• ভাটিয়ালি
  • এ হল কথা চালাচালির পাতা। খোলামেলা আড্ডা দিন। ঝপাঝপ লিখুন। অন্যের পোস্টের টপাটপ উত্তর দিন। এই পাতার কোনো বিষয়বস্তু নেই। যে যা খুশি লেখেন, লিখেই চলেন। ইয়ার্কি মারেন, গম্ভীর কথা বলেন, তর্ক করেন, ফাটিয়ে হাসেন, কেঁদে ভাসান, এমনকি রেগে পাতা ছেড়ে চলেও যান। এই হল আমাদের অনলাইন কমিউনিটি ঠেক। আপনিও জমে যান। বাংলা লেখা দেখবেন জলের মতো সোজা।
  • আমার গুরুবন্ধুদের জানানকরোনা ভাইরাস

  • aka | 108.162.237.111 | ২৭ মার্চ ২০২০ ০৭:৫৩439647
  • আমার টেস্ট রেজাল্ট হারিয়ে ফেলেছে, আমি বাড়িতে নিজেকে মুক্ত ঘোষণা করেছি। কাল ডিক্লারেশন অফ ইন্ডিপেণ্ডেস ঘোষণা করে, সই করেছি।ঃ)
  • aka | 108.162.237.111 | ২৭ মার্চ ২০২০ ০৭:৫১439646
  • সর্দ্দি, জ্বর, শ্বাসকষ্ট বলেছে এই তিনের দুই থাকতে হবে। আর কাশি থাকলে তা লাঙ্গের কাশি, শুকনো, সাধারণ গলা খুসখুসানি নয়।

    তাও ডাক্তারের সাথে কথা বলে নিলে ভালো হয়।

    সিডিসি বলছে সিম্পটম দেখা দিলে, তারপরে যদি তিনদিন উপসর্গ না থাকে তবে ফ্রি, মুক্ত। ঃ)
  • π | 162.158.23.4 | ২৭ মার্চ ২০২০ ০৭:৫১439645
  • ডিসি ইন্ডিয়াতে একদিনে সবচেয়ে বেশি ধরা পড়ল, এটা কোথায় পেলেন? কাল ৭২ ৭৩ নতুন কেস তো। শনিবার ১০০ হয়ে গেছিল। তারপর রোজই ১০০ র কম। এই নতুন কেসের শং্খ্যাট রোববার থেকে মোটামুটি স্টেবল।

    যে ভয়টা, ইন্ডিয়ার চিকিতসা ব্যবস্থা নিয়ে। কাল সবচে বেশি লোক মরেছেন। অলরেডি ২০। প্রায় ৩%। আরো বাড়বে। এদিকে ইন্ডিয়ার আইসিইউ তে প্রায় কখনোই কাউকে দেখায়না, এটা আজব ব্যাপার!

    আম্রিগায় একদিনে বোধহয় সর্বোচ্চ ধরা পড়ল, ১৮০০০ ছাড়িয়ে যাচ্ছে। এখনো জুড়বে। এটা অবশ্য জিএমটি ধরে দিনের হিসেব। আম্রিগার হিসেবে কত দেখাবে জানিনা। কাছাকাছিই হবে। আম্রিগা আমাদের আজই লাখ ছোঁবে। এবার এর মধ্যে প্রচুর আসিম্পটোমেটিক হলে ভাল। নামবেও তাড়াতাড়ি।
  • aranya | 172.68.133.77 | ২৭ মার্চ ২০২০ ০৭:৪৮439644
  • তোমার টেস্ট রেজাল্ট কি এখনো গায়েব?
  • aranya | 172.68.143.59 | ২৭ মার্চ ২০২০ ০৭:৪৮439643
  • আমার পরিচিত এক জন বাঙালী ভদ্রলোক মারা গেলেন আজ। ৫ দিন ভেন্টিলেটরে ছিলেন। নিউ জার্সী-তে প্রথম বাঙালীর মৃত্যু
  • aranya | 172.68.143.161 | ২৭ মার্চ ২০২০ ০৭:৪৫439642
  • আকা, ডাক্তারের সাথে একটা টেলি কনফারেন্স হয়েছিল দু দিন আগে। প্রেসক্রিপশন পাঠাবে বলে আর পাঠায় নি। আমিও গা করি নি। কারণ করোনা পজিটিভ হলেও তো ঘরবন্দী থাকাই নিদান, সেটা এমনিতেই করছি
  • অরিন | 198.41.238.121 | ২৭ মার্চ ২০২০ ০৭:৪৩439641
  • "অরিনদা, ভারতে এই কন্ট্যাক্ট ট্রেসিং প্রথম থেকে হচ্ছে, এক্সটেন্সিভ স্কেলে।"

