Ritwik Gangopadhyay RSS feed

Ritwik Gangopadhyayএর খেরোর খাতা।

আরও পড়ুন...
সাম্প্রতিক লেখালিখি RSS feed
  • আর কিছু নয়
    প্রতিদিন পণ করি, তোমার দুয়ারে আর পণ্য হয়ে থাকা নয় ।তারপর দক্ষিণা মলয়ের প্রভাবে, পণ ভঙ্গ করে, ঠিক ঠিকখুলে দেই নিজের জানা-লা। তুমি ভাব, মূল্য পড়ে গেছে।আমি ভাবি, মূল্য বেড়ে গেছে।কখন যে কার মূল্য বাড়ে আর কার কমে , এই কথা ক'জনাই বা জানে?এই না-জানাদের দলে আমিই ...
  • একা আমলকী
    বাইরে কে একটা চিৎকার করছে। বাইরে মানে এই ছোট্টো নোংরা কফির দোকানটা, যার বৈশিষ্ট্যহীন টেবিলগুলোর ওপর ছড়িয়ে রয়েছে খাবারের গুঁড়ো আর দেয়ালে ঝোলানো ফ্যাকাশে ছবিটা কোনো জলপ্রপাত নাকি মেয়ের মুখ বোঝা যাচ্ছে না — এই দোকানটার দরজার কাছে দাঁড়িয়ে কেউ চিৎকার করছে। ...
  • গল্পঃ রেড বুকের লোকেরা
    রবিবার। সকাল দশটার মত বাজে।শহরের মিরপুর ডিওএইচেসে চাঞ্চল্যকর খুন। স্ত্রীকে হত্যা করে স্বামী পলাতক।টিভি স্ক্রিণে এই খবর ভাসছে। একজন কমবয়েসী রিপোর্টার চ্যাটাং চ্যাটাং করে কথা বলছে। কথা আর কিছুই নয়, চিরাচরিত খুনের ভাষ্য। বলার ভঙ্গিতে সাসপেন্স রাখার চেষ্টা ...
  • মহাভারতের কথা অমৃতসমান ২
    মহাভারতের কথা অমৃতসমান ২চিত্রগুপ্ত: হে দ্রুপদকন্যা, যজ্ঞাগ্নিসম্ভূতা পাঞ্চালী, বলো তোমার কি অভিযোগ। আজ এ সভায় দুর্যোধন, দু:শাসন, কর্ণ সবার বিচার হবে। দ্রৌপদী: ওদের বিরূদ্ধে আমার কোনও অভিযোগ নেই রাজন। ওরা ওদের ইচ্ছা কখনো অপ্রকাশ রাখেন নি। আমার অভিযোগ ...
  • মহাভারতের কথা অমৃতসমান
    কুন্তী: প্রণাম কুরুজ্যেষ্ঠ্য গঙ্গাপুত্র। ভীষ্ম: আহ্ কুন্তী, সুখী হও। কিন্তু এত রাত্রে? কোনও বিশেষ প্রয়োজন? কুন্তী: কাল প্রভাতেই খান্ডবপ্রস্থের উদ্দেশ্যে যাত্রা করব। তার আগে মনে একটি প্রশ্ন বড়ই বিব্রত করছিল। তাই ভাবলাম, একবার আপনার দর্শন করে যাই। ভীষ্ম: সে ...
  • অযোধ্যা রায়ঃ গণতন্ত্রের প্রত্যাশা এবং আদালত
    বাবরি রায় কী হতে চলেছে প্রায় সবাই জানতেন। তার প্রতিক্রিয়াও মোটামুটি প্রেডিক্টেবল। তবুও সকাল থেকে সোশ্যাল মিডিয়া, মানে মূলতঃ ফেবু আর হোয়াটস অ্যাপে চার ধরণের প্রতিক্রিয়া দেখলাম। বলাই বাহুল্য সবগুলিই রাজনৈতিক পরিচয়জ্ঞাপক। বিজেপি সমর্থক এবং দক্ষিণপন্থীরা ...
  • ফয়সালা বৃক্ষের কাহিনি
    অতিদূর পল্লীপ্রান্তে এক ফয়সালা বৃক্ষশাখায় পিন্টু মাষ্টার ও বলহরি বসবাস করিত । তরুবর শাখাবহুল হইলেও নাতিদীর্ঘ , এই লইয়া , সার্কাস পালানো বানর পিন্টু মাষ্টারের আক্ষেপের অন্ত ছিলনা । এদিকে বলহরি বয়সে অনুজ তায় শিবস্থ প্রকৃতির । শীতের প্রহর হইতে প্রহর ...
  • গেরিলা নেতা এমএন লারমা
    [মানবেন্দ্র নারায়ণ লারমার ব্যক্তি ও রাজনৈতিক জীবনের মধ্যে লেখকের কাছে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ মনে হয়েছে, তার প্রায় এক দশকের গেরিলা জীবন। কারণ এম এন লারমাই প্রথম সশস্ত্র গেরিলা যুদ্ধের মাধ্যমে পাহাড়িদের আত্মনিয়ন্ত্রণের অধিকার প্রতিষ্ঠার স্বপ্ন দেখান। আর তাঁর ...
  • হ্যামলিনের বাঁশিওলা
    হ্যামলিনের বাঁশিওলার গল্পটা জানিস তো? একটা শহরে খুব ইঁদুরের উপদ্রব হয়েছিল। ইঁদুরের জ্বালায় শহরের লোকের ত্রাহি ত্রাহি রব। কিছুতেই ইঁদুর তাড়ান যাচ্ছেনা। এমন সময়ে হ্যামলিন শহর থেকে একজন বাঁশিওলা বাঁশি নিয়ে এল। শহরের মেয়রকে বলল যে উপযুক্ত পারিশ্রমিক পেলে সে ...
  • প্রেমের জীবন চক্র অথবা প্রেমিক-প্রেমিকার
    "তোমার মিলনে বুঝি গো জীবন, বিরহে মরণ"।প্রেমের চরম স্টেজটা পার করতে গিয়ে এই রকম একটা অনুভূতি আসে। একজন আরেকজনকে ছাড়া বাঁচে না। এই স্টেজটা যদি কোনভাবে খারাপের দিকে যায় তখন মানুষের নানা পাগলামি লক্ষ্য করা যায়। কখনো কখনো পাগলামিটা তার গন্ডি ছাড়িয়ে ছাগলামিতে ...


