুরবাড়ী
    কাজিতলা দিয়ে।
    কাজিফুল কুড়াতে গিয়ে
    পেয়ে গেলুম মালা
    হাত ঝুমঝুম পা ঝুমঝুম
    সীতারামের খেলা।
    নাচো তো নাচো সীতারাম
    কাঁকাল বেঁকিয়ে
    আলোচাল খেতে দেবো
    টাপাল ভরিয়ে।
    আলোচাল খেতে খেতে
    গলা হলো কাঠ,
    এখানে তো জল নাই
    তীরপূর্নীর ঘাট।
    তীরপূর্নীর ঘাটে দুটো
    মাছ ভেসেছে,
    একটি নিলেন গুরুঠাকুর
    আরটি নিলেন কে?

  • tan | 131.95.121.251 | ২০ জুন ২০০৬ ১৯:০৭603285
  • ও পারেতে কালো রঙ
    বৃষ্টি ঝমঝম করে,
    এপারেতে লঙ্কাগাছটি
    রাঙা টুকটুক করে।
    গুনবতী ভাই আমার
    মন কেমন করে।
  • kali | 160.36.205.19 | ২০ জুন ২০০৬ ১৯:০৮603296
  • আগডুম বাগডুম এর আরেকটু অন্য রকম একটা ভার্সন আছে।তাতে ঐ সুজ্জি মামার বিয়েটা পর্য্যন্ত এই একই।'আয় সুজ্জি হাটে যাই' এর বদলে আছে 'আয় রঙ্গ হাটে যাই'।আর শেষ লাইন হলো

    হলুদ বনে কলুদ ফুল
    মামার নামে টগর ফুল।

    আচ্ছা, ইকিড়মিকিড় চাম চিকিড়েরই মতো কথা ওয়ালা এক কবিতা আছে:

    আড়া রে ঘোড়া
    শিমূল রে তোড়া
    শিমূল তুলতে যায় ঘোড়াটা
    সেই ঘোড়াটা হাঁসা *
    দুধ দেয় এক কাঁসা
    দুধে পড়লো মাছি
    কোদাল দিয়ে চাঁছি
    কোদাল হলো ভোঁতা
    খা কামারের মাথা।

    * হাঁসা মানে সম্ভবত হাঁসের মত,অর্থাৎ সাদা ঘোড়া বোঝানো হতো।

    আরো আছে:

    আঁটুক বাঁটুল,শামলা সাঁটুল শামলা গেলো হাটে
    শামলাদের মেয়ে গুলো পথে বসে কাঁদে।
    আর কেঁদো না আর কেঁদোনা ছোলাভাজা দেবো
    আবার যদি কাঁদো তবে তুলে আছাড় দেবো।

    ঘুম পাড়ানী ছড়া অনেক গুলো মনে আছে,তবে এখন সময় নেই। পরে লিখছি এসে।
  • tan | 131.95.121.251 | ২০ জুন ২০০৬ ১৯:১০602982
  • বাবুরাম সাপুড়ে
    কোথা যাস বাপুরে
    আয় বাবা দেখে যা
    দুটো সাপ রেখে যা
    যে সাপের নখ নেই শিঙ নেই
    ছোটে না কি হাঁটে হাটে না
    কাউকে যে কাটে না
    সেই সাপ জ্যান্ত
    গোটা দুই আনতো!
    তেড়ে মেরে ডান্ডা
    করে দিই ঠান্ডা!

