জান্নাতুল ফেরদৌস লাবণ্য RSS feed

জান্নাতুল ফেরদৌস লাবণ্যের খেরোর খাতা।

আরও পড়ুন...
সাম্প্রতিক লেখালিখি RSS feed
  • ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা... বাংলাদেশের রাজনীতির গতিপথ পরিবর্তন হওয়ার দিন
    বিএনপি এখন অস্তিত্ব সংকটে আছে। কিন্তু কয়েক বছর আগেও পরিস্থিতি এমন ছিল না। ক্ষমতার তাপে মাথা নষ্ট হয়ে গিয়েছিল দলটার। ফলাফল ২০০৪ সালের ২১ আগস্টে তৎকালীন বিরোধীদলীয় নেত্রী শেখ হাসিনাকে গ্রেনেড মেরে হত্যার চেষ্টা। বিরোধীদলের নেত্রীকে হত্যার চেষ্টা করলেই ...
  • তোমার বাড়ি
    তোমার বাড়ি মেঘের কাছে, তোমার গ্রামে বরফ আজো?আজ, সীমান্তবর্তী শহর, শুধুই বেয়নেটে সাজো।সারাটা দিন বুটের টহল, সারাটা দিন বন্দী ঘরে।সমস্ত রাত দুয়ারগুলি অবিরত ভাঙলো ঝড়ে।জেনেছো আজ, কেউ আসেনি: তোমার জন্য পরিত্রাতা।তোমার নমাজ হয় না আদায়, তোমার চোখে পেলেট ...
  • বার্সিলোনা - পর্ব ২
    বার্সিলোনা আসলে স্পেনের শহর হয়েও স্পেনের না। উত্তর পুর্ব স্পেনের যেখানে বার্সিলোনা, সেই অঞ্চল কে বলা হয় ক্যাটালোনিয়া। স্বাধীনদেশ না হয়েও স্বশাসিত প্রদেশ। যেমন কানাডায় কিউবেক। পৃথিবীর প্রায় সব দেশেই মনে হয় এরকম একটা জায়গা থাকে, দেশি হয়েও দেশি না। ...
  • বার্সিলোনা - পর্ব ১
    ঠিক করেছিলাম আট-নয়দিন স্পেন বেড়াতে গেলে, বার্সিলোনাতেই থাকব। বেড়ানোর সময়টুকুর মধ্যে খুব দৌড় ঝাঁপ, এক দিনে একটা শহর দেখে বা একটা গন্তব্যের দেখার জায়গা ফর্দ মিলিয়ে শেষ করে আবার মাল পত্তর নিয়ে পরবর্তী গন্তব্যের দিকে ভোর রাতে রওনা হওয়া, আর এই করে ১০ দিনে ৮ ...
  • লাল ঝুঁটি কাকাতুয়া
    -'একটা ছিল লাল ঝুঁটি কাকাতুয়া।আর ছিল একটা নীল ঝুঁটি মামাতুয়া।'-'এরা কারা?' মেয়েটা সঙ্গে সঙ্গে চোখ বড়ো করে অদ্ভুত লোকটাকে জিজ্ঞেস করে।-'আসলে কাকাতুয়া আর মামাতুয়া এক জনই। ওর আসল নাম তুয়া। কাকা-ও তুয়া বলে ডাকে, মামা-ও ডাকে তুয়া।'শুনেই মেয়েটা ফিক করে হেসে ...
  • স্টার্ট-আপ সম্বন্ধে দুচার কথা যা আমি জানি
    স্টার্ট-আপ সম্বন্ধে দুচার কথা যা আমি জানি। আমি স্টার্ট-আপ কোম্পানিতে কাজ করছি ১৯৯৮ সাল থেকে। সিলিকন ভ্যালিতে। সময়ের একটা আন্দাজ দিতে বলি - গুগুল তখনও শুধু সিলিকন ভ্যালির আনাচে-কানাচে, ফেসবুকের নামগন্ধ নেই, ইয়াহুর বয়েস বছর চারেক, অ্যামাজনেরও বেশি দিন হয়নি। ...
  • মৃণাল সেন : এক উপেক্ষিত চলচ্চিত্রকার
    [আজ বের্টোল্ট ব্রেশট-এর মৃত্যুদিন। ভারতীয় চলচ্চিত্রে যিনি সার্থকভাবে প্রয়োগ করেছিলেন ব্রেশটিয় আঙ্গিক, সেই মৃণাল সেনকে নিয়ে একটি সামান্য লেখা।]ভারতীয় চলচ্চিত্রের ইতিহাসে কীভাবে যেন পরিচালক ত্রয়ী সত্যজিৎ-ঋত্বিক-মৃণাল এক বিন্দুতে এসে মিলিত হন। ১৯৫৫-তে মুক্তি ...
  • দময়ন্তীর সিজনস অব বিট্রেয়াল পড়ে
    পড়লাম সিজনস অব বিট্রেয়াল গুরুচন্ডা৯'র বই দময়ন্তীর সিজনস অব বিট্রেয়াল। বইটার সঙ্গে যেন তীব্র সমানুভবে জড়িয়ে গেলাম। প্রাককথনে প্রথম বাক্যেই লেখক বলেছেন বাঙাল বাড়ির দ্বিতীয় প্রজন্মের মেয়ে হিসেবে পার্টিশন শব্দটির সঙ্গে পরিচিতি জন্মাবধি। দেশভাগ কেতাবি ...
  • দুটি পাড়া, একটি বাড়ি
    পাশাপাশি দুই পাড়া - ভ-পাড়া আর প-পাড়া। জন্মলগ্ন থেকেই তাদের মধ্যে তুমুল টক্কর। দুই পাড়ার সীমানায় একখানি সাতমহলা বাহারী বাড়ি। তাতে ক-পরিবারের বাস। এরা সম্ভ্রান্ত, উচ্চশিক্ষিত। দুই পাড়ার সাথেই এদের মুখ মিষ্টি, কিন্তু নিজেদের এরা কোনো পাড়ারই অংশ মনে করে না। ...
  • পরিচিতির রাজনীতি: সন্তোষ রাণার কাছে যা শিখেছি
    দিলীপ ঘোষযখন স্কুলের গণ্ডি ছাড়াচ্ছি, সন্তোষ রাণা তখন বেশ শিহরণ জাগানাে নাম। গত ষাটের দশকের শেষার্ধ। সংবাদপত্র, সাময়িক পত্রিকা, রেডিও জুড়ে নকশালবাড়ির আন্দোলনের নানা নাম ছড়িয়ে পড়ছে আমাদের মধ্যে। বুঝি না বুঝি, পকেটে রেড বুক নিয়ে ঘােরাঘুরি ফ্যাশন হয়ে ...


