বইমেলা হোক বা নাহোক চটপট নামিয়ে নিন রঙচঙে হাতে গরম গুরুর গাইড ।

এই সুতোর পাতাগুলি [1] [2] [3] [4] [5] [6] [7] [8] [9] [10] [11] [12] [13] [14] [15] [16] [17] [18] [19] [20] [21] [22] [23] [24] [25] [26] [27] [28] [29] [30] [31] [32] [33] [34] [35] [36] [37] [38] [39] [40] [41] [42] [43] [44] [45] [46] [47] [48] [49] [50] [51] [52] [53] [54] [55] [56] [57] [58]     এই পাতায় আছে781--810


           বিষয় : ২০১৯ নির্বাচন ইত্যাদি
          বিভাগ : নাটক
          শুরু করেছেন :pi
          IP Address : 7845.29.677812.117 (*)          Date:08 Sep 2018 -- 06:21 PM




Name:  S          

IP Address : 2390012.156.561223.1 (*)          Date:15 May 2019 -- 12:11 AM

রন্জনদা এবং পিটিদা, সকলেই, এইটা প্লিজ শুনুন। বিশেষ করে প্রথম ৫-৬ মিনিট।


https://www.youtube.com/watch?v=LYs8SEcb3M8


Name:  দ          

IP Address : 453412.159.896712.72 (*)          Date:15 May 2019 -- 10:12 AM

এনাকে নিয়ে প্রচুর গল্প শুনেছি। এনার সম্পর্কে একটু বিস্তারিত জানার ইচ্ছে আছে। ট জানিস নাকি রে?


http://www.epaper.eisamay.com/Epaperimages/1552019/15052019-md-em-4/38
023.jpg



Name:  কল্লোল          

IP Address : 127812.79.5689.107 (*)          Date:15 May 2019 -- 10:38 AM

সকালে বিভিন্ন চ্যানেলে গুড মর্নিং বা সকাল সকাল জাতীয় গানের অনুষ্ঠানে সব উপস্থাপকই শুনলাম ভোটের হিংসা নিয়ে সরব হয়েছেন। ভালো লক্ষণ। এটা নিয়ে কথা বলার সময় এসেছে। আর কোন প্রদেশে ভোট নিয়ে এই চূড়ান্ত কান্ডজ্ঞানহীন হিংসার আধিক্য দেখা যায় না। পশ্চিম বঙ্গে কেন এই হিংসা।



Name:  PM          

IP Address : 230123.74.234523.150 (*)          Date:15 May 2019 -- 10:54 AM

নৈরাজ্য


Name:  রঞ্জন          

IP Address : 238912.69.12900.34 (*)          Date:15 May 2019 -- 10:59 AM

দু,
একদম ঠিক।ঃ))


Name:  রঞ্জন          

IP Address : 238912.69.12900.34 (*)          Date:15 May 2019 -- 11:12 AM

টি,
রুটি ওল্টানোয় কোন ভুল নেই। তবে আমার প্রেক্ষিত গোটা ভারত, বিশেষ করে দিল্লির মসনদে পুড়ে ওঠা রুটি পাল্টানোর তাগিদ।
বংগেও রুটি পাল্টানোর দরকার। কোন সন্দেহ নেই। কিন্তু আপনারা বংগেই আটকে আছেন।আমার প্রায়োরিটি অবশ্যই ভারত, বড় খতরা। কমঃ মানিক সরকার যা বলেছেন।
আচ্ছা, বংগ কি ভারতের বাইরে আলাদা রাজ্য?
বঙ্গের স্ট্র্যাটেজি ঠিক করার সময় কি কুচবিহারের জন্যে আলাদা কিছু করেন? স্রেফ জানতে চাইছি।


Name:  sei          

IP Address : 456712.100.6723.65 (*)          Date:15 May 2019 -- 11:54 AM

অতিবাম হোক বা পুটকিওলা অতিবাম, সবার এক স্টাইল। মূর্তি ভেঙ্গে বিপ্লব করো বা ক্ষমতা বাগাও।টার্গেট কখনো বিদ্যাসাগর, কখনো রামমোহন।