  • kali | 160.36.205.19 | ২০ জুন ২০০৬ ১৯:১১602993
  • দিন চলে যায় গুনগুনিয়ে ঘুম পাড়ানির ছড়া
    শান বাঁধানো ঘাটের পাশে নামলো কাঁখের ঘড়া।
    খোকা গেছে মোষ চরাতে,খেতে গেছে ভুলে।
    কোথায় গেলো গমের রুটি শিকের পরে তুলে।

    তারপর? তারপর? কারু মনে আছে? কেউ বলে দেবে বাকিটা?
  • vikram | 134.226.1.136 | ২০ জুন ২০০৬ ১৯:১৫603015
  • মশাল হবে, হতেই হবে।

    হাঁকিয়ে দিয়ে ট্যাক্সি কাল
    আসছিলো এক খ্যাঁকশিয়াল
    সামনে এলে দেখতে পাই
    খ্যান্তমাসীর নাতজামাই।

    আইকম বাইকম তাড়াতুড়ি
    যদু মাষ্টার স্বশুরবাড়ি
    রেল কম ঝমাঝম
    পা পিছলে আলুর দম
    বলে গেছেন ডাক্তারবাবু
    জল সাবু পাতিলেবু
    ইষ্টিশানের মিষ্টি কুল
    তোড়ায় বান্ধা গোলাঅপ ফুল (?)

    বিক্রম

  • tan | 131.95.121.251 | ২০ জুন ২০০৬ ১৯:১৫603004
  • আতা গাছে তোতাপাখি
    ডালিমগাছে মৌ
    হীরেদাদার মর্মরে থান
    ঠাকুরদাদার বৌ।

  • Parolin | 213.94.228.210 | ২০ জুন ২০০৬ ১৯:১৬603026
  • বা: বা: লকখি সোনা তোমরা সব।লিখে যাও।
    আর আয় আয় চাঁদমামা টা কারোর মনে আছে কি ?
  • tan | 131.95.121.251 | ২০ জুন ২০০৬ ১৯:১৭603048
  • গোলাপচাঁপা জুঁই
    পোটলা বেঁধে থুই
    শানবাঁধানো ভুঁই
    গোবরজলে ধুই
    কাঁদিস কেন তুই?
  • vikram | 134.226.1.136 | ২০ জুন ২০০৬ ১৯:১৭603037
  • আদা পাদা কৌন পাদা
    রামাজীকা ঘোড়া পাদা
    ঢাঁই ঢুঁই ডুশ
    বিল্লি পাদা ফুশ

    বিক্রম
  • vikram | 134.226.1.136 | ২০ জুন ২০০৬ ১৯:১৯603059
  • নোটন নোটন পায়রাগুলি ঝোটন বেঁধেছে
    ওপারেতে মেয়েগুলি নাইতে নেমেছে
    কে দেখেছে কে দেখেছে দাদা দেখেছে
    দাদার হাতে কলম ছিলো ছুঁড়ে মেরেছে ...

    পুরোটা লেখো।

    বিক্রম
  • tan | 131.95.121.251 | ২০ জুন ২০০৬ ১৯:২০603070
  • আয় আয় চাঁদমামা
    টী দিয়ে যা,
    চাঁদের কপালে চাঁদ
    টী দিয়ে যা।
    এই চাঁদ সেই চাঁদ
    মিলে যাবে দুটিতে
    গলাগলি মেলামেলি
    উঠিতে বসিতে।
    ...
  • tan | 131.95.121.251 | ২০ জুন ২০০৬ ১৯:২৩603081
  • উ: দাদা বড্ড লেগেছে।

  • tan | 131.95.121.251 | ২০ জুন ২০০৬ ১৯:২৫603093
  • নোটন নোটন পায়রাগুলি ঝোটন বেঁধেছে
    ও পারেতে ছেলেমেয়ে নাইতে নেমেছে।
    দুধারে দুই রুই কাৎলা ভেসে উঠেছে
    কে দেখেছে কে দেখেছে দাদা দেখেছে।
    দাদার হাতে কলম ছিলো ছুঁড়ে মেরেছে
    উ: দাদা,বড্ড লেগেছে।

  • kali | 160.36.205.19 | ২০ জুন ২০০৬ ১৯:২৬603104
  • পারোলীন,

    আপনি মশাই আজ আমার কাজ কর্ম শিকেয় তুললেন। এখন এই ছেড়ে যাওয়া কি সহজ? কত কিছু যে মনে পড়ে যাচ্ছে.....