    এই ব্যাপারটা নিয়ে কিন্তু কারো মনে কোনো সন্দেহ থাকার কথাই নয়!
    কিন্তু এতো বড় দেশে কমিউনিটি ট্রান্সমিশন ঠেকানো প্রায় অসম্ভব।
    এবং সেইজন্যেই, দেশ জোড়া লকডাউন যত খারাপ ই লাগুক করতেই হতো । যত আগে শুরু করা যেত, ততই ভালো হতো ।

    লকডাউনের দিনগুলোয় মনে করতে হবে যেন আমাদের প্রত্যেকের এই মুহূর্তে কোরোনাভাইরাস শরীরে রয়েছে কিন্তু এখনো লক্ষণ বেরোয়নি, তাহলে আমাদের কি করণীয়, সেইভাবে কয়েকটা দিন থাকতে হবে । কষ্ট হবে, বিরক্তিকর লাগবে, কিন্তু বড় সমস্যা এড়াতে গেলে এ ছাড়া উপায় নেই ।

    আর যদি সত্যি সত্যি ভাবতে পারি যে আমার করোনাভাইরাস শরীরে আছে এই মুহূর্তে, তাহলে করোনা ভাইরাস নিয়ে সোশ্যাল স্টিগমার জায়গাটা কমে যাবে। আমার মনে হয়।
  • aka | 108.162.237.45 | ২৭ মার্চ ২০২০ ০৭:৪৩439640
  • অরণ্যদা কি ডাক্তারকে ফোন করেছিলেন?
  • aranya | 172.68.189.252 | ২৭ মার্চ ২০২০ ০৭:৪২439639
  • পাই, অরিন, একটা প্রশ্ন - মার্চ ১৩-তে সেশ আপিস গেছি, করোনা-দেবী কৃপা করে থাকলে তখন-ই করেছেন বা তার আগে। গত ১৩ দিন স্বেচ্ছায় গৃহবন্দী, আপিসের জনা আষ্টেক লোক পজিটিভ। মেয়ে-বউ-ও গৃহবন্দী গত ১৩ দিন।
    আগামী কাল ১৪ দিন হবে। গলা ব্যাথা আর কাশি হচ্ছিল গত দিন দশেক। কাশি আর নেই। গলা ব্যথা আছে। এখন টেস্ট করানোর কি আর কোন দরকার আছে? মানে করোনা হয়ে থাকলেও মাইল্ড সিম্পটমের ওপর দিয়ে কেটে যাচ্ছে বলে ধরা যেতে পারে?
  • π | 162.158.22.153 | ২৭ মার্চ ২০২০ ০৭:১৭439638
  • " ধরুন যে লোকটি বিদেশ থেকে ইনফেকশন নিয়ে এসে (তখনো অ্যাসিমপটোম্যাটিক অবস্থায়) ভিড়ে মিশে গেলেন, তিনি কিনতু অজানতেই রোগটি ছড়িয়ে ফেললেন। এবার কয়েকটি দেশে এই লোকগুলিকে কেন্দ্র করে কনট্যাকট ট্রেসিং হয়েছে,"

    অরিনদা, ভারতে এই কন্ট্যাক্ট ট্রেসিং প্রথম থেকে হচ্ছে, এক্সটেন্সিভ স্কেলে।
    একটা নমুনা দেখুন। এই আম্রিগার টুরিস্ট, তাও ভারতে তাঁ্র আসিম্পটোমেটিক স্টেজে যতজন সম্ভাব্য কন্ট্যাক্ট ছিল, ট্রেস করে কোয়ারান্টাইন করেছে, বাধ্যতামূলক। ১৪ দিনের জন্য। এর মধ্যে যার তখন সিম্পটম এসেছে, টেস্ট করেছে ( তখনো আসিম্পটোমেটিক কন্ট্যাক্টদের টেস্ট রুলে ছিলনা)।
    https://www.ndtv.com/india-news/400-quarantined-in-assam-after-coming-in-contact-with-coronavirus-infected-us-man-২১৯টটো

    সং্খ্যাটা দেখুন, ১ জনের জন্য ৪০০।

    এটা প্রতি পজিটিভ কেসে হচ্ছে। তার আসিম্পটপমেটিক থাকার ফেজও দেশে হলে সেটাও ইনক্লুড করে।
  • lcm | 172.68.143.161 | ২৭ মার্চ ২০২০ ০৭:০৭439637
  • lcm | 172.68.143.167 | ২৭ মার্চ ২০২০ ০৬:৫৫439636
  • শিয়ালদা
  • অরিন | 198.41.238.121 | ২৭ মার্চ ২০২০ ০৬:৫৪439635
  • নিউ জিল্যাণ্ডের ওষুধের দোকানের সামনে কি হচ্ছে দেখুন। বাইরে দাঁড়িয়ে থাকতে হবে, ফার্মাসিস্ট এসে প্রেসক্রিপশন অনুযায়ী ওষুধ দিয়ে যাবেন, অনলাইন বা কনট্যাকটলেস পেমেন্ট হবে । 