Name:  এলেবেলে          

IP Address : 230123.142.9001212.232 (*)          Date:15 May 2019 -- 12:06 PM

১৮র পঞ্চায়েতেই টের পেয়েছিলাম এই অশনি সংকেতের। আরও একবার সমর্থন মিলল

https://www.anandabazar.com/editorial/lok-sabha-election-no-clear-pict
ure-of-the-poll-result-1.992603



Name:  S          

IP Address : 458912.167.34.76 (*)          Date:15 May 2019 -- 12:17 PM


https://www.youtube.com/watch?v=Y43y3WT_DPo


Name:  PT          

IP Address : 340123.110.234523.7 (*)          Date:15 May 2019 -- 01:20 PM

"প্রাক্তন নকশাল নেতা অসীম চট্টোপাধ্যায় বলেছেন, “তৃণমূল এবং বিজেপি উভয়েই নৈরাজ্যের প্রতিযোগিতায় নেমেছে। এ রাজ্যে আইনের শাসন চলছে না, চলছে মর্জির শাসন। তৃণমূল নেত্রী নিজে বিজেপির এই নৈরাজ্যকে ডেকে আনছেন।”"

বোঝো কান্ড!!
ইনিই সেই আদি অতিবাম যিনি "সদরে কামান দাগো" নামক তত্বের চর্চা করে তিনোদের সমর্থনে প্রার্থী হয়েছিলেন আর "বাম" জীয়নকাঠি ছুঁইয়ে তিনোর মধ্যে "নিও কমিউনিজম"-র বীজ বপন করেছিলেন। যতদূর মনে হচ্ছে তিনোর অনশন মঞ্চে বিজেপি নেতাদের উপস্থিতির কালেও তিনি নীরব থেকে সমর্থন জানিয়েছিলেন।
এখন তবে কেন কান্নাকাটি? নিজের কৃতকর্মের জন্য এট্টু দুঃখপ্রকাশ করলে ভাল দেখাত বোধহয়।


Name:  কল্লোল          

IP Address : 127812.79.5689.107 (*)          Date:15 May 2019 -- 01:44 PM

নৈরাজ্য কথাটার নানান অর্থ। একটা অর্থ বিশৃঙ্খলা। অন্য একটা অর্থ রাষ্ট্রহীনতা। রাষ্ট্রহীনতা মানে বিশৃঙ্খলা নয় বরং উল্টোটা স্বশৃঙ্খলা।
এই আরকি।

তবে এই কন্ডজ্ঞানহীন হিংসা নিয়ে কথা শুরু হোক।



Name:  PM          

IP Address : 230123.74.234523.150 (*)          Date:15 May 2019 -- 02:02 PM

"কান্ডজ্ঞানহীন হিংসা" আসলে হলো বাই প্রডাক্ট, রেড হেরিং ও বলতে পারেন। এটার পেছনে ছুটলে ঘুরেই মরবেন। আসল সমস্যাটাকে ধরা যায় কিনা দেখা যাক।

স্বশৃঙ্খলা --- মানুষের বিবর্তনের পরবর্ত্তী ধাপে এটাসম্ভব হবে নিষ্চাই লাখ দুয়েক বছর মাত্র অপেক্ষা করতে হবে ঃ)

আপাতত ঃ এটুকুই বলার "রাষ্ট্রহীনতা/স্বশৃঙ্খলা " পাওয়ার দুরবর্ত্তী লক্ষ্যের জন্য আপনার মনে হয়েছিলো প্রথম ধাপ দুর্বল সরকার ( সংখ্যায় নয়) আসা --- তার জন্য বাম সরকারের যাওয়া অবশ্যিক ছিলো। টার্গেট অ্যাচিভ্ড । অতঃকিম ?


