RSS feed

দ'এর খেরোর খাতা।

আরও পড়ুন...
সাম্প্রতিক লেখালিখি RSS feed
  • কাশ্মীরের ইতিহাস : পালাবদলের ৭৫ বছর
    কাশ্মীরের ইতিহাস : পালাবদলের ৭৫ বছর - সৌভিক ঘোষালভারতভুক্তির আগে কাশ্মীর১ব্রিটিশরা যখন ভারত ছেড়ে চলে যাবে এই ব্যাপারটা নিশ্চিত হয়ে গেল, তখন দুটো প্রধান সমস্যা এসে দাঁড়ালো আমাদের স্বাধীনতার সামনে। একটি অবশ্যই দেশ ভাগ সংক্রান্ত। বহু আলাপ-আলোচনা, ...
  • গাম্বিয়া - মিয়ানমারঃ শুরু হল যুগান্তকারী মামলার শুনানি
    নেদারল্যান্ডের হেগ শহরে অবস্থিত আন্তর্জাতিক বিচার আদালতে (ইন্টারন্যাশনাল কোর্ট অব জাস্টিস—আইসিজে) মিয়ানমারের বিরুদ্ধে করা গাম্বিয়ার মামলার শুনানি শুরু হয়েছে আজকে। শান্তি প্রাসাদে শান্তি আসবে কিনা তার আইনই লড়াই শুরু আজকে থেকে। নেদারল্যান্ডের হেগ শহরের পিস ...
  • রাতপরী (গল্প)
    ‘কপাল মানুষের সঙ্গে সঙ্গে যায়। পালানোর কি আর উপায় আছে!’- এই সপ্তাহে শরীর ‘খারাপ’ থাকার কথা। কিন্তু, কিছু টাকার খুবই দরকার। সকালে পেট-না-হওয়ার ওষুধ গিলে, সন্ধেয় লিপস্টিক পাউডার ডলে প্রস্তুত থাকলে কী হবে, খদ্দের এলে তো! রাত প্রায় একটা। এই গলির কার্যত কোনো ...
  • রাতপরী (গল্প)
    ‘কপাল মানুষের সঙ্গে সঙ্গে যায়। পালানোর কি আর উপায় আছে!’- এই সপ্তাহে শরীর ‘খারাপ’ থাকার কথা। কিন্তু, কিছু টাকার খুবই দরকার। সকালে পেট-না-হওয়ার ওষুধ গিলে, সন্ধেয় লিপস্টিক পাউডার ডলে প্রস্তুত থাকলে কী হবে, খদ্দের এলে তো! রাত প্রায় একটা। এই গলির কার্যত কোনো ...
  • বিনম্র শ্রদ্ধা অজয় রায়
    একুশে পদকপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপক, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষক অজয় রায় (৮৪) আর নেই। সোমবার ( ৯ ডিসেম্বর) দুপুরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ঢাকার একটি হাসপাতালে শেষনিশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। অধ্যাপক অজয় দীর্ঘদিন বার্ধক্যজনিত নানা অসুখে ভুগছিলেন।২০১৫ ...
  • আমাদের চমৎকার বড়দা প্রসঙ্গে
    ইয়ে, স-অ-অ-অ-ব দেখছে। বড়দা সব দেখছে। বড়দা স্রেফ দেখেনি ওইখানে এক দিন রাম জন্মালেন, তার পর কারা বিদেশ থেকে এসে যেন ভেঙেটেঙে মসজিদ স্থাপন করল, কেন না বড়দা তখন ঘুমোচ্ছিলেন। ঘুম ভাঙল যখন, চোখ কচলেটচলে দেখলেন মস্ত ব্যাপার এ, বড়দা বললেন, ভেঙে ফেলো মসজিদ, জমি ...
  • ধর্ষকের মৃত্যুদন্ড দিলেই সব সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে ?
    যেকোন নারকীয় ধর্ষণের ঘটনা সংবাদ মাধ্যমে প্রতিফলিত হয়ে সামনে আসার পর নাগরিক হিসাবে আমাদের একটা ঈমানি দায়িত্ব থাকে। দায়িত্বটা হল অভিযুক্ত ধর্ষকের কঠোরতম শাস্তির দাবি করা। কঠোরতম শাস্তি বলতে কারোর কাছে মৃত্যুদন্ড। কেউ একটু এগিয়ে ধর্ষকের পুরুষাঙ্গ কেটে নেওয়ার ...
  • তোমার পূজার ছলে
    বাঙালি মধ্যবিত্তের মার্জিত ও পরিশীলিত হাবভাব দেখতে বেশ লাগে। অপসংস্কৃতি নিয়ে বাঙালি চিরকাল ওয়াকিবহাল ছিল। আজও আছে। বেশ লাগে। কিন্তু, বুকে হাত দিয়ে বলুন, আপনার প্রবল ক্ষোভ ও অপমানে আপনার কি খুব পরিশীলিত, গঙ্গাজলে ধোওয়া আদ্যন্ত সাত্ত্বিক শব্দ মনে পড়ে? না ...
  • The Irishman
    দা আইরিশম্যান। সিনেমা প্রেমীদের জন্য মার্টিন স্করসিসের নতুন বিস্ময়। ট্যাক্সি ড্রাইভার, গুডফেলাস, ক্যাসিনো, গ্যাংস অব নিউইয়র্ক, দা অ্যাভিয়েটর, দ্য ডিপার্টেড, শাটার আইল্যান্ড, দ্য উল্ফ অব ওয়াল স্ট্রিট, সাইলেন্টের পরের জায়গা দা আইরিশম্যান। বর্তমান সময়ের ...
  • তোকে আমরা কী দিইনি?
    পূর্ণেন্দু পত্রী মশাই মার্জনা করবেন -********তোকে আমরা কী দিইনি নরেন?আগুন জ্বালিয়ে হোলি খেলবি বলে আমরা তোকে দিয়েছি এক ট্রেন ভর্তি করসেবক। দেদার মুসলমান মারবি বলে তুলে দিয়েছি পুরো গুজরাট। তোর রাজধর্ম পালন করতে ইচ্ছে করে বলে পাঠিয়ে দিয়েছি স্বয়ং আদবানীজীকে, ...