    <a href="https://ibb.co/CHzG4bP"><img src=" alt="pharmacy" border="0"></a>

  • dc | 162.158.165.211 | ২৭ মার্চ ২০২০ ০৬:৪৯439634
  • ইন্ডিয়াতে একদিনে সবথেকে বেশী কেস ধরা পড়লো। মনে হচ্চে আমরা বেল কার্ভের রোলার কোস্টারে চেপে পড়েছি।
  • Atoz | 108.162.238.16 | ২৭ মার্চ ২০২০ ০৫:৫৯439633
  • অরিন,
    অনেক অনেক ধন্যবাদ। দেখা যাক কবে নামতে শুরু করে। অপেক্ষা, অপেক্ষা। ধৈর্য।
  • lcm | 172.68.189.252 | ২৭ মার্চ ২০২০ ০৫:৫৬439632
  • চাহে রহো দূর, চাহে রহো পাস ---

  • lcm | 172.68.189.252 | ২৭ মার্চ ২০২০ ০৫:৫৩439631
  • aka | 108.162.238.16 | ২৭ মার্চ ২০২০ ০৫:৪৯439628
  • একেবারে সাদা ছবি, কেউ কোথাও নেই, ধবধবে। ঃ)
  • lcm | 172.68.143.65 | ২৭ মার্চ ২০২০ ০৫:৪১439627
  • কলকাতার ছবি, লোকজন নেই, ভালই দেখাচ্ছে -
  • অরিন | 198.41.238.119 | ২৭ মার্চ ২০২০ ০৪:৪১439625
  • মা না, যা। এই গুগলের অটোকারেকটের জ্বালায় পারা যায় না।
  • অরিন | 198.41.238.119 | ২৭ মার্চ ২০২০ ০৪:৪০439624
  • নতুন আক্রান্তের স়ংখ্যা একেক দেশে একেক রকম স্পিডে কমবে। যেসব দেশে লকডাউন এব়ং কমপ্লিট লকডাউন, হয় স্বেচ্ছায় নয় জবরদস্তিতে, যদি ১০০% হয়, মূল অদেখা ইনফেকশন এখনই নামতে শুরু করেছে, কিন্তু শুরু করতে দেরী হবার কারণে এবং টেসটি়ং এর সীমাবদ্ধতার জন্য মনে হবে যেন কিছুই কাজ হচ্ছেনা কারণ কেস উত্তরোত্তর বেড়েই চলেছে। তারপর একটা পয়েন্টে স্টেবল হবে। একবার আর নট নম্বর ১ এর নীচে নেমে এলে নতুন ইনফেকশন হু হু করে কমে আসবে। তার আগে রহু ধৈর্যম। আর স্ট্রিকট কোয়ারেনটাইন। মা দেখছেন এখন আগে থেকে লেগে না পড়ার কুফল দেখছেন।
  • Atoz | 108.162.238.178 | ২৭ মার্চ ২০২০ ০৪:২৬439623
  • কবে নাগাদ নামতে শুরু করবে মনে হয়? নতুন আক্রান্তের সংখ্যা কবে নাগাদ কমতে শুরু করবে? মানে ঐ বেল কার্ভের পিকটা পার হয়ে ওপাশের গড়ানে ঢালে কবে যাবে মনে হয়?
  • S | 162.158.106.233 | ২৭ মার্চ ২০২০ ০৪:১৩439622
  • সুইডেনে সুইডেনের মডেল চলতে পারে। কারণ পপুলেশান ডেনসিটি খুব কম। আমেরিকাতেও বহু রাজ্যে লকডাউন হয়নি, কিন্তু কেসও খুব কম থাকছে। সেখানে আপনি এমনিতেই সারাদিনে জনা ৪০এর বেশি লোকের সংস্পর্শে আসেন না, বড় শহরে হলে। এর মধ্যে ৩৫ জনই আপনার কাজের জায়্গায়। ছোট শহরে সংখ্যাটা একেবারেই নগণ্য। এখন ইস্কুল-্কলেজ-্কাজের জায়্গা বন্ধ বা ওয়ার্ক ফ্রম হোম আর বাকী জায়্গাও কম আওয়ার্স ইত্যাদি হয়ে সেই ছোটো সংখ্যাটা আরো কমেছে। তারপর আপনিও কম বাইরে বেড়োচ্ছেন। আগে হয়ত সপ্তাহে ৬ দিনই বেড়োচ্ছিলেন, এখন সেটা দুই দিন। তাছাড়া হ্যান্ড স্যানিটাইজার, হ্যান্ড ওয়াশের ফ্রিকোয়েন্সি বেড়েছে। কাজেই।