Name:  কল্লোল          

IP Address : 127812.79.5689.107 (*)          Date:15 May 2019 -- 02:06 PM

আমি ২০১৮এর এপ্রিলে এই নিয়ে একটা টই খুলেছিলাম। তার থেকে -
অনেকেই হয়তো একমত হবেন না, কিন্তু আমার বারবার মনে হয়েছে ১৯৬৭ থেকে পশ্চিমবঙ্গের রাজনীতিতে যে পরিমান হিংসার চাষ হয়েছে, অন্য কোন প্রদেশে তা অনুপস্থিত।
এটুকু বললেই লোকজন হৈহৈ করে উঃপ্রঃ, বিহার, হরিয়ানা, মধ্যপ্রদেশ, ছত্তিশগড় এসব রাজ্যের কথা বলবেন।
আমার প্রশ্নটা অন্য পরিসরে। উঃপ্রঃ, বিহার, হরিয়ানা, মধ্যপ্রদেশ, ছত্তিশগড় এসব রাজ্যের রাজনীতিতে যে হিংসা সেগুলি মূলতঃ জাতপাত ও ধর্মভিত্তিক। নীচুজাত/উঁচুজাত, হিন্দু/মুসলমান/খ্রিস্টান, অন্য প্রদেশের মানুষ এসব নিয়ে হিংসা। এই তো সারা ভারত জুড়েই আছে।
কিন্তু পব্তে এসব নিয়ে হিংসা প্রায় নেই। এখানে কংগ্রেস/সিপিএম/তৃণমূল/নকশাল নিয়ে হিংসা। এখানে ধর্ম নেই, জাত নেই, অন্য প্রদেশ নেই, এমনকি গরীব বড়লোকও নেই।
আমার এই এতোকালের রাজনীতির সাথে জড়িয়ে থাকার সুবাদে কিছু মনে হয়েছে সেটা বলি।
রাজনীতি নিয়ে মারপিট ১৯৬৭র আগেও ছিলো। ১৯৬২তে কংগ্রেসীরা "চীনাপন্থী" কমিউনিস্টদের নিগৃহীত করেছে। অনেককে ঘর ছাড়তে হয়েছে। তারপর থেকে কংগ্রেস সিপিএম মারামারি খুব দুর্লভ ছিলো না, তবে সেটা আজকের মতো মহামারী আকার ধারণ করে নি। পড়ায় পাড়ায় ঝামেলা সত্ত্বেও রকে বসে আড্ডায় ইস্টবেঙ্গল-মোহনবাগান, উত্তম-সৌমিত্র, রাজকাপুর-দিলীপকুমার, ঘটি-বাঙ্গাল এসব নিয়ে ফাটাফাটি চলতো। হাতাহাতিতে পৌঁছালে পাড়ার বড়রা কং-কমি নির্বিশেষ থামাতে আসতেন।
১৯৬৭তে নতুন এক রাজনীতি এলো। নকশাল। সশস্ত্র বিপ্লব নতুন কিছু নয়। ট্রাম-বাস পোড়ানো, বোম, গুলি এসব বাঙ্গালী বহু দেখেছে। কিন্তু এই প্রথম একটা পার্টির প্রধান ডাক দিচ্ছেন - শ্রেণীশত্রুর রক্তে হাত না রাঙ্গালে সে কমিউনিস্ট নয়।
শ্রেণীশত্রু কে? ঐ তো পাড়ার যে ছেলেটা সিপিএম বা কংগ্রেস করে।
গতকাল যার সাথে ইস্টবেঙ্গল/মোহনবাগন জিতেছে বলে চা ভাগ করে খেয়েছি, গতকাল যার মায়ের হাতে লক্ষীপুজোর নাড়ু, গতকাল যার বাবার হাত থেকে বাজারের ব্যাগ কেড়ে নিয়ে বয়েছি, তাকে খুন করতে, হ্যাঁ পেটে ভোজালী বা কানপুরীয়া চালিয়ে দিতে এতোটুকু হাত কাঁপেনি।
অনেকেই বলবেন, যেন এর আগে খুনখারাপী হয় নি? গ্রেট ক্যালকাটা কিলিং-এর নৃশংসতা ভুলে গেলেন?
না, ভুলিনি। কিন্তু আবারও ভাবুন। কারা খুন করতো? মূলতঃ সমাজবিরোধীরা। রাজনৈতিক দলের পোষা গুন্ডারা চিরকালই ছিলো। গোপাল পাঁঠা, রাম চটুজ্যেরা ছিলো। কিন্তু আমার আপনার ঘরের সন্তান? অসীম, সন্তোষ, বিমান, সুধীন, বাচ্চু, ভোন্তাই, সঞ্জু, দিলীপ, প্রদীপ।।।।।।।।।।।।।।।।।।এরা???
আমি জানি না আপনাদের কেউ কখনো খুন করতে গেছেন কি না। আমি গেছিলাম। পরিনি। তিনি আমদের শিক্ষক ছিলেন। তাকে খুন করতে আমাকে আর একজনকে পাঠানো হয়েছিলো। আমরা ওনার সামনে দাঁড়িয়ে এতো ভয় পেয়েছিলাম, যে কোনমতে পালিয়ে আসি। উনি বুঝতে পেরেছিলেন কি না, আজও জানি না। একজনকে, বিশেষ করে পরিচিত কাউকে খুন করতে গেলে যে প্রবল হিংস্রতার দরকার হয়, মধ্যবিত্ত ঘরের সন্তানদের বেড়ে ওঠার মধ্যে সেই হিংস্রতা সাধারণতঃ থাকে না। নকশাল রাজনীতি মধ্যবিত্ত মননে সেই হিংস্রতাকে মান্যতা দিয়েছে।
এটাই শুরু।
এরপর স্বাভাবিক প্রতিক্রিয়ায় অন্য রাজনীতিতেও খুন মান্যতা পেয়েছে।
আর এখন তো অন্য রাজনীতির লোককে খুন করাটা জলভাত।