বইমেলা হোক বা নাহোক চটপট নামিয়ে নিন রঙচঙে হাতে গরম গুরুর গাইড ।

চিন্তা

জান্নাতুল ফেরদৌস লাবণ্য

:আচ্ছা লাবণ্য তুমি কি করো?

আমি গম্ভীর গলায় জবাব দিলাম, আমি চিন্তা করি।

:কি চিন্তা করো?

-অনেক গুরুত্বপূর্ণ চিন্তা করি। দেশের সব লেটেস্ট নিউজগুলো তো আমাকেই সবার আগে আগে ফেসবুকে আপডেট দিতে হয়! সেখান থেকে শেয়ার হয়ে ছড়িয়ে পড়ে।

সদ্য বিসিএস ক্যাডার হ‌ওয়া অনিক অবাক হয়ে আমার দিকে তাকালো।

আমরা বসে আছি H20 রেস্টুরেন্টে। আজকাল নতুন একটা রীতি হয়েছে। কনে দেখাদেখি বাড়িতে না হয়ে রেস্টুরেন্টে হচ্ছে। আমার জন্য ভালো হয়েছে। মন খুলে আলাপ করা যাবে। ইদানিং আমার কর্মকাণ্ডে আমার কোন ফ্রেন্ড‌ই বেশীদিন লাস্টিং করছে না। কোম্পানি হিসেবে আমি খুব বেশী ভালো না।

অনিক অবাক হয়ে প্রশ্ন করলো, আমি জানতে চাইছি এমনিতে তুমি কি করো? পড়াশোনা ছাড়া তোমার আর হবি কি?

আমি পুনরায় এক‌ই জবাব দিলাম, চিন্তা করা।

অনিক বললো,ঘরে বসে এত কি চিন্তা করো?

আমি বললাম,এত কি চিন্তা করি মানে! আমার চিন্তার শেষ আছে? এই ধরেন সকালে উঠে ফুচকা খাবো না চটপটি, এইটা চিন্তা করি। তারপর চা খাবো না কফি। কফি কি ক্রিম মিশিয়ে খাবো না কালো? তারপর মুভি দেখতে বসে চিন্তা করি তামিল দেখবো না তেলেগু। কাটাপ্পা কেন বাহুবালীকে মেরেছিলো?অনুশকা শেট্টি বেশী সুন্দর না সামান্থা? সালমান খানের কি ক্যাটরিনার সাথে রিলেশন চলে? দীপিকার বরের ড্রেসিং সেন্স এত খারাপ কেন? তারপর ধরেন রিফাত যে মারা গেল সেখানে মিন্নির দোষ কতখানি? সারেগামাপায় নোবেলকে থার্ড করা হলো কেন? সালমান জেসিয়া কিভাবে সমাজটা ধ্বংস করে দিচ্ছে? আর্জেন্টিনা সাপোর্টাররা কি দেখে আর্জেন্টিনা সাপোর্ট করে? প্রতিবার ভারত বিশ্বকাপ কেন পায়? জয়া আহসান আর রশিদ খানের বয়স কেন বাড়ে না? তারপর ধরেন.........

অনিক আমাকে থামিয়ে দিয়ে লম্বা লম্বা শ্বাস নিতে শুরু করলো। কি আশ্চর্য! কথা বলছি আমি দম আটকে গেছে তার!

:লাবণ্য! আমার সম্ভবত হার্ট অ্যাটাক হবে!