    এটা বেশি পপুলেশান ডেনসিটির জায়্গায় সম্ভব নয়।
  • Amit | 162.158.2.115 | ২৭ মার্চ ২০২০ ০৪:০২439621
  • সরি, নতুন করে ৬ জন মারা গেছে চীন তে, তাড়াহুড়োতে ভুল পড়েছি।
  • Amit | 162.158.2.115 | ২৭ মার্চ ২০২০ ০৪:০১439620
  • চীন র কেসটা কি আজকাল ? ওখানে তো নতুন কেস খুব ই কম, নতুন ক্যাসুয়ালটি ও ০। এখনো কি লক ডাউন করে রেখেছে ? নাকি মোটামুটি হেড ইমিউনিটি এসেই গেছে ? ভরসা হয়না ওখানের স্ট্যাটিসটিক্স এ। পুরো মনিপুলেটিভ।
  • Amit | 162.158.2.115 | ২৭ মার্চ ২০২০ ০৩:৫৪439619
  • পিনাকী r সুইডেন নিয়ে লেখাটা পড়লাম,। কেন জানি মন কু ডাকছে যে শেষ অব্দি সুইডেন র মডেল টাই হয়তো বেশি এফেক্টিভ হয়ে যেতে পারে ইন রং রান। বাকি দেশ গুলোতে এতো লক ডাউন করে, এতো ভোগান্তি করে শেষে হয়তো লক ডাউন তোলা হলো, আবার আর একটা ওয়েব এসে গেলো নতুন কেস র। জাস্ট আন্দাজ অবশ্য, আমার কোনো জ্ঞান নেই এসবে। এখানে অরিন বা আরো অনেকে খুব ভালো লিখছেন, স্টাটিসসিকাল মডেলিং একটু আধটু করতে হয় আমাকে , কিন্তু একদম ই অন্য কাজের ক্ষেত্রে, সেগুলোর এতো বিষয়ে উইডস্প্রেড এপ্লিকেশন দেখে চমকে যাচ্ছি সত্যি।

    তবে রিসেশন এসেই গেছে, আর ঠেকানোর অবস্থায় নেই । ২০০৮ কে শিশু মনে হচ্ছে এর তুলনায়। কোরোনার আগে থেকেই ইকোনমি বেশ ১ বছর ধরে স্ট্রাগগলে করছিলো, করোনা এসে মরার ওপর খাড়া র ঘা মেরে দিয়ে চলে গেলো। এখন জাস্ট পোড়ানোর অপেক্ষা।
  • S | 162.158.107.150 | ২৭ মার্চ ২০২০ ০৩:৫৩439618
  • ইন্ডিয়ার কিছু এ্যাডভান্টেজ আছে। হোপফুলি সেগুলো কাজে দেবে। নইলে সত্যিই খুব অসুবিধে হবে।
    গরমে নাকি ভাইরাস নেতিয়ে পড়ে। দেখা যাক। এরপর তো আরো গরম পড়বে।
    ইয়ঙ্গ জেনারেশান বেশি। ফলে কেরিয়ার বেশি হলেও, ফ্যাটালিটি রেশিও কম থাকতে পারে।
    ইন্ডিয়ার আর্বান-রুরাল ডিভাইড। গ্রামের কিছু লোকেরা শহরে আসেন বটে, কিন্তু শহরের লোকেরা খুব কম ক্ষেত্রেই গ্রামে যান। ফলে কমিউনিটি স্প্রেড করে গ্রামে চলে যাবে, সেটা হলেও হোপফুলি কম থাকবে। এখন যারা এই লকডাউনের ফলে শহর থেকে গ্রামে চলে গেল, তাদের জন্য আরো দুসপ্তাহ ওয়েট করতে হবে, তবে বোঝা যাবে এর ফল কি হল?
  • অরিন | 198.41.238.119 | ২৭ মার্চ ২০২০ ০৩:০৭439617
  • লক ডাউন ও কমিউনিটি স্প্রেড নিয়ে প্রচুর পোস্ট পড়লাম, টেস্টিং নিয়েও। দু একটা কথা লিখি যদি কেউ পড়ে:

    ১) ভারতে কিন্তু কমিউনিটি স্প্রেড বহুদিন ধরে চলছে। ধরুন যে লোকটি বিদেশ থেকে ইনফেকশন নিয়ে এসে (তখনো অ্যাসিমপটোম্যাটিক অবস্থায়) ভিড়ে মিশে গেলেন, তিনি কিনতু অজানতেই রোগটি ছড়িয়ে ফেললেন। এবার কয়েকটি দেশে এই লোকগুলিকে কেন্দ্র করে কনট্যাকট ট্রেসিং হয়েছে, তার ভিত্তিতে আমরা করোনাভাইরাসের আর নট (র০) কতটা আন্দাজ করতে পেরেছি, ও বাকী মডেলগুলো তৈরী হয়েছে।
    ২) একটা ব্যাপার অনস্বীকার্য়, পৃথিবীর প্রায় প্রতিটি দেশেই যতজন লোকের আসলে করোনাভাইরাস ইনফেকশন হয়েছে, তার তুলনায় খুবই কম সংখ্যক মানুষের পরীক্ষা হয়েছে। কতো কম? নিজেরাই আন্দাজ করতে পারবেন, বিশেষ করে যে সব দেশে করোনাভাইরাস জনিত মৃত্যু হচ্ছে।