উৎসাহীজনে লিখুন। আমি তো ভুলও হতে পারি।


Name:  sm          

IP Address : 2345.110.344512.222 (*)          Date:15 May 2019 -- 03:01 PM

দূর,ওসব হলো গ্যাং কালচারের প্রকারভেদ।নকশাল আমলে কিছু ছেলে পুলে,গ্যাং কালচারের মোহে পড়ে, এসব খুন জখম করে বেড়াতো।আদর্শ ছিল একটা আবরণ মাত্র।
কারণ সংগঠিত পার্টির বিরুদ্ধে কিছু করতে গেলে গ্যাং কালচার সেরা আশ্রয়।জিতে গেলে ক্ষমতা পাবার রসগোল্লা তো ঝুলছেই।
কংগ্রেস ও সিপিএম কম তান্ডব চালায় নি।কারণ তাদেরকেও ক্ষমতা ধরে রাখতে গেলে এরকম দাদাগিরি চালাতে হতো।
আজকের দিনেও ব্যাপার টা তাই।
যারা সুবিধে বাদী যেমন অসাধু বড় ব্যবসায়ী,প্রোমোটার তাঁরা স্থানীয় গুন্ডা ও রাজনতিক নেতাদের টাকা দিয়ে কিনে রাখে।
আর পাড়ার ছেলে পুলেরা পড়াশুনা করলে,বিদেশ পালায় অথবা সিন্ডিকেট নামক গ্যাং কালচার জিইয়ে রাখে।
কিছুদিন পর ভদ্র,অভদ্র নির্বিশেষে পয়সা ওয়ালা মানুষ নিজের স্বার্থেই গুন্ডা ট্যাক্স দেবে।
রাজনৈতিক দল গুলো উন্নয়ন,ফুন্নয়ন ঢপ বাজী ছেড়ে খালি প্রটেকশন দেবার কথা বলে বেড়াবে।


Name:  T          

IP Address : 561212.112.4578.134 (*)          Date:15 May 2019 -- 05:07 PM

রঞ্জনদা, আপনাদের এই 'তৃণমূল অত্যাচার করছে, বামেরা রাস্তায় নেই, তাই কর্মী সমর্থকরা বিজেপি বেছে নিচ্ছে' এই থিয়োরীর সমস্যাটা হচ্ছে যে তাহলে স্বীকার করতে হয় যে জনতা যদি বিজেপি করে তবে তৃণমূল তাদের ছাড় দিচ্ছে। তাই না? ঃ)) বিপদ তো ঃ))) এটা আরো সত্যি কারণ পবতে বিজেপির সংগঠন সেরম কিশু নাই। যতটুকু যা আছে তা শহরাঞ্চলে এবং কিছু অবাঙালী বেল্টে। অন্ততঃ তৃণমূলকে প্রতিহত করার মতন কিছু নেই, থাকলে পঞ্চায়েত ভোটে দেখা যেত। ফলে এই বামেরা রাস্তায় নেই থিয়োরী খুব কিশু খাটে না।