বইমেলা হোক বা নাহোক চটপট নামিয়ে নিন রঙচঙে হাতে গরম গুরুর গাইড ।

আনকথা যানকথা

Ritwik Gangopadhyay

*****আনকথা যানকথা*****

মোটরবাইক ঃ ইহা একটি দ্বিচক্রী স্থলযান। পেট্রল ডিজেল জাতীয় জীবাশ্ম জ্বালানির সাহায্যে চলে। বিভিন্ন আকারের ও বিভিন্ন ক্ষমতাসম্পন্ন মোটরবাইক আমরা দেখিতে পাই। কোন কোন বাইকের পাশে ক্যারিয়ার থাকে। শোলে বাইক আজকাল সেরকম দেখিতে পাওয়া যায়না। যানজট জনিত সমস্যায় বাইক অকুতোভয়, অত্যল্প জায়গার ভেতর দিয়েও ইহা নিষ্ক্রান্ত হইতে পারে। বাইকে চড়িবার পর হেলমেট পরিবার প্রয়োজন। অন্যথা ফেজ টুপি চলিতে পারে। রাস্তার মোড়ে পুলিশ দেখিতে পেলে শীর্ন গলিপথ ধরিয়া অন্তর্হিত হওয়াই শ্রেয় কারন বাইক বড়ই জরিমানাপ্রবণ। পুলিশের বাইকের অবশ্য সে ভয় নাই।বাইক আমাদের সময় বাঁচায়। যদিও বাইক চড়িয়াছে কিন্ত হাত পা মাজা ভাঙে নাই এমন লোক পাওয়া দুষ্কর।

বিধিবদ্ধ সতর্কীকরন ঃ রাত্রিকালে উচ্চগতিসম্পন্ন কিছু বাইক শহরের রাস্তায় দাপাইয়া বেড়ায়। উহারা ধরা ছোঁয়ার বাইরে থাকা নূতন যৌবনের দূত। উহাদের দেখা পাইলে রাস্তা ছাড়িয়া দেওয়াই ভালো। অন্যথা বিস্তর হেনস্থা হইতে পারে। এই বাইকগুলির একটি অদ্ভুত ক্ষমতা হইলো যে পুলিশ ইহাদের দেখিতে পায়না। এই প্রযুক্তি অভাবনীয়।

মনে রাখিবেন বাইকের কোন ধর্ম নাই।

ট্রাক ঃ ন্যূনতম চার চাকা বিশিষ্ট স্থলযান। ইহা ছাড়া আট, ষোল, বত্রিশ চাকারও হইতে পারে। পরিবহণ শিল্পে ইহারা ব্যবহৃত হয়। পেট্রোল বা ডিজেলে চলে। মূলত শহরাঞ্চলের বাইরেই এদের আনাগোনা যদিও কোন মন্ত্রবলে ইহারা ব্যস্ত প্রহরে শহরের কেন্দ্রস্থলে ঢুকিয়া পড়ে সে এক রহস্য। ইহা উচ্চগতিসম্পন্ন যান নহে কিন্ত দূরত্ব বজায় রাখাই কাম্য কারন ইহাদের ভরবেগ ও স্বাভিমান অত্যন্ত বেশী। ট্রাকে চড়িয়া যাওয়া বড়োই আনন্দদায়ক তাহা আলিয়া ভাট মাত্রেই জানেন।