    - ধরুন, গড়ে ১% লোকের করোনাভাইরাস এর কারণেই শুধু মৃত্যু হয়েছে নিউমোনিয়া হয়ে (অন্য কোন কারণে নয়, এর জটিলতা বুঝতে @sm কালকে একটা পোস্ট করেছিলেন নিউমোনিয়া সংক্রান্ত মৃত্যু নিয়ে পড়ে দেখতে পারেন। 

    - আমরা মোটামুটি যদি ধরে নিই যে প্রথম ইনফেকশন থেকে মৃত্যু পর্যন্ত ১৫ দিন সময় লাগে, তাহলে আজকে যদি ১ জন লোকের মৃ্ত্যু রিপোরটেড হয়, তাহলে গড়ে ১৫ দিন আগে ১০০ জন লোকের ইনফেকশন হয়েছিল (তাদের অসুখ এর লক্ষণ নাও বেরোতে পারে, সেটা অন্য কথা)। এবং এই প্রতিটি লোক কিন্তু অন্য আরেক জনকে ইনফেকট করতে পারে বা করেছে। 

    - যে কোন ইনফেকশন  exponentially বাড়তে থাকে, যাঁরা ইনফেকশন এপিডেমিওলোজি নিয়ে পড়েছেন, একথা তাঁরা জানেন, তার থিয়োরিটিকাল আলোচনা করার জায়গা এটা নয়, কারো জানার ইচ্ছে থাকলে আমাকে সরাসরি লিখুন আমি আলোচনা করতে রাজি। এখানে exponential কথার মানে কি? একজন লোক আরো দুজনকে দেবেন, তিনি আরো দুজনকে দেবেন, এই করে দ্রুত অসুখটি ছড়াতে থাকে।  এই exponential curve ধরে মনে করুন আপনি দেখলেন যে প্রতি পাঁচ দিনে ইনফেকশন দ্বিগুণ হচ্ছে। 

    - তার মানে ১৫ দিন আগে ওই ১০০ জন ইনফেকটেড লোক  এখন আজকের হিসেবে প্রায় ৮০০ জনে পরিণত হয়েছে। এদের মধ্যে আজ আমাদের টেস্টিং সিস্টেম কতজনকে শনাক্ত করেছে? ধরুন আজকে দেখা গেল ২০ জনকে শনাক্ত করা গেছে। তাহলে আরো ৭৮০ জন বাদ পড়ে গেল। এরকম করে  একটা গ্যাপ থেকে যাচ্ছে যার জন্য অল্প সংখ্যক টেস্টিং, দেরীতে কাজ শুরু করা নিয়ে মহামারী আরো গোল পাকিয়ে গেছে। 