    ঘুমপাড়ানী ছড়ার মধ্যে-

    আয় ঘুম আয়
    ভালুকে তেঁতুল খায়
    তারা নুন কোথা পায়
    তারা তেল কোথা পায়
    আলূন মালূন খেয়ে বনে তে পালায়।

    তারপর সেই যে,

    আয় ঘুম ঘুম,যায় ঘুম ঘুম, ঘুমোলো গাছের পাতা
    রান্না ঘরে ঘুমোলো রে দুটো মাগুর মাথা।
    দেউড়ীতে ঘুমোলো রে কালো কুকুর,
    বিছানাতে ঘুমোয় খোকা-খুকী ঠাকুর।

    আর সবচেয়ে পপুলার,

    ঘুম পাড়ানি মাসী পিসী মোদের বাড়ি এসো।
    খাট নাই পালং নাই, চট পেতে বোসো।
    বাটা ভরা পান দেবো ,গাল ভরে খেও।
    খোকা/খুকীর চোখে ঘুম নাই,ঘুম দিয়ে যেও।

    ..... যা:,সবাই ঘুমিয়ে পড়লো নাকি? তাহলে অন্য বলি।

    উপেন্টি বায়োস্কোপ
    টাই টুনি টাইস্কোপ
    চুলটানা বিবিয়ানা
    সাহেব বাবুর বৈঠক খানা।
    কাল বলেছে যেতে
    পানসুপারী খেতে।
    পানের ভেতর মৌরীবাটা
    ইস্কাপনের ছবি আঁটা।

    আরো আছে,

    আকাশ জুড়ে মেঘ করেছে, সুজ্জি গেলো পাটে
    খুকু গেছে জল আনতে পদ্ম দীঘির ঘাটে।
    পদ্ম দীঘির কালো জলে হরেক রকম ফুল,
    হাঁটুর নীচে দুলছে খুকুর গোছা ভরা চুল।
    বৃষ্টি হলে ভিজবে সোনা,চুল শুকানো ভার।
    জল আনতে খুকুমণি যায় না যেন আর।

    আরো চাই? এটা শুনেছেন?

    কাঁচা আমের দিন এসেছে অনেক দিনের পর রে ভাই অনেক দিনের পর
    কোথায় ছুরি নুনের বাটি জলদী করে আন।
    বালির গোড়ায় ঘষে ঘষে ছুরিতে দে শান।
    লেবুর পাতায় লংকা বেটে
    আম জরিয়ে খাবো চেটে
    তাক ধিনা ধিন তেরেকেটে
    বেজায় খুশীর তান।
    বক্সী দাদা,আঁকশিটাকে একটু খানি দাও।
    কোঁচড় ভরে আম দেবো, আর দেবো আচার, খাও।

    আমের কথাই যখন এলো,কুলের কথাও একটু বলে আপাতত যাই,

    বুলবুলি গো বুলবুলি
    একাই খাবে কুল গুলি?
    আমায় কটা দাও না ভাই
    আমারতো আর আঁকশি নাই?
    দাদা তো দেয় ধমকিয়ে
    পালাই ভয়ে চমকিয়ে।
    দিদি তো আর দেয় না,
    কানেই কথা নেয় না।

    এই অসহায় বাচ্চাটার দু:খে ছোটবেলায় আমার কান্না পেতো,এখনো পায়।

  • dam | 199.244.214.30 | ২০ জুন ২০০৬ ১৯:২৭603115
  • তারপরে আর একটাই লাইন আছে যদ্দুর মনে পড়ছে --
    "উ: দাদা বড্ড লেগেছে"

    চমচম ভাই চমচম
    তোর দমদমে কি দেশ?
    ইচ্ছে যে যায় এক কামড়ে
    করবো তোরে শেষ।
    রসগোল্লার মাসতুতো ভাই,
    পান্তুয়া তোর পিসে।
    ছানার ফাঁকে মিষ্টি মধুর
    রস রয়েছে মিশে।

