Ritwik Gangopadhyay RSS feed

Ritwik Gangopadhyayএর খেরোর খাতা।

আরও পড়ুন...
সাম্প্রতিক লেখালিখি RSS feed
  • যান্ত্রিক বিপিন
    (১)বিপিন বাবু সোদপুর থেকে ডি এন ৪৬ ধরবেন। প্রতিদিন’ই ধরেন। গত তিন-চার বছর ধরে এটাই বিপিন’বাবুর অফিস যাওয়ার রুট। হিতাচি এসি কোম্পানীর সিনিয়র টেকনিশিয়ন, বয়েস আটান্ন। এত বেশী বয়েসে বাড়ি বাড়ি ঘুরে এসি সার্ভিসিং করা, ইন্সটল করা একটু চাপ।ভুল বললাম, অনেকটাই চাপ। ...
  • কাইট রানার ও তার বাপের গল্প
    গত তিন বছর ধরে ছেলের খুব ঘুড়ি ওড়ানোর শখ। গত দুবার আমাকে দিয়ে ঘুড়ি লাটাই কিনিয়েছে কিন্তু ওড়াতে পারেনা - কায়দা করার আগেই ঘুড়ি ছিঁড়ে যায়। গত বছর আমাকে নিয়ে ছাদে গেছিল কিন্তু এই ব্যপারে আমিও তথৈবচ - ছোটবেলায় মাথায় ঢুকিয়ে দেওয়া হয়েছিল ঘুড়ি ওড়ানো "বদ ছেলে" দের ...
  • কুচু-মনা উপাখ্যান
    ১৯৮৩ সনের মাঝামাঝি অকস্মাৎ আমাদের বিদ্যালয়ের ষষ্ঠ(ক) শ্রেণী দুই দলে বিভক্ত হইয়া গেল।এতদিন ক্লাসে নিরঙ্কুশ তথা একচ্ছত্র আধিপত্য বিস্তার করিয়া ছিল কুচু। কুচুর ভাল নাম কচ কুমার অধিকারী। সে ক্লাসে স্বীয় মহিমায় প্রভূত জনপ্রিয়তা অর্জন করিয়াছিল। একটি গান অবিকল ...
  • 'আইনি পথে' অর্জিত অধিকার হরণ
    ফ্যাসিস্ট শাসন কায়েম ও কর্পোরেট পুঁজির স্বার্থে, দীর্ঘসংগ্রামে অর্জিত অধিকার সমূহকে মোদী সরকার হরণ করছে— আলোচনা করলেন রতন গায়েন। দেশে নয়া উদারবাদী অর্থনীতি লাগু হওয়ার পর থেকেই দক্ষিণপন্থার সুদিন সূচিত হয়েছে। তথাপি ১৯৯০-২০১৪-র মধ্যবর্তী সময়ে ...
  • সম্পাদকীয়-- অর্থনৈতিক সংকটের স্বরূপ
    মোদীর সিংহগর্জন আর অর্থনৈতিক সংকটের তীব্রতাকে চাপা দিয়ে রাখতে পারছে না। অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন শেষ পর্যন্ত স্বীকার করতে বাধ্য হয়েছেন যে ভারতের অর্থনীতি সংকটের সম্মুখীন হয়েছে। সংকট কতটা গভীর সেটা তার স্বীকারোক্তিতে ধরা পড়েনি। ধরা পড়েনি এই নির্মম ...
  • কাশ্মীরি পন্ডিত বিতাড়নঃ মিথ, ইতিহাস ও রাজনীতি
    কাশ্মীরে ডোগরা রাজত্ব প্রতিষ্ঠিত হবার পর তাদের আত্মীয় পরিজনেরা কাশ্মীর উপত্যকায় বসতি শুরু করে। কাশ্মীরি ব্রাহ্মণ সম্প্রদায়ের মানুষেরাও ছিলেন। এরা শিক্ষিত উচ্চ মধ্যবিত্ত ও মধ্যবিত্ত শ্রেনি। দেশভাগের পরেও এদের ছেলেমেয়েরা স্কুল কলেজে পড়াশোনা করেছে। অন্যদিকে ...
  • নিকানো উঠোনে ঝরে রোদ
    "তেরশত নদী শুধায় আমাকে, কোথা থেকে তুমি এলে ?আমি তো এসেছি চর্যাপদের অক্ষরগুলো থেকে ..."সেই অক্ষরগুলোকে ধরার আরেকটা অক্ষম চেষ্টা, আমার নতুন লেখায় ... এক বন্ধু অনেকদিন আগে বলেছিলো, 'আঙ্গুলের গভীর বন্দর থেকে যে নৌকোগুলো ছাড়ে সেগুলো ঠিক-ই গন্তব্যে পৌঁছে যায়' ...
  • খানাকুল - ২
    [এর আগে - https://www.guruchan...
  • চন্দ্রযান-উন্মত্ততা এবং আমাদের বিজ্ঞান গবেষণা
    চন্দ্রযান-২ চাঁদের মাটিতে ঠিকঠাক নামতে পারেনি, তার ঠিক কী যে সমস্যা হয়েছে সেটা এখনও পর্যন্ত পরিষ্কার নয় । এই নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়াতে শুরু হয়েছে তর্কাতর্কি, সরকারের সমর্থক ও বিরোধীদের মধ্যে । প্রকল্পটির সাফল্য কামনা করে ইসরো-র শীর্ষস্থানীয় বিজ্ঞানীরা ...
  • দেশত্যাগ...
    আমার এক বন্ধু ওর একটা ভিজিটিং কার্ড আমাকে দিয়েছিল। আমি হাতে নেওয়ার সময় কার্ডটা দেখে বুঝতে পারলাম কার্ডটা গতানুগতিক কোন কার্ড না, বেশ দামি বলা চলে। আমি বাহ! বলে কাজ শেষ করে দিলাম। আমি আমার বন্ধুকে চিনি, ওর কার্ডের প্রতি এরচেয়ে বেশি আগ্রহ দেখালে ও আমার মাথা ...