    যাকগে, এখন উঠছি, পরে আবার লিখব। 

  • lcm | 172.68.143.161 | ২৭ মার্চ ২০২০ ০৩:০১439616
  • চায়না-কে পেরিয়ে ইউএসএ চার্টের ওপর চলে এল
  • aka | 162.158.187.152 | ২৭ মার্চ ২০২০ ০২:৫৮439615
  • সত্যি আর পারা যায় না, অলরেডি ফারলো ইত্যাদি মাথায় নাচ্ছে, লে-অফ ক্রমে আসিতেছে।
  • o | 162.158.63.125 | ২৭ মার্চ ২০২০ ০২:৫৬439614
  • আমি পড়ার চেষ্টা দিচ্ছি, কিন্তু প্রচুর জিনিস কনফিউজিং লাগছে। নানারকম বেসিক কোশ্চেন আছে। কিন্তু কী আর করা! যাকগে! ঃ-)))
  • Du | 172.69.71.45 | ২৭ মার্চ ২০২০ ০২:৪৮439612
  • আমি যা বুঝেছি - ছফিটের কম দুরত্বে লোকে হেঁচে কেশে না দিলে ভাইরাস তোমার ভেতর ঢুকতে পারবে না তোমার সাহায্য ছাড়া। অর্থাত বস্তায় বসে থাকলেও তুমি যদি বস্তায় হাত দেওয়া এবং নিজের মুখ নাক চোখে হাত দেবার আগে হাত ধুলে করোনা মশাই ইনফেক্ট করতে পারবেই না। এটা কি ভুল বুঝছি?
    মানবচরিত্রকে দুরে সরালে এইটাই তো শুধু টার্গেট। নয়?
  • Ishan | 162.158.74.182 | ২৭ মার্চ ২০২০ ০২:৪৪439611
  • যেকোনো ক্রাইসিস হলেই প্রচ্চুর খবর স্টাডি হাবিজাবি এসব পড়ার চেষ্টা করি। করোনা নিয়ে পড়ছিনা। ওই যেটুকু যা চোখে পড়ছে পড়ছি। বিরক্ত লাগছে। ভয় টয়ও করছেনা। একটু ঠান্ডা লেগে জ্বর হয়েছিল, বিরক্ত লাগছিল। আর কিছু না। নিলে মা করোনায় তুলে নেবে, ও আর কী হবে, টাইপ। কিন্তু মা দয়া করলনা, সেই রিসেশন আবার ফেস করতে হবে, উফ।
  • anirban | 162.158.34.105 | ২৭ মার্চ ২০২০ ০২:৩৩439610
  • ভালো ভিডিও।
  • k | 162.158.165.103 | ২৭ মার্চ ২০২০ ০২:২৭439609
  • অনিচ্ছুক হবার অধিকার সকলেরই আছে বৈকি। নিজের মত পাল্টানোর অধিকারও।
    আমার চিন্তা অনিচ্ছুকের সংখ্যাটা নিয়ে। আমার চেনার মধ্যেই যদি তিনজন হয়, তবে স্ট্যাটিসটিক্স টা ---
    দিদি হয়ত চার লাখ পিপিই ড্রেস, দু লাখ সার্জিকাল মাস্ক, ২০ হাজার আই আর থার্মোমিটার, ৫০ হাজার লিটার হ্যান্ড স্যানিটাইজার, ২ লাখ এন৯৫ মাস্ক, ৫০ হাজার গ্লাভস, ৩০০ টি ভেন্টিলেটর মেশিন, ৩ টি ইসিএম ও মেশিন কিনে বসে রইলেন। এদিকে চিকিত্সাবন্ধুরা অনিচ্ছুক।
    শেষে দিদি ইঁটের টুকরো দিয়ে গন্ডি কাটা ফেলে নিজেই পিপিই ড্রেস পরে ফীল্ডে নেবে গেলেই তো মুস্কিল। রিসিভিং এন্ডে আমিই থাকব কিনা !!
  • Pinaki | 172.69.138.27 | ২৭ মার্চ ২০২০ ০২:২৫439608
  • হ্যাঁ, চিন্তার ব্যাপার তো বটেই। আমার বাড়িতেও সেম কেস। সবাই রিস্ক গ্রুপ।
  • aka | 173.245.52.188 | ২৭ মার্চ ২০২০ ০২:১৯439607
  • কিন্তু কমরেড তারা থাকে কোথায়? হোটেলে? সেই হোটেলে যে কাজ করে সে পাব্লিক ট্রান্সপোর্টই ধরে।

    এগেইন এগুলো চুলচেরা হিসেব, আমেরিকায় কজনই বা পাব্লিক ট্রান্সপোর্টে ঘোরাফেরা করে? আটকাতে পারল না তো।

    ভারতীয়দের ইমিউনিটি খুব ভালো কিছু কি? জানি না।

    হ্যাঁ ভারতের ইয়ং জেনারেশন তাই মৃত্যুর হার কম হতে পারে।

    আই হোপ এগুলো সব সত্যি হোক এবং কোন এক অজ্ঞাত কারণে ভারতে সত্যিই কমিউনিটি স্প্রেডিং না হোক, হলে কি হবে ভাবলেই মাঝে মাঝে শিউরে উঠি। আমাদের বাড়িতে একবার ঢুকলে সবাই ভালনারেবল।
  • jsl | 162.158.22.249 | ২৭ মার্চ ২০২০ ০২:১০439606
  • এতদিন তো অনিচ্ছুক হিসেবে কৃষকরা বিতর্কিত ছিলেন।

    তবে এইটা নিয়ে আমার একটু ধন্দ আছে। কোন ডাক্তার যদি ভাবেন এই বিপদের সময় নিজের পরিবারের সুরক্ষা ইত্যাদির কথা ভেবে দূরে থাকবেন, বা স্ট্রেস নিতে পারবেন না, তাতে আপত্তির কিছু আছে কি? সংখ্যাগুরু এরকম ভাবলে প্রয়াকটিকেল সমস্যা হবে ঠিকই, কিন্তু ডাক্তার হয়েছেন বলেই অতিমানব হওয়ার দায় নিতে হবে তাও তো না।