অন্যদিকে মহান নেত্রী ১৯৯৮ সালেই ঘোষণা করেছিলেন যে বিজেপিকে ফ্রন্টে রেখে লড়ব। কালক্রমে উত্তরাধিকার প্রাপ্তির পর সেই ফ্রন্টের শরিক হয়ে আরেসেস শাখা বিস্তার করেচে প্রচুর, হিন্দু সংহতি দুর্গা মা না কি একটা বলে খাতির করেছে। নেত্রী আনন্দে ডগমগ খেয়েচেন, ইদানীং বুঝেছেন যে ঘরে যোগসর্পের হাঁড়ি ছিল। ঃ)

অস্বীকার করার কোনো উপায়ই নেই যে বাম কর্মী সমর্থক বিজেপিতে গেছে, যেমন তৃণমূল থেকে গেছে, মানে সাংসদ, বিধায়ক, কাউন্সিলর, ছোটো নেতা মেজ নেতা ইত্যাদি। এতে অবাক হওয়ার কিছু নেই, বিজেপি পয়সা ছড়িয়েছে প্রচুর। ভাত ছড়ালে কাকের অভাব হবে না। কিন্তু প্রচার এই চলছে যে এইটা যেন বাম নেতাদের উদ্দেশ্য। য্যানো আর তাদের খেয়ে দেয়ে কাজ নেই। একদিকে লোকসভা ভোটের জন্য বাম নেতারা প্রচার কচ্চেন বিজেপিকে তাড়ান মুলোদের তাড়ান, আবার তলে তলে নাকি প্রচার হচ্ছে যে বিজেপিকেই ভোট দিন। একদম আপিশিয়াল নাকি, তাজা খবর যথা। ঃ)))) আরে এই লেভেলের সংগঠন থাকলে, মানে আপিশিয়াল প্রচার করে আবার তলে তলে মানুষকে বোঝানো, এসব হ'লে সিপিয়েম কবেই ক্ষমতায় ফিরে আসত। হ্যা হ্যা হ্যা।

দেশের অন্যান্য অংশের মতন পশ্চিমবঙ্গেও অধিকাংশ মধ্যবিত্ত সুবিধাভোগী 'হিন্দু খঁতরে মে হৈ' তে বিশ্বাস করে, হিস্ট্রি তো খুব একটা সুবিধের নয়। টু সাম এক্সটেন্ট জাতিগত চরিত্তির নির্মাণে বা উদ্ভট কোনো অপোনেন্টের এগেন্সটে নিজেরা জীবনযুদ্ধ লড়ে চলেছি এইরকম কিশু চলছে। সাচার কমিশনের রিপোর্ট দেখলে মাইনরিটির অবস্থা বোঝা যায় (অবশ্যই বাম জমানার সময়কালীন ব্যাপারও), কিন্তু এই নতুন শুবারা 'সব এসে কাটুয়ারা দখল করে নিল' এই ভয়ে ভীত। ইন আদারওয়ার্ডস 'ছাগল'। জীবনে কোনোদিন মুসলিম দেখেনি, চিরকাল কেবল হিন্দুদের সঙ্গে ঠেলাঠেলি করে ইশকুলে মোরা একই বৃন্তে দুইটি কুসুম পড়ে টড়ে, বাস ট্রাম ট্রেন মাড়িয়ে, জয়েন্টে বসে ছড়িয়ে লাট খেয়ে কম্পিটিশনে লুটে গিয়ে শেষাবধি কিশু একটা চাগ্রী জুটিয়ে বা বগল বাজিয়ে যারা মাইনরিটি অপোনেন্টের ভূত দেখে তারা ছাগলই, অন্য কিছু নয়। দলমত নির্বিশেষে। বয়স নির্বিশেষে। বাম জমানায় কোনো ভাবে এই পুঁজ রক্ত চেপে ছিল, এখন আগল খুলে গেছে। সংগঠন ছাড়াই বিজেপির ভোট বৃদ্ধি এদিকেই ইঙ্গিত করে। ফার রাইট আরো এক্সট্রিমে যাবে, মুর্তি ফুর্তি চুরমার আরো কিছু হবে, আরো কেলেংকারীর পর কখনো হয়তো শুভবুদ্ধির বা কল্লোলদা বর্ণিত সুশৃঙ্খলতার উদয় হ'বে। অ্যাসিম্পটোটিক্যালি মনে হয় ঃ))) তদ্দিন আমরা আপনাদের গাল দেব ক্যানো ভগীরথ হয়েছিলেন এই বিশ্রী কেসটার, আর আপনারা গাল দেবেন তোমাদের এলসি কেন আমার খাবার ঘরে উঁকি দিচ্ছিল। হা হা হা