বইমেলা হোক বা নাহোক চটপট নামিয়ে নিন রঙচঙে হাতে গরম গুরুর গাইড ।

অগস্ত্য যাত্রা

Ritwik Gangopadhyay



স্বর্গ সারথি কলেজ স্ট্রীট ক্রশিঙে বিচ্ছিরি জ্যামে ফেঁসে গেলো। সামনে বাসের পর বাস কাতার দিয়ে দাঁড়িয়ে,যেন সৈন্যদল। অঘোরবাবু খিস্তি করলেন। তার খিস্তি কেউ শুনতে পেলোনা। স্বাভাবিক। স্বর্গ সারথির ভেতরে যারা শুয়ে থাকে, তাদের আর্তনাদ বা উল্লাস করার দিন ফুরিয়েছে বলেই ধরে নেওয়া হয়। অঘোরবাবু এই রুটেই যাতায়াত করেছেন অটোয় চেপে,বাসে চেপে। খিস্তিটা তাই অভ্যাস বশত চলে এলো। বিড়ি খাবেন বলে হাতড়ালেন প্যান্টের পকেট। বিড়ি নেই। প্যান্টই নেই,তার জায়গায় খড়খড়ে একটা ধুতি। আর কিছুক্ষন পরে তিনি নিজেই বিড়ির মতো পুড়ে ছাই হয়ে যাবেন। খুবই দুঃখের কথা। আকাশের দিকে তাকিয়ে থাকলেন। বৃষ্টি হবে আজ? বুকের ওপর দু পিস রজনীগন্ধার মালা,দুপিস শ্বেতপদ্মের চাকা। কবিতা টবিতা পড়া থাকলে তিনি হয়তো বলতেন - ফুলগুলো সরিয়ে নাও আমার লাগছে।সেসব বালাই ওনার নেই। জীবনে কতোবার ফুল পেয়েছেন? ফেয়ারওয়েল,বিয়ে,পঞ্চাশ বছরের বিবাহবার্ষিকীর সেই আদিখ্যেতা...। বিয়ের আগে? সাঁওতাল পরগনা। কুরচি ফুল। ম্যানেজার সাহেবের বাংলো। সুরঞ্জনা। সিগনাল ছেড়ে দিয়েছে।