বইমেলা হোক বা নাহোক চটপট নামিয়ে নিন রঙচঙে হাতে গরম গুরুর গাইড ।

মাসকাবারি বইপত্তর

অত্যন্ত লজ্জার সাথে স্বীকার করি, আমি রিজিয়া রহমানের নামও জানতাম না। কখনও কোনও আলোচনাতেও শুনি নি। এঁর নাম প্রথম দেখলাম কুলদা রায়ের দেয়ালে, রিজিয়া রহমানের মৃত্যুর পরে অল্প কিছু কথা লিখেছেন। কুলদা'র সংক্ষিপ্ত মূল্যায়নটুকু পড়ে খুবই আগ্রহ জাগে, কুলদা তৎক্ষণাৎ দুটি বইয়ের ই-কপির খোঁজও দেন। এরপরেরদিনই একটি বইয়ের গ্রুপে রিজিয়া রহমানের 'ইজ্জত' গল্পটি পড়ে তীক্ষ্ণ, শক্তিশালী একটি কলমের আন্দাজ পেয়েছিলাম।
.
আজ প্রায় একবসায় শেষ করলাম 'রক্তের অক্ষরে'। কি আশ্চর্য্য লেখনী! নেকুপুষু আতুপুতু মধ্যবিত্তপনার গল্প লেখেন নি ভদ্রমহিলা, এক জোরালো চাবুক সপাটে মেরেছেন প্রচলিত ব্যবস্থা, সমাজ, গুছিয়ে নেওয়া ভদ্রজনের মুখের উপরে। এ গল্প বাংলাদেশের যৌনকর্মীদের এক পাড়ার গল্প, যেখানে নানা জায়গা থেকে মেয়েদের ভুলিয়ে বা চুরি করে নিয়ে এসে বিক্রি করে যায় মেয়েধরা দালালরা। বিবিধ মূল্যে কেনা সেই মেয়েদের দাম উশুল হয় প্রতিদিন খাবলে খুবলে কামড়ে কুমড়ে নেওয়া নারীমাংসে। সেই রৌরব নরকে এক কেমনধারা মেয়ে ইয়াসমিন, বাংলাদেশ সরকারের দেওয়া 'বীরাঙ্গনা' খেতাবপ্রাপ্ত। সেকথা অবশ্য পাড়ার অন্য মেয়েরা জানে না, তারা শুধু জানে ইয়াসমিন যেন কেমন, সবদিন ঘরে খদ্দের বসায় না, ঝগড়াঝাঁটি করে না, রোজ কাগজ পড়ে, বই পড়ে আর একবার যে খদ্দের ইয়াসমিনের ঘরে যায় সে দ্বিতীয়বার আর ওমুখো হয় না।
.
এই 'বীরাঙ্গনা' খেতাবটি স্বাধীন বাংলাদেশ সরকার মুক্তিযুদ্ধে ধর্ষিতা সমস্ত মেয়েকে দিয়েছিল। এটা নিয়ে যে প্রশ্নটা ভাবায়, সব মহিলাই হয়ত মুক্তিযুদ্ধে স্বে্ছায় বা অনিচ্ছায় সরাসরি যুক্ত হন নি, অনেকে হয়ত এমনিই আচমকা খানসেনাদের দ্বারা আক্রান্ত হয়েছেন, অথবা গ্রাম বা বাড়িসুদ্ধ পুরুষকে মেরে ফেলে মেয়েদের লুঠে নিয়ে গেছে, যেমনটা প্রায় সব যুদ্ধেই হয়। পার্টিশানের সময়ও হয়েছে বহু, সব্পক্ষেই। মেয়েরা তো আফটার অল লুটের মাল হিসেবেই গ্রাহ্য অন্তত পৃথিবীর এই কোণটাতে তো বটেই। তা যাঁরা যুদ্ধে সক্রিয় অংশগ্রহণকারিণী নন কিন্তু ধর্ষণের শিকার তাঁদের তো আইনত বিচার পাওয়ার কথা, এটা ফৌজদারী অপরাধ সেই অনুযায়ীই বিচার পাওয়ার কথা। তো, একটা যথেষ্ট হোস্টাইল সমাজে বিচার বা উপযুক্ত সমাজ সংস্কারের বদলে একটা খেতাব দিয়ে আসলে কতটুকু সুবিধে হয়? এই বইয়ে ইয়াসমিনের আখ্যানটুকু এই প্রশ্নটিকেই একেবারে রক্ত মাংসের চেহারায় সামনে দাঁড় করিয়ে দিল।
.
তা'বলে এ বই শুধুই ইয়াসমিনের গল্প বলে না, বলে বকুল বা জাহান-আরার গল্পও বলে, বলে ক্ষমতার ভারসাম্য বদলের গল্পও। বলে নিরুপায় শিশুদের খদ্দের না নিলে দিনের পর দিন মার খাওয়ার, উপোসী থাকার হিংস্র গল্প। আর এইসবকিছুর শেষে পড়ে থাকে এক দমবন্ধ শূন্যতা ও অপার অন্ধকার, জীবনে যেমনটা হয় আর কি।
.
এমন আশ্চর্য্য শক্তিশালী কলমের খোঁজ আগে পাইনি কেন! খোঁজ দেওয়ার জন্য কুলদা রায়কে অজস্র কৃতজ্ঞতা।
.
বইঃ 'রক্তের অক্ষর'
লেখকঃ রিজিয়া রহমান