Name:  sm          

IP Address : 2345.110.123412.215 (*)          Date:15 May 2019 -- 05:33 PM

এই মাকু গুলো চিরটাকাল ভাঁওতা বাজি করে এসেছে।
রাজ্যে ক্ষমতায় টিকে থাকার জন্য কংগ্রেস এর পদলেহন করে গেছে।
এখন তলে তলে বিজেপি কে ভোট দিয়ে যাচ্ছে।
ইদিকে আবার বলে বেড়াচ্ছে,তিনো,বিজেপি দুটোই খারাপ।আমরা দুজনার বিরুদ্ধেই লড়ছি।ত্রিপুরা তে বিজেপি কাছে লজ্জাজনক ভাবে হেরে,পব তে ওই বিজেপি কেই ভোট সাপ্লাই দিয়ে যাচ্ছে।পব তে কংগ্রেস এর সঙ্গে জোট করে,কেরালায় কংগ্রেস কে গালি দিচ্ছে।কেন রাহুল ভোটে কেরালা থেকে দাঁড়াচ্ছে।
জাতীয় দল, না জাতীয় গলগ্রহ!


Name:  রঞ্জন          

IP Address : 238912.68.6712.124 (*)          Date:15 May 2019 -- 09:30 PM

টি,

না , না । বিজেপির শক্তি বাড়ছে মানে এ নয় যে সিপিএম জায়গা ছেড়ে দিচ্ছে বলে হচ্ছে। এটা আদৌ বলা হচ্ছে না । একটা এফেক্টের প্পেছনে মাল্টিপল কারণ। এই তিনো কেন ্এল, হাতে গোণা বুজির বক্তিমেতে বিশাল বাম জনতা উলটো দিকে ভোট দিল আর সিপিএমের জায়গা ছাড়ায় বা তিনোরা জায়গা ছাড়ায় বিজেপি বংগে বাড়ছে -- এসব একই ধরণের অতিসরলীকরণ।
কেউ কাউকে সহজে জায়গা ছেড়ে দেয় না । ছোট লেভেলে ট্যাকটিক্যাল সমঝোতা সময় বিশেষে হতে পারে।
কোন সন্দেহ নেই বংগে তিনো থেকে বিজেপিতে গেছে , সিপিএম এ আসে নি । সিপিএম থেকে বিজেপি তিনো দু'দিকেই কিছু গেছে। যেমন আপনি বলেছেন।
কিন্তু কেরলে বা ত্রিপুরায় সিপিএম থেকে বুজেপিতে যায় নি --খেয়াল করুন।
এহ বাহ্য।
আসল কথা হল অনেক ডিন ধরেই বঙ্গের মধ্যবিত্ত বাঙালীর একটা অংশ ও গাঁয়ের দিকে গরীব মানুষের অসহায়তা জনিত ফ্রাস্ট্রেশন এই জমি তৈরি করে রেখেছে।
প্রাথমিক ট্রিগার হল তিনো সরকারের রোজগার দিতে এবং শিল্পের বিকাশ ঘটাতে ব্যর্থতা ও মুসলমানদের বাস্তবিক উন্নয়নের বদলে কিছু নেতাকে সুবিধে দিয়ে কসমেটিক সাহায্য। এর ফলে বিজেপির মেরুকরণ সহজ হয়েছে।
এলেবেলে যেটা বলছেন আর আমিও ভয় পাচ্ছি যে কিছু সাধারণ মানুষের বাম ভোট বিজেপিতে ট্রান্সফার হবে। আমার বিশাল বাম পরিবারে দুটো ইউনিটের সম্ভাবনা দেখছি। কিছু বাম ব্যক্তিগত ছোটবেলার বন্ধুদের মধ্যে দেখছি। ভয় পাচ্ছি। বাকি কথা ২৩শের পর।