    আরো ৪ লাইন ছিল বোধহয়। মনে নাই। :-(

    খোকা গেল মাছ ধরতে ক্ষীর নদীর কুলে
    ছিপ নিয়ে গেল কোলাব্যাঙে
    মাছ নিয়ে গেল ছিলে।
  • tan | 131.95.121.251 | ২০ জুন ২০০৬ ১৯:২৯603126
  • আয় ঘুম যায় ঘুম
    দত্তপাড়া দিয়ে
    দত্তের বৌ পান দিলো
    লঙ এলাচি দিয়ে।

    এটা শুনে কেউ কেউ বলতো দত্তদের ঘুমকাতুরে বলা হয়েছে।:-)))

  • kali | 160.36.205.19 | ২০ জুন ২০০৬ ১৯:৩২603137
  • উদবেড়ালে খুদ খায়
    চালে নাচে ফিঙে,
    পুঁটি মাছে গীত গায়
    মাগুর বাজায় শিঙে।

    তারপর,

    সোনা নাচে কোনা
    বলদ বাজায় ঢোল।
    সোনার ভাই রেঁধে রেখেছে
    ইলিশ মাছের ঝোল।

    আর,

    আয় রে আয় টিয়ে
    নায়ে ভরা দিয়ে
    না নিয়ে গেল বোয়াল মাছে
    তাই দেখে দেখে ভোঁদড় নাচে
    ওরে ভোঁদড় ফিরে চা
    খোকার নাচন দেখে যা।

    আরেকটা ছিলো,

    দাদাভাই চালভাজা খাই
    নয়না মাছে মুড়ো।
    হাজার টাকার বৌ এনেছি
    খাঁদা নাকের চূড়ো।
    খাঁদা হোক, বোঁচা হোক
    সব সইতে পারি।
    ঝামটা কাটা,মুখ নাড়াটা
    ঐ জ্বালাতেই মরি।

  • kali | 160.36.205.19 | ২০ জুন ২০০৬ ১৯:৪১603148
  • তনু,

    আতা গাছে তোতা পাখীর আরো দুটো লাইন ছিলো তো।লাস্টে....

    কথা কইবো কি ছলে?
    কথা কইতে গা জ্বলে।

    এটা মনে হয় বৌ এর উত্তর।

    আয় আয় চাঁদমামার আমি আরেকটা ভার্সন শুনেছিলাম।

    আয় আয় চাঁদমামা টী দিয়ে যা।
    মাছ কাটলে মুড়ো দেবো
    ধান ভানলে কুঁড়ো দেবো
    কালো গরুর দুধ দেবো
    দুধ খাবার বাটী দেবো
    চাঁদের কপালে চাঁদ টী দিয়ে যা।

    আর সেই ছড়াটা কেউ বলো না, সেই যাতে ছিলো

    আম কাঁঠালের বাগান দেবো ছায়ায় ছায়ায় যেতে,
    শান বাঁধানো ঘাট দেবো পথে জল খেতে,
    উড়কী ধানের মুড়কী দেবো শাশুড়ী ভোলাতে।

    কেউ এলাটিং বেলাটিং সই লো বলছিলে।

    এলাটিং বেলাটিং সই লো।
    কিসের খবর আইলো?
    রাজামশাই একটি বালিকা চাইলো।
    কোন বালিকা চাইলো?
    অমুক বালিকা চাইলো (এই নামটা ইচ্ছে মতো বসানো চলতো) ।
    নিয়ে যাও,নিয়ে যাও।
  • tan | 131.95.121.251 | ২০ জুন ২০০৬ ১৯:৪৩603159
  • ব্যাঙেরা সাত ভাই
    চলে ঠেলা গাড়ীতে
    চলেছিলো বিয়ে খেতে
    ফড়িঙের বাড়ীতে।
    বুড়ো ব্যাঙ ঠ্যালে গাড়ী
    থপ থপ পায়েতে
    ঝকঝকে জামাজুতো
    থসথসে গায়েতে।
    বিয়েবাড়ী গিয়ে দ্যাখে
    ভারী মজা ভাইরে
    সবাই বসেছে খেতে
    কারো পাতা নাইরে।
    বর বৌ পালিয়েছে
    ক্যাঁচকলা দেখিয়ে,
    একপাল হাঁস শুধু
    আসে প্যাঁকপেকিয়ে।
  • tan | 131.95.121.251 | ২০ জুন ২০০৬ ১৯:৫৩603170
  • একঘন্টায় ২৬ খানা পোস্ট!!!!!
  • tan | 131.95.121.251 | ২০ জুন ২০০৬ ১৯:৫৫603181
  • ও পাড়ার ময়না
    কেন কথা কয়না?
    জানলাম ইতিহাস ঘেঁটে।
    ভুল করে একদিন
    খেয়েছিলো আলপিন
    সেই থেকে গলা গেছে এঁটে।