বিধিবদ্ধ সতর্কীকরন ঃ একশ্রেণীর দুষ্ট ট্রাক মাঝে মাঝে নিরীহ জনতার উপরে ঝাঁপাইয়া পড়িয়া উহাদের পিষিয়া দ্যায়৷ এই ঘটনা বিদেশের সুদৃশ্য জনগনের উপরেই ঘটিয়া থাকে কারন উহাদের প্রাণের মূল্য বেশী।

মনে রাখিবেন ট্রাকের কোন ধর্ম নাই।

উড়োজাহাজ ঃ দ্বিপক্ষ বিশিষ্ট ভূযান। ইহা ছাড়া ল্যাজের কাছেও ক্ষুদ্রাকায় পাখা থাকে ভারসাম্যের জন্য। শীতাতপনিয়ন্ত্রিত এবং আরামপ্রদ এই খোঁদলের মধ্যে বসিয়া নব্য বিত্তশালীরা শ্লাঘাবোধ করিতে করিতে দ্রুত বিভিন্ন জায়গায় গমন করেন। উড়োজাহাজে উঠিতে গেলে নিরাপত্তামূলক ব্যবস্থার ভেতর দিয়ে যাইতেই হইবে। ফেজটুপিধারীদের এই জায়গায় খুবই হেনস্থার সম্মুখীন হইতে হয়। সুহাসিনী সেবিকা দ্বারা পরিচালিত এই অর্ণবপোত উচ্চজাতের পেট্রল দ্বারা চলাচল করে। উড়োজাহাজ ভাঙিয়া পড়িলে দ্রুত পরলোকগত হওয়া যায়। যুদ্ধের কাজে এদের ভূমিকা অনস্বীকার্য।পড়শী দেশের কাক ইহাদের খুবই ভয় পায়। ইহাদের ক্রয় বিক্রয় সংক্রান্ত কিছু ধোঁয়াশা আপাতত গেরুয়া ঝড়ে ভাসিয়া গিয়াছে।

বিধিবদ্ধ সতর্কীকরন ঃ উঁচু বাড়ির সাথে আলিঙ্গনবদ্ধ হওয়ার প্রবণতা আছে। অতএব ইহাদের খুব নীচে নামিতে দেখিলে মোবাইল তাক করিতে ভুলিবেন না। শব্দের চেয়েও জোরে ছুটিতে ছুটিতে শ্রীরাধিকা ও বাসুদেবের সেই প্রেমডোরে মিশে যাওয়া দেখিতে পাওয়া এক অভূতপূর্ব দৃশ্য।

মনে রাখিবেন উড়োজাহাজের কোন ধর্ম হয়না।

326 বার পঠিত (সেপ্টেম্বর ২০১৮ থেকে)

শেয়ার করুন


Avatar: ষষ্ঠ পাণ্ডব

Re: আনকথা যানকথা

"উড়োজাহাজ ঃ দ্বিপক্ষ বিশিষ্ট ভূযান" - এটাকে শুধু 'ভূযান' বললে কি ঠিক হয়, নাকি 'ভূ-ব্যোমযান' বললে ঠিক হয়? কখনো কখনো এটা অবশ্য 'ভূপাতিতযান'ও হয়।
Avatar: কল্লোল

Re: আনকথা যানকথা

একখানা যান ছিলো বেশ কিছুকাল আগে। আজকাল বড় চোখে পড়ে না।
একটি বা দুটি ছোট তক্তা জোড়া দিয়া চওড়ায় একফুট লম্বায় দেড় ফুট। পিছনে দুটি চাকা - আদতে দুটি বল বেয়ারিং। সামনে একটি কাঠের ফালি আড়াই ফুট লম্বা তক্তার তলা দিয়ে লাগানো তার সাথে একটি বল বেয়ারিং। এটি দিয়ে দিক পরিবর্তন করা যায়।
একজন বসে থাকে - সে কনট্রোলার, অন্যজন ঠেলে ও জোরে ঠেলে চড়ে বসে - সে ড্রাইভার। উভয়েই সওয়ারও বটে।

Avatar: dd

Re: আনকথা যানকথা

ভালো লাগলো
Avatar: Du

Re: আনকথা যানকথা

লরেন পার্টি সাধ্বীপন্থী।


আপনার মতামত দেবার জন্য নিচের যেকোনো একটি লিংকে ক্লিক করুন