Name:  sm          

IP Address : 2345.110.344512.198 (*)          Date:15 May 2019 -- 09:50 PM

রঞ্জনবাবুর এনালিসিস ঠিক মনপসন্দ হলো না।বর্তমান সরকার, গ্রামে প্রচুর কাজ করেছে।রাস্তাঘাটের উন্নয়ন হয়েছে।কন্যাশ্রী,সবুজসাথী,এসব প্রকল্পের সুবিধা অনেকেই পেয়েছে।
এমপ্লয়মেন্ট জেনারেশন এর ক্ষেত্রে পব বেশ এগিয়ে।
প্রবলেম দুটো জায়গায়।অন্তর্দ্বন্দ্ব প্রচুর।সিন্ডিকেট বাজি ভালোরকম বিদ্যমান।
আর একটা খারাপ দিক হলো গত পঞ্চায়েত ইলেকশনে উইদাউট কনটেস্ট বহু কেন্দ্রে হওয়ায়,বহুলোক ভোট দিতে পারে নি।
গত একমাস মমতা প্রচুর পরিশ্রম করেছেন।সারা বাংলা চষে বেড়িয়ে ,অন্তর্দ্বন্দ্ব অনেক মিটিয়ে দিয়েছেন।সুতরাং তৃণমূল ভালো ফল করলে,মমতা অনেকটা কৃতিত্বের দাবি করতে পারবেন।
বাকি দুটো নেগেটিভ ফ্যাক্টর রয়েই গেল।আর বিজেপির পক্ষে পড়ে পাওয়া আধুলি বাম ভোটের ঝুলি তো আছেই।


Name:  Du          

IP Address : 237812.58.890112.105 (*)          Date:15 May 2019 -- 10:45 PM

এইটা একটা সুকৌশলী প্রচারও বটে বিজেপির। রীতিমত বানানো ভিডিও ঘুরছে। যেটা আমরা প্রতিবাদ করতে পারি, পুরো প্রেসের ব্ল্যাকআউটের উল্টোদিকে সুস্থ রাজনীতিকে সাপোর্ট করতে পারি অথবা আবারও এইরকম মিথ্যে প্রচারকে ভল্যুম দিতে পারি।



Name:  aranya          

IP Address : 3478.160.342312.238 (*)          Date:16 May 2019 -- 08:08 AM

'এমপ্লয়মেন্ট জেনারেশন এর ক্ষেত্রে পব বেশ এগিয়ে' - সিভিক ভলান্টিয়ার নিয়োগ ছাড়া আর কোন কোন ক্ষেত্রে এম্প্লয়মেন্ট জেনারেটেড হয়েছে? নতুন কোন শিল্প তৈরী হয়েছে? বন্ধ কারখানা খুলেছে?


Name:  মানিক          

IP Address : 78900.84.6767.126 (*)          Date:16 May 2019 -- 08:16 AM

তোলা তোলার এজেন্টদের কি এমপ্লয়েড বলে ধরা হবে? চাকরির তোলা, কলেজ ভর্তির তোলা এসবের পরিমাণ যা শুনি তাতে ৭৫-২৫ ভাগ হলেও ভাল চাকরি।


Name:  pi          

IP Address : 7845.29.892312.108 (*)          Date:16 May 2019 -- 08:51 AM

চাকরি পেতে,
যোগ্যতা থাকলেও কী পরিমাণ টাকা খাওয়াতে হয় তানিয়ে এস এমের কোন আইডিয়া আছে? তৃণমূল না, তৃণমূলস্তরে লোকজনের সঙ্গে একটু কথা বলে দেখুন না!


Name:  PT          

IP Address : 340123.110.234523.20 (*)          Date:16 May 2019 -- 09:00 AM

৩ লাখঃ সিভিক ভলেন্টিয়ার
৬ লাখ (মাথাপিছু)ঃ কলেজ টিচারের মিউচুয়াল ট্রান্সফার (সরাসরি এমপি-র সঙ্গে আলোচনা)
৮-১০ লাখঃ প্রাইমারি স্কুল টিচার


Name:  lcm          

IP Address : 900900.0.0189.158 (*)          Date:16 May 2019 -- 09:47 AM

The vandalism of Ishwar Chandra Vidyasagar’s statue, allegedly by BJP cadres has given West Bengal Chief Minister Mamata Banerjee exactly what she wanted: an opportunity to hit the streets and invoke Bengali nationalism against the BJP.