449 বার পঠিত (সেপ্টেম্বর ২০১৮ থেকে)

শেয়ার করুন


Avatar: দ

Re: মাসকাবারি বইপত্তর

#
Avatar: Ela

Re: মাসকাবারি বইপত্তর

পড়ার ইচ্ছে রইল।

সমাজ সংস্কারের আগে তো নিজেদের সংস্কারের প্রয়োজন। সেটা যে সহজ কাজ নয়। তার থেকে একটা খেতাব বা ক্ষতিপূরণ দিয়ে দেওয়া তো দু’মিনিটের মামলা। ওতেই লোকে ধন্য ধন্য করে।

সার্থক জনম মাগো, জন্মেছি এই দেশে
সার্থক জনম মাগো তোমায় ভালোবেসে
Avatar: i

Re: মাসকাবারি বইপত্তর

মাসকাবারি বই পত্তরের কথা কিঞ্চিৎ ঘন ঘন হউক। খুব দরকার।
Avatar: দ

Re: মাসকাবারি বইপত্তর

এলা ই-কপিতে অসুবিধে না হলে এখান থেকে নামিয়ে নিতে পারেন

http://www.amarboi.com/2015/11/rokter-okkhor-rijiya-rahman.html?m=1&am
p;fbclid=IwAR3QWpzw8T9BVeFXkb0FHTgwnrMuHZvV4cbzOClj3d-WAgg9RTqY4rZv8ww


ছোটাই, ☺
Avatar: avi

Re: মাসকাবারি বইপত্তর

এই বইটার রিভিউ ফেসবুকে দ-দির দেওয়া দেখে নামিয়ে পড়লাম এই দুদিনে। একটানা পুরোটা পড়া যায় নি। থেমে থেমে পড়লাম। চাবুক লেখা। নির্লিপ্তি ভাবটা খুব জোরালো।
Avatar: Ela

Re: মাসকাবারি বইপত্তর

দ, অনেক অনেক ধন্যবাদ।

ই-বুকে আবার অসুবিধে কী, এখন তো এটাই সবথেকে সুবিধে হয়। পড়ে জানাবো।
Avatar: Ela

Re: মাসকাবারি বইপত্তর

দ, পড়ে জানাবো লিখেছিলাম। তাই বলতে এলাম। যদিও বলার কিছু নেই। বড্ড কষ্ট। ফুলমতীর বাচ্চাটার মত একবার চিৎকার করতে পারলে…

আবারও, অনেক ধন্যবাদ আপনাকে বইটি পড়ানোর জন্য।
Avatar: দ

Re: মাসকাবারি বইপত্তর

দু'কথা লিখে দেওয়ায় অভি আর এলা পড়ে ফেললেন - আক আরো টুকটাক লিখে রাখা যাবে নিশ্চিন্তে।
Avatar: স্বাতী রায়

Re: মাসকাবারি বইপত্তর

বইটা পড়লাম। এক সিটিং এই। বলিষ্ঠ লেখা । তবু মনে হল আরও কিছু পাওয়ার ছিল - শেষটা কেমন জোর করে শেষ করা মনে হল।

এই কলাম টা রেগুলার হোক।
Avatar: দ

Re: মাসকাবারি বইপত্তর

আচ্ছা ভিন্নমত পাওয়া গেল।
Avatar: দ

Re: মাসকাবারি বইপত্তর

আচ্ছা ভিন্নমত পাওয়া গেল।


আপনার মতামত দেবার জন্য নিচের যেকোনো একটি লিংকে ক্লিক করুন