    --এটা সম্ভবত অন্নদাশঙ্করের।

  • samran | 59.93.255.92 | ২০ জুন ২০০৬ ১৯:৫৭603192
  • আগডুম বাগডুম এর বারোখান ভার্শান আছে, ক'খান চাই?

    এখন এই শোন--

    আকড়ুম বাকড়ুম ঘোড়ার ডিম সাজে
    ডাল ভেকুর কাঁকুড় বাজে।
    কাঁকুড় বাজতে বাজতে চললো ঢুলি
    ঢুলি পেল সেই কমলাফুলি।
    কমলাফুলীর টিয়েটা
    সুজ্জিমামার বিয়েটা
    আয় রঙ্গ হাটে যাই
    দু'খিলি পান কিনে খাই।
    পানের ভেতর ফোপড়া
    মায়ে ঝিয়ে ঝগড়া।
    হলুদ বনে কলুদ ফুল
    মামার নামে টগর ফুল।
  • Parolin | 213.94.228.210 | ২০ জুন ২০০৬ ২০:০০603204
  • আমাকেই বা কি বলছেন কলি । নতুন চকরির নতুন ট্রেনিং এ বসে আমি এই পড়ছি আর ফিকফিকিয়ে হাসছি। চাকরি গেলে সবাই মিলে পকেট মানি পাঠাবেন বলে রাখলুম।

    কিছু বড়দের চড়া/প্রবাদ মনে পড়ে গেল-

    শিক্ষামুলক-

    তেল তাতলে ঘি
    ঘি তাতলে থাকে কি।

    তাস দাবা পাশা
    তিন সর্বনাশা।

    জন জামাই ভাগনা
    তিন নয় আপনা।

    আর একটি বেশ মজার। কেউ ধর ঘুরে ফিরে একই টোপিকে আটকে যাচ্চে, তখন আমার দিদু বলতেন -

    আঁইতল পাঁইতল
    সেই বুড়ির পাছতল।
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:

কুমুদি পুরস্কার   গুরুভারআমার গুরুবন্ধুদের জানান


  • কোনোরকম কর্পোরেট ফান্ডিং ছাড়া সম্পূর্ণরূপে জনতার শ্রম ও অর্থে পরিচালিত এই নন-প্রফিট এবং স্বাধীন উদ্যোগটিকে বাঁচিয়ে রাখতে
    গুরুচণ্ডা৯-র গ্রাহক হোন
    গুরুচণ্ডা৯তে প্রকাশিত লেখাগুলি হোয়াটসঅ্যাপে পেতে চাইলে এখানে ক্লিক করে আমাদের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে যুক্ত হোন। টেলিগ্রাম অ্যাপে পেতে চাইলে এখানে ক্লিক করে আমাদের টেলিগ্রাম চ্যানেলটির গ্রাহক হোন।
    • কি, কেন, ইত্যাদি
    • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
    • আমাদের কথা
    • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
    • বুলবুলভাজা
    • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
    • হরিদাস পালেরা
    • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার খেরোর খাতা, লিখতে থাকুন, বানান নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
    • টইপত্তর
    • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
    • ভাটিয়া৯
    • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
    গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]
    মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত


    পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। ভ্যাবাচ্যাকা না খেয়ে মতামত দিন