While the TMC’s vote share seems stable, the real churn is in the anti-TMC space. In the 2014 Lok Sabha elections, the Left Front was the main opposition with 30 percent of the vote, the BJP did reasonably well at 17 percent while the Congress got just 9.7 percent. In 2016 Assembly polls, the Left and Congress fought in alliance but the TMC swept the state, getting nearly 45 percent of the vote.

While few deny that BJP is making gains in Bengal in terms of vote share, it isn’t clear if that will translate into seats. Many say that the party may not be able to cross single digits.

This time, BJP appears to be gaining at the expense of the Left. BJP could get 35 percent of the vote, leaving the Left behind at 15 percent. Congress, too, is predicted to face some losses, but at the hands of the TMC.


Name:  T          

IP Address : 670112.197.560123.157 (*)          Date:16 May 2019 -- 09:54 AM

যাক আবাপও শেষে ছাগল থিয়োরি মেনে নিল
https://www.anandabazar.com/editorial/lok-sabha-election-2019-bengalis
-should-not-support-bjp-after-vidyasagar-college-vandalization-1.99305
9



Name:  lcm          

IP Address : 900900.0.0189.158 (*)          Date:16 May 2019 -- 09:59 AM

বোঝো! তার মানে অত বছর ধরে বামেরা ছাগল তৈরি করল, যে ছাগলেরা তিনোকে ভোট দিয়েছে, এখন বিজেপিকে ভোট দেবে। প্রশ্ন হল - এমন ছাগল প্রোডাক্শন ইউনিট থাকতে ভাগাড়ের মাংস বাজার ধরল কি করে !


Name:  PT          

IP Address : 340123.110.234523.23 (*)          Date:16 May 2019 -- 10:06 AM

"এর আগে বিজেপির হাতে ভেঙেছেন লেনিন কিংবা অম্বেডকর। বাঙালি বাম ও দলিতরা দুঃখ পেয়েছেন, বাকিরা পাননি, এ কান দিয়ে শুনে ও কান দিয়ে বার করেছেন।"

হয়্ত ইচ্ছে করেই কিছু বলেনি যাদের বলার কথা।

সেমন্তী ঘোষ ইচ্ছে করেই ভুলেছেন তিনোদের অনশন মঞ্চে বিজেপি নেতাদের উপস্থিতির কথা। সেসময়ে তিনি এমন কোন আবেগমথিত নিবন্ধও লেখেননি। কেননা সেটা ছিল "যে আসে আসুক (বিজেপি সহ?), সিপিএম যাক"-এর সময়কাল।



Name:  dc          

IP Address : 232312.164.453423.155 (*)          Date:16 May 2019 -- 10:14 AM

আর এখন হলো "যে আসে আসুক (বিজেপি সহ?), তিনো যাক"-এর সময়কাল?


Name:  মানিক          

IP Address : 78900.84.6767.126 (*)          Date:16 May 2019 -- 10:14 AM

বামেদের ছাগল তৈরীর কথা শুনে সেই শিশু হাসপাতালে বাচ্চা মারা যাবার ঘটনা মনে এল। মমতা বলেছিলেন এই বাচ্চারা সিপিএম আমলে পেটে এসেছে, বা ওই রকম কিছু। ভেতরের মানে, সুতরাং এরা মরেছে সেটা সিপিএমের দায়।




Name:  PT          

IP Address : 340123.110.234523.23 (*)          Date:16 May 2019 -- 10:17 AM

dc
ঐ তত্বটি প্রশ্নাকারে বা যেভাবেই হোক আপনিই প্রথম জনসমক্ষে আনলেন!! তবে আপনার প্রশ্নের উত্তর সব চাইতে ভাল দিতে পারবেন ঐজাতীয় তত্বের আদি জনক-জননীরা।

এই সুতোর পাতাগুলি [1] [2] [3] [4] [5] [6] [7] [8] [9] [10] [11] [12] [13] [14] [15] [16] [17] [18] [19] [20] [21] [22] [23] [24] [25] [26] [27] [28] [29] [30] [31] [32] [33] [34] [35] [36] [37] [38] [39] [40] [41] [42] [43] [44] [45] [46] [47] [48] [49] [50] [51] [52] [53] [54] [55] [56] [57] [58]     এই পাতায় আছে781--810