বলতে বলতে অনিক বুকে হাত দিল। আমি জ্ঞান দেয়ার ভঙ্গিতে বললাম, নো টেনশন! হার্ট অ্যাটাক হলে হবে! ৮০% মুভিতে দেখা যায় হার্ট অ্যাটাক হলে মানুষ মরে না। আপনার হার্ট এটাক হলে আমি রক্ত দেবো। ইনফ্যাক্ট আপনার যাই হোক আমি রক্ত দেবো। রক্ত নিয়ে ভাববেন না।

: রক্ত নিয়ে ভাববো না কেন?

-কারণ এখন আমি আপনার নায়িকা! আপনার যা কিছু হোক রক্ত দিয়ে আপনাকে বাঁচানো আমার দায়িত্ব! বাই দা ওয়ে,আপনার রক্তের গ্রুপ কি?

অনিক বুক থেকে হাত নামিয়ে সোজা হয়ে বসলো। আমার দিকে খানিকক্ষণ তাকিয়ে থেকে বললো, তোমার জীবনের লক্ষ্য কি?

আমি হাসিমুখে বললাম,ওয়ান মিলিয়ন লাইক। ফেসবুকে একটা স্ট্যাটাস দিয়ে ওয়ান মিলিয়ন লাইক পেতে চাই। তারপর ধরেন, তামিল আর তেলেগু যত মুভি আছে সব দেখে শেষ করতে চাই। তারপর চাই যে,আমার যে বর হবে মানে আপনি! আমরা দুইজন একটা জোশ কাপল পিক তুলবো সেটা ফেসবুকে মিনিমাম ত্রিশ হাজার লাইক পাবে। কি বুঝলেন?

অনিক হতাশ চোখে তাকিয়ে আছে। তারপর বললো, সরি!! এ বিয়েটা হচ্ছে না।

আমি অবাক হয়ে বললাম, কেন হচ্ছে না? বিয়ে না হলে তো আপনার সাথে এসব গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলো নিয়ে আমি আলোচনা করতে পারবো না! আমার কোনো বন্ধুও নাই। এইগুলা আলোচনা করার জন্য আমার আপনাকে চাই।

অনিক বললো, তুমি কখনো বিসিএস দেয়ার ব্যাপারে ভেবেছো? চাকরি বাকরি এসবের ব্যাপারে?

আমি অবাক গলায় বললাম, চাকরি! কিন্তু কেন? আপনি তো চাকরি করবেন‌ই! আপনার ইনকামে আমাদের চলে যাবে না?

: হ্যাঁ! তা যাবে! তাই বলে কি তুমি চাকরির চিন্তা করবা না?

আমি উপদেশ দেয়ার ভঙ্গিতে বললাম, এই দেশে দারিদ্র্যতা আর বেকারত্বের হার সম্পর্কে আপনার ধারণা আছে? কত ছেলে আছে তার চাকরীর ওপরে তার পুরো পরিবার আশা করে আছে। যেহেতু আপনার ইনকামে আমাদের সংসার চলে যাবে সুতরাং কেন আমি চাকরির বাজারে একটা জায়গা অকারণে দখল করে বসে থাকবো? সেটা একটা গরীব ছেলের জন্য ছেড়ে দেয়া ভালো!

অনিক বিস্ফারিত চোখে তাকিয়ে বললো, এইজন্য তুমি বিশ্ববিদ্যালয়েও এডমিশন পরীক্ষা দাওনি?

আমি হাসিমুখে জবাব দিলাম, অবশ্যই! খামাখা একজন মেধাবী ছাত্রের সিট দখল করে কি লাভ! আর তাছাড়া আমার জরুরী কাজ থাকে।

:কি এমন কাজ থাকে তোমার?

-বাহ! এতক্ষণ কি বললাম? দেশের লেটেস্ট আপডেটগুলো নিয়ে ফেসবুকে আলোচনা সমালোচনা করা,সাউথ ইন্ডিয়ান মুভি নিয়ে গবেষণা আর........

অনিক আমাকে থামিয়ে দিয়ে বললো, আচ্ছা! আচ্ছা! আচ্ছা! আমার একটু কাজ আছে! পরে কথা হবে?

বলেই দৌড় লাগালো। আমি উঠলাম না। বসে বসে একটা গুরুত্বপূর্ণ চিন্তা করতে লাগলাম, মানুষ যখন একেবারেই চলে যাবে তখন বলবে,গুডবাই! কিন্তু বাঙ্গালী বলে,পরে কথা হবে! এমন কেন?

লেখা- জান্নাতুল ফেরদৌস লাবণ্য

247 বার পঠিত (সেপ্টেম্বর ২০১৮ থেকে)

শেয়ার করুন


Avatar: কল্লোল

Re: চিন্তা

বেশ শিক্ষামূলক।

Avatar: বিপ্লব রহমান

Re: চিন্তা

পুরাই বোম্বে সুইটস চানাচু! আমোদ পাইলাম 😝


আপনার মতামত দেবার জন্য নিচের যেকোনো একটি লিংকে ক্লিক করুন