ভালো থাকবেন অঘোরবাবু।

* * * * * * * * * * * * * * * * * * * * *

আজ আমাকে একটা শাড়ি কিনে দিয়েছে বিকাশদা। বিকাশদা খুব ভালো। আমার এখানে থাকতে আর ইচ্ছে করেনা৷ বাবাটা মাতাল। মা মরে বেঁচেছে। কাকু কাকীমা সংসার জবরদখল করেছে। আমি এখন ফালতু। বিকাশদার সঙ্গে আমার চক্কর চলছে। ওকেই বিয়ে করবো। খুব আদর করে,খুব ভালোবাসে। মোবাইলে অসুব্য অসুব্য কথা লেখে। হি হি। মাঝে মাঝে কোথায় উধাও হয় যায়। ওর নাকি কাপড়ের ব্যবসা। মুম্বাই আমেদাবাদ আরো সব কোথায় না কোথায় যায়। ওর বাড়ি পাশের গাঁয়ে। আমি যাইনি এখনো। বিকাশদার মা নাকি বিয়ে মানবেনা। কোই বাত নেই, পালিয়ে যাবো। বিকাশদা বলছে মুম্বাইতেই ঘর বাঁধবে।ভালো তো। আমার এখানে আছেই বা কি? কাছের লোক কেউ নেই। বন্ধুও নেই। অনেক অনেক শাড়ি পাবো। লিপ্সটিক নেলপালিশ। কি মজা। বিকাশদা,আমায় নিয়ে যাও। বিয়ে করো। ভালোবাসো। ছুঁড়ে ফেলে দেবে না তো? হারিয়ে যাবেনা তো? হাত ছেড়ে দেবেনা তো?

* * * * * * * * * * * * * * * * * * * * *

সেনাপতি ঘেন্নায় মুখ টুখ কুঁচকে তাকিয়ে ছিলো একটা মাংসপিন্ডের দিকে৷ নারকেল গাছের শিয়রে তখন হাওয়া দিচ্ছিলো শনশন। নদীর ঘাটে নৌকোর গলুই ঘা মারছিলো ঠকঠক শব্দে। ও কিচ্ছু শুনতে পাচ্ছিলোনা। অনিদ্রায় লাল দুটো চোখ একভাবে তাকিয়ে ছিলো। সেনাপতির বউ গুমরে গুমরে কাঁদছে আর ওটার ওপর একটা হাত আলগোছে রেখেছে। ড্যালাটার হাত পা মুখ আছে। এবং হ্যাঁ,যোনি আছে।

- আবার একটা। আবার!!!

- আমি কি করবো?

- শালার বারোভাতারি। সবার আগে তর গলা টিপে মারতে ইচ্ছা যায়।। তারপর ওটাকে গাঙের জলে...

- হাউ হাউ হাউ হাউ...

রাতের আকাশে আবছা লালের পোঁচ পড়ছে। ড্যালাটা নড়াচড়া করছে বারবার। এক্ষুনি ট্যাঁট্যা করবে। অসহ্য! সেনাপতি জান্তব ক্রোধে ওটাকে পাকড়ে ধরে। বউ আর্তনাদ করে ওঠে। সেনাপতি তার সন্তানের মুখের দিকে বিতৃষ্ণা ভরে তাকায়। চমকে ওঠে। ওর চোখদুটো মায়ের মতো না?

আজ থেকে ঠিক দশ বছর আগে এক বৃদ্ধার দেহ ভেসে গিয়েছিলো। কেউ জানেনা কি ভাবে ছোবল মেরেছিলো মৃত্যু। নদী কোন প্রশ্নের উত্তর দেয়নি। সেনাপতি থরথর করে কাঁপতে থাকে। তারপর একছুটে উধাও হয়ে যায়।

133 বার পঠিত (সেপ্টেম্বর ২০১৮ থেকে)

শেয়ার করুন



আপনার মতামত দেবার জন্য নিচের যেকোনো একটি লিংকে ক্লিক করুন