    যারা নিজের থেকে ঝাঁপিয়ে পড়ছেন তাঁদের জন্যে অবশ্যই কোন প্রশংসাই যথেষ্ট নয়। কিন্তু ডাক্তাররদেরও তো ঘর সংসার থাকতে পারে।
  • Pinaki | 172.69.138.27 | ২৭ মার্চ ২০২০ ০২:০৬439605
  • হ্যাঁ, সে তো আছেই। কিন্তু আবার এটাও আছে যে যারা ধরো ইউকে বা ইতালি থেকে ইনফেক্শন নিয়ে আসছে তাদের একটা বড় অংশই কিন্তু পাবলিক ট্রান্সপোর্ট ইত্যাদি এভেল করে না। প্রচণ্ড ভীড়ে র‌্যান্ডম ঘোরাঘুরি করে না, বা সরকারি হাসপাতালের আউটডোরে যায়না। এগুলো ভারতের ফেবারে যাবে।
  • সিংগল k | 162.158.166.148 | ২৭ মার্চ ২০২০ ০২:০২439604
  • বলতে খুব খারাপ লাগলেও একটা খুবই নেগেটিভ ব্যাপার এই বাজার রেকর্ড রাখা দরকার, তাই এক রাজাকা দো শিং, এখানেই জানিয়ে যাই-
    মাননীয় প্রধানমন্ত্রীজীর কথাতে দল বেঁধে খুব থালা টালা পেটানো হলেও ডাক্তাররা কিন্তু ঠিক উদ্বুদ্ধ হন নি। মানে ইসে, আমার জানা তিনজন ডাক্তার নানা অজুহাতে নিজেকে বাঁচানোর চেষ্টা করছেন। আমার চেনা জানার মধ্যেই যদি তিনজন থেকে থাকেন তবে চেনা জানার বাইরেও কয়েকজন সে রকম আছেন নিশ্চয়ই।
    ওঁরা ডাক্তার হিসেবে দারুন এবং সহজে ভয় পাবার লোক নন। একজন তো খুবই ইয়ং সেবার জন্য নিবেদিতপ্রাণ। তার সঙ্গে অবশ্য আমার সরাসরি কথা হয় নি। কিন্তু বাকিরা অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ হলেও নিজেদের আইসোলেট করার কারনটা আমার কাছে খোলসা করলেন না।
    ইমার্জেন্সী সিচুয়েশন হলে তাঁদের ধরে বেঁধে কাজে লাগানো হবে জানি, তবু তাঁরা নিজে থেকে ইচ্ছুক নন এটা ভাবতে খারাপ লাগছে।
  • aka | 162.158.187.152 | ২৭ মার্চ ২০২০ ০১:৫৭439603
  • কমরেড ভারতীয় জনঘনত্ব বললেন না? সুইডেনে একজনের থেকে অন্যজনের হওয়ার সম্ভাবনা আর ভারতে হওয়ার সম্ভাবনা এক?
  • Pinaki | 172.69.138.61 | ২৭ মার্চ ২০২০ ০১:৫১439602
  • এইরে! আমি কিন্তু কী নিয়ে ডিবেট না পড়েই লিখলাম। পাইয়ের ঐ উদাহরণটায় কিন্তু প্রাইমারি সোর্স রয়েছে। ওটা ঠিক কমিউনিটি স্প্রেডের উদাহরণ নয়। কিন্তু তার মানে এমন নয় যে ভারতে কোথাও কমিউনিটি স্প্রেড হয়নি। ডেফিনিটলিই হয়েছে। কতটা স্কেলে সেটা খানিকটা এক-দুস্প্তাহে বোঝা যাওয়া উচিৎ। ভারতে তিন-চারটে কারণে ইওরোপ বা আমেরিকার থেকে কম হতে পারে। ১) ভারতে যত লোক চীন বা ইতালি থেকে যাতায়াত করে তার সংখ্যা ইওরোপ বা আম্রিকার চেয়ে অনেক কম, বিশেষত ইওরোপের একটা বড় অংশ ইনফেক্টেড হয়েছে আল্পসে স্কি করতে গিয়ে - যেটা ভারতীয়দের ক্ষেত্রে কমই হবে। ২) ভারতে আবহাওয়া, ৩) ভারতীয়দের ইমিউনিটি, ৪) ভারতের পপুলেশন তুলনমূলক ইয়ং। আর কমিউনিটি স্প্রেড বেশি হওয়ার পক্ষে যা যবে সেটা হল ভারতীয়দের সচেতনতার অভাব, রোগ গোপন করা, ট্রাভেল হিস্ট্রি গোপন করা - ইত্যাদি। তবে বর্ডার ক্লোজ করা ইত্যাদি সিদ্ধান্ত কিন্তু ভারত যথেষ্ট তাড়াতাড়িই নিয়েছে। আমি ভারতের ব্যাপারে আশাবাদী। তবে এই সংখ্যা অনেকটাই বাড়বে বলে আমার ধারণা।
  • aka | 108.162.219.149 | ২৭ মার্চ ২০২০ ০১:৪০439601
  • খানুকে আর একটা সিইও সূলভ উপদেশঃ

    সরকার বা আইসিএমার কি বলছে সেটা খুব গুরুত্বপূর্ণ নয়। কি করছে সেটা অনেক বেশি। লকডাউন যে খুব ড্রাস্টিক সেটা তুমি, আমি বুঝলে সরকারও বুঝছে।

    এটার ব্যাখ্যা আমার কাছে হলঃ কমিউনিটি স্প্রেডিং হয়েছে এটা সবাই বোঝে, মরিয়া চেষ্টা চালাচ্ছে যাতে ইতালি কেস না হয়। আর ভাবছে যে গরম এসে যদি বেঁচে যাই।

    আমার মতে এটা হল সুইসাইডাল - সব দিক দিয়ে। পুরো জুয়ো খেলা। এর থেকে টার্গেটেড লক-ডাউন, বড় শহরগুলোতে, ইন্টারন্যাশনাল এয়ারপোর্ট গুলোতে। সার্ভেলেইন্স চালানো, লোকাল কর্পোরেশন, মিউনিসিপালিটির সাহায্য নেওয়া। আর স্প্রেডিং হয়েছে ধরে মমতার মতন প্রিপারেশন নেওয়া। স্টেডিয়াম গুলোকে করোনা আইসোলেশন সেন্টার করা, কে বলেছে দূরপাল্লার ট্রেনগুলোকে কোথাও দাঁড় করিয়ে হস্পিতাল বানানো। ভেন্টিলেশনের ব্যবস্থা করা। ডাক্তারদের প্রোটেকশনের বন্দোবস্ত করা। অনেককিছু।
  • aka | 173.245.52.140 | ২৭ মার্চ ২০২০ ০১:২৭439600
  • এইতো কমরেড পিনাকী লিখে দিয়েছে, থ্যাংকু কমরেড।
  • Pinaki | 172.69.138.61 | ২৭ মার্চ ২০২০ ০১:২৩439599
  • কমিউনিটি স্প্রেডিং মানে যখন কন্ট্যাক্ট ট্রেসিং আর করা যাবে না। মানে ধরা যাক একজন ইনফেক্টেড বাসের হ্যান্ডেল ধরেছে, সেই হ্যান্ডেল আমি ধরেছি বলে আমার হল। এবার কে ধরেছিল আমি জানি না। জানা সম্ভবও নয়। প্রাইমরি সোর্স অজানা এরকম প্রচুর কেস যখন ধরা পড়তে শুরু করে, তখন ধরে নেওয়া হয় কমিউনিটি স্প্রেড হয়েছে। যেমন বাংলার দমদমের কেসটা কমিউনিটি ট্রন্সমিশনের উদাহরণ। কিন্তু একটা ডিসক্রীট কেস বলে ওটা থেকে কিছু কনক্লুড করা যাচ্ছে না। আগামী এক সপ্তাহে যদি এরকম অনেক কেস বেরোতে শুরু করে তখন নিশ্চয়ই ধরে নিতে হবে হয়েছে। কথা হল ইনফেক্টেড লোকেরা ডেফিনিটলি ইনফেকশন ধরা পড়ার আগে অন্য লোকের বা অজানা লোকের সংস্পর্শে এসেছেন। সেটা পাবলিক ট্রান্সপোর্ট হোক বা দোকান হোক। কিন্তু সেটা মানেই আবার এটা নয় যে কমিউনিটি স্প্রেড হয়ে গেছে। কারণ যেখানে যেখানে তাঁরা পাবলিকের সংস্পর্শে এসেছেন (হয়তো) তাঁদের সবাইকে সংক্রামিত করেছেন এমন নাও হতে পারে। সেটা শুধু প্রবাবিলিটির কারণেও হতে পারে, আবার ভারতের গরম আর্দ্র আবহাওয়াও কিছু রোল প্লে করে থাকতে পারে। ভারতের লোকের ইমুনিটিও। এগুলৈ বোঝা যাবে আগামী সপ্তাহখানেকের মধ্যে। কতটা কমিউনিটি স্প্রেড হয়েছে।
  • lcm | 172.69.23.56 | ২৭ মার্চ ২০২০ ০১:১৪439597
  • সিংগল k -এর লেখাগুলো হেব্বি হচ্ছে, কেমন যেন দেখতে পাচ্ছি
  • π | 162.158.22.153 | ২৭ মার্চ ২০২০ ০১:০৭439596
  • আকাদা, সিরিয়াসলি তুমি বুঝছনা? পড়ার পরেও? এঁদের বাইরের ট্রাভেল হিস্ট্রি বা কন্ট্যাক্ট আছে! উহান থেকে মুম্বইয়ের স্লামে কীকরে এল, এই প্রশ্ন তাই আর আসেইনা! কিম্বা তুমি কম্যুনিটি ট্রান্সমিশনের সংজ্ঞা জাননা।
  • করোনা ভাইরাস

  • গুরুর মোবাইল অ্যাপ চান? খুব সহজ, অ্যাপ ডাউনলোড/ইনস্টল কিস্যু করার দরকার নেই । ফোনের ব্রাউজারে সাইট খুলুন, Add to Home Screen করুন, ইন্সট্রাকশন ফলো করুন, অ্যাপ-এর আইকন তৈরী হবে । খেয়াল রাখবেন, গুরুর মোবাইল অ্যাপ ব্যবহার করতে হলে গুরুতে লগইন করা বাঞ্ছনীয়।
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার খেরোর খাতা, লিখতে থাকুন, বানান নